পরীমনির অভিমানী ‘স্যরি’

পরীমনির অভিমানী ‘স্যরি’

অভিনেত্রী পরীমনি। ছবি: সংগৃহীত

আমি মাইয়া লোক কিন্তু লুতুপুতু মাইয়া টাইপ আচরণ করিনাই আপনার সঙ্গে, ঘইটা গেল সমস্যা! চিকন সুরে ভাইয়া ভাইয়া করিনাই আপনারে, বিশাল সমস্যা! কাজের ফাঁকে আলগা রসের পিরিতের আলাপ করি নাই, ব্যাস এই তো সমস্যা! কাজে মত প্রকাশের অধিকার দেখাইছি, তাতেই সমস্যা!

ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ করে হঠাৎ আলোচনায় আসা বাংলা চলচ্চিত্রের তারকা পরীমনি তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে লিখেছেন ‘সরি’।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় অভিনেত্রী তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে স্যরি লিখে তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লেখা একটি স্ট্যাটাস শেয়ার করেছেন।

কোন পরিপ্রেক্ষিতে তিনি ওই দুঃখ কার কাছে প্রকাশ করেছেন, সেটি স্পষ্ট নয়। তবে স্ট্যাটাসে তার অভিমানের বিষয়টি স্পষ্ট।

আর পুরো স্ট্যাটাসটাই যে তাকে ঘিরে সাম্প্রতিক আলোচনার কারণে লেখা হয়েছে, সেটিও বোঝা যায়। কারণ, তিনি একটি বিষয় সামনে এনেছেন, সেটি হলো তার ঘরে মদের বোতল থাকার প্রসঙ্গ।

একটি গণমাধ্যম সংবাদ প্রকাশ করেছে যে, পরীমনির ঘরে মদের বার। তবে তিনি এগুলোকে শোপিস হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছেন-

‘সমস্যা হইলো ...

আমি মাইয়া লোক কিন্তু লুতুপুতু মাইয়া টাইপ আচরণ করিনাই আপনার সঙ্গে, ঘইটা গেল সমস্যা!

চিকন সুরে ভাইয়া ভাইয়া করিনাই আপনারে, বিশাল সমস্যা!

কাজের ফাঁকে আলগা রসের পিরিতের আলাপ করিনাই, ব্যাস এইতো সমস্যা!

কাজে মত প্রকাশের অধিকার দেখাইছি, তাতেই সমস্যা!

আপানার চোক্ষের সামনে আরও পাঁচ-দশ জনের মতো না হারাইয়া যাইয়া দিন দিন ক্যারিয়ার বানাইতেছি, নাম কামাইতেছি.. এইখানে হইয়া গেল সমস্যা!

আপনি পরিচালক হইয়া ৫ বছরে একটা সিনেমা বানান আর আমার এক বছরে পাঁচ সিনেমা রিলিজ হয়, আমার তো প্রচুর সমস্যা!

আপনারে প্রযোজক বানাইতে দিলাম না, ওরে সমস্যা!

শুটিং সেটে উহ আহ করা দামরা ধইরা নগদে থাপড়াই, চরম সমস্যা!

কোনোরকম চামচামি না নিয়া আপনার মুখের উপরে তিতা সত্য বইলা দেই, আমারই তো সমস্যা!

তারপর তো বিড়ি খাওয়া, মদ খাওয়া, প্রেম করা, বিদেশে ইচ্ছা মত ঘুরতে যাওয়া, শুয়োরের বাচ্চা-বালছাল বইলা গালিটালি দেয়া, পিরিয়ড নিয়া কথা বলা, এইগুলা তো আছেই!

পরীমনির অভিমানী ‘স্যরি’
অভিনেত্রী পরীমনি। ছবি: সংগৃহীত

পাইছেন কই এইগুলা?

আমিই তো দিছি।

আপনাদের মন ভরে না কেন বলেন তো!?

টুপ কইরা কথায় কথায় চরিত্র হাতাইতে আসেন!

বাসার মধ্যে মদের খালি বোতলের শোপিস দেইখা চরিত্র বুইঝা ফেলেন কেমনে বলেন তো!?

বাসায় যে জায়নামাজ, কোরআন, নামাজের ঘর আছে সেইটা কেন দেখতে পাইলেন না আপনে!?

আহারে একটু জিরান এইবার। ক্ষমা দেন। অন্যায়কে অন্যায় বলতে শেখেন! অপরাধীকে অপরাধী বলতে শেখেন। একটা ন্যায়ের জন্যে লড়াইয়ের সঙ্গে থাকেন। না পারলে এইবার অন্তত নিজের ব্যাক্তিগত হিংসাত্মক আক্রমণ কইরেন না প্লিজ।

এই লড়াই শুধু যে আমার একার না এইটা বোঝার সু-জ্ঞান উদয় হোক সবার।’

১৩ জুন রাতে পরীমনি গণমাধ্যমকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ করেন। ঢাকা বোট ক্লাবে ৯ জুন রাতে সেই ঘটনা ঘটে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

পরীমনির অভিমানী ‘স্যরি’
১৪ জুন রাতে গণমাধ্যমের সামনে কথা বলছেন পরীমনি। ছবি: সংগৃহীত

তার অভিযোগের পর অভিযুক্ত নাসির উদ্দিন মাহমুদ এবং অমিকে আইনের আওতায় নিয়ে আসে ডিবি পুলিশ। ১৫ জুন পরীমনি যান মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে।

অভিযোগের তিন দিন পর অর্থাৎ ১৭ জুন রাজধানীর অল কমিউনিটি ক্লাবে পরীমনির বিরুদ্ধে ভাঙচুরের অভিযোগ আসে। ক্লাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ৭ জুন ক্লাবে মদ্যপ অবস্থায় ভাঙচুর করেন পরীমনি।

অভিযোগের পর এই নায়িকা বলেন, ‘মূল ঘটনা থেকে নজর সরাতেই এসব অভিযোগ আসছে।’

পরীমনির অভিমানী ‘স্যরি’
অল কমিউনিটি ক্লাবের সিসিটিভি ক্যামেরার ছবিতে পরীমনি ও তার সঙ্গীরা। ছবি: সংগৃহীত

এরপর ২২ জুন সকালে বনানী ক্লাব থেকেও জানানো হয়, ছয়-সাত মাস আগে ক্লাবটিতে অপ্রীতিকর আচরণ করেছিলেন পরী।

একই দিন বোট ক্লাবের মধ্যে পরীমনিসহ তার তিন সঙ্গীর সঙ্গে অভিযুক্ত নাসিরের কথা বলার ১০ সেকেন্ডের একটি ভিডিও প্রকাশ পায়। সেখানে দেখা যায়, সঙ্গীদের নিয়ে পরীমনি একটি টেবিলে বসে আছেন। সামনে কয়েকটি কাচের বোতল। আর নাসির উদ্দিন মাহমুদ তার কাছে গিয়ে কিছু একটা বলার পর তিনি ধমকের সুরে বলেন, ‘ওই যা, যা।’

অল কমিউনিটি ক্লাবের অভিযোগের দিনে পরীমনি শেষ গণমাধ্যমের সামনে কথা বলেন। এরপর থেকে তিনি গণমাধ্যমের সামনে আসেননি এবং তার ফোনও বন্ধ রয়েছে।

আরও পড়ুন:
পরীমনিকে ধর্ষণ-হত্যাচেষ্টা: নাসির-অমি ৫ দিনের রিমান্ডে
‘বিদেশে চাকরির নামে মানব পাচার করতেন অমি’
বোট ক্লাবে পরীমনির ১০ সেকেন্ডের নতুন ক্লিপ
ভুল থেকে শিখতে চান পরীমনি
আরেক ক্লাবে পরীমনির অপ্রীতিকর আচরণ

শেয়ার করুন

মন্তব্য