20201002104319.jpg
মার্সিসাইড ডার্বিতে কেউ জেতেনি

মার্সিসাইড ডার্বিতে কেউ জেতেনি

জমজমাট ম্যাচে লিভারপুল ও এভারটন ড্র করেছে ২-২ গোলে। শেষ মুহূর্তে করা জর্ডান হেন্ডারসনের গোল অফসাইডের কারণে বাতিল করে দেন রেফারি। টানা ১০ বছর মার্সিসাইড ডার্বিতে অপরাজিত আছে লিভারপুল।

গুজিসন পার্কে মন খারাপ করার মত এক রেকর্ড নিয়ে লিভারপুলের বিপক্ষে নামে এভারটন। নগর প্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষে ১০ বছরে একবারও জয়ী দল ছিল না তারা।

ম্যাচ শুরু হতে না হতেই সেই রেকর্ড আরও ভারী হয়ে চেপে বসে এভারটন ম্যানেজার কার্লো আনচেলত্তির কাঁধে। তিন মিনিটেই এভারটনের মাঠে এগিয়ে যায় লিভারপুল। অ্যান্ডি রবার্টসনের অ্যাসিস্ট থেকে নতুন মৌসুমের প্রথম মার্সিসাইড ডার্বিতে গোল করেন সাদিও মানে।সাদিও_মানে

পিছিয়ে পড়ে দমে যায়নি ঘরের দল। ভার্জিল ফন ডাইক ইনজুরির কারণে ১১ মিনিটে মাঠ ছাড়লে বাড়তি অনুপ্রেরণা পায় এভারটন। লিভারপুলের হাই প্রেসিং ফুটবলের জবাব তারা দেয় কাউন্টার অ্যাটাক থেকে। দ্য টফিস ম্যাচে সমতা ফেরায় ১৯ মিনিটে। হামেস রদ্রিগেসের ক্রস থেকে স্কোরলাইনকে ১-১ বানিয়ে দেন মাইকেল কিন। সমতায় থেকেই শেষ হয় প্রথমার্ধ।কিন_এভারটন

দ্বিতীয়ার্ধেও জমজমাট ফুটবল উপহার দেয় দুই দল। পরের গোল আসে ৭২ মিনিটে। জর্ডান হেন্ডারসনের ক্রস ইয়ারি মিনা বক্স থেকে ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হলে তা পেয়ে যান মোহাম্মেদ সালাহ। কাছ থেকে কোন ভুল করেননি মিশরীয় সুপারস্টার।

সালাহ_লিভারপুল

এরপরও আক্রমণের ধার কমায়নি এভারটন। রদ্রিগেস এবং ডমিনিক ক্যালভার্ট-লুইনের গড়া ফরোয়ার্ড লাইন বারবার পরীক্ষা নিতে থাকে লিভারপুলের।

৮১ মিনিটে দ্বিতীয়বারের মত সমতা ফেরায় ঘরের দল। বাঁ প্রান্ত থেকে লুকা ডিনিয়ের ক্রসে মাথা ছোঁয়ান ক্যালভার্ট-লুইন। ম্যাচের শেষ দিকে বাড়তে থাকে উত্তেজনা। থিয়াগো আলকানতারাকে ফাউল করে লাল কার্ড দেখে এভারটনের রিচার্লিসন।ক্যালভার্ট_লুইন

লিভারপুল ম্যাচে জয়ের শেষ সুযোগ পায় ৯৪ মিনিটে। মানের ক্রস থেকে হেন্ডারসনে করা গোল ভিএআরের সাহায্যে নিয়ে অফসাইড দেন রেফারি। ২-২ সমতাতেই শেষ হয় ম্যাচ। পাঁচ ম্যাচ শেষে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলে সবার উপরে আছে এভারটন। তিন পয়েন্ট পিছিয়ে দুইয়ে লিভারপুল।

শেয়ার করুন

মন্তব্য