× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

ফ্যাক্ট চেক
Nai Kakan died of an old illness after seeing Argentinas goals scored
hear-news
player
google_news print-icon

‘আর্জেন্টিনার গোল খাওয়া দেখে নয়, কাকনের মৃত্যু পুরোনো অসুস্থতায়’

আর্জেন্টিনার-গোল-খাওয়া-দেখে-নয়-কাকনের-মৃত্যু-পুরোনো-অসুস্থতায়
আর্জেন্টিনা-সৌদি আরব ম্যাচের একটি দৃশ্য (বাঁয়ে) এবং কাউসার জাবেদ কাকন। ছবি: সংগৃহীত
কাউসার জাবেদ কাকনের পরিবারের সদস্যরা বলছেন, প্রতিবেদনটি প্রকাশের আগে তাদের কোনো বক্তব্য নেয়া হয়নি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভুল তথ্য ছড়িয়ে পড়ার পর তারা বিদ্রুপের শিকার হচ্ছেন।

আর্জেন্টিনার বিপক্ষে সৌদি আরবের গোলের দৃশ্য সহ্য করতে না পেরে কুমিল্লায় কাউসার জাবেদ কাকন নামে এক ব্যক্তির মৃত্যুর খবর প্রকাশ করেছে কয়েকটি সংবাদমাধ্যম।

তবে কাকনের পরিবার বলছে, তিনি দীর্ঘদিন ধরে অ্যাজমা ও হৃদযন্ত্রের সমস্যায় ভুগছিলেন। তার মৃত্যু পুরোনো অসুস্থতাজনিত, তিনি আর্জেন্টিনা দলের সমর্থক হলেও খেলার উত্তেজনায় মৃত্যুর তথ্য সঠিক নয়।

পরিবারের সদস্যদের বক্তব্য ছাড়াই এ ধরনের প্রতিবেদন প্রকাশ নিয়ে ক্ষোভ জানিয়ে তারা বলছেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভুল তথ্য ছড়িয়ে পড়ার পর তারা বিদ্রুপের শিকার হচ্ছেন।

৫০ বছর বয়সী কাকনের বাড়ি কুমিল্লা বুড়িচং উপজেলার শিকারপুর গ্রামে। তার দুই ছেলে এক মেয়ে রয়েছে।

কুমিল্লা শহরের রেসকোর্সেও কাউসার জাবেদ কাকনের বাড়ি রয়েছে।

সম্প্রতি সপরিবারে তারা গ্রামের বাড়ি শিকারপুরে বেড়াতে যান। সেখানে মঙ্গলবার বিকেলে অসুস্থ বোধ করলে স্বজনরা হাসপাতালে নিয়ে যান, তবে কিছুক্ষণ পর চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন ওই এলাকার ইউপি সদস্য জাকির হোসেন ও সাবেক ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিন।

সাবেক ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিন বলেন, ‘কাকন দীর্ঘদিন ধরে অ্যাজমা ও হার্টের সমস্যায় ভুগছিলেন। শ্বাস-প্রশ্বাস ঠিক রাখতে তিনি নিয়মিত ইনহেলার ব্যবহার করতেন।’

বর্তমান ইউপি সদস্য জাকির হোসেন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘খেলার সঙ্গে কাকনের মৃত্যুর কোনো সম্পর্ক নেই। এটি একেবারেই মিথ্যা কথা। খেলা নিয়ে উনার তেমন আবেগ কখনও চোখে পড়েনি।’

কাকনের ভাই শাহিদ হাসান সোহেল নিউজবাংলাকে বলেন, ‘আমার ভাই বিকেলে খেলা দেখছিলো। তখনও সৌদি আরব আর আর্জেন্টিনার জয়-পরাজয় নির্ধারিত হয়নি। হঠাৎ আমার ভাই অসুস্থ হয়ে পড়েন। আমরা তাকে একটি প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।’

আরও পড়ুন: পত্রিকার ভুল তথ্যে বিদ্রুপে বিপর্যস্ত ২ নিহতের পরিবার

পরিবারের সদস্যদের বক্তব্য ছাড়াই কাকনের মৃত্যু নিয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম ‘মনগড়া’ তথ্য প্রচার করেছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘গণমাধ্যমে কারা এমন সংবাদ প্রচার করলো জানি না। এ বিষয়ে আমাদের কারও বক্তব্য নেয়ার প্রয়োজনীয়তা তারা অনুভব করেনি। বিষয়টি নিয়ে আমরা এখন বিব্রত।’

কাকনের চাচাতো ভাই আবু নাসের নিউজবাংলাকে বলেন, ‘আমার ভাই আর্জেন্টিনা সমর্থক ছিলেন। তবে খেলা দেখা নিয়ে উত্তেজনায় তিনি হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছেন, তা আদৌ সত্য নয়। যারা এটাকে খেলার সঙ্গে যুক্ত করে নিউজ করেছে তারা ভুল করেছে। আমার ভাই দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্ট ও হার্টের সমস্যায় ভুগছিলেন।’

আরও পড়ুন:
হারের অজুহাত দিতে চান না মেসি
ঘুরে দাঁড়ানো ছাড়া পথ নেই: স্কালোনি
মেসিদের হারিয়ে বিশ্বকে চমকে দিল সৌদি আরব
সৌদির অফসাইড ফাঁদে আর্জেন্টিনা, এক গোলে এগিয়ে
আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে বিশ্বকাপে প্রথম অঘটন সৌদিদের

মন্তব্য

আরও পড়ুন

ফ্যাক্ট চেক
Messi is going to play the thousandth match of his career

হাজারতম ম্যাচে নামছেন মেসি

হাজারতম ম্যাচে নামছেন মেসি আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড লিওনেল মেসি। ফাইল ছবি/এএফপি
৯৯৬টি ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা নিয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করেন লিওনেল মেসি। বার্সেলোনার হয়ে সবচেয়ে বেশি ৭৭৮টি ম্যাচ খেলেছেন তিনি। এর মধ্যে মেসির বর্তমান ক্লাব পিএসজির হয়ে খেলছেন ৫৩টি ম্যাচ।

কাতারে ফিফা বিশ্বকাপ শুরুর আগেই বেশ কিছু রেকর্ডের সামনে দাঁড়িয়ে ছিলেন আর্জেন্টিনার অধিনায়ক লিওনেল মেসি। বিশ্ব ফুটবলের মহারণ শুরুর পর একের পর এক রেকর্ড গড়ছেন তিনি। যত বেশি ম্যাচ খেলবেন, তত বেশি হবে রেকর্ডের সংখ্যা।

বিশ্বকাপের নকআউট পর্বের প্রথম ম্যাচেও একাধিক রেকর্ডের সামনে আর্জেন্টাইন ফুটবলের পোস্টার বয়। বাংলাদেশ সময শনিবার মধ্যরাতে আহমাদ বিন আলি স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নামলে হাজারতম ম্যাচ খেলার রেকর্ড গড়বেন তিনি।

৯৯৬টি ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা নিয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করেন সাতবারের ব্যালন ডরজয়ী। আর্জেন্টিনার জাদুকর বার্সেলোনার হয়ে সবচেয়ে বেশি ৭৭৮টি ম্যাচ খেলেছেন। আর বর্তমান ক্লাব প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ের (পিএসজির) হয়ে খেলছেন ৫৩টি ম্যাচ। জাতীয় দলের জার্সিতে তিনি খেলেছেন ১৬৮টি ম্যাচ।

সৌদি আরবের বিপক্ষে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ অংশ নিয়ে আর্জেন্টিনার হয়ে সবচেয়ে বেশি পাঁচটি বিশ্বকাপ খেলার রেকর্ড এরই মধ্যে গড়েছেন ৩৫ বছর বয়সী এ তারকা। ২০০৬ সালে জার্মানিতে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ থেকে শুরু করে পরবর্তী প্রতিটি আসরেই খেলেছেন তিনি।

মেসি ছাড়াও আর্জেন্টিনার হয়ে ৪টি করে বিশ্বকাপ খেলেছেন দিয়েগো ম্যারাডোনা ও হাভিয়ের মাসচেরানো।

গ্রুপ পর্বের তিনটি ম্যাচ খেলে আর্জেন্টিনার হয়ে সবচেয়ে বেশি বিশ্বকাপ ম্যাচ খেলার রেকর্ডও এখন মেসির। আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনার রেকর্ডকেও তিনি ছাড়িয়ে গেছেন।

বিশ্বকাপে ২১টি ম্যাচ খেলে শীর্ষে ছিলেন ম্যারাডোনা। কাতার বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচ খেলে মেসির ম্যাচ সংখ্যা ২২টি।

আরও পড়ুন:
আর্জেন্টিনাকে পাত্তা দিচ্ছে না অস্ট্রেলিয়া
বাংলাদেশকে ধন্যবাদ আর্জেন্টিনা দলের
পর্তুগালের সঙ্গী হওয়ার সুযোগ তিন দলের
বিশ্বকাপে আর না-ও দেখা যেতে পারে নেইমারকে
ব্রাজিলের সবচেয়ে বয়সী অধিনায়ক আলভেস

মন্তব্য

ফ্যাক্ট চেক
Australia face Argentina on the first day of the knockouts

আত্মবিশ্বাস নিয়ে নকআউটে মুখোমুখি আর্জেন্টিনা-অস্ট্রেলিয়া

আত্মবিশ্বাস নিয়ে নকআউটে মুখোমুখি আর্জেন্টিনা-অস্ট্রেলিয়া আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনির সঙ্গে অনুশীলনে মেসি ও রদ্রিগো ডি পল। ছবি: এএফপি
অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে আর্জেন্টিনা খুব বেশি দেখা না হলেও এখনও পর্যন্ত সাতবার মুখোমুখি হয়েছে দল দুটি। ১৯৮৮ সালে প্রথম সাক্ষাতে হেরেছিল দক্ষিণ আমেরিকার দেশটি। পরের ছয় ম্যাচের পাঁচটি তারা জিতেছে, ড্র হয়েছে একটি। টোকিও অলিম্পিকে অস্ট্রেলিয়ার যুব দল হারিয়েছিল আর্জেন্টিনাকে।

গ্রুপ পর্বের খেলা শেষে শনিবার থেকে শুরু হচ্ছে রাউন্ড অফ সিক্সটিনের খেলা। আর প্রথম দিনেই থাকছে বিশ্বকাপের অন্যতম হট ফেভারিট আর্জেন্টিনার ম্যাচ। এ দিন আস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হচ্ছেন লিওনেল মেসিরা।

কাতারের আহমাদ বিন আলি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় শনিবার রাত ১টায় নকআউট পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা। আর প্রথম ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে খালিফা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে রাত ৯টায় মাঠে নামবে যুক্তরাষ্ট্র।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পূর্ণ আত্মবিশ্বাস নিয়েই মাঠে নামবে লিওনেল স্কালোনির দল। গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে সৌদি আরবের বিপক্ষে হারলেও শেষ দুই ম্যাচে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় ১৯৭৮ আর ১৯৮৬ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে আর্জেন্টিনার খুব বেশি দেখা না হলেও এখনও পর্যন্ত সাতবার মুখোমুখি হয় দল দুটি। ১৯৮৮ সালে প্রথম সাক্ষাতে হেরেছিল দক্ষিণ আমেরিকার দেশটি। পরের ছয় ম্যাচের পাঁচটি তারা জিতেছে, ড্র হয়েছে একটি। টোকিও অলিম্পিকে অস্ট্রেলিয়ার যুব দল হারিয়েছিল আর্জেন্টিনাকে।

২০০৭ সালের পর আবার মুখোমুখি হচ্ছে দল দুটি। বিশ্বকাপের মূল পর্বে এবারই প্রথম দেখা হচ্ছে আর্জেন্টিনা ও অস্ট্রেলিয়ার।

পোল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের দুই দিন পরই নকআউটের ম্যাচে নামছে আর্জেন্টিনা, যা দলের জন্য কিছুটা হলেও চ্যালেঞ্জিং। দলের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় আনহেল দি মারিয়া ভুগছেন কিছুটা চোট সমস্যায়।

এদিকে বিশ্বকাপে পাঁচ আসরে মেসি যত গোল করেছেন তার সব কটিই গ্রুপ পর্বের ম্যাচে। এ ছাড়া পোল্যান্ডের বিপক্ষে পেনাল্টি মিস করায় কিছুটা হলে চাপে থাকতে পারেন সাতবারের ব্যালন ডরজয়ী এ তারকা, তবে সবকিছু একদিকে রেখে মেসি স্বরূপে ফিরবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

অন্যদিকে ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে মেসিদের কোচ স্কালোনি বলেন, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ তিনি যথেষ্ট সতর্ক।

তার ভাষ্য, ‘আমাদের মতো কঠিন দুটি ম্যাচ জিতেই তারা এখানে এসেছে। অস্ট্রেলিয়াকে সহজ প্রতিপক্ষ ভাবার ভুল আমরা করব না। সৌদি আরবের বিপক্ষে আমরা দেখেছি, বিশ্বকাপে ফেভারিট বলে কিছু নেই।’

আর্জেন্টিনার মতো একই অবস্থানে অস্ট্রেলিয়া। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে অল্প সময়ের মধ্যেই নকআউট পর্বে খেলতে নামবে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে।

আর্জেন্টিনার মতো প্রথম ম্যাচ হেরে পরের দুই ম্যাচ জিতে নকআউট পর্বের টিকিট কেটেছে আস্ট্রেলিয়া। তাই আত্মবিশ্বাসে ঘাটতি থাকবে না গ্রাহাম আর্নল্ডের দলের।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশকে ধন্যবাদ আর্জেন্টিনা দলের
উইন্ডিজকে অল্পতে গুটিয়ে বড় লিড অস্ট্রেলিয়ার
পর্তুগালের সঙ্গী হওয়ার সুযোগ তিন দলের
বিশ্বকাপে আর না-ও দেখা যেতে পারে নেইমারকে
ব্রাজিলের সবচেয়ে বয়সী অধিনায়ক আলভেস

মন্তব্য

ফ্যাক্ট চেক
Legendary footballer Peles condition is stable

পেলের অবস্থা স্থিতিশীল

পেলের অবস্থা স্থিতিশীল কিংবদন্তি ফুটবলার পেলে। ছবি: সংগৃহীত
৮২ বছর বয়সী পেলেকে সাও পাওলোর আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এমন একসময় এই কিংবদন্তি হাসপাতালে ভর্তি হলেন, যখন কাতারে বিশ্বকাপে লড়ছেন তার উত্তরসূরিরা।

শ্বাসতন্ত্রের সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ব্রাজিলের কিংবদন্তি ফুটবলার পেলের অবস্থা স্থিতিশীল।

স্থানীয় সময় শুক্রবার চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে আল জাজিরা

৮২ বছর বয়সী পেলেকে সাও পাওলোর আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এমন একসময় এই কিংবদন্তি হাসপাতালে ভর্তি হলেন, যখন কাতারে বিশ্বকাপে লড়ছেন তার উত্তরসূরিরা।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বিবৃতিতে জানিয়েছে, পেলের শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

এতে আরও জানানো হয়, তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। তবে কিছুটা উন্নতিও দেখা যাচ্ছে। হাসপাতালে রেখেই আগামী কিছুদিন তাকে চিকিৎসা দেয়া হবে।

১৯৫৮, ১৯৬২ ও ১৯৭০ বিশ্বকাপজয়ী কিংবদন্তি এডসন অ্যারানটিস দো নাসিমেন্তো বিশ্বজুড়ে পরিচিত পেলে নামেই। তাকে বলা হয় সর্বকালের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়।

কয়েক বছর ধরে ক্যানসারের চিকিৎসা নিচ্ছেন পেলে। গত বছর তার কোলন টিউমারও ধরা পড়ে। শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে খারাপ হওয়ায় তাকে আর সেভাবে প্রকাশ্যে দেখা যায় না এখন।

বাবার অসুস্থতার খবর ছড়িয়ে পড়ার পর তার ভক্তদের আশ্বস্ত করেছেন পেলের মেয়ে কেলি নাসিমেন্তো। ইনস্টাগ্রামে এক পোস্টে তিনি লিখেছেন, বাবার শরীর নিয়ে গণমাধ্যমে বেশ উদ্বেগ। তবে জরুরি বা ভয়ংকর কিছু নেই।

পেলের অসুস্থতার খবরে বিশ্বজুড়ে অসংখ্য ভক্ত উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। কাতারের স্টেডিয়াম থেকেও তার আরোগ্য কামনা করে বার্তা দেয়া হয়।

এ নিয়ে ইনস্টাগ্রামে শুভাকাঙক্ষী-ভক্তদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন পেলে। বৃহস্পতিবার পোস্টে তিনি লেখেন, এই ধরনের ইতিবাচক বার্তা পাওয়া সব সময়ই ভালো লাগে। এই শ্রদ্ধার জন্য কাতারকে ধন্যবাদ। যারা আমাকে ভালোবাসা পাঠিয়েছেন, তাদের সবাইকে ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন:
যুদ্ধ বন্ধ করুন: পুতিনকে পেলে
হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন পেলে
ফের হাসপাতালে পেলে

মন্তব্য

ফ্যাক্ট চেক
Brazil did not remain unbeaten in the knockout their partner Switzerland

অপরাজিত থাকল না ব্রাজিল, নকআউটে সঙ্গী সুইজারল্যান্ড

অপরাজিত থাকল না ব্রাজিল, নকআউটে সঙ্গী সুইজারল্যান্ড ব্রাজিলের বিপক্ষে ম্যাচজয়ী গোলের পর উচ্ছ্বসিত ক্যামেরুনের ভিনসেন্ট আবুবাকার। ছবি: টুইটার
গ্রুপ-জির শেষ ম্যাচে ক্যামেরুনের কাছে ১-০ গোলে হারের পরও শীর্ষস্থান ধরে রেখেই শেষ ষোলোতে যাচ্ছে ব্রাজিল। একই গ্রুপের আরেক ম্যাচে সার্বিয়াকে ৩-২ গোলে হারিয়ে শেষ ১৬তে তাদের সঙ্গী সুইজারল্যান্ড।

শেষ ম্যাচ হেরেই বিশ্বকাপের গ্রুপপর্ব শেষ করল ব্রাজিল। গ্রুপ-জির শেষ ম্যাচে ক্যামেরুনের কাছে ১-০ গোলে হারের পরও শীর্ষস্থান ধরে রেখে শেষ ষোলোতে নামবে তারা। একই গ্রুপের আরেক ম্যাচে সার্বিয়াকে ৩-২ গোলে হারিয়ে শেষ ১৬-তে ব্রাজিলের সঙ্গী হচ্ছে সুইজারল্যান্ড।

আর ব্রাজিলকে হারিয়েও গ্রুপে তৃতীয় হওয়ায় বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিতে হলো ক্যামেরুনকে। তবে ব্রাজিলের বিপক্ষে তাদের জয়টি একটি অনন্য রেকর্ড। কারণ এই প্রথম আফ্রিকার কোনো দলের কাছে বিশ্বকাপে হারল ব্রাজিল।

ক্যামেরুনের বিপক্ষে গ্রুপের প্রথম দুই ম্যাচ জিতে আগেই নকআউট নিশ্চিত করে ফেলা ব্রাজিল একাদশে ছিল পরিবর্তনের ছড়াছড়ি। রক্ষণে এদার মিলিতাও ও মাঝমাঠে ফ্রেডকে ছাড়া আগের ম্যাচের শুরুর একাদশের ৯ জন খেলোয়াড়কে বিশ্রাম দেন ব্রাজিলের কোচ লিওনার্দো তিতে।

বেঞ্চের শক্তি পরখ করে নেয়ার উদ্দেশ্যেই তার এই ব্যাপক রদবদল। ক্যামেরুনের বিপক্ষে দলকে নেতৃত্ব দেন ৩৯ বছর বয়সী দানি আলভেস। এতে করে বিশ্বকাপে ব্রাজিলের সবচেয়ে বয়সী খেলোয়াড় ও অধিনায়কের রেকর্ড গড়েন এ রাইট ব্যাক।

নতুন চেহারার একাদশ নিয়েও ক্যামেরুনের বিপক্ষে নিজেদের আক্রমণাত্মক ঢংয়ে শুরু করে ব্রাজিল। ১৪তম মিনিটে গাব্রিয়েল মার্তিনেলির শট ঠেকিয়ে ক্যামেরুনকে নিরাপদে রাখেন গোলকিপার ডেভিস এপাসি।

বিরতির আগে আরও দুইবার গোলের কাছাকাছি গিয়েছিল ব্রাজিল। ৩৪ মিনিটে আলভেসের জোরালো শট বারের ওপর দিয়ে চলে যায়। আর চার মিনিট পর অ্যান্টনির নিচু শট বিপদে ফেলতে পারেনি এপাসিকে। প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে মার্তিনেলির আরেকটি শট ঠেকিয়ে ব্রাজিলকে হতাশ করেন ক্যামেরুনের এ গোলকিপার।

বিরতির ঠিক আগে ক্যামেরুন দারুণ এক সুযোগ পায়। বাম প্রান্ত দিয়ে মুমি এনগামেলুর ক্রসে ব্রায়ান এমবেমুর জোরালো হেড রুখে দেন ব্রাজিলের গোলকিপার এদারসন।

দ্বিতীয়ার্ধেও একের পর এক সুযোগ পায় ব্রাজিল, কিন্তু কাজে লাগাতে পারেনি। ৫৭ মিনিটে মিলিতাও এর শট পোস্টে লেগে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

ম্যাচের ৭৯ মিনিটে অ্যান্টনির বদলে রাফিনিয়া নামলে সুযোগ বাড়ে ব্রাজিলের। ৮৯ মিনিটে তার পাস থেকে বল পেয়ে পেদ্রো বারের ওপর দিয়ে উড়িয়ে দেন।

অতিরিক্ত সময়ে কাউন্টার অ্যাটাক থেকে গোল বের করে নেয় ক্যামেরুন। ৯২ মিনিটে জেরোম এমবেকেলির পাস থেকে ব্রাজিলকে চমকে দেন ভিনসেন্ট আবুবাকার।

তবে আগেই হলুদ কার্ড পাওয়া আবুবাকার, গোলের পর জার্সি খুলে উদযাপনের জন্য দ্বিতীয় হলুদ কার্ড পেয়ে মাঠের বাইরে চলে যান।

শেষ মুহূর্তে গোল হজম করে আর ম্যাচে সমতা ফেরানোর সময় পায়নি ব্রাজিল। ফলে বিশ্বকাপে প্রথম পরাজয়ের স্বাদ পায় সেলেকাওরা।


গ্রুপের আরেক ম্যাচে প্রথমার্ধে ২-২ গোলে সমতায় ছিল সার্বিয়া ও সুইজারল্যান্ড। সুইস তারকা জেরদান শাকিরির ২০ মিনিটের স্ট্রাইকের ৬ মিনিট পর সার্বিয়াকে সমতায় ফেরান আলেক্সান্ডার মিত্রোভিচ।

মিনিট দশেক পর দুসান ভ্লায়োভিচের গোলে লিড নিয়ে নেয় সার্বিয়া। বিরতির ঠিক আগে ৪৪ মিনিটে ব্রিল এমবোলোর গোলে সমতা ফেরায় সুইসরা।

দ্বিতীয়ার্ধের একেবারে শুরুতে ম্যাচের ৪৮তম মিনিটে রেমো ফ্রিউলারের গোলে ম্যাচভাগ্য নির্ধারণ করে দেয় সুইজারল্যান্ড। বাকি সময়ে সার্বিয়া আর গোলের দেখা না পেলে, ব্রাজিলের পর গ্রুপের দ্বিতীয় সেরা দল হয়ে নকআউটে পৌঁছে যায় সুইসরা।

এই দুই ম্যাচ দিয়ে শেষ হয়েছে কাতার বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বের ম্যাচ। শনিবার থেকে শুরু হচ্ছে নকআউট পর্ব।

ব্রাজিল নকআউট পর্বে খেলবে সোমবার। তাদের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ কোরিয়া। পর দিন ক্রিস্টিয়ানো রোনালডোর পর্তুগালের বিপক্ষে লড়বে সুইজারল্যান্ড।

আরও পড়ুন:
উরুগুয়েকে কাঁদিয়ে শেষ ষোলোতে কোরিয়া
বাংলাদেশি সমর্থকদের ধন্যবাদ জানালেন আর্জেন্টিনার কোচ
আর্জেন্টিনাকে পাত্তা দিচ্ছে না অস্ট্রেলিয়া

মন্তব্য

ফ্যাক্ট চেক
16 teams will play against whom in the knockout

নকআউটে কে কার প্রতিপক্ষ

নকআউটে কে কার প্রতিপক্ষ কোরিয়ার বিপক্ষে গোলের পর পর্তুগালের রিকার্দো হোরতার উদযাপন। ছবি: টুইটার
শনিবার নেদারল্যান্ডস ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপের শেষ ষোলোর প্রতিযোগিতা। গ্রুপপর্বের মতো এখানে আর দ্বিতীয় কোনো সুযোগ নেই দলগুলোর সামনে।

ব্রাজিলের হার ও সুইজারল্যান্ডের জয় দিয়ে শেষ হলো কাতার বিশ্বকাপের গ্রুপপর্ব। অংশগ্রহণকারী ৩২ দল থেকে বাদ পড়েছে অর্ধেক। রয়ে গেছে বাকি ১৬টি দল। এই ১৬ দল থেকেই নির্ধারিত হবে নতুন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন।

বিশ্বকাপ জেতা দুই দল উরুগুয়ে ও জার্মানি গ্রুপ পর্ব থেকে বাদ পড়েছে। নকআউটের ১৬ দলের মধ্যে বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পেয়েছে ব্রাজিল, ফ্রান্স, আর্জেন্টিনা, স্পেন ও ইংল্যান্ড। বাকি ৯ দলই আছে শিরোপাশূন্য।

শনিবার নেদারল্যান্ডস ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপের শেষ ষোলোর প্রতিযোগিতা। গ্রুপপর্বের মতো এখানে আর দ্বিতীয় কোনো সুযোগ নেই দলগুলোর সামনে। হারলেই বাদ।

নকআউটে যোগ হচ্ছে অতিরিক্ত ৩০ মিনিট ও পেনাল্টি শুট আউট। অর্থাৎ নির্ধারিত ৯০ মিনিটে দুই দলের মধ্যে জয়ী নির্ধারণ করা না গেলে ম্যাচ গড়াবে অতিরিক্ত ৩০ মিনিটে। সেখানেও সমাধান না এলে পেনাল্টি শুট আউটে যাবে ম্যাচ।

নেদারল্যান্ডস-যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাচের পর শনিবার নামছে আর্জেন্টিনাও। লিওনেল মেসির দলের প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া।

পরদিন পোল্যান্ডকে মোকাবিলা করবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। আর সাবেক চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড খেলবে সেনেগালের বিপক্ষে।

সোমবার নকআউটে নামছে টুর্নামেন্টের ফেভারিট ব্রাজিল। ওই দিন রাত ১টায় তারা লড়বে কোরিয়ার বিপক্ষে। তার আগে একই দিন রাত ৯টায় জাপান মুখোমুখি হবে ক্রোয়েশিয়ার।

মঙ্গলবার শেষ হবে নকআউট পর্ব। ঐদিন মরক্কো খেলবে স্পেনের বিপক্ষে আর পর্তুগাল নেবে সুইজারল্যান্ডের চ্যালেঞ্জ।

এরপর দুই দিনের বিরতি শেষে শুক্রবার থেকে শুরু কোয়ার্টার ফাইনালের লড়াই।

বিশ্বকাপের নকআউট রাউন্ড

শনিবার- ৩ ডিসেম্বর

নেদারল্যান্ডস- ইউএসএ: রাত ৯টা
আর্জেন্টিনা-অস্ট্রেলিয়া : রাত ১টা

রোববার - ৪ ডিসেম্বর

ফ্রান্স-পোল্যান্ড: রাত ৯টা
ইংল্যান্ড-সেনেগাল: রাত ১টা

সোমবার - ৫ ডিসেম্বর

জাপান-ক্রোয়েশিয়া: রাত ৯টা
ব্রাজিল-কোরিয়া: রাত ১টা

মঙ্গলবার - ৬ ডিসেম্বর

মরক্কো-স্পেন: রাত ৯টা
পর্তুগাল-সুইজারল্যান্ড: রাত ১টা

আরও পড়ুন:
উরুগুয়েকে কাঁদিয়ে শেষ ষোলোতে কোরিয়া
বাংলাদেশি সমর্থকদের ধন্যবাদ জানালেন আর্জেন্টিনার কোচ
আর্জেন্টিনাকে পাত্তা দিচ্ছে না অস্ট্রেলিয়া

মন্তব্য

ফ্যাক্ট চেক
Korea made last sixteen after making Uruguay cry

উরুগুয়েকে কাঁদিয়ে শেষ ষোলোতে কোরিয়া

উরুগুয়েকে কাঁদিয়ে শেষ ষোলোতে কোরিয়া বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়া নিশ্চিতের পর অশ্রুসজল অধিনায়ক লুইস সুয়ারেস। ছবি: এএফপি
উরুগুয়ে ২-০ গোলে ঘানাকে হারিয়ে কোরিয়ার সমান পয়েন্ট ও গোল ব্যবধানে সমান হলেও, ৩ ম্যাচে কোরিয়ার চেয়ে মোট গোল কম করায় ছিটকে যায়। কোরিয়া ২-১ গোলে নিজেদের ম্যাচে হারিয়েছে পর্তুগালকে।

শেষ ষোলো নিশ্চিতের লড়াইয়ে ঘানাকে ২ গোল দিয়ে রাউন্ড অফ সিক্সটিনে এক পা দিয়ে রেখেছিল উরুগুয়ে। আরেক ম্যাচে দক্ষিণ কোরিয়া ১-১ গোলে ড্র করতে যাচ্ছিল পর্তুগালের বিপক্ষে।

অতিরিক্ত সময়ে উরুগুয়ের স্বপ্ন ভেঙে দেন কোরিয়ান মিডফিল্ডার হুয়াং হিচান। পর্তুগালের সঙ্গে নিশ্চিত ড্রয়ের ম্যাচে অতিরিক্ত সময়ের প্রথম মিনিটে করে বসেন দুর্দান্ত এক গোল! আর এতেই পর্তুগালের বিপক্ষে ২-১ গোলে জয় বাগিয়ে উরুগুয়েকে ছিটকে দিয়ে শেষ ষোল নিশ্চিত হয় কোরিয়ার।

অন্য ম্যাচে উরুগুয়ে ২-০ গোলে ঘানাকে হারিয়ে কোরিয়ার সমান পয়েন্ট ও গোল ব্যবধানে সমান হলেও, ৩ ম্যাচে কোরিয়ার চেয়ে মোট গোল কম করায় ছিটকে যায়।

উরুগুয়েকে কাঁদিয়ে শেষ ষোলোতে কোরিয়া
ম্যাচ জয়ের পরও বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়ায় হতাশ উরুগুয়ের ফুটবলাররা। ছবি: এএফপি


কাতারের এডুকেশন সিটি স্টেডিয়ামে ম্যাচের পঞ্চম মিনিটে লিড নেয় এক ম্যাচ হাতে রেখে দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করা পর্তুগাল। কোরিয়ার আক্রমণ ঠেকিয়ে পাল্টা আক্রমণে গিয়ে দলকে এগিয়ে দেন রিকার্ডো হোর্তা।

ডানদিক থেকে দিয়োগো দালোতের ক্রস বুঝে নিয়ে বক্সের ভেতরে থেকে সেকেন্ড পোস্টে জালের ঠিকানা খুঁজে নেন হোর্তা।

শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে ম্যাচে ফিরতে বেশি সময় নেয়নি কোরিয়া। ২৭তম মিনিটে বাঁ দিক থেকে উড়ে আসা বল রোনালডোর গায়ে লেগে পড়ে গোললাইনের সামনে। সঙ্গে সঙ্গে বল জালে জড়িয়ে দলকে সমতায় ফেরান কিম ইয়ং-গুং।

প্রথমার্ধের বাকিটা সময় কোরিয়ার উপর চড়াও হলেও গোল বের করে আনতে পারেননি রোনালডো ও তার দল। বিরতি থেকে ফিরে ঢিমেতালে খেলা শুরু করে দুই দল। যার কারণে ম্যাচ যেতে থাকে নিশ্চিত ড্রয়ের দিকে।

অতিরিক্ত সময়ের প্রথম মিনিটে বদলে যায় দৃশ্যপট। কাউন্টার অ্যাটাক থেকে বল পেয়ে ৭০ গজ দৌড়ে হুয়াং হিনকে বল দেন কোরিয়ার অধিনায়ক হিউং-মিন সন। সেখান থেকে ডি বক্সের ভেতর ঢুকে দুর্দান্ত এক শটে জালের ঠিকানা খুঁজে নেন হিচান। আর তাতেই শেষ ষোলো অনেকটা নিশ্চিত হয়ে যায় কোরিয়ার।

এরপর আর গোলের দেখা মেলেনি কারো। যে কারণে ২-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ার পাশাপাশি শেষ ষোল নিশ্চিত হয় কোরিয়ার।

উরুগুয়েকে কাঁদিয়ে শেষ ষোলোতে কোরিয়া
নকআউট নিশ্চিতের পর কোরিয়ার ফুটবলারদের উচ্ছ্বাস। ছবি: এএফপি


গ্রুপের অপর ম্যাচে এক যুগ আগের প্রতিশোধ নেয়ার সুযোগ ছিল ঘানার সামনে। সে সুযোগ পেয়েও সেটি হাতছাড়া করে আফ্রিকানরা ম্যাচের ১৮তম মিনিটে।

উরুগুয়ের ডি বক্সে মোহেমদ কুদুস ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টি পায় ঘানা। পেনাল্টি থেকে আন্দ্রে আইয়ুর নেয়া দুর্বল শট ঠেকিয়ে দিয়ে ২০১০ সালের ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি ঘটান উরুগুইয়ান গোলকিপার সার্হিও রোশে।

২০১০ বিশ্বকাপে একই ঘটনার অবতারণা করেছিলেন ঘানার অধিনায়ক আসামোয়াহ জিয়ান। সেবার ডি বক্সে ইচ্ছাকৃতভাবে হাত দিয়ে গোল ঠেকিয়েছিলেন লুইস সুয়ারেস। যে কারণে পেনাল্টি পেয়েছিল ঘানা।

সেখান থেকে স্পট কিকে এগিয়ে যেতে পারত ঘানা। কিন্তু সেই শট বারে মেরে দলকে গোলবঞ্চিত করেছিলেন জিয়ান।

ঘানা গোল মিস করায় দ্বিগুণ উদ্যমে আক্রমণ শুরু করে উরুগুয়ে। ম্যাচের ২৩ মিনিটের মাথায়ই এগিয়ে যেতে পারতো তারা। কিন্তু ডি আরাসসেতার নেয়া শট ঘানার গোলরকিপারকে পরাস্ত করলেও গোললাইন থেকে অসাধারণ দক্ষতায় সেই শট ক্লিয়ার করেন মোহামেদ সালিসু। ফলে লিডের সুযোগ হাতছাড়া হয় উরুগুয়ের।

৩ মিনিট পর ঠিকই লিড নেয় উরুগুয়ে। ডান দিক থেকে সুয়ারেসের নেওয়া শট ঘানার গোলকিপার লরেন্স আতি-জিগি রুখে দিলেও ফিরতি বলে দুর্দান্ত এক হেডে ঘানার জাল কাপিয়ে দেন আরাসসেতা।

ব্যবধান দ্বিগুণ করতে বেশি সময় নেয়নি উরুগুয়ে। ৩২ মিনিটেই আবারও ওই আরাসসেতা এগিয়ে দেন দলকে।

উরুগুয়েকে কাঁদিয়ে শেষ ষোলোতে কোরিয়া
ম্যাচ শেষে হতাশ হয়ে মাঠ ছাড়ছেন উরুগুয়ের অধিনায়ক লুইস সুয়ারেস। ছবি: এএফপি

সুয়ারেসের ঠেলে দেয়া বলে কোনাকুনি শটে জালের ঠিকানা খুঁজে নিয়ে দলকে এগিয়ে দেন তিনি।

এরপর বাকিটা সময় আর গোলের দেখা মেলেনি উরুগুয়ের। যার ফলে ২-০ গোলে জয় নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় সুয়ারেস-কাভানিদের।

জয় পেলেও লাভ হয়নি কোন। কেননা সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে এগিয়ে থেকে ততক্ষণে উরুগুয়ের বিদায় নিশ্চিত করে দিয়েছে কোরিয়া।

আরও পড়ুন:
উরুগুয়েকে কাঁদিয়ে শেষ ষোলোতে কোরিয়া
বাংলাদেশি সমর্থকদের ধন্যবাদ জানালেন আর্জেন্টিনার কোচ
আর্জেন্টিনাকে পাত্তা দিচ্ছে না অস্ট্রেলিয়া

মন্তব্য

ফ্যাক্ট চেক
Scaloni thanked the Bangladeshi Argentine fans

বাংলাদেশি সমর্থকদের ধন্যবাদ জানালেন আর্জেন্টিনার কোচ

বাংলাদেশি সমর্থকদের ধন্যবাদ জানালেন আর্জেন্টিনার কোচ ফাইল ছবি
অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নকআউট পর্বের ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশি আর্জেন্টাইন সমর্থকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন এই কোচ।

বাংলাদেশ ও আর্জেন্টিনা। দুই দেশের দূরত্ব হাজার মাইলের। ফুটবলের কল্যাণে দুই দেশ মিলেছে এক বিন্দুতে। বিশ্বকাপের সময় বাংলাদেশি ভক্তদের উন্মাদনা নজর কেড়েছে ফিফা থেকে শুরু করে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের।

সেই তালিকা আরও লম্বা হল আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনির সুবাদে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নকআউট পর্বের ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশি আর্জেন্টাইন সমর্থকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন এই কোচ।

লাখো আবেগতাড়িত সমর্থকের জন্য নিজেকে গর্বিতও মনে করছেন সাবেক এই ফুটবলার।

স্কালোনি বলেন, ‘আমি রোমাঞ্চিত। অনেক আগে ডিয়েগো (ম্যারাডোনা), পরে মেসির কারণে সারা বিশ্বে আর্জেন্টিনার ফুটবলের সমর্থক বেড়েছে। আর্জেন্টিনার এই সমর্থকদের নিয়ে আমি গর্বিত। বাংলাদেশের মতো একটা দেশে আমাদের এত সমর্থক আছে। আমরা গর্বিত।’

‘আরও অনেক দেশে আমাদের সমর্থক আছে। (তাদের জন্য) আমরা সেরাটা দেয়ার চেষ্টা করব। আমরা যদি সবশেষ দিনের মতো খেলতে পারি, তবে অনেক কিছু হতে পারে। তবে অনুভূতিটা দারুণ। বাংলাদেশের মানুষকে ধন্যবাদ।’

এর আগে বাংলাদেশি আর্জেন্টাইন সমর্থকেরা নজর কাড়ে ফিফার। আর্জেন্টিনা ও মেক্সিকোর ম্যাচের সময় আর্জেন্টিনার গোলে বাংলাদেশি ভক্তদের উল্লাসের ভিডিও নিজেদের অফিসিয়াল টুইটারে পোস্ট করেছিল বিশ্ব ফুটবল সংস্থা।

এরপর বাংলাদেশি ফ্যানদের উন্মাদনা নিয়ে পোস্ট দিয়েছে আর্জেন্টিনার জাতীয় ফুটবল দল। নিজেদের অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডল থেকে বাংলাদেশি ভক্তদের আর্জেন্টিনাকে নিয়ে উচ্ছ্বাসের দিনটি ছবি পোস্ট করে তারা।

ছবির ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, ‘আমাদের দলকে সমর্থন দেয়ার জন্য ধন্যবাদ। তোমরা আমাদের মতোই আবেগতাড়িত।’

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশি সমর্থকদের ধন্যবাদ জানালেন আর্জেন্টিনার কোচ
আর্জেন্টিনাকে পাত্তা দিচ্ছে না অস্ট্রেলিয়া
বাংলাদেশকে ধন্যবাদ আর্জেন্টিনা দলের

মন্তব্য

p
উপরে