20201002104319.jpg
ডিজিটাল হলো মাউশির ১৩০ সেবা

ডিজিটাল হলো মাউশির ১৩০ সেবা

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) ১৩০ সেবা ডিজিটাল করা হয়েছে। সরকারের মাইগভ প্ল্যাটফর্মের আওতায় র‍্যাপিড ডিজিটাইজেশন কার্যক্রমের মাধ্যমে এ রূপান্তর করা হয়েছে। 

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি প্রধান অতিথি থেকে ভার্চুয়াল এক অনুষ্ঠানে এর কার্যক্রম উদ্বোধন করেছেন। 

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলম। 

মাউশির শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক, কর্মচারীসহ সবাই খুব সহজেই সেবার আবেদন, পেমেন্ট, সেবার অগ্রগতি, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কার্যক্রম মাইগভ ওয়েব, মাইগভ অ্যাপ, ৩৩৩ কলসেন্টারে কল করে অথবা ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে নিতে পারবে। 

মাইগভ প্লাটফর্ম থেকে জনগণ সব ধরনের সেবার তথ্য পাবেন, ট্র্যাক করতে পারবেন আবেদন। 

মাউশির শিক্ষক-কর্মচারীরা মাতৃকালীন ছুটি, বৈদেশিক মাস্টার্সের সেবা প্লাটফর্মটির মাধ্যমে খুব সহজেই অনলাইনে বা মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে নিতে পারবেন।  

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘ডিজিটাল না হলে করোনার মতো কঠিন সময়ে দেশের সব কার্যক্রম নিয়মিত চালিয়ে নেওয়া কঠিন হয়ে পড়ত। ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের ফলে জনগণের সেবা প্রাপ্তির অধিকার এবং সরকারের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত হচ্ছে।’

তিনি জানান, নিজেদের সক্ষমতা বৃদ্ধির পাশাপাশি আন্তমন্ত্রণালয় সমন্বয়ের মাধ্যমে নাগরিক সেবাকে আরও সহজ করা হবে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘চলতি বছরের জানুয়ারিতে ১৭৮ সেবা নিয়ে মাইগভ প্ল্যাটফর্মটি চালু হয়। ধীরে ধীরে সকল মন্ত্রণালয়ের ডিজিটাল সার্ভিসগুলোকে মাইগভ প্ল্যাটফর্মে যুক্ত করা হবে, যাতে জনগণ সরকারের সকল সেবা সবসময় একটি প্ল্যাটফর্ম থেকে গ্রহণ করতে পারেন।’

মাউশির সার্ভিসের সঙ্গে ‘পরিচয়’ প্লাটফর্মের মাধ্যমে ভেরিফিকেশন এবং অথেন্টিকেশন করার সেবাও প্রদান করা সম্ভব বলে জানান তিনি। 

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, ‘মাইগভের মাধ্যমে মাউশির সেবাকে ইন্টিগ্রেটেড পদ্ধতিতে একটি একক পয়েন্টের মাধ্যমে জনগণের হাতে পৌঁছে দেওয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছে। এতে জনগণের হয়রানি কমবে।’

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) অধ্যাপক শাহেদুল খবির চৌধুরী সঞ্চালনা করেন। 

এতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অ্যাকসেস টু ইনফরমেশনের (এটুআই) প্রকল্প পরিচালক ড. মো. আব্দুল মান্নান, যুগ্ম প্রকল্প পরিচালক ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্ম সচিব (ই-গভর্ন্যান্স) ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর, যুগ্ম প্রকল্প পরিচালক সেলিনা পারভেজ, পলিসি অ্যাডভাইজর আনীর চৌধুরী প্রমুখ

শেয়ার করুন