মাস্টারশেফের ফাইনালে কিশোয়ার বানালেন পান্তাভাত

মাস্টারশেফের ফাইনালে কিশোয়ার বানালেন পান্তাভাত

কিশোয়ার চৌধুরী। ছবি: ফেসবুক

ভিডিওতে দেখা যায়, নিজের রান্নার বিবরণ দিয়ে কিশোয়ার বলছেন, আপনারা এই খাবার রেস্টুরেন্টে পাবেন না। এটি বেশ দুর্লভ। তবে ফাইনালে এই খাবার তৈরি করতে পারাটা আমার জন্যে বেশ আনন্দের।

প্রতিযোগিতামূলক রান্নার গেমশো মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়ার চূড়ান্ত পর্বে পান্তাভাত ও আলু ভর্তা বানিয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত প্রতিযোগী কিশোয়ার চৌধুরী। একইসঙ্গে বিচারকদের উদ্দেশে পরিবেশিত তার রান্নায় ছিল সার্ডিন মাছ ভাজি ও সালাদ।

সোমবার মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়ার ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজ থেকে এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

সেখানে দেখা যায়, নিজের রান্নার বিবরণ দিয়ে কিশোয়ার বলছেন, আপনারা এই খাবার রেস্টুরেন্টে পাবেন না। এটি বেশ দুর্লভ। তবে ফাইনালে এই খাবার তৈরি করতে পারাটা আমার জন্যে বেশ আনন্দের।

খাবার সামনে নিয়ে বিচারকদের একজন বলেন, এটি খুবই শক্তিশালী খাবার। এটি ইতিহাসে ও স্বাদেও শক্তিশালী।

বিচারকদের আরেকজন বলেন, খাবারটি দেখে আমার জিভে পানি আসছে।

সোমবারের এপিসোডের প্রতিযোগিতায় ৫১ পয়েন্ট পেয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন কিশোয়ার। অন্য দুই প্রতিযোগী পিট ও জাস্টিনের স্কোর যথাক্রমে ৫৩ ও ৫০।

মঙ্গলবার পর্দা নামবে মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়ার এবারের আসরের।

কিশোয়ার চৌধুরী অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়া রাজ্যের মেলবোর্নের বাসিন্দা। তার জন্ম ও বেড়ে ওঠা অস্ট্রেলিয়াতেই। প্রকাশনা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত কিশোয়ার সন্তানদের জন্য বাংলাদেশি খাবার রান্না করতে গিয়েই পরিবারের কাছে শিখেছেন নানান রেসিপি।

কিশোয়ার চৌধুরী অস্ট্রেলিয়ায় সমাজসেবার জন্য বিশেষভাবে বাংলাদেশি ব্যবসায়ী কামরুল হোসাইন চৌধুরী এবং লায়লা চৌধুরীর মেয়ে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য