গায়ের রং কালো বলে হেনস্তার শিকার শ্রুতি

গায়ের রং কালো বলে হেনস্তার শিকার শ্রুতি

গায়ের রং কালো হওয়ায় নেটিজেনদের হেনস্তার শিকার পশ্চিমবঙ্গের অভিনেত্রী শ্রুতি দাস। ছবি: টাইমস অফ ইন্ডিয়া

শ্রুতি দাস সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘গায়ের রং কালো বলে ছোটবেলা থেকেই আমাকে নানা কথা শুনতে হয়েছে। আমি সব সময় অভিনেত্রী হতে চেয়েছিলাম। আজ যে জায়গায় পৌঁছেছি, সেখানে পৌঁছানোর জন্য আমাকে অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছে।’

গায়ের রং কালো বলে কয়েক দিন ধরে নেটিজেনদের হেনস্তার শিকার হচ্ছিলেন ত্রিনয়নী ধারাবাহিক খ্যাত টালিউড অভিনেত্রী শ্রুতি দাস।

কলকাতা লালবাজারের সাইবার ক্রাইম ব্রাঞ্চে এ নিয়ে ই-মেইলে অভিযোগ জানান শ্রুতি।

শনিবার বিস্তারিত অভিযোগ জানতে শ্রুতির বাড়িতে যায় কলকাতা সাইবার ক্রাইম ব্রাঞ্চের আধিকারিকরা।

নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা করতে চায় লালবাজার।

শ্রুতি দাস সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘গায়ের রং কালো বলে ছোটবেলা থেকেই আমাকে নানা কথা শুনতে হয়েছে।

‘আমি সব সময় অভিনেত্রী হতে চেয়েছিলাম। আজ যে জায়গায় পৌঁছেছি, সেখানে পৌঁছানোর জন্য আমাকে অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছে।

‘কিন্তু এখনো আমার গায়ের রং কালো বলে হেনস্তার শিকার হতে হচ্ছে। অনেকে মনে করেন, আমি ধারাবাহিকে চরিত্র পেয়েছি কম্প্রোমাইজ করে।'

শ্রুতি জানান, শুরুতে বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়স্বজন বিষয়টি অবহেলা করতে বলেন।

তবে ধারাবাহিক ত্রিনয়নীর পরিচালকের সঙ্গে শ্রুতির সম্পর্কের বিষয় প্রকাশ্যে আসার পর নেটিজেনদের একাংশ তার ব্যক্তিগত চরিত্র এবং অভিনয় প্রতিভা নিয়ে নোংরা আক্রমণে নামলে শ্রুতি সাইবার ক্রাইমকে জানান।

বর্তমানে শ্রুতি দেশের মাটি ধারাবাহিকে নোয়ার চরিত্রে অভিনয় করছেন।

এ ভার্চুয়াল যুগেও বডিশেমিং নিয়ে মানুষকে হেনস্তার শিকার হতে হচ্ছে।

বাংলা ধারাবাহিকের জনপ্রিয় লেখিকা, পশ্চিমবঙ্গ মহিলা কমিশনের চেয়ারপারসন লীনা গঙ্গোপাধ্যায় সংবাদমাধ্যমকে এ প্রসঙ্গে তার প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেন, ‘অনলাইনে কাউকে হেনস্তা করা অপরাধ। এ ধরনের কাজ মেনে নেয়া যায় না।’

বর্ধমানের কাটোয়ার মেয়ে শ্রুতি অভিনেত্রী হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে টালিগঞ্জে আসেন।

প্রতিভার জোরে দর্শকদের নজর কেড়ে নেন তিনি।

শ্রুতি বলেন, ‘১০ শ্যামলা মেয়ে রাস্তায় বের হলে টিটকারি শুনতে হয়। বাড়িতে হয়তো বিয়ের সম্বন্ধ ভেঙে যায়। নোংরা কথাবার্তা শুনতে হয়।

‘আমাকে স্কুলের এক শিক্ষক লিখেছেন, আমার সিরিয়ালের বাবা-মা (ভাস্কর চ্যাটার্জি, অনিন্দিতা রায়চৌধুরী) এত ফর্সা, মেয়েটা এত পেত্নী হলো কী করে?’

তিনি বলেন, ‘এটা আমাদের লাইফ। পার্ট অফ আওয়ার প্রফেশন। কালো মেয়েদের এই যেসব জায়গায় কালো বলে লাঞ্ছনা সহ্য করতে হয়, তাদের সবার জন্য আমার এই লড়াই।'

শেয়ার করুন

মন্তব্য