জাপানের কানসাইয়ে আ. লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

জাপানের কানসাইয়ে আ. লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

জাপানের কানসাইতে আ. লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন।

কানসাই আওয়ামী লীগ সবসময় জামায়ত-বিএনপির অপরাজনীতিকে প্রতিহত করবে এবং সাংগঠনিক কার্যক্রম শুধুমাত্র বঙ্গবন্ধুর আদর্শে পরিচালিত হবে। কানসাই আওয়ামী লীগে কোনো কুচক্রীমহল বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে তা কঠোর হস্তে দমন করা হবে বলেও জানান তিনি।

করোনা মহামারির কারণে দেরিতে হলেও জাপানের কানসাইতে পালিত হয়েছে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী।

রোববার কেক কাটা ও আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে দলের কানসাই, জাপান শাখার উদ্যোগে দলটির ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত হয়।

জাপানে দীর্ঘদিন জরুরি অবস্থা থাকায় দেরিতে প্রতিবার্ষিকীর এ অনুষ্ঠান আয়োজন করে সংগঠনটি।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই নেতা-কর্মীদের উপস্থিতিতে কেক কাটা হয়। কানসাই আওমী লীগের সভাপতি আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েমের সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ।

বক্তব্য দেন উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য আমিনুল ইসলাম, মাসুদুল হাসান, আশরাফুজ্জামান রোমেল, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য ও জাপান আওয়ামী লীগ নেতা আনোয়ার হোসেন, বজলুর রহমান হীরা, সহসভাপতি অসীম কুমার সাহা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল করিম।

একই সঙ্গে জাপান ছাত্রলীগের নব নির্বাচিত সাংগঠনিক সম্পাদক ফখরুল ইসলাম দিদার এবং ওসাকা ছাত্রলীগের নব গঠিত আংশিক কমিটিকে কানসাই আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানানো হয়।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে সমাপনী বক্তব্যে কানসাই আওমী লীগের সভাপতি আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে নব-নির্বাচিত ছাত্রলীগ কমিটির নেতৃবৃন্দকে সততা ও আন্তরিকতা দিয়ে কাজ করে যাওয়ার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, কানসাই আওয়ামী লীগ সবসময় জামায়ত-বিএনপির অপরাজনীতিকে প্রতিহত করবে এবং সাংগঠনিক কার্যক্রম শুধুমাত্র বঙ্গবন্ধুর আদর্শে পরিচালিত হবে। কানসাই আওয়ামী লীগে কোনো কুচক্রীমহল বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে তা কঠোর হস্তে দমন করা হবে বলেও জানান তিনি।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, সাংগঠনিক সম্পাদক শামীমুল আজাদ রাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক আর এ সরকার রবিন।

আরও পড়ুন:
তৃণমূলে ফিরছে আওয়ামী লীগ
আ. লীগ নেতাকে মারধর মামলায় যুবলীগ নেতা জেলে
করোনায় আওয়ামী লীগের সব কর্মসূচি স্থগিত
আগস্টে মানবিক কর্মসূচি বাড়াবে আওয়ামী লীগ
‘গুজব প্রতিরোধে’ সভা আওয়ামী লীগের

শেয়ার করুন

মন্তব্য

জুন থেকে সৌদি আরবের তিন গন্তব্যে উড়বে ইউএস বাংলা

জুন থেকে সৌদি আরবের তিন গন্তব্যে উড়বে ইউএস বাংলা

ফাইল ছবি

সৌদি আরবে ফ্লাইট শুরু করলে ইউএস বাংলা হবে এই রুটে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী সংস্থা বিমান বাংলাদেশ-এর পর প্রথম বাংলাদেশি এয়ারলাইনস।

আগামী বছরের জুন থেকে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবের তিনটি জনপ্রিয় গন্তব্যে ফ্লাইট শুরুর পরিকল্পনা করেছে বেসরকারি এয়ারলাইনস ইউএস বাংলা।

বুধবার প্রতিষ্ঠানটির একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম দেশ সৌদি আরবের বিভিন্ন অঞ্চলে বাংলাদেশি প্রবাসীদের একটি বড় অংশ বসবাস করে। তাদের জন্য আগামী বছরের জুনে ঢাকা থেকে জেদ্দা, রিয়াদ ও মদিনা রুটে ফ্লাইট শুরুর পরিকল্পনা করেছে সংস্থাটি। এই রুটগুলোতে এয়ারবাস থ্রি থ্রি জিরো মডেলের উড়োজাহাজ ব্যবহার করারও প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।

সৌদি আরবে ফ্লাইট শুরু করলে ইউএস বাংলা হবে এই রুটে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী সংস্থা বিমান বাংলাদেশ-এর পর প্রথম বাংলাদেশি এয়ারলাইনস।

এই রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করতে বিমান বাংলাদেশ বর্তমানে বোয়িং ট্রিপল সেভেন ও সেভেন এইট সেভেন মডেলের উড়োজাহাজ ব্যবহার করছে। সে হিসেবে এয়ারবাস থ্রি থ্রি জিরো মডেলের উড়োজাহাজ দিয়ে এই রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করা প্রথম দেশি এয়ারলাইনস হবে ইউএস বাংলা।

ইউএস-বাংলার বর্তমান বহরে ৪টি বোয়িং সেভেন থ্রি সেভেন ও সাতটি এটিআর সেভেনটি টু উড়োজাহাজ রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, আগামী পাঁচ মাসের মধ্যে তাদের বহরে আরও তিনটি বোয়িং সেভেন থ্রি সেভেন ও ৪টি এটিআর সেভেনটি টু উড়োজাহাজ যুক্ত হওয়ার কথা রয়েছে।

সৌদি আরব ও ইউরোপের লন্ডন, আমস্টার্ডাম, এবং রোমে ফ্লাইট পরিচালনার জন্য আগামী দুই বছরের মধ্যে বহরে অন্তত আটটি এয়ারবাস থ্রি থ্রি জিরো উড়োজাহাজ যুক্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে সংস্থাটির।

আরও পড়ুন:
তৃণমূলে ফিরছে আওয়ামী লীগ
আ. লীগ নেতাকে মারধর মামলায় যুবলীগ নেতা জেলে
করোনায় আওয়ামী লীগের সব কর্মসূচি স্থগিত
আগস্টে মানবিক কর্মসূচি বাড়াবে আওয়ামী লীগ
‘গুজব প্রতিরোধে’ সভা আওয়ামী লীগের

শেয়ার করুন

দুবাইয়ে পাচার নারীদের দেহ ব্যবসায় বাধ্য করে চক্রটি

দুবাইয়ে পাচার নারীদের দেহ ব্যবসায় বাধ্য করে চক্রটি

র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে মানব পাচারকারী চক্রের গ্রেপ্তারকৃত সদস্য মোহাম্মদ শামসুদ্দীন।

মানব পাচারকারী চক্রের অন্যতম হোতা মোহাম্মদ শামসুদ্দীনকে রাজধানীর পল্টন থেকে গ্রেপ্তারের পর চাঞ্চল্যকর নানা তথ্য বেরিয়ে এসেছে। পরে তার দেয়া তথ্যের ওপর ভিত্তি করে রাজধানীর উত্তরা থেকে পাচার হতে যাওয়া এক নারী ও ৩ পুরুষকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব।

বিনা খরচে বিদেশ পাঠানোসহ আকর্ষণীয় বেতনে বিভিন্ন পেশায় চাকরির প্রলোভন দেখানো হতো নারীদের। শুধু তাই নয়, কোনো কোনো নারীকে নগদ অর্থও দেয়া হতো। পরে করোনা টেস্ট, ইমিগ্রেশনসহ সব কাজ করে দিত চক্রের সদস্যরা। এভাবে কোনোক্রমে দুবাই পাঠিয়েই জিম্মি করে ওইসব নারীকে দেহ ব্যবসার মতো নানা অনৈতিক কাজে বাধ্য করা হতো।

তবে বিদেশ যেতে ইচ্ছুক পুরুষদের প্রত্যেকের কাছ থেকে তিন থেকে চার লাখ টাকা নিত চক্রটি। এই চক্রের মূল হোতা মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন নামে এক ব্যক্তি। তিনি দুবাই বসে পুরো সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ করছেন।

সোমবার মানব পাচারকারী চক্রের অন্যতম হোতা মোহাম্মদ শামসুদ্দীনকে রাজধানীর পল্টন এলাকা থেকে গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদে চাঞ্চল্যকর এসব তথ্য বেরিয়ে এসেছে। পরে তার দেয়া তথ্যের ওপর ভিত্তি করে রাজধানীর উত্তরা থেকে পাচার হতে যাওয়া এক নারী ও ৩ পুরুষকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব।

সোমবার বিকেলে রাজধানীর কারওয়ান বাজার মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১-এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন বলেন, ‘মানব পাচারকারী চক্রের টার্গেট দরিদ্র মানুষ। পাচারকারীরা বিদেশে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে সহজ সরল মানুষকে ফাঁদে ফেলে নিয়ে যাচ্ছে অন্ধকার জগতে। পাচারকারীদের প্রলোভনের ফাঁদে পা দিয়ে অবৈধ পথে বিদেশ পাড়ি দিতে গিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিচ্ছেন অনেক মানুষ। এদের অধিকাংশই নারী।’

মোমেন জানান, এসব নারীকে বিদেশে আকর্ষণীয় বিভিন্ন পেশায় চাকরির কথা বলা হলেও তাদের আসলে বিক্রি করে দেয়া হয় এবং জোরপূর্বক সম্পৃক্ত করা হয় ডিজে পার্টি, দেহ ব্যবসাসহ বিভিন্ন অনৈতিক কাজে।

জিয়ার নিয়ন্ত্রিত চক্রটি দুবাই, সিঙ্গাপুর এবং ভারতে নারী এবং পুরুষদের পাচার করে আসছে। এখন পর্যন্ত প্রায় শতাধিক নারী-পুরুষকে তারা পাচার করেছে।

আব্দুল্লাহ আল মোমেন বলেন, ‘চক্রের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করে বিদেশ যাওয়ার ইচ্ছা পোষণ করে শেষ সময়ে যদি কেউ অপারগতা প্রকাশ করে তবে তাদের কাছে মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করা হয়। টাকা দেয়া সম্ভব না হলে অনেকে বাধ্য হয়েই তাদের কথামতো বিদেশের পথে পাড়ি জমায়।’

শামসুদ্দীনকে জিজ্ঞাসাবাদে আরও জানা গেছে, বর্তমানে দুবাই অবস্থান করছেন চক্রের মূল হোতা ৩৭ বছর বয়সী মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন। তার বাড়ি ফেনীতে। জিয়ার সঙ্গে বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিদের যোগসাজশের প্রমাণ পাওয়া গেছে। বিভিন্ন কোম্পানি ও গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে এই প্রতারক চক্র নারীদের বিদেশ গমনে প্রলুব্ধ করে।

আরও পড়ুন:
তৃণমূলে ফিরছে আওয়ামী লীগ
আ. লীগ নেতাকে মারধর মামলায় যুবলীগ নেতা জেলে
করোনায় আওয়ামী লীগের সব কর্মসূচি স্থগিত
আগস্টে মানবিক কর্মসূচি বাড়াবে আওয়ামী লীগ
‘গুজব প্রতিরোধে’ সভা আওয়ামী লীগের

শেয়ার করুন

নবীগঞ্জ সোসাইটি অব মিশিগানের উপদেষ্টা কমিটির দায়িত্ব গ্রহণ                                 

নবীগঞ্জ সোসাইটি অব মিশিগানের উপদেষ্টা কমিটির দায়িত্ব গ্রহণ                                 

দায়িত্ব নিয়েছে নবীগঞ্জ সোসাইটি অব মিশিগানের উপদেষ্টা কমিটি। ছবি: নিউজবাংলা

গত রোববার হ্যামট্রামেক সিটির কনান্ট রোডের (বাংলাদেশ এভিনিউ) আলম কমপ্লেক্সের দোতলায় সংগঠনের প্রধান আহ্বায়ক আনোয়ারুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আবু তোহার পরিচালনায় সাধারণ সভা ও উপদেষ্টা পরিষদের দায়িত্ব প্রদান অনুষ্ঠান হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানে বসবাসরত হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দাদের নিয়ে প্রায় ২ বছর আগে গঠন করা হয় নবীগঞ্জ সোসাইটি অব মিশিগান।

সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে ১৬ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হলেও করোনাভাইরাস পরিস্থিতির জন্য পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা যায়নি।

গত রোববার হ্যামট্রামেক সিটির কনান্ট রোডের (বাংলাদেশ এভিনিউ) আলম কমপ্লেক্সের দোতলায় সংগঠনের প্রধান আহ্বায়ক আনোয়ারুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আবু তোহার পরিচালনায় সাধারণ সভা ও উপদেষ্টা পরিষদের দায়িত্ব প্রদান অনুষ্ঠান হয়।

অনুষ্ঠানে আহ্বায়ক কমিটি থাকাকালীন সংগঠনের গঠনতন্ত্রের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়। একই সঙ্গে করোনাকালে নবীগঞ্জ উপজেলা সদর হাসপাতালে কয়েক লাখ টাকা ব্যয়ে রোগীদের জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডার, বেড ও কম্বল বিতরণের জন্য আর্থিক সহযোগিতাকারীসহ উপজেলা সদর হাসপাতালে অনুষ্ঠানটি সম্পন্ন করতে নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম, হাসপাতালের ইনচার্জ ডা. আব্দুস সামাদসহ সবাইকে সংগঠনের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানানো হয়।

সংগঠনের প্রধান আহ্বায়ক নতুন উপদেষ্টা পরিষদের নাম ঘোষণার আগে জানান, গোপন ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে প্রধান উপদেষ্টাসহ অন্য উপদেষ্টাদের নির্বাচন করা হয়।

প্রধান উপদেষ্টা হয়েছেন ইকবাল কবির চৌধুরী। অন্য উপদেষ্টারা হলেন দেওয়ান আকমল চৌধুরী, কবির চৌধুরী, আলাউর রহমান, ডাক্তার ওহিদুর রহমান চৌধুরী, মিলাদ চৌধুরী ও ওয়ারিশ মিয়া।

সংগঠনের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী, আগামী ৩ মাসের মধ্যে উপদেষ্টা পরিষদ সমঝোতার মাধ্যমে অথবা ভোটাধিকারের মাধ্যমে কার্যকরী কমিটি গঠন করবে।

সাধারণ সভায় উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন ডা. ওহিদুর রহমান চৌধুরী, ওয়ারিশ মিয়া, হারুনুর রশীদ, মোশাররফ হোসেন, আশিক রহমান, আব্দুল হাই, আবুল আবরার, মাসুদ আহমেদ, জয়নাল চৌধুরী, মোবাশ্বির আহমেদ, মোহাম্মদ ইসলামসহ অনেকেই।

আরও পড়ুন:
তৃণমূলে ফিরছে আওয়ামী লীগ
আ. লীগ নেতাকে মারধর মামলায় যুবলীগ নেতা জেলে
করোনায় আওয়ামী লীগের সব কর্মসূচি স্থগিত
আগস্টে মানবিক কর্মসূচি বাড়াবে আওয়ামী লীগ
‘গুজব প্রতিরোধে’ সভা আওয়ামী লীগের

শেয়ার করুন

আমিরাতে ওয়ার্ক পারমিটে নিষেধাজ্ঞা বাতিল চাইবে বাংলাদেশ

আমিরাতে ওয়ার্ক পারমিটে নিষেধাজ্ঞা বাতিল চাইবে বাংলাদেশ

সংযুক্ত আরব আমিরাতে কাজ করছেন প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকরা। ফাইল ছবি

অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, যৌথ অর্থনৈতিক কমিশনের বৈঠকে বাংলাদেশ দুটি বিষয়ে বেশি গুরুত্ব দেবে। এর মধ্যে একটি হচ্ছে জনশক্তি রপ্তানি ইস্যু, অন্যটি পণ্যের শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার। বর্তমানে বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য সংযুক্ত আরব আমিরাত বা ইউএইতে সরাসরি কোনও শ্রমিক (ওয়ার্কার) ভিসা নেই। অর্থাৎ বাংলাদেশিদের জন্য ‘ওয়ার্ক পারমিট’ নেই। প্রথমে ভিজিট ভিসা নিয়ে আমিরাতে যেতে হয়। ঢুকার পর কাজের জন্য আলাদা অনুমতি নিতে হয়। এতে করে বাংলাদেশি শ্রমিকদের নানা ভোগান্তি ও হয়রানির শিকার হতে হয়।

দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়াতে দুই বছর পর ফের বাংলাদেশের সঙ্গে হতে যাচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যকার যৌথ অর্থনৈতিক কমিশনের (জেইসি) বৈঠক।

সোমবার ঢাকায় এ বৈঠক আয়োজিত হবে। বৈঠকে বাংলাদেশ দলের নেতৃত্ব দেবেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। সংযুক্ত আরব আমিরাতের পক্ষে সে দেশের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আহমেদ আলী আল সাহে নেতৃত্ব দেবেন।

অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এ বৈঠকে বাংলাদেশ দুটি বিষয়ে বেশি গুরুত্ব দেবে। এর মধ্যে একটি হচ্ছে জনশক্তি রপ্তানি ইস্যু, অন্যটি পণ্যের শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার।

বর্তমানে বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য সংযুক্ত আরব আমিরাত বা ইউএইতে সরাসরি কোনও শ্রমিক (ওয়ার্কার) ভিসা নেই। অর্থাৎ বাংলাদেশিদের জন্য ‘ওয়ার্ক পারমিট’ নেই।

প্রথমে ভিজিট ভিসা (টুরিস্ট) নিয়ে আমিরাতে যেতে হয়। ঢুকার পর কাজের জন্য আলাদা অনুমতি নিতে হয়। এতে করে বাংলাদেশি শ্রমিকদের নানা ভোগান্তি ও হয়রানির শিকার হতে হয়।

আসছে জেইসি বৈঠকে, সরাসরি ওয়ার্ক পারমিটের ভিসা দেয়ার জন্য আমিরাত সরকারকে অনুরোধ জানাবে বাংলাদেশ ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইআরডির এক কর্মকর্তা নিউজবাংলাকে বলেন, ‘বাংলাদেশি শ্রমিকরা এখন আমিরাতে ওয়ার্ক পারমিটের অনুমতি পায়না। আমরা এ বিধি-নিষেধ তুলে নিতে বলব।’

তিনি আরও বলেন, এখন বাংলাদেশিরা আমিরাতে ভিসিট ভিসা নিয়ে ঢুকে। পরে ওয়ার্ক পারমিটের জন্য আলাদা আবেদন করতে হয়। এতে করে বাংলাদেশি শ্রমিকদের নানা জটিলতার মুখোমুখি হতে হয়।

আসছে জেইসি বৈঠকে বাংলাদেশিদের জন্য এ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নিতে বলা হবে। এ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলে মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটিতে বাংলাদেশি শ্রমিক যেতে সহজ হবে এবং জনশক্তি রপ্তানি আরও বাড়বে।

জনশক্তি রপ্তানি ও কর্মসংস্থান ব্যুরো অফিস কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, চলতি বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশ থেকে ২০ লাখের ও বেশি শ্রমিক আবুধাবীতে গেছেন। আগামীতে আরও শ্রমিক নেবে তারা। বাংলাদেশ এ সুযোগ কাজে লাগাতে চায়।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর মধ্যে সৌদি আরবের পরই আমিরাতে সবচেয়ে বেশি বাংলাদেশি কাজ করেন। ফলে ওই দেশে থেকে প্রতিবছর বিপুল পরিমাণ রেমিট্যান্স (বৈদেশিক মুদ্রা/প্রবাসীর আয়) বাংলাদেশে আসে।

ইআরডির কর্মকর্তারা বলেন, বৈঠকে বাংলাদেশ থেকে দক্ষ শ্রমিক নিয়োগে দাবি জানানো হবে। এ ছাড়া পেশাজীবী যেমন চিকিৎসক, নার্স, তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ নেয়ার বিষয়ে আমিরাত সরকারকে অনুরোধ করা হবে।

বর্তমানে বাংলাদেশে চমৎকার বিনিয়োগের পরিবেশ বিরাজ করছে। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে আরও বেশি বিনিয়োগের জন্য আমিরাত সরকারকে অনুরোধ করা হবে বৈঠকে।

ইআরডির এক কর্মকর্তা বলেন, ‘বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও নির্মাণ শিল্পে আমিরাতের বেশি কয়েকটি বিশ্বখ্যাত কোম্পানি রয়েছে। ওই সব কোম্পানিকে বাংলাদেশের উল্লেখিত খাত গুলোতে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারত্বের আওতায় বিনিয়োগের আহ্বান জানানো হবে।’

ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, বন্দর, হোটেল, মোটেল ও অবকাঠামো খাতে বিনিয়োগের জন্য অর্থায়নের অনুরোধ করা হবে বৈঠকে।

এ ছাড়া বিমানে যাত্রীপরিবহন ও পণ্য পরিবহন বাড়াতে অনুরোধ জানাবে বাংলাদেশ। বৈঠকে এসব বিষয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই হতে পারে।

শ্রম ইস্যুর পাশাপাশি, দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বাড়ানোর বিষয়টি আলোচনায় প্রাধান্য পাবে। বর্তমানে বাংলাদেশের মোট রপ্তানির মাত্র ৩ থেকে ৪ শতাংশ মধ্যপ্রাচ্যে যায়।

মধ্যপ্রাচ্যে রপ্তানির অনেক সম্ভাবনা রয়েছে। বিশেষ করে তৈরি পোশাক, চামড়াজাত, প্লাস্টিকসহ আরও অনেক পণ্যের। বাংলাদেশ এ সুযোগ কাজে লাগাতে চায়।

এ জন্য বৈঠকে বাংলাদেশি পণ্যের শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার সুবিধা চাওয়া হবে।

আরও পড়ুন:
তৃণমূলে ফিরছে আওয়ামী লীগ
আ. লীগ নেতাকে মারধর মামলায় যুবলীগ নেতা জেলে
করোনায় আওয়ামী লীগের সব কর্মসূচি স্থগিত
আগস্টে মানবিক কর্মসূচি বাড়াবে আওয়ামী লীগ
‘গুজব প্রতিরোধে’ সভা আওয়ামী লীগের

শেয়ার করুন

কাজ শেষে বসের মেসেজ নিষিদ্ধ করল পর্তুগাল

কাজ শেষে বসের মেসেজ নিষিদ্ধ করল পর্তুগাল

প্রতীকী ছবি

শুধু তাই নয়, যারা বাড়িতে বসে কাজ করেন, তাদের বেতনের সঙ্গে বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট বিল সহ অন্যান্য ভাতাও যোগ করতে হবে।

কাজের সময় শেষ হওয়ার পরও কর্মীদের নানা দিক নির্দেশনা দিয়ে মেসেজ কিংবা ই-মেইল পাঠান বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। তবে এ ধরনের মেসেজকে এবার নিষিদ্ধ করেছে পর্তুগাল।

শুক্রবার বিবিসি’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নাগরিকদের ‘বিশ্রামের অধিকার’ বিবেচনা করেই নতুন এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে পর্তুগীজ সরকার। করোনার প্রভাবে বাড়িতে বসে কাজ করার যে প্রচলন শুরু হয়েছে তাতে শৃঙ্খলা আনাই এই আইনের লক্ষ্য।

নিষেধাজ্ঞায় বলা হয়েছে, ১০ বা ততোধিক কর্মী আছে এমন কোনো প্রতিষ্ঠান যদি কর্মঘণ্টার পরও কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তবে সেই প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হবে।

আরও বলা হয়েছে, যারা অফিসের বাইরে বাড়ি কিংবা অন্য কোনো স্থানে বসে কাজ করেন, তারা চাইলে তাদের সন্তানকেও কাজের মধ্যে সময় দিতে পারবেন। এ ছাড়া বাবা-মায়েরা তাদের সন্তানের আট বছর না হওয়া পর্যন্ত নিয়োগকর্তার কাছ থেকে পূর্বানুমতি না নিয়েই অনির্দিষ্টকালের জন্য বাড়িতে বসে কাজ করতে পারবেন।

শুধু তাই নয়, যারা বাড়িতে বসে কাজ করেন, তাদের বেতনের সঙ্গে বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট বিল সহ অন্যান্য ভাতাও যোগ করতে হবে।

নতুন আইনে দূরবর্তী কর্মীরা যেন বিচ্ছিন্নতা অনুভব না করেন, সেজন্য কোম্পানিগুলো নিয়মিত মুখোমুখি বৈঠক আয়োজন করবে বলেও আশা প্রকাশ করা হয়।

নতুন আইনের প্রস্তাবনায় ‘সংযোগ বিচ্ছিন্নের অধিকার’ নামে আরেকটি অংশ ছিল। এর মাধ্যমে কর্মঘণ্টা শেষ হয়ে যাওয়ার পর নাগরিকরা কাজ সম্পর্কীত সব ডিভাইসের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার অধিকার পেতেন। তবে এই প্রস্তাবটি পর্তুগিজ পার্লামেন্টে বাতিল করে দেয়া হয়।

এর আগে গত সপ্তাহে লিসবন শহরে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে নতুন আইনের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন পর্তুগালের শ্রম ও সামাজিক নিরাপত্তা মন্ত্রী অ্যানা মেনডেস গোডিনহো। সে সময় তিনি বলেছিলেন, ‘টেলিওয়ার্ক গেম চেঞ্জার হতে পারে। তবে, এর সম্প্রসারণে অবশ্যই কিছু নীতিমালা থাকা উচিত।’

তিনি আশা প্রকাশ করেন, উন্নত শ্রম নিরাপত্তা থাকলে তার দেশে গিয়ে কাজ করায় বিদেশিরা আরও বেশি উৎসাহিত হবেন।

আরও পড়ুন:
তৃণমূলে ফিরছে আওয়ামী লীগ
আ. লীগ নেতাকে মারধর মামলায় যুবলীগ নেতা জেলে
করোনায় আওয়ামী লীগের সব কর্মসূচি স্থগিত
আগস্টে মানবিক কর্মসূচি বাড়াবে আওয়ামী লীগ
‘গুজব প্রতিরোধে’ সভা আওয়ামী লীগের

শেয়ার করুন

প্রবাসীদের যথাযথ সেবা দিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

প্রবাসীদের যথাযথ সেবা দিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

দেশের উন্নয়নে প্রবাসীদের অবদানের কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণ, যারা প্রবাসে আছেন তারা সবসময় দেশের জন্য অবদান রেখে যাচ্ছেন। যে দেশে থাকেন সেই দেশ এবং আমাদের বাংলাদেশ উভয় দেশেই আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিরাট অবদান রাখেন প্রবাসীরা।’

প্রবাসে বসবাসরত বাংলাদেশিদের যথাযথ সেবা দিতে কূটনীতিকদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

স্থানীয় সময় রোববার সকালে লন্ডনে অবস্থিত বাংলাদেশ হাইকমিশন ভবনের সম্প্রসারিত অংশ এবং বঙ্গবন্ধু লাউঞ্জের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি এ নির্দেশনা দেন। লন্ডনের হোটেল ক্ল্যারিজ থেকে ভার্চুয়ালি ওই দুই উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় দেশের উন্নয়নে প্রবাসীদের অবদানের কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণ, যারা প্রবাসে আছেন তারা সবসময় দেশের জন্য অবদান রেখে যাচ্ছেন। যে দেশে থাকেন সেই দেশ এবং আমাদের বাংলাদেশ উভয় দেশেই আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিরাট অবদান রাখেন প্রবাসীরা। কাজেই প্রবাসীদের যথাযথ সেবা দেয়া, তাদের সমস্যাগুলো দেখা, তাদের দিকে নজর দেয়া দরকার।’

আর্থিক বিষয়ে নজর দেয়ার আহ্বান জানিয়ে কূটনীতিকদের উদ্দেশে শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘বর্তমান যুগে কূটনীতিটা আসলে শুধু রাজনৈতিক কূটনীতি না, এটা অর্থনৈতিক কূটনীতিতে পরিণত হয়েছে।’

বিভিন্ন দেশের সঙ্গে ব্যবসা-বাণিজ্য, বিনিয়োগ সম্প্রসারণের পাশাপাশি রপ্তানি বাড়ানোর ওপরও জোর দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের ইতিহাস ঐতিহ্যকে তুলে ধরার পাশাপাশি আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে আমরা আমাদের রপ্তানি কীভাবে বাড়াতে পারি, বিনিয়োগ কীভাবে বাড়াতে পারি, দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নতি কীভাবে হতে পারে, দেশের মানুষ কীভাবে ভালো থাকতে পারে সে বিষয়েও ব্যবস্থা নেয়া দরকার।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘বর্তমান বিশ্বে এককভাবে এগিয়ে গিয়ে কেউ উন্নতি করতে পারে না। এখন সম্মিলিত একটা প্রচেষ্টাও দরকার। সেদিকে লক্ষ্য রেখে প্রত্যেকটা কূটনৈতিক মিশনের বিরাট দায়িত্ব রয়েছে।’

লন্ডনে বাংলাদেশ দূতাবাস প্রান্তে এ সময় অনেকের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।

আরও পড়ুন:
তৃণমূলে ফিরছে আওয়ামী লীগ
আ. লীগ নেতাকে মারধর মামলায় যুবলীগ নেতা জেলে
করোনায় আওয়ামী লীগের সব কর্মসূচি স্থগিত
আগস্টে মানবিক কর্মসূচি বাড়াবে আওয়ামী লীগ
‘গুজব প্রতিরোধে’ সভা আওয়ামী লীগের

শেয়ার করুন

এ মাসেই ঢাকা-মালে সরাসরি ফ্লাইট, নতুন বছরে কলম্বো

এ মাসেই ঢাকা-মালে সরাসরি ফ্লাইট, নতুন বছরে কলম্বো

কক্সবাজারের একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স।

আগামী বছরের মধ্যে বাংলাদেশ সিভিল এভিয়েশন ক্যাটাগরি-ওয়ান অর্জন করতে পারলে ২০২৩ সালের মধ্যে ঢাকা থেকে নিউইয়র্কে সরাসরি ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করার পরিকল্পনা করেছে ইউএস বাংলা।

নানা সমস্যায় জর্জরিত এভিয়েশন এন্ড ট্যুরিজম খাতকে বাঁচিয়ে রাখতে সরকারের সহায়তার আহ্বান জানিয়েছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স।

সোমবার রাত সাড়ে ৯টায় কক্সবাজারের একটি হোটেলে এক সংবাদ সম্মেলনে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) কামরুল ইসলাম এই আহ্বান জানিয়েছেন। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন কাস্টমার সার্ভিসের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ইরশাদ হাসান।

কামরুল ইসলাম বলেন, ‘নানাবিধ সমস্যায় জর্জরিত এভিয়েশন এন্ড ট্যুরিজম ইন্ডাস্ট্রি। বিভিন্ন সময়ে বাংলাদেশের এভিয়েশন খাতকে বাঁচিয়ে রাখতে সরকারের সহায়তার জন্য আবেদন করেছে বেসরকারি এয়ারলাইন্সগুলো।’

অ্যারোনটিক্যাল ও নন-অ্যারোনটিক্যাল চার্জকে সহনীয় পর্যায়ে নিয়ে আসা ছাড়াও জেট ফুয়েলের দাম আন্তর্জাতিক মানদণ্ড অনুযায়ী নির্ধারণ করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সংবাদ মাধ্যম গঠনমূলক লেখনীর মাধ্যমে ভূমিকা রাখতে পারে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

কামরুল ইসলাম বলেন, ‘দেশের অন্যতম বেসরকারি উড়োজাহাজ সংস্থা ইউএস বাংলা ২০২২ সালে এশিয়ার অন্যতম গন্তব্য জেদ্দা, দাম্মাম, মদিনা, রিয়াদ, আবুধাবীতে ফ্লাইট পরিচালনার পরিকল্পনা নিয়েছে।’

এ ছাড়া আগামী বছরের মধ্যে বাংলাদেশ সিভিল এভিয়েশন ক্যাটাগরি-ওয়ান অর্জন করতে পারলে সংস্থাটি ২০২৩ সালের মধ্যে ঢাকা থেকে নিউইয়র্কে সরাসরি ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করার পরিকল্পনার কথাও জানান তিনি।

করোনা মহামারির চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে ইউএস বাংলা ফ্লাইট পরিচালনা করছে জানিয়ে কামরুল ইসলাম বলেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে এয়ার বাবল চুক্তির অধীনে আমরা ঢাকা থেকে কলকাতা ও চেন্নাই রুটে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করেছি। ইতোমধ্যে কলকাতা, চেন্নাই ছাড়াও মধ্যপ্রাচ্যের গন্তব্য দুবাই, দোহা, মাস্কাট, এশিয়ার অন্যতম গন্তব্য সিঙ্গাপুর, কুয়ালালামপুর, চীনের গুয়াংজুতে স্বল্প পরিসরে ফ্লাইট পরিচালনা করছে ইউএস-বাংলা। আশা করছি খুব শিগগিরই ব্যাংকক রুটেও ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করবে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স।’

করোনা মহামারিতে লকডাউনের সময় বিদেশে আটকে পড়াদের দেশে ফিরিয়ে আনতে ইউএস বাংলা ভূমিকা রেখেছে জানিয়ে সংস্থাটির মহাব্যবস্থাপক বলেন, ‘করোনাভাইরাস মহামারির সময় বিভিন্ন দেশে আটকে পড়া বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনতে ইউএস-বাংলা দুবাই, আবুধাবী, দিল্লী, চেন্নাই, মালে, কুয়ালালামপুর, ব্যাংকক, সিঙ্গাপুর, হ্যানয়, এমনকি ফ্রান্সের প্যারিসসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ১৫০টির বেশি স্পেশাল ফ্লাইট পরিচালনা করেছে। বিশ্বের অনেক বিখ্যাত এয়ারলাইন্স কোভিড-১৯ এর সময় এয়ারলাইন্সকে টিকিয়ে রাখার জন্য কর্মীদের ছাঁটাই করতে বাধ্য হয়েছে, বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠিয়েছে। কিন্তু ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স কর্মীদের নিজের পরিবারে রেখে দেয়ার মানসিকতা দেখিয়েছে। সকল কর্মীর বিনামূল্যে করোনা পরীক্ষা করতেও সহযোগিতা করেছে।’

বিমান সংস্থাটির তথ্যমতে, ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স বর্তমানে সবগুলো অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে। ৭টি ব্র্যান্ডনিউ এটিআর ৭২-৬০০ ও তিনটি ড্যাশ৮-কিউ৪০০ এয়ারক্রাফট দিয়ে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেট, যশোর, সৈয়দপুর, রাজশাহী ও বরিশাল রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে সংস্থাটি।

এ ছাড়া বোয়িং ৭৩৭-৮০০ দিয়ে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার রুটেও ফ্লাইট পরিচালনা করছে।

অভ্যন্তরীণ রুটের যাত্রীদের সময় ও অর্থ সাশ্রয়ের লক্ষ্য নিয়ে খুব শিগগিরই সৈয়দপুর থেকে কক্সবাজার, সিলেট থেকে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার রুটেও ফ্লাইট শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে সংস্থাটির। ইতিমধ্যে তারা আগামী ১৯ নভেম্বর থেকে ঢাকা থেকে মালদ্বীপের রাজধানী মালেতে প্রথমবারের মতো সরাসরি ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করার ঘোষণা দিয়েছে। আগামী বছরের শুরুতে ঢাকা থেকে কলম্বো রুটেও ফ্লাইট শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে ইউএস-বাংলার।

আরও পড়ুন:
তৃণমূলে ফিরছে আওয়ামী লীগ
আ. লীগ নেতাকে মারধর মামলায় যুবলীগ নেতা জেলে
করোনায় আওয়ামী লীগের সব কর্মসূচি স্থগিত
আগস্টে মানবিক কর্মসূচি বাড়াবে আওয়ামী লীগ
‘গুজব প্রতিরোধে’ সভা আওয়ামী লীগের

শেয়ার করুন