জবিতে নিজস্ব বাসে বাড়ি যেতে তিন হাজার শিক্ষার্থীর আবেদন

জবিতে নিজস্ব বাসে বাড়ি যেতে তিন হাজার শিক্ষার্থীর আবেদন

জবি প্রক্টর জানান, ‘বাসে বাড়ি যেতে যেসব শিক্ষার্থী আবেদন করেছেন সেই আবেদনগুলো এখন আমরা ভালো করে দেখব। বাইরের কেউ আছে কি-না এবং আবেদনে কোনো ভুল ত্রুটি আছে কি-না। মোট কয়টা বাস দিব আমরা, কোন রুটে যাবে সবকিছু নোটিশ দিয়ে জানিয়ে দেয়া হবে। তবে শুধু বিভাগীয় শহরে বাস যাবে।’

করোনা মহামারির লকডাউনে ঢাকায় আটকে থাকা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) প্রায় তিন হাজার শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব বাসে বাড়ি যাওয়ার জন্য আবেদন করেছেন।

বাস কবে যাবে তা বুধবার জানানো হবে। তবে বাসগুলোর গন্তব্য হবে বিভাগীয় শহর পর্যন্ত।

মঙ্গলবার নিউজবাংলার প্রতিবেদককে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল প্রতিবেদককে এসব তথ্য জানান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর নিউজবাংলাকে বলেন, ঢাকায় আটকে থাকা শিক্ষার্থীদের ঈদে বাড়ি পৌঁছে দিতে ২ হাজার ৯৬০ জন শিক্ষার্থী আবেদন করেছেন। মঙ্গলবার দুপুর ২টা পর্যন্ত আবেদন গ্রহণ করা হয়।

জবি প্রক্টর জানান, ‘বাসে বাড়ি যেতে যেসব শিক্ষার্থী আবেদন করেছেন সেই আবেদনগুলো এখন আমরা ভালো করে দেখব। বাইরের কেউ আছে কি-না এবং আবেদনে কোনো ভুল ত্রুটি আছে কি-না। মোট কয়টা বাস দিব আমরা, কোন রুটে যাবে সবকিছু নোটিশ দিয়ে জানিয়ে দেয়া হবে। তবে শুধু বিভাগীয় শহরে বাস যাবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সরকারের অনুমতির জন্য অপেক্ষা করছি। করোনাকালে সরকার অনুমতি না দিলে বাস চালানো সম্ভব না। তবে আমরা আশাবাদী বিশ্ববিদ্যালয়ের আটকে পড়া শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে সরকার আমদের অনুমতি দিবে।’

প্রক্টর নিউজবাংলাকে জানান, ‘ক্যাম্পাস থেকেই বাস ছাড়া হবে পথে আর লোক উঠানোর সুযোগ থাকবে না, সেক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের আইডি কার্ড অবশ্যই সঙ্গে নিয়ে আসতে হবে। যারা আইডি কার্ড পাননি তারা ভর্তির সময়ে ব্যাংকে টাকা জমা দেয়ার রশিদ সঙ্গে নিয়ে আসবে। কোন বাসে কে কে যাচ্ছে তা সময় উল্লেখ করে স্বাক্ষর নিয়ে রাখা হবে। কোথায় নামছে সেটাও লিপিবদ্ধ করে রাখা হবে। আর এগুলোর ডাটা এন্ট্রির কাজ চলমান আছে। যারা আবেদন করেছেন তা যাচাই বাছাই করে বাসে সিট দেয়া হবে। যারা মাস্টার্স পাশ করে গেছেন তারা এই সুবিধা পাবেন না। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত শিক্ষার্থী ছাড়া কেউ বাসে যেতে পারবেন না। ক্যাম্পাস থেকেই বাসে উঠতে হবে। এখান থেকেই বাস লক করে দেয়া হবে। রাজধানীর বা অন্য কোনো স্থান থেকে বাসে ওঠা যাবে না। এ জন্য রেজিস্ট্রার দপ্তর থেকে ভালোভাবে শিক্ষার্থীদের তথ্য যাচাই করা হচ্ছে।’

এর আগে গত ৮ জুলাই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল এবং ছাত্র কল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আবদুল বাকির সই করা এক নোটিশে উল্লেখ করা হয় ঢাকায় আটকে পড়া জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী যারা ঈদে বাড়ি যেতে ইচ্ছুক তাদেরকে প্রক্টর বা ছাত্রকল্যাণ পরিচালক বরাবর নাম, ব্যাচ, আইডি নম্বর, ডিপার্টমেন্ট উল্লেখ করে আবেদন করতে হবে। তবে কেউ সরাসরি আবেদনপত্র জমা দিতে না পারলে নিজ বিভাগের চেয়ারম্যানের কাছে ইমেইলে সফটকপির মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

শেয়ার করুন

মন্তব্য