নিজ প্রেমে মুগ্ধ জয়া

নিজ প্রেমে মুগ্ধ জয়া

শুক্রবার ফেসবুকে ছবিটি পোস্ট করেছেন জয়া। ছবি: সংগৃহীত

শুক্রবার দুপুরে মুগ্ধতা ছড়ানো একটি ছবি নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে পোস্ট করেছেন জয়া। মুহূর্তেই ছবিটি ছড়িয়ে পড়ে নেট মাধ্যমে। ষড়ভুজ ছাপের গাউন পরা স্নিগ্ধ ছবিটিতে মাত্র দুই ঘন্টাতেই ৩৪ হাজারের বেশি লাইক ও রিঅ্যাক্ট পড়েছে।

দুই বাংলার তুমুল জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসানের সৌন্দর্যে মুগ্ধ তার সব বয়সী ভক্ত ও অনুরাগীরা। নব্বইয়ের দশকের শেষ থেকে শুরু করে আজও সেই মুগ্ধতা ছড়িয়ে যাচ্ছেন এই অভিনেত্রী।

অভিনয়ের পাশাপাশি সেই সেই মুগ্ধতা ছড়ানোর অন্যতম ক্ষেত্র তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভীষণ সক্রিয় তিনি। নিজের ভালোলাগা, সুন্দর ছবি, বিশেষ দিবসের অনুভূতিসহ প্রায় সবই তার ভক্তদের সঙ্গে শেয়ার করেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

তেমনই শুক্রবার দুপুরে মুগ্ধতা ছড়ানো একটি ছবি নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে পোস্ট করেছেন জয়া। মুহূর্তেই ছবিটি ছড়িয়ে পড়ে নেট মাধ্যমে।

ষড়ভুজ ছাপের গাউন পরা স্নিগ্ধ ছবিটিতে মাত্র দুই ঘণ্টাতেই ৩৪ হাজারের বেশি লাইক ও রিঅ্যাক্ট পড়েছে।

এ ছাড়া পোস্টটিতে প্রায় তিন হাজারের বেশি কমেন্ট পড়েছে। এর মধ্যে অভিনেত্রীর সৌন্দর্যের প্রশংসা করে অনেকেই মন্তব্য করেছেন।

নিজ প্রেমে মুগ্ধ জয়া
কদিন আগে এই ছবিটি ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন জয়া আহসান। ছবি: সংগৃহীত

তারেক ফেরদৌস নামে একজন লিখেছেন, ‘সুন্দরী সূর্যের উপরিভাগের তাপমাত্রাও তোমাকে দেখে লজ্জা পাবে।’

আবার তার সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে হার্ট অ্যার্টাক হওয়ার যোগার হয়েছে কারো কারো। মুসাইদ আলী নামের অন্য একজন মন্তব্য করেছেন, ‘হার্ট অ্যার্টাক থেকে বাঁচার উপায়।’

জয়া যে নিজেও নিজের প্রেমে মুগ্ধ তা অনেকটা অনুমান করা যায় সেই ছবির ক্যাপশনে। জয়া লেখেন, ‘রুচিশীলতার আলিঙ্গন।’

আরও পড়ুন:
‘চাইলে হতে পারতে আমার বাগানের মেজেন্ডা বাগানবিলাস’
মর্মান্তিক ভিডিওটি দেখে ভাষা হারিয়েছেন জয়া
অযথা গাছ কাটা বন্ধে জয়ার প্রতীকী প্রতিবাদ
‘এ কোন নরক এ পৃথিবীতে’
এই আমাদের আচরণ: জয়া

শেয়ার করুন

মন্তব্য

‘প্রস্তুতি ছিল না, আমি শুধু চরিত্রটি ফিল করেছি’

‘প্রস্তুতি ছিল না, আমি শুধু চরিত্রটি ফিল করেছি’

বলিউড অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী। ছবি: সংগৃহীত

প্রথম দিকে ইংরেজি সংলাপে সমস্যা হয়েছিল নওয়াজের। এ কথা নিজেই জানিয়ে নওয়াজ বলেন, ‘ফারুকী আমাকে সব সময় সাহায্য করেছে। একবার আমি চরিত্রের ছন্দ পেয়ে গেলে, আর কোনো সমস্য হয় না। সেখানে ভাষাও কোনো বাধা না।’

তাদের বন্ধুত্বের শুরু আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে। সেটি আরও দৃঢ় হয় সিনেমার প্রতি তাদের ভালোবাসা এবং একে অপরের কাজের প্রতি শ্রদ্ধার মধ্য দিয়ে।

বাংলাদেশের খ্যাতিমান চলচ্চিত্র নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী ও বলিউডের নামকরা অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী- একপর্যায়ে এ দুই সৃজনশীল মানুষের কাজ করাটা ছিল শুধু সময়ের অপেক্ষা।

সেই অপেক্ষা শেষ হয় এবং তাদের একসঙ্গে কাজ করার আগ্রহটা প্রকাশ পায় নো ল্যান্ডস ম্যান সিনেমার মধ্য দিয়ে।

ফারুকী ও তার সিনেমা নিয়ে নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী শুরু করেন এভাবে, ‘তার (ফারুকীর) সিনেমাগুলো আকর্ষণীয়। শিল্প বা বাণিজ্যিক ধারার চলচ্চিত্র অথবা উৎসবকেন্দ্রিক- কোনো ফর্মে ফেলা যায় না।’

নিউ ইয়র্ক, সিডনিতে হয়েছে সিনেমার দৃশ্যধারণ। একজন পরিচয়সংকটে থাকা দক্ষিণ এশীয় ব্যক্তির গল্প নিয়েই নো ল্যান্ডস ম্যান। যিনি নিজের একটি জায়গা পেতে সংগ্রাম করছেন।

‘প্রস্তুতি ছিল না, আমি শুধু চরিত্রটি ফিল করেছি’
মোস্তফা সরয়ার ফারুকী ও নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী। ছবি: সংগৃহীত

প্রথম কয়েক দিন নওয়াজের চরিত্রটি নিয়ে বেশ বেগ পেতে হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

নওয়াজ তার চরিত্র নিয়ে বলেন, ‘আমি কোথায়? নিজেকে প্রশ্ন করা একটি চরিত্র আমার। এটি এমন একটি প্রশ্ন, যে কারও মনে তা আসতে পারে। সিনেমার বিষয়টি এখনকার সময়ের খুবই প্রাসঙ্গিক। আমি এই চরিত্রের জন্য কোনো প্রস্তুতিই নিইনি। আমি শুধু চরিত্রটির অনুভূতি অনুভব করার চেষ্টা করেছি।’

প্রথম দিকে ইংরেজি সংলাপে সমস্যা হয়েছিল নওয়াজের। এ কথা নিজেই জানিয়ে নওয়াজ বলেন, ‘ফারুকী আমাকে সব সময় সাহায্য করেছে। একবার আমি চরিত্রের ছন্দ পেয়ে গেলে, আর কোনো সমস্য হয় না। সেখানে ভাষাও কোনো বাধা না।’

অভিনেতা জানিয়েছেন, গল্পের প্রয়োজনে ব্যঙ্গাত্মক আচরণ করা অপরিহার্য ছিল সিনেমায়।

নওয়াজ বলেন, ‘যদি একটি গল্প সহজ হয়, তাহলে আপনাকে অবশ্যই গল্পে নতুন মোড় এবং চমক যোগ করতে হবে। বিপরীতভাবে বললে, জটিল গল্পগুলোকে সহজ করতে হবে। এ কারণে আমাদের মনে হয়েছে যে সিনেমার বিষয়টিকে ব্যঙ্গাত্মকভাবে বা সহজভাবে বলা উচিত যাতে দর্শকরা এটি উপভোগ করতে পারেন এবং এর মূল বিষয়টা উপলব্ধি করতে পারেন।’

‘প্রস্তুতি ছিল না, আমি শুধু চরিত্রটি ফিল করেছি’
নো ল্যান্ডস ম্যান সিনেমার শিল্পী, কলাকুশলী, পরিচালক ও প্রযোজক। ছবি: সংগৃহীত

দক্ষিণ এশিয়ার সম্মানজনক বুসান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের কিম জিসেওক অ্যাওয়ার্ডে মনোনীত হয়েছে নো ল্যান্ডস ম্যান। এ বিভাগে জায়গা করে নিয়েছে আরও ছয়টি সিনেমা।

এ নিয়ে সিদ্দিকী গর্বিত যে তার চলচ্চিত্রটি মর্যাদাপূর্ণ উৎসবে অপর্ণা সেনের দ্য রেপিস্ট এর সঙ্গে জায়গা করে নিয়েছে।

দ্য রেপিস্ট সিনেমায় অভিনয়ের জন্য আমাকে প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। শিডিউল জটিলতায় আমি এটা করতে পারিনি। অপর্ণা সেন একজন দুর্দান্ত পরিচালক; আমি নিশ্চিত যে এটি একটি ভালো চলচ্চিত্র।’ বলে শেষ করেন নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী।

আরও পড়ুন:
‘চাইলে হতে পারতে আমার বাগানের মেজেন্ডা বাগানবিলাস’
মর্মান্তিক ভিডিওটি দেখে ভাষা হারিয়েছেন জয়া
অযথা গাছ কাটা বন্ধে জয়ার প্রতীকী প্রতিবাদ
‘এ কোন নরক এ পৃথিবীতে’
এই আমাদের আচরণ: জয়া

শেয়ার করুন

মরণোত্তর দেহদান করলেন কবীর সুমন

মরণোত্তর দেহদান করলেন কবীর সুমন

মরণোত্তর দেহদানের অঙ্গীকারপত্রে স্বাক্ষর করেছেন করেছেন কবির সুমন। ছবি: সংগৃহীত

মৃতদেহ গবেষণার কাজে ব্যবহার হোক এমনটা চান সুমন। তার মৃত্যুর পর কোনো ধরনের স্মরণসভা করতেও নিষেধ করেন এই জনপ্রিয় গায়ক। এমনকি নিজের সৃষ্টি ধ্বংস করার নির্দেশ দিয়ে গেছেন তিনি।

গত বছর অক্টোবরে মরণোত্তর দেহদানের ইচ্ছা প্রকাশ করেন দুই বাংলার জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী ও গবেষক কবীর সুমন। দেহদানের আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শেষ করেছেন ৭২ বছর বয়সী এই শিল্পী।

বুধবার দেহদানের অঙ্গীকারপত্রে স্বাক্ষর করেন তিনি। বৃহস্পতিবার সেই অঙ্গীকারপত্রের ছবি নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে প্রকাশ করেন সুমন।

ছবির ক্যাপশনে তিনি লেখেন, ‘মরণোত্তর দেহদানের অঙ্গীকারপত্রে সই- গতকাল, ২২.০৯.২১ সন্ধ্যে।’

এর আগে, ২০২০ সালের ২৩ অক্টোবর ফেসবুক অ্যাকাউন্টে নিজের হাতে লেখা একটি ইচ্ছাপত্রের ছবি পোস্ট করেন। এতে তিনি মরণোত্তর দেহদানের ইচ্ছা প্রকাশ করেন।

ইচ্ছাপত্রে তিনি লেখেন, ‘সকলের অবগতির জন্য - সজ্ঞানে, সচেতন অবস্থায়, স্বাধীন ভাবনাচিন্তা ও সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে আমি জানাচ্ছি; আমার কোনও অসুখ করলে, আমায় হাসপাতালে ভর্তি হতে হলে অথবা আমি মারা গেলে আমার সম্পর্কিত সবকিছুর, প্রতিটি বিষয় ও ক্ষেত্রে দায়িত্ব গ্রহণ এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণের অধিকার থাকবে একমাত্র মৃন্ময়ী তোকদারের (মায়ের নাম প্রয়াত প্রতিমা তোকদার, বাবার নাম তোকদার), অন্য কারও কোনো অধিকার থাকবে না এইসব বিষয় ও ক্ষেত্রে।’

মরণোত্তর দেহদান করলেন কবীর সুমন
২০২০ সালের ২৩ অক্টোবর মরণোত্তর দেহদানের ইচ্ছা প্রকাশ করে এই ইচ্ছাপত্রের ছবি পোস্ট করেন কবীর সুমন। ছবি:ফেসবুক

মৃতদেহ গবেষণার কাজে ব্যবহার হোক এমনটা চান সুমন। তার মৃত্যুর পর কোনো ধরনের স্মরণসভা করতেও নিষেধ করেন এই জনপ্রিয় গায়ক। এমনকি নিজের সৃষ্টি ধ্বংস করার নির্দেশ দিয়ে গেছেন তিনি।

লেখেন, ‘আমার মৃতদেহ যেন দান করা হয় চিকিৎসাবিজ্ঞানের কাজে। কোনো স্মরণসভা, শোকসভা, প্রার্থনাসভা যেন না হয়। আমার সমস্ত পাণ্ডুলিপি, গান, রচনা, স্বরলিপি, রেকর্ডিং, হার্ড ডিস্ক, পেনড্রাইভ, লেখার খাতা, প্রিন্ট আউট যেন কলকাতা পুরসভার গাড়ি ডেকে তাদের হাতে তুলে দেয়া হয় সেগুলো ধ্বংস করার জন্য-হাতে লেখা সব কিছু, অডিও ও ভিডিও ফাইল- সব। আমার কোনও কিছু যেন আমার মৃত্যুর পর পড়ে না থাকে। আমার ব্যবহার করা সব যন্ত্র, বাজনা, সরঞ্জাম যেন ধ্বংস করা হয়। এর অন্যথা হবে আমার অপমান।’

১৯৪৯ সালের ১৬ মার্চ ভারতে ওডিশায় জন্ম কবির সুমনের। ৯০ দশকের শুরুতে ‘তোমাকে চাই’ অ্যালবাম দিয়ে বাংলা আধুনিক গানের জগতে আবির্ভাব হয় তার।

সেই অ্যালবাম দিয়ে দুই বাংলায় ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেন তিনি। অসংখ্য অ্যালবামের সঙ্গে উপহার দিয়েছেন ‘গানওলা’, ‘জাতিস্মর’ ‘নিষিদ্ধ ইস্তেহার’-এর মতো তুমুল জনপ্রিয় সব গান।

আরও পড়ুন:
‘চাইলে হতে পারতে আমার বাগানের মেজেন্ডা বাগানবিলাস’
মর্মান্তিক ভিডিওটি দেখে ভাষা হারিয়েছেন জয়া
অযথা গাছ কাটা বন্ধে জয়ার প্রতীকী প্রতিবাদ
‘এ কোন নরক এ পৃথিবীতে’
এই আমাদের আচরণ: জয়া

শেয়ার করুন

কারামুক্তির পর প্রথম সংবাদ সম্মেলনে আসছেন পরীমনি

কারামুক্তির পর প্রথম সংবাদ সম্মেলনে আসছেন পরীমনি

‘প্রীতিলতা’ সিনেমার ফার্স্ট লুকে অভিনেত্রী পরীমনি (বামে)। ছবি: সংগৃহীত

‘প্রীতিলতা’ সিনেমার পরিচালক রাশিদ পলাশ বলেন, ‘সিনেমাটি নিয়ে এখন পর্যন্ত আমরা ফরমালি কোনো সংবাদ সম্মেলন করিনি। সিনেমাটি নিয়ে কথা বলতেই এই সংবাদ সম্মেলন ডেকেছি আমরা। সেখানে পরীমনিসহ প্রীতিলতার পুরো টিম উপস্থিত থাকব।’

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার থেকে মুক্ত হওয়ার পর শুক্রবার প্রথম সংবাদ সম্মেলনে আসছেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত নায়িকা পরীমনি।

ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনে শহীদ প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারকে নিয়ে রাশিদ পলাশ নির্মিত সিনেমা প্রীতিলতা নিয়ে এ সংবাদ সম্মেলন হবে এফডিসিতে।

চলচ্চিত্রটিতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করছেন পরীমনি। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে এফডিসির জহির রায়হান কালার ল্যাবে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছে টিম প্রীতিলতা।

বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করে পরিচালক রাশিদ পলাশ বলেন, ‘সিনেমাটি নিয়ে এখন পর্যন্ত আমরা ফরমালি কোনো সংবাদ সম্মেলন করিনি। সিনেমাটি নিয়ে কথা বলতেই এই সংবাদ সম্মেলন ডেকেছি আমরা। সেখানে পরীমনিসহ প্রীতিলতার পুরো টিম উপস্থিত থাকব।’

গত বছরের নভেম্বরে রাজধানীর উত্তরায় শুরু হয়েছিল এ সিনেমার শুটিং। এরপর প্রথম ধাপে ঢাকায় বিভিন্ন লোকেশনে এক সপ্তাহ শুটিং হয়েছে সিনেমাটির।

কারামুক্তির পর প্রথম সংবাদ সম্মেলনে আসছেন পরীমনি

‘প্রীতিলতা’ সিনেমার ফার্স্ট লুকে জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমনি। ছবি: সংগৃহীত

চলতি বছরের ২০ জুলাই প্রকাশ পায় সিনেমাটির ফার্স্ট লুক। ১৯৩২ সালে প্রীতিলতার যে ছবি ওয়ান্টেড হিসেবে প্রকাশ করেছিল ব্রিটিশ পুলিশ, সেই ছবির আদলেই প্রীতিলতার ফার্স্ট লুকে ধরা দেন পরীমনি।

সিনেমাটির চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন গোলাম রাব্বানী। এই চলচ্চিত্রের জন্য ‘একবার বিদায় দে মা ঘুরে আসি, হাসি হাসি পরব ফাঁসি, দেখবে ভারতবাসী’ গানটি নতুন করে গাইবেন দুই বাংলার জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী কবীর সুমন।

গাজীপুরের কাশিমপুর মহিলা কারাগার থেকে গত ১ সেপ্টেম্বর মুক্তি পান পরীমনি।

গত ৪ আগস্ট রাতে পরীমনির বনানীর বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাবের একটি দল। সেখান থেকে বিপুল পরিমাণ বিদেশি মদ, মদের বোতলসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য জব্দের দাবি করে বাহিনীটি।

পরের দিন পরীমনিকে আটকের কারণ জানানোর পাশাপাশি বনানী থানায় তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা করে র‌্যাব। ওই দিনই এই অভিনেত্রীকে আদালতে তোলা হলে চার দিনের রিমান্ডে পাঠানো হয়। পরে আরও দুই দফায় তিন দিনের রিমান্ডে নিয়ে পরীমনিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে সিআইডি।

রিমান্ড শেষে পরীমনিকে রাখা হয় কাশিমপুর কারাগারে।

আরও পড়ুন:
‘চাইলে হতে পারতে আমার বাগানের মেজেন্ডা বাগানবিলাস’
মর্মান্তিক ভিডিওটি দেখে ভাষা হারিয়েছেন জয়া
অযথা গাছ কাটা বন্ধে জয়ার প্রতীকী প্রতিবাদ
‘এ কোন নরক এ পৃথিবীতে’
এই আমাদের আচরণ: জয়া

শেয়ার করুন

কর্মী ধর্মঘটে বন্ধ হতে পারে হলিউডের কাজ

কর্মী ধর্মঘটে বন্ধ হতে পারে হলিউডের কাজ

কর্মী ধর্মঘটে বন্ধ হতে পারে হলিউডের কাজ। ছবি: দ্য হলিউড রিপোর্টার

কস্টিউম ডিজাইনার চার্লিস অ্যান্টোনেট জোন্স জানান, তার প্রধান সমস্যা হলো বেতনের অসমতা। কাজের জন্য চিকিৎসকের সাক্ষাৎও মিস করতে হয়েছে বলে অভিযোগ তার।

ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন অফ থিয়েট্রিক্যাল স্টেজ ইমপ্লয়িজ (আইএটিএসই) সোমবার একটি ধর্মঘট অনুমোদনের জন্য ভোট করার আহ্বান জানিয়েছে।

১৪ বছর আগে সবশেষ লেখকদের ধর্মঘটের পর হলিউডে সম্ভাব্য সবচেয়ে বড় ধর্মঘটের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

আন্তর্জাতিক মিডিয়া কোম্পানি জানিয়েছে, ধর্মঘট হলে কাজ বন্ধ করে দিতে পারে প্রায় ৬০ হাজার আইএটিএসই সদস্য। সে ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের টিভি ও চলচ্চিত্র নির্মাণ বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

স্বাস্থ্য পরিকল্পনা তহবিল, পেনশন পরিকল্পনা, বিশ্রামের সময়, সংক্ষিপ্ত কর্মদিবসের দাবি জানিয়ে আসছিল আইএটিএসই ইউনিয়ন সদস্যরা কিন্তু তা বাস্তবায়িত না হওয়ায় এ ধর্মঘটের ডাক।

ইউনিয়ন সদস্যদের মধ্যে অনেকেই অভিযোগ করেছেন বিষয়গুলো নিয়ে।

কস্টিউম ডিজাইনার চার্লিস অ্যান্টোনেট জোন্স জানান, তার প্রধান সমস্যা হলো বেতনের অসমতা। কাজের জন্য চিকিৎসকের সাক্ষাৎও মিস করতে হয়েছে বলে অভিযোগ তার।

স্ক্রিপ্ট কো-অর্ডিনেটর শন ওয়াহ জানান, প্রায়ই তাকে গভীর রাতে কাজ করতে হয়। সেটা ১২ ঘণ্টাও অতিক্রম করে হরহামেশাই।

স্থানীয় ইউনিয়নগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বড় ইউনিয়ন ’৬০০’। যুক্তরাষ্ট্রের ৯ হাজার ৬০০ ক্যামেরা অপারেটর ও সিনেমাটোগ্রাফারদের প্রতিনিধিত্ব করে ইউনিয়নটি। তারা যদি ধর্মঘট করে তাহলে যুক্তরাষ্ট্রের কোনো শুটিং সেটে ক্যামেরা ধরার মতো মানুষ থাকবে না।

একইভাবে দেশটির পোস্ট-প্রোডাকশন অচল হয়ে যাবে স্থানীয় ইউনিয়ন ‘৭০০’ -এর সদস্যরা কাজ বন্ধ করলে। এর সদস্য সংখ্যা ৮ হাজার ৬০০।

আইএটিএসই এর আগে কখনও ধর্মঘটে যায়নি। তারা ধর্মঘটের কথা বলেছে মানেই যে ধর্মঘট শুরু হয়ে গেছে, তা নয়। কিন্তু এটি স্পষ্ট যে ইউনিয়নগুলোর মধ্যে এক ধরনের টালমাটাল অবস্থা বিরাজ করছে।

ধর্মঘট অনুমোদনের জন্য ভোট ১ অক্টোবর থেকে শুরু হবে বলে জানিয়েছে আইএটিএসই। যার ফল ঘোষণা করা হবে ৪ অক্টোবর।

আরও পড়ুন:
‘চাইলে হতে পারতে আমার বাগানের মেজেন্ডা বাগানবিলাস’
মর্মান্তিক ভিডিওটি দেখে ভাষা হারিয়েছেন জয়া
অযথা গাছ কাটা বন্ধে জয়ার প্রতীকী প্রতিবাদ
‘এ কোন নরক এ পৃথিবীতে’
এই আমাদের আচরণ: জয়া

শেয়ার করুন

‘এটি আমার আলোয় ফিরে আসার গান’

‘এটি আমার আলোয় ফিরে আসার গান’

বয়স হলো আমার গানের প্রচ্ছদ। ছবি: সংগৃহীত

সব শেষে সুমন লেখেন, ‘হঠাৎ দেখি, এ জীবনটা যে, নতুন গানে, মুচকি হাসে... মুচকি হাসে’। মহান ফাহিম ফিচার বেজবাবা সুমন গানটির একটি মিউজিক ভিডিও প্রকাশ পাবে। অসুস্থ হয়ে ব্যাংককে চিকিৎসা নিতে থাকা সুমন কিছুটা সুস্থ হয়ে আগস্টে দেশে ফেরেন।

অর্থহীন ব্যান্ডের সুমন বা বেজবাবা সুমন নামে পরিচিত তিনি। বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় প্রকাশ পাচ্ছে সুমনের নতুন সিঙ্গেল। যার শিরোনাম ‘বয়স হলো আমার’।

দুর্বিষহ অসুস্থতা কাটানোর পর গান প্রকাশ করছেন সুমন। তাই সুমন তথা ব্যান্ড ভক্তরা অপেক্ষা করছেন গানটির জন্য।

অন্যদিকে সুমনও কিছু কথা বলেছেন গানটি নিয়ে। নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে গানটি নিয়ে তার অনুভূতির কথা জানিয়েছেন তিনি।

সুমন লিখেছেন, ‘বয়স হলো আমার- গানটা নিয়ে কিছু কথা। এ গানটিতে কোনো বেইস সোলো নেই, কোনো ভয়ংকর লিড নেই, ড্রামসের কোনো ক্যারিকেচার নেই।

‘মহানের খুব সুন্দর বাজানো অ্যাকুস্টিক গিটারের ওপর খুব সাদামাটাভাবে আমার গাওয়া লিরিক-নির্ভর একটি গান এটি।

‘এটি আমার ধীরে ধীরে বয়স বেড়ে যাবার গান, এটি আমার গত ২ বছরের প্রায় পঙ্গু হয়ে বিছানায় পরে থাকার গান, এটি আমার অন্ধকারে ডুবে যাবার গান, এটি আমার রাতের পর রাত প্রচণ্ড ব্যথায় চিৎকার করার গান, পরিশেষে… এটি আমার সব বাধা অতিক্রম করে আলোয় ফিরে আসার গান।’

সব শেষে সুমন লেখেন, ‘হঠাৎ দেখি, এ জীবনটা যে, নতুন গানে, মুচকি হাসে... মুচকি হাসে’।

মহান ফাহিম ফিচার বেজবাবা সুমন গানটির একটি মিউজিক ভিডিও প্রকাশ পাবে।

অসুস্থ হয়ে ব্যাংককে চিকিৎসা নিতে থাকা সুমন কিছুটা সুস্থ হয়ে আগস্টে দেশে ফেরেন।

৮ আগস্ট সুমন তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে নিজের শারীরিক অবস্থার কথা জানিয়ে লেখেন, ‘অবশেষে ৫ মাস পর দেশে ফিরলাম। এতটা দীর্ঘ সময় ধরে আমি কখনও দেশের বাইরে থাকিনি। আমি এখন আগের চেয়ে অনেক সুস্থ। স্পাইনের ব্যথা অনেক কম। আগে ২-৩ মিনিটের বেশি বসে থাকতেই পারতাম না। এখন প্রতিদিন ২-৩ কিলোমিটার হাঁটাহাঁটি করতে পারি। আমার স্পাইনের সার্জারি লাগবে, কিন্তু সেটা আগামী এক বছরের মধ্যে করলেও চলবে।’

২০১৭ সালে থাইল্যান্ডে এক দুর্ঘটনার পর স্পাইনাল কর্ডের সমস্যায় পড়েন সুমন। এখন এটাই তার প্রধান সমস্যা। এ ছাড়া ক্যানসারে আক্রান্ত তিনি। এর চিকিৎসা চালিয়ে যেতে হবে আরও অনেক দিন, হয়তো সব সময়।

আরও পড়ুন:
‘চাইলে হতে পারতে আমার বাগানের মেজেন্ডা বাগানবিলাস’
মর্মান্তিক ভিডিওটি দেখে ভাষা হারিয়েছেন জয়া
অযথা গাছ কাটা বন্ধে জয়ার প্রতীকী প্রতিবাদ
‘এ কোন নরক এ পৃথিবীতে’
এই আমাদের আচরণ: জয়া

শেয়ার করুন

কৌশানী ঢাকা আসছেন শনিবার

কৌশানী ঢাকা আসছেন শনিবার

অভিনেত্রী কৌশানী মুখার্জি। ছবি: সংগৃহীত

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ২৬ সেপ্টেম্বর কলকাতা থেকে ঢাকায় আসছেন জনপ্রিয় এ নায়িকা। ‘পিয়া রে’ নামের দেশের একটি সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন কৌশানী। এটি প্রযোজনা করছে শাপলা মিডিয়া।

কলকাতার সিনেমার হালের নামকরা অভিনেত্রী কৌশানী মুখার্জি। সিনেমা ছাড়াও লাভ লাইফ নিয়ে আলোচনায় আসেন প্রায়ই। কৌশানীর প্রেমিক বনি সেনগুপ্ত। তিনিও কলকাতার নবীন অভিনেতাদের একজন।

এবার সেই বনিকে ছেড়ে কৌশানী ঢাকায় আসছেন শান্ত খানের সঙ্গে প্রেম করতে!

না, ভুল পড়ছেন না। কৌশানী ঢাকায় আসছেন এবং শান্ত খানের সঙ্গে প্রেমও করবেন, তবে পর্দায়। হ্যাঁ, সিনেমায় অভিনয়ের জন্যই তার ঢাকায় আসা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ২৬ সেপ্টেম্বর কলকাতা থেকে ঢাকায় আসছেন জনপ্রিয় এ নায়িকা।

‘পিয়া রে’ নামের দেশের একটি সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন কৌশানী। এটি প্রযোজনা করছে শাপলা মিডিয়া।

কৌশানী ঢাকা আসছেন শনিবার
কৌশানী ও শান্ত খান। ছবি: সংগৃহীত

প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার সেলিম খান জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক বলেই কাজটি শুরু করছেন। বিদেশি শিল্পী নিয়ে সিনেমায় কাজের জন্য প্রয়োজনীয় সরকারি অনুমতিও নাকি নিয়ে রেখেছেন তিনি। ঢাকা, পুবাইল ও চাঁদপুরে হবে সিনেমার শুটিং।

সেপ্টেম্বরের শেষ পর্যন্ত থাকার প্রস্তুতি নিয়ে কৌশানী ঢাকায় আসছেন বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আরও জানিয়েছে, পূজন মজুমদারের পরিচালনায় এ সিনেমায় অভিনয় করবেন দুই বাংলার শিল্পীরা। কলকাতা থেকে কৌশানী ছাড়া থাকছেন রজতাভ দত্ত ও খরাজ মুখার্জি।

আরও পড়ুন:
‘চাইলে হতে পারতে আমার বাগানের মেজেন্ডা বাগানবিলাস’
মর্মান্তিক ভিডিওটি দেখে ভাষা হারিয়েছেন জয়া
অযথা গাছ কাটা বন্ধে জয়ার প্রতীকী প্রতিবাদ
‘এ কোন নরক এ পৃথিবীতে’
এই আমাদের আচরণ: জয়া

শেয়ার করুন

পূজার চারদিন পর ‘গলুই’তে উঠছেন শাকিব

পূজার চারদিন পর ‘গলুই’তে উঠছেন শাকিব

পূজা চেরি ও শাকিব খান। ছবি: সংগৃহীত

সিনেমার কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করছেন ঢাকাই সিনেমার শীর্ষ নায়ক শাকিব খান ও হালের আলোচিত নায়িকা পূজা চেরি। এই সিনেমাতেই প্রথমবারের মতো জুটি বেঁধেছেন শাকিব-পূজা।

সরকারি অনুদানের সিনেমা গলুই। খোরশেদ আলম খসরু প্রযোজিত সিনেমাটি পরিচালনা করছেন এস এ হক অলিক। রাত পোহালেই শুরু হতে যাচ্ছে সিনেমার শুটিং।

বৃহস্পতিবার থেকে টাঙ্গাইলে শুরু হচ্ছে সিনেমার দৃশ্যধারণ। নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পরিচালক এস এ হক অলিক।

তিনি বলেন, ‘আগামীকাল থেকে (বৃহস্পতিবার) টাঙ্গাইলের মহেরা জমিদার বাড়িতে শুরু হচ্ছে গলুই সিনেমার দৃশ্যধারণ।’

সিনেমার কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করছেন ঢাকাই সিনেমার শীর্ষ নায়ক শাকিব খান ও হালের আলোচিত নায়িকা পূজা চেরি। এই সিনেমাতেই প্রথমবারের মতো জুটি বেঁধেছেন শাকিব-পূজা।

সিনেমার শুটিংয়ে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হলেও শাকিব-পূজা শুটিংয়ে যাবেন আরও কিছু পরে। পরিচালক জানান, পূজা চেরি ২৪ এ ও শাকিব খান শুটিংয়ে অংশ নেবেন ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে।

নৌকার গলুই থেকেই সিনেমার নামকরণ করা হয়েছে গলুই। গলুই যেহেতু নৌকার গুরুত্বপূর্ণ অংশ, তাই এ গলুইয়ের সঙ্গে জীবন,সম্পর্ক, পরিবার, রাষ্ট্রকে মিলিয়ে তৈরি করা হয়েছে চিত্রনাট্য।

গলুই সিনেমার মাধ্যমে দীর্ঘদিন পর সিনেমার গানে ফিরেছেন হাবিব ওয়াহিদ। তার সুর, সংগীত ও কণ্ঠে দুটি গান থাকছে সিনেমায়। যার একটি লিখেছেন এস এ হক অলিক ও আরেকটি লিখেছেন সোহেল আরমান।

হাবিবের সঙ্গে গান দুটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন কণ্ঠশিল্পী জারিন।

আরও পড়ুন:
‘চাইলে হতে পারতে আমার বাগানের মেজেন্ডা বাগানবিলাস’
মর্মান্তিক ভিডিওটি দেখে ভাষা হারিয়েছেন জয়া
অযথা গাছ কাটা বন্ধে জয়ার প্রতীকী প্রতিবাদ
‘এ কোন নরক এ পৃথিবীতে’
এই আমাদের আচরণ: জয়া

শেয়ার করুন