মগবাজার বিস্ফোরণ: ভবন কেয়ারটেকারের মরদেহ উদ্ধার

মগবাজার বিস্ফোরণ: ভবন কেয়ারটেকারের মরদেহ উদ্ধার

বিস্ফোরণে লণ্ডভণ্ড হয়ে যাওয়া ভবনের কেয়ারটেকার মো. হারুনুর রশিদ। ছবি: সংগৃহীত

বিস্ফোরণের পর থেকেই হারুনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। তার ছবি ও পরিচয়পত্র হাতে এক হাসপাতাল থেকে অন্য হাসপাতালে খুঁজে ফিরছিলেন মেয়ে হেনা বেগম।

মগবাজারের বিস্ফোরণের লণ্ডভণ্ড হয়ে যাওয়া ভবনের কেয়ারটেকারের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তার নাম মো. হারুনুর রশিদ।

মঙ্গলবার বিকেলে ভবনটির পেছনের ছোট্ট একটি কক্ষ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেন ফায়ার সার্ভিসের অপারেশন বিভাগের উপপরিচালক দেবাশীষ বর্ধন।

বিস্ফোরণের পর থেকেই হারুনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। তার ছবি ও পরিচয়পত্র হাতে এক হাসপাতাল থেকে অন্য হাসপাতালে খুঁজে ফিরছিলেন মেয়ে হেনা বেগম।

মগবাজার ওয়্যারলেস এলাকার আড়ংয়ের শোরুম ও রাশমনো হাসপাতালের উল্টো দিকের মূল সড়ক লাগোয়া একটি ভবনে রোববার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে বিস্ফোরণ হয়।

এ ঘটনায় মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়াল সাতজনে। বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে আরও অনেকের।

হেনা বেগম নিউজবাংলাকে জানান, গত তিন বছর ধরে বিস্ফোরণ ঘটা তিনতলা ভবনটির কেয়ারটেকার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন তার বাবা হারুন অর রশিদ। তিনি ভবনের নিচতলার একটি ছোট ঘরে থাকতেন। তার বয়স ৭০। গ্রামের বাড়ি বরিশাল।

তিনি বলেন, ‘ঘটনার দিন বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বাবার সঙ্গে ফোনে শেষ কথা হয়। এরপর তার মোবাইল বন্ধ, কোনো খোঁজ পাচ্ছিলাম না।’

হেনার অভিযোগ পেয়ে ভবনের ভেতরে হারুনের ঘরটিতে তল্লাশি শুরু করে ফায়ার সার্ভিস। ভবনের ধ্বংসস্তূপের নিচেই পাওয়া যায় মরদেহটি।

আরও পড়ুন:
মগবাজারের বিস্ফোরণ ‘মিথেন গ্যাস থেকে’
মগবাজারে বিস্ফোরণ: অবহেলায় মৃত্যুর মামলা
মগবাজারে বিস্ফোরণ: জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে তিনজন
মগবাজার বিস্ফোরণে যা ঘটেছিল
মগবাজার বিস্ফোরণের কেন্দ্র বেঙ্গল মিট

শেয়ার করুন

মন্তব্য