ওসি প্রদীপের সম্পত্তি রাষ্ট্রের জিম্মায়

ওসি প্রদীপের সম্পত্তি রাষ্ট্রের জিম্মায়

ওসি প্রদীপের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি রাষ্ট্রের তত্ত্বাবধানে নিয়ে দেখভাল করতে রিসিভার নিয়োগ করেছে আদালত। ছবি: নিউজবাংলা

দুদকের আইনজীবী মাহমুদুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, ‘প্রদীপ ও তার স্ত্রী সম্পত্তি দেখভালের জন্য চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক ও কক্সবাজারের জেলা প্রশাসককে রিসিভার হিসেবে নিয়োগ করে আদেশ দিয়েছে আদালত।’

টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ ও তার স্ত্রী চুমকি কারণের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি রাষ্ট্রের তত্ত্বাবধানে নিয়ে দেখভাল করতে রিসিভার নিয়োগ করেছে আদালত।

চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ শেখ আশফাকুর রহমানের আদালত মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে রিসিভার নিয়োগের আদেশ দেন।

দুদকের আইনজীবী মাহমুদুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, ‘প্রদীপ ও তার স্ত্রী সম্পত্তি দেখভালের জন্য চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক ও কক্সবাজারের জেলা প্রশাসককে রিসিভার হিসেবে নিয়োগ করে আদেশ দিয়েছে আদালত।’

এর আগে ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে এক আদেশে প্রদীপ ও চুমকির নামে থাকা ছয়তলা বাড়িসহ সকল সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ দিয়েছিল আদালত। এরপর দুদকের পক্ষ থেকে সম্পত্তি দেখভাল করতে রিসিভার নিয়োগ করার জন্য আদালতে আবেদন করা হয়েছিল।

ওসি প্রদীপের চট্টগ্রামের কোতোয়ালি এলাকার ছয়তলা বিল্ডিং, পাঁচলাইশ এলাকায় জমি, দুটি গাড়ি ও কক্সবাজারে ফ্ল্যাট রয়েছে।

গত বছরের ৩১ জুলাই টেকনাফের বাহারছড়া তল্লাশিচৌকিতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান। এ ঘটনায় নিহতের বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে কক্সবাজারের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রদীপসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

এরপর অসুস্থতার কথা বলে থানা থেকে ছুটি নিয়ে চলে যান প্রদীপ। তিনি চট্টগ্রামে আত্মগোপনে থাকেন। সেখান থেকে ৬ আগস্ট কক্সবাজার আদালতে আত্মসমর্পণ করেন তিনি। তারপর থেকে প্রদীপ কারাগারে আছেন।

সিনহা হত্যা মামলায় প্রদীপসহ ১৫ আসামির বিরুদ্ধে রোববার অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছে আদালত।

আরও পড়ুন:
সিনহা হত্যা: ওসি প্রদীপসহ ১৫ জনের বিচার শুরু
সিনহা হত্যা: আদালতে ১৫ আসামি
সিনহা হত্যা: আত্মসমর্পণের পর কারাগারে কনস্টেবল সাগর
চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার কারাগারে ওসি প্রদীপ
কাকে কটাক্ষ করলেন সোনাক্ষী

শেয়ার করুন

মন্তব্য