ইউরো শেষ ইউনাইটেডের ভ্যান ডে বিকের

ডনি ভ্যান ডি বিক। ছবি: টুইটার

ইউরো শেষ ইউনাইটেডের ভ্যান ডে বিকের

ভ্যান ডে বিকের পরিবর্তে এখনও কাউকে দলে নেননি নেদারল্যান্ডস কোচ ফ্র্যাঙ্ক ডি বোর।

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে সময় মোটেও ভালো যাচ্ছিল না ডাচ মিডফিল্ডার ডনি ভ্যান ডে বিকের।

আয়াক্স থেকে তিন কোটি ৯০ লাখ ইউরোর বিনিময়ে ইউনাইটেডে যোগ দেয়ার পর মাত্র ৩৬ ম্যাচ খেলতে পেরেছেন। যার মধ্যে শুরু থেকেই একাদশে ছিলেন মাত্র ১৫ বার। তাতে গোল ও অ্যাসিস্ট করতে পেরেছেন মাত্র একটি করে।

তবুও ডাক পেয়েছিলেন ইউরো ২০২০ এর নেদারল্যান্ডস দলে। সেই স্বপ্নও ধুলিস্মাৎ হয়ে গেল ভ্যান ডে বিকের। কুঁচকির চোটে তিনি ছিটকে গেছেন ইউরোর এবারের আসর থেকে।

‘ইউরো থেকে সরে দাঁড়াতে হচ্ছে ডনি ভ্যান ডে বিককে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের এ মিডফিল্ডার চোট সমস্যায় ভুগছেন,’ এক বিবৃতিতে জানায় ডাচ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন।

ভ্যান ডে বিকের পরিবর্তে এখনও কাউকে দলে নেননি নেদারল্যান্ডস কোচ ফ্র্যাঙ্ক ডি বোর।

ইউরোর এবারের আসরে গ্রুপ সি এ আছে নেদারল্যান্ডস। রোববার ইউক্রেনের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ খেলবে তারা।

আরও পড়ুন:
ইউক্রেনের জার্সি নিয়ে রাশিয়া, আমেরিকায় উত্তাপ
লাটভিয়ার জালে সাত গোলে প্রস্তুতি সারল জার্মানি
লকডাউনে অবৈধ পথে ইউরোপে সাড়ে ৪ হাজার বাংলাদেশি

শেয়ার করুন

মন্তব্য

অদম্য রোনালডোকে রুখতে জার্মানির বিশেষ ছক

অদম্য রোনালডোকে রুখতে জার্মানির বিশেষ ছক

জার্মানির বিপক্ষে ম্যাচের আগে অনুশীলনে পর্তুগালের অধিনায়ক ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো। ছবি: এএফপি

রোনালডো এখনও অসাধারণ সেটা স্বীকার করতে দ্বিধা করেননি লোভ। তবে এটাও উল্লেখ করেন যে প্রতিভাবান কিছু তরুণ খেলোয়াড় যুক্ত হওয়ায় পর্তুগালের আক্রমণ আরও ক্ষুরধার হয়েছে।

ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে জার্মানির বিপক্ষে এফ-গ্রুপের ম্যাচে রাতে মাঠে নামছে পর্তুগাল। দুই দলের খেলা হলেও বরাবরের মতো আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো।

পর্তুগালের মহাতারকা হাঙ্গেরির বিপক্ষে জোড়া গোল করে ইউরোর সর্বোচ্চ গোলদাতার ইতিহাস গড়েছেন। মাঠের বাইরে কোকা-কোলার তার কারণেই পুঁজিবাজারে হারিয়েছে চার বিলিয়ন ডলার।

তারপরও জার্মানি ও পর্তুগালের কোচ ম্যাচের আগে বলছেন, রোনালডোই পর্তুগালের একমাত্র খেলোয়াড় নন।

‘পর্তুগাল একটা দল। ক্রিস্টিয়ানো রোনালডোই দলের সবকিছু নন। পর্তুগাল তার সব খেলোয়াড়দের নিয়েই গর্বিত। সবাইকে আমার চাঙ্গা রাখতে হয়। মাঠে ও বেঞ্চে যারা আছে সবাইকে,’ ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে বলেন পর্তুগালের কোচ ফার্নান্দো সান্তোস।

জার্মানির কোচ ওয়াকিম লোভের সুরও এক। পর্তুগালকে তিনিও ‘ওয়ান ম্যান শো’ ভাবছেন না।

‘ইউরো ২০১৬ সাল থেকে পর্তুগাল দলটা একসঙ্গে আছে। তারা ডিফেন্স, আক্রমণ ও বাতাসে আরও শক্তিশালী হয়েছে। পর্তুগাল এখন আর রোনালডোর ওয়ান ম্যান শো নেই।’

রোনালডো এখনও অসাধারণ সেটা স্বীকার করতে দ্বিধা করেননি লোভ। তবে এটাও উল্লেখ করেন যে প্রতিভাবান কিছু তরুণ খেলোয়াড় যুক্ত হওয়ায় পর্তুগালের আক্রমণ আরও ক্ষুরধার হয়েছে।

লোভ বলেন, ‘তাদের চার থেকে পাঁচজন বিশ্বমানের অ্যাটাকার আছে। ২০১২, ১৪ ও ১৬ সালে পর্তুগাল পুরোপুরি রোনালডোর উপর নির্ভর করত। এখন আর সেই অবস্থা নেই। যদিও সে এখনও অসাধারণ একজন খেলোয়াড়। তাকে নিয়ন্ত্রণ কীভাবে করব সেটা বের করতে হবে।’

ফ্রান্সের কাছে প্রথম ম্যাচ হারায় কিছুটা ব্যাকফুটে আছে জার্মানি। তার ওপর রাইট ব্যাক লুকাস ক্লস্টারমানের টুর্নামেন্ট শেষ হয়ে গেছে পায়ের চোটে। তবে ফিরেছেন লিওন গোরেটসকা।

ফ্রান্সের বিপক্ষে একাদশই খেলাবেন লোভ। যার অর্থ প্রথম ম্যাচে গোল না পাওয়া কাই হাভের্টস, সার্জ জিনাব্রি ও টমাস মুলারের ওপরই ভরসা রাখছেন লোভ।

রোনালডোকে ঠেকাতে এরিয়াল বলের উপর তার নিয়ন্ত্রণ কমাতে চাইছেন লোভ। সেক্ষেত্রে বক্সে পর্তুগিজ অধিনায়কের ওপর বাড়তি নজর রাখবেন ম্যাটস হামেলস ও আন্টোনিও রুডিগার।

অদম্য রোনালডোকে রুখতে জার্মানির বিশেষ ছক
পর্তুগালের বিপক্ষে ম্যাচে নামার আগে অনুশীলনে জার্মানি। ছবি: এএফপি

পর্তুগালের ইনজুরি সমস্যা নেই। তারাও খেলাতে পারে অপরিবর্তিত একাদশ। দুই কোচ যতই বলুন রোনালডোকে নিয়ে ভাবছেন না তারা, নিজের গোলস্কোরিং ফর্ম দিয়ে লোভকে অবশ্যই ভাবিয়ে তুলছেন সিআর সেভেন।

আগের ম্যাচে জোড়া গোল করা এই ইউভেন্তাস ফরোয়ার্ড মাত্র তিন গোল দূরে আলি দাইয়ির সর্বোচ্চ ১০৯ আন্তর্জাতিক গোলের রেকর্ড থেকে।

আজকের ম্যাচে পার্থক্য কমিয়ে আনতে চাইবেন রোনালডো। আর তেমনতা হলে গ্রুপ থেকে নক আউট নিশ্চিত হতে পারে চ্যাম্পিয়নদের।

মিউনিখের আলিয়াঞ্জ আরেনায় ম্যাচ শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায়।

আরও পড়ুন:
ইউক্রেনের জার্সি নিয়ে রাশিয়া, আমেরিকায় উত্তাপ
লাটভিয়ার জালে সাত গোলে প্রস্তুতি সারল জার্মানি
লকডাউনে অবৈধ পথে ইউরোপে সাড়ে ৪ হাজার বাংলাদেশি

শেয়ার করুন

ইউরোতে চলছে কোকের ট্রোলিং

ইউরোতে চলছে কোকের ট্রোলিং

কোকা-কোলাকে ট্রোলিং করেন রাশিয়ার কোচ স্তানিস্লাভ চেরচেশচ। ছবি: সংগৃহীত

আর্থিক ক্ষতির পাশাপাশি ইন্টারনেট ট্রোলিংয়েরও শিকার হতে হয়েছে কোকা-কোলাকে। জনপ্রিয় সব মিমে ব্যবহার করা হচ্ছে কোকের বোতল। 

ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো সংবাদ সম্মেলনে কোকা কোলার বোতল সরানোর পর থেকেই ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে শুরু হয়েছে তুলকালাম। সবাই যেন পেয়ে বসেছেন জনপ্রিয় এই কোমল পানীয় কোম্পানিকে।

রোনালডোর পর সংবাদ সম্মেলনের মঞ্চ থেকে বিয়ারে বোতল সরান ফ্রান্সের তারকা পল পগবা। মুসলিম তারকা পগবা অ্যালকোহল পান করেন না দেখেই ইউরোর অন্যতম স্পন্সর হাইনিকেনের বিয়ারের বোতল নিজের সামনে থেকে সরিয়ে রাখেন।

উলটো কাজটা করেছেন রাশিয়ার হেড কোচ স্তানিসলাভ চেরচেশভ। সামনে থাকা কোকের বোতল খুলে খানকটা পান করেন তিনি।

কোককে খোঁচা মারতে ছাড়েননি স্কটল্যান্ডের তারকা স্কট ম্যাকগিন। সংবাদ সম্মেলনে কোকা-কোলার বোতল দেখতে না পেয়ে তিনি জিজ্ঞেস করেন, ‘কোক নেই?’। একগাল হেসে এরপর নিজের পানির বোতল থেকে পানি পান করেন ম্যাকগিন।

ইউক্রেনের আন্দ্রেই ইয়ারমোলেঙ্কো ছিলেন এক কাঠি সরেস। সংবাদ সম্মেলনে কোক ও হেইনিকেনের বোতল দুটি নিজের কাছে টেনে নিয়ে বলেন, ‘ আমি এক কাজ করি। রোনালডোকে করতে দেখেছি এটা। আমি বোতলগুলো আমার কাছে নিয়ে আসি। কোক ও হেইনিকেন, দয়া করে আমার সঙ্গে যোগাযোগ করুন!’

ঘটনার সূত্রপাত মঙ্গলবার। ওইদিন সংবাদ সম্মেলনে রোনালডো তার সামনে রাখা দুটি কোকা-কোলার বোতল সরিয়ে রাখেন। আর নিজের হাতে রাখা পানির বোতল দেখিয়ে বলেন, ‘আগুয়া’। পর্তুগিজ ভাষায় আগুয়া মানে পানি। কোকের বদলে পানি পান করুন এমন একটা ইঙ্গিত দেন এই মেগাস্টার।

তার এই ছোট্ট একটা আচরণেই ব্যাপক লোকসানের মুখে পড়তে হয়েছে ইউরো ও ইউয়েফার অন্যতম পার্টনার কোকা-কোলাকে। ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন অনুযায়ী, রোনালডোর ওই ঘটনার পর কোকের শেয়ারের মূল্য কমেছে ১.৬ শতাংশ।

মঙ্গলবার ৫৬ দশমিক ১০ ডলার থেকে ৫৫ দশমিক ২২ ডলারে নেমে আসে বৈশ্বিক কোমল পানীয় কোম্পানিটির শেয়ারের মূল্য। কোকা-কোলা কোম্পানির মোট মূল্য এতে করে ২৪২ বিলিয়ন ডলার থেকে নেমে আসে ২৩৮ বিলিয়ন ডলারে। অর্থাৎ এক দিনের ব্যবধানে কোম্পানিটি হারিয়েছে চার বিলিয়ন ডলার (৩৪ হাজার কোটি টাকা প্রায়)।

আর্থিক ক্ষতির পাশাপাশি ইন্টারনেট ট্রোলিংয়েরও শিকার হতে হয়েছে কোকা-কোলাকে। জনপ্রিয় সব মিমে ব্যবহার করা হচ্ছে কোকের বোতল।

কোকা-কোলা বাধ্য হয়ে প্রতি বোতল কোমল পানীয়র সঙ্গে এক বোতল পানি সরবরাহ করছে দলগুলোকে। আর ইউয়েফা খেলোয়াড়দের অনুরোধ করেছে, তারা যেন আর সামনে রাখা বোতল না সরান।

আরও পড়ুন:
ইউক্রেনের জার্সি নিয়ে রাশিয়া, আমেরিকায় উত্তাপ
লাটভিয়ার জালে সাত গোলে প্রস্তুতি সারল জার্মানি
লকডাউনে অবৈধ পথে ইউরোপে সাড়ে ৪ হাজার বাংলাদেশি

শেয়ার করুন

জয়ের পর সতীর্থদের সঙ্গে হালকা মেজাজে মেসি

জয়ের পর সতীর্থদের সঙ্গে হালকা মেজাজে মেসি

কুলিং সেশন শেষে সতীর্থদের সঙ্গে লিওনেল মেসি। ছবি: ইন্সটাগ্র্যাম

গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের পর ভক্তদের উদ্দেশে জয় উৎসর্গ করেন মেসি। ম্যাচ শেষে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘সবকিছুই আমার নয়। গোলগুলো দলের জন্য। রেকর্ডগুলো ফ্যানদের জন্য।’

উরুগুয়ের বিপক্ষে জয়ে নির্ভার আর্জেন্টিনা দল। টানা তিন ম্যাচ ড্রয়ের পর একটি জয় স্বস্তি দিচ্ছে পুরো স্কোয়াডকে। ফুরফুরে মেজাজেই ক্যাম্পে ফিরেছেন লিওনেল মেসি-দি মারিয়ারা।

গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের পর ভক্তদের উদ্দেশে জয় উৎসর্গ করেন মেসি। ম্যাচ শেষে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘সবকিছুই আমার নয়। গোলগুলো দলের জন্য। রেকর্ডগুলো ফ্যানদের জন্য।’

কঠিন একটি ম্যাচ শেষে সতীর্থদের সঙ্গে কুলিং সেশনের পরের একটি ছবি দিয়েছেন মেসি। নিজের ইন্সটাগ্র্যাম পেইজে ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে মেসি লিখেছেন, ‘আমরা পেরেছি! একটা গুরুত্বপূর্ণ জয় ছিল আজকে। সামনের কঠিন ম্যাচগুলোর আগে এটা আমাদের মানসিকভাবে নির্ভার করবে।’

শনিবার সকালে কোপা আমেরিকায় নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে উরুগুয়েকে ১-০ গোলে হারায় লিওনেল মেসির দল।

‘বি’ গ্রুপের লড়াইয়ে আর্জেন্টিনার হয়ে জয়সূচক গোল আসে গিদো রদ্রিগেসের পা থেকে। গোলের কারিগর ছিলেন মেসি। গোল না পেলেও পুরো ম্যাচেই নিজের সেরা ছন্দে ছিলেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

এই জয়ে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের দুই ম্যাচ ও কোপা আমেরিকার এক ম্যাচে টানা ড্রয়ের পর জয় পেল আলবিসেলেস্তেরা। আর কোপা আমেরিকায় নিজেদের প্রথম ম্যাচেই হারের স্বাদ নিতে হলো টুর্নামেন্টে ১৫ বারের চ্যাম্পিয়ন উরুগুয়েকে।

নিজেদের পরের ম্যাচ মঙ্গলবার ভোর ৩টায় চিলির বিপক্ষে খেলবে উরুগুয়ে। আর একই দিন সকাল ৬টায় আর্জেন্টিনার প্রতিপক্ষ প্যারাগুয়ে।

আরও পড়ুন:
ইউক্রেনের জার্সি নিয়ে রাশিয়া, আমেরিকায় উত্তাপ
লাটভিয়ার জালে সাত গোলে প্রস্তুতি সারল জার্মানি
লকডাউনে অবৈধ পথে ইউরোপে সাড়ে ৪ হাজার বাংলাদেশি

শেয়ার করুন

আগের চেয়ে সৃষ্টিশীল মেসি

আগের চেয়ে সৃষ্টিশীল মেসি

উরুগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচে ডাবল ম্যান মার্কিংয়ের মুখোমুখি লিওনেল মেসি। ছবি: এএফপি

প্রতি ম্যাচে তার ড্রিবল, ডুয়েল জেতা, সুযোগ তৈরির সংখ্যা বাড়ছে। দলের সৃষ্টিশীলতার কেন্দ্রে থাকছেন মেসি। উরুগুয়ের বিপক্ষেও দেখা গেছে মেসি প্রান্ত বদল করছেন। বক্সের ভেতরে ঢুকে একজন ডিফেন্ডারকে বের করে আনছেন, যেন বাড়তি জায়গা পান মার্তিনেস-গনসালেসরা।

কোপা আমেরিকা শুরুর আগে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে সাবেক কলম্বিয়ান তারকা ফ্রেডি রিংকন বলেছিলেন, ‘মেসি আগের মতো নেই।’ রিংকন তাচ্ছিল্যের সুরে বললেও বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের শেষ দুই ম্যাচ ও কোপা আমেরিকার প্রথম দুই ম্যাচের পরিসংখ্যান বলছে মেসি আসলেই পালটে ফেলেছেন তার খেলা। আগের চেয়ে দলের জন্য অনেক বেশি কার্যকরী বিশ্বসেরা এই ফুটবলার।

লিওনেল মেসি আগের মতো গোলের পর গোল করেন না। জাদুকরি ড্রিবলে ডিফেন্স লাইন চুরমার করে গোলকিপারকে বোকা বানান না। ফরোয়ার্ড লাইনের মূলেই তিনি নেই। সেই জায়গা নিয়েছেন লাউতারো মার্তিনেস, নিকোলাস গনসালেসের মতো তরুণরা।

২৪ জুন ৩৪ পূর্ণ করতে যাওয়া মেসি এখন থাকছেন প্লে-মেকারের ভূমিকায়। গোল করার চেয়ে গোল করানোতে মনোযোগ বেশি আর্জেন্টাইন অধিনায়কের। অন্তত জাতীয় দলের পরিসংখ্যান তাই বলছে।

উরুগুয়ে ম্যাচে মেসির পরিসংখ্যান

অ্যাসিস্ট – ১টি

টার্গেটে শট – ১টি

ড্রিবল করেছেন – ৯টি

সুযোগ তৈরি করেছেন – ৫টি

ডুয়েল জিতেছেন – ১৫টি

ফাউলের শিকার – ৫ বার

সঠিক পাস – ৮৫%

ম্যান অফ দ্য ম্যাচ

উরুগুয়ের বিপক্ষে গোল না পেলেও, প্রতি ম্যাচে তার ড্রিবল, ডুয়েল জেতা, সুযোগ তৈরি করার সংখ্যা একই থাকছে। অর্থাৎ দলের সৃষ্টিশীলতার কেন্দ্রে থাকছেন মেসি।

তরুণ বয়সের মতো গতি না থাকলেও উরুগুয়ের বিপক্ষে দেখা গেছে মেসি ক্রমাগত প্রান্ত বদল করছেন। বক্সের ভেতরে ঢুকে একজন ডিফেন্ডারকে বের করে আনছেন, যেন বাড়তি জায়গা পান মার্তিনেস-গনসালেসরা।

প্রতিপক্ষের কাছে বল হারিয়ে নিচে নেমে বলের দখল ফিরিয়ে নিচ্ছেন মেসি। বক্স টু বক্স মিডফিল্ড প্লে-র পাশাপাশি খেলছেন অ্যাটাকিং মিডফিল্ডারের ভূমিকায়। বর্তমান বিশ্বে এতোগুলো পজিশনে স্বচ্ছন্দ্যে খেলতে পারা ফুটবলার আর নেই।

আগের চেয়ে সৃষ্টিশীল মেসি
উরুগুয়ের ফেদেরিকো ভালভের্দেকে ড্রিবলে পেছনে ফেলছেন লিওনেল মেসি। ছবি: এএফপি

এর সঙ্গে যোগ হচ্ছে ডেড বলে তার দক্ষতা। ফ্রি-কিকে বিশ্বের এক নম্বর তিনি এ কথা পরিসংখ্যানই বলছে। চিলির বিপক্ষে তার গোলটি ছিল তার ৫৭তম ফ্রি-কিক। যা বিশ্বের সর্বোচ্চ।

নিন্দুকেরা যতোই বলুক ওপেন প্লে-তে মেসির গোল নেই দেড় বছর যাবত। কিন্তু একই সময়ে প্লে-মেকিং ও সৃষ্টিশীলতার দিক দিয়ে আর্জেন্টিনার নম্বর দশ যে অনন্য সেটা সাক্ষ্য দিচ্ছে পরিসংখ্যান।

মেসির অনবদ্য পারফর্মেন্স তাকে দিয়ে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে ম্যান অফ দ্য ম্যাচ পুরস্কার ও আর্জেন্টিনাকে এনে দিয়েছে স্বস্তির এক জয়।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে আর্জেন্টিনার হেড কোচ লিওনেল স্কালোনিও স্বীকার করলেন এই কথা। তিনি বলেন, ‘এই জয়টা আমাদেরকে শান্ত রাখবে। শক্ত প্রতিপক্ষের বিপক্ষে আজ দল দারুণ খেলেছে। সলিড পারফর্মেন্স ছিল।’

আগের তিন ড্র হওয়া ম্যাচের সঙ্গে এই ম্যাচের পার্থক্য ছিল ফিনিশিং, এমনটা উল্লেখ করে স্কালোনি বলেন, ‘আগের ম্যাচের জয়টা আমাদের প্রাপ্য ছিল। আজকে ছেলেরা বাড়তি পরিশ্রম করে সুযোগটাকে গোলে পরিণত করেছে। আগের মতো হাতছাড়া করেনি।’

মেসি যেমন খেলছেন ও খেলাচ্ছেন দলকে, ফরোয়ার্ড লাইনে তাকে যদি সমর্থন দেন স্ট্রাইকাররা তাহলে এবারের কোপা আমেরিকায় আলবিসেলেস্তেরা যেতে পারে বহুদূর।

আরও পড়ুন:
ইউক্রেনের জার্সি নিয়ে রাশিয়া, আমেরিকায় উত্তাপ
লাটভিয়ার জালে সাত গোলে প্রস্তুতি সারল জার্মানি
লকডাউনে অবৈধ পথে ইউরোপে সাড়ে ৪ হাজার বাংলাদেশি

শেয়ার করুন

মেসির ঝলকে স্বস্তির জয় আর্জেন্টিনার

মেসির ঝলকে স্বস্তির জয় আর্জেন্টিনার

উরুগুয়ের ডিফেন্ডার মাতিয়াস ভিনিয়ার সঙ্গে বল দখলের লড়াইয়ে লিওনেল মেসি। ছবি: টুইটার

আর্জেন্টিনার হয়ে জয়সূচক গোল আসে গিদো রদ্রিগেসের পা থেকে। গোলের কারিগর ছিলেন মেসি। গোল না পেলেও পুরো ম্যাচেই নিজের সেরা ছন্দে ছিলেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

টানা তিন ম্যাচে পয়েন্ট খোয়ানোর পর অবশেষে জয়ের মুখ দেখল আর্জেন্টিনা। কোপা আমেরিকায় নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে উরুগুয়েকে ১-০ গোলে হারায় লিওনেল মেসির দল।

‘বি’ গ্রুপের লড়াইয়ে আর্জেন্টিনার হয়ে জয়সূচক গোল আসে গিদো রদ্রিগেসের পা থেকে। গোলের কারিগর ছিলেন মেসি। গোল না পেলেও পুরো ম্যাচেই নিজের সেরা ছন্দে ছিলেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব ও কোপা আমেরিকার উদ্বোধনী ম্যাচ মিলিয়ে টানা তিনি ম্যাচে জয়ের মুখ দেখেনি আর্জেন্টিনা। বরাবরের মতো মেসির দিকেই তাক করা হচ্ছিল আঙুল। সমালোচনার কেন্দ্রবিন্দুতেই ছিলেন ছয়বারের ব্যালন ডরজয়ী তারকা।

তবে জবাব দিতে দক্ষিণ আমেরিকান চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদেরই বেছে নিলেন মেসি। তার জ্বলে ওঠার দিনে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় ম্যাচে জয়ের দেখা পেল আর্জেন্টিনা। আর উদ্বোধনী ম্যাচেই হারতে হলো উরুগুয়েকে।

ব্রাসিলিয়ার ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক খেলতে থাকে আর্জেন্টিনা। ইতালিয়ান সেরি আর বর্ষসেরা ডিফেন্ডারের পুরস্কার পাওয়া ক্রিস্টিয়ান রোমেরো চোট কাটিয়ে ফেরায় তাদের ডিফেন্স শুরু থেকেই ছিল মজবুত।

প্রথম মিনিট থেকেই উরুগুইয়ান ডিফেন্সের ওপর চড়াও হন মেসি। তাকে আটকাতে হিমশিম খেতে হচ্ছিল হিমেনেস ও গদিনের মতো অভিজ্ঞ ডিফেন্ডারদের।

অষ্টম মিনিটে নিজের ঝলক দেখান মেসি। বক্সের ভেতর থেকে তার নেওয়া জোরালো শট ঠেকিয়ে দলকে নিরাপদে রাখেন উরুগুয়ে গোলকিপার ফার্নান্দো মুসলেরা।

মিনিট পাঁচেক পর আবারও মেসির জাদু। এবার তার ক্রসে মাথা ছুঁইয়ে দলকে লিড এনে দেন গিদো রদ্রিগেস।

মেসির ঝলকে স্বস্তির জয় আর্জেন্টিনার
ম্যাচের একমাত্র গোল করার পর উচ্ছ্বসিত আর্জেন্টিনার গিদো রদ্রিগেস। ছবি: টুইটার

১৩ মিনিটে পাওয়া গোলের লিড পুরো ম্যাচেই ধরে রাখে আর্জেন্টিনা। মেসি একের পর এক বলের জোগান দিতে থাকেন রদ্রিগো দে পল, লাউতারো মার্তিনেসদের।

বিরতির পরও পাল্টায়নি চিত্র। মেসিকে কেন্দ্র করে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা বারবার গড়ে তোলে আক্রমণ। অন্যদিকে উরুগুয়ের দুই সেরা তারকা এদিনসন কাভানি ও লুইস সুয়ারেস ছিলেন নিষ্প্রভ।

পুরো ম্যাচে একটিও শট অন টার্গেট ছিল না উরুগুয়ের। আর্জেন্টিনা গোলে শট নিয়েছে ছয়টি।

ম্যাচে সমতা ফেরানোর চেয়ে সেলেস্তেরা ব্যস্ত ছিল মেসিকে ঠেকাতে। দ্বিতীয়ার্ধেও একের পর এক ড্রিবল ও ডিফেন্স চেরা পাসে প্রতিপক্ষকে আতঙ্কে রাখেন মেসি।

শেষ পর্যন্ত তিন ম্যাচ পর জয়ের স্বস্তি নিয়ে মাঠ ছাড়ে তার দল।

এই জয়ে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের দুই ম্যাচ ও কোপা আমেরিকার এক ম্যাচে টানা ড্রয়ের পর জয় পেল আলবিসেলেস্তেরা। আর কোপা আমেরিকায় নিজেদের প্রথম ম্যাচেই হারের স্বাদ নিতে হলো টুর্নামেন্টে ১৫ বারের চ্যাম্পিয়ন উরুগুয়েকে।

নিজেদের পরের ম্যাচ মঙ্গলবার ভোর ৩টায় চিলির বিপক্ষে খেলবে উরুগুয়ে। আর একই দিন সকাল ৬টায় আর্জেন্টিনার প্রতিপক্ষ প্যারাগুয়ে।

আরও পড়ুন:
ইউক্রেনের জার্সি নিয়ে রাশিয়া, আমেরিকায় উত্তাপ
লাটভিয়ার জালে সাত গোলে প্রস্তুতি সারল জার্মানি
লকডাউনে অবৈধ পথে ইউরোপে সাড়ে ৪ হাজার বাংলাদেশি

শেয়ার করুন

হাসপাতাল ছাড়লেন এরিকসেন

হাসপাতাল ছাড়লেন এরিকসেন

ক্রিস্টিয়ান এরিকসেন। ফাইল ছবি

নিবার রাতে হার্ট অ্যাটাকের পর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এরিকসেনকে। তারপর তার সফল অস্ত্রোপচার শেষে শুক্রবার তাকে হাসপাতাল থেকে রিলিজ করা করা হয়।

হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ডেনমার্কের তারকা ক্রিস্টিয়ান এরিকসেন। ডেনিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন এক বিবৃতিতে এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, শনিবার রাতে হার্ট অ্যাটাকের পর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এরিকসেনকে। তারপর তার সফল অস্ত্রোপচার শেষে শুক্রবার তাকে হাসপাতাল থেকে রিলিজ করা করা হয়।

ডেনিশ অ্যাসোসিয়েশন আরও জানায়, হেলসিঙ্গারে অনুশীলনরত ডেনিশ জাতীয় দলের সতীর্থদের সঙ্গে দেখা করেন এরিকসন। ক্যাম্প থেকে কোপেনহেগেনে নিজের বাড়িতে ফিরছেন তিনি। পুনর্বাসনের সময়টা কাটাবেন পরিবারের সঙ্গে।

ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে ফিনল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে শনিবার রাতে মাঠেই হার্ট অ্যাটাক করেন ২৯ বছর বয়সী এরিকসেন।

পুরো বিশ্বকে নাড়িয়ে দেয়া এই ঘটনার পর গত মঙ্গলবার এরিকসেন হাসপাতাল থেকে তোলা সেলফি ইনস্টাগ্র্যামে পোস্ট করে সবাইকে ধন্যবাদ জানান। লেখেন, ‘হ্যালো সবাই! বিশ্বের বিভিন্ন জায়গা থেকে আসা অসাধারণ ও ভালোবাসাপূর্ণ সব শুভেচ্ছা ও বার্তার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ। আমার ও আমার পরিবারের জন্য এ এক অনেক বড় পাওয়া।’

মাঠে হার্ট অ্যাটাকের পর প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে মাঠের বাইরে নিয়ে যাওয়া হয়। রোববার রাতে প্রায় দেড় ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর আবারও শুরু হয় ম্যাচ। ডেনমার্ক ফিনল্যান্ডের কাছে একমাত্র গোলে হেরে গেলেও হার-জিতের চেয়ে দুই দলের কাছেই বড় ছিল এরিকসেনের সুস্থতা।

এরিকসেনকে ছাড়া নিজেদের পরবর্তী ম্যাচে বেলজিয়ামের কাছে ২-১ গোলে হেরে যায় ডেনমার্ক। বি-গ্রুপ থেকে পরের রাউন্ডে যাওয়ার গাণিতিক সম্ভাবনা বাঁচিয়ে রাখতে হলে মঙ্গলবার রাশিয়ার বিপক্ষে নিজেদের শেষ ম্যাচ জিততেই হবে ডেনমার্ককে।

আরও পড়ুন:
ইউক্রেনের জার্সি নিয়ে রাশিয়া, আমেরিকায় উত্তাপ
লাটভিয়ার জালে সাত গোলে প্রস্তুতি সারল জার্মানি
লকডাউনে অবৈধ পথে ইউরোপে সাড়ে ৪ হাজার বাংলাদেশি

শেয়ার করুন

টানা দ্বিতীয় ম্যাচে পয়েন্ট হারাল ক্রোয়েশিয়া

টানা দ্বিতীয় ম্যাচে পয়েন্ট হারাল ক্রোয়েশিয়া

ক্রোয়েশিয়ার সমতাসূচক গোলটি আসে ইভান পেরিসিচের পা থেকে। ছবি: টুইটার

চেক রিপাবলিকের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে লুকা মডরিচের দল। চেকদের পক্ষে গোল করেন প্যাটট্রিক শিক। ক্রোয়াটদের সমতায় ফেরান ইভান পেরিসিচ।

ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে জয়হীন থাকল বিশ্বকাপ রানার্স আপ ক্রোয়েশিয়া। গ্রুপ ডি-এর ম্যাচে চেক রিপাবলিকের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে লুকা মডরিচের দল।

স্কটল্যান্ডের হ্যাম্পডেন পার্কে অনন্য এক রেকর্ড নিয়ে মাঠে নামে ক্রোয়েশিয়া। সবশেষ দশটি মেজর টুর্নামেন্টে তারা কখনও নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচ হারেনি। ২০১৬ ইউরোতে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে চেক রিপাবলিকের সঙ্গেই ২-২ গোলে ড্র করে তারা।

একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে এবারের টুর্নামেন্টে শুরুটা ভালো হয়নি ক্রোয়াটদের। দ্বিতীয় মিনিটে ইয়াঙ্কটোর ক্রস নিজেদের বক্স থেকে পুরোপুরি ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হন ক্রোয়েশিয়ার ডিফেন্ডার সিমে ভারসালিকো।

ছুটে যাওয়া বলে হেড করেন ভ্লাদিমির কুফাল। কাছ থেকে দারুণ ব্লক করে ক্রোয়াটদের সুরক্ষিত রাখেন অভিজ্ঞ ডোমাগোই ভিডা।

চেক রিপাবলিক গোল করতে না পারলেও হতাশ হয়নি। বারবার চেষ্টা করে গেছে ক্রোয়াটদের বক্সে। এর ফল পায় তারা বিরতির আগে।

৩৫ মিনিটে নিজেদের বক্সে প্যাটট্রিক শিককে ফাউল করেন ক্রোয়েশিয়ার ডেয়ান লভরেন। ভিডিও অ্যাসিস্টেন্টের সাহায্য নিয়ে রেফারি পেনাল্টির নির্দেশ দেন।

পেনাল্টি স্পট থেকে ঠাণ্ডা মাথায় লক্ষ্যভেদ করেন শিক। টুর্নামেন্টে এটি তার দ্বিতীয় গোল। ওই এক গোলে এগিয়ে থেকেই প্রথমার্ধ শেষ করে চেকরা।

বিরতির পরপরই সমতায় ফেরে ক্রোয়েশিয়া। আন্দ্রেই ক্রামারিকের ফ্রি-কিক থেকে বল পেয়ে যান ইভান পেরিসিচ। কুফালকে ডজ দিয়ে দারুণ শটে লক্ষ্যভেদ করেন এই ইন্টার মিলান উইঙ্গার।

কামব্যাক করে উজ্জ্বীবিত হয়ে খেলা শুরু করে বিশ্বকাপ ফাইনালিস্টরা। তবে কাছ থেকে শট বারে রাখতে ব্যর্থ হন নিকোলা ভ্লাসিচ।

আর শেষ মুহূর্তে ব্রুনো পেটকোভিচের শট ঠেকিয়ে দেন চেক রিপাবলিকের ডিফেন্ডার টমাস কালাস।

ফলে ১-১ সমতাতেই শেষ হয় ম্যাচ। ড্রয়ের পরও দুই ম্যাচে চার পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে চেক রিপাবলিক।

আর টানা দ্বিতীয় ম্যাচে জয় বঞ্চিত থাকায় তারা আছে গ্রুপের তিনে। বুধবার ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে চেক রিপাবলিক আর ক্রোয়েশিয়া খেলবে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে

আরও পড়ুন:
ইউক্রেনের জার্সি নিয়ে রাশিয়া, আমেরিকায় উত্তাপ
লাটভিয়ার জালে সাত গোলে প্রস্তুতি সারল জার্মানি
লকডাউনে অবৈধ পথে ইউরোপে সাড়ে ৪ হাজার বাংলাদেশি

শেয়ার করুন