20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
‘মান ধরে রাখতে’ সশরীরে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা। ফাইল ফটো

‘মান ধরে রাখতে’ সশরীরে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা

পরীক্ষা হবে আট বিভাগীয় শহরে। ২০০ নম্বরের বদলে মূল্যায়ন হবে ১০০ নম্বরের। এসএসসি ও এইচএসসির ফলাফলের ভিত্তিতে নির্ধারণ হবে ২০ নম্বর। বাকি ৮০ নম্বরের হবে এমসিকিউ পরীক্ষা

করোনা মহামারির মধ্যে পরীক্ষা নিয়েই ভর্তি নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। অনলাইনে নয়, কেন্দ্রে বসে দিতে হবে এই পরীক্ষা।

মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনস কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা বন্ধ রেখেছেন। ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার কারণ হিসেবে ডিন সাদেকা হালিম ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মান ধরে রাখার’ কথা বলেছেন।

তিনি বলেন, ‘মান ধরে রাখতে আমাদের অবশ্যই ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করাতে হবে। তাই আজকের ডিনস মিটিংয়ে আমরা সশরীরে ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

তবে অন্যান্য বছরের মতো শিক্ষার্থীদের সবাইকে ঢাকায় আসতে হবে না। দেশের প্রতিটি বিভাগীয় শহরে করা হবে কেন্দ্র। স্বাস্থ্যবিধি মেনে দূরে দূরে বসানো হবে পরীক্ষার্থীদের।

পরীক্ষা আগের মতোই হবে এমসিকিউ পদ্ধতিতে। তবে ২০০ নম্বরের বদলে এবার নেয়া হবে ১০০ নম্বরে।

এবার করোনা ভাইরাসের কারণে এইচএসসি পরীক্ষা বাতিল করে এসএসসি ও জেএসসির ফলাফলের গড় করে ফলাফল দেবে সরকার।

এ ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় কীভাবে এই ফলাফলের মূল্যায়ন করবে- সেটাও জানান সাদেকা হালিম।

জানান, এসএসসি ও এইচএসসির ফলাফলের ভিত্তিতে ৮০ নম্বরের বদলে এবার থাকবে ২০ নম্বর। আর এমসিকিউ এ ১২০ এর বদলে পরীক্ষা হবে ৮০ নম্বরে।

তবে কোথায় কোথায় এবং কবে পরীক্ষা হবে, সেটা এখনও চূড়ান্ত হয়নি। সাদেকা হালিম বলেন, ‘পরীক্ষার কেন্দ্র বিভাগীয় শহরগুলোতে করার বিষয়ে আলোচনা করছি।’

অবশ্য নতুন পদ্ধতিতে এইচএসসির ফল প্রকাশ হয়নি। গত ৭ অক্টোবর শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানান, আগের দুই পরীক্ষার গড় করে ফল প্রকাশ করতে ডিসেম্বর পর্যন্ত লেগে যাবে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য