20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
পুনঃভোটের জন্য প্রস্তুত তাবিথ-মহি

পুনঃভোটের জন্য প্রস্তুত তাবিথ-মহি

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) নির্বাচনে সহসভাপতি পদে নাটকীয়ভাবে ‘টাই’ হয়েছে।

তাই সহসভাপতি চার পদের তিনটি চূড়ান্ত হলেও একটি অমীমাংসিত রয়েছে গেছে। এই একটি অমীমাংসিত পদে চলতি মাসের ৩১ তারিখ ভোট হবে ফেডারেশনের ভবনে।

মহিউদ্দিন মহি ও তাবিথ আউয়াল এই পদে লড়বেন।

দুই জনই বাফুফের বিদায়ী কার্যনির্বাহী কমিটিতে সহসভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এবারও স্বতন্ত্রভাবে দাঁড়িয়েছেন তাবিথ আউয়াল এবং সমন্বয় ফুটবল পরিষদ প্যানেল থেকে দাঁড়িয়েছেন মহিউদ্দিন মহি। পুনঃভোটে জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী দুই প্রার্থীই।

রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে গত ৩ অক্টোর এই নির্বাচন হয়। এতে চতুর্থবারের মতো সভাপতি নির্বাচিত হয়েছে কাজী সালাউদ্দিন। সিনিয়র সহসভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছেন আব্দুস সালাম মুর্শেদী।

সহসভাপতি পদে এবার ৮জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ভোটের হিসাবে সহসভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন ইমরুল হাসান, কাজী নাবিল আহমেদ ও আতাউর রহমান ভূঁইয়া মানিক। চতুর্থ সহসভাপতি পদে তাবিথ আউয়াল ও মহিউদ্দিন মহি দুজনই পেয়েছেন ৬৫ ভোট।

মহিউদ্দীন মহি বলেন, ‘এবার যারা নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন সবাই যোগ্য। তাবিথও যোগ্য। যে কেউ আসুক সবাই দেশের ফুটবলের জন্য কাজ করবে।

‘আমি অনেক আগে থেকে ফুটবলের সঙ্গে জড়িত। পুনঃভোটে ভোটাররা এই অভিজ্ঞতার বিষয়টা বিবেচনায় এনে জয়ী করবেন বলে আশা রাখি।’

কাউন্সিলররা গত চার বছরের কাজের মূল্যায়ন করে পুনঃভোটে রায় দেবে বলে বিশ্বাস স্বতন্ত্র প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের।

তিনি বলেন, ‘আমি ৩১ অক্টোবরের ভোটের জন্য প্রস্তুত। আশা করি, কাউন্সিলররা ভোট দিয়ে আমার গত চার বছরের কাজের মূল্যায়ন করবেন।

‘ভোট হবে, তাই ভোটের জন্যই আমি প্রস্তুতি নিচ্ছি। আমরা দুই জনই একসঙ্গে কাজ করেছি। আমি মনে করি, এক্ষেত্রে কাউন্সিলররা কাজের মূল্যায়নই করবেন।’

এবার নির্বাচনে ২১ পদে ৪৭ জন প্রার্থী লড়াই করেছেন; ভোট দিয়েছেন ১৩৫ জন।

শেয়ার করুন

মন্তব্য