20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
লিভারপুলের বিপক্ষে ভিলার ৭ গোল

লিভারপুলের বিপক্ষে ভিলার ৭ গোল

১৯৫৩ সালে আর্সেনালের পর প্রথম চ্যাম্পিয়ন দল হিসেবে, এক ম্যাচে সাত গোল হজম করেছে লিভারপুল।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের নতুন মৌসুমে প্রথম হারের স্বাদ নিয়েছে লিভারপুল। নিজ মাঠে অ্যাস্টন ভিলার সামনে দাঁড়াতেই পারেনি চ্যাম্পিয়নরা, হেরে গেছে ৭-২ গোলে। এটি ইয়ুর্গেন ক্লপের লিভারপুল ক্যারিয়ারে সবচেয়ে বড় ব্যবধানে হার।

গত তিন মৌসুমে লিভারপুলের উত্থানের পেছনে অন্যতম মূল শক্তি ছিল তাদের ডিফেন্স। গোলকিপার অ্যালিসন ও ডিফেন্ডার ত্রয়ী ভার্জিল ফন ডাইক, অ্যান্ডি রবার্টসন ও ট্রেন্ট-আলেক্সান্ডার আর্নল্ডের রক্ষণভাগ অধিকাংশ সময়েই বিপদমুক্ত রেখেছেন লিভারপুলকে।

লিভাপুলের মাঠ অ্যানফিল্ডের এই ম্যাচে দেখা গেছে উলটো চিত্র। অ্যালিসনের চোটের কারণে ভিলার বিপক্ষে একাদশে ছিলেন আদ্রিয়ান। এই স্প্যানিয়ার্ডের ভুলেই চার মিনিটে গোল হজম করে লিভারপুল।

আদ্রিয়ানের ভুল পাস থেকে বল পেয়ে ভিলার পক্ষে নিজের প্রথম গোল করেন অলি অ্যাটকিনস। ব্রেন্টফোর্ড থেকে এই মৌসুমেই ভিলায় যোগ দেওয়া এই স্ট্রাইকার নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ন করেন প্রথমার্ধেই। তার দ্বিতীয় গোল আসে ২২ মিনিটে আর তৃতীয়টি ছিল ৩৯ মিনিটে।

অ্যাটকিনস ছাড়াও লিভারপুলের বিপক্ষে গোল উৎসবে যোগ দেন জন ম্যাকগিন। ঘরের দলের হয়ে মোহাম্মেদ সালাহ এক গোল শোধ করলে, বিরতির সময় স্কোরলাইন দাঁড়ায় ৪-১।

দ্বিতীয়ার্ধের ১০ মিনিটে একে ৫-১ বানিয়ে দেন রস বার্কলি। সালাহর দ্বিতীয় গোলে ব্যবধান কমলেও, লিভারপুল বড় হার এড়াতে পারেনি।

৬৬ ও ৭৫ মিনিটে জ্যাক গ্রিলিশের জোড়া আঘাতে নিশ্চিত হয় চ্যাম্পিয়নদের ৭-২ গোলের লজ্জা।

১৯৫৩ সালে আর্সেনালের পর প্রথম চ্যাম্পিয়ন দল হিসেবে, এক ম্যাচে সাত গোল হজম করেছে লিভারপুল। এই হারে লিগ টেবিলে তাদের অবস্থান পঞ্চম।

টানা তিন জয়ে ভিলা পৌছে গেছে দুই নম্বরে। চার ম্যাচে চার জয় নিয়ে সবার উপরে এভারটন।

শেয়ার করুন