ভারতকে হারাতে কাতার প্রবাসীদের মাঠে চান জামালরা

অনুশীলনের সময় ফ্রেমবন্দী জাতীয় ফুটবলাররা। ছবি: বাফুফে

ভারতকে হারাতে কাতার প্রবাসীদের মাঠে চান জামালরা

ভারতের বিপক্ষে পয়েন্ট আশা করছে বাংলাদেশ। লাল-সবুজদের উজ্জ্বীবিত করতে গ্যালারিতে সমর্থন চাইছেন জামাল-রাকিব-রাফিরা।

কাতারের দোহায় সোমবার বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইয়ের ম্যাচ খেলতে নামবে বাংলাদেশ। ভারতের বিপক্ষে এই ম্যাচে স্টেডিয়ামে কাতার প্রবাসী বাংলাদেশিদের মাঠে থাকার আহ্বান জানিয়েছে জাতীয় ফুটবল দল।

ভারতের বিপক্ষে পয়েন্ট আশা করছে বাংলাদেশ। লাল-সবুজদের উজ্জ্বীবিত করতে গ্যালারিতে সমর্থন চাইছেন জামাল-রাকিব-রাফিরা।

রোববার সংবাদমাধ্যমকে দেয়া ভিডিও বার্তায় জাতীয় দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া বলেন, ‘কাতারে যারা বাংলাদেশি আছেন দয়া করে মাঠে আসুন। আমাদের সমর্থন দিন।’

অধিনায়কের সুরে সুর মিলিয়ে জাতীয় দলের ফরোয়ার্ড রাকিব হাসান বলেন, ‘ভারতের বিপক্ষে সুযোগ পেলে সর্বোচ্চটা দেয়ার চেষ্টা করব। ভারতের সঙ্গে ম্যাচ হলে আমাদের মধ্যে অন্যরকম অনুভূতি কাজ করে। আমরা চাই ওদের সঙ্গে ভালো খেলে পয়েন্ট নিতে। আমরা চাই কাতার প্রবাসে যারা আছেন তারা যেন মাঠে আসেন। আমাদের সাপোর্ট দেন।’

এদিকে ভারত ম্যাচে নিজেদের রক্ষণটাকে জমাট রাখার প্রতিশ্রুতি দেন জাতীয় দলের ডিফেন্ডার রিয়াদুল হাসান রাফি।

অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে চান তিনি, ‘ভারতের সঙ্গে যদি রক্ষণটাকে জমাট রাখতে পারি তাহলে ভালো কিছু হবে। আফগানিস্তানের বিপক্ষে আমরা দুর্ভাগ্যবশত গোলটা খেয়ে গেছি। আমাদের ডিফেন্স নিয়ে সলিড থাকি তাহলে ম্যাচটা বের করে নিয়ে আসতে পারব।’

ভারতের শক্তিমত্তা নিয়ে দল কাজ করছে উল্লেখ করে রাফি বলেন, ‘ভারতের বিপক্ষে এর আগে ম্যাচ খেলেছি। ওই ম্যাচে আমি নিজেও ছিলাম। সুতরাং জানি ওরা আক্রমণকে কীভাবে সাজাতে পারে। সুনীল ছেত্রিকে কীভাবে মার্ক করা যাবে আর ওদের আক্রমণভাগকে কীভাবে অকার্যকর করা যাবে সেটা নিয়ে কাজ করছি।’

বাংলাদেশ সময় রাত আটটায় কাতারের দোহায় জসিম বিন হামাদ স্টেডিয়ামে ভারতের বিপক্ষে নামবে বাংলাদেশ।

আরও পড়ুন:
১৮ বছরের আক্ষেপ মেটাতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ
ভারতের বিপক্ষেও পয়েন্টের আশা বাংলাদেশের
ভারতের বিপক্ষে পয়েন্ট চায় বাংলাদেশ
বাংলাদেশকে গোল করতে দেবে না ভারত, আদিলের হুংকার
আত্মবিশ্বাস ভারতের বিপক্ষেও ধরে রাখতে চায় বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

মন্তব্য

এরিকসেনের ম্যাচ জিতে নকআউটে বেলজিয়াম

এরিকসেনের ম্যাচ জিতে নকআউটে বেলজিয়াম

থরগান অ্যাজারের সঙ্গে নিজের গোল উদযাপন করছেন বেলজিয়ামের কেভিন ডি ব্রুইনা। ছবি: টুইটার

কেভিন ডি ব্রুইনার জাদুতে গ্রুপ বি-এর লড়াইয়ে ডেনমার্ককে হারিয়েছে তারা। পিছিয়ে পড়েও শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলে ম্যাচ জিতে নেয় বেলজিয়াম।

ইউরো ২০২০ এর দ্বিতীয় দল হিসেবে ইতালির পর নক আউট পর্ব নিশ্চিত করেছে বেলজিয়াম। দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নামা কেভিন ডি ব্রুইনার জাদুতে গ্রুপ বি-এর লড়াইয়ে ডেনমার্ককে হারিয়েছে তারা। পিছিয়ে পড়েও শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলে ম্যাচ জিতে নেয় বেলজিয়াম।

কোপেনহেগেনের পারকেন স্টেডিয়ামে দুই দল ম্যাচের আগে স্মরণ করে ডেনমার্কের সেরা তারকা ক্রিস্টিয়ান এরিকসেনকে। এরিকসেন আগের ম্যাচে ফিনল্যান্ডের বিপক্ষে খেলার সময় মাঠেই হার্ট অ্যাটাক করেন। হাসপাতালে সুস্থ হয়ে উঠছেন তিনি।

পুরো বিশ্বকে নাড়া দেয়ার মতো ওই ঘটনা ছুঁয়ে যায় ইউরোর উত্তেজনাকেও। বেলজিয়ামের তারকা স্ট্রাইকার ও এরিকসেনের ক্লাব সতীর্থ রোমালু লুকাকু নিজের প্রথম গোল উৎসর্গ করেন হাসপাতালে থাকা বন্ধুকে।

তাই বেলজিয়াম-ডেনমার্ক ম্যাচে যুদ্ধংদেহী ভাবতো দূরের কথা, দুই দলের সমর্থক ও খেলোয়াড়রা ম্যাচের আগে পুরোটা সময় স্মরণ করলেন এরিকসেনকে।

ম্যাচের দিন সকালে এরিকসেন এক বিশেষ বার্তায় ডেন সতীর্থদের জানান, কেবিনের বেড থেকেই তাদের জন্য গলা ফাটাবেন।

সে উৎসাহেই কিনা, ম্যাচ শুরু হওয়ার মাত্র দুই মিনিটে এগিয়ে যায় ডেনমার্ক। বেলজিয়ামের ডিফেন্ডার জেসন ডেনায়েরের ভুলে প্রতিপক্ষের অর্ধে বল পেয়ে যান ডেনিশ মিডফিল্ডার পিয়েরে-এমিল হইবার্গ।

বক্সের কাছে থাকা ইউসেফ পোলসেনকে খুঁজে নেন তিনি। সেকেন্ড টাচে শট নিয়ে বেলজিয়ান গোলকিপার থিবো কোঁতোয়াকে পরাস্ত করেন পোলসেন।

শুরুতেই গোল হজম করে কিছুটা হতচকিত হয়ে পড়ে বেলজিয়ানরা। ধীরে সুস্থে নিজেদের ফিরে পেলেও প্রথমার্ধে গোলের দেখা পায়নি রেড ডেভিলস। ম্যাচের প্রথমার্ধে এরিকসেনের স্মরণে এক মিনিট বন্ধ থাকে খেলা। এ সময় করতালি দিয়ে এরিকসেনকে স্মরণ করে পুরো স্টেডিয়াম।

বিরতির পর স্বাগতিকদের ওপর চাপ বাড়াতে থাকে বেলজিয়াম। ড্রিস মের্টেনসকে উঠিয়ে কেভিন ডি ব্রুইনাকে মাঠে নামান বেলজিয়ান কোচ রবার্তো মার্তিনেস।

এর ফলটাই পায় তারা হাতে নাতে। ডি ব্রুইনার অ্যাসিস্ট থেকে দ্বিতীয়ার্ধের নয় মিনিটে ম্যাচে সমতা ফেরান থরগান অ্যাজার।

লুকাকুর শুরু করা কাউন্টার অ্যাটাক থেকে বল পান ডি ব্রুইনা। বক্সে থাকা অ্যাজারের পায়ে বল তুলে দেন এই ম্যানচেস্টার সিটি তারকা। স্কোরলাইনকে ১-১ করতে ভুল করেননি অ্যাজার।

সমতায় ফিরে ডেনদের আর ম্যাচে সুযোগ দেয়নি বেলজিয়াম। ৭১ মিনিটে কামব্যাক সম্পূর্ন করে ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর দলটি।

লুকাকু ও ইউরি তিয়েলমানসের সঙ্গে বল আদান প্রদান করে ইডেন অ্যাজার চূড়ান্ত পাস দেন ডি ব্রুইনাকে। বেলজিয়ামের প্রথম গোলের কারিগর এবার নিজেই স্কোরশিটে নাম ওঠান।

ডেনরা ম্যাচে ফেরার সুযোগ পায় একেবারে শেষ মুহূর্তে। কিন্তু আন্দ্রেয়াস ওলসেনের ক্রস থেকে মার্টিন ব্র্যাথওয়েইটের হেড বারে লেগে প্রতিহত হয়। শেষ হয়ে যায় ডেনমার্কের ড্রয়ের স্বপ্ন।

এই জয়ে বি-গ্রুপের সেরা দল হিসবেই নক আউট নিশ্চিত করেছে বেলজিয়াম। নিজেদের শেষ গ্রুপ ম্যাচে মঙ্গলবার ফিনল্যান্ডের মুখোমুখি হবে তারা।

আর টানা দুই ম্যাচ হেরে গ্রুপের তলানিতে থাকা ডেনমার্ককে পরের রাউন্ডে যাওয়ার গাণিতিক সম্ভাবনা বাঁচিয়ে রাখতে হলে একইদিন রাশিয়ার বিপক্ষে নিজেদের শেষ ম্যাচ জিততেই হবে।

আরও পড়ুন:
১৮ বছরের আক্ষেপ মেটাতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ
ভারতের বিপক্ষেও পয়েন্টের আশা বাংলাদেশের
ভারতের বিপক্ষে পয়েন্ট চায় বাংলাদেশ
বাংলাদেশকে গোল করতে দেবে না ভারত, আদিলের হুংকার
আত্মবিশ্বাস ভারতের বিপক্ষেও ধরে রাখতে চায় বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

পাঁচ বিশ্বকাপ বাছাইয়ে এবারই ‘সেরা’ বাংলাদেশ

পাঁচ বিশ্বকাপ বাছাইয়ে এবারই ‘সেরা’ বাংলাদেশ

কলকাতায় ভারতের বিপক্ষে ড্রয়ের ম্যাচে বাংলাদেশের গোল উদযাপন। ছবি: সংগৃহীত

পরিসংখ্যানটা নিউজবাংলাটুয়েন্টিফোরডটনেট বের করেছে গত পাঁচ বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বাংলাদেশের ম্যাচ খেলার ওপর। অন্তত পাঁচটি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ পরিসংখ্যানে তার হিসেব ধরা হয়েছে।

বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইয়ে ২২তম দেশ হিসেবে তৃতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপ বাছাই থেকে ছিটকে গেলেও এশিয়ান কাপের তৃতীয় রাউন্ডে আরও ছয়টি ম্যাচ খেলার সুযোগ রয়েছে জামাল-তপুদের।

তার আগে এক নজর দেয়া যাক একবিংশ শতাব্দিতে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বাংলাদেশের রেকর্ডের দিকে।

ভাগ্যের ছোঁয়ায় তৃতীয় রাউন্ড নিশ্চিত হলেও পরিসংখ্যানে দেখা যায়, গত পাঁচ বিশ্বকাপ বাছাইয়ে দল সেরা পারফর্ম করেছে এবারই!

পাঁচজনের অধিক নিয়মিত ফুটবলার ছাড়াই, আট ম্যাচের মাত্র একটিতে হোম ভেন্যুর সুযোগ পেয়ে, মাত্র দুই ড্রয়ে কীভাবে সেরা বলা যায় সে প্রশ্ন উঠতেই পারে।

তার উত্তরে ঘাটা যেতে পারে পরিসংখ্যান। পরিসংখ্যান করা হয়েছে গত পাঁচ বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বাংলাদেশের ম্যাচ খেলার ওপর ভিত্তি করে। অন্তত পাঁচটি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ পরিসংখ্যানে তার হিসেব ধরা হয়েছে।

শুরুতেই ২০০২ সালের কোরিয়া-জাপান বিশ্বকাপে। প্রায় ১৯ বছর আগের এই বাছাইয়ে ছয় ম্যাচে ১৫ গোল হজম করে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষের জালে বল পাঠিয়েছে পাঁচবার।

চার বছর পর জার্মানি বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রথম রাউন্ডে তাজিকিস্তানের সঙ্গে দুই ম্যাচে হেরে দ্বিতীয় রাউন্ড খেলা হয়নি বাংলাদেশের। দুই ম্যাচে দুটি করে গোল হজম করে বাংলাদেশ। সেবার এক ড্র করে লাওস নিশ্চিত করেছিল দ্বিতীয় রাউন্ড।

এরপর ২০১০ সালের সাউথ আফ্রিকা বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রথম রাউন্ডে আবারও প্রতিপক্ষ তাজিকিস্তান। সেবারও দুই ম্যাচ মিলিয়ে হারে লাল-সবুজরা। ঘরের মাঠে ১-১ গোলে ড্র আর দ্বিতীয় ম্যাচে ৫-০ গোলে তাজিকদের কাছে হেরে বাছাই থেকে বিদায় নিতে হয় বাংলাদেশকে।

পাঁচ বিশ্বকাপ বাছাইয়ে এবারই ‘সেরা’ বাংলাদেশ
দোহায় অনুশীলনে জাতীয় ফুটবল দল। ফাইল ছবি

২০১৪ ব্রাজিল বিশ্বকাপ বাছাইয়ে এসে দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার সুযোগ হয় বাংলাদেশের। সেবার প্রথম রাউন্ডে ঘরের মাঠে পাকিস্তানকে ৩-০ ব্যবধানে হারিয়ে দ্বিতীয় লেগে গোলশূন্য ড্র করে বাংলাদেশ। ফলে কোয়ালিফাই করে দ্বিতীয় রাউন্ডে।

দ্বিতীয় রাউন্ডে ঘরের মাঠে লেবাননকে ২-০ গোলে হারিয়ে দ্বিতীয় লেগ ৪-০ ব্যবধানে হেরে তৃতীয় রাউন্ডে যাওয়া হয়নি বাংলাদেশের। দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই বিদায় নিতে হয় লাল-সবুজদের।

গত রাশিয়া বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রথম রাউন্ডে আট ম্যাচের সাতটিতে হার ও একটি মাত্র ড্র করে বাংলাদেশ। সেবার সব মিলে ৩২ গোল হজম করে প্রতিপক্ষে জালে পাঠাতে পেরেছিল মাত্র দুটি।

সেবারই ভুটান ট্র্যাজেডি হয়ে প্রায় ১৮ মাস নির্বাসনে ছিল দেশের ফুটবল। সবচেয়ে বাজে পারফরম্যান্স চার বছর আগেই হয়েছে লাল-সবুজদের।

শেষে এবার ২০২২ বিশ্বকাপ বাছাইয়ে আট ম্যাচে গোল হজম করেছে ১৯টা। গোল করেছে তিনটা। ছয়টি হারের পাশাপাশি দুইটি ড্র।

সবমিলে অন্তত পাঁচ ম্যাচের হিসেবে কোরিয়া-জাপান বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ম্যাচ প্রতি ২.৫টি গোল হজম করে বাংলাদেশ। ২০০৬ ও ২০১০ এর বাছাইয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে ব্যর্থ হলে হিসেবের বাইরে চলে যাচ্ছে এই দুই বাছাই। ২০১৪ সালের বাছাইপর্বে মাত্র দুই ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। সেবারও বিদায় নেয় বাংলাদেশ দ্বিতীয় রাউন্ডের থেকে।

পাঁচ বিশ্বকাপ বাছাইয়ে এবারই ‘সেরা’ বাংলাদেশ
সবমিলে চার হোম ম্যাচের মাত্র একটি খেলার সুযোগ পেয়েছে বাংলাদেশ। ফাইল ছবি

রাশিয়া বিশ্বকাপ বাছাইয়ে আট ম্যাচে ৩২ গোল হজম করে বাংলাদেশ। প্রতি ম্যাচে চারটি করে গোল নিজেদের জালে দেখে লাল-সবুজরা। সবচেয়ে বেশি গোল হজম করে বাংলাদেশ সেবারই। আর কাতার বিশ্বকাপ বাছাইয়ে সবচেয়ে কম ম্যাচ প্রতি ২.৩৭টি গোল হজম করেছে বাংলাদেশ। নিশ্চিত করেছে তৃতীয় রাউন্ড।

সংখ্যার হিসেবে বলা যায় সেরা পারফর্ম এবারই করেছে বাংলাদেশ। যদিও পরিসংখ্যান পুরোপুরি চিত্র প্রকাশ করতে পারে না। খেলার ধরনও বোঝা সম্ভব নয়।

হোম ভেন্যুর সুবিধা ছাড়াই আর নিয়মিত একাদশের একাধিক ফুটবলারকে ছাড়াই বাংলাদেশের পারফরমেন্সের পরিসংখ্যান অন্তত উন্নতির স্বাক্ষী দিচ্ছে।

আরও পড়ুন:
১৮ বছরের আক্ষেপ মেটাতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ
ভারতের বিপক্ষেও পয়েন্টের আশা বাংলাদেশের
ভারতের বিপক্ষে পয়েন্ট চায় বাংলাদেশ
বাংলাদেশকে গোল করতে দেবে না ভারত, আদিলের হুংকার
আত্মবিশ্বাস ভারতের বিপক্ষেও ধরে রাখতে চায় বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

অশ্রুসিক্ত বিদায় রামোসের, বললেন ‘আবার ফিরবেন’

অশ্রুসিক্ত বিদায় রামোসের, বললেন ‘আবার ফিরবেন’

অশ্রুসিক্ত সার্জিও রামোস। ছবি: টুইটার

বৃহস্পতিবার রামোস বিদায়ী সংবাদ সম্মেলনে এলেন। কথা বলতে বলতে নিজেও ভেঙে পড়লেন। অশ্রুসিক্ত হয়ে জড়িয়ে যাওয়া কণ্ঠে জানালেন- বিদায় নয়, আবার ফিরবেন ঘরে।

রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে দীর্ঘ ১৬ বছরের সম্পর্ক ছেদ করে বিদায় নিয়েছেন সার্হিও রামোস। তার এই বিদায়ের খবরে পুরো ফুটবলবিশ্বে ভক্তদের মাঝে থমথমে অবস্থা। অপেক্ষা কীভাবে বিদায় নেন এই কিংবদন্তিতুল্য ডিফেন্ডার।

শেষবারের মতো বৃহস্পতিবার রামোস বিদায়ী সংবাদ সম্মেলনে এলেন। কথা বলতে বলতে নিজেও ভেঙে পড়লেন। অশ্রুসিক্ত হয়ে জড়িয়ে যাওয়া কণ্ঠে জানালেন- বিদায় নয়, আবার ফিরবেন ঘরে।

চোখভরা জল নিয়ে রামোস বলেন, ‘মুহূর্তটা শেষ পর্যন্ত চলে এসেছে। আমার জীবনের অন্যতম কঠিন মুহূর্ত এটা। সময় চলে এসেছে রিয়াল মাদ্রিদকে বিদায় বলার। আমার বাবার হাত ধরে এই এখানে...’ কথাগুলো বলতে বলতে কান্নায় ভেঙে পড়েন রামোস।

নিজেকে কিছুটা সামলে বলতে লাগলেন, ‘ধন্যবাদ রিয়াল মাদ্রিদ। আমার হৃদয়ে সারা জীবন ধারণ করে রাখব তোমাকে। আমার জীবনের সুন্দরতম ও অনন্য সময় কেটেছে এখানে। শুরুটা ছিল আশা ও ভবিষ্যতে নিজের সেরাটা দেয়ার। তা অনেক বছর ধরে সেটা অব্যাহত রাখতে পারায় সম্মান রয়েছে।’

গুরু জিনেদিন জিদানের সুরেই সুর মেলালেন এই ৩৫ বছর বয়সী স্প্যানিশ ফুটবলার।

অশ্রুসিক্ত বিদায় রামোসের, বললেন ‘আবার ফিরবেন’

রামোস বলেন, ‘সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। এটা বিদায় বলার থেকেও বেশি কিছু, কারণ আমি আবার ফিরব।’

রিয়াল মাদ্রিদের জার্সিতে চারবার লা লিগার শিরোপার পাশাপাশি লস ব্লাঙ্কোদের হয়ে রামোস জেতেন চারটি চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা।

রিয়ালের সঙ্গে নতুন মৌসুমে চুক্তি নবায়নে প্রস্তুত ছিলেন তিনি। তবে বাধ সাধেন রিয়াল সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেস।

রামোসকে পারিশ্রমিক কমাতে বলেন তিনি। আর দুই বছরের জায়গায় তাকে অফার করা হয় এক বছরের চুক্তি। তাতেই বেঁকে বসেন এই অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার।

রিয়াল ছেড়ে পুরোনো ক্লাবে ফিরতে পারেন তিনি। সেভিয়া তাকে এরই মধ্যে মৌখিকভাবে বছরে ৭০ লাখ ইউরো বেতন অফার করেছে, যা রিয়ালে তার বেতনের চেয়ে কিছুটা বেশি।

আরও পড়ুন:
১৮ বছরের আক্ষেপ মেটাতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ
ভারতের বিপক্ষেও পয়েন্টের আশা বাংলাদেশের
ভারতের বিপক্ষে পয়েন্ট চায় বাংলাদেশ
বাংলাদেশকে গোল করতে দেবে না ভারত, আদিলের হুংকার
আত্মবিশ্বাস ভারতের বিপক্ষেও ধরে রাখতে চায় বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

রোনালডোকে বদনাম নয়, মেসি বিশ্বের সেরা: দেল বস্কে

রোনালডোকে বদনাম নয়, মেসি বিশ্বের সেরা: দেল বস্কে

ছবি: সংগৃহীত

রিয়াল মাদ্রিদকে ‍দুই বার ইউয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ, স্পেনকে বিশ্বকাপ ও ইউরোর শিরোপা জেতানো কোচ ভিসেন্তে দেল বস্কের মতে মেসি সেরা।

কে সেরা লিওনেল মেসি না ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো? গত এক যুগ ধরে ফুটবলে বিশ্বে এটাই সবচেয়ে বড় বিতর্কের নাম। দুই ফুটবলারের দ্বৈরথটা এমন পর্যায়ে পৌঁছে গেছে যে, দুজনকেই এখন সর্বকালের সেরাদের কাতারে রাখতে হয়েছে।

পরিসংখ্যান আর রেকর্ডকে নিজের করে নিচ্ছেন দুজনই। একে-অপরকে ছাড়িয়ে যাওয়ার লড়াইয়ে রয়েছেন তারা।

তবে, কে সেরা, সেটি নিয়ে এত বছরেও সমাধানে আসা যায়নি। দুজনের সম্পর্কে নিজস্ব পর্যবেক্ষণ ও মতামত দিয়েছেন ফুটবল সংশ্লিষ্টরা।

সবশেষ রিয়াল মাদ্রিদকে ‍দুই বার ইউয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ, স্পেনকে বিশ্বকাপ ও ইউরোর শিরোপা জেতানো কোচ ভিসেন্তে দেল বস্কে মুখ খুলেছেন মেসি-রোনালডোকে নিয়ে।

তিনি এগিয়ে রেখেছেন লিওনেল মেসিকে। কেন তাকে সেরা মনে করেন তারও ব্যাখ্যা দিয়েছেন তিনি। তার বিশ্বাস, মেসির খেলা এখনও অবাক করে দেয় তাকে এবং অন্যদের থেকে আলাদা করে। তার সৃজনশীল ফুটবল খেলা সমর্থকরা দেখতেও পছন্দ করে।

স্প্যানিশ পত্রিকা মার্কাকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এভাবেই বলেন বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা মাস্টারমাইন্ড কোচ।

ভিসেন্তে দেল বস্ক বলেন, ‘মেসি বিশ্বের সেরা ফুটবলার এবং আমি বলতে যাচ্ছি কেন সে সেরা।

‘রোনালডোকে ছোট করে বলছি না, তবে মেসি স্ট্রিট ফুটবলের একজন প্রতিবেশির মতো। মেসি তাদেরই একজন, যার সঙ্গে আপনি খেলবেন এবং সে মাঠে আপনাকে ধুয়ে দেবে। এটা ফুটবল ভক্তরা অনেক পছন্দ করে। এজন্যই সে পৃথিবীর সেরা ফুটবলার।’

মেসি-রোনালডো দ্বৈরথ এখনও অব্যাহত। চলমান কোপা আমেরিকায় মেসি যখন এক গোল করে লাইমলাইট কেড়েছেন, তার পরদিনই ইউরোতে জোড়া গোল করে জবাব দেন রোনালডো।

আরও পড়ুন:
১৮ বছরের আক্ষেপ মেটাতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ
ভারতের বিপক্ষেও পয়েন্টের আশা বাংলাদেশের
ভারতের বিপক্ষে পয়েন্ট চায় বাংলাদেশ
বাংলাদেশকে গোল করতে দেবে না ভারত, আদিলের হুংকার
আত্মবিশ্বাস ভারতের বিপক্ষেও ধরে রাখতে চায় বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

শিরোপাতেও পেলেকে ছুঁতে হবে নেইমারকে

শিরোপাতেও পেলেকে ছুঁতে হবে নেইমারকে

ব্রাজিলের জার্সিতে ৬৭ গোল করেছেন নেইমার। পেলের গোলের রেকর্ড ছাড়াতে তার দরকার আর ১১টি। ছবি: সংগৃহীত

পেলের গোলের রেকর্ড ছাড়ানোর পাশাপাশি নেইমারকে তাই তার স্বদেশি ফুটবল কিংবদন্তির শিরোপার কাছাকাছি যাওয়ার বিকল্প নেই।

জাতীয় দলের জার্সি পরে থামানো মুশকিল নেইমারকে। যেভাবে গোলের পর গোল করে চলেছেন তাতে কিংবদন্তি পেলেকেও ছাড়িয়ে যেতে বেশি দিন হয়তো লাগবে না এই ব্রাজিলিয়ানের। সর্বোচ্চ পাঁচবার বিশ্বকাপজয়ী এই দলটার ভরসার প্রতিচ্ছবি হয়ে দাঁড়িয়েছেন নেইমার।

পেলের পর সেভাবে কেউই তার লিগ্যাসির কাছাকাছি আসতে পেরেছেন হাতে গোনা দু-একজন। রোনালডো নাজারিও তাদের একজন। এরপরে অনেকটা সময় পর নেইমারের মধ্যে সেই সম্ভাবনা দেখেছেন সমর্থকরা।

পেলের গোলের রেকর্ড ছাড়ানোর পাশাপাশি নেইমারকে তাই তার স্বদেশি ফুটবল কিংবদন্তির শিরোপা সংখ্যার কাছাকাছি যাওয়ার বিকল্প নেই।

মাত্র ১৮ বছর বয়সে ২০১০ সালে ব্রাজিলের জার্সিতে অভিষেক হয় নেইমারের। তিন বছর কনফেডারেশন কাপ জেতেন পিএসজির এই তারকা। জেতেন অলিম্পিকও।

কোপা আর বিশ্বকাপের শিরোপা অধরা এই ফুটবলারের।

২০১৪ সালের বিশ্বকাপে ব্রাজিল যখন আয়োজক দেশ, নেইমার তখন বার্সেলোনায় বেশ ভালো ফর্মে। ঘরের মাঠে কোয়ার্টার ফাইনালে ইনজুরির দুঃখ নিয়ে চলে যেতে হয় তাকে। দলও বাদ পড়ে সেমিতে জার্মানির কাছে হেরে।

সবশেষ রাশিয়া বিশ্বকাপেও দারুণভাবে আসর শুরু করে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নিতে হয় ব্রাজিলকে। বেলজিয়ামের কাছে হেরে বিশ্বকাপ স্বপ্ন রাশিয়ায় রেখে আসতে হয় নেইমারকে।

আশা দীর্ঘ হচ্ছে এই ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টারের। ব্রাজিলের হয়ে সর্বোচ্চ তিনবার বিশ্বকাপ জেতেন পেলে। সমর্থকদের চাওয়া, পেলের কাছাকাছি আসতে ব্রাজিলকে বিশ্বকাপ জেতাতে হবে নেইমারকে।

এখনও অন্তত আরও দুটি বিশ্বকাপ পাবেন নেইমার। বয়স মাত্র ২৯। আপাতত ঘরের মাঠে কোপা আমেরিকা জেতার সুযোগ থাকছে তার সামনে।

সুযোগ রয়েছে পেলের সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড ছাড়াবার। আর মাত্র ১১টি গোল করলেই পেলের রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবেন এই ফুটবলার।

আরও পড়ুন:
১৮ বছরের আক্ষেপ মেটাতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ
ভারতের বিপক্ষেও পয়েন্টের আশা বাংলাদেশের
ভারতের বিপক্ষে পয়েন্ট চায় বাংলাদেশ
বাংলাদেশকে গোল করতে দেবে না ভারত, আদিলের হুংকার
আত্মবিশ্বাস ভারতের বিপক্ষেও ধরে রাখতে চায় বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

ফুরফুরে মনে দেশে ফিরলেন জামালরা

ফুরফুরে মনে দেশে ফিরলেন জামালরা

ঢাকায় পৌঁছে ফ্রেমবন্দী জাতীয় ফুটবলাররা। ছবি: বাফুফে

বুধবার বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায় কাতার এয়ারলাইনসের ফ্লাইটে দোহা থেকে বাংলাদেশের উদ্দেশে রওনা করেন ফুটবলাররা। এরপর রাত ৩টায় ঢাকায় পৌঁছান তারা।

কাতার থেকে হালকা মেজাজে দেশে ফিরেছে জাতীয় ফুটবল দল।

বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের দ্বিতীয় রাউন্ডের বাছাইপর্বে অংশ নিতে গত ২৮ মে মধ্যপ্রাচ্যের বিশ্বকাপ আয়োজকদের দেশে গিয়েছিল বাংলাদেশ। ২১ দিন পর বাছাই শেষ করে দেশে ফিরেছে তারা।

বুধবার বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায় কাতার এয়ারলাইনসের ফ্লাইটে দোহা থেকে বাংলাদেশের উদ্দেশে রওনা করেন ফুটবলাররা। এরপর রাত ৩টায় ঢাকায় পৌঁছান তারা।

ঢাকায় পৌঁছে যে যার ক্লাবে চলে গেছেন বলে জানায় বাফুফে। কোভিড প্রটোকল অনুযায়ী তিন দিনের কোয়ারেন্টিন পর্ব পালন করার কথা ফুটবলারদের।

দলের ম্যানেজার ইকবাল হোসেন বলেন, ‘আমরা কাতারে আসার আগে করোনা পরীক্ষা করিয়েছিলাম। ঢাকায় এসে সবাইকে যে যার ক্লাবে পাঠিয়ে দিয়েছি। এখন ক্লাব সিদ্ধান্ত নেবে কীভাবে কোয়ারেন্টিন পর্ব তারা করবে।’

ঢাকায় পৌঁছে নিজেদের লক্ষ্য পূরণ নিয়ে গোলকিপার আনিসুর রহমান জিকো বলেন, ‘আমরা যে লক্ষ্য নিয়ে গিয়েছিলাম সেই লক্ষ্য পূরণ হয়েছে। আমরা সরাসরি এশিয়ান কাপের বাছাইয়ে পৌঁছে গেছি। এখন সামনের চ্যালেঞ্জের জন্য অপেক্ষায় থাকব।’

আরও পড়ুন:
১৮ বছরের আক্ষেপ মেটাতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ
ভারতের বিপক্ষেও পয়েন্টের আশা বাংলাদেশের
ভারতের বিপক্ষে পয়েন্ট চায় বাংলাদেশ
বাংলাদেশকে গোল করতে দেবে না ভারত, আদিলের হুংকার
আত্মবিশ্বাস ভারতের বিপক্ষেও ধরে রাখতে চায় বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

২২ দিনও টিকল না গাত্তুসোর নতুন ঘর

২২ দিনও টিকল না গাত্তুসোর নতুন ঘর

ছবি: টুইটার

ইতালির সংবাদমাধ্যমের খবর, ক্লাব ছোট ইনভেস্টমেন্ট করতে চায়। অন্যদিকে গাত্তুসো কিছু বড় ফুটবলার দলে নিতে চান। ব্যাটে-বলে মিলছে না বলেই এমন সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে বাধ্য হয়েছেন গাত্তুসো।

ইতালির সেরি আর দল ফিওরেন্তিনা আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা দিয়ে দিয়েছে, পরের মৌসুমে কোচ হিসেবে থাকছেন না জেনেরো গাত্তুসো।

মাত্র ২২ দিনের মাথায় ফিওরেন্তিনো অধ্যায় শেষ হয়ে গেছে এই সাবেক নাপোলি ও মিলান কোচের।

গত ২৫ মে গাত্তুসোকে কোচ হিসেবে ঘোষণা দেয়া হয়। এক মাসের কম সময়ের মধ্যেই ফ্লোরেন্স প্রজেক্ট থেকে সরে দাঁড়ান এই কোচ।

ফিওরেন্তিনো এক বিবৃবিতে বৃহস্পতিবার জানায়, ‘এসিএফ ফিওরেন্তিনা ও গাত্তুসোর মধ্যে যৌথ সমঝোতার মধ্য দিয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। পরের মৌসুমে তিনি আর কোচ থাকছেন না।’

ক্লাব ও গাত্তুসোর মধ্যে ট্রান্সফার নিয়ে জটিলতায় এমনটা হয়েছে বলে জানান ট্রান্সফার বিশেষজ্ঞ ফ্রাব্রিসিও রোমানো।

ইতালির সংবাদমাধ্যমের খবর, ক্লাব ছোট ইনভেস্টমেন্ট করতে চায়। অন্যদিকে গাত্তুসো কিছু বড় ফুটবলার দলে নিতে চান। ব্যাটে-বলে মিলছে না বলেই এমন সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে বাধ্য হয়েছেন গাত্তুসো।

সেরি আয় সবশেষ মৌসুমে নাপোলিকে পয়েন্ট টেবিলের পাঁচে রেখে বিদায় নিয়েছিলেন গাত্তুসো। কোপা ইতালিয়া জেতিয়েছিলেন এই ৪৩ বছর বয়সী কোচ।

আরও পড়ুন:
১৮ বছরের আক্ষেপ মেটাতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ
ভারতের বিপক্ষেও পয়েন্টের আশা বাংলাদেশের
ভারতের বিপক্ষে পয়েন্ট চায় বাংলাদেশ
বাংলাদেশকে গোল করতে দেবে না ভারত, আদিলের হুংকার
আত্মবিশ্বাস ভারতের বিপক্ষেও ধরে রাখতে চায় বাংলাদেশ

শেয়ার করুন