অটো পাসের বৈধতা দিতে আইন সংশোধন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠক। ফাইল ছবি

অটো পাসের বৈধতা দিতে আইন সংশোধন

২০২০ সালের এপ্রিলে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও করোনা সংক্রমণের কারণে তা বাতিল করা হয়। সব পরীক্ষার্থীকে অটোপাস ঘোষণা দেয় সরকার। কিন্তু তার আইনগত কোনো ভিত্তি ছিল না। আইন সংশোধন করে, সেই ভিত্তি নিশ্চিত করতে চায় সরকার।

এইচএসসি পরীক্ষা-২০২০ এর ফল প্রকাশে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড আইনের সংশোধনীর অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

এই সংশোধনীর ফলে যে কোন দুর্যোগ বা মহামারিতে পরীক্ষা ছাড়াই মূল্যায়ন পদ্ধতিতে ফল প্রকাশ করতে পারবে।

বিদ্যমান মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড আইনে পরীক্ষা ছাড়া ফল প্রকাশের বিধান নেই।

সোমবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে হয় মন্ত্রিসভা বৈঠক। সরকার প্রধান তার বাসভবন গণভবন থেকে যুক্ত হন ভিডিও কনফারেন্সে। মন্ত্রিসভার অন্য সদস্যরা সচিবালয় প্রান্ত থেকেই যুক্ত হন।

বৈঠক শেষে আইন সংশোধনের বিষয়টি নিশ্চিত করেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। তিনি জানান, ১৮ জানুয়ারি সংসদের শীতকালীন অধিবেশনে আইনের সংশোধনী উত্থাপন করা হবে। এরপর সংসদীয় কমিটির রিপোটের ভিত্তিতে আইনটি পাস হলে গেজেট প্রকাশ করা হবে। গেজেটের পরই ফল প্রকাশ করা হবে।

২০২০ সালের এপ্রিলে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও করোনা সংক্রমণের কারণে তা বাতিল করা হয়। সব পরীক্ষার্থীকে অটোপাস ঘোষণা দেয় সরকার। কিন্তু তার আইনগত কোনো ভিত্তি ছিল না। আইন সংশোধন করে, সেই ভিত্তি নিশ্চিত করতে চায় সরকার।

আইন সংশোধনের মধ্য দিয়ে, পরীক্ষার্থীদের জেএসসি ও এসএসসি এই দুই পরীক্ষার ফলের গড় করে এইচএসসির ফল প্রকাশ করা হবে। জেএসসি-জেডিসির ফলাফলকে ২৫ এবং এসএসসির ফলের মানকে ৭৫ শতাংশ ধরে এইচএসসির ফল ঘোষিত হবে।

আরও পড়ুন:
পরীক্ষা বাতিল, ২১৫ কোটি টাকার কী হবে
পরীক্ষা বাতিলে মিশ্র প্রতিক্রিয়া, চিন্তা ভবিষ্যৎ নিয়ে

শেয়ার করুন

মন্তব্য