20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
ধর্ষণের পর হত্যা করে খালে ফেলে দেন ‘প্রেমিক’

ধর্ষণের পর হত্যা করে খালে ফেলে দেন ‘প্রেমিক’

ডামুড্যা পৌর এলাকার আলাউদ্দিন ছৈয়ালের মেয়ে কাজল ২১ অক্টোবর রাতে পাশের বাড়িতে টেলিভিশন দেখতে গিয়ে আর ফেরেননি। পরদিন সকালে বাড়ির পেছনের খাল থেকে হাত-পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

শরীয়তপুরের ডামুড্যার আলোচিত কাজল হত্যা মামলায় রোববার দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, তারা হলেন- কিশোরী কাজলের কথিত প্রেমিক বাবু চৌকিদার ও তার সহযোগী জুয়েল। তারা কাজলকে ধর্ষণের পর হত্যা করে খালে ফেলে দেয়ার কথাও স্বীকার করেছেন।

ডামুড্যা পৌর এলাকার কুলকুড়ি গ্রামের আলাউদ্দিন ছৈয়ালের মেয়ে কাজল ২১ অক্টোবর রাতে পাশের বাড়িতে টেলিভিশন দেখতে গিয়ে আর ফেরেননি। পরদিন সকালে বাড়ির পেছনের খাল থেকে হাত-পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ডামুড্যা থানায় অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করে হত্যা মামলা করেন কাজলের বাবা।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদি হাসান জানান, কাজলের কথিত প্রেমিক বাবু চৌকিদার হত্যাকাণ্ডের হোতা। তাকে রোববার ডামুড্যা থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এছাড়া ঘটনায় জড়িত অভিযোগে জুয়েল নামে আরও এক জনকে ডামুড্যা থেকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-৮।

ওসি মেহেদি হাসান জানান, তারা দুজনই ধষর্ণের পর ওই কিশোরীকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। তারা হাত-পা ও মুখ বেঁধে কাজলকে খালের পানিতে ফেলে দেন। বাবু চৌকিদারকে ঘটনাস্থলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তার দেয়া বর্ণনা সব মিলে গেছে। তাদেরকে আরো জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য