গল্প করতে করতে ঢলে পড়লেন ঢাবি শিক্ষক

গল্প করতে করতে ঢলে পড়লেন ঢাবি শিক্ষক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রাশীদ মাহমুদ। ছবি: সংগৃহীত

রাশীদের মৃত্যুর সংবাদ দিতে গিয়ে অনেকটা আবেগ আপ্লুত হয়ে যান বিভাগের চেয়ারম্যান ড. ফারহানা বেগম। বাষ্পরুদ্ধ হয়ে আসে তার কণ্ঠ। বলেন, ‘রশীদ ছিল বিভাগের প্রাণ। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সহজে মিশে যেতে পারেন। তাকে ছাড়া নৃবিজ্ঞান বিভাগ কেউ কল্পনাও করতে পারে না। আমরা খুব ভালো একজন শিক্ষককে হারালাম।’

পিএইচডির ফিল্ড ওয়ার্কের ফাঁকে সহকর্মীদের সঙ্গে আলাপ করছিলেন, হঠাৎ ঢলে পড়লেন। এভাবেই মুহূর্তের মধ্যে প্রাণ হারালেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রাশীদ মাহমুদ।

সাতক্ষীরার শ্যামনগরে বুধবার সন্ধ্যায় হার্ট এটাকে তার মৃত্যু হয় বলে নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন বিভাগের চেয়ারম্যান ড. ফারহানা বেগম।

‘কয়েকদিন ধরে রাশীদ পিএইচডির কাজে ফিল্ড ওয়ার্কের জন্য সাতক্ষীরার একটি দূরবর্তী গ্রামে অবস্থান করছিলেন। প্রতিদিনের মতো আজ সন্ধ্যায়ও তিনি কাজ শেষে সহকর্মীদের চেয়ারে বসে গল্প করছিলেন। হঠাৎ তিনি চেয়ার থেকে পড়ে যান৷ গ্রাম থেকে হাসপাতাল দূরে থাকায় অ্যাম্বুলেন্স আসতে সামান্য দেরি হয়েছে। পরে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।’

রাশীদের মৃত্যুর সংবাদ দিতে গিয়ে অনেকটা আবেগ আপ্লুত হয়ে যান ফারহানা। বাষ্পরুদ্ধ হয়ে আসে তার কণ্ঠ। বলেন, ‘রশীদ ছিল বিভাগের প্রাণ। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সহজে মিশে যেতে পারেন। তাকে ছাড়া নৃবিজ্ঞান বিভাগ কেউ কল্পনাও করতে পারে না। আমরা খুব ভালো একজন শিক্ষককে হারালাম।’

রাশীদ মাহমুদের মৃত্যুতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে শোক প্রকাশ করেন বিভাগের সাবেক বর্তমান অনেক শিক্ষার্থী।

রোজলিন আফাসানা নামে এক শিক্ষার্থী লিখেন, ‘নাম্বার ডায়াল করলে আর আপনার হাসি মাখা স্নেহ আদর আর পাব না স্যার..আপনি নেই বিশ্বাস হচ্ছে না।’

আজমীর হোসেন ফরহাদ নামে আরেক শিক্ষার্থী লিখেছেন, ‘মানতে পারছিনা স্যার। এতো কিসের তাড়া ছিলো!!!’

আরও পড়ুন:
হিজবুত তাহরীর সন্দেহে আটক ঢাবির দুই শিক্ষার্থী
সাহসী, সৎ বঙ্গবন্ধুকে পাওয়া যায় আত্মজীবনীতে: সামাদ
ঢাবিতে ভর্তির আবেদন শুরু
ভর্তিতে জিপিএ কমানোর দাবিতে ঢাবিতে অবস্থান
গবেষণা চৌর্যবৃত্তি: সাদেকা হালিমের বিরুদ্ধে তদন্ত চান দুই শিক্ষক

শেয়ার করুন

মন্তব্য