পরের মাঠে নয়, ঘরের মাঠে খেলতে চায় বাংলাদেশ

ছবি: বাফুফে

পরের মাঠে নয়, ঘরের মাঠে খেলতে চায় বাংলাদেশ

করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় ইতোমধ্যে নিরপেক্ষ ভেন্যুর প্রস্তাব দিয়েছে ওমান ও কাতার। এই প্রস্তাবে সাড়া দিতে চায় না বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। হোম ভেন্যুর সুবিধা নিতে চায় বাফুফে। 

বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাই পর্বে নিজেদের পরবর্তী তিন ম্যাচই বাংলাদেশে হওয়ার কথা থাকলেও বিকল্প প্রস্তাব দিয়েছে ওমান ও কাতার।

করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় তিন ম্যাচই এই দুই দেশের একটিতে খেলার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। তবে ঘরের সুবিধা নিতে চায় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)।

বাফুফে ভবনে বুধবার বিকালে ওমান ও কাতারের প্রস্তাব এবং বাংলাদেশের অবস্থানের কথা জানান জাতীয় দল কমিটির চেয়ারপারসন কাজী নাবিল আহমেদ।

তিনি বলেন, ‘মূলত প্রস্তাবটা দেয় ওমান। তবে ওমানের হয়ে কাতারও প্রস্তাব দিয়েছে। কাতারও জানিয়েছে ওমানেই খেলাগুলো হবে। ওমান কোনো কারণে খেলাগুলো করতে না পারলে সেটা কাতার করতে আগ্রহী সবার জন্য। ফিফার ওয়েবসাইটে ভারত ও আফগানিস্তানের হোম ভেন্যু দেয়া নেই। বাংলাদেশের হোম ভেন্যু সিলেটে।’

এমন প্রস্তাবে সাড়া দিতে চায় না বাংলাদেশ। হোম ভেন্যুর সুবিধা নিতে চায় ফেডারেশন।

নাবিল বলেন, ‘আমরা ফিফার ওয়েবসাইটে দেখেছি কেউ তাদের হোম ভেন্যু ঘোষণা করেনি। একমাত্র বাংলাদেশই হোম ভেন্যু ঘোষণা করেছে। সিলেট। আমরা তাদের প্রস্তাবের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে দিচ্ছি। আমরা বর্তমানে যে ফিকশ্চার আছে সেই অনুযায়ী আমাদের ম্যাচগুলো বাংলাদেশেই খেলতে আগ্রহী। এবং যে তারিখ দেওয়া আছে সেটা অনুসারে।’

তবে ফিফা বা এএফসি কাতার বা ওমানের প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে নিরপেক্ষ ভেন্যু দিলে প্লান ‘বি’ নিয়ে ভাববে বাংলাদেশ।

জাতীয় দল কমিটির প্রধান বলেন, ‘ওমান আমাদের জন্য তিনটি ম্যাচের প্রস্তাব করেছিল ২৪, ২৭, ৩০ মার্চ। শেষ পর্যন্ত এএফসির সিদ্ধান্ত মানতে হলে প্লান বি-তে চলে যাব।’

প্রিমিয়ার লিগের প্রথম পর্বের প্রথম রাউন্ডের ম্যাচ শেষ হবে ১৮ জানুয়ারি। তারপর জাতীয় দল নিয়ে ক্যাম্প করতে চায় ফেডারেশন। কারণ বিশ্বকাপ বাছাইয়ের বাকি তিন ম্যাচের প্রস্তুতি নিয়ে কোনো রকম ঘাটতি রাখতে চায় না দেশের ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

শেয়ার করুন

মন্তব্য