মিমি জানালেন কেমন প্রেমিক চান

টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। ছবি: সংগৃহীত

মিমি জানালেন কেমন প্রেমিক চান

মিমি বলেন, ‘সবচেয়ে জরুরি আর প্রধান বিষয় হল, তাকে একজন ভালো মনের মানুষ হতে হবে। সত্যি কথা বলছি, কারো রূপ নিয়ে আমার বিশেষ মাথাব্যাথা নেই। আমি এমন একজন পার্টনার চাই যে আমার সবচেয়ে প্রিয় বন্ধু হবে।’  

টালিউডের জনপ্রিয় তারকাদের মধ্যে অন্যতম একজন মিমি চক্রবর্তী। শুধু তাই নয় টালিউড অভিনেতা-অভিনেত্রীদের মধ্যে ইনস্টাগ্রামে সবচেয়ে বেশি ফলোয়ার এই সাংসদ ও অভিনেত্রীর।

সম্প্রতি এক সংবাদমাধ্যমের সমীক্ষায় দর্শক ভোটে টালিউডের সবচেয়ে ‘কাঙ্খিত’ নায়িকার তকমা পেয়েছেন মিমি। অনুরাগীদের বিচারে সবচেয়ে ‘কাঙ্খিত’ নায়িকা হতে পেরে স্বাভাবিকভাবেই বেশ উচ্ছ্বসিত তিনি।

আর ‘কাঙ্খিত’ হওয়াতে বোঝাই যায় মিমির প্রেমে হাবুডুবু খান অনেক পুরুষই। তবে তার স্বপ্নের পুরুষ কেমন? কেমন পুরুষকে প্রেমিক হিসেবে পছন্দ তার?

সম্প্রতি ভারতীয় এক গণমাধ্যমে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে সেই কথায় জানিয়েছেন এই অভিনেত্রী।

মিমি বলেন, ‘সবচেয়ে জরুরি আর প্রধান বিষয় হল তাকে একজন ভালো মনের মানুষ হতে হবে। সত্যি কথা বলছি, কারো রূপ নিয়ে আমার বিশেষ মাথাব্যাথা নেই। আমি এমন একজন পার্টনার চাই যে আমার সবচেয়ে প্রিয় বন্ধু হবে।’

মিমির রূপে মুগ্ধ ভক্তরা, কিন্তু তার কোন গুণ রয়েছে যা পুরুষ মনকে উতলা করে?

এমন প্রশ্নের জবাবে পালটা প্রশ্ন করে মিমি বলেন, ‘তবে আমি সিঙ্গেল কেন?’ অর্থাৎ মিমি বোঝাতে চাইলেন তার কোনো গুণ নেই।

এরপর তিনি বলেছেন, ‘কোন পুরুষ আমায় নিয়ে কী ভাবছে সেটা জানা আমার জন্য জরুরি কি? যদি কেউ আমার সামনে হাঁটু মুড়ে বসে, তাহলে সেটা নিয়ে ভাবা যেতে পারে।’

মিমি জানালেন কেমন প্রেমিক চান
টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। ছবি: সংগৃহীত

টালিউডে জনপ্রিয় নায়িকাদের মধ্যে সম্ভবত একমাত্র মিমির ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে খুব বেশি চর্চা শোনা যায় না।

পরিচালক রাজ চক্রবর্তীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কের ভাঙনের পর থেকে নিজের প্রেম নিয়ে একদম কথা না বলার পন্থা গ্রহণ করেছেন মিমি।

যদিও তুরস্কের লাইন প্রোডিউসার মিলি গুলহানের সঙ্গে দীর্ঘদিনের প্রেমের গুঞ্জন শোনা গেলেও তা নিয়ে প্রকাশ্যে কোনোদিন কথা বলেননি মিমি।

শেয়ার করুন

মন্তব্য

বোট ক্লাবে পরীমনির ১০ সেকেন্ডের নতুন ক্লিপ

বোট ক্লাবে পরীমনির ১০ সেকেন্ডের নতুন ক্লিপ

বোট ক্লাবে পরীমনির নতুন একটি ভিডিও ক্লিপ প্রকাশ্যে এসেছে

নিউজবাংলা ১০ সেকেন্ডের নতুন একটি ভিডিও পেয়েছে, যাতে অনেক কিছুই স্পষ্ট। পরীমনি ও তার সঙ্গীদের বসে থাকা, কথাবার্তাও সব শোনা যায়। যদিও এই ১০ সেকেন্ডে আসলে পুরো ঘটনা নিয়ে সিদ্ধান্তে আসা কঠিন। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে পরীমনি ও তার তিন সঙ্গী বসে আছেন একটি টেবিল ঘিরে। তাদের সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলছেন নাসির উদ্দিন মাহমুদ।

ঢাকা বোট ক্লাবে পরীমনি ও তার সঙ্গীরা কী করেছিলেন, তার একটি নমুনা প্রকাশ হয়েছে। ১০ সেকেন্ডের নতুন একটি ভিডিও ক্লিপে পরীমনি ও তার সঙ্গীদের একটি গোল টেবিলের চারপাশে বসে থাকতে দেখা গেছে।

সেই টেবিলে কয়েকটি বোতল রাখা ছিল। আর পরীমনির কণ্ঠস্বরও শোনা গেছে, যা ছিল অনেকটাই রাগান্বিত। তিনি ধমক দিচ্ছিলেন।

গত ৯ জুন রাতে ঢাকা বোট ক্লাবে গিয়ে ধর্ষণচেষ্টা ও হত্যার হুমকি পাওয়ার অভিযোগ করে তোলপাড় ফেলে দেন বাংলা চলচ্চিত্রের ঝলমলে এই তারকা।

অভিযোগ করেন, বোট ক্লাবের সাবেক সভাপতি নাসির উদ্দিন মাহমুদ এই অপকর্ম করেছেন। তার অভিযোগে পরদিনই গ্রেপ্তার হন জাতীয় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য।

তবে গ্রেপ্তারের আগে নাসির করেন পাল্টা অভিযোগ। তার দাবি, পরীমনি তাদের ক্লাবে গিয়ে জোর করে মদ খেতে চেয়েছেন। তারা বাধা দিলে করেছেন হামলা।

পরীমনির সেদিন সঙ্গীসহ ক্লাবে ঢোকার ভিডিও পাওয়া গেছে দুই দিন পরই। তবে ভেতরের কী হয়েছে, তার কোনো ভিডিও আসেনি কোথাও। যদিও অন্ধকারের মধ্যে ১৫ সেকেন্ডের একটি ভিডিও পরীমনি নিজেই দেন, তাতে কোনো কিছুই স্পষ্ট ছিল না।

এর মধ্যে নিউজবাংলা ১০ সেকেন্ডের নতুন একটি ভিডিও পেয়েছে, যাতে অনেক কিছুই স্পষ্ট। তাদের বসে থাকা, কথাবার্তাও সব শোনা যায়। যদিও এই ১০ সেকেন্ডে আসলে পুরো ঘটনা নিয়ে সিদ্ধান্তে আসা কঠিন।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, পরীমনি ও তার তিন সঙ্গী বসে আছেন একটি টেবিল ঘিরে। তাদের সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলছেন নাসির উদ্দিন মাহমুদ।

ভিডিওটি দেখে ধারণা করা হচ্ছে এটি মেবাইলে ধারণ করা। এতে দেখা যায়, নাসির উদ্দিন দাঁড়িয়ে পরীমনিকে কিছু বলছেন। অন্যদিকে বাকি সবাই চুপ থাকলেও শোনা গেছে পরীমনির উচ্চকণ্ঠ।

বোট ক্লাবে পরীমনির ১০ সেকেন্ডের নতুন ক্লিপ
বোট ক্লাবে গিয়ে ধর্ষণ ও প্রাণনাশের মুখে পড়েছিলেন বলে সম্প্রতি অভিযোগ তোলেন পরীমনি। ছবি: নিউজবাংলা

ভিডিওর শুরুতেই পরীমনির কণ্ঠে উচ্চস্বরে ‘এই’ শব্দটি শোনা যায়। এরপর নাসির ইংরেজিতে কিছু বলেন। যেখানে ‘ওয়ার্নিং দিস’ শব্দটি স্পষ্ট।

এরপর নাসির আবার বলেন, ‘নো, আমি চলে আসছি, অমি প্লিজ।’ এ সময় অমি কোনো উত্তর দিচ্ছিলেন কি না তা স্পষ্ট নয়।

তবে নাসিরের কথা শেষ হতে না-হতেই পরীমনি হাত নাড়িয়ে বলে ওঠেন, ‘যা, যা, যা।’

এই কথা বলেই পরীমনি একটি গ্লাস মুখে তোলেন। সেই গ্লাসে কী ছিল তাও স্পষ্ট নয়।

ভিডিওতে থাকা নাসিরের শেষ কথাটি খুব স্পষ্ট। তিনি খুব জোর দিয়ে বলেছেন, ‘দিস ইস টু মাচ (এটা কিন্তু বেশি হচ্ছে)।’

এই ভিডিওর বিষয়ে পরীমনির কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। গুলশানে অল কমিউনিটি ক্লাবে পরীমনির ভাঙচুরের অভিযোগ পাওয়ার পর থেকে তার ফোন বন্ধ রয়েছে।

ক্লাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এই ক্লাবে গত ৭ জুন পরীমনি তার কয়েকজন সঙ্গীকে নিয়ে গিয়েছিলেন। সেখানে মদ খাওয়ার পর ভাঙচুর করেছেন। পরে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে পুলিশকে ডেকে আনা হয়। এরপর পুলিশ করে সাধারণ ডায়েরি।

তবে ওই রাতে সংবাদ সম্মেলন করে পরীমনি এই অভিযোগ আনার পেছনে উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। বলেন, এই কথা সত্য হলে কেন এতদিন পর তা সামনে আনা হয়েছে।

নাসির উদ্দিন মাহমুদ এই ক্লাবেরও সদস্য। আর ক্লাব কর্তৃপক্ষ সেদিন পরীমনির সেখানে প্রবেশ ও বেরিয়ে যাওয়ার একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে।

এই দুই ক্লাব নিয়ে আলোচনার মধ্যে বনানী ক্লাবেও রাতে গিয়ে পরীমনির অপ্রীতিকর আচরণের অভিযোগ এসেছে। এই অভিযোগ নিয়ে অবশ্য এই নায়িকা কোনো বক্তব্য দেননি।

বোট ক্লাবে পরীমনির ১০ সেকেন্ডের নতুন ক্লিপ

পরীমনি যে বর্ণনা দিয়েছিলেন সেই রাতের

১৪ জুন রাতে গণমাধ্যমকে সেই রাতের বর্ণনা দেন পরীমনি। যেখানে তিনি বলেন, ‘কাজের ব্যাপারে বোট ক্লাবে গিয়েছিলাম। অমি অনেক দিন থেকেই বলছিল একটা কাজ করতে হবে। কিন্তু সময়ের কারণে কাজের ব্যাপারে কথা বলতে পারছিলাম না। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পরিচিত বলে কাজের জন্য কথা বলতে রাজি হই।

‘সেখানে আগে থেকে উপস্থিত ছিলেন চার থেকে পাঁচ ব্যক্তি। তারা বসতে বলে প্রথমে কফি ও পরে কোক খাওয়ার প্রস্তাব দেন।

‘কফি আসতে দেরি হচ্ছে বলে দেয়া হয় কোক। কিন্তু সেই কোকের স্বাদ ছিল সন্দেহজনক।

“ক্লাবের ভেতরে থাকা ‘মুরব্বি’ গোছের একজন নিজের নাম নাসির উদ্দিন মাহমুদ বলে জানান। কথাবার্তার একপর্যায়ে আমার মুখে মদের বোতল ঠেলে দেন। জিমিকে মারধর করেন ব্যাপকভাবে।”

নতুন প্রকাশ হওয়া দশ সেকেন্ডের এই ভিডিও দেখে মনে হয় যে, নাসির কিছু একটা করতে মানা করছেন পরীমনিসহ অন্যদের। কিন্তু পরীমনি সেটা শুনছেন না। যা কিনা নাসির গ্রেপ্তার হওয়ার দিন তার যে বক্তব্য, তার সঙ্গে মিলে যায়।

নাসির বলেছিলেন, ‘আমি যখন বের হচ্ছিলাম, তখন তারা ঢোকে। তারা কাউন্টার থেকে দামি মদ জোর করে নেয়ার চেষ্টা করছিল। আমি বাধা দিতে গেলে পরীমনি আমার ওপর উত্তেজিত হয়ে যায়। গালিগালাজ করে ও গ্লাস প্লেট ভাঙতে থাকে।’

বোট ক্লাবে পরীমনির ১০ সেকেন্ডের নতুন ক্লিপ
পরীমনির মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে নাসির উদ্দিন মাহমুদকে। ছবি: নিউজবাংলা

নাসিরের বক্তব্য যা ছিল

বোট ক্লাবের সাবেক সভাপতি গ্রেপ্তার হওয়ার আগে সাংবাদিকদের কাছে সেই রাতের ভিন্ন একটি বর্ণনা দিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আমাদের কাউন্টারে খুব দামি ড্রিঙ্কস ছিল, দামি বড় বড় ড্রিঙ্কস ছিল সেটা তারা (পরীমনি ও তার সঙ্গীরা) জোর করে নেয়ার চেষ্টা করেছিল।’

তিনি বলেন, ‘তারা তো নিতে পারে নাই, তারা তো ক্লাবের মেম্বার না। আমি জাস্ট তাদেরকে বাধা দিছি যে নেয়া যাবে না। নিতে হলে তোমাদের… দিতে হবে এটা বিক্রিযোগ্য না। বাই দিস টাইম আমাদের বার ক্লোসড। এটা দেয়া যাবে না।

‘এর পরই সে (পরীমনি) উত্তেজিত হয়ে যায়। উত্তেজিত হয়ে একটার পর গ্লাস প্লেট… সে আমাকে গালিগালাজ শুরু করে। আমাদের স্টাফরা তাকে থামানোর চেষ্টা করে।’

নাসির উদ্দিনের দাবি, তিনি পরীমনিকে আগে থেকে চিনতেন না। আর ঘটনার সময় তিনি তাকে থামাতে চেষ্টা করেন। এ সময় তিনি মারধরের শিকার হন।

তিনি বলেন, ‘তার (পরীমনির) সঙ্গে যে একটা ছেলে ছিল সে আমাকে চড়-থাপ্পড় দেয় ও গ্লাস ছুড়ে মারে। সেটি আমার গায়ে লাগে। এই অবস্থায় আমাদের সিকিউরিটিদের আমি নির্দেশ দেই, তখন সিকিউরিটিরা তাকে উঠিয়ে নিয়ে যায়। যখন সিকিউরিটিরা নিয়ে যায় বাই দিস টাইম সে অনেক ড্রিঙ্ক করে ফেলেছে এবং এটা আমাদের সিসি ক্যামেরায় দেখবেন যে, সে ড্রিঙ্ক করা অবস্থায় গাড়িতে উঠতে পারছে।’

শেয়ার করুন

দুই বাংলাতেই কটাক্ষের শিকার হচ্ছি: মিথিলা

দুই বাংলাতেই কটাক্ষের শিকার হচ্ছি: মিথিলা

অভিনেত্রী ও উন্নয়নকর্মী রাফিয়াথ রশিদ মিথিলা। ছবি: সংগৃহীত

“আমি বাংলাদেশের সংস্কৃতিকে কলুষিত করেছি। আমি নাকি ‘চরিত্রহীন মা’। এই ‘অসভ্য’ মা ‘অসভ্য’ জাতির জন্ম দেবে। এসব হয়রানির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ হোক সমস্বরে।”

অনলাইনে কটাক্ষ বা সাইবার বুলিংয়ের শিকার হচ্ছেন দেশের নামকরা শিল্পীরা। যাদের মধ্যে অভিনেত্রীদেরই বাজে মন্তব্য বেশি করছেন নেটিজেনরা। দেশের অভিনেত্রী, উন্নয়নকর্মী রাফিয়াথ রশিদ মিথিলা শুধু দেশে নন, কলকাতাতেও অনলাইনে কঠাক্ষের শিকার হচ্ছেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এমন কথাই বলেছেন এই অভিনেত্রী।

মিথিলা বলেন, ‘আমাকে আর সৃজিতকে নিয়ে বা আমার বিয়ে নিয়ে দুদিকেই অনলাইনে অসংখ্য কটাক্ষের শিকার হচ্ছি। তবে সাম্প্রতিক সময়ে অরুচিকর কথা বেড়েছে। আমাকে অসভ্য বলে মানুষ নিজে যে অসভ্যতার পরিচয় দিচ্ছে, সেটা একেবারেই স্বাস্থ্যকর নয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশে তো মানুষের সবচেয়ে বেশি রাগ আমার ওপর। মানুষ প্রশ্ন করছেন মেয়ে হয়ে কেন আমি বিবাহবিচ্ছেদ করলাম? মেয়েদের নাকি এসব করতে নেই। তাহসানের ওপর কিন্তু মানুষের রাগ নেই। রাগ যত আমার ওপর। আমি কেন বিয়ে করলাম? আর সৃজিত তো ইসলাম ধর্মীও নয়।

“আমি বাংলাদেশের সংস্কৃতিকে কলুষিত করেছি। আমি নাকি ‘চরিত্রহীন মা’। এই ‘অসভ্য’ মা ‘অসভ্য’ জাতির জন্ম দেবে। এসব হয়রানির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ হোক সমস্বরে।”

দুই বাংলাতেই কটাক্ষের শিকার হচ্ছি: মিথিলা
অভিনেত্রী ও উন্নয়নকর্মী রাফিয়াথ রশিদ মিথিলা। ছবি: সংগৃহীত

তাহসান প্রসঙ্গেও কথা বলেন মিথিলা। তিনি বলেন, “তাহসান আমার প্রাক্তন স্বামী। আমরা আজও বন্ধু। আমাদের প্রতিদিন কথা হয়। মানুষকে বুঝতে হবে আমরা দুজনে এক বাচ্চার বাবা-মা। আয়রা আমায় বলতে পারে, ‘মা আমি বাবার কাছে যাব’।”

দুই বাংলাতেই কটাক্ষের শিকার হচ্ছি: মিথিলা
তাহসান ও মেয়ে আয়রার সঙ্গে মিথিলা। ছবি: সংগ্রহীত

করোনার কারণে ৩ মাস হলো সৃজিতের সঙ্গে দেখা নেই মিথিলার। ডিসেম্বরে তাদের বিবাহবার্ষিকী।

এ প্রসঙ্গে মিথিলা বলেন, ‘বিয়ের পরে আমি আর সৃজিত ৭ থেকে ৮ মাস একসঙ্গে থেকেছি। আবার আমি কাজে ঢাকায় চলে এসেছি। আমরা দুজনেই অনেক ব্যস্ত। তারপরে এই করোনা। কলকাতায় আয়রার স্কুল খুলে যাচ্ছে। অনলাইনে ক্লাস সম্ভব হলেও ওর নতুন বইপত্র সব কলকাতায় পড়ে আছে। এই মহামারির নানা নিয়ম পেরিয়ে আমরা কীভাবে একসঙ্গে থাকব, সেটা নিয়ে রোজ ভাবি। আলোচনা করি।’

দুই বাংলাতেই কটাক্ষের শিকার হচ্ছি: মিথিলা
সৃজিত ও মিথিলা। ছবি: সংগৃহীত

দেশের নাটক, সিনেমা, ওয়েব সিরিজে ব্যস্ত মিথিলা। কাজের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘মন ভালো রাখতে কাজ করে যাওয়া ছাড়া আর কিছু করার নেই। এর সঙ্গে আমার অফিশিয়াল কাজ তো চলছেই।

‘এমন করতে হচ্ছে যে, শুটিং করতে করতে অফিসের কাজ করি। আবার অফিস ও মেয়ে আয়রাকে মানুষ করতে করতে ছবির সংলাপ মুখস্থ করি।’

সৃজিতের সিনেমায় কাজ করবেন কি না, জানতে চাইলে মিথিলা বলেন, ‘সৃজিত বউকে কোনো দিন ওর ছবিতে নেবে না। সৃজিতকে চিনি আমি।’

শেয়ার করুন

‘আশিকী থ্রি’-তে সুনীল শেট্টি পুত্র আহান শেট্টি

‘আশিকী থ্রি’-তে সুনীল শেট্টি পুত্র আহান শেট্টি

বলিউড অভিনেতা সুনীল শেট্টির সঙ্গে ছেলে আহান শেট্টি (বায়ে)। ছবি: সংগৃহীত

ভারতীর এক সংবাদমাধ্যমে বলা হচ্ছে, ‘তাড়াপ’ সিনেমার শুটিংয়ের ঝলক দেখেই আহানকে দারুণ পছন্দ হয় টি সিরিজের কর্ণধার প্রযোজক ভূষণ কুমারের। এরপরই বিগ বাজেটের প্রোজেক্ট ‘আশিকী থ্রি’র জন্য আহানকে প্রস্তাব দেয়া হয়।

গত বছর থেকেই জল্পনা চলছিল বলিউডে পা রাখতে যাচ্ছেন অভিনেতা সুনীল শেট্টির ছেলে আহান শেট্টি।

তবে সেই জল্পনা সত্যি হয় চলতি বছরের মার্চ মাসে। ডার্টি পিকচার সিনেমার পরিচালক মিলন লুথরিয়ার তাড়াপ সিনেমার মধ্য দিয়ে বলিউডে যাত্রা শুরু হয় আহানের।

সেই সিনেমার কাজ শেষ হওয়ার আগেই বড় চমক এলো আহানের কাছে। সুপারহিট আশিকীর তিন নম্বর সিকুয়্যাল আশিকী থ্রি-তে প্রধান চরিত্রে বেছে নেয়া হলো তাকে।

ভারতীর এক সংবাদমাধ্যমে বলা হচ্ছে, তাড়াপ সিনেমার শুটিংয়ের ঝলক দেখেই আহানকে দারুণ পছন্দ হয় টি সিরিজের কর্ণধার প্রযোজক ভূষণ কুমারের। এরপরই বিগ বাজেটের প্রোজেক্ট ‘আশিকী থ্রি’র জন্য আহানকে প্রস্তাব দেয়া হয়।

১৯৯০ সালে মুক্তি পাওয়া আশিকী সিনেমার প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন রাহুল রায়। আর তার বিপরীতে ছিলেন অনু আগারওয়াল।

সিনেমাটি মুক্তির পর রাতারাতি খ্যাতি শিখরে পৌঁছে গিয়েছিলেন এই জুটি।

এর দীর্ঘ ২৩ বছর পর ২০১৩ সালে আসে আশিকী টু। এতে আদিত্য রায় কাপুর ও শ্রদ্ধা কাপুরের জুটিও দর্শকদের ব্যাপক প্রশংসা পায়।

তবে আশিকী থ্রি-তে আহানের বিপরীতে কে থাকছেন তা এখন ঠিক করা হয়নি।

‘আশিকী থ্রি’-তে সুনীল শেট্টি পুত্র আহান শেট্টি
তাড়াপ সিনেমার পোস্টারে আহান শেট্টি। ছবি: ইনস্টাগ্রাম

এদিকেতাড়াপ-এ আহানের বিপরীতে দেখা যাবে তারা সুতারিয়াকে। নির্মাতাদের কথায় এই এই সিনেমা মূলত ‘অভূতপূর্ব প্রেমের গল্প’।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে চলতি বছরের ২৪ সেপ্টেম্বরই সিনেমাটি মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে।

শেয়ার করুন

ত্রিধাকে ভালোবাসার চিহ্ন দিলেন নুসরাতের সাবেক স্বামী

ত্রিধাকে ভালোবাসার চিহ্ন দিলেন নুসরাতের সাবেক স্বামী

ত্রিধা ও নিখিল জৈন। ছবি:সংগৃহীত

স্বল্পবাসে স্পষ্ট অভিনেত্রীর ছিপছিপে শরীর। খোলা চুল হাওয়ায় উড়ছে। কোমরে জড়ানো এক টুকরা বস্ত্র। নিয়মিত শরীরচর্চার কারণেই অভিনেত্রী এত সুন্দর। এই ছবির নেপথ্যে বেজেছে এমা পিটার্সের কোকেইনা রিমিক্স ‘ক্ল্যানডেসটিনা’। এই রিল ভিডিওটি সোমবার রাতে পছন্দ করেছেন ৫০ হাজার নেটাগরিক। কেউ মন্তব্য বিভাগে ছড়িয়ে দিয়েছেন ভালোবাসার চিহ্ন। কেউ দিয়েছেন আগুনের ইমোজি।

সাংসদ-অভিনেত্রী নুসরাত জাহানের সাবেক স্বামী নিখিল জৈন ভালোবাসার চিহ্ন দিয়েছেন ত্রিধা চৌধুরীকে। ত্রিধার অনুরাগীদের নামের শুরুতেই জ্বলজ্বল করছে তার নাম।

যদিও নেটমাধ্যম বলছে, ত্রিধার ভাগ করে নেয়া এই ছবি পছন্দ করার মতো। স্বল্পবাসে স্পষ্ট অভিনেত্রীর ছিপছিপে শরীর। খোলা চুল হাওয়ায় উড়ছে। কোমরে জড়ানো এক টুকরা বস্ত্র। নিয়মিত শরীরচর্চার কারণেই অভিনেত্রী এত সুন্দর। এই ছবির নেপথ্যে বেজেছে এমা পিটার্সের কোকেইনা রিমিক্স ‘ক্ল্যানডেসটিনা’।

এই রিল ভিডিওটি সোমবার রাতে পছন্দ করেছেন ৫০ হাজার নেটাগরিক। কেউ মন্তব্য বিভাগে ছড়িয়ে দিয়েছেন ভালোবাসার চিহ্ন। কেউ দিয়েছেন আগুনের ইমোজি।

সেই আগুনের আঁচ কি ধরা দিল নিখিলের চোখেও?

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়, নুসরাতের সাবেক স্বামী ভিডিওতে কোনো মন্তব্য করেননি। কিন্তু তার ভালোবাসার চিহ্ন কিন্তু ইতিমধ্যেই নেটমাধ্যমে চর্চার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

প্রাণ ভরে গান শুনলে আর মন দিয়ে যোগা করলে কী হয়? ত্রিধা চৌধুরী বলেছেন, সুস্থ শরীর আর শান্ত মন পাওয়া যায়। তাই তিনি সোমবার বিশ্ব সংগীত এবং যোগাসন দিবসে এই ছবি পোস্ট করেছেন।

ত্রিধাকে ভালোবাসার চিহ্ন দিলেন নুসরাতের সাবেক স্বামী
স্বল্পবাসে ত্রিধা চৌধুরীর ছিপছিপে শরীর। ছবি:সংগৃহীত

ত্রিধা অনুরোধ জানিয়েছেন, গান আর শরীরচর্চা ছাড়া জীবনই বৃথা। ত্রিধার এই অনুরোধ বৃথা যায়নি। অভিনেত্রীর ভাগ করে নেয়া রিল ভিডিও বলছে, দিনটিকে সত্যিই ‘বিশেষ’ করে তুলেছেন এক বিশেষ ব্যক্তি, যার নাম নিখিল জৈন।

শেয়ার করুন

নুসরাতের সংসদ সদস্য পদ বাতিলের আবেদন

নুসরাতের সংসদ সদস্য পদ বাতিলের আবেদন

বিয়ের পর সংসদে নুসরাত জাহান। ছবি: সংগৃহীত

সংঘমিত্রা চিঠিতে লিখেছেন, ‘গণমাধ্যমে নুসরাত নিজের বৈবাহিক সম্পর্ক বিষয়ে যা বলেছেন তা লোকসভায় শপথ নেয়ার সময় তিনি যে তথ্য দিয়েছিলেন তার ঠিক উল্টো। এ ক্ষেত্রে তার সদস্য পদটি আইনের চোখে খারিজযোগ্য।’

বিতর্ক কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ ও অভিনেত্রী নুসরাত জাহানের। বিয়ে নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য দেয়ার জন্য এবার তার সংসদ সদস্য পদ খারিজের আবেদন জানালেন বিজেপি সাংসদ সংঘমিত্রা মৌর্য।

লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লাকে চিঠি দিয়ে সংঘমিত্রা জানিয়েছেন, এই বিষয়ে এথিকস কমিটির সিদ্ধান্ত নেয়া উচিত। সংঘমিত্রার মতে, নুসরাত যা করেছেন তা এক কথায় অনৈতিক ও বেআইনি। এই কারণে তার সংসদ সদস্য পদ খারিজ হওয়া দরকার।

মৌর্য নুসরাতের সংসদ সদস্য পদ নন-এস্ট বলে ব্যাখ্যা করছেন। ‘নন-এস্ট’ একটি আইনি পরিভাষা; যার অর্থ চুক্তি লঙ্ঘনকারী কোনো পদক্ষেপ।

১৯ জুন স্পিকারকে চিঠি দেন সংঘমিত্রা মৌর্য। চিঠির সঙ্গে তিনি জুড়ে দেন নুসরাতের শপথের প্রতিলিপি, যেখানে স্পষ্টভাবেই বলা রয়েছে তার স্বামীর নাম নিখিল জৈন।

সংঘমিত্রা চিঠিতে লিখেছেন, ‘গণমাধ্যমে নুসরাত নিজের বৈবাহিক সম্পর্ক বিষয়ে যা বলেছেন তা লোকসভায় শপথ নেয়ার সময় তিনি যে তথ্য দিয়েছিলেন তার ঠিক উল্টো। এ ক্ষেত্রে তার সদস্য পদটি আইনের চোখে খারিজযোগ্য।’

নুসরাতের সংসদ সদস্য পদ বাতিলের আবেদন
টালিউড অভিনেত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ নুসরাত জাহান। ছবি: সংগৃহীত

সংঘমিত্রা উল্লেখ করেছেন, ২০১৯ সালের ২৫ জুন নুসরাত জাহান শপথ নেয়ার সময় নিজের পরিচয় দিয়েছিলেন নুসরত জাহান রুহি জৈন। নববধূর বেশেই তিনি হাজির হয়েছিলেন সংসদে। এমনকি সেই সময় সিঁদুর পরার কারণে তাকে একদল মৌলবাদী আক্রমণ করেছিল বলেও মনে করিয়েছেন সংঘমিত্রা। তার কথায়, সে সময় সব দলের সাংসদরা নুসরাতের পাশে ছিল।

নুসরাতের সংসদ সদস্য পদ বাতিলের আবেদন
টালিউড অভিনেত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ নুসরাত জাহান। ছবি: সংগৃহীত

এখানেই শেষ নয়, সংঘমিত্রা আরও উল্লেখ করেছেন, নুসরাতের বিয়ের অনুষ্ঠানে স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গিয়েছিলেন।

নুসরাতের সংসদ সদস্য পদ বাতিলের আবেদন
টালিউড অভিনেত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ নুসরাত জাহান। ছবি: সংগৃহীত

পরে এএনআই-কে তিনি আরও বলেন, ‘কারও ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে নাক গলানো উচিত নয়। কিন্তু তিনি সম্প্রতি মিডিয়ায় যা বলেছেন তার অর্থ এই যে, সংসদে তিনি মিথ্যা কথা বলেছেন। এখন লোকসভায় বেআইনি এখতিয়ার বা মিথ্যে কথা বললে আসলে সংসদ এবং তার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে মানুষের মনে ভুল ধারণা তৈরি করে।’

সে কারণেই তার এই পদক্ষেপ বলে জানিয়েছেন সংঘমিত্রা।

শেয়ার করুন

প্রথম ওয়েব সিরিজে কত কোটি নিচ্ছেন অজয়

প্রথম ওয়েব সিরিজে কত কোটি  নিচ্ছেন অজয়

রুদ্র-দ্য এজ অফ ডার্কনেস -ওয়েব সিরিজের পোস্টারে বলিউড অভিনেতা অজয় দেবগন। ছবি: ইনস্টাগ্রাম

রুদ্রতে সাহসী ও বেপরোয়া এক পুলিশ অফিসারের ভূমিকায় দর্শকদের সামনে হাজির হবেন অজয়। সূত্রের দাবি, অজয়কে এমন অবতারে নাকি দর্শক আগে দেখেননি। সিরিজের পরিচালক রাজেশ মাপুস্কর এই প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, স্বয়ং অজয়ও নাকি এই সিরিজটি নিয়ে ভীষণ উত্তেজিত।

জনপ্রিয় বিবিসি সিরিজ লুথার -এর হিন্দি রিমেক রুদ্র-দ্য এজ অফ ডার্কনেস -এর মাধ্যমে এ বছর ওয়েব সিরিজ দুনিয়ায় পা রাখতে যাচ্ছেন বলিউড অভিনেতা অজয় দেবগন। এই খবর এখন পুরনো।

তবে নতুন খবর হচ্ছে এই সিরিজের জন্য কত কোটি টাকা নিচ্ছেন বলিউড সিংহাম খ্যাত এই অভিনেতা।

সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমে বলা হচ্ছে, এই সিরিজের সবকটি এপিসোডের জন্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অজয়কে ১২৫ কোটি রুপি দিচ্ছে।

যা বাংলাদেশি টাকায় দাঁড়ায় ১৪২ কোটি ৩৬ লাখ ৭৫ হাজার টাকার কিছু বেশি। একটি সিরিজের জন্য এত টাকা! শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্য।

যদিও এই প্রসঙ্গে কোনো মন্তব্য করেননি সিরিজের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ও অভিনেতা।

লুথার-এ প্রধান ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল বিখ্যাত হলিউড অভিনেতা ইদ্রিস এলবাকে।

তিনি যে চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন সেই চরিত্রেই রুদ্রতে অভিনয় করবেন অজয়।

এতে অজয়ের বিপরীতে অভিনয় করবেন দক্ষিণী জনপ্রিয় অভিনেত্রী রাশি খান্না।

প্রথম ওয়েব সিরিজে কত কোটি  নিচ্ছেন অজয়
বলিউড তারকা অজয় দেবগন ও দক্ষিণী তারকা রাখি খান্না। ছবি: সংগৃহীত

রুদ্র সিরিজটির প্রযোজনা করছে বিবিসি ইন্ডিয়া সংস্থা। জানা গেছে, সমস্ত প্রি-প্রোডাকশনের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে।

আগামী ২১ জুলাই থেকে শুরু হতে পারে সিরিজটির শুটিং। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে চলতি বছরের শেষের দিকে মুক্তি পেতে পারে এই সিরিজটি।

রুদ্রতে সাহসী ও বেপরোয়া এক পুলিশ অফিসারের ভূমিকায় দর্শকদের সামনে হাজির হবেন অজয়। সূত্রের দাবি, অজয়কে এমন অবতারে নাকি দর্শক আগে দেখেননি।

সিরিজের পরিচালক রাজেশ মাপুস্কর এই প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, স্বয়ং অজয়ও নাকি এই সিরিজটি নিয়ে ভীষণ উত্তেজিত। ডিজনি হটস্টার ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পাবে এই ওয়েব সিরিজটি।

শেয়ার করুন

যে কারণে কাবাডি খেলছেন শুভ

যে কারণে কাবাডি খেলছেন শুভ

কাবাডি খেলছেন আরিফিন শুভ। ছবি: সংগৃহীত

কিন্তু প্রশ্ন হলো, আরিফিন শুভ কেন কাবাডি খেলছেন? এটা কিসের কাজ? মূলত এই দুটি বিষয় সবার জানার আগ্রহ। তিনি কি নতুন কোনো সিনেমার শুটিং শুরু করলেন?

নতুন নতুন সিনেমায় অভিনেতা আরিফিন শুভর লুক বরাবরই চমকে দেয় ভক্ত-দর্শকদের। তবে এবার কোনো নতুন লুকে নয়, বরং ঢং আর দেহভঙ্গিমায় সবাইকে চমকে দিয়েছেন ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় এ নায়ক।

সোমবার সন্ধ্যা থেকে দুটি ছবি ঘুরছে অনলাইনে। যে ছবিতে আরিফিন শুভকে কাবাডি খেলতে দেখা যাচ্ছে। সেখানে শুভর নতুন লুকের চেয়ে তার শরীরী ভাষার প্রশংসা করেছেন সবাই।

ফেসবুকে মন্তব্যের ঘরে এক ভক্ত লিখেছেন, ‘প্রথম দেখে মনে করেছিলাম.. তামিল মাস্টার মুভির দৃশ্য...।’ অধিকাংশ মন্তব্যেই আছে প্রশংসার বার্তা।

কিন্তু প্রশ্ন হলো, আরিফিন শুভ কেন কাবাডি খেলছেন? এটা কিসের কাজ? মূলত এই দুটি বিষয় সবার জানার আগ্রহ। শুভ গত এপ্রিল মাসে মুম্বাইতে বঙ্গবন্ধু বায়োপিকের কাজ করে এসেছেন। এ ছাড়া নূর নামের একটি সিনেমায় তার কাজ করার কথা আছে। তাহলে কি এটি কোনো সিনেমার কাজ?

এর উত্তর দিয়েছেন শুভ নিজেই। নিউজবাংলাকে তিনি বলেন, ‘এটা কোনো সিনেমার কাজ নয়; এটা বিজ্ঞাপনের কাজ। কয়েক দিন আগেই এর শুটিং করেছি।’

যে কারণে কাবাডি খেলছেন শুভ
বিজ্ঞাপনের দৃশ্যে আরিফিন শুভ। ছবি: সংগৃহীত

বিজ্ঞাপনটি হিমালয়া মেনজ ফেসওয়াশের। বিফিল্মসের আশফাক বিপুল এটি নির্মাণ করেছেন। শিগগিরই বিজ্ঞাপনটি প্রচার শুরু হবে বলেও জানান আরিফিন শুভ।

শেয়ার করুন