20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
ইপিএলে সিটি ও ইউনাইটেডের জয়

ইপিএলে সিটি ও ইউনাইটেডের জয়

নিউকাসলের বিপক্ষে ইউনাইটেড জিতেছে ৪-১ গোলে। আর আর্সেনালকে একমাত্র গোলে হারিয়েছে সিটি।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে লিভারপুল ও চেলসির ড্রয়ের দিন জয় পেয়েছে ম্যানচেস্টারের দুই ক্লাব সিটি ও ইউনাইটেড। নিউকাসলের বিপক্ষে ইউনাইটেড জিতেছে ৪-১ গোলে। আর আর্সেনালকে একমাত্র গোলে হারিয়েছে সিটি।

সিটির মাঠ ইতিহাদ স্টেডিয়ামে সিটির একাদশে বড় পরিবর্তন ছিল দুটি। ফিটনেসের সমস্যায় ম্যাচে ছিলেন না মিডফিল্ডার কেভিন ডি ব্রুইনা। আর চোট থেকে সুস্থ হয়ে চার মাস পর মাঠে নেমেছিলেন সার্হিও আগুয়েরো।

স্টার্লিং_সিটি

ম্যাচের একমাত্র গোলে ভূমিকা ছিল এই আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকারের। ২৩ মিনিটে তার বাড়ানো বলেই বক্সের ভেতরে শট নেন ফিল ফডেন। আর্সেনাল গোলকিপার বার্নড লেনো তা ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হওয়ায় ফিরতি বলে শট নিয়ে গোল করেন রাহিম স্টার্লিং।

ঐ এক গোলেই ম্যাচ জিতে নেয় পেপ গার্দিওলার দল। আর্সেনালকে হারিয়ে লিগে তিন ম্যাচ পর জয় পেয়েছে সিটিজেনরা।

তাদের নগর প্রতিদ্বন্দ্বী ইউনাইটেড বড় জয় পেয়েছে নিউকাসলের মাঠে। ম্যাচের শেষ ১০ মিনিটে তিন গোল করে ওলে গানার সোলস্কায়ারের দল।

সেইন্ট জেমসেস পার্কে শুরুতে লুক শ'র আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় ঘরের দল নিউকাসল। ম্যাচে সময় তখন মাত্র তিন মিনিট।

নিউকাসল_ইপিএল

ইউনাইটেড সমতা ফেরায় বিশ মিনিট পরই। হ্যারি ম্যাগুয়াইরের হেড স্কোরলাইন দাঁড়ায় ১-১। লিড নিতে সফরকারী দলকে অপেক্ষা করতে হয় এক ঘণ্টারও বেশি।

৮৬ মিনিটে র‍্যাশফোর্ডের অ্যাসিস্ট থেকে ব্যবধান গড়েন ব্রুনো ফার্নানদেস। চার মিনিট পর আবারও অ্যাসিস্ট করেন র‍্যাশফোর্ড। এবারে তার বাড়ানো বল থেকে ইউনাইটেডের তৃতীয় গোল করেন অ্যারন ওয়ান-বিসাকা।

ব্রুনো_ইউনাইটেড

ইনজুরি টাইমে নিজেই স্কোরশিটে নাম তোলেন র‍্যাশফোর্ড। ফার্নানদেসের পাস থেকে দলের বড় জয় নিশ্চিত করেন ৯৬ মিনিটে।

এই জয়ে ইউনাইটেড চার ম্যাচে ছয় পয়েন্ট নিয়ে আছে ১৪ নম্বরে। সমান ম্যাচে সাত পয়েন্ট নিয়ে সিটি আছে সাতে। রাতের আরেক ম্যাচে সাউদ্যাম্পটনের সঙ্গে ৩-৩ গোলে ড্র করেছে চেলসি। এভারটনের সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র লিভারপুলের।

শেয়ার করুন

মন্তব্য