জেলার দায়িত্বে সালাউদ্দিন, পুরনো দায়িত্বে মুর্শেদী-নাবিল 

জেলার দায়িত্বে সালাউদ্দিন, পুরনো দায়িত্বে মুর্শেদী-নাবিল 

কাজী সালাউদ্দিন বলেন, ‘আমি জেলার ফুটবল দেখার দায়িত্ব নিয়েছি। শোনা যায় লিগ হয় না জেলায়। তাই আমি এটা দেখবো। ওই গ্যাপ ফুলফিল করতে যাতে কারও উপর ভরসা করতে না হয়।’

নির্বাচনের পর কার্যনির্বাহী কমিটির প্রথম বৈঠকে দেখা গেল দায়িত্ব বন্টনে রদবদল। দেশের ফুটবল উন্নয়নে স্ট্যান্ডবাই কমিটিগুলো সাজিয়ে ফেলা হয়েছে। জাতীয় দল ও পেশাদার লিগ কমিটির দায়িত্ব দেয়া হয়েছে কাজী নাবিল আহমেদ ও আব্দুস সালাম মুর্শেদীকে। আর জেলার দায়িত্ব নিজের কাছেই রেখেছেন বাফুফের সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন।

নির্বাচনে অভিষেকেই বাজিমাত করা দুই সহ-সভাপতি ইমরুল হাসান ও আতাউর রহমান মানিককে দুটি গুরুত্বপূর্ণ কমিটির দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। ডেভেলপমেন্টের দায়িত্ব পেয়েছেন আতাউর রহমান মানিক ও মহানগর লিগের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে ইমরুল হাসানকে।

নির্বাচনের সপ্তাহখানেক পরে রোববার বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের প্রথম কার্যনির্বাহী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। নতুন নির্বাচিত ২০ জনের মধ্যে অসুস্থতার কারণে উপস্থিত ছিলেন না সদস্য হারুনুর রশিদ ও মাহিউদ্দিন আহমেদ সেলিম।

অতীত অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে সবাইকে নিয়ে ফুটবলের উন্নয়ন করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন কাজী সালাউদ্দিন। টানা চতুর্থ মেয়াদে বাফুফের সভাপতি বলেন, ‘নতুন কমিটির সবাই এখানে ফুটবলের জন্য কাজ করতে এসেছেন। কয়েকজনের আগের মেয়াদের অভিজ্ঞতা ব্যবহার করে নতুনদের সঙ্গে আলাপ করেছি। নতুনরা সবাই রোমাঞ্চিত কাজ করার জন্য। আমরা কাজ করার জন্য প্রস্তুত।’

পেশাদার লিগ কমিটির পাশাপাশি ফাইন্যান্স কমিটির দায়িত্বও পেয়েছেন আব্দুস সালাম মুর্শেদী। এই দুই কমিটিতে আগেরবারও চেয়ারম্যান ছিলেন বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি।

আগের তিন মেয়াদে জেলা ও বিভাগীয় লিগ আয়োজন নিয়ে যেসব প্রশ্ন উঠেছে এই মেয়াদে তার কোনো সুযোগ রাখতে চান না কাজী সালাউদ্দিন। তাই এবার নিজের কাঁধেই তুলেন নিলেন জেলা ফুটবল লিগের দায়িত্ব।

কাজী সালাউদ্দিন বলেন, ‘জেলা ফুটবল লিগ কমিটি কাজী সালাউদ্দিন। আমি জেলার ফুটবল দেখার দায়িত্ব নিয়েছি। শোনা যায় লিগ হয় না জেলায়। তাই আমি এটা দেখবো। ওই গ্যাপ ফুলফিল করতে যাতে কারও উপর ভরসা করতে না হয়।’
বাফুফে কমিটিতে সালাউদ্দিন

গত ৩ অক্টোরের নির্বাচনে চার সহ-সভাপতি পদের একটিতে মহিউদ্দিন মহি ও তাবিথ আউয়াল দুইজন সমান ভোট পেয়েছেন। তারা দুজনের বিদায়ী কমিটিতেও সহ-সভাপতি ছিলেন। এ পদে পুনরায় ভোট হবে ৩১ অক্টোবর।

তাদের একজনকে নিয়ে কমিটি করা হয়েছে বলে জানান বাফুফে সভাপতি, ‘আরেকটি সহ-সভাপতি পদে যিনি আসবেন, তার জন্য একটা কমিটি রাখা হয়েছে। কমিটির নাম এখনই বলতে চাইছি না।’

নারী ফুটবল কমিটির প্রধানের দায়িত্ব পড়েছে মাহফুজা আক্তার কিরণের কাঁধে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য