করোনায় আক্রান্ত জাতীয় দলের ৫ ফুটবলার

করোনায় আক্রান্ত জাতীয় দলের ৫ ফুটবলার

করোনা আক্রান্ত পাঁচ ফুটবলার হলেন, কৃষ্ণা রানী সরকার, মণিকা চাকমা, ঋতুপর্ণা চাকমা, আনায় মুগিনি ও নিলুফা ইয়াসমিন নীলা।

করোনাভাইরাস মহামারির প্রভাব পড়ছে দেশের ক্রীড়াঙ্গনেও। করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বসুন্ধরা কিংসের জার্সিতে খেলা জাতীয় দলের পাঁচ নারী ফুটবলার। শারীরিকভাবে সুস্থ আছেন ফুটবলাররা। সবাইকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

করোনা আক্রান্ত পাঁচ ফুটবলার হলেন কৃষ্ণা রানী সরকার, মণিকা চাকমা, ঋতুপর্ণা চাকমা, আনায় মুগিনি ও নিলুফা ইয়াসমিন নীলা।

রোববার সন্ধ্যায় বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের নারী উইঙ্গের চেয়ারপারসন মাহফুজা আক্তার কিরণ।

‘৪ তারিখে কিংসের হয়ে লকডাউনের আগে নারী লিগের শেষ ম্যাচ খেলার পর ওরা ১১ এপ্রিল বাফুফে ক্যাম্পে আসে। ১২ তারিখ কভিড-১৯ টেস্ট দেয়। ওখানে পাঁচজনের শরীরে করোনা ধরা পড়ে। তারা এখন কোয়ারেন্টিনে আছে।’

দুই দিনের মধ্যে তাদের সংস্পর্শে যারা এসেছেন বা রুমমেট ও সতীর্থদেরও আলাদা করে রাখা হয়েছে বলে জানান কিরণ।

লকডাউনের পর নারী লিগ শুরুর ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে ফিফার এই সদস্য বলেন, ‘সরকার লকডাউন খুলে দেয়ার পাঁচ দিনের মধ্যে আমরা লিগ মাঠে নামাব। আমরা আশাবাদী।’

আরও পড়ুন:
রমজানের প্রথম দিনে ১২০ পরিবারে সাবিনাদের উপহার
কৃষ্ণার ডাবল হ্যাটট্রিকের দিনে কিংসের ১৪ গোলের উৎসব
চ্যাম্পিয়ন কিংসের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে নারী লিগ
নারী লিগ শুরু ২৭ মার্চ, অংশ নিচ্ছে অনূর্ধ্ব-১৭
অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস

শেয়ার করুন

মন্তব্য

৮১ পূর্ণ করলেন ফুটবল সম্রাট

৮১ পূর্ণ করলেন ফুটবল সম্রাট

বিশ্বকাপের জুলে রিমে ট্রফিতে চুমু খাচ্ছেন পেলে। ছবি: ফিফা

১৯৪০ সালের ২৩ অক্টোবর পেলের জন্ম ব্রাজিলের মিনাস গেরেইস রাজ্যের ত্রেস কোরাকোয়েসে। তার আসল নাম এদসন আরান্তেস দো নাসিমেন্তো। ছোট থেকেই ফুটবলের প্রতি আকৃষ্ট পেলের ক্লাব ফুটবলে অভিষেক ১৫ বছর বয়সে। সান্তোসের জার্সিতে।

১৯৫০ সালের বিশ্বকাপ ফাইনাল। ১০ বছরের ছোট দিকো গেছে বাবার সঙ্গে ব্রাজিলের বিশ্বকাপ জয় দেখতে। উরুগুয়ের বিপক্ষে ব্রাজিলের বিশ্বকাপ শিরোপা লড়াই দেখতে ঐতিহাসিক মারাকানায় হাজির লাখ দেড়েক দর্শক। পুরো দেশে উৎসবের প্রস্তুতি।

কিন্তু সবাইকে হতবাক করে দিয়ে ২-১ গোলে ম্যাচ জিতে বিশ্বকাপ ট্রফি নিয়ে চলে যায় উরুগুয়ে। ফুটবলের দেশে যেন নেমে আসে জাতীয় দুর্যোগ। পুরো ব্রাজিল ভেঙে পড়ে কান্নায়। ছোট দিকো কাঁদতে দেখে বাবাকেও।

ছোট বয়সেই সে মনে মনে প্রতিজ্ঞা করে বিশ্বকাপের ট্রফি এনে দেবে তার বাবাকে। এর ঠিক আট বছর পর বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হয় ব্রাজিল। আর সেলেকাওদের প্রথম বিশ্বকাপ শিরোপা জয়ের নায়ক ছিলেন সেই দিকো। পুরো বিশ্ব যাকে চিনে নেয় পেলে নামে।

এরপর আরও দুটি বিশ্বকাপ জিতেছেন কালো মানিক হিসেবে খ্যাত পেলে। ২৩ অক্টোবর এ ফুটবল কিংবদন্তির ৮১তম জন্মদিন।

দুই দশকের বেশি লম্বা ক্যারিয়ারে গড়েছেন অসংখ্য রেকর্ড। জিতেছেন তিনটি বিশ্বকাপ, করেছেন এক হাজার গোল। তারপরও পেলেকে মানুষ চেনে তার পরিসংখ্যান দিয়ে নয়, ফুটবল খেলাকে যে নন্দিত রূপ দিয়েছিলেন তার জন্য।

পেলে ফুটবলকে বলতেন ‘দ্য বিউটিফুল গেম’। মাঠে তার দ্রুতগতির, ছন্দময় ও শৈল্পিক ফুটবল ভক্তদের বিশ্বাস দেয় যে আসলেই ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দর খেলা।

১৯৪০ সালের ২৩ অক্টোবর পেলের জন্ম ব্রাজিলের মিনাস গেরেইস রাজ্যের ত্রেস কোরাকোয়েসে। তার আসল নাম এদসন আরান্তেস দো নাসিমেন্তো। ছোট থেকেই ফুটবলের প্রতি আকৃষ্ট পেলের ক্লাব ফুটবলে অভিষেক ১৫ বছর বয়সে, সান্তোসের জার্সিতে।

ছোটবেলায় তার প্রিয় খেলোয়াড় ছিলেন আরেক বিখ্যাত ক্লাব ভাস্কো দা গামার গোলকিপার বিলে। বন্ধুরা তাকে বিলে বলে খেপাতো স্কুলে। বিলে থেকেই বদলে তার নাম হয়ে যায় পেলে। হারিয়ে যায় বাবা-মার দেয়া ডাকনাম দিকো।

জাতীয় দলে পেলের অভিষেক হয় মাত্র ১৬ বছর বয়সে। আর্জেন্টিনার বিপক্ষে মারাকানায় হার দিয়ে শুরু হলেও তার হাত ধরে রচিত হয় ব্রাজিলিয়ান ফুটবলের নতুন ইতিহাস।

৫৮ এর পর ১৯৬২ ও ১৯৭০-এর বিশ্বকাপ জেতেন পেলে। ১৯৭০-এ পেলের দলটিকে বলা হয় ফুটবল ইতিহাসের সেরা দল। ৭০ বিশ্বকাপ জিতে ব্রাজিলের জার্সি থেকে অবসর নেন। আরও চার বছর খেলেন সান্তোসের হয়ে।

ক্যারিয়ারের পড়ন্ত বেলায় খেলেন নিউ ইয়র্ক কসমসের হয়ে। আশির দশকে ডিয়েগো ম্যারাডোনার আবির্ভাবের আগে পেলেই ছিলেন ফুটবল রাজত্বের একচ্ছত্র অধিপতি।

আধুনিক যুগেও লিওনেল মেসির সঙ্গে তুলনাতে আসেন পেলে। যুগে যুগে যেন ফুটবলারদের শ্রেষ্ঠত্বের মাপকাঠি বনে গেছেন এই জীবন্ত কিংবদন্তি।

জন্মদিনের আগে শরীর ভালো যাচ্ছিল না পেলের। তবে চিকিৎসা শেষ পুরো সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন তিনি।

নিজের ৮১তম জন্মদিনে ভক্তদের উদ্দেশে মজার এক বার্তা দিয়েছেন ব্রাজিলের সর্বকালের সেরা নাম্বার টেন। ইন্সটাগ্রামে কেকের ছবি দিয়ে লিখেছেন, ‘আমার জন্মদিন আসছে। কেক তৈরি করেছেন তো?’

তার জন্মদিনে শুভেচ্ছা বার্তা দিয়েছে ফিফা, ইউয়েফা বিশ্বজুড়ে অন্যান্য ফুটবল সংস্থা। ফুটবল সম্রাটের জন্মদিন শুধু তার একার নয়, পুরো ফুটবল বিশ্বের যেন উৎসবের মুহূর্ত।

আরও পড়ুন:
রমজানের প্রথম দিনে ১২০ পরিবারে সাবিনাদের উপহার
কৃষ্ণার ডাবল হ্যাটট্রিকের দিনে কিংসের ১৪ গোলের উৎসব
চ্যাম্পিয়ন কিংসের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে নারী লিগ
নারী লিগ শুরু ২৭ মার্চ, অংশ নিচ্ছে অনূর্ধ্ব-১৭
অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস

শেয়ার করুন

মেসির প্রথম ‘ল্য ক্ল্যসিক’

মেসির প্রথম ‘ল্য ক্ল্যসিক’

মার্শেইয়ের মাঠে নামার আগে পিএসজির অনুশীলনে নেইমার ও মেসি। ছবি: টুইটার

প্রথমবারের মতো ফ্রেঞ্চ ফুটবলের সবচেয়ে বড় লড়াই ‘ল্য ক্ল্যসিকের’ অংশ হচ্ছেন মেসি। রোববার রাত পৌনে একটায় মার্শেইয়ের মাঠে নামতে যাচ্ছে পিএসজি।

প্যারিসে আসার পর সব ধরনের অভিজ্ঞতাই হয়েছে লিওনেল মেসির। ঐতিহাসিক শুভেচ্ছা পেয়েছেন প্যারিসিয়ানদের কাছ থেকে, গোল খরায় ভুগেছেন, দুর্দান্ত গোল করে ম্যাচ ও সমর্থকদের মন জিতে নিয়েছেন।

প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ে (পিএসজি) আসার দুই মাসের মাথায় প্রত্যাশিতভাবে ক্লাবের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছেন সর্বকালের অন্যতম সেরা এ ফুটবলার।

তবে রোববার রাতে প্রথমবারের মতো একটি অভিজ্ঞতা হতে যাচ্ছে মেসির। প্রথমবারের মতো ফ্রেঞ্চ ফুটবলের সবচেয়ে বড় লড়াই ‘ল্য ক্ল্যসিকের’ অংশ হচ্ছেন তিনি। রাত ১২.৪৫ মিনিটে মার্শেইয়ের মাঠে নামতে যাচ্ছে মেসির পিএসজি।

ফ্রেঞ্চ ফুটবলের সবচেয়ে বড় ম্যাচ হিসেবে পরিচিত এই দুই দলের লড়াইয়ের পরিসংখ্যানে এগিয়ে আছে পিএসজি। গত আট ক্ল্যসিকের সাতটিতেই জিতেছে তারা। গত বছর মার্শেই ১-০ গোলে হারিয়েছিল প্যারিসিয়ানদের।

লিগে দুই দলের মধ্যে পয়েন্ট তালিকায় রয়েছে বিস্তর ফারাক। ১০ ম্যাচের ৯টি জিতে পিএসজি ২৭ পয়েন্ট নিয়ে রয়েছে শীর্ষে। নয় ম্যাচে পাঁচ জয় ও দুই ড্রয়ে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে মার্শেই আছে তিনে।

দুই দলের এ ব্যবধানকে আরও বাড়াতে চায় পিএসজি। দলের মিডফিল্ডার আন্দের এরেরা বলেন, ‘এটি কঠিন একটি ম্যাচ ও বিশেষ একটি দিন হতে যাচ্ছে। মার্শেই বেশ ভালো ফর্মে আছে। ম্যাচটি তিন পয়েন্টের চেয়েও বেশি কিছু আমাদের জন্য।’

মার্শেইয়ের বিপক্ষে ম্যাচের আগে পিএসজি সুখবর পেয়েছে। চোটের কারণে চ্যাম্পিয়নস লিগ না খেলা নেইমার সুস্থ হয়ে ফিরছেন একাদশে।

ফলে মেসি, নেইমার, এমবাপের তিনজনকেই আক্রমণে দেখা যেতে পারে রোববার রাতে। ফ্রেঞ্চ লিগে এখনও পিএসজির জার্সিতে গোল পাননি মেসি। মার্শেইয়ের মাঠ হতে পারে তার অ্যাকাউন্ট খোলার মঞ্চ।

আরও পড়ুন:
রমজানের প্রথম দিনে ১২০ পরিবারে সাবিনাদের উপহার
কৃষ্ণার ডাবল হ্যাটট্রিকের দিনে কিংসের ১৪ গোলের উৎসব
চ্যাম্পিয়ন কিংসের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে নারী লিগ
নারী লিগ শুরু ২৭ মার্চ, অংশ নিচ্ছে অনূর্ধ্ব-১৭
অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস

শেয়ার করুন

মেসির সতীর্থ ইকার্দিকে নিয়ে স্ত্রী-প্রেমিকার লড়াই

মেসির সতীর্থ ইকার্দিকে নিয়ে স্ত্রী-প্রেমিকার লড়াই

ওয়ান্দা নারা, মাওরো ইকার্দি ও মারিয়া ইউজেনিয়া সুয়ারেজ।

সম্প্রতি ইনস্টাগ্রামে নিজেকে ইকার্দির প্রেমিকা দাবি করেন মারিয়া এবং লেখেন, ‘আজ আমার নীরব থাকা উচিত হবে না।’

প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ে (পিএসজি) লিওনেল মেসির সতীর্থ মাউরো ইকার্দি। দুই আর্জেন্টাইন তারকার মধ্যে শীতল সম্পর্কের খবর নতুন নয়।

তবে এসব খবর ছাপিয়ে এখন আলোচনায় ইকার্দির ভঙ্গুর সংসারের গল্প। পশ্চিমা সংবাদমাধ্যমগুলোর দাবি, ত্রিভূজ প্রেমের কারণে বেহাল হয়ে পড়েছেন ইকার্দি।

শুক্রবার নিউ ইয়র্ক পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আর্জেন্টাইন ‘বিউটি গুরু’ ওয়ান্দা নারা শুধু ইকার্দির স্ত্রী নন। পিএসজি তারকার এজেন্ট হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সম্প্রতি ইকার্দির বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ এনেছেন ওয়ান্দা। তিনি লিখেছেন, ‘আরও একটি পরিবার ধ্বংস করে দিচ্ছ তুমি।’

শুধু তাই নয়, এর আগে তিনি ইকার্দিকে আনফলোও করেন।

দিন কয়েক আগেই ভক্তরাও ধারণা করছিল সাংসারিক ঝামেলার মধ্যে পড়েছেন ইকার্দি। কারণ সেই সময়টিতে ওয়ান্দা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখেছিলেন, ‘আমি আলাদা হয়ে গেছি।’

ঠিক সেই সময়টিতেই আবার ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের খেলা থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নেন ইকার্দি। সেসময় বিয়ের আংটি ছাড়া নিজের হাতের একটি ছবি পোস্ট করে জল্পনাকে আরও উস্কে দেন ওয়ান্দা।

গত রোববার অবশ্য ওয়ান্দার প্রতি একটি প্রেমময় পোস্ট দিয়ে জল্পনায় পানি ঢালতে চেয়েছিলেন পিএসজি তারকা। দুজনের একটি ছবি শেয়ার করে তিনি লিখেছিলেন, ‘সুন্দর এই পরিবারে বিশ্বাস রাখার জন্য তোমাকে ধন্যবাদ প্রিয়তমা।’

এ ঘটনার দুদিন পর সব মাটি করে দেন আর্জেন্টাইন মডেল মারিয়া ইউজেনিয়া সুয়ারেস। এই মারিয়াই হলেন ইকার্দির-ওয়ান্দার সম্পর্কে ফাটল ধরানো তৃতীয় পক্ষ। টেলিগ্রামে ইকার্দির সঙ্গে মারিয়ার গোপন কথা-বার্তা, দুজনের ভিডিও ও অডিও মেসেজের প্রমাণও আছে ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড দ্য সান-এর কাছে।

গত বুধবার ইনস্টাগ্রামে নিজেকে ইকার্দির প্রেমিকা দাবি করে মারিয়া লেখেন, ‘আজ আমার নীরব থাকা উচিত হবে না।’

এরপরই তিনি লেখেন, ‘আজ যে পরিস্থিতির সূত্রপাত হয়েছে তা আমি শুরু করিনি। আমি তাকে প্রলুব্ধ করিনি। আজ যা কিছু ঘটছে তার পেছনে এক বিরাট এবং গভীর গল্প আছে। আমি এমন মানুষের সঙ্গেই মিশেছি যার কথা আমি বিশ্বাস করেছি।’

মারিয়া অভিযোগ করেন, ওয়ান্দার সঙ্গে বিচ্ছেদের কথা বলে ইকার্দি তার সঙ্গে প্রণয়ে জড়িয়েছেন।

ওয়ান্দার সঙ্গে ইকার্দির ছবি পোস্ট প্রসঙ্গে মারিয়া বলেন, ‘একটি সুখী পরিবার টিকে থাকার খরচ আমি বহন করছি। অথচ যে এই ভুলটি করেছে সেই বিচারবোধহীন মানুষটি দিব্যি সুখে আছে। আমার পরিবারের কথা ভেবে আমি নীরব ছিলাম। কিন্তু এখন আমি আমার নিজের বিরুদ্ধেই দাঁড়িয়েছি।’

মেসির সতীর্থ ইকার্দিকে নিয়ে স্ত্রী-প্রেমিকার লড়াই
মারিয়া ইউজেনিয়া সুয়ারেজ ও ওয়ান্দা নারা

ইকার্দির স্ত্রীর নাম না উল্লেখ করে মারিয়া দাবি করেন, এক নারী যেমন খুশি তার ওপর রাগ ঢেলে দিচ্ছেন।

এ ঘটনার পর ওয়ান্দাও দেরি করেননি প্রতিক্রিয়া দেখাতে। তিনিও ইকার্দির সঙ্গে একটি ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘আমি আমার পরিবারের যত্ন নেব। আর জীবন নিজেই ওইসব দুঃখীদের যত্ন নেবে।’

২০১৩ সালে ইকার্দি ও ওয়ান্দার মধ্যে প্রথম দেখা হয়। সেসময় ওয়ান্দা ছিলেন আর্জেন্টিনা জাতীয় দল ও বার্সেলোনার ফরোয়ার্ড ম্যাক্সি লোপেসের স্ত্রী। লোপেস ছিলেন লিওনেল মেসির কাছের বন্ধু।

২০১৪ সালে স্বামীকে ডিভোর্স দেয়ার কিছু দিনের মধ্যে তিনি ইকার্দিকে বিয়ে করেন। তারপর থেকে মেসির সঙ্গে ইকার্দির দূরত্বের শুরু।

আরও পড়ুন:
রমজানের প্রথম দিনে ১২০ পরিবারে সাবিনাদের উপহার
কৃষ্ণার ডাবল হ্যাটট্রিকের দিনে কিংসের ১৪ গোলের উৎসব
চ্যাম্পিয়ন কিংসের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে নারী লিগ
নারী লিগ শুরু ২৭ মার্চ, অংশ নিচ্ছে অনূর্ধ্ব-১৭
অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস

শেয়ার করুন

রেকর্ড হারের দায় নিজের কাঁধে নিলেন মরিনিয়ো

রেকর্ড হারের দায় নিজের কাঁধে নিলেন মরিনিয়ো

রোমার কোচ জোসে মরিনিয়ো। ছবি: এএফপি

ম্যাচ শেষে নিজের ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় পরাজয় নিয়ে যথেষ্ট বিরক্ত ছিলেন মরিনিয়ো। হারের পুরো দায়িত্ব নিজের কাঁধে নিয়েছেন এ অভিজ্ঞ কোচ। বিকল্প দল খেলানোতে এ বিপর্যয় স্বীকার করে নেন তিনি।

দুই দশকের শীর্ষপর্যায়ের কোচিংয়ে কখনও এত বাজেভাবে হারতে হয়নি জোসে মরিনিয়োকে। ইউয়েফা কনফারেন্স লিগে নরওয়ের অখ্যাত বুডো-গ্লিমটের কাছে ৬-১ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছে মরিনিয়োর রোমা।

এ হারে গ্রুপ-সিতে ২ নম্বরে চলে গেছে ইতালিয়ান ক্লাবটি।

নরওয়ের বুডোতে অনুষ্ঠিত ম্যাচে শুরুতেই ধাক্কা খায় রোমা। ৮ মিনিটে এরিক বটহাইমের গোলে লিড নেয় স্বাগতিক দল।

২০ মিনিটে দলের লিড দ্বিগুণ করে দেন প্যাট্রিক বার্গ। এর ৮ মিনিট পর রোমার হয়ে এক গোল শোধ করেন কার্লেস পেরেস।

২-১ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বুডো। গোলবন্যার শুরু হয় দ্বিতীয়ার্ধে,

এ অর্ধে আরও চার গোল বাগিয়ে নেয় বুডো-গ্লিমট। বটহেইমের দ্বিতীয় গোলে শুরু।

একে একে স্কোরশিটে নাম ওঠান ওলা সোলবাক্কেন ও আমাল পেলেগ্রিনো। ম্যাচের মিনিট পনেরো বাকি থাকতে ৫-১ গোলে পিছিয়ে পড়ে রোমা।

৮০ মিনিটে সোলবাক্কেনের দ্বিতীয় গোলে বড় পরাজয় নিশ্চিত হয় রোমার। ৬-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে স্বাগতিক দল।

ম্যাচ শেষে নিজের ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় পরাজয় নিয়ে যথেষ্ট বিরক্ত ছিলেন মরিনিয়ো। হারের পুরো দায় নিজের কাঁধে নিয়েছেন এ অভিজ্ঞ কোচ। বিকল্প দল খেলানোতে এ বিপর্যয় স্বীকার করে নেন তিনি।

স্কাই স্পোর্টসকে মরিনিয়ো বলেন, ‘আমি এ দলটাকে খেলানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তাদের পুরো দায়িত্ব আমার। যারা পরিশ্রম করতে আগ্রহী ছিল তাদের দিয়েই দল সাজিয়েছিলাম। কিছু খেলোয়াড়কে বিশ্রাম দেয়ারও দরকার ছিল। আমরা ভালো দলের কাছে হেরেছি।’

সেরি আতে রোববার নাপোলির বিপক্ষে বড় ম্যাচ রোমার। তাই বিকল্প খেলোয়াড় নামিয়েছিলেন নরওয়ের মাঠে। তবে এটাকে অজুহাত হিসেবে মানতে চান না তিনি।

বিকল্প খেলোয়াড়দের মান নিয়ে সন্তুষ্ট নন মরিনিয়ো। তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রথম সারি ও বিকল্প খেলোয়াড়দের সামর্থ্যের মধ্যে অনেক পার্থক্য আছে। আমি আরও ভালো পারফরম্যান্স আশা করছিলাম।’

আরও পড়ুন:
রমজানের প্রথম দিনে ১২০ পরিবারে সাবিনাদের উপহার
কৃষ্ণার ডাবল হ্যাটট্রিকের দিনে কিংসের ১৪ গোলের উৎসব
চ্যাম্পিয়ন কিংসের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে নারী লিগ
নারী লিগ শুরু ২৭ মার্চ, অংশ নিচ্ছে অনূর্ধ্ব-১৭
অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস

শেয়ার করুন

জাতীয় দলের প্রধান কোচ হচ্ছেন লেমস

জাতীয় দলের প্রধান কোচ হচ্ছেন লেমস

ঢাকা আবাহনীর কোচ মারিও লেমসকে দেয়া হচ্ছে জাতীয় দলের দায়িত্ব। ছবি: সংগৃহীত

সাফ পর্ব শেষে স্পেনে ফিরে যাচ্ছেন জাতীয় দলের অন্তর্বর্তীকালীন কোচ অস্কার ব্রুজন। জেমি ডে’কেও দায়িত্বে ফেরাতে চায় না ফেডারেশন। তাই দেশের ফুটবলে পরিচিত একজন মারিও লেমসকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

শ্রীলঙ্কায় চার জাতি ফুটবল টুর্নামেন্টে জাতীয় ফুটবল দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে ঢাকা আবাহনীর কোচ মারিও লেমসকে।

জাতীয় দল ব্যবস্থাপনা কমিটি সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

জাতীয় দলের কোচ পরিবর্তন হচ্ছে, তা আগেই ধারণা করা যাচ্ছিল। সাফ পর্ব শেষে স্পেনে ফিরে যাচ্ছেন জাতীয় দলের অন্তর্বর্তীকালীন কোচ অস্কার ব্রুজন। দীর্ঘ সময়জুড়ে দেশের ফুটবলে ব্যস্ত থাকায় পরিবারকে সময় দিতে দেশে ফিরে যাচ্ছেন তিনি।

এদিকে জেমি ডে’কেও দায়িত্বে ফেরাতে চায় না ফেডারেশন। তাই দেশের ফুটবলে পরিচিত একজন মারিও লেমসকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

জেমিকে ওএসডি করার পর অস্কারকে দায়িত্ব দেয়ার আগে কোচের শর্টলিস্টে ছিল মারিও লেমসের নাম। অস্কারের অপশন না থাকায় পর্তুগিজ এ কোচকেই বাছাই করেছে জাতীয় দল ব্যবস্থাপনা কমিটি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কমিটির এক সদস্য জানান, শুধু শ্রীলঙ্কার চার জাতি টুর্নামেন্টের জন্য দায়িত্ব পাচ্ছেন লেমস। ভিসা পেলেই দেশে ফিরবেন তিনি।

তিন মৌসুম ধরে আবাহনীর প্রধান কোচের দায়িত্ব পালন করে আসছেন লেমস। দায়িত্ব নেয়ার পর দলকে প্রথমবার এএফসি কাপের ইন্টার সেমি ফাইনালে খেলান এ কোচ।

তার অধীনে তৃতীয় অবস্থান নিয়ে সবশেষ বিপিএল আসর শেষ করেছিল আবাহনী।

জাতীয় ফুটবল দলের জন্য অপরিচিত নন মারিও লেমস। ২০১৭ সালে অ্যান্ড্রু ওর্ড যখন প্রধান কোচ ছিলেন, তখন জাতীয় দলের ফিটনেস ট্রেইনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন এ পর্তুগিজ।

আগামী ২৫ নভেম্বর জাতীয় দলের ক্যাম্প শুরু করার পরিকল্পনা নিয়েছে কমিটি।

আরও পড়ুন:
রমজানের প্রথম দিনে ১২০ পরিবারে সাবিনাদের উপহার
কৃষ্ণার ডাবল হ্যাটট্রিকের দিনে কিংসের ১৪ গোলের উৎসব
চ্যাম্পিয়ন কিংসের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে নারী লিগ
নারী লিগ শুরু ২৭ মার্চ, অংশ নিচ্ছে অনূর্ধ্ব-১৭
অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস

শেয়ার করুন

গায়েহলুদ হলো জামাল ভূঁইয়ার

গায়েহলুদ হলো জামাল ভূঁইয়ার

গায়েহলুদে জামাল ভূঁইয়া। ছবি: নিউজবাংলা

গত বছর কম্পিউটার সায়েন্সের ছাত্রী তাতিয়ানার সঙ্গে আকদ করে রেখেছিলেন জামাল। মাঝে করোনাভাইরাস মহামারি, জাতীয় দল ও ক্লাবে ব্যস্ততায় বিয়ে সম্পন্ন করা হয়নি তার।

অনাড়ম্বর আয়োজনে সম্পন্ন হলো জাতীয় ফুটবল দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার গায়েহলুদ।

ডেনমার্কে স্থানীয় সময় বুধবার রাতে এ আয়োজন করা হয়।

পুরান ঢাকার মেয়ে তাতিয়ানা আলীর সঙ্গে আগামী রোববার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হবে তার।

গত বছর কম্পিউটার সায়েন্সের ছাত্রী তাতিয়ানার সঙ্গে আকদ করে রেখেছিলেন জামাল। মাঝে করোনাভাইরাস মহামারি, জাতীয় দল ও ক্লাবে ব্যস্ততায় বিয়ে সম্পন্ন করা হয়নি তার।

জাতীয় দলের হয়ে সাফ টুর্নামেন্ট শেষে ডেনমার্কে ফিরে যান দেশের ফুটবলের পোস্টার বয়। বুধবার রাতে গায়েহলুদে তার বাবা ইনসান ভূঁইয়া ও মা রাজিয়া আক্তার উপস্থিত থেকে আশীর্বাদ জানান জামালকে।

ডেনমার্ক থেকে শনিবার জার্মানিতে যাবে জামালের পরিবার। রোববার তাতিয়ানা আলীর সঙ্গে বিয়ে হবে তার। বিয়ে শেষে তাতিয়ানাকে ডেনমার্কে নিয়ে যাবেন জামাল।

জামালের পরিবার জানিয়েছে, দেশে ফিরে আগামী জানুয়ারিতে বউভাতের একটা আয়োজন করবেন জামাল। সেখানে পরিবারের সব সদস্য উপস্থিত থাকবেন।

বিয়ের পর্ব শেষে লঙ্কায় চার জাতি টুর্নামেন্টকে সামনে রেখে দেশে ফেরার কথা রয়েছে জামালের। ২৫ অক্টোবর থেকে শুরু হচ্ছে জাতীয় দলের আবাসিক ক্যাম্প।

আরও পড়ুন:
রমজানের প্রথম দিনে ১২০ পরিবারে সাবিনাদের উপহার
কৃষ্ণার ডাবল হ্যাটট্রিকের দিনে কিংসের ১৪ গোলের উৎসব
চ্যাম্পিয়ন কিংসের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে নারী লিগ
নারী লিগ শুরু ২৭ মার্চ, অংশ নিচ্ছে অনূর্ধ্ব-১৭
অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস

শেয়ার করুন

বার্সায় আরও ছয় বছর ফাতি

বার্সায় আরও ছয় বছর ফাতি

আনসু ফাতি। ছবি: সংগৃহীত

নবায়নকৃত চুক্তির হিসেবে ফাতির বার্সায় থাকছেন ২০২৭ সাল পর্যন্ত। এক বিলিয়ন ইউরো রিলিজ ক্লজে ছয় বছরের জন্য বার্সায় থেকে যাচ্ছেন ফাতি।

লিওনেল মেসিকে ধরে রাখতে না পেরে তরুণদের ধরে রাখতে মরিয়া এফসি বার্সেলোনা। সেই প্রেক্ষিতে মিডফিল্ডার পেদ্রির পর তরুণ ফরোয়ার্ড আনসু ফাতিকে দলে লম্বা সময় রাখা নিশ্চিত করল ক্লাবটি। স্প্যানিশ ফরোয়ার্ডের সঙ্গে পাঁচ বছরের চুক্তি নবায়ন করেছে স্প্যানিশ জায়ান্টরা।

চলতি মৌসুমে ফাতির সঙ্গে চুক্তি শেষ হওয়ার কথা ছিল বার্সেলোনার। নবায়নকৃত চুক্তির হিসেবে ফাতির বার্সায় থাকছেন ২০২৭ সাল পর্যন্ত। এক বিলিয়ন ইউরো রিলিজ ক্লজে ছয় বছরের জন্য বার্সায় থেকে যাচ্ছেন ফাতি।

স্প্যানিশ ক্লাব হেরেরার হয়ে ফুটবলে অভিষেক হয় ফাতির। ২০১২ সালে বার্সার একাডেমিতে যোগ দেন স্প্যানিশ এই ফরোয়ার্ড। ২০১৯ সালে তার অভিষেক হয় বার্সেলোনা মূল দলে। বার্সার হয়ে এখন পর্যন্ত ৪৭ ম্যাচ খেলে ১৫টি গোল করেছেন তিনি।

সবশেষ ভালেন্সিয়ার বিপক্ষের ম্যাচে দারুণ এক কীর্তি গড়েন স্প্যানিশ ফরওয়ার্ড। বার্সেলোনার ইতিহাসে ১৯ বছর বা এর কম বয়সী ফুটবলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড গড়েন তিনি।

আরও পড়ুন:
রমজানের প্রথম দিনে ১২০ পরিবারে সাবিনাদের উপহার
কৃষ্ণার ডাবল হ্যাটট্রিকের দিনে কিংসের ১৪ গোলের উৎসব
চ্যাম্পিয়ন কিংসের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে নারী লিগ
নারী লিগ শুরু ২৭ মার্চ, অংশ নিচ্ছে অনূর্ধ্ব-১৭
অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস

শেয়ার করুন