সোনমের জন্য মার খেয়েছিলেন অর্জুন

সোনমের জন্য মার খেয়েছিলেন অর্জুন

বলিউডের তারকা ভাইবোন অর্জুন কাপুর ও সোনম কাপুর। ছবি: সংগৃহীত

অর্জুন জানালেন, তারা দুই ভাইবোন একই স্কুলে পড়াশোনা করেছেন। সেই সময় একবার স্কুলের সিনিয়র ক্লাসের ছেলেরা সোনমের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করলে তাদের সঙ্গে হাতাহাতি হয় অর্জুনের। এমনকি স্কুল থেকেও কিছুদিনের জন্য বহিস্কারও করা হয়েছিল তাকে!

সম্পর্কে চাচাতো ভাই বোন হলেও অর্জুন ও সোনম কাপুরের বন্ধনের কথা বলিউডে সর্বজনবিদিত। প্রায় পিঠাপিঠি বয়সী তারা। মাত্র কয়েকদিনের ব্যবধানে জন্ম এই দুই তারকা ভাই-বোনের। বড় সোনম কাপুর।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে অর্জুন তাদের ছোটবেলার মজার এক গল্প শোনালেন।

জানালেন, তারা দুই ভাইবোন একই স্কুলে পড়াশোনা করেছেন। সেই সময় একবার স্কুলের বড় ক্লাসের ছেলেরা সোনমের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। এরপর প্রতিবাদ করতে গিয়ে তাদের হাতে মারও খেয়েছিলেন অর্জুন। এমনকি স্কুল থেকেও কিছুদিনের জন্য বহিস্কারও করা হয়েছিল তাকে!

অর্জুন বলেন, ‘ছোট থেকে আমি আর সোনম এক স্কুলেই পড়াশোনা করেছি। তখন একটু উপরের ক্লাসে পড়ি আমরা। আমরা দুজনেই স্কুলে বাস্কেটবল খেলতাম। আমি তখন বেশ মোটাসোটা চেহারার হলেও শান্ত ছিলাম। আজও আমি হুটহাট করে রেগে যাই না।

‘হঠাৎ একদিন কাঁদো কাঁদো মুখে সোনম এসে জানালো উপরের ক্লাসের ছেলেরা নাকি তার হাত থেকে বাস্কেটবল কেড়ে নিয়েছে ও তার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছে। এসব শুনে আমার মাথাটা তখন হঠাৎ করে গরম হয়ে গেল। সোনমকে জিজ্ঞেস করাতে সে দেখিয়ে দিল কোন ছেলেটি তার সঙ্গে এই ব্যবহার করেছে। ব্যাস, তারপরে আগেপিছে না দেখে আমি ওই ছেলেটির কাছে গিয়ে চিৎকার করে গালিগালাজ দেয়া শুরু করলাম।’

সোনমের জন্য মার খেয়েছিলেন অর্জুন
বলিউডের তারকা ভাইবোন অর্জুন কাপুর ও সোনম কাপুর। ছবি: সংগৃহীত

এরপর হাসতে হাসতে অর্জুন বলেন, ‘প্রথম কয়েক মুহূর্ত আমার মুখে ওইসব গালিগালাজ শুনে স্রেফ হাঁ হয়ে গিয়েছিল ছেলেটি। তারপর বেধড়ক মারতে শুরু করলো আমায়। ওরকম ঘুঁষি খেয়ে আমার চোখে কালশিটে দাগ পড়ে গিয়েছিল। এরপর স্কুল থেকেও বহিষ্কার করা হয়েছিল আমাকে। কারণ ঝামেলার শুরু করেছিলাম আমিই। যাতা রকমের গালাগালি দিয়েছিলাম।’

সোনমের জন্য মার খেয়েছিলেন অর্জুন
বলিউডের তারকা ভাইবোন অর্জুন কাপুর ও সোনম কাপুর। ছবি: সংগৃহীত

‘এর কিছুদিন পর সোনম কাছ থেকে জানতে পারি ওই ছেলেটি জাতীয় পর্যায়ে বক্সিং খেলোয়াড়। শুনে তো তখন আমি স্রেফ হাঁ। বুঝেছিলাম ভুল জায়গায় পাকামো করে ফেলেছি।’

অর্জুন আরও বলেন, ‘এরপর সবকিছু মিটলে আমি সোনমকে বলে দিয়েছিলাম এবার থেকে স্কুলে নিজের ঝামেলা নিজে মেটাবি। খবরদার আমাকে ডাকবি না। এসবের পাল্লায় আমি আর পড়তে চাই না।’

আরও পড়ুন:
হৃত্বিকের সিরিজ থেকে সরে গেলেন মনোজ বাজপেয়ী

শেয়ার করুন

মন্তব্য