তারেককে শ্রদ্ধাভরে শাকিবের স্মরণ

তারেককে শ্রদ্ধাভরে শাকিবের স্মরণ

সড়ক দুর্ঘটনায় নির্মাতা তারেক মাসুদের নিহত হওয়ার দশম বার্ষিকীতে তাকে স্মরণ করেছেন অভিনেতা শাকিব খান। ছবি: সংগৃহীত

শাকিব বলেন, ‘আজ শীর্ষস্থানীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা ও কাহিনিকার তারেক মাসুদের দশম মৃত্যুবার্ষিকী। তারেক মাসুদ তার অসাধারণ কাজের জন্য খ্যাতি অর্জন করেছেন ও জীবদ্দশায় দেশ-বিদেশে সমাদর পেয়েছেন।’

মানিকগঞ্জের একটি গ্রামে চলচ্চিত্রের শুটিং স্পট দেখে ঢাকা ফেরার পথে ২০১১ সালের ১৩ আগস্ট সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান খ্যাতিমান চলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদ।

তারেকের দশম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাভরে নির্মাতাকে স্মরণ করেছেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের সুপারস্টার শাকিব খান।

গুণী এ নির্মাতাকে স্মরণ করে শাকিবের প্রযোজনা সংস্থা এসকে ফিল্মের ফেসবুক পেজে একটি ছবি পোস্ট করা হয়েছে।

ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, ‘আজ শীর্ষস্থানীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা ও কাহিনিকার তারেক মাসুদের দশম মৃত্যুবার্ষিকী। তারেক মাসুদ তার অসাধারণ কাজের জন্য খ্যাতি অর্জন করেছেন ও জীবদ্দশায় দেশ-বিদেশে সমাদর পেয়েছেন।’

তথ্যচিত্র আদম সুরত, প্রামাণ্যচিত্র মুক্তির গান ও চলচ্চিত্র মাটির ময়নাসহ তারেক মাসুদ নির্মাণ করেন ইতিহাসনির্ভর বেশ কিছু ডকুফিল্ম ও চলচ্চিত্র।

মানিকগঞ্জের ওই একই দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান শহীদ বুদ্ধিজীবী মুনীর চৌধুরীর ছেলে গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব মিশুক মুনীরও।

এদিকে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় মানিকগঞ্জের ঘিওরে চলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদ ও মিশুক মুনীরের দশম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

উপজেলার জোকা এলাকায় দুর্ঘটনাস্থলে স্মৃতিফলকে শুক্রবার দুপুরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

নিহতদের স্মরণে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের পাশে বৃক্ষরোপণ করা হয়।

আরও পড়ুন:
শাকিবের সিনেমা আসছে হিন্দি ডাবিংয়ে
৬ সপ্তাহ পর হাসি মুখে শুটিংয়ে শাকিব
শাকিবের হাতে আসছে গোল্ডেন বাটন
‘কোরবানির ঈদটা না হয় তাদের কথা চিন্তা করেই হোক’
নতুন সিনেমা নিয়ে টিভিতে থাকছেন শাকিব, নিরব, সিয়াম

শেয়ার করুন

মন্তব্য

সেন্সর বোর্ড সদস্যদের আবু সাইয়ীদের ধিক

সেন্সর বোর্ড সদস্যদের আবু সাইয়ীদের ধিক

অনুদানের দীর্ঘ পাঁচ বছরের বেশি সময় পর মুক্তি পায় সিনেমা চন্দ্রবতী কথা। ছবি: সংগৃহীত

পরিচালক আবু সাইয়ীদ ফেসবুকে লেখেন, ‘১৯৯১ সালে আমার দ্বিতীয় স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ধূসর যাত্রা আট মাস সেন্সরে আটকে ছিল। দুজন সদস্যের নাম মনে আছে। দুজনই সাংবাদিক, রুহুল আমিন গাজী এবং শওকত মাহমুদ। আপিলে ছবিটি সেন্সর সার্টিফিকেট পায়। আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন প্রবীণ সাংবাদিক এবং চলচ্চিত্র পরিচালক ওবায়েদ-উল হক।

দেশের প্রেক্ষাগৃহে শুক্রবার মুক্তি পেয়েছে সিনেমা চন্দ্রবতী কথা। সিনেমাটি ২০১৪-১৫ অর্থবছরে সরকারি অনুদান পায়। অনুদানের ৫ বছরের বেশি সময় পর সিনেমাটি মুক্তি পেল। সিনেমাটি পরিচালনা করেন এন রাশেদ চৌধুরী।

পাঁচ বছরের মধ্যে দেড় বছর সিনেমাটি সেন্সর বোর্ডেই আটকে ছিল বলে দাবি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত ও কিত্তনখোলা খ্যাত পরিচালক আবু সাইয়ীদের।

চন্দ্রাবতী কথা সিনেমাটি এতদিন আটকে রাখার জন্য সেন্সর বোর্ড সদস্যদের ধিক্কার জানান তিনি।

শনিবার রাতে ফেসবুক স্ট্যাটাসে আবু সাইয়ীদ লেখেন, ‘গল্প বলার ক্ষেত্রে এন রাশেদ চৌধুরীর চন্দ্রাবতী কথা আর দশটা সিনেমার মতো নয়, যেভাবে সাধারণত আমাদের দেশে গল্প বলা হয়ে থাকে। এই সিনেমাটি সেন্সর বোর্ড নাকি দেড় বছর আটকে রেখেছিল এর গল্প বলার ধরনের কারণে।

‘সিনেমাটি দেখার পরে মনে হলো, এই বোর্ডের সদস্যদের নাম লিপিবদ্ধ করে রাখা উচিত। আমরা সাধারণত এসব অপকর্মকারীদের জবাবদিহিতার আওতায় আনতে পারি না। আইনে বোধহয় এদের শাস্তিরও বিধান নেই, কিন্তু এভাবে তাদের ছেড়ে দেয়ার কোনো মানে হয় না। বিভিন্ন প্রকাশনায় তাদের নাম আসা উচিত। তাতে কিছুটা আক্কেল হতে পারে।’

নিজের পরিচালিত সিনেমার ক্ষেত্রেও এমন ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি আবু সাইয়ীদের। সেসব ঘটনার উল্লেখ করে তিনি লেখেন, ‘১৯৯১ সালে আমার দ্বিতীয় স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ধূসর যাত্রা আট মাস সেন্সরে আটকে ছিল। দুজন সদস্যের নাম মনে আছে। দুজনই সাংবাদিক, রুহুল আমিন গাজী এবং শওকত মাহমুদ। আপিলে ছবিটি সেন্সর সার্টিফিকেট পায়। আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন প্রবীণ সাংবাদিক এবং চলচ্চিত্র পরিচালক ওবায়েদ-উল হক।

‘২০০৫ সালে নিরন্তর সিনেমাটিও কয়েকমাস সেন্সরে আটকে ছিল। সেন্সর বোর্ডের শুধু একজন সদস্যের নাম মনে আছে। তিনি হলেন চলচ্চিত্র পরিচালক চাষী নজরুল ইসলাম। কোন প্রক্রিয়ায় শেষ পর্যন্ত নিরন্তর সেন্সর সার্টিফিকেট লাভ করে তা আমার জানা নেই, সেটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জানে।’

ধিক্কার জানিয়ে তিনি লেখেন, ‘সেন্সর বোর্ডের যে সব সদস্য চন্দ্রাবতী কথা আটকে রেখেছিল, তাদের প্রতি ধিক্কার।’

চন্দ্রবতী কথার পরিচালক ও টিমকে অভিনন্দন জানান আবু সাইয়ীদ। প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে সবাই সিনেমাটি দেখার আহ্বান জানান তিনি।

আরও পড়ুন:
শাকিবের সিনেমা আসছে হিন্দি ডাবিংয়ে
৬ সপ্তাহ পর হাসি মুখে শুটিংয়ে শাকিব
শাকিবের হাতে আসছে গোল্ডেন বাটন
‘কোরবানির ঈদটা না হয় তাদের কথা চিন্তা করেই হোক’
নতুন সিনেমা নিয়ে টিভিতে থাকছেন শাকিব, নিরব, সিয়াম

শেয়ার করুন

লালন সাঁইয়ের তিরোধান দিবসে আখড়াবাড়ি নিষ্প্রাণ

লালন সাঁইয়ের তিরোধান দিবসে আখড়াবাড়ি নিষ্প্রাণ

লালন সাঁইয়ের তিরোধান দিবসে আড়ম্বরহীন কুষ্টিয়ার আখড়াবাড়ি। ছবি: নিউজবাংলা

এবার করোনার প্রকোপ কম থাকায় বাউল মেলা হবে ধরে নিয়েই সাধু-ফকির, বাউল ভক্তরা আখড়ায় জড়ো হয়েছেন। লালন ধামে আখড়াবাড়ির ভেতরে এবং বাইরের মাঠের গাছতলায় অবস্থান নিয়েছেন তারা।

মরমী সাধক ফকির লালন সাঁইয়ের ১৩১তম তিরোধান দিবস রোববার। করোনার কারণে এবারও বাউল মেলার আয়োজন বাতিল করেছে জেলা প্রশাসন। তবে কুষ্টিয়ার ছেঁউড়িয়ায় আখড়াবাড়ি খোলা থাকায় জড়ো হয়েছেন সাধু-বাউল-ফকিররা। প্রথা অনুযায়ী তারা ভক্তি-শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন সাইঁজির চরণে।

করোনা পরিস্থিতির কারণে ১৩০ বছরের রেওয়াজ ভেঙে গত বছরই প্রথম বাতিল করা হয় লালনের এই স্মরণোৎসব। সে সময় করোনার সংক্রমণ ভয়াবহ পর্যায়ে থাকায় আখড়াবাড়ির গেটও বন্ধ রাখা হয়েছিল।

এবার করোনার প্রকোপ কম থাকায় বাউল মেলা হবে ধরে নিয়েই সাধু-ফকির, বাউল ভক্তরা আখড়ায় জড়ো হয়েছেন। লালন ধামে আখড়াবাড়ির ভেতরে এবং বাইরের মাঠের গাছতলায় অবস্থান নিয়েছেন তারা।

কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক ও লালন অ্যাকাডেমির আহ্বায়ক সাইদুল ইসলাম গত ১২ অক্টোবার ঘোষণা দিয়েছেন, এবারও তিরোধান দিবস পালন হবে না। করোনার কারণে গণজমায়েত এড়িয়ে চলতে এ ঘোষণা দিতে হয়েছে বলে তিনি জানান।

আখড়াবাড়ির বাইরে লালন অ্যাকাডেমির মাঠে নিজস্ব রেওয়াজে ভক্তি-শ্রদ্ধা দিতে দেখা গেছে লালন অনুসারীদের।

লালন সাঁইয়ের তিরোধান দিবসে আখড়াবাড়ি নিষ্প্রাণ

নারায়ণগঞ্জ থেকে আসা ফকির বাবু বলেন, ‘এতো দূর থেকে আসলাম। টাকায় মায়া করি নাই, ত্যাগ করেছি আরাম। এসে মনটাই ভেঙে গেল। এখন সাঁইজিকে ভক্তি জানিয়ে চলে যাব। মেলা না হওয়ায় আমরা পাগলরা না খেয়ে থাকার মতো অবস্থা।’

সাধু সঙ্গ ও বাউল মেলা না হওয়ায় হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছে অনেক বাউল, ফকির এবং লালন ভক্ত।

তারপরও আখড়াবাড়ির ভেতরে ও বাইরে চলছে জাতপাতহীন-মানবতার লালন দর্শনের প্রচার। বরাবরের মতো দর্শন প্রচার হচ্ছে তারই গানের মাধ্যমে। কুষ্টিয়ার ছেঁউড়িয়া এখন লালনের গানের সুরে প্রকম্পিত।

২০০ বছর আগে কুষ্টিয়ার ছেউড়িয়ায় বাউল-ফকিরদের দল গঠন করেছিলেন ফকির লালন সাঁই। অহিংস, জাতপাতহীন ও মানবতাবাদী গান বেঁধে প্রচার করতেন তারা। দিনে দিনে তার দল বড় হতে থাকে। বাড়তে থাকে অনুসারী ও ভক্তের সংখ্যা। আজ বিশ্বময় ছড়িয়ে পড়েছে লালনের গান, তার বাণী।

১২৯৭ বঙ্গাব্দের পয়লা কার্তিক দেহত্যাগ করেন ফকির লালন। এই ১৩১ বছর ধরে আখড়া বাড়িতে চলা রেওয়াজ হলো, পহেলা কার্তিক লালনের তিরোধান দিবসে তার মাজার ধুয়ে মুছে পরিস্কার করে বাউল-ফকিরদের জন্য অধিবাস, বাল্যসেবা এবং পূর্ণসেবার (খাবার) আয়োজন।

লালন সাঁইয়ের তিরোধান দিবসে আখড়াবাড়ি নিষ্প্রাণ

তিন দিন ধরে চলে মেলাসহ সরকারি অনুষ্ঠানমালা। দিন-রাত ধরে চলত গানে গানে লালন দর্শনের প্রচার। দেশ বিদেশের লাখ লাখ মানুষ এতে অংশ নিতেন।

করোনার বাস্তবতায় দুই বছর বন্ধ এসব আয়োজন। ফকির-বাউলরা নিজেদের মতো করে সাঁইজিকে স্মরণ করতে পারছেন, তাতেই অনেকে খুশি।

আখড়ায় এসে ফকির আলম বলেন, ‘ধরা আজ জরাক্রান্ত। এটা আমাদের মেনে নিতে হবে। সাঁইজির কৃপায় এসব কেটে যাবে। আবার সব স্বাভাবিক হবে।’

আরও পড়ুন:
শাকিবের সিনেমা আসছে হিন্দি ডাবিংয়ে
৬ সপ্তাহ পর হাসি মুখে শুটিংয়ে শাকিব
শাকিবের হাতে আসছে গোল্ডেন বাটন
‘কোরবানির ঈদটা না হয় তাদের কথা চিন্তা করেই হোক’
নতুন সিনেমা নিয়ে টিভিতে থাকছেন শাকিব, নিরব, সিয়াম

শেয়ার করুন

‘বীর’ সিনেমার শিল্প নির্দেশককে ঠকানোর অভিযোগ

‘বীর’ সিনেমার শিল্প নির্দেশককে ঠকানোর অভিযোগ

বীর সিনেমার পোস্টার ও জহির দীপু।

দীপুর অভিযোগ সম্পর্কে বীর সিনেমার প্রযোজক এমডি ইকবালের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি এ ব্যাপারে কিছু জানেন না বলে দাবি করেন। যদিও পুরস্কারের জন্য কলাকুশলীদের তালিকা প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকেই দেয়া হয়, দাবি শিল্প নির্দেশকের।

‘কাজ করলাম আমি আর অ্যাওয়ার্ডের জন্য জমা পড়ল অন্য একজনের নাম, আমি হতবাক!’ নিজের ফেসবুক ওয়ালে এভাবেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া সাকিব খান অভিনীত বীর সিনেমার শিল্প নির্দেশক জহির দীপু।

শনিবার ফেসবুকে দীর্ঘ স্ট্যাটাসে দীপু লেখেন, ‘আমি খুব ভালো কাজ করি এমনটা মনে করি না বা সহসাই অ্যাওয়ার্ড পাওয়ার মতোও কিছু হয়তো পারি না। কিন্তু যেটুকু পারি সেটার স্বীকৃতি তো আশা করতেই পারি।’

তিনি অভিযোগ করেন, বীর চলচ্চিত্র শুরুর আগে প্রযোজক এমডি ইকবাল তাকে আর্ট ডিরেক্টর হিসেবে কাজ করতে বলেছিলেন এবং সিনেমার নায়ক শাকিব খানও তাকে সমর্থন দিয়েছিলেন। আর সিনেমাটির পরিচালক ছিলেন কাজী হায়াৎ।

দীপু দাবি করেন, দায়িত্ব পেয়ে পুরো চলচ্চিত্রটির শিল্প নির্দেশনার কাজ তিনি তার সহকর্মীদের নিয়ে শেষ করেছেন। সিনেমাটির প্রায় পুরো কাজ হয়েছে পুবাইলে। এর বাইরে সিনেমার দুটি দৃশ্যের এবং একটি গানের সেট নির্মাণ হয় বিএফডিসিতে। আর সেই সেট নির্মাণ করেছিলেন এফডিসির সেট ডিরেক্টর ফরিদ আহমেদ।

কিন্তু চলচ্চিত্রটির পুরো কাজ শেষ হওয়ার পর যখন ট্রেলার রিলিজ হয় তখন দেখা যায়, শিল্প নির্দেশকের স্থানে তার নামের পাশে ফরিদ আহমেদের নামও যুক্ত।

এ ঘটনায় দীপু অবাক হয়েছিলেন। কারণ তার নামের পাশে অন্য একজনের নাম যুক্ত করার ব্যাপারে তাকে কেউ অবহিত করেননি।

পরে ব্যাপারটি সিনেমাটির প্রযোজক এমডি ইকবালকে জানালে তিনি জানান, মূল ছবিতে এটা সংশোধন করে দেয়া হবে। তিনি সিনেমার এডিটরকেও জানাতে বলেন যেন শিল্প নির্দেশক হিসেবে শুধু দীপুর নাম দেয়া হয়।

দীপু সিনেমাটির এডিটরকে এটি জানানোর পর তিনি সংশোধন করে দেবেন বলেও আশ্বাস দেন। পরে এ ব্যাপারে তিনি আর কোনো খোঁজ খবর নেননি।

কিন্তু কিছুদিন পর পত্রিকায় দীপু দেখতে পান বীর চলচ্চিত্রটি অ্যাওয়ার্ডের জন্য জমা দেয়া হয়েছে। তখন তিনি সিনেমার প্রযোজককে ফোন করে বলেন, ‘বীর অ্যাওয়ার্ডের জন্য জমা দেয়া হয়েছে। কিন্তু শিল্প নির্দেশক হিসেবে আমার কাছে তো কেউ কোনো কাগজপত্র চায়নি।’

প্রযোজক তখন দীপুকে সেন্সর বোর্ডে গিয়ে কাগজ জমা দিয়ে আসতে বলেন। সেখানে গিয়ে দীপু জানতে পারেন, কলাকুশলীর তালিকায় আর্ট ডিরেক্টর তার বদলে ফরিদ আহমেদের নাম দেয়া আছে।

দীপু দাবি করেন, এ ধরনের ঘটনা এটাই শেষ নয়। তার কর্মগুরু রহমতুল্লাহ বাসুর ক্ষেত্রেও একই ধরনের ঘটনা ঘটেছে এর আগে। একটি সিনেমায় মূল আর্ট ডিরেক্টর হিসেবে ছিলেন বাসু। আর দুয়েকটি সেট নির্মাণ করেছিলেন ফরিদ আহমেদ। সেখানেও বাসুকে কোনোরকম অবগত না করেই ফরিদ আহমেদের নাম জুড়ে দেয়া হয়েছিল। আর সেটা তিনি জানতে পারেন সিনেমা মুক্তির পর। সেবার পুরস্কারের জন্য কলাকুশলীদের তালিকায় বাসু এবং ফরিদের নাম দেয়া হলেও এবার দীপুর নামটি সম্পূর্ণভাবে এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে নিজের ফেসবুক স্ট্যাটাসে দীপু প্রশ্ন রাখেন, ‘এগুলো কি অনিচ্ছাকৃত ভুল, নাকি ইচ্ছাকৃত ভুল, নাকি কারও কারসাজি?

দীপুর অভিযোগ সম্পর্কে বীর সিনেমার প্রযোজক এমডি ইকবালের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি এ ব্যপারে কিছু জানেন না বলে দাবি করেন।

তবে জহির দীপু দাবি করেন, পুরস্কারের জন্য কলাকুশলীদের তালিকা পাঠানো হয় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকেই।

আরও পড়ুন:
শাকিবের সিনেমা আসছে হিন্দি ডাবিংয়ে
৬ সপ্তাহ পর হাসি মুখে শুটিংয়ে শাকিব
শাকিবের হাতে আসছে গোল্ডেন বাটন
‘কোরবানির ঈদটা না হয় তাদের কথা চিন্তা করেই হোক’
নতুন সিনেমা নিয়ে টিভিতে থাকছেন শাকিব, নিরব, সিয়াম

শেয়ার করুন

সবচেয়ে বেশি দরকার এই ঘটনার নিন্দা করা: ফারুকী

সবচেয়ে বেশি দরকার এই ঘটনার নিন্দা করা: ফারুকী

খ্যাতিমান চলচ্চিত্র নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী। ছবি: সংগৃহীত

ফারুকী লেখেন, ‘আমরা প্রত্যেকেই কোনো না কোনোভাবে সংখ্যালঘু। কেউ রাজনৈতিক সংখ্যালঘু, কেউ সামাজিক সংখ্যালঘু, কেউ অর্থনৈতিক সংখ্যালঘু। ফলে দুর্বলের বেদনা, মজলুমের জ্বালা তো আমাদের না বোঝার কথা না। আল্লাহ যেন আমাদেরকে সকল প্রকার মজলুমের বেদনা উপলব্ধি করার তৌফিক দান করেন।’

কুমিল্লা সদর, নোয়াখালীর চৌমুহনীসহ দেশের নানা স্থানে পূজামণ্ডপে হামলা-ভাঙচুরের ঘটনায় প্রতিবাদ জানাচ্ছেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। সে কাতারে শামিল হয়েছেন খ্যাতিমান চলচ্চিত্র নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী।

ফেসবুকে শনিবার সন্ধ্যায় দেয়া স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, ‘এখন আমরা কী করতে পারি? ঘটনা যা যা ঘটেছে সেটা ঠিকঠাক তদন্ত করে সবার সামনে তুলে ধরা। দ্রুততার সঙ্গে এই হামলার ঘটনাগুলোর সঙ্গে যারা যারা জড়িত, তাদের শাস্তির ব্যবস্থা করা। আগামীতে যেন এই রকম কিছু না ঘটে তার জন্য যা যা ব্যবস্থা নেয়ার সেটা নেয়া।

‘তবে সবচেয়ে বেশি দরকার যেটা সেটা হচ্ছে, প্রত্যেকেই যার যার জায়গা থেকে এই ঘটনার নিন্দা করা। হিন্দু বন্ধু এবং প্রতিবেশীকে জানানো, তুমি একা নও। এখন তাকে একা বোধ না করতে দেয়াই হচ্ছে সবচেয়ে বড় কাজ। এই সময় এক জগতবিধ্বংসী ক্ষোভ-অভিমান চেপে বসে। তার হাতটা চেপে ধরে বলি চলেন, ইউ আর নট অ্যালোন (তুমি একা নও)।’

ফারুকী মনে করেন, সব মানুষই কোনো না কোনোভাবে সংখ্যালঘু। এ কারণে প্রত্যেকের উচিত সংখ্যালঘু নির্যাতনের বিষয়ে সোচ্চার হওয়া।

তিনি লেখেন, ‘আমরা প্রত্যেকেই কোনো না কোনোভাবে সংখ্যালঘু। কেউ রাজনৈতিক সংখ্যালঘু, কেউ সামাজিক সংখ্যালঘু, কেউ অর্থনৈতিক সংখ্যালঘু। ফলে দুর্বলের বেদনা, মজলুমের জ্বালা তো আমাদের না বোঝার কথা না। আল্লাহ যেন আমাদেরকে সকল প্রকার মজলুমের বেদনা উপলব্ধি করার তৌফিক দান করেন।

‘অন্য দেশে সংখ্যালঘু মুসলমানকে অত্যাচার করলে আমাদের হৃদয় যেমন ব্যথিত হয়, নিজের দেশে সংখ্যালঘু হিন্দু বা অন্য কেউ অত্যাচারিত হলেও আমাদের হৃদয় যেন সেটা একইভাবে উপলব্ধি করতে পারে; আল্লাহ যেন আমাদের এই তৌফিক দান করেন।’

আরও পড়ুন:
শাকিবের সিনেমা আসছে হিন্দি ডাবিংয়ে
৬ সপ্তাহ পর হাসি মুখে শুটিংয়ে শাকিব
শাকিবের হাতে আসছে গোল্ডেন বাটন
‘কোরবানির ঈদটা না হয় তাদের কথা চিন্তা করেই হোক’
নতুন সিনেমা নিয়ে টিভিতে থাকছেন শাকিব, নিরব, সিয়াম

শেয়ার করুন

মৌলবাদবিরোধী সুর বজায় রাখুন: পরমব্রত

মৌলবাদবিরোধী সুর বজায় রাখুন: পরমব্রত

পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

দীর্ঘ স্ট্যাটাসে পরমব্রত লেখেন, ‘গোঁড়ামি, মৌলবাদ, ইংরিজিতে যাকে বলে ফানাটিসিজম, সেটা সব ধর্মেই থাকে, থেকে এসেছে হাজার বছর ধরে। যখন যে ধর্মের মৌলবাদী জিগির সামনে আসে, তখন সেগুলোর থেকে বেরোনোর, সেগুলির সমালোচনা করার বা সেই বিশ্বাসে বিশ্বাসী শক্তি গুলিকে পরাস্ত করার দায়িত্ব কিন্তু সেই ধর্মের শুভ বুদ্ধি সম্পন্ন মানুষকেই আরও বেশি করে নিতে হবে! 

কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেতা, পরিচালক পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। অভিনয় গুণে তিনি বাংলাদেশেও জনপ্রিয়। এদেশের সিনেমাতেও অভিনয় করেছেন।

এবার কলকাতায় দুর্গা পূজা বেশ ভালোই কাটিয়েছেন এ অভিনেতা। অন্তত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি দেখে সেই ধারণাই পাওয়া যায়। তবে বাংলাদেশে দুর্গাপূজার সময় পূজা মণ্ডপে সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় ব্যথিত হয়েছেন তিনি।

ফেসবুকে লেখা দীর্ঘ স্ট্যাটাসে সে কথাই জানিয়েছেন পরমব্রত। তিনি লেখেন, ‘বাংলাদেশে আমার সমস্ত বন্ধুদের কাছে আমার একান্ত অনুরোধ, কুমিল্লা বা নোয়াখালীতে ঘটে যাওয়া ঘটনার তীব্র নিন্দা করুণ কোনো দ্বিধা না রেখে। দোষীদের কঠোর শাস্তি দাবি করুন।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যকে সুবার্তা বলে উল্লেখ করে পরমব্রত লেখেন, ‘আপনাদের মাননীয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতিমধ্যে তার বক্তব্যের মাধ্যমে সুবার্তা দিয়েছেন, আপনারাও সেই মৌলবাদ বিরোধী সুর বজায় রাখুন। প্রতি বছরই প্রায় এরকম কিছু না কিছু ঘটে, সত্যি বলছি ভালো লাগে না।’

এসব ঘটনা উদারহণ হিসেবে থেকে যায় এবং রাজনৈতিক ফায়দা নেয়ার পথ মসৃণ হয় বলে মনে করেন এ অভিনেতা।

তিনি লেখেন, ‘প্রাণের উৎসবের উপর আক্রমণ বলে ভালো লাগে না তো বটেই, তা ছাড়াও আরও বড়ো একটা কারণ হলো, এই ঘটনাগুলি সীমানার এই পারে গোঁড়া হিন্দুত্ববাদীদের বড়ো সুবিধে করে দেয়। তাদের আস্ফালন বাড়ে, ধর্মের জিগির তুলে, এই উদাহরণ টেনে, মানুষের মনে অন্য সম্প্রদায় সম্বন্ধে ঘেন্না জন্মিয়ে রাজনৈতিক মুনাফা তোলার পথ মসৃণ হয়।’

দীর্ঘ স্ট্যাটাসে পরমব্রত লেখেন, ‘গোঁড়ামি, মৌলবাদ, ইংরিজিতে যাকে বলে ফানাটিসিজম, সেটা সব ধর্মেই থাকে, থেকে এসেছে হাজার বছর ধরে। যখন যে ধর্মের মৌলবাদী জিগির সামনে আসে, তখন সেগুলোর থেকে বেরোনোর, সেগুলির সমালোচনা করার বা সেই বিস্বাসে বিশ্বাসী শক্তিগুলিকে পরাস্ত করার দায়িত্ব কিন্তু সেই ধর্মের শুভ বুদ্ধি সম্পন্ন মানুষকেই আরও বেশি করে নিতে হবে!

‘আমরা প্রত্যেকে নিজের নিজের ধর্মের অতিরিক্ততার বিরুদ্ধে কথা বলা আরম্ভ করি। ধর্ম মানে বিশ্বাস, কিছু মানুষের এক সঙ্গে হওয়া, অনেক বছর ধরে চলে আসা কিছু আচার, কিংবা সমাজকে এক রকমভাবে সংঘবদ্ধ রাখার জন্যে তৈরি করা কিছু নিয়ম বা হয়তো নানান উৎসব! যেটাই হোক, বিশ্বাস আর অতি বা অন্ধ বিশ্বাস (যা অন্য মানুষকে জোর করে, বা ক্ষতি করে) এর মধ্যে সূক্ষ্ম লাইনটা কোথায় সেটা আমাদেরই বুঝে নিতে হবে!

‘আমাদের উপমহাদেশের ইতিহাস খুব জটিল। তাই আমাদের, মানে এই ভূমির বাসিন্দাদের দায়িত্বও অনেক বেশি। নিঃশ্বাস নেয়া যেমন দরকার, ঠিক তেমন দরকার এই বোধগুলো নিজেদের মধ্যে মোমবাতির মতো জ্বালিয়ে রাখা।’

পরমব্রত তার লেখা শুরু করেন এভাবে- ‘ফেসবুকে বড়ো একটা আসা হয় না, কিন্তু একটি বিশেষ কারণে এলাম। বাংলাদেশে কয়েক জায়গায় দুর্গাপূজার মণ্ডপে ইসলামি মৌলবাদীদের তাণ্ডব নিয়ে কিছু পোস্ট নবমীর দিন সকাল থেকে চোখ পড়লো।’

পরমব্রত দুজনের কথা উল্লেখ করে লেখেন, ‘আমাকে যে ছেলেটি শ্যুটে অ্যাটেন্ড করে, আমার স্পট বয়, তার নাম নাসির গাজী। পূজার পাঁচটা দিন নিয়ম করে আমাকে শুভেচ্ছা জানিয়ে গেছে। শুভ ষষ্ঠী থেকে বিজয়া! প্রতিবারই জানায়। সরস্বতী পূজার দিন-ক্ষণ আমার না থাকলেও ওর মনে থাকে এবং মনে করিয়েও দেয়। বাইরে শ্যুট করতে গিয়ে কোনো দর্শনীয় মন্দিরের সন্ধান পেলে সেটাও নাসিরই আমাকে এনে দেয়।

“নবমীর দিনই সকালে আমার কাঠের মিস্তিরি সানোয়ার আলী ফোন করেছিলেন একটা কাজের কথা বলতে। ফোনালাপ শুরুই করলেন ‘শুভ নবমী, দাদা’ বলে।”

আরও পড়ুন:
শাকিবের সিনেমা আসছে হিন্দি ডাবিংয়ে
৬ সপ্তাহ পর হাসি মুখে শুটিংয়ে শাকিব
শাকিবের হাতে আসছে গোল্ডেন বাটন
‘কোরবানির ঈদটা না হয় তাদের কথা চিন্তা করেই হোক’
নতুন সিনেমা নিয়ে টিভিতে থাকছেন শাকিব, নিরব, সিয়াম

শেয়ার করুন

উস্তাদ রশিদ খানকে হত্যার হুমকি, গ্রেপ্তার ২

উস্তাদ রশিদ খানকে হত্যার হুমকি, গ্রেপ্তার ২

প্রখ্যাত ভারতীয় সংগীতশিল্পী উস্তাদ রশিদ খান। ছবি: সংগৃহীত

রশিদ খানের পরিবারের অভিযোগ, কয়েক দিন আগে থেকে হুমকি দিয়ে ফোন আসছিল। ৯ অক্টোবর শিল্পীর বড় মেয়ের কাছে ফোন দিয়ে বলা হয়, বাড়ির বাইরে অস্ত্রধারী ঘুরছে। ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।

প্রখ্যাত সংগীতশিল্পী উস্তাদ রশিদ খানকে হত্যার হুমকি দিয়ে ৫০ লাখ টাকা দাবির অভিযোগে দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে ভারতের পুলিশ।

এরা হলেন রশিদ খানের সাবেক গাড়িচালক অবিনাশ কুমার ভারতী ও সাবেক অফিস সহকারী দীপক আউলাখ।

উত্তরপ্রদেশকে গ্রেপ্তারের পর ইতোমধ্যে তাদের করে কলকাতায় আনা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

রশিদ খানের পরিবারের অভিযোগ, কয়েক দিন আগে থেকে হুমকি দিয়ে ফোন আসছিল। ৯ অক্টোবর শিল্পীর বড় মেয়ের কাছে ফোন দিয়ে বলা হয়, বাড়ির বাইরে অস্ত্রধারী ঘুরছে। ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।

পরে সেটি কমিয়ে ২০ লাখ টাকা দাবি করে হুমকিদাতারা। টাকা না পেলে রশিদ খান বাড়ির বাইরে বের হলে গুলি করা হবে বলেও হুমকি দেয়া হয়।

পরিবারে অভিযোগ, অস্ত্রধারীরা রশিদ খানের ছেলে আরমানকে টার্গেট করেছিল। বারবার ফোন আসায় নেতাজী নগর থানার পুলিশের কাছে যান তারা।

গ্রেপ্তাররা জানিয়েছেন, শিল্পী রশিদ খান কাজ থেকে বরখাস্ত করায় ক্ষুব্ধ হয়ে হুমকি দিয়েছেন তারা। পরিচয় লুকাতে ইন্টারনেটের মাধ্যমে নম্বর গোপন করেছিলেন অভিযুক্তরা।

পুলিশ জানিয়েছে, মোবাইল ফোনের টাওয়ারের লোকেশন ট্র্যাক করে তাদের সন্ধান মেলে। এই ঘটনায় আরও কেউ জড়িত কি না সেটি খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

আরও পড়ুন:
শাকিবের সিনেমা আসছে হিন্দি ডাবিংয়ে
৬ সপ্তাহ পর হাসি মুখে শুটিংয়ে শাকিব
শাকিবের হাতে আসছে গোল্ডেন বাটন
‘কোরবানির ঈদটা না হয় তাদের কথা চিন্তা করেই হোক’
নতুন সিনেমা নিয়ে টিভিতে থাকছেন শাকিব, নিরব, সিয়াম

শেয়ার করুন

‘ফারাজ’ পরিচালক-প্রযোজককে দিল্লি হাইকোর্টে তলব

‘ফারাজ’ পরিচালক-প্রযোজককে দিল্লি হাইকোর্টে তলব

ফারাজের পরিচালক হংসল মেহতা ও সিনেমাটির পোস্টার।

প্রতিবেদনে একজন আইনজীবীর উদ্ধৃতি দিয়ে দাবি করা হয়েছে, সিনেমায় ফারাজকে উপস্থাপন করতে চাওয়ায় পরিচালকসহ অন্যান্যদের আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। এছাড়া সিনেমাটি নির্মাণে পরিচালক-প্রযোজকরা তারিশি ও অবিন্তার পরিবারের কাছ থেকে অনুমতি না নেয়াকেও কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

রাজধানীর গুলশানে হোলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলা নিয়ে নির্মিত হতে যাওয়া চলচ্চিত্র ফারাজ এর পরিচালক ও প্রযোজককে তলব করেছে দিল্লি হাইকোর্ট।

২০১৬ সালের ১ জুলাইয়ের ওই জঙ্গি হামলায় আরও অনেকের সঙ্গে নিহত হন ফারাজ আইয়াজ হোসেন। ঘটনাটি নিয়ে সম্প্রতি বলিউডে ফারাজ নামে একটি সিনেমা নির্মাণের ঘোষণা দেয় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান টি-সিরিজ।

এ ঘটনা নিয়ে সিনেমা না বানাতে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান, পরিচালক ও দুই প্রযোজককে আইনি নোটিস পাঠায় বাংলাদেশের অবিন্তা কবীর ফাউন্ডেশন। ১৩ আগস্ট বিষয়টি নিয়ে খবর প্রকাশিত হয় দেশের গণমাধ্যমে।

হোলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায় নিহত হন অবিন্তা কবীরও।

আইনি নোটিশ পাঠানোর পর অবিন্তা কবীর ফাউন্ডেশনের পক্ষে অবিন্তার মা দিল্লি হাইকোর্টে মামলাও করেছেন বলে শনিবার নিউজবাংলাকে জানান সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মিতি সানজানা।

মিতি অবিন্তা কবীর ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও এর সাধারণ সম্পাদক রুবা আহমেদের পক্ষে ‘ল ফার্ম লিগ্যাল কাউন্সিল’ এর ব্যানারে আইনি পারামর্শ দিচ্ছেন।

মামলার পরিপ্রেক্ষিতে চলচ্চিত্র নির্মাতা হংসল মেহতা ও প্রযোজক ভূষণ কুমারকে তলব করেছে দিল্লি হাইকোর্ট।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া

এক প্রতিবেদনে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, হংসল ও ভূষণকে ২৮ অক্টোবর আদালতে হাজির হতে বলা হয়েছে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া বলছে, ‘হোলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায় নিহত তারিশি জৈন ও অবিন্তা কবীরের পরিবারের করা মামলায় বলা হয়েছে, ফারাজ ছিল নিহত দুই মেয়ের বেস্ট ফ্রেন্ড (সেরা বন্ধু) এবং তার নামেই সিনেমার নামকরণ করা হয়েছে।’

প্রতিবেদনে একজন আইনজীবীর উদ্ধৃতি দিয়ে দাবি করা হয়েছে, সিনেমায় ফারাজকে উপস্থাপন করতে চাওয়ায় পরিচালকসহ অন্যান্যদের আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। এছাড়া সিনেমাটি নির্মাণে পরিচালক-প্রযোজকরা তারিশি ও অবিন্তার পরিবারের কাছ থেকে অনুমতি না নেয়াকেও কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

অভিযোগকারীদের দাবি, সিনেমাটির নাম ফারাজ রাখা যাবে না। কারণ, সন্ত্রাসী হামলায় যারা প্রাণ হারিয়েছে, তাদের পরিবারের সঙ্গে এই ঘটনা ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত।

বাংলাদেশকে নাড়িয়ে দেয়া হলি আর্টিজান ক্যাফে হামলার কাহিনি বর্ণনা করবে ফারাজ। সিনেমাটি নিয়ে বলতে গিয়ে জানিয়েছিলেন হংসল মেহতা।

তিনি আরও জানান, ফারাজ হবে গভীর মানবতার গল্প এবং সহিংস প্রতিকূলতার মধ্যেও হবে চূড়ান্ত বিজয়। যেহেতু সিনেমাটি সত্য ঘটনা অবলম্বনে তাই গভীরভাবে এটি একটি ব্যক্তিগত গল্পও বলবে যা হংসল প্রায় তিন বছর ধরে তার হৃদয়ের কাছাকাছি রেখেছেন।

উত্তরে ফারাজের নির্মাতারা তাদের আইনজীবীর মাধ্যমে আইনি নোটিশে উল্লেখ করা কারণকে ‘খুব অস্পষ্ট’ বলেছেন এবং চলচ্চিত্রটির বিশেষ প্রদর্শনীর দাবি করেছেন।

আরও পড়ুন:
শাকিবের সিনেমা আসছে হিন্দি ডাবিংয়ে
৬ সপ্তাহ পর হাসি মুখে শুটিংয়ে শাকিব
শাকিবের হাতে আসছে গোল্ডেন বাটন
‘কোরবানির ঈদটা না হয় তাদের কথা চিন্তা করেই হোক’
নতুন সিনেমা নিয়ে টিভিতে থাকছেন শাকিব, নিরব, সিয়াম

শেয়ার করুন