ঢাবির হল ১৩ মার্চ খুলছে না

অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো হল খুলতে কিছু দিন ধরেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও দাবি জানিয়ে আসছিল। ছবি: নিউজবাংলা

ঢাবির হল ১৩ মার্চ খুলছে না

বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের বিশেষ সভা শেষে জানানো হয়, ১৩ মার্চ নয়, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী আগামী ১৭ মে থেকে খোলা হবে হল। আর হল খোলার দুই সপ্তাহ পর শুরু হবে শিক্ষা কার্যক্রম। এর আগে দেয়া হবে না কোনো পরীক্ষার তারিখ।

বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর হল খোলা ও ক্লাস শুরুর সরকারের তিন তারিখ ঘোষণার পর অনার্স শেষ বর্ষ ও মাস্টার্সের পরীক্ষার্থীদের জন্য আগামী ১৩ মার্চ আবাসিক হল খোলার সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের বিশেষ সভা শেষে জানানো হয়, ১৩ মার্চ নয়, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী আগামী ১৭ মে থেকে খোলা হবে হল। আর হল খোলার দুই সপ্তাহ পর শুরু হবে শিক্ষা কার্যক্রম।

সভায় কি সিদ্ধান্ত হয়েছে জানতে চাইলে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক ড. আব্দুল বাছির নিউজবাংলাকে বলেন, ‘১৩ মার্চ হল খোলার যে সিদ্ধান্ত সেটি স্থগিত করা হয়েছে। আর সরকারে সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৭ মে থেকে সকলের জন্য হল খোলা হবে। হল খোলার দুই সপ্তাহ পর থেকে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হবে।’

গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। ধাপে ধাপে সাত দফা ছুটি বাড়ানো হয়েছে। সব শেষ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ থাকবে স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়।

দেশের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে চলে আসায় সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের হল খুলে দিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন শুরু হয়।

এর মধ্যে সোমবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এসে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানান, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর হল আগামী ১৭ মে থেকে খুলে দেয়া হচ্ছে। ক্লাস শুরু হবে ২৪ মে।

শিক্ষামন্ত্রী জানান, বিশ্ববিদ্যালয় চালুর আগে সব শিক্ষার্থীদেরকে করোনার টিকা দেয়া হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকার আওতায় আনার পরিকল্পনা নিয়ে অধ্যাপক ড. আব্দুল বাছির বলেন, ‘কর্মকর্তা কর্মচারীসহ সকল শিক্ষক-শিক্ষার্থীকে হল খোলার এক মাস আগে টিকা নেয়ার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। কারণ টিকা নেয়ার পর চার সপ্তাহ লাগে ইমিউন পাওয়ার তৈরি হওয়ার জন্য।’

তিনি বলেন, ‘সভা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনকে অনুরোধ করা হয়েছে সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে কর্মকর্তা কর্মচারীসহ সবার টিকা প্রাপ্তির বিষয়টা নিশ্চিত করার জন্য।’

পরীক্ষার নতুন কোনো তারিখ নয়

হল খোলা এবং শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করা নিয়ে সরকারি সিদ্ধান্তের সঙ্গে সঙ্গতি রাখতে নতুন কোনো পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা না করারও সিদ্ধান্ত হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের সভায়।

অধ্যাপক আব্দুল বাছির বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় এখন থেকে আর কোনো পরীক্ষার তারিখ দেবে না। আর যে বিভাগের পরীক্ষা চলমান ছিল, সেটি ঐ বিভাগের ওপর ছেড়ে দেয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে বিভাগ এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে৷ কারণ অনেক শিক্ষার্থী বাসা ভাড়া নিয়ে আর্থিক রিস্ক নিয়ে ঢাকাতে এসেছে৷ তবে নতুন করে কোনো পরীক্ষার তারিখ এখন হবে না।’

আরও পড়ুন:
এবার হলে ঢোকার চেষ্টা ঢাবি শিক্ষার্থীদের
কঠিন হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২১ মে
ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা শুরু কবে, জানা যাবে বৃহস্পতিবার
ঢাবি: পরীক্ষা যতদিন, হল খোলা ততদিন

শেয়ার করুন

মন্তব্য

টিকা নিয়ে দ্রুত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ফিরতে চান শিক্ষার্থীরা

টিকা নিয়ে দ্রুত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ফিরতে চান শিক্ষার্থীরা

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা টিকা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ফেরার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন। ছবি: নিউজবাংলা

‘যদি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ক্ষেত্রে করোনার সংক্রমণ একটা বাধা হয়ে থাকে, তাহলে সরকার চাইলে দ্রুত সময়ের মধ্যে সারা দেশের আবাসিক শিক্ষার্থীদের টিকা দিয়ে শিক্ষা কার্যক্রম স্বাভাবিক করে দিতে পারে।’

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা টিকা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ফেরার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের সামনের সড়কে বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে এ কর্মসূচি পালন করেন তারা।

পয়লা মার্চ থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া ও শিক্ষার স্বাভাবিক কার্যক্রম চালু করার দাবিতে মানববন্ধন করা হয়।

মানববন্ধনে অংশ নেয়া শিক্ষার্থীরা জানান, করোনার মধ্যেই সারা দেশে সব কার্যক্রম চলছে। শুধু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রেখেছে সরকার। এতে শিক্ষার্থীরা দীর্ঘ সেশনজটে পড়ছেন। তাদের শিক্ষাজীবন মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে।

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী আরিফ সোহেল বলেন, ‘লকডাউনের কিছুদিন পর থেকে অনলাইনে ক্লাস শুরু হয়। কিন্তু আমাদের অনেকেই দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে থাকায় তাদের পক্ষে এতে অংশগ্রহণ করা সম্ভব হয় না।

‘এ পর্যন্ত যতগুলো অনলাইনে ক্লাস হয়েছে, তার অভিজ্ঞতা থেকে আমরা বলতে পারি, এমনকি সরকার ও প্রশাসনও বলতে পারবে যে অনেক ছাত্র-ছাত্রী কিন্তু একাডেমিক কার্যক্রমে অংশ নিতে পারেননি।’

আরিফ আরও বলেন, ‘মে মাসে সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার ইচ্ছা পোষণ করেছে। কিন্তু তিন মাস অপেক্ষা করার মতো ক্ষমতা আমাদের ছাত্রদের নেই। এরই মধ্যে ২ লাখের বেশি মানুষকে করোনার টিকা দেয়া হয়েছে।

‘যদি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ক্ষেত্রে করোনার সংক্রমণ একটা বাধা হয়ে থাকে, তাহলে সরকার চাইলে দ্রুত সময়ের মধ্যে সারা দেশের আবাসিক শিক্ষার্থীদের টিকা দিয়ে শিক্ষা কার্যক্রম স্বাভাবিক করে দিতে পারে।’

আরেক শিক্ষার্থী বাংলা বিভাগের জহির ফয়সাল বলেন, ‘আমরা জানি, এই করোনা সময়ে বাংলাদেশে সব কিছু চলছে। শুধু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শিক্ষার সার্বিক কার্যক্রম বন্ধ। আমরা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা ২৬ মাস ধরে একই বর্ষে পড়ালেখা করছি। এটা অত্যন্ত বেদনাদায়ক, কষ্টের ও লজ্জাজনক।

‘তাই সরকারের কাছে আমাদের আহ্বান, অতি শিগগির শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হোক। শিক্ষার স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য যা যা প্রয়োজন সেটার ব্যবস্থা নেয়া হোক। পয়লা মার্চের মধ্যে টিকা দিয়ে হলেও আমরা স্বভাবিক শিক্ষাজীবনে ফিরে যেতে চাই।’

আরও পড়ুন:
এবার হলে ঢোকার চেষ্টা ঢাবি শিক্ষার্থীদের
কঠিন হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২১ মে
ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা শুরু কবে, জানা যাবে বৃহস্পতিবার
ঢাবি: পরীক্ষা যতদিন, হল খোলা ততদিন

শেয়ার করুন

পরীক্ষার দাবিতে বিক্ষোভ বরিশাল ও মাদারীপুরে

পরীক্ষার দাবিতে বিক্ষোভ বরিশাল ও মাদারীপুরে

বরিশালে ব্রজমোহন কলেজের সামনে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। ছবি: নিউজবাংলা

২২ ফেব্রুয়ারি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সরকারি সিদ্ধান্তের আলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সব পরীক্ষা স্থগিত রাখা হচ্ছে। তবে বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেকটি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ২৪ মে থেকে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরুর সঙ্গে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থগিত হয়ে যাওয়া পরীক্ষাও শুরু হবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক (সম্মান) চতুর্থ বর্ষের মৌখিক, ব্যবহারিক পরীক্ষাসহ সব বর্ষের পরীক্ষা নেয়ার দাবিতে বরিশাল ও মাদারীপুরে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করেছেন।

বরিশালে ব্রজমোহন কলেজের সামনে বৃহস্পতিবার বেলা ১০টার দিক থেকে বিক্ষোভ শুরু করে সড়ক অবরোধ করেন তারা। এ সময় কলেজের সামনের সড়কে দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল করেন।

বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কলেজের অধ্যক্ষ ড. গোলাম কিবরিয়া নানা আশ্বাস দিলেও শিক্ষার্থীরা দাবি না আদায় হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন।

ব্রজমোহন কলেজের ইংরেজি বিভাগের ছাত্র নুহাশ রহমান নিউজবাংলাকে বলেন, ‘আমরা ২০১৯ সালের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী। করোনা মহামারির কারণে আমরা অনেক পিছিয়ে গেছি। আমাদের ব্যবহারিক ও মৌখিক পরীক্ষা না হওয়ায় কোথাও চাকরির আবেদনও করতে পারছি না।

‘আমরা চাই অবিলম্বে আমাদের বাকি পরীক্ষাগুলো নেয়া হোক। আর তা না হলে আমাদের আন্দোলন চলবে।’

আরও পড়ুন: ২৪ মে থেকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা

দর্শন বিভাগের ছাত্রী শারমিন বীথি বলেন, ‘অনেক পিছিয়ে পড়েছি। আর না। আমাদের পরীক্ষাসহ অন্য সব বর্ষ ও মাস্টার্সের পরীক্ষা গ্রহণের জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি। আমাদের দাবি না মানা পর্যন্ত আমরা সরব না।’

প্রায় চার ঘণ্টা অবরোধের পর বরিশালে ব্রজমোহন কলেজের শিক্ষার্থীরা অধ্যক্ষের আশ্বাসে দুপুর দুইটার দিকে সড়ক অবরোধ তুলে নিয়েছে। তাদের দাবি না মানলে শনিবার সকাল থেকে আবার সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভের ঘোষণা দেয় শিক্ষার্থীরা।

মাদারীপুরে সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদ করেন। ছবি: নিউজবাংলা

মাদারীপুর

মাদারীপুরে সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদে কলেজগেট সংলগ্ন মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

মাদারীপুর-শরীয়তপুর প্রধান সড়কে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ কর্মসূচি শুরু হয়।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থগিত সব পরীক্ষা আবার চালু করার জোর দাবি জানান। এ সময় সড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়।

শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সিদ্ধান্ত বাতিল এবং দ্রুত পরীক্ষা চালুর দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান-সংবলিত প্ল্যাকার্ড ও ফেস্টুন নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেন।

মাস্টার্স শেষ বর্ষের পরীক্ষার্থী নাঈম সরদার বলেন, ‘করোনার কারণে আমরা সেশন জটে পড়েছি। যখন আবার পরীক্ষা শুরু হলো, হঠাৎ সরকার সব পরীক্ষা বন্ধ করে দিল। এতে আমরা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হব। তাই আমরা দ্রুত পরীক্ষা নেয়ার দাবি জানাচ্ছি।’

হিসাববিজ্ঞান বিষয়ের মাস্টার্স শেষ বর্ষের পরীক্ষার্থী তানভীর হোসেন বলেন, ‘আমাদের দুর্ভাগ্য যে আমাদের পরীক্ষার বছরই করোনা আসে। লকডাউনে এমনিতেই আমাদের পড়াশোনার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ‌তারপর আবার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা শুরু হয়ে বন্ধ করে দিল। আমরা চাই অতি দ্রুত আবার পরীক্ষা শুরু হোক।’

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ২০১৯ সালের দ্বিতীয় বর্ষ স্নাতক (পাস) ও সার্টিফিকেট কোর্স পরীক্ষা ১৩ ফেব্রুয়ারি থেকে সারা দেশে একযোগে শুরু হয়। পরীক্ষা চলার কথা ছিল ২৩ মার্চ পর্যন্ত।

আর ২০১৯ সালের স্নাতক (সম্মান) চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষা গত ১৭ জানুয়ারি শুরু হয়।

২২ ফেব্রুয়ারি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সরকারি সিদ্ধান্তের আলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সব পরীক্ষা স্থগিত রাখা হচ্ছে।

তবে বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেকটি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ২৪ মে থেকে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরুর সঙ্গে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থগিত হয়ে যাওয়া পরীক্ষাও শুরু হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, স্থগিত হয়ে যাওয়া পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচি শিগগিরই প্রকাশ করা হবে। শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার প্রস্তুতি নেয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাসে অংশ নিয়ে পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ারও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:
এবার হলে ঢোকার চেষ্টা ঢাবি শিক্ষার্থীদের
কঠিন হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২১ মে
ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা শুরু কবে, জানা যাবে বৃহস্পতিবার
ঢাবি: পরীক্ষা যতদিন, হল খোলা ততদিন

শেয়ার করুন

প্রাথমিক শিক্ষকদের টাইম স্কেলের রায় রোববার

প্রাথমিক শিক্ষকদের টাইম স্কেলের রায় রোববার

জাতীয়করণ করা ৪৮ হাজার ৭২০ জন শিক্ষককে টাইম স্কেলের সুবিধা দেয়া হয়েছিল।

২০১৩-১৪ সালে বেসরকারি থেকে সরকারি হওয়া প্রাথমিক শিক্ষকদের টাইম স্কেলের সুবিধা ফেরত দেয়ার বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের জারি করা পরিপত্র নিয়ে হাইকোর্টের রুল শুনানি শেষ হয়েছে। এ বিষয়ে রায়ের জন্য রোববার দিন ঠিক করেছে আদালত।

বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি খায়রুল আলমের বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ দিন ঠিক করে।

আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার মোকছেদুল ইসলাম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ মো. মোরশেদ।

জাতীয়করণ করা ৪৮ হাজার ৭২০ জন শিক্ষককে টাইম স্কেলের সুবিধা দেয়া হয়েছিল।

ব্যারিস্টার মোকছেদুল ইসলাম বলেন, ‘গত বছরের ১২ আগস্ট বেসরকারি থেকে সরকারি হওয়া প্রাথমিক শিক্ষকদের টাইম স্কেলের সুবিধা ফেরত দেয়ার বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয় একটি পরিপত্র জারি করে।

‘ওই পরিপত্রের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে সংক্ষুব্ধ শিক্ষকরা রিট করেন। তখন হাইকোর্ট বিভাগ পরিপত্র স্থগিত করে রুল জারি করে। এর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ আপিল বিভাগে আবেদন করে। ১৩ সেপ্টেম্বর চেম্বার আদালত হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করে।

‘পরে স্থগিতাদেশ তুলে দিতে শিক্ষকরা আপিল বিভাগে আবেদন করে। ১৩ জানুয়ারি আপিল বিভাগ তিন সপ্তাহের মধ্যে হাইকোর্ট বিভাগে রিট মামলাটি নিষ্পত্তি করতে বলে। সে অনুযায়ী বৃহস্পতিবার ওই বেঞ্চে এ রুলের ওপর শুনানি শেষ হয়।’

আরও পড়ুন:
এবার হলে ঢোকার চেষ্টা ঢাবি শিক্ষার্থীদের
কঠিন হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২১ মে
ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা শুরু কবে, জানা যাবে বৃহস্পতিবার
ঢাবি: পরীক্ষা যতদিন, হল খোলা ততদিন

শেয়ার করুন

আবারও হল খোলার দাবি ঢাবিতে

আবারও হল খোলার দাবি ঢাবিতে

হল খোলার দাবিতে ঢাবিতে বিক্ষোভ কর্মসূচি। ছবি: নিউজবাংলা

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী লাবণী বন্যা বলেন, ‘এভাবে ক্লাস নেয়ার পর তারা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা না করে পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নিল। তারপর অনেক বিভাগে পরীক্ষা নেয়া হলো। শিক্ষার্থীদের বাসা বা মেস ভাড়া নিয়ে সেখান থেকে পরীক্ষায় অংশগ্রহন করতে হলো। অথচ পরীক্ষা আবাসিক হলে থেকে দিবে এটাই শিক্ষার্থীদের অধিকার।’

অতি দ্রুত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সব আবাসিক হল খুলে দেয়ার দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করছে বামপন্থি ছাত্র সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীরা।

বুধবার বিকেলে ‘শিক্ষার্থীবৃন্দ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়’ এর ব্যানারে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে এ কর্মসূচি আয়োজন করা হয়।

এর আগে সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়য়ের শহীদুল্লাহ হল ও অমর একুশে হলে ঢোকার চেষ্টা চালান শিক্ষার্থীরা।

সমাবেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী লাবণী বন্যা বলেন, করোনার সময়ে হঠাৎ করে বিশ্বদ্যিালয় বন্ধ করে দেয়া হলো। কিছুদিন পর শিক্ষার্থীদের সমস্যা বিবেচনা না করে অনলাইন ক্লাসের ব্যবস্থা করা হলো। শিক্ষার্থীরা ক্লাস করতে পারবে কিনা সেটা তাদের চিন্তার মধ্যে ছিল না।’

তিনি বলেন, ‘এভাবে ক্লাস নেয়ার পর তারা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা না করে পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নিল। তারপর অনেক বিভাগে পরীক্ষা নেয়া হলো। শিক্ষার্থীদের বাসা বা মেস ভাড়া নিয়ে সেখান থেকে পরীক্ষায় অংশগ্রহন করতে হলো। অথচ পরীক্ষা আবাসিক হলে থেকে দিবে এটাই শিক্ষার্থীদের অধিকার।’

এ সময় দ্রুত হল খুলে দিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছেও আহবান জানান তিনি।

বিক্ষোভ কর্মসূচিতে শিক্ষার্থীদের হাতে ‘শিক্ষামন্ত্রী, ছাত্রদের নিয়ে তামাশা বন্ধ করুন; হল খোলার দাবিতে আন্দোলন গড়ে তোল; মেরুদণ্ডহীন প্রশাসন আমরা চাইনা; অবিলম্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়য়ের হল খুলে দিন ইত্যাদি প্ল্যাকার্ড দেখা যায়।

ছাত্রফ্রন্টের (মার্ক্সবাদী) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রগতি বর্মণের সঞ্চালনায় এই কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি সাখাওয়াত ফাহাদ ও সাধারণ সম্পাদক রাগীব নাঈম, বাসদ (মার্ক্সবাদী) সমর্থিত ছাত্রফ্রন্টের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সালমান সিদ্দিকীসহ প্রায় অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী।

আরও পড়ুন:
এবার হলে ঢোকার চেষ্টা ঢাবি শিক্ষার্থীদের
কঠিন হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২১ মে
ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা শুরু কবে, জানা যাবে বৃহস্পতিবার
ঢাবি: পরীক্ষা যতদিন, হল খোলা ততদিন

শেয়ার করুন

দ্বিতীয় দিনে চলচ্চিত্র ও ডিজিটাল মিডিয়া নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলন 

দ্বিতীয় দিনে চলচ্চিত্র ও ডিজিটাল মিডিয়া নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলন 

কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশ আয়োজিত একবিংশ শতাব্দীর ফিল্ম ও ডিজিটাল মিডিয়া সম্পর্কিত আন্তর্জাতিক সম্মেলন।

কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশ সময় বুধবার রাত ৮টায় দ্বিতীয় দিনের অনুষ্ঠান শুরু হয়; দুই ঘণ্টা ধরে আলোচনা হয় সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে।

‘একবিংশ শতাব্দীর ফিল্ম অ্যান্ড ডিজিটাল মিডিয়া’ শীর্ষক তিন দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক অনলাইন সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের আয়োজনেও ছিলেন এ খাতের আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ব্যক্তিরা।

কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশ সময় বুধবার রাত ৮টায় দ্বিতীয় দিনের অনুষ্ঠান শুরু হয়; দুই ঘণ্টা ধরে আলোচনা হয় সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে।

কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন বিভাগের ‘একবিংশ শতাব্দীর ফিল্ম অ্যান্ড ডিজিটাল মিডিয়া’ শীর্ষক এই আয়োজনের সঙ্গে রয়েছে কানাডার বিসিআই মিডিয়া।

দ্বিতীয় দিনে প্যানেল মেম্বার হিসেবে নিজ নিজ ক্ষেত্রের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন বিটুবি গ্রোথ গ্রিসের ফাউন্ডার জন আসলানিস, গ্রিসের নিউরোসায়েন্স রিসার্চার ও এডুকেটর রানিয়া লামপু, ইউরোপিয়ান জার্নালিস্ট ইউনিয়ন মেম্বার দিমিত্রিওস কানাভোস এবং গ্রিসের রেডিও প্রডিউসার অ্যান্ড সিনেমাটোগ্রাফার গ্রিগোরিস ভেরিওতিস এবং সাবেক ক্যামব্রিজ সিটি কাউন্সিলর ও মেয়র জর্জ পিপাস।

আরও পড়ুন: চলচ্চিত্র ও ডিজিটাল মিডিয়া নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলন

তারা মিডিয়া ও নেটওয়ার্কিং বিজনেস নিয়ে আলোচনা করেন। আলোচনা করেন শিক্ষা ক্ষেত্রে অনলাইন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো কী ভূমিকা রাখছে তা নিয়েও।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ও উদ্বোধনী বক্তা ছিলেন কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ মাহফুজুল ইসলাম, পিইঞ্জ।

এরপর ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটির সাবেক এক চীনা শিক্ষার্থীর কবিতা আবৃত্তি করে শোনান মেয়র জর্জ পিপাস।

সম্মেলনটি যৌথভাবে সঞ্চালনা করেন কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন বিভাগের প্রধান ড. জহির বিশ্বাস এবং গ্রিসের কবি ও সাংবাদিক মিসেস লেনা কায়রোপোওলিস।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন বিভাগের প্রধান ড. জহির বিশ্বাসের আহ্বানে একটি আন্তর্জাতিক মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম শিগগিরই চালু করা হচ্ছে, যেখানে আটটি দেশের রিসোর্স পার্সন অংশগ্রহণ করবেন।

এ আয়োজনের মিডিয়া পার্টনার নিউজবাংলা টোয়েন্টিফোর ডটকম

জুম প্লাটফর্মের মাধ্যমে যে কেউ এ আন্তর্জাতিক সম্মেলনে অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

শেষ দিনের সম্মেলন হবে ২৫ ফ্রেব্রুয়ারি।

জুম আইডি :

আইডি : 669 7678 3394

পাসওয়ার্ড: 778899

২৫ ফেব্রুয়ারি: https://eu01web.zoom.us/j/66976783394…

সময় : রাত ৮: ০০ (বাংলাদেশ সময়)

এ ছাড়া এই সম্মেলন কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে https://www.facebook.com/cubbd সরাসরি সম্প্রচার হবে।

আরও পড়ুন:
এবার হলে ঢোকার চেষ্টা ঢাবি শিক্ষার্থীদের
কঠিন হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২১ মে
ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা শুরু কবে, জানা যাবে বৃহস্পতিবার
ঢাবি: পরীক্ষা যতদিন, হল খোলা ততদিন

শেয়ার করুন

২৪ মে থেকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা

২৪ মে থেকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্থগিত হয়ে যাওয়া পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচি অতি শিগগিরই প্রকাশ করা হবে। শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার প্রস্তুতি নেয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ২৪ মে থেকে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরুর সঙ্গে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থগিত হয়ে যাওয়া পরীক্ষাও শুরু হবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মো. ফয়জুল করিম।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্থগিত হয়ে যাওয়া পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচি অতি শিগগিরই প্রকাশ করা হবে। শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার প্রস্তুতি নেয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাসে অংশ নিয়ে পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ারও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এর আগে ২২ ফেব্রুয়ারি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় সরকারি সিদ্ধান্তের আলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সব পরীক্ষা স্থগিত রাখা হচ্ছে।

করোনা মহামারির কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় সরাসরি পাঠদান ও পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে।

আরও পড়ুন:
এবার হলে ঢোকার চেষ্টা ঢাবি শিক্ষার্থীদের
কঠিন হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২১ মে
ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা শুরু কবে, জানা যাবে বৃহস্পতিবার
ঢাবি: পরীক্ষা যতদিন, হল খোলা ততদিন

শেয়ার করুন

৭ ঘণ্টার দুর্ভোগ শেষে রাস্তা ছাড়ল ছাত্ররা

৭ ঘণ্টার দুর্ভোগ শেষে রাস্তা ছাড়ল ছাত্ররা

পরীক্ষা চালু রাখার দাবিতে সকাল থেকে নীলক্ষেত ও সায়েন্সল্যাব মোড় অবরোধ করে আন্দোলনে নামে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। এ সময় ওই এলাকায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। ছবি: সাইফুল ইসলাম

শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে সাত কলেজে পরীক্ষা চালু রাখার সিদ্ধান্ত আসার পর পরই উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠেন শিক্ষার্থীরা। সরে দাঁড়ান নীলক্ষেত ও সায়েন্সল্যাব মোড় থেকে। সাত ঘণ্টা অবরোধ থাকার পর সায়েন্সল্যাব-নিউমার্কেট সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়ে আসে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের পরীক্ষা চালু রাখা নিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে ঘোষণা আসার পর নীলক্ষেত ও সায়েন্সল্যাব মোড়ে অবরোধ প্রত্যাহার করেছেন শিক্ষার্থীরা। এতে ওই এলাকার যাত্রীদের সাত ঘণ্টার দুর্ভোগের অবসান হয়েছে।

নীলক্ষেত মোড় ও সায়েন্সল্যাব মোড় অবরোধ করে কলেজগুলোর শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে জরুরি ভার্চুয়াল সভা শেষে পরীক্ষা চালু রাখার সিদ্ধান্ত জানায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

বুধবার বিকেল চারটায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সাতটি সরকারি কলেজের চলমান ও ঘোষিত পরীক্ষাসমূহ শর্তসাপেক্ষে অনুষ্ঠিত হবে।

শর্ত দুটি হল: পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে হোস্টেল খোলা হবে না এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।

এমন সিদ্ধান্ত আসার পর পরই উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠেন শিক্ষার্থীরা। সরে দাঁড়ান নীলক্ষেত ও সায়েন্সল্যাব মোড় থেকে। সাত ঘণ্টা অবরোধ থাকার পর সায়েন্সল্যাব-নিউমার্কেট সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়ে আসে।

শিক্ষামন্ত্রণালয় থেকে পরীক্ষা চালু রাখার সিদ্ধান্ত আসার পর নীলক্ষেত অবরোধ থেকে সরে দাঁড়ায় শিক্ষার্থীরা। ছবি: নিউজবাংলা

গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। ধাপে ধাপে সাত দফা ছুটি বাড়ানো হয়েছে। সব শেষ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ থাকবে স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়।

দেশের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে চলে আসায় সম্প্রতি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের হল খুলে দিতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন শুরু করে।

এর প্রেক্ষিতে সোমবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানান, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর হল আগামী ১৭ মে থেকে খুলে দেয়া হচ্ছে। ক্লাস শুরু হবে ২৪ মে। বিশ্ববিদ্যালয় চালুর আগে সব শিক্ষার্থীদেরকে করোনার টিকা দেয়া হবে।

শিক্ষামন্ত্রীর এমন নির্দেশনার পর মঙ্গলবার সাত কলেজের প্রধান সমন্বয়ক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক এএসএস মাকসুদ কামালের সভাপতিত্বে সাত কলেজের অধ্যক্ষ ও সংশ্লিষ্ট তিনজন ডিনের বৈঠকে বসেন। বৈঠকে সাত কলেজের সব পরীক্ষা ২৪ মে পর্যন্ত স্থগিত করা হয়।

পরীক্ষা চালু রাখার দাবিতে আন্দোলনে নামা সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। ছবি: নিউজবাংলা

এদিন সন্ধ্যায়ই এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে নীলক্ষেত মোড়ে এসে সমাবেশ করে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। রাতে চলে যাওয়ার পর বুধবার সকাল থেকে ফের অবস্থান নেয় তারা।

বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ে আন্দোলনকারীদের সংখ্যা। দুপুর ১২টার দিকে সায়েন্সল্যাব মোড়ে অবস্থান নেয় শিক্ষার্থীদের একটি অংশ। তারা জানান, পরীক্ষা চালু রাখার বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো সিদ্ধান্ত আসার আগ পর্যন্ত আন্দোলন থেকে সরবেন না।

পরীক্ষা চালুর রাখার দাবিতে অনশনে বসেন মিরপুর সরকারি বাংলা কলেজের একজন শিক্ষার্থী। কয়েক জন নামেন কাফনের কাপড় পরে।

জলকামান নিয়ে আসা পুলিশ সদস্যদের হাতে ফুল তোলে দেন শিক্ষার্থীরা। ছবি: নিউজবাংলা

যান চলাচল স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে সায়েন্সল্যাব মোড়ে জলকামান নিয়ে এসেছিল পুলিশ। তবে শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে কোনো অভিযানে যাননি তারা। বরং পুলিশ সদস্যদের হাতে ফুল তুলে দেন আন্দোলনকারীরা।

নীলক্ষেত ও সায়েন্সল্যাবে আন্দোলনের মধ্যেই দুপুর একটায় সংশ্লিষ্টদের নিয়ে জরুরি ভার্চুয়াল বৈঠকে বসে শিক্ষামন্ত্রণালয়। প্রায় চার ঘণ্টার বৈঠক শেষে সাত কলেজে পরীক্ষা চালু রাখার সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।

জরুরি সভায় শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি, উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী ছাড়াও যুক্ত হন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি, প্রোভিসি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত কলেজের সমন্বয়কসহ সাত কলেজের অধ্যক্ষরা।

প্রতিবেদনটি তৈরিতে সহায়তা করেছেন নিউজবাংলার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি মনিরুল ইসলাম

আরও পড়ুন:
এবার হলে ঢোকার চেষ্টা ঢাবি শিক্ষার্থীদের
কঠিন হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২১ মে
ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা শুরু কবে, জানা যাবে বৃহস্পতিবার
ঢাবি: পরীক্ষা যতদিন, হল খোলা ততদিন

শেয়ার করুন

ad-close 103.jpg