20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
‘বিজয়া’ নাটকের সঙ্গে জড়িতদের আইনি নোটিশ

প্রযোজনা সংস্থা ক্রাউন এন্টারটেইনমেন্টের ফেসবুক পেজ থেকে নেয়া

‘বিজয়া’ নাটকের সঙ্গে জড়িতদের আইনি নোটিশ

লিটন কৃষ্ণদাস নামের এক ব্যাক্তি সোমবার নাটকের নির্মাতা আবু হায়াত মাহমুদ ভুঁইয়া, লেখক শোয়েব চৌধুরী, অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা ও ইরফান সাজ্জাদকে আইনি নোটিশ পাঠান।

পূজা উপলক্ষে ‘বিজয়া’ নামের একটি নাটক নির্মাণ করেন নির্মাতা আবু হায়াত মাহমুদ ভুঁইয়া। এ সিনেমায় অভিনয় করেন নুসরাত ইমরোজ তিশা, ইরফান সাজ্জাদ। নাটকের গল্প লেখেন শোয়েব চৌধুরী।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে নাটকটির একটি ট্রায়াল ভার্শন প্রচারিত হলে সনাতন ধর্মাবলম্বী কিছু মানুষ নাটকটির বিষয়বস্তুকে নেতিবাচকভাবে নেন।

নাটকটি সম্প্রচার হওয়ার আগে নাটকটির প্রযোজনা সংস্থা ক্রাউন এন্টারটেইনমেন্ট শুটিংয়ের কিছু ছবি ফেসবুকে প্রকাশ করে। সেখানে ছবির ‘কমেন্টে’ সনাতন ধর্মাবলম্বী মানুষেরা নাটকটি বর্জন করার কথা লেখেন।

এরই জের ধরে লিটন কৃষ্ণদাস নামের এক ব্যাক্তি সোমবার নাটকের নির্মাতা আবু হায়াত মাহমুদ ভুঁইয়া, লেখক শোয়েব চৌধুরী, অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা ও ইরফান সাজ্জাদকে আইনি নোটিশ পাঠান।

অভিযোগ করা হয়, নাটকটি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়েছে। লিটন কৃষ্ণদাসের পক্ষের আইনজীবী সুমন কুমার রায় আদালতপাড়ার সাংবাদিকদের বলেন, ’বিজয়া নামের এ নাটকের মাধ্যমে সনাতন সম্প্রদায়কে কটাক্ষ, নারীকে বিতর্কিত চরিত্রে উপস্থাপন, ধর্মান্তকরণে উৎসাহ ও সাম্প্রদায়িকতাকে উসকে দেয়া হয়েছে।‘

আইনজীবী আরো বলেন, ’আগামী সাত দিনের মধ্যে নাটকটি প্রত্যাহার না করলে আমরা আইনের আশ্রয় নিব।‘

নোটিশে বলা হয়, ‘নাটকটির ট্রায়াল ভার্শন প্রকাশের পর সনাতন ধর্মাবলম্বীরা মর্মাহত ও হতবাক হয়েছেন। তাই তাদের ভাবাবেগ ও ধর্মীয় অনুভূতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বিতর্কিত “বিজয়া” নাটকটি সাত দিনের মধ্যে প্রত্যাহার হওয়া চাই।‘

শেয়ার করুন

মন্তব্য