এবারও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্বে শেখ কবির

এবারও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্বে শেখ কবির

শেখ কবির হোসেন। ছবি: সংগৃহীত

নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান পদে পুননির্বাচিত হন ফারইস্ট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শেখ কবির হোসেন। সেক্রেটারি জেনারেল হিসেবে নির্বাচিত হন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির বেনজীর আহমেদ। আর ১৩ জন কার্যনির্বাহী সদস্যের মধ্যে রয়েছেন কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ড. চৌধুরী নাফিজ সরাফাত।

বাংলাদেশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতি (এপিইউবি)-এর কার্যনিবাহী পরিষদের এবারের নির্বাচনেও চেয়ারম্যান পদে পুননির্বাচিত হয়েছেন শেখ কবির হোসেন।

শনিবার বাংলাদেশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে এবার বার্ষিক সাধারণ সভা ও ২০২১-২০২৩ সালের কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচন হয় ভার্চুয়াল মাধ্যমে।

নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হন ফারইস্ট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শেখ কবির। সেক্রেটারি জেনারেল হিসেবে নির্বাচিত হন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির বেনজীর আহমেদ।

ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ এর অধ্যাপক ড. আবদুল মান্নান চৌধুরী এবং বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এন্ড টেকনোলজি (বিইউবিটি) এর অধ্যাপক ড. শফিক আহমেদ সিদ্দিক ভাইস-চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন। ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ এর ড. আনিস আহমেদ জয়েন্ট সেক্রেটারি জেনারেল হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন।

ট্রেজারার পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন ভিক্টোরিয়া ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ এর কেবিএম মঈন উদ্দিন চিশতি।

কার্যনিবাহী সদস্য পদে নির্বাচিত হয়েছেন: কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ড. চৌধুরী নাফিজ সরাফাত, পোর্ট সিটি ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির একেএম এনামুল হক শামীম, সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির নজরুল ইসলাম বাবু, আহছানউল্লাহ ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স অ্যান্ড টেকনোলজির কাজী রফিকুল আলম, আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ইশতিয়াক আবেদিন, ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির সাদাফ সাজ সিদ্দিকী, বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন এন্ড টেকনোলজির মোজাফফর উদ্দিন সিদ্দিক, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মো. সবুর খান, এক্সিম ব্যাংক এগ্রিকালচারাল ইউনিভার্সিটির একেএম নুরুল ফজল বুলবুল, ঈসাখাঁ ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির রিয়াদ আহমেদ, নর্দার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ এর অধ্যাপক ড. আবু ইউসুফ মোঃ আবদুল্লাহ, সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির মো. রেজাউল করিম এবং ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের কাইয়ূম রেজা চৌধুরী।

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আতিকুল ইসলামের নেতৃত্বে চার সদস্যের নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পরিচালনা করেন।

আরও পড়ুন:
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা সাত শর্তে
খুলছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

শেয়ার করুন

মন্তব্য

মা-মেয়েকে ধর্ষণ মামলা: দুজনকে যাবজ্জীবন

মা-মেয়েকে ধর্ষণ মামলা: দুজনকে যাবজ্জীবন

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে মা মেয়েকে ধর্ষণ মামলায় দুজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া একজনকে এক বছর কারাদণ্ডসহ দুই আসামিকে খালাস দিয়েছে আদালত।

গাইবান্ধার নারী ও শিশু ট্রাইব্যুনাল-২ আদালতের বিচারক মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে আবদুর রহমান এ রায় দেন।

নিউজবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ফারুক আহমেদ প্রিন্স।

যাবজ্জীবন দণ্ডিতরা হলেন এমদাদুল হক ও বেলাল হোসেন। এক বছর কারাদণ্ড পেয়েছেন আসামি খাজা মিয়া।

খালাস পাওয়া দুজন হলেন আজিজুল ইসলাম ও আসাদুল ইসলাম।

বিস্তারিত আসছে...

আরও পড়ুন:
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা সাত শর্তে
খুলছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

শেয়ার করুন

ছাত্রদের হাফ ভাড়া যেসব শর্তে

ছাত্রদের হাফ ভাড়া যেসব শর্তে

বাসে হাফ পাসের দাবিতে বেশ কিছু দিন ধরে আন্দোলন করে আসছিলেন শিক্ষার্থীরা। ছবি: নিউজবাংলা

শর্তগুলো হলো- ঢাকার বাইরে হাফ ভাড়া নেয়া হবে না। হাফ ভাড়া দেয়ার সময় অবশ্যই শিক্ষার্থীদেরকে স্ব স্ব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছবিযুক্ত আইডি কার্ড দেখাতে হবে। সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা ৮টা পর্যন্ত কার্যকর এ শর্ত। ছুটির দিন কোনো হাফ পাস নাই।

টানা আন্দোলনের মুখে ছাত্রদের বাস ভাড়া অর্ধেকের দাবি মেনে নিয়েছে সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি। তবে জুড়ে দিয়েছে কয়েকটি শর্ত।

শিক্ষার্থীদের জন্য বাস ভাড়া অর্ধেক করার বিষয়টি নিয়ে মঙ্গলবার রাজধানীর বাংলামোটরে ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসেন সংগঠনটির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ। জানান, হাফ ভাড়া কার্যকরের শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিয়েছেন তারা।

তিনি বলেন, ‘সবদিক আলাপ-আলোচনা করে আমরা স্থির করেছি, ছাত্রদের যে দাবি, সেই দাবির প্রতি আমরা সমর্থন জানিয়ে সেই দাবি কার্যকর করার জন্য। আগামীকালকে থেকে, ১ ডিসেম্বর থেকে ছাত্রদের বাসে হাফ ভাড়া কার্যকর করা হবে।’

এ সময় কয়েকটি শর্তের কথাও উল্লেখ করেন এনায়েত উল্যাহ। শর্তগুলো হলো:

## ঢাকার বাইরে হাফ ভাড়া নেয়া হবে না।

## হাফ ভাড়া দেয়ার সময় অবশ্যই শিক্ষার্থীদেরকে স্ব স্ব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছবিযুক্ত আইডি কার্ড দেখাতে হবে।

## সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা ৮টা পর্যন্ত হাফ ভাড়া কার্যকর থাকবে।

## সরকারি ছুটির দিন, সাপ্তাহিক ছুটির দিন এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মৌসুমি ছুটিসহ অন্যান্য ছুটির সময় ছাত্রদের হাফ ভাড়া কার্যকর হবে না।

এনায়েত উল্যাহ বলেন, ‘আগামীকাল ১ ডিসেম্বর থেকে ছাত্রদের হাফ ভাড়া কার্যকর হবে। সকল পরিবহন মালিকদের প্রতি এবং শ্রমিকদের প্রতি আমাদের অনুরোধ থাকবে, ছাত্ররা যেন হাফ ভাড়ায় যাতায়াত করতে পারে, সে ব্যাপারটি নিশ্চিত করার জন্য।

‘আমরা দীর্ঘদিন আলাপ-আলোচনা করে, বিভিন্ন সভা করে, মালিকদের সঙ্গে আলোচনা করে, শ্রমিকদের সঙ্গে আলোচনা করে আমরা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হলাম। দেশবাসীকে আমরা জানাতে চাই। আমরা হাফ ভাড়া কার্যকর ছাত্রদের জন্য করে দিলাম।’

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে পরিবহন মালিক সমিতির এই নেতা বলেন, ‘ছাত্রদের প্রতি আমাদের অনুরোধ থাকবে, এরা আমাদেরই সন্তান; কোমলমতি ছাত্ররা আমাদেরই সন্তান। তারা যেন এখন থেকে তাদের পড়ালেখায় মনোযোগ দেয়। তারা যেন স্কুল-ভার্সিটিতে ফেরত যায়। রাস্তায় এইসব আন্দোলন না করে তারা যেন ফেরত যায়, এটা তাদের প্রতি আমাদের আহ্বান থাকবে।’

এর আগে হাফ ভাড়া কার্যকরের জন্য সরকারের কাছে প্রণোদনা চেয়েছিল মালিক সমিতি। সেই অবস্থান থেকে পরিবহন মালিকরা সরে এসেছেন কি না, এমন প্রশ্নে এনায়েত উল্যাহ বলেন, ‘আমরা সে দাবি এখনও করতে চাই। কেউ বিশ্বাস করুক আর না করুক ঢাকা শহরের ৮০ ভাগ বাসের মালিক গরিব। অনেক মালিক রয়েছেন যার একটিমাত্র গাড়ি রয়েছে সেই আয় দিয়ে তার সংসার চলে, তার সন্তানের লেখাপড়ার খরচ চলে।

‘সে টাকা দিয়ে আবার বাসের ঋণ শোধ করে। অনেকে আবার বাসের চালক থেকে মালিক হয়েছেন। এখানে বড় কোনো বিনিয়োগ নেই। এটা দাবিটি সরকার পক্ষ থেকে বিবেচনা করবে বলে আমরা আশা করছি। আমরা পুরোটাই সরকারের ওপর ছেড়ে দিলাম।’

ভাড়া নিয়ে বিতর্কে বাস থেকে যাত্রীদের ফেলে দেয়া হচ্ছে, চালকের বেপরোয়া আচরণে পথচারী মারা যাচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠছে। এসব প্রসঙ্গেও কথা বলেন এনায়েত।

তিনি বলেন, ‘সারা দেশে প্রায় ১ লাখের ওপর বাস রয়েছে সবখানেই বাসগুলো নিয়ন্ত্রিতভাবে রয়েছে, ভাড়াসহ সবকিছুই ঠিক আছে। শুধু ঢাকা শহরেই কিছুটা অনিয়ন্ত্রিত। কিছু অনিয়ম রয়েছে এগুলো নিয়মে আনার জন্য মালিক সমিতির নয়টি টিমসহ বিআরটিএ কাজ করছে। কিছু কিছু গাড়ি এখনও কন্টাকে চলে, ট্রিপ ভিত্তিতে চলে। এর পরিমাণ আগের চেয়ে কমে এসেছে। বাকিগুলো নিয়ন্ত্রণে আনতে আমরা কাজ করছি।’

ঢাকা শহরে পরিবহন ব্যবসা লাভজনক নয় উল্লেখ করে এনায়েত বলেন, ‘এই কারণে দিনে দিনে ঢাকায় গণপরিবহনের সংখ্যা কমছে অনেকেই আগে একটা গাড়ি কিনেছিলেন, সেটার কোনো রকমে লোন শোধ করেছেন, তাই এখন সেটা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে ঢাকায় রাস্তা অনুপাতে গাড়ির সংখ্যা বেশি, কিন্তু যাত্রী অনুপাত গাড়ির সংখ্যা কম।’

বাসের বিভিন্ন সার্ভিস বন্ধ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ঢাকা শহরের বিভিন্ন সিটিং সার্ভিস, গেটলক সার্ভিস, ওয়েবিল বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ সিদ্ধান্ত আমার একার ছিল না, সবগুলো মালিককে নিয়ে সিদ্ধান্ত দেয়া হয়েছে। এটা কার্যকর করা হবে। এসব সার্ভিস অনেকাংশে কমে এসেছে।’

আরও পড়ুন:
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা সাত শর্তে
খুলছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

শেয়ার করুন

নিরাপদ সড়ক দাবিতে বিআরটিএ ভবনের সামনে শিক্ষার্থীরা

নিরাপদ সড়ক দাবিতে বিআরটিএ ভবনের সামনে শিক্ষার্থীরা

নিরাপদ সড়কের দাবিতে বিআরটিএ ভবনের সামনে মঙ্গলবার দুপুরে অবস্থান নেন শিক্ষার্থীরা। ছবি: রাহুল শর্মা/নিউজবাংলা

বিআরটিএ ভবনের সামনে ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে অবস্থান নিয়ে শিক্ষার্থীরা ‘নিরাপদ সড়ক চাই’, ‘ছাত্ররা মরবে কেন প্রশাসন জবাব চাই’য়ের মতো বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন।

সড়কে নিরাপত্তা বাড়াতে ৯ দফা দাবিতে রাজধানীর বনানীতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) কার্যালয়ের সামনে অবস্থান করছে শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার দুপুর ১টা ২৫ মিনিটে বিআরটিএ ভবনের সামনে ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে অবস্থান নেয় তারা।

ওই সময় শিক্ষার্থীরা ‘নিরাপদ সড়ক চাই’, ‘ছাত্ররা মরবে কেন প্রশাসন জবাব চাই’য়ের মতো বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন।

৯ দফা দাবি

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ৯ দফা দাবি জানান।

নিরাপদ সড়ক দাবিতে বিআরটিএ ভবনের সামনে শিক্ষার্থীরা

১. দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে শিক্ষার্থীসহ সব সড়ক হত্যার বিচার করতে হবে ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।

২. ঢাকাসহ সারা দেশে সকল গণপরিবহনে (সড়ক, নৌ, রেলপথ ও মেট্রোরেল) শিক্ষার্থীদের হাফ পাস নিশ্চিত করে প্রজ্ঞাপন জারি করতে হবে।

৩. গণপরিবহনে নারীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে এবং জনসাধারণের চলাচলের জন্য যথাস্থানে ফুটপাত, ফুটওভার ব্রিজ বা বিকল্প নিরাপত্তা ব্যবস্থা দ্রুততর সময়ের মধ্যে নিশ্চিত করতে হবে।

৪. সড়ক দুর্ঘটনায় আহত সব যাত্রী এবং পরিবহন শ্রমিকের যথাযথ ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসন নিশ্চিত করতে হবে।

৫. পরিকল্পিত বাস স্টপেজ ও পার্কিং স্পেস নির্মাণ ও যথাযথ ব্যাবহার নিশ্চিত করতে হবে। এ ক্ষেত্রে প্রয়োজনে কঠোর আইন প্রয়োগ করতে হবে।

৬. দ্রুত বিচারিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ও যথাযথ তদন্ত সাপেক্ষে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের দায়ভার সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা মহলকে নিতে হবে।

৭. বৈধ ও অবৈধ যানবাহন চালকদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বৈধতার আওতায় আনতে হবে এবং বিআরটিএর সব কর্মকাণ্ডের ওপর নজরদারি ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে।

৮. আধুনিক বাংলাদেশ বিনির্মাণে ঢাকাসহ সারা দেশে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা অবিলম্বে স্বয়ংক্রিয় ও আধুনিকায়ন এবং পরিকল্পিত নগরায়ন নিশ্চিত করতে হবে।

৯. ট্রাফিক আইনের প্রতি জনসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য একে পাঠ্যসূচির অন্তর্ভুক্ত করতে হবে এবং প্রিন্ট-ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মাধ্যমে সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান সম্প্রচার করতে হবে।

বাস ভাড়া অর্ধেকসহ নিরাপদ সড়কের দাবিতে গত কয়েক দিন ধরে রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে আন্দোলন করছেন শিক্ষার্থীরা। তাদের এ আন্দোলনের মধ্যে মঙ্গলবার বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি জানায়, ঢাকা মহানগরে কিছু শর্তসাপেক্ষে হাফ ভাড়ায় চলতে পারবেন শিক্ষার্থীরা।

আরও পড়ুন:
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা সাত শর্তে
খুলছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

শেয়ার করুন

দুর্ঘটনায় বেপরোয়া গাড়ি ও পথচারী সমান দায়ী

দুর্ঘটনায় বেপরোয়া গাড়ি ও পথচারী সমান দায়ী

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সড়ক দুর্ঘটনায় ছা্ত্র নিহতের ঘটনা প্রসঙ্গে বলেন, ‘বেপরোয়া গাড়ি যেমন দুর্ঘটনার কারণ, বেপরোয়া পথচারীও এর জন্য দায়ী। মোটরসাইকেলচলকরাও দিগ্বিজয়ী আলেকজান্ডারের মতো ছুটছে তো ছুটছে। তারাও দুর্ঘটনার জন্য দায়ী।’

দুর্ঘটনার জন্য বেপরোয়া গাড়ি ও পথচারী সমানভাবে দায়ী বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

মঙ্গলবার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে ঢাকা মহানগর শাখা ও সহযোগী সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের যৌথ সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ‘বেপরোয়া গাড়ি যেমন দুর্ঘটনার কারণ, বেপরোয়া পথচারীও এর জন্য দায়ী। মোটরসাইকেলচলকরাও দিগ্বিজয়ী আলেকজান্ডারের মতো ছুটছে তো ছুটছে। তারাও দুর্ঘটনার জন্য দায়ী।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের জন্য আগে থেকেই হাফ ভাড়া কার্যকর ছিল। করোনার কারণে মাঝে শিথিলতা আসলেও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনুরোধে বেসরকারি বাসমালিকরা ১ ডিসেম্বর থেকে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।’

সম্প্রতি জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর পরপরই বাড়ে বাস ভাড়াও। বাসের মালিকরা তুলে দেন শিক্ষার্থীদের হাফ পাস। এরপর থেকেই বাসে হাফ ভাড়ার দাবিতে আন্দোলন করে আসছিল শিক্ষার্থীরা। এর মধ্যে ঢাকা সিটি করপোরেশনের একটি ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নটর ডেম কলেজের এক শিক্ষার্থীর নিহতের পর এ দাবি আরও জোরালো হয়।

এর মধ্যে সোমবার রাতে রাজধানীর রামপুরায় অনাবিল পরিবহনের চাপায় নিহত হন এসএসসি পরীক্ষা দেয়া এক শিক্ষার্থী। এই ঘটনায় রাতেই আটটি বাসে আগুন এবং চারটি বাস ভাঙচুর করা হয়।

এদিকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এ বছর ভোটারদের সর্বোচ্চ উপস্থিতি ছিল দাবি করে সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘নির্বাচনে অংশগ্রহণই মূল কথা। এবারের নির্বাচনে রেকর্ড পরিমাণ উপস্থিতি ছিল।’

দেশে স্থানীয় সরকার নির্বাচন কখনও শান্তিপূর্ণ হয়নি দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ভুল থেকে শিক্ষা নেয়ার সৎসাহস আওয়ামী লীগের আছে। আমরা ভুলগুলো খুঁজে বের করে সতর্ক আরও হচ্ছি।’

অনুষ্ঠানে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে নতুন কোনো সিদ্ধান্ত নেই। তারা সাত বছর ধরে মামলা পিছিয়েছে, পরে দণ্ডিত হয়েছে। বিচার বিভাগ স্বাধীন। রায় মানতে হবে, আইন মানতে হবে। জিয়াউর রহমানের সম্মতিতে ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়।

‘জিয়া ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ করে হত্যার বিচারে বাধা দেয়। ২০০৪ সালে তারাই গ্রেনেড হামলা করে বঙ্গবন্ধুকন্যাকে হত্যার চেষ্টা করে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিবেচনায় খালেদা জিয়ার সাজার আদেশ স্থগিত করে বাসায় থাকতে দিয়েছে, হাসপাতালে চিকিৎসা করতে দিয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সরকারের পতন হবে জনগণের ইচ্ছায়, বিএনপির ইচ্ছায় আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় বসেনি। জনগণ চাইলে চতুর্থবারও আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধুকন্যা ক্ষমতায় থাকবেন।’

অনুষ্ঠানে বিজয়ের মাসের কর্মসূচি প্রসঙ্গে দলের সাধারণ সম্পাদক জানান, ১৬ ডিসেম্বর জাতীয় কর্মসূচি রয়েছে। এদিন বিজয় র‌্যালি হবে, ভারতের রাষ্ট্রপতি ১৭ ডিসেম্বর জাতীয় অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। এ ছাড়া বিলবোর্ড, ব্যানার, ফেস্টুন, আলোকসজ্জাসহ মাসব্যাপী কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। দলের সহযোগী সংগঠন আওয়ামী লীগের কর্মসূচির সঙ্গে মিল রেখে নিজস্ব কর্মসূচি নেবে।

দলীয় নেতা-কর্মীদের সতর্ক করে দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ব্যানার, ফেস্টুন যাতে শুধু আত্মপ্রচারের জন্য না হয়, দলের নামে পোস্টার, ব্যানার, বিলবোর্ড করতে হবে।

যৌথ সভায় অংশ নেন দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান, ড. আব্দুর রাজ্জাক, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, ড. হাছান মাহমুদ, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বি এম মোজাম্মেল, মির্জা আজম, এস এম কামাল হোসেন, আফজাল হোসেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফি ও যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ।

আরও পড়ুন:
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা সাত শর্তে
খুলছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

শেয়ার করুন

ওমিক্রন: ভারতের ঝুঁকির তালিকা থেকে বাদ বাংলাদেশ

ওমিক্রন: ভারতের ঝুঁকির তালিকা থেকে বাদ বাংলাদেশ

ওমিক্রণের ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলো থেকে ভারতে আসা নাগরিকদের বিমানবন্দরে করোনার আরটি-পিসিআর পরীক্ষা করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

মঙ্গলবার দুপুরে এক ক্ষুদে বার্তায় নিউজবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি লিখেছেন, ‘অনুরোদের পরিপ্রেক্ষিতে ভারতীয় হাইকমিশন জানিয়েছে যে, বাংলাদেশকে ওই লাল তালিকা থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।’

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের সংক্রমণ বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ার পরিপ্রেক্ষিতে ঝুঁকির তালিকায় থাকা ১২ দেশের তালিকা থেকে বাংলাদেশকে বাদ দিয়েছে ভারত।

মঙ্গলবার দুপুরে এক ক্ষুদে বার্তায় নিউজবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি লিখেছেন, ‘অনুরোদের পরিপ্রেক্ষিতে ভারতীয় হাইকমিশন জানিয়েছে যে, বাংলাদেশকে ওই লাল তালিকা থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।’

ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়ার পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার গোটা ইউরোপ, যুক্তরাজ্যসহ ১২টি দেশকে ঝুঁকির তালিকায় রেখে একটি বিবৃতি দেয় ভারতীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এই তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে ছিল বাংলাদেশের নাম।

অন্য দেশগুলো হলো সাউথ আফ্রিকা, ব্রাজিল, বতসোয়ানা, চীন, মরিশাস, নিউজিল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে, সিঙ্গাপুর, হংকং ও ইসরায়েল।

ভারতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেয়া নির্দেশনায় বলা হয়, ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলো থেকে যাত্রীরা ভারতে আসার পরপরই বিমানবন্দরে আরটি-পিসিআর পরীক্ষা করাতে হবে।

ওই পরীক্ষার ফল না পাওয়া পর্যন্ত যাত্রীদের বিমানবন্দরে অপেক্ষা করতে হবে। নমুনা পরীক্ষার সনদ ছাড়া ‍যাত্রীরা অন্য কানেক্টিং ফ্লাইটে যেতে পারবেন না।

যাত্রীদের মধ্যে যারা করোনা পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হবেন, তাদের আইসোলেশনে থাকতে হবে।

তাদের কারও মধ্যে ওমিক্রন শনাক্ত হলে তাদের নেগেটিভ রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত আইসোলেশন সেন্টারে থাকতে হবে।

যদি তারা অন্য কোনো ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত হন, তবে তাদের বিমানবন্দর ছাড়ায় বিষয়টি নির্ভর করবে চিকিৎসকের মতামতের ওপর।

ঝুঁকিপূর্ণ দেশ ও অঞ্চল থেকে আসা যাত্রীদের শারীরিক অবস্থার সার্বিক বিবেচনা শেষে চিকিৎসক তাদের ভারত ছাড়ার অনুমতিপত্র দিলে তারা নিজ দেশে ফেরত যেতে পারবেন।

সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলো থেকে ভারতে আসা যাত্রীরা করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ হলেও তাদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এরপর অষ্টম দিনে তাদের করোনা পরীক্ষা করতে হবে। সেই পরীক্ষায় যদি তারা করোনা পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হন, তবে তাদের কোভিড-১৯ সংক্রান্ত হেল্পলাইনকে জানাতে হবে।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে, যাত্রীদের ভারতে আসার আগেরকার ১৪ দিনের ভ্রমণ ইতিহাস কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে।

কয়েক দিন আগে সাউথ আফ্রিকা থেকে আসা এক ভারতীয় নাগরিকের নমুনা পরীক্ষায় ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে মহারাষ্ট্রের মিউনিসিপ্যাল করপোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগ।

আরও পড়ুন:
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা সাত শর্তে
খুলছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

শেয়ার করুন

নেত্রকোণায় ধান ও সেদ্ধ চাল সংগ্রহ করছে সরকার

নেত্রকোণায় ধান ও সেদ্ধ চাল সংগ্রহ করছে সরকার

নেত্রকোণায় সরকারিভাবে আমন ধান ও সেদ্ধ চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু হয়েছে। ছবি: নিউজবাংলা

জেলা প্রশাসক কাজি আব্দুর রহমান বলেন, ‘স্বচ্ছতার সঙ্গে ধান-চাল কেনা হবে। কৃষককে সরকারের কাছে ধান বেচতে তাদের উৎসাহ দেয়া হচ্ছে।’

নেত্রকোণায় সরকারিভাবে আমন ধান ও সেদ্ধ চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু হয়েছে।

জেলা খাদ্য বিভাগের উদ্যোগে মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সদরের বারহাট্রা রোডে খাদ্যগুদামে সেদ্ধ চাল কেনা শুরু হয়।

এই সংগ্রহ অভিযানের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক কাজি আব্দুর রহমান।

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জাকারিয়া মোস্তফা জানান, চলতি আমন মৌসুমে ১৯ হাজার ৭৮৯ টন সেদ্ধ চাল কেনা হবে। আর কৃষকের কাছ থেকে ৭ হাজার ১২৫ টন ধান কেনা হবে। চাল কিনতে জেলার ২৪২টি চালকলের সঙ্গে চুক্তি করেছে খাদ্য বিভাগ।

এবার প্রতি কেজি আমন ধান ২৭ টাকা ও প্রতি কেজি আমন সেদ্ধ চাল ৪০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, দেশে আমন মৌসুমে সারা দেশে ৫ লাখ টন সেদ্ধ চাল ও ৩ লাখ টন ধান কিনবে সরকার।

জেলা প্রশাসক কাজি আব্দুর রহমান বলেন, ‘স্বচ্ছতার সঙ্গে ধান-চাল কেনা হবে। কৃষককে সরকারের কাছে ধান বেচতে তাদের উৎসাহ দেয়া হচ্ছে।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা চালকল মালিক সমিতির সভাপতি এইচআর খান পাঠান সাকি, সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল সাহাসহ অন্যরা।

আরও পড়ুন:
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা সাত শর্তে
খুলছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

শেয়ার করুন

নির্বাচনি সহিংসতা: ছাত্রলীগ নেতা হত্যায় মামলা

নির্বাচনি সহিংসতা: ছাত্রলীগ নেতা হত্যায় মামলা

ইউপি নির্বাচনে সহিংসতায় নিহত লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জের ইছাপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সজিব হোসেন। ছবি: নিউজবাংলা

রামগঞ্জ থানার ওসি আনোয়ার হোসেন জানান, ইছাপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসেবে সদ্য জয়ী আমিরকে প্রধান আসামি করে সজিবের বোন ২১ জনের নামসহ অজ্ঞাতপরিচয় ২০ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। এ ঘটনায় পুলিশ এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জের ইছাপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ ও এর বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি নিহতের ঘটনায় হত্যা মামলা হয়েছে।

নিহত সজিব হোসেনের বোন মঙ্গলবার সকালে বিজয়ী চেয়ারম্যান প্রার্থীকে প্রধান আসামি করে রামগঞ্জ থানায় মামলা করেন।

রামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, ২৮ তারিখের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন আমির হোসেন খাঁন। তিনি এই নির্বাচনে জয় পান।

আমিরকে প্রধান আসামি করে সজিবের বোন ২১ জনের নামসহ অজ্ঞাতপরিচয় ২০ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। এ ঘটনায় পুলিশ এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

এর আগে রোববার ওসি জানান, রোববার বিকেল পৌনে ৪টার দিকে নৌকা ও এর বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। পরে এটি সংঘর্ষ পর্যন্ত গড়ায়। সে সময় মাথায় আঘাত পান সজিব হোসেন।

তাকে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে নেয়া হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় সেখান থেকে চাঁদপুরের হাসপাতালে নেয়ার পথে মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন:
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা সাত শর্তে
খুলছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

শেয়ার করুন