৩৯০ সরকারি স্কুলে ভর্তির লটারি

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে লটারির উদ্বোধন করছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। ছবি: নিউজবাংলা

৩৯০ সরকারি স্কুলে ভর্তির লটারি

বার্ষিক পরীক্ষা নিতে পারিনি। ফলে আমরা লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের নতুন শ্রেণিতে ভর্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছি: শিক্ষামন্ত্রী

সরকারি মাধ্যমিক স্কুলে ভর্তির ডিজিটাল লটারি হয়েছে। এর মাধ্যমে ভর্তির জন্য আবেদন করা পাঁচ লাখ ৭৪ হাজার ৯২৯ শিক্ষার্থীর মধ্যে ৭৭ হাজার ১৪০ জন শিক্ষার্থীকে বেছে নেয়া হবে।

সোমবার রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এই লটারির উদ্বোধন করা হয়।

আজিমপুর গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী রাদিয়া মুনতানা কম্পিউটারে ক্লিক করে এ কার্যক্রমটি শুরু করে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের আওতাধীন ৩৯০ টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য এই লটারির উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মাহবুব হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সৈয়দ গোলাম ফারুক।

ভার্চুয়ালি যোগ দেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মাহবুব হোসেন। ছবি: নিউজবাংলা

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘করোনা ভাইরাসের কারণে গত মার্চ মাস থেকে আমাদের স্কুলগুলো বন্ধ রাখতে হয়েছে। শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার স্বার্থে আমাদের এটি করতে হয়েছে। কিন্তু শিক্ষার্থীরা যাতে শিখন কাজ থেকে বঞ্চিত না হয়, সেজন্য আমরা সংসদ টেলিভিশনের মাধ্যমে অ্যাসাইনমেন্টভিত্তিক শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করেছি।‘

দীপু মনি বলেন, ’বেশ কিছু সীমাবদ্ধতা থাকলেও আমাদের এ উদ্যোগ মাঠ পর্যায় থেকে বেশ প্রশংসিত হয়েছে।

‘বার্ষিক পরীক্ষা নিতে পারিনি। ফলে আমরা লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের নতুন শ্রেণিতে ভর্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

এই ডিজিটাল লটারির সার্বিক সহায়তার কাজ করেছে টেলিটক। যে সফটওয়্যার এ কাজে ব্যবহার করা হয়েছে সেটির যথার্থতা যাচাই-বাছাইয়ের কাজ করেছে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল।

আরও পড়ুন:
মাধ্যমিকে লটারিতে ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত
অনিচ্ছায় লটারি কিনে লাখোপতি

শেয়ার করুন

মন্তব্য