রেহানা মরিয়ম নূর: পুরো ট্রেলারে প্রতিবাদী বাঁধন

রেহানা মরিয়ম নূর: পুরো ট্রেলারে প্রতিবাদী বাঁধন

রেহানা মরিয়ম নূর সিনেমার পোস্টারে অভিনেত্রী বাঁধন। ছবি: সংগৃহীত

সিনেমাটি সম্পর্কে আগেই বলা হয়েছিল, প্রাইভেট মেডিক্যাল কলেজের একজন শিক্ষক রেহানা মরিয়ম নূরকে কেন্দ্র করেই এই সিনেমার গল্প। যেখানে রেহানা একজন মা, মেয়ে, বোন ও শিক্ষক হিসেবে জটিল জীবন যাপন করেন।

বিশ্ব চলচ্চিত্রের অন্যতম মর্যাদাপূর্ণ আসর কান চলচ্চিত্র উৎসবের অফিশিয়াল সিলেকশনে জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশের সিনেমা রেহানা মরিয়ম নূর

৭৪তম কান চলচ্চিত্র উৎসবে অফিশিয়াল সিলেকশনের আঁ সাতা রিগা বিভাগে নির্বাচিত হয়েছে নির্মাতা আবদুল্লাহ মোহাম্মাদ সাদ পরিচালিত সিনেমাটি।

শুক্রবার রাতে প্রকাশ পেয়েছে সিনেমাটির ট্রেলার। পুরো ট্রেলারে প্রতিবাদী রূপে ধরা দিয়েছেন মূল ভূমিকায় অভিনয় করা অভিনেত্রী বাঁধন।

সিনেমাটি সম্পর্কে আগেই বলা হয়েছিল, প্রাইভেট মেডিক্যাল কলেজের একজন শিক্ষক রেহানা মরিয়ম নূরকে কেন্দ্র করেই এই সিনেমার গল্প। যেখানে রেহানা একজন মা, মেয়ে, বোন ও শিক্ষক হিসেবে জটিল জীবন যাপন করেন।

এর মধ্যে এক সন্ধ্যায় কলেজ থেকে বের হওয়ার সময় রেহানা একটি অপ্রত্যাশিত ঘটনার সাক্ষী হন। এরপর থেকে সে এক ছাত্রীর পক্ষ হয়ে সহকর্মী এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে ঘটনার প্রতিবাদ করতে শুরু করেন এবং ক্রমেই একরোখা হয়ে ওঠেন।

কিন্তু একই সময়ে তার ৬ বছর বয়সী মেয়ের বিরুদ্ধে স্কুল থেকে রূঢ় আচরণের অভিযোগ করা হয়। এমন অবস্থায় অনড় রেহানা তথাকথিত নিয়মের বাইরে থেকে সেই ছাত্রী ও তার সন্তানের জন্য ন্যায়বিচারের খোঁজ করতে থাকেন।

কথাগুলো এবার মিলিয়ে নেয়া যাচ্ছে ট্রেলারের সঙ্গে। কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ওয়েবসাইট এবং সিনেমাটির ফেসবুক পেজে প্রকাশ করা হয়েছে ট্রেলার।

৭ জুলাই বাংলাদেশ সময় বেলা ৩টা ১৫ মিনিটে প্রদর্শিত হতে যাচ্ছে রেহানা মরিয়ম নূর। এতে উপস্থিত থাকবেন ছবিটির পরিচালক আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ, অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন, সিঙ্গাপুরের প্রযোজক জেরেমি চুয়া, চিত্রগ্রাহক তুহিন তমিজুল, প্রোডাকশন ডিজাইনার আলী আফজাল উজ্জ্বল, শব্দ প্রকৌশলী শৈব তালুকদার, কালারিস্ট চিন্ময় রয় এবং নির্বাহী প্রযোজক এহসানুল হক বাবু।

সিনেমাটির পরিচালক, অভিনেত্রীসহ সাতজন এখন আছেন প্যারিসে। কোয়ারেন্টিনে আছেন তারা। ৬ জুলাই শুরু হবে কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল। সেদিনই ফেস্টিভ্যালে অংশ নেবেন তারা। উৎসব চলবে ১৭ জুলাই পর্যন্ত।

আরও পড়ুন:
প্রথমবার কানের অফিশিয়াল সিলেকশনে দেশের সিনেমা
নজরুলের বাণীতে শামিল বাঁধন
‘মুসকানের মতো বাঁধনের প্রেমে পড়াও কঠিন’

শেয়ার করুন

মন্তব্য

পাইপলাইনে বিপুল সিনেমা

পাইপলাইনে বিপুল সিনেমা

পাইপলাইনে বিপুল সিনেমা। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা

সিনেমাগুলো নির্মিত হলে দেশের যে সিনেমাসংকটের কথা বলা হচ্ছে, সেটি কেটেও যেতে পারে। একই সঙ্গে হলমালিকরাও তাকিয়ে আছেন অপেক্ষমাণ সিনেমাগুলোর মুক্তির আশায়।

দেশি সিনেমার সংকটকাল কাটছে না। হলমালিকরা অনেক দির ধরে সিনেমা আমদানির দাবি জানিয়ে আসছেন। তাদের ভাষ্য, সিনেমা ব্যবসার জন্য যে পরিমাণ ভালো সিনেমা প্রয়োজন হয়, দেশের প্রযোজক-পরিচালকরা সেই পরিমাণ সিনেমা তাদের দিতে পারছেন না।

একদিকে যেমন ব্যবসা হচ্ছে না, ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন প্রযোজকরা। একই সঙ্গে সিনেমা হল না চলায় বন্ধ করে দিতে হচ্ছে প্রেক্ষাগৃহ।

তবে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাণিজ্যিক, অবাণিজ্যিক ও অনুদানের ছবি মিলিয়ে ৫০টির বেশি চলচ্চিত্র এখন মুক্তির জন্য অপেক্ষমাণ। আরও বেশ কিছু ছবির নির্মাণকাজ অনেকখানি এগিয়ে গেছে। এগুলো মুক্তি পেলে সিনেমার খরা অনেকখানিই কেটে যাবে।

নির্মাণ হয়ে থাকা কিছু সিনেমা করোনার কারণে আটকে আছে মুক্তির প্রতীক্ষায়। সেগুলোর মধ্যে আছেমিশন এক্সট্রিম, শান, পরান, জ্বীন, বিক্ষোভ, ক্যাসিনো, আনন্দ অশ্রু, অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন, অপারেশন সুন্দরবন, গিরগিটি, সিক্রেন্ট এজেন্ট, ইত্তেফাক, বিদ্রোহী, অন্তরাত্মা, হাওয়া, পাপপুণ্য, দামাল ওস্তাদ, মুখোশ, চোখ, লিডার- আমিই বাংলাদেশরিভেঞ্জ

এগুলো ছাড়া আরও বেশ কিছু সিনেমা রয়েছে পরিচালকদের হাতে, যার মধ্যে সরকারি অনুদানের বেশ কটি সিনেমা জমা হয়েছে গত দুই বছরে।

২০১৯-২০ অর্থবছরে অনুদান পাওয়া ১৬টি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমার মধ্যে আছে মুশফিকুর রহমানের টুঙ্গিপাড়ার দুঃসাহসী খোকা, গিয়াসউদ্দিন সেলিমের কাজলরেখা, এস এ হক অলিকের যোদ্ধা, বদরুল আনাম সৌদের শ্যামা কাব্য, প্রদীপ ঘোষের ভালোবাসা প্রীতিলতা, ইস্পাহানী আরিফ জাহানের হৃদিতা, ফজলুল কবীর তুহিনের গাঙকুমারী, ইফতেখার আলমের লেখক ও মনজুরুল ইসলামের বিলডাকিনী

পঙ্কজ পালিতের একটি না বলা গল্প, অনম বিশ্বাসের ফুটবল ৭১, আউয়াল রেজার মেঘ রোদ্দুর খেলা ও নুরে আলমের রাসেলের জন্য অপেক্ষা হাতে আছে।

এ ছাড়া বাঁধন বিশ্বাসের ছায়াবৃক্ষ, রোজিনার ফিরে দেখা, মোস্তাফিজুর রহমান মানিকের আশীর্বাদ-এর দৃশ্যধারণ সম্প্রতি শেষ হয়েছে।

পূর্ণদৈর্ঘ্য ছাড়া স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমাও আছে অনেক পরিচালকের হাতে। অনুদানের স্বল্পদৈর্ঘ্য নির্মাণ করবেন প্রবীর কুমার সরকার, শরীফ রেজা মাহমুদ, এ বি এম নাজমুল হুদা, সাজেদুল ইসলাম, দেবাশীষ দাশ, ফাখরুল আরেফীন খান, সোহেল আহমেদ সিদ্দিকী, মিতালি রায় ও চৈতালি সমাদ্দার।

২০২০-২১ অর্থবছরে পূর্ণদৈর্ঘ্য ২০টি চলচ্চিত্রকে অনুদান দেয় সরকার। জাহাঙ্গীর হোসেন মিন্টুর ক্ষমা নেই, নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুলের সাড়ে তিন হাত ভূমি, উজ্জ্বল কুমার মণ্ডলের মৃত্যুঞ্জয়ী, হাসান জাফরুল ও এফ এম শাহীনের মাইক, লুবানা শারমিনের নুলিয়াছড়ির সোনার পাহাড় নির্মাণপর্বে আছে।

এ ছাড়া কাজী হায়াতের জয় বাংলা, অনিরুদ্ধ রাসেলের জামদানী, জাহিদুর রহিম অঞ্জনের চাঁদের অমাবস্যা, মেজবাউর রহমান সুমনের রইদ, অরুণ চৌধুরীর জলে জ্বলে, অরুণা বিশ্বাসের অসম্ভব, মীর্জা শাখাওয়াত হোসেনের ভাঙন অপেক্ষমাণ।

রকিবুল হাসান চৌধুরী পিকলুর দাওয়াল, ইকবাল হোসাইন চৌধুরীর বলি, আব্দুস সামাদ খোকনের শ্রাবণ জ্যোৎস্নায়, আশুতোষ সুজনের দেশান্তর, এস এ হক অলিকের গলুই, ইব্রাহিম খলিল মিশুর দেয়ালের দেশ এবং অপূর্ব রানার জলরঙ অনুদান পেয়েছে। এগুলোও নির্মীয়মাণ।

এ ছাড়া স্বল্পদৈর্ঘ্যের আরও ১০টি সিনেমাকে ২০২০-২১ অর্থবছরে দেয়া হয়েছে অনুদান। এর মধ্যে মেহেদী হাসান অর্ণব জল পাহাড় আর পাতাদের গল্প, স্বপ্ন সমুদ্র রূপালী আঁশ, শায়লা রহমান তিথি যুদ্ধজয়ের কিশোর নায়ক, নাসরিন ইসলাম স্বাধীনতার পোস্টার, শামসুদ্দীন আহমদ শিবলু হাওয়াই সিঁড়ি, রাসেল রানা সোনার তরী, ফজলে হাসান শিশির ঝিরি পথ পেরিয়ে, তাসমিয়াহ আফরিন আমার নানুর বাড়ি, মেহজাদ গালিব বিন্দু থেকে বৃত্ত: একজন বকুলের আখ্যান ও এমদাদুল হক খান শিরিনের একাত্তর যাত্রা নির্মাণ করবেন।

অনুদানের সিনেমা ছাড়াও নির্মাতা রাশিদ পলাশের পদ্মাপুরাণ মুক্তির জন্য প্রস্তুত। তিনি আরও পরিচালনা করছেন প্রীতিলতা। এ ছাড়া নাম চূড়ান্ত না হওয়া একটি সিনেমা রয়েছে পিপলু আর খানের হাতে, যাতে অভিনয় করেছেন জয়া আহসান।

দেশা: দ্য লিডার-খ্যাত পরিচালক সৈকত নাসিরের হাতে রয়েছে মাসুদ রানা, ক্যাশতালাশসহ কয়েকটি ওয়েব কনটেন্ট। নির্মাতা ইফতেখার চৌধুরী প্রযোজিত প্রথম সিনেমা মুক্তির অধিকাংশ কাজ শেষ হয়েছে।

অনন্ত জলিলের একাধিক সিনেমা আছে শুটিং ফ্লোরে। যৌথ প্রযোজনার সিনেমাগুলোর কাজ শেষ করতে ও মুক্তি পেতে সময় লাগবে।

সম্প্রতি রায়হান রাফি শুরু করেছেন নূর নামে একটি সিনেমার নির্মাণ। ঢাকা অ্যাটাক-খ্যাত পরিচালক দীপঙ্কর দীপন পরিচালনা করছেন অন্তর্জাল নামে একটি সিনেমা। সঞ্জয় সমদ্দার নির্মাণ করবেন বায়োপিক নামে একটি সিনেমা।

পরিচালক অনন্য মামুনের হাতেও আছে অনেক সিনেমার প্রজেক্ট। যার মধ্যে বেশ কয়েকটি ওয়েব কনটেন্ট হলেও অভিনয় নামের একটি সিনেমাও রয়েছে।

জাগো সিনেমার পরিচালক খিজির হায়ত খান ঘোষণা দিয়েছেন নতুন একটি সিনেমা নির্মাণের। সিনেমাটির নাম ওরা ৭ জন। এটি মুক্তিযুদ্ধের সিনেমা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

প্রযোজক সেলিম খান ১০০ সিনেমা নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছেন। সেখান থেকে এরই মধ্যে ৩০টির মতো সিনেমা নির্মাণের কাজ অনেকখানি এগিয়ে গেছে। সিনেমাগুলো প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে নাকি সেলিম খানে সিনেমা দেখার অ্যাপ সিনেবাজে মুক্তি পাবে, তা নিশ্চিত করে জানাননি তিনি।

ঠিকভাবে সিনেমাগুলো নির্মিত হলে দেশের যে সিনেমাসংকটের কথা বলা হচ্ছে, সেটি কেটেও যেতে পারে। একই সঙ্গে হলমালিকরাও তাকিয়ে আছেন অপেক্ষমাণ সিনেমাগুলো মুক্তির আশায়।

এগুলো মুক্তি পেলে প্রেক্ষাগৃহে দর্শক আসবেন বলে মনে করেন অনেকে। কিন্তু বড় বাজেটের সিনেমা মুক্তি পওয়ার পরও প্রেক্ষাগৃহে দর্শক আসবেন কি না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে প্রযোজকদের।

আরও পড়ুন:
প্রথমবার কানের অফিশিয়াল সিলেকশনে দেশের সিনেমা
নজরুলের বাণীতে শামিল বাঁধন
‘মুসকানের মতো বাঁধনের প্রেমে পড়াও কঠিন’

শেয়ার করুন

অক্টোবরে প্রেক্ষাগৃহ মাতাবেন দেশি-বিদেশি শিল্পীরা

অক্টোবরে প্রেক্ষাগৃহ মাতাবেন দেশি-বিদেশি শিল্পীরা

অক্টোবরে প্রেক্ষাগৃহ মাতাবেন দেশি-বিদেশি শিল্পীরা। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা

অক্টোবরের তিন সপ্তাহে মুক্তি পাবে বাজি ও চন্দ্রাবতী কথা। সিনেমা দুটির মধ্যে বাজি কলকাতা থেকে আমদানিকৃত। এতে অভিনয় করেছেন কলকাতার জিৎ ও মিমি।

করোনার কারণে চলতি বছর মুক্তি পায়নি তেমন কোনো সিনেমা। আগস্টে সিনেমা হল খোলার ঘোষণা আসার পর অনেক প্রযোজকই খুঁজছিলেন ভালো সময়। অক্টোবরকে বেছে নিয়েছেন কয়েকজন প্রযোজক।

অক্টোবরের তিন সপ্তাহে মুক্তি পেতে যাচ্ছে ছয়টি সিনেমা। সিনেমাগুলো হলো কসাই, চোখ, ঢাকা ড্রিম, পদ্মাপুরাণ, বাজি, চন্দ্রাবতী কথা

প্রযোজক পরিবেশক সমিতিতে সিনেমাগুলো মুক্তির জন্য তারিখ বরাদ্দ চেয়ে আবেদন করেছেন প্রযোজকরা। পেয়েছেন অনুমতিও।

সমিতির দেয়া তথ্যানুযায়ী ১ অক্টোবর মুক্তি পাচ্ছে অনন্য মামুন পরিচালিত নিরব, রাশেদ মামুন অপু, কাজী নওশাবা অভিনীত সিনেমা কসাই

একই দিন মুক্তি পাবে সিনেমা চোখ। সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন আসিফ ইকবাল জুয়েল। এতে অভিনয় করেছেন নিরব, রোশান ও বুবলী।

পরের সপ্তাহে অর্থাৎ ৮ অক্টোবর মুক্তি পাচ্ছে ঢাকা ড্রিম ও পদ্মাপুরাণ। ঢাকা ড্রিম পরিচালনা করেছেন সুতপার ঠিকানা খ্যাত পরিচালক প্রসূন রহমান। আর পদ্মাপুরাণের পরিচালক রাশিদ পলাশ। পদ্মাপারের জীবন-জীবিকা নিয়ে নির্মিত হয়েছে সিনেমাটি।

অক্টোবরের তৃতীয় সপ্তাহে মুক্তি পাবে বাজিচন্দ্রাবতী কথা। সিনেমা দুটির মধ্যে বাজি কলকাতা থেকে আমদানিকৃত। এতে অভিনয় করেছেন কলকাতার জিৎ ও মিমি।

আর চন্দ্রাবতী কথা ষোড়শ শতকের প্রেক্ষাপটে নির্মিত আত্মজীবনীমূলক চলচ্চিত্র। মৈয়মনসিংহ গীতিকার কবি নয়ানচাঁদ ঘোষের চন্দ্রাবতী পালা অবলম্বনে বাংলা সাহিত্যের প্রথম বাঙালি মহিলা কবি চন্দ্রাবতীর জীবনালেখ্য নিয়ে চলচ্চিত্রটি নির্মিত হয়েছে। এটি পরিচালনা করেছেন এন রাশেদ চৌধুরী।

আলোচিত সিনেমা রেহানা মরিয়ম নূর -এর নির্বাহী প্রযোজক নিউজবাংলাকে জানিয়েছেন, অক্টোবরের শেষ সপ্তাহে সিনেমাটি মুক্তি দেয়ার পরিকল্পনা তাদের। সে অনুযায়ী অক্টোবরের চতুর্থ শুক্রবার অর্থাৎ ২২ অথবা শেষ শুক্রবার ২৯ অক্টোবর সিনেমাটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে পারে। তা ছাড়া তারিখ দুটি সিনেমা মুক্তির জন্য খালিও রয়েছে।

নভেম্বরে দুটি ও ডিসেম্বরে একটি সিনেমা মুক্তির জন্য আবেদন রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে প্রযোজক পরিবেশক সমিতি।

আরও পড়ুন:
প্রথমবার কানের অফিশিয়াল সিলেকশনে দেশের সিনেমা
নজরুলের বাণীতে শামিল বাঁধন
‘মুসকানের মতো বাঁধনের প্রেমে পড়াও কঠিন’

শেয়ার করুন

‘খুফিয়া’ই নেই বাংলাদেশি কোনো অভিনেত্রীর নাম

‘খুফিয়া’ই নেই বাংলাদেশি কোনো অভিনেত্রীর নাম

খুফিয়া সিনেমায় জুটি বাঁধছেন বলিউড টাবু ও আলি ফজল। ছবি: সংগৃহীত

জানা যায়, বিশাল ভরদ্বাজের এই সিনেমায় গল্পের প্রয়োজনেই বাংলাদেশের একজন অভিনেত্রী প্রয়োজন। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে এর কিছুই জানা যায়নি। এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে নেটফ্লিক্স প্রকাশ করেছেন এই সিনেয়ার চারজন মূল চরিত্রে নাম।

বলিউড খ্যাতিমান নির্মাতা বিশাল ভরদ্বাজের আসন্ন সিনেমা খুফিয়ার নাম ইতোমধ্যে বাংলাদেশি দর্শকদের কাছে বেশ পরিচিত। এর কারণ বেশ কিছুদিন যাবতই শোনা যাচ্ছিল, এই সিনেমার অভিনয়ের প্রস্তাব পেয়েছিলেন বাংলাদেশের দু’জন অভিনেত্রী, বিদ্যা সিনহা মিম ও মেহজাবিন চৌধুরী।

কিন্তু তারা এই প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছেন বলে খবর প্রকাশ হয়েছে দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে।

তবে সবশেষ জানা যায়, এই সিনেমায় অভিনয়ের জন্য প্রস্তাব পান ‘রেহেনা মরিয়ম নূর’ খ্যাত অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন।

এ নিয়ে কদিন আগে বাঁধনের কাছে নিউজবাংলা জানতে চায়- বাঁধন, আপনি বলিউডের কোনো সিনেমার প্রস্তাব পেয়েছেন কিনা, যেটা বিশাল ভরদ্বাজ পরিচালনা করবেন। আপনি কি সেই প্রজেক্টে অডিশন দিয়েছেন?

উত্তরে বাঁধন বলেন, ‘আমি এটা নিয়ে কথা বলতে পারছি না।’

জানা যায়, বিশাল ভরদ্বাজের এই সিনেমায় গল্পের প্রয়োজনেই বাংলাদেশের একজন অভিনেত্রী প্রয়োজন। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে এর কিছুই জানা যায়নি।

এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে নেটফ্লিক্স প্রকাশ করেছেন এই সিনেয়ার চার মূল চরিত্রে নাম। তারা হলেন, টাবু, আলি ফজল, আশিস বিদ্যার্থী ও ওয়ামিকা গাব্বি।

‘খুফিয়া’ই নেই বাংলাদেশি কোনো অভিনেত্রীর নাম
উপরের সারিতে নির্মাতা বিশাল ভরদ্বাজ (বাঁয়ে) ও টাবু। নিচের সারিতে বাঁয়ে থেকে আলি ফজল, আশিস বিদ্যার্থী ও ওয়ামিকা গাব্বি। ছবি: সংগৃহীত

পরিচালকসহ এই চার অভিনয় শিল্পীর ছবি দিয়ে নেটফ্লিক্স জানাচ্ছে, খুব শিগগিরই নেটফ্লিক্সে আসছে থ্রিলার সিনেমা খুফিয়া

নেটফ্লিক্সের সেই ছবিটি নিজের ইনস্টাগ্রামে টাবু ও আলি ফজল দুজনের পোস্ট করে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন।

এই সিনেমাটিতে যে থ্রিলার থাকবে তাও বোঝা যাচ্ছে ছবিটির সঙ্গে এই দুই তারকার ক্যাপশনে।

টাবু লেখেন, ‘নিছক থ্রিলার ছাড়া কিচ্ছু আশা করবেন না।’ অন্যদিকে আলি ফজলের লিখেছেন, ‘নতুন করে থ্রিলারের সংজ্ঞা জানবেন।’

সেই সঙ্গে তারা এও জানিয়েছেন, খুব শিগগিরই আসছে খুফিয়া

এদিকে ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যম খবরে বলা হচ্ছে, এই সিনেমার মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মত জুটি বাঁধছেন অভিনেত্রী টাবু ‘মির্জাপুর’ খ্যাত অভিনেতা আলি ফজল।

আরও পড়ুন:
প্রথমবার কানের অফিশিয়াল সিলেকশনে দেশের সিনেমা
নজরুলের বাণীতে শামিল বাঁধন
‘মুসকানের মতো বাঁধনের প্রেমে পড়াও কঠিন’

শেয়ার করুন

‘সোনার চর’ সিনেমায় একসঙ্গে তারা

‘সোনার চর’ সিনেমায় একসঙ্গে তারা

শুটিং এর ফাঁকে জায়েদ খান, মৌসুমী ও ওমর সানী। ছবি: সংগৃহীত

অভিনেত্রী মৌসুমী অভিনয় করছেন সিনেমায় মূল চরিত্রে অভিনয় করা অভিনেত্রীর বড় বোনের চরিত্রে। মূল চরিত্রে কে অভিনয় করছেন তা এখনই জানাতে চান না পরিচালক।

সিনেমা সোনার চর-এ একসঙ্গে অভিনয় করছেন মৌসুমী, ওমর সানী ও জায়েদ খান। সিনেমাটি পরিচালনা করছেন জাহিদ হাসান। এর আগে তিনি মাতৃত্ব নামের একটি সিনেমা নির্মাণ করেছেন।

সোনার চর সিনেমাটির দৃশ্যধারণ শুরু হয়েছে ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে। হোতাপাড়ায় চলছে শুটিং। ওমর সানী নিউজবাংলাকে জানান, তারা বুধবার থেকে শুরু করেছেন শুটিং।

৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শুটিং হওয়ার কথা রয়েছে। তবে ওমর সানী শুটিং করবেন ২৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

সিনেমায় আরও অভিনয় করছেন শহীদুজ্জামান সেলিম, শবনম পারভীন, আবুল হোসেন মজুমদার, শাওন আশরাফ, পাপিয়া মাহিসহ অনেকে।

‘সোনার চর’ সিনেমায় একসঙ্গে তারা
শুটিংয়ের ফাঁকে মৌসুমী ও ওমর সানী। ছবি: সংগৃহীত

অভিনেত্রী মৌসুমী অভিনয় করছেন সিনেমায় মূল চরিত্রে অভিনয় করা অভিনেত্রীর বড় বোনের চরিত্রে। মূল চরিত্রে কে অভিনয় করছেন তা এখনই জানাতে চান না পরিচালক। তবে জানা গেছে, নবাগত একজন অভিনেত্রীকে দেখা যাবে কেন্দ্রীয় চরিত্রে।

সিনেমায় মৌসুমী, ওমর সানী ও জায়েদের লুকের কিছু ছবি পাওয়া যাচ্ছে ফেসবুকে। জায়েদ খান নিজেও কিছু ছবি পোস্ট করেছেন তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে।

আরও পড়ুন:
প্রথমবার কানের অফিশিয়াল সিলেকশনে দেশের সিনেমা
নজরুলের বাণীতে শামিল বাঁধন
‘মুসকানের মতো বাঁধনের প্রেমে পড়াও কঠিন’

শেয়ার করুন

নুসরাতকে যা ভেবেছিলাম তা নয়: তসলিমা

নুসরাতকে যা ভেবেছিলাম তা নয়: তসলিমা

টালিউড অভিনেত্রী নুসরাত জাহান ও লেখিকা তসলিমা নাসরিন। ছবি: সংগৃহীত

তসলিমা লেখেন, ‘কলকাতার অভিনেত্রী নুসরাতকে যতটা না বিপ্লবী তার চেয়ে বেশি ভেবে নিয়েছিলাম। ভেবেছিলাম নুসরাত তার সন্তানকে শুধু নিজের সন্তান হিসেবে পরিচয় দেবে। কার স্পার্ম সে নিয়েছে গর্ভবতী হওয়ার জন্য, সেটা মোটেও উল্লেখযোগ্য ব্যাপার হবে না। কিন্তু না, নুসরাত আসলে অন্য যেকোনো রমণীর মতোই রমণী।’

সন্তানের পিতৃপরিচয় না জানিয়ে মা হওয়া টালিউড অভিনেত্রী নুসরাত জাহানকে শুভেচ্ছায় ভাসিয়েছিলেন আলোচিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন। পুরুষতান্ত্রিক সমাজে নুসরাতের এমন সিদ্ধান্তের জন্য সাহসী তকমা দিয়ে বাহবা জানিয়েছিলেন তিনি।

তবে নুসরাত তার সন্তানের পিতৃপরিচয় সামনে আনার পর তসলিমা বললেন উল্টো কথা। নুসরাতকে যতটা সাহসী ভেবেছিলেন আসলে তা নন বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

ফেসবুকে বৃহস্পতিবার এক স্ট্যাটাসে তসলিমা লেখেন, ‘কলকাতার অভিনেত্রী নুসরাতকে যতটা না বিপ্লবী তার চেয়ে বেশি ভেবে নিয়েছিলাম। ভেবেছিলাম নুসরাত তার সন্তানকে শুধু নিজের সন্তান হিসেবে পরিচয় দেবে। কার স্পার্ম সে নিয়েছে গর্ভবতী হওয়ার জন্য, সেটা মোটেও উল্লেখযোগ্য ব্যাপার হবে না। কিন্তু না, নুসরাত আসলে অন্য যেকোনো রমণীর মতোই রমণী।’

তিনি বলেন, ‘সে সন্তানের বার্থ সার্টিফিকেটে উল্লেখ করেছে সন্তানের পিতার নাম। তার সর্বক্ষণের সঙ্গীই সন্তানের পিতা। নিখিলের সঙ্গে ভারতবর্ষে তার বিয়ে রেজিস্ট্রি হয়নি, সুতরাং নিখিলকে তার স্বামী না বলার পেছনে যুক্তি আছে। কিন্তু এই যে লুকোচুরি সন্তানের পিতা কে তা জানানোর ব্যাপারে, তার দরকার ছিল না। আমি অবাক হব না, যদি কোনো দিন প্রকাশ হয় যে গোপনে সে যশকে বিয়েও করেছে। তাহলে যেকোনো ট্র্যাডিশনাল মেয়ের চেয়ে নুসরাতের তফাতটা কোথায়?’

নুসরাতের মতো ‘ট্র্যাডিশনাল’ মেয়েদের এভাবে অভিনন্দনে ভাসানোটা উচিত হয়নি বলেও মন্তব্য তসলিমার। তিনি বলেন, ‘প্রচুর লেখালেখি, প্রচুর স্বাগত জানানো, শুভেচ্ছা জানানো, স্যালুট জানানো- এসব বরং এক্সট্রা-অরডিনারি সাহসী এবং পুরুষতন্ত্রের ছক ভাঙা মেয়েদের জন্য তোলা থাকুক। ট্র্যাডিশনাল মেয়েদের পেছনে সময় নষ্ট করা, তাদের বাহবা দেয়া আপাতত স্থগিত থাকুক।’

২৬ আগস্ট জন্ম হয়েছে নুসরাতের সন্তান ঈশানের। জন্মের আগে থেকেই ছেলের বাবার পরিচয় নিয়ে রহস্য চলছিল। এর কারণও নুসরাত, এতদিন তিনি প্রকাশ করেননি সন্তানের পিতার পরিচয়।

বুধবার কলকাতা পৌরসভার ওয়েবসাইট দেখে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে নুসরাতের সন্তানের পিতার নাম।

জন্মসনদে ছেলের নাম লেখা রয়েছে, ঈশান জে দাশগুপ্ত। বাবার নামের পাশে লেখা দেবাশিস দাশগুপ্ত ওরফে যশ। তার নিচে মায়ের নামের পাশে লেখা নুসরাত জাহান রুহি।

আরও পড়ুন:
প্রথমবার কানের অফিশিয়াল সিলেকশনে দেশের সিনেমা
নজরুলের বাণীতে শামিল বাঁধন
‘মুসকানের মতো বাঁধনের প্রেমে পড়াও কঠিন’

শেয়ার করুন

সিগারেট হাতে পরীমনি

সিগারেট হাতে পরীমনি

সিগারেট হাতে ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনি। ছবি: ফেসবুক

ছবিতে দেখা যায়, তার নিজ বাসার সিংহাসন সাদৃশ্য চেয়ারে বসে আছেন খোলা চুলের স্নিগ্ধ পরীমনি। হাতে তার জলন্ত সিগারেট। তা দেখে অবশ্য বোঝার উপায় নেই অভিনেত্রী সিগারেট খাচ্ছেন, না নেহাতই ছবির তোলার জন্য পোজ দিচ্ছেন।

সিগারেট খাওয়ার পোজ দিয়ে ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনি বললেন, সিগারেট স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

বৃহস্পতিবার রাতে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দুটি ছবি পোস্ট করেন পরীমনি।

ছবিতে দেখা যায়, তার নিজ বাসার সিংহাসন সাদৃশ্য চেয়ারে বসে আছেন খোলা চুলের স্নিগ্ধ পরীমনি। হাতে তার জলন্ত সিগারেট। তা দেখে অবশ্য বোঝার উপায় নেই অভিনেত্রী সিগারেট খাচ্ছেন, না নেহাতই ছবির তোলার জন্য পোজ দিচ্ছেন।

সেই ছবি দুইটার ক্যাপশনেই পরীমনি লেখেন, ‘সিগারেট স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।’

প্রীতিলতা নামের একটি সিনেমায় নাম ভূমিকায় অভিনয় করছেন পরীমনি। এরই মাঝে গত ৪ আগস্ট রাজধানীর বনানীতে তার বাসায় অভিযান চালায় র‍্যাব।

সেদিন বিদেশি মদসহ বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য জব্দের দাবি করে বাহিনীটি। পরের দিন বনানী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করে র‌্যাব। ওই মামলায় ১৩ আগস্ট তাকে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে পাঠানো হয়।

উচ্চ আদালতের আদেশের পর গত ৩১ আগস্ট জামিন হয় পরীমনির। ১ সেপ্টেম্বর কারামুক্ত হয়ে বনানীর বাসায় ফেরেন তিনি।

এর ১৫ দিনের মাথায় বুধবার সেই মামলায় হাজিরা দিতে আলাদতে যান পরীমনি। সংক্ষিপ্ত শুনানি শেষে বেলা সোয়া ১টার দিকে বেরিয়ে যান তিনি। এ মামলায় ১০ অক্টোবর আবার তাকে হাজির হতে হবে আদালতে।

আরও পড়ুন:
প্রথমবার কানের অফিশিয়াল সিলেকশনে দেশের সিনেমা
নজরুলের বাণীতে শামিল বাঁধন
‘মুসকানের মতো বাঁধনের প্রেমে পড়াও কঠিন’

শেয়ার করুন

জন্মসনদে পাওয়া গেল নুসরাতের ছেলের বাবার নাম

জন্মসনদে পাওয়া গেল নুসরাতের ছেলের বাবার নাম

অভিনেত্রী ও সাংসদ নুসরাত জাহান। ছবি: সংগৃহীত

নুসরাত তার ছেলে ঈশানের জন্মসনদের জন্য যে তথ্য দিয়েছেন, তাতে বাবার নাম হিসেবে দেয়া হয়েছে যশের নাম। তা ছাড়া, বাবার পদবীই ব্যবহার করা হয়েছে ছেলের পদবী হিসেবে।

ঈশান, কলকাতার অভিনেত্রী এবং সাংসদ নুসরাত জাহানের ছেলে। ২৬ আগস্ট জন্ম হয়েছে তার। জন্মের আগে থেকেই ছেলের বাবার পরিচয় নিয়ে রহস্য চলছিল। নুসরাত তার ছেলের বাবার নাম না জানানোর জন্যই এত রহস্য।

কিন্তু এবার সেই ধোঁয়াশা কাটল। বুধবার জানা গেল ঈশানের বাবা কে।

কলকাতা পৌরসভার ওয়েবসাইট দেখে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ছেলের নাম ঈশান জে দাশগুপ্ত। বাবার নামের পাশে লেখা দেবাশিস দাশগুপ্ত ওরফে যশ। তার নিচে মায়ের নামের পাশে লেখা নুসরাত জাহান রুহি।

নুসরাত তার ছেলে ঈশানের জন্মসনদের জন্য যে তথ্য দিয়েছেন, তাতে বাবার নাম হিসেবে দেয়া হয়েছে যশের নাম। তা ছাড়া, বাবার পদবিই ব্যবহার করা হয়েছে ছেলের পদবি হিসেবে।

এ নিয়ে তারকাযুগল প্রকাশ্যে এখনও কোনো কথা বলেননি।

গত শনিবার যশকে নিয়ে কোভিড ভ্যাকসিন নিতে এসে চিকিৎসক সুব্রত রায়চৌধুরীর কাছ থেকে পুত্রের জন্মসনদে বাবার নামের জায়গায় ফাঁকা রাখা নিয়ে আইনি জটিলতার তথ্য জেনে নেন নুসরাত।

জন্মসনদে পাওয়া গেল নুসরাতের ছেলের বাবার নাম
নুসরাতের ছেলে ঈশানের জন্মসনদ। ছবি: সংগৃহীত

এক বছর ধরে সন্তানের পিতৃপরিচয় নিয়ে বহু কটূক্তি, কটাক্ষ, কৌতূহলের মুখোমুখি হতে হয়েছে যশ-নুসরাতকে। নেটমাধ্যমে আকারে-ইঙ্গিতে অনেক কথাই বলতে চেয়েছেন নুসরাত কিন্তু পরিষ্কার কোনো তথ্য দেননি।

সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে এসে নুসরাত জানিয়েছিলেন, ছেলের বাবা কে সেটা বাবাই জানে। সেই খবর প্রকাশ পেল এবার।

অন্যদিকে যশ এর আগে একটি বিয়ে করেছিলেন। সেই ঘরে দশ বছরের একটি ছেলে রয়েছে।

আরও পড়ুন:
প্রথমবার কানের অফিশিয়াল সিলেকশনে দেশের সিনেমা
নজরুলের বাণীতে শামিল বাঁধন
‘মুসকানের মতো বাঁধনের প্রেমে পড়াও কঠিন’

শেয়ার করুন