× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

অর্থ-বাণিজ্য
Rupali Bank 100 days program announcement
google_news print-icon

রূপালী ব্যাংকের ১০০ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা 

রূপালী-ব্যাংকের-১০০-দিনের-কর্মসূচি-ঘোষণা 
মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর বলেন, ‘এই কর্মসূচি সফলভাবে বাস্তবায়িত হলে ব্যাংকের সর্বস্তরে কর্মচাঞ্চল্য সৃষ্টি হবে; গতিশীলতা বৃদ্ধি পাবে। যে সকল কর্মকর্তা সফলভাবে এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবেন তাদেরকে পুরস্কৃত করা হবে।’

১০০ দিনের বিশেষ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে রাষ্ট্রায়ত্ত রূপালী ব্যাংক।

সব ব্যবসায়িক সূচকে বড় অগ্রগতি ও লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের লক্ষ্যে রোববার এই বিশেষ কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা করেন ব্যাংকের নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর।

রাজধানীর দিলকুশায় ব্যাংকটির প্রধান কার্যালয়ের সামনে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে এই বিশেষ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন ব্যাংকের চেয়ারম্যান কাজী ছানাউল হক।

এই কর্মসূচির মাধ্যমে রেমিট্যান্স আহরণ, আমানতের প্রবৃদ্ধি, রপ্তানি বাণিজ্য, গ্রিন ব্যাংকিং, খেলাপি ঋণ আদায়, বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সূচকে রূপালী ব্যাংককে একটি শক্তিশালী অবস্থানে নিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর। ১০০ দিনের কর্মসূচী সফল করতে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দিক-নির্দেশনা দেন তিনি।

মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর বলেন, ‘এই কর্মসূচি সফলভাবে বাস্তবায়িত হলে ব্যাংকের সর্বস্তরে কর্মচাঞ্চল্য সৃষ্টি হবে; গতিশীলতা বৃদ্ধি পাবে। যে সকল কর্মকর্তা সফলভাবে এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবেন তাদেরকে পুরস্কৃত করা হবে।’

এই কর্মসূচি অগ্রগতির বিষয়ে প্রতিনিয়ত মনিটরিং করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘১০০ দিনের কর্মসূচিতে শামিল হোন, যত সম্ভব তত ক্রেডিট অর্জন করুন, উন্নত ও সমৃদ্ধ ক্যারিয়ার গড়ুন।’

‘এই কর্মসূচি সফলভাবে বাস্তবায়িত হলে ব্যাংকের খেলাপি ঋণ কমবে, রেমিট্যান্স বৃদ্ধি পাবে এবং ঋণ ও অগ্রীম বাড়বে। আমানতের ক্ষেত্রে ব্যাংক একটি শক্তিশালী ও টেকসই অবস্থানে যাবে।’

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রার যোগ্য সারথী হিসেবে ব্যাংকটিকে সম্মুখ সারিতে নিয়ে যেতে চান বলে জাহাঙ্গীর দৃঢ প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

তিনি কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে এ কর্মসূচি সংক্রান্ত ব্যাংকের স্লোগান পড়ে শোনান, ‘১০০ দিনের লক্ষমাত্রা, শুরু হল পথযাত্রা। খেলাপী ঋণ আদায়, রেমিট্যান্স বৃদ্ধি, রপ্তানি, ঋণ ও আমানতের প্রতিশ্রুতি, সম্মানিত গ্রাহকরাই আমাদের শক্তি।’

তিনি আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে তারই সুযোগ্য তনয়া প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সার্বিক নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যাংকের সার্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় খেলাপি ঋণ আদায়, সিএমএসএমই ও কৃষি ঋণ বিতরণ, রেমিট্যান্স ও রপ্তানি আয় বৃদ্ধি এবং গ্রামীন অর্থনীতি ও অন্তর্ভূক্তিমূলক অর্থনৈতিক কার্যক্রমে আরও সমৃদ্ধ হয়ে আধুনিক, যুগোপযোগী ও কার্যকর ব্যাংকিং প্রযু্ক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে উন্নত গ্রাহক সেবা নিশ্চিত করে অত্র ব্যাংকের অর্থনৈতিক ভীত মজবুত করাই আমার লক্ষ্য।’

অনুষ্ঠানে ব্যাংকের চেয়ারম্যান কাজী ছানাউল হক বলেন, রূপালী ব্যাংক দেশের একটি মডেল আর্থিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হবে। এই ধরনের কর্মসূচি সব সময় প্রতিষ্ঠানের জন্য ইতিবাচক ফলাফল বয়ে নিয়ে আসে। এ বিষয়ে ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের পক্ষে থেকে সর্বাত্বক সহায়তার আশ্বস দেন তিনি।

এ সময় ব্যাংকের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক খান ইকবাল হোসেন, মহাব্যবস্থাপক পারসুমা আলম, গোলাম মরতুজা, তাহমিনা আখতার, হারুনুর রশিদ, কাজী আব্দুর রহমান, কাজী ওয়াহিদুল ইসলাম এবং ইকবাল হোসেন খা উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও ভার্চ্যুয়ালি সকল বিভাগীয় কার্যালয়ের মহাব্যবস্থাপক, আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপমহাব্যবস্থাপক, কর্পোরেট শাখার নির্বাহী ও সকল শাখার ব্যবস্থাপকরা সংযুক্ত ছিলেন।

আরও পড়ুন:
কর্মীদের ব্যয় সাশ্রয়ের আহ্বান রূপালী ব্যাংক এমডির
বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে রূপালী ব্যাংকের নতুন এমডির শ্রদ্ধা
রূপালী ব্যাংকে ডিজিটাল নিরাপত্তা সিস্টেম চালু
আজগর আলী হাসপাতালের সঙ্গে রূপালী ব্যাংকের চুক্তি
কৃষি প্রণোদনা বিতরণে রূপালী ব্যাংকের শতভাগ সফলতা

মন্তব্য

আরও পড়ুন

অর্থ-বাণিজ্য
What the central bank said on the issue of strict access to journalists

সাংবাদিক প্রবেশে কড়াকড়ি ইস্যুতে যা জানাল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

সাংবাদিক প্রবেশে কড়াকড়ি ইস্যুতে যা জানাল কেন্দ্রীয় ব্যাংক
বাংলাদেশ ব্যাংকের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে বাংলাদেশ ব্যাংকের অভ্যন্তরে সংবাদকর্মীদের প্রবেশ ও তথ্য সংগ্রহের বিষয়ে বিভিন্ন ধরনের বিভ্রান্তিমূলক তথ্য পরিবেশিত হচ্ছে। সবার অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, গণমাধ্যমকর্মীদের প্রদানযোগ্য সব তথ্য সংগ্রহ ও পরিবেশনের জন্য কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করা হচ্ছে।’

বাংলাদেশ ব্যাংকের অভ্যন্তরে সংবাদকর্মীদের প্রবেশ ও তথ্য সংগ্রহের বিষয় নিয়ে বিভিন্ন ধরনের বিভ্রান্তিমূলক তথ্য পরিবেশিত হচ্ছে বলে দাবি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংকের যোগাযোগ ও প্রকাশনা (ডিসিপি) বিভাগের পরিচালক এবং সহকারী মুখপাত্র সাঈদা খানম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমনটা দাবি জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে বাংলাদেশ ব্যাংকের অভ্যন্তরে সংবাদকর্মীদের প্রবেশ ও তথ্য সংগ্রহের বিষয়ে বিভিন্ন ধরনের বিভ্রান্তিমূলক তথ্য পরিবেশিত হচ্ছে। বিষয়টি স্পষ্টীকরণের নিমিত্তে এ মর্মে সবার অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, গণমাধ্যমকর্মীদের প্রদানযোগ্য সব তথ্য সংগ্রহ ও পরিবেশনের জন্য নিম্নবর্ণিত পদ্ধতি অনুসরণ করা হচ্ছে-

১) বাংলাদেশ ব্যাংক সম্পর্কিত গণমাধ্যমে প্রদানযোগ্য তথ্য, তার ব্যাখ্যা ও সম্পূরক তথ্যাদি প্রদানের জন্য নির্বাহী পরিচালক পর্যায়ের একজন কর্মকর্তা মুখপাত্র হিসেবে এবং পরিচালক পর্যায়ের দুজন কর্মকর্তা সহকারী মুখপাত্র হিসেবে নিয়োজিত রয়েছেন। যে কোনো সংবাদকর্মী অফিস চলাকালীন বাংলাদেশ ব্যাংকের মূল ভবনে প্রবেশ করে উল্লিখিত কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগপূর্বক তথ্য সংগ্রহ ও বক্তব্য গ্রহণ করতে পারেন।

২) কোনো বিশেষ প্রয়োজনে কোনো নির্দিষ্ট কর্মকর্তা থেকে প্রবেশ পাস গ্রহণপূর্বক ওই কর্মকর্তার কাছ থেকে সংবাদকর্মীরা প্রয়োজনীয় তথ্যাদির ব্যাখ্যা গ্রহণ করতে পারেন।

৩) বাংলাদেশ ব্যাংক সময়ে সময়ে প্রেস কনফারেন্স, প্রেস রিলিজ ও অন্যান্য মাধ্যমে সংবাদকর্মীদের প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করছে।

৪) এছাড়াও অবাধ তথ্যপ্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিতকরণের নিমিত্তে বাংলাদেশ ব্যাংক তার কাছে সংরক্ষিত সব অর্থনৈতিক তথ্য ও উপাত্ত প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটে নিয়মিত প্রকাশ করে আসছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক গণমাধ্যমকর্মীদের মাধ্যমে দেশের জনসাধারণের কাছে সব প্রদানযোগ্য তথ্য দেয়ার জন্য বদ্ধপরিকর উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, সে আলোকে বাংলাদেশ ব্যাংক বর্ণিত পদ্ধতিতে তথ্য সরবরাহ ও তার ব্যাখ্যা প্রদান করছে। জাতীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংক দেশের জনগণের কাছে প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহের বিষয়টি সর্বোচ্চ গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করে।

প্রসঙ্গত, এর আগে ২৫ এপ্রিল বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মেজবাউল হক সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংক সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে এখন থেকে সাংবাদিকেরা ব্যাংকের নির্দিষ্ট অনুমতিপত্র (প্রবেশ পাস) নিয়েই কেবল মুখপাত্রের কাছে যেতে পারবেন। তবে কোনো কর্মকর্তা যদি সাংবাদিকদের পাস দেন, সে ক্ষেত্রে তারা শুধু সেই কর্মকর্তার কাছে যেতে পারবেন। আগের মতো তারা অবাধে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কোনো বিভাগে প্রবেশ করতে পারবেন না।

এরপর ৮ মে বাংলাদেশ ব্যাংকের মূল ভবনের জাহাঙ্গীর আলম কনফারেন্স হলে আইএমএফের ঋণের তৃতীয় কিস্তির ছাড় বিষয়ে জরুরি সংবাদ সম্মেলন করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর ড. মো. হাবিবুর রহমান বলেন, ‘সাংবাদিকদের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াতে হবে। এ জন্য সাংবাদিকদের সঙ্গে কেন্দ্রীয় ব্যাংক সপ্তাহে একদিন করে বসবে।’

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এমন অবস্থানের বিরোধিতা করে ওইদিন সংবাদ সম্মেলন বয়কট করেন সাংবাদিকরা। এ প্রসঙ্গে ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরামের (ইআরএফ) সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম বলেন, ‘এই সিদ্ধান্তের মেনে নেয়া হবে না। সাংবাদিকদের আশ্বস্ত করেছিলেন গভর্নর। আমরা চিঠি দেয়ার পরও কোনো সিদ্ধান্ত তারা নেননি। এর প্রতিবাদে আমরা শতাধিক সাংবাদিক কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সংবাদ সম্মেলন বয়কট করেছি। সাংবাদিকদের প্রবেশাধিকার না পাওয়া পর্যন্ত বয়কটের সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে।’

ইআরএফের পক্ষ থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে উল্লেখ করে কাশেম আরও বলেন, ‘সাংবাদিকরা সেনসিটিভ ইস্যু নিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সঙ্গে বসতে চেয়েছে। সাংবাদিকরাই এই খাতের দুর্বলতা তুলে ধরেন। আমরা মনে করি, বাংলাদেশ ব্যাংকের শুভবুদ্ধির উদয় হবে এবং শিগগির সাংবাদিকরা প্রবেশাধিকার ফেরত পাবেন।’

আরও পড়ুন:
নতুন করে রিজার্ভ চুরির খবর সত্য নয়: বাংলাদেশ ব্যাংক
বাংলাদেশ ব্যাংকে সাংবাদিকদের প্রবেশাধিকার নিশ্চিতের দাবি
বাংলাদেশ ব্যাংকে সাংবাদিক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার নিন্দা

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
Islami Banks month long campaign has started

ইসলামী ব্যাংকের মাসব্যাপী ক্যাম্পেইন শুরু

ইসলামী ব্যাংকের মাসব্যাপী ক্যাম্পেইন শুরু ইসলামী ব্যাংক টাওয়ারে মঙ্গলবার প্রধান অতিথি হিসেবে ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করেন ব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মুহাম্মদ মুনিরুল মওলা। ছবি: নিউজবাংলা
প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুহাম্মদ মুনিরুল মওলা বলেন, ‘ইসলামী ব্যাংকের মুদারাবা ফরেন কারেন্সি ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট, মুদারাবা রেসিডেন্ট ফরেন কারেন্সি ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট (আরএফসিডি) ও মুদারাবা ইন্টারন্যাশনাল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট (আইবি) ইতোমধ্যে গ্রাহকদের নিকট জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। এর মাধ্যমে গ্রাহকগণ বৈদেশিক মুদ্রা জমা ও লেনদেন করতে পারছেন।’

‘টুয়ার্ডস এক্সিলেন্স অ্যান্ড বেটার গ্রোথ ইন এফসি অ্যাকাউন্টস্, খিদমাহ কার্ডস্ অ্যান্ড ডেবিট কার্ডস্’ স্লোগানকে সামনে রেখে মাসব্যাপী বিশেষ ক্যাম্পেইন চালু করেছে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ পিএলসি।

ইসলামী ব্যাংক টাওয়ারে মঙ্গলবার প্রধান অতিথি হিসেবে এ ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করেন ব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মুহাম্মদ মুনিরুল মওলা।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন অ্যাডিশনাল ম্যানেজিং ডিরেক্টর মুহাম্মদ কায়সার আলী, জে.কিউ.এম. হাবিবুল্লাহ এফসিএস ও ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর মিফতাহ উদ্দীন।

ডেপুটি ম্যানেজিং ডাইরেক্টর কাজী মো. রেজাউল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. রফিকুল ইসলাম ও এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট আহমেদ জুবায়েরুল হক।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর ড. মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন, ক্যামেলকো তাহের আহমেদ চৌধুরীসহ প্রধান কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন নির্বাহী ও কর্মকর্তারা।

এ ছাড়া ব্যাংকের সব জোনপ্রধান, শাখাপ্রধান ও উপশাখা ইনচার্জরা ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে সংযুক্ত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুহাম্মদ মুনিরুল মওলা বলেন, ‘ইসলামী ব্যাংকের মুদারাবা ফরেন কারেন্সি ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট, মুদারাবা রেসিডেন্ট ফরেন কারেন্সি ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট (আরএফসিডি) ও মুদারাবা ইন্টারন্যাশনাল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট (আইবি) ইতোমধ্যে গ্রাহকদের নিকট জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। এর মাধ্যমে গ্রাহকগণ বৈদেশিক মুদ্রা জমা ও লেনদেন করতে পারছেন।

‘ব্যাংকের এডি শাখা ও অফশোর ব্যাংকিং ইউনিটে এসব অ্যাকাউন্ট খোলা যায় এবং ইসলামী শরিয়াহ মুদারাবা নীতির ভিত্তিতে এসব অ্যাকাউন্টে আকর্ষণীয় মুনাফা প্রদান করা হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে পদার্পণ করেছি। বর্তমানে ডিজিটাল প্রোডাক্টগুলোর ব্যাপক সম্প্রসারণ হয়েছে। পেমেন্ট সিস্টেমে এসেছে বৈপ্লবিক পরিবর্তন। স্মার্ট ব্যাংকিংকে সর্বোন্নত পর্যায়ে নিয়ে যেতে ইসলামী ব্যাংক কাজ করে যাচ্ছে। আধুনিক ও বৈচিত্র্যময় কার্ড সেবার মাধ্যমে গ্রাহক সেবা উন্নতকরণ এবং দেশে-বিদেশে ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশনে অবদান রেখে চলেছে এ ব্যাংক।

‘ইসলামী ব্যাংকের খিদমাহ ক্রেডিট কার্ড ও ডেবিট কার্ড ব্যবহার করে গ্রাহকগণ বিভিন্ন হোটেল-রেস্টুরেন্ট, হাসপাতাল ও এয়ারপোর্ট লাউঞ্জে ডিসকাউন্ট সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।’

তিনি ব্যাংকের আধুনিক সেবাগুলো সব স্তরের মানুষের কাছে পৌঁছাতে কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানান।

আরও পড়ুন:
নতুন করে রিজার্ভ চুরির খবর সত্য নয়: বাংলাদেশ ব্যাংক
সোনালী ব্যাংকের সঙ্গে বিডিবিএলকে একীভূত করতে চুক্তি সই
ইসলামী ব্যাংকের বরিশাল জোনের কর্মকর্তা সম্মেলন অনুষ্ঠিত
ইসলামী ব্যাংকের হজ বুথ উদ্বোধন
সোনালী ব্যাংকের বিশেষ পর্ষদ সভা অনুষ্ঠিত

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
News of new reserve theft not true Bangladesh Bank

নতুন করে রিজার্ভ চুরির খবর সত্য নয়: বাংলাদেশ ব্যাংক

নতুন করে রিজার্ভ চুরির খবর সত্য নয়: বাংলাদেশ ব্যাংক
বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র বলেন, নিউ ইয়র্ক ফেডের সঙ্গে লেনদেনে নিশ্চয়তার ক্ষেত্রে বর্তমানে তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নীতি চালু রয়েছে। রিজার্ভ চুরির যে খবর প্রকাশিত হয়েছে তা সম্পূর্ণ ভুয়া।

ভারতে একটি অনলাইন সংবাদমাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ফের রিজার্ভ চুরিসংক্রান্ত প্রতিবেদনের সত্যতা নাকচ করে দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র মেজবাউল হক মঙ্গলবার জানান, অনলাইন পোর্টালে প্রকাশিত প্রতিবেদনটিতে যে তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ ভুয়া।

ভারতের ওই অনলাইন পোর্টালে রিজার্ভ চুরির প্রতিবেদন প্রকাশের পর এ নিয়ে ব্যাংকপাড়াসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়। অনেকে এ তথ্যের সত্যতা যাচাইয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র এ বিষয়ে বলেন, নিউ ইয়র্ক ফেডের সঙ্গে লেনদেনে নিশ্চয়তার ক্ষেত্রে বর্তমানে তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নীতি চালু রয়েছে। রিজার্ভ চুরির যে খবর প্রকাশিত হয়েছে তা সম্পূর্ণ ভুয়া।

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
Signed agreement to merge BDBL with Sonali Bank

সোনালী ব্যাংকের সঙ্গে বিডিবিএলকে একীভূত করতে চুক্তি সই

সোনালী ব্যাংকের সঙ্গে বিডিবিএলকে একীভূত করতে চুক্তি সই
সোনালী ব্যাংক ও বিডিবিএলের প্রতিনিধিদের পাশাপাশি বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সোনালী ব্যাংকের সঙ্গে একীভূত হচ্ছে বেসরকারি বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক লিমিটেড (বিডিবিএল)।

রোববার বাংলাদেশ ব্যাংকে অনুষ্ঠিত এক সভায় এ সংক্রান্ত এতটি চুক্তি সই হয়।

এতে সোনালী ব্যাংক ও বিডিবিএলের প্রতিনিধিদের পাশাপাশি বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

চুক্তির পর নানা প্রক্রিয়া শেষে একীভূত হবে ব্যাংক দুটি।

বিডিবিএলের চেয়ারম্যান শামীমা নার্গিস পরে বলেন, ‘দুই ব্যাংকের পর্ষদ মিলে একীভূত হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যেটা ভালো হয়, সেটাই করা হয়েছে।’

সোনালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান জিয়াউল হাসান সিদ্দিকী বলেন, ‘আমাদের দুই ব্যাংকের দুই ধরনের অভিজ্ঞতা আছে। সেগুলো কাজে লাগিয়ে আমরা এগিয়ে যাব।’

বিডিবিএলের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের শঙ্কিত বা আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই বলে জানিয়েছেন সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আফজাল করিম।

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
Islami Bank Barisal zone officials conference held

ইসলামী ব্যাংকের বরিশাল জোনের কর্মকর্তা সম্মেলন অনুষ্ঠিত

ইসলামী ব্যাংকের বরিশাল জোনের কর্মকর্তা সম্মেলন অনুষ্ঠিত বরিশাল জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে শুক্রবার সম্মেলনে ব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মুহাম্মদ মুনিরুল মওলা প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন। ছবি: নিউজবাংলা
সম্মেলনে ব্যাংকের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান ও মো. নুরুজ্জামানসহ বরিশাল জোনের অধীন শাখাগুলোর প্রধান, উপশাখা ইনচার্জ ও সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশ নেন।

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ পিএলসির বরিশাল জোনের কর্মকর্তাদের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বরিশাল জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে শুক্রবার এ সম্মেলনে ব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মুহাম্মদ মুনিরুল মওলা প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন।

ব্যাংকের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. মাকসুদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকের অ্যাডিশনাল ম্যানেজিং ডিরেক্টর জে কিউ এম হাবিবুল্লাহ, এফসিএস এবং সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. রফিকুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন বরিশাল জোনপ্রধান মো. আবদুস সোবহান।

সম্মেলনে ব্যাংকের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান ও মো. নুরুজ্জামানসহ বরিশাল জোনের অধীন শাখাগুলোর প্রধান, উপশাখা ইনচার্জ ও সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশ নেন।

আরও পড়ুন:
গ্লোবাল ইসলামী ব্যাংকের ‘ত্রৈমাসিক ব্যবসা পর্যালোচনা সভা-২০২৪’ অনুষ্ঠিত
ইসলামী ব্যাংকের নোয়াখালী জোনের কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত
স্থায়ী জনকল্যাণের অনন্য উপায় ইসলামী ব্যাংকের ‘ওয়াক্ফ হিসাব’
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ইসলামী ব্যাংকের শ্রদ্ধা
বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে গ্লোবাল ইসলামী ব্যাংকের চুক্তি

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
In the open market the dollar crisis rate has risen to 125 taka

খোলা বাজারে ডলার সংকট, দর উঠে গেছে ১২৫ টাকায়

খোলা বাজারে ডলার সংকট, দর উঠে গেছে ১২৫ টাকায়
বাংলাদেশ ব্যাংক বুধবার ‘ক্রলিং পেগ’ পদ্ধতি চালু করে একদিনেই ডলারের বিনিময় হার ৭ টাকা বাড়িয়ে দেয়। আর বাড়তি মুনাফার জন্য ব্যবসায়ীদের মুদ্রা মজুতদারির খবরে পরদিন খোলা বাজারে ডলার খুঁজে পাওয়া কঠিন হয়ে পড়ে।

বাংলাদেশ ব্যাংক এক ধাপে ডলারের বিনিময় হার ৭ টাকা বাড়ানোর একদিন পর বৃহস্পতিবার অনানুষ্ঠানিক খোলা বাজার থেকে ডলার প্রায় উধাও হয়ে যায়।

টাকায় ডলারের বিনিময় হার নির্ধারণে বুধবার ‘ক্রলিং পেগ’ পদ্ধতি চালু করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ পদ্ধতি প্রয়োগ করে একদিনেই ডলারের বিনিময় হার ৭ টাকা বাড়িয়ে দেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

ফলে ভবিষ্যতে বাড়তি মুনাফার জন্য ব্যবসায়ীদের মুদ্রা মজুতদারির খবরে খোলা বাজারে ডলার খুঁজে পাওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে। এমনকি মরিয়া ক্রেতারা তাদের বিদেশে যাতায়াত ও চিকিৎসার খরচ মেটাতে খোলা বাজারে এক ডলারের জন্য ১২৫ টাকা পর্যন্ত পরিশোধ করেছেন বলে জানা গেছে।

বেসরকারি চাকরিজীবী মুনিরা আহসান বৃহস্পতিবার ইউএনবিকে বলেন, ‘থাইল্যান্ডে আমার বাবার চিকিৎসার জন্য খোলা বাজার থেকে পাঁচ হাজার ডলার কেনার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু দেখেছি, খোলা বাজারে প্রতি ডলার ১২৫ টাকার বিনিময়ে পাওয়া যাচ্ছে।’

মুনিরা জানালেন, এর আগে তিনি ব্যাংক থেকে ডলার কিনতে চেয়েছিলেন। কিন্তু ব্যাংকগুলো একাধিক নথি চেয়েছিল এবং পাঁচ হাজার ডলার ক্রয় করা নিয়ে তাদের অনেক প্রশ্ন ছিল। একটি ব্যাংক পাঁচ ধরনের কাগজপত্র নিয়ে হাজির হলে তারা মাত্র ৫০০ ডলার সরবরাহ করতে রাজি হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পল্টনের এক মানি চেঞ্জার বলেন, ৮ মে পর্যন্ত অপ্রাতিষ্ঠানিক বাজারে ডলারের দর ১১৭ টাকার আশপাশে থাকলেও কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে বিনিময় হার বাড়ানোর ঘোষণার পর হঠাৎ করে তা বেড়ে গেছে।

‘এটা শুধু ইউএস ডলারের ক্ষেত্রেই ঘটেনি। হজ মৌসুম শুরু হওয়ায় সৌদি রিয়ালের চাহিদা বেশি থাকায় অন্যান্য মুদ্রার বিনিময় হারও রাতারাতি ৪-৫ টাকা বেড়ে গেছে।’

নগদ ডলার ও অন্যান্য প্রধান মুদ্রার প্রধান উৎস খোলা বাজারে একদিনের ব্যবধানে বিনিময় হার ৭ টাকা বাড়ানোর খবর গণমাধ্যমে প্রকাশের একদিন পরই বিনিময় হার লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে।

মান্নান মিয়া বেশ কয়েক বছর ধরে খোলা বাজারে ডলার বিক্রি করছেন। বৃহস্পতিবার ক্রেতা পরিচয় দিয়ে তার সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করে ইউএনবি। তিনি প্রথমে বলেন যে ডলার পাওয়া যাচ্ছে না। পরে তিনি ১১৯ টাকা দরে ডলার বিক্রি করতে রাজি হন।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মেজবাউল হক ইউএনবিকে বলেন, ‘ব্যাংকে পর্যাপ্ত ডলার রয়েছে এবং মানুষ ডলার কিনতে ব্যাংকে যেতে পারে।

‘আমাদের খুচরা বিক্রির জন্য ডলারের পর্যাপ্ত রিজার্ভ আছে এবং সরবরাহ ভালো। এখন কে বিক্রি করবে বা করবে না সেটা তার ব্যাপার। যারা মানি এক্সচেঞ্জে ডলার পাননি তারা ব্যাংক থেকে ডলার কিনতে পারেন। খুচরা ও এলসি চাহিদা মেটাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এখন ৫০ মিলিয়ন ডলার রিজার্ভ রয়েছে।’

বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও আইএমএফের সাবেক কর্মকর্তা ড. আহসান এইচ মনসুর বলেন, ‘খোলা বাজারে ডলারের সাময়িক ঘাটতি মেটাতে ব্যাংকগুলোতে ডলার সরবরাহ বাড়াতে হবে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে।

‘ডলার ব্যবসায়ীরা বৈদেশিক মুদ্রার দর আরও বাড়ানোর সংকেত পেয়েছেন। আর সে কারণে তারা স্টক রাখার পর ডলার ঘাটতির কথা বলছেন। সরবরাহ বাড়লে বিনিময় হার কমবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘খোলাবাজারে বিনিময় হার সব সময়ই ব্যাংকের চেয়ে বেশি থাকে। কখনও কখনও বাজার তদারকির অভাবে তা অস্বাভাবিক পর্যায়ে বেড়ে যায়।’

আরও পড়ুন:
ডলারের দাম এক লাফে বেড়েছে ৭ টাকা
ডলারের বিপরীতে ৩৪ বছরের সর্বনিম্নে জাপানি ইয়েনের দর
ডলারের তেজ কমে আসছে, বাড়ছে টাকার মান
বাণিজ্যিক ব্যাংকের সঙ্গে টাকা-ডলার বিনিময় চালু করল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
Inauguration of Islami Bank Hajj booth

ইসলামী ব্যাংকের হজ বুথ উদ্বোধন

ইসলামী ব্যাংকের হজ বুথ উদ্বোধন
বুধবার ব্যাংকের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মুহাম্মদ মুনিরুল মওলা প্রধান অতিথি হিসেবে এ বুথের উদ্বোধন করেন।

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ পিএলসি হজযাত্রীদের সেবার জন্য ঢাকার আশকোনাস্থ হজ ক্যাম্পে বিশেষ বুথ চালু করেছে।

বুধবার ব্যাংকের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মুহাম্মদ মুনিরুল মওলা প্রধান অতিথি হিসেবে এ বুথের উদ্বোধন করেন।

ব্যাংকের অ্যাডিশনাল ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মুহাম্মদ কায়সার আলী, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মোঃ মাকসুদুর রহমান, হজ ক্যাম্পের পরিচালক (উপসচিব) মুহাম্মদ কামরুজ্জামান, ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. ওমর হায়াত চৌধুরী ও মো. সোলাইমান সহ ব্যাংক ও হজ ক্যাম্পের কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

হজ বুথে হজযাত্রীদের ডলার ও সৌদি রিয়াল এনডোর্সমেন্ট ও বিনিময় সেবা, এটিএম ও তথ্য সেবা এবং হজ পালনের গাইড বই প্রদান করা হচ্ছে। ইসলামী ব্যাংক প্রতিবছর আশকোনস্থ এ হজ্জ ক্যাম্পে বুথ স্থাপনের মাধ্যমে হজ্জযাত্রীদেরকে ব্যাংকিং সেবা, তথ্য ও হজ্জে ব্যবহার উপযোগী উপহার সামগ্রী দিয়ে আসছে।

ব্যাংকিং সেবার মধ্যে হজ্জযাত্রীদেরকে বাংলা টাকার বিনিময়ে বৈদেশিক মুদ্রা যেমন সৌদি রিয়াল ও ডলার সরবরাহ করা, ডেবিট ও খিদমাহ (ক্রেডিট) কার্ড এন্ডোর্সমেন্ট করে দেওয়া ও এটিএম বুথ সার্ভিস প্রদান করা হচ্ছে। ডেবিট ও খিদমাহ (ক্রেডিট) কার্ড এন্ডোর্সমেন্টের মাধ্যমে হজ্জযাত্রীরা সৌদিআরবে ভিসা লোগো সম্বলিত যেকোন বুথ থেকে রিয়াল উত্তোলন করতে পারবেন। হজ্জযাত্রীদের ব্যাংকিং সংক্রান্ত সকল প্রকার তথ্যাদি সরবরাহ করা হয়।

সেবাগ্রহণকারীদের ইসলামী ব্যাংকের পক্ষ থেকে উপহার হিসেবে ছাতা, হ্যান্ডব্যাগ, জুতোর ব্যাগ ও মিনায় পাথর নিক্ষেপের জন্য পাথর রাখার ব্যাগ প্রদান করা হয়। হজ্জ পালনের নিয়মাবলী ও প্রক্রিয়া সম্পর্কে সচেতন করতে বিভিন্ন তথ্য সম্বলিত লিফলেট ও হজ্জ গাইডলাইন প্রদান করা হয়। এই সব উপকরণ হজযাত্রীদের জন্য সহায়ক এবং হজ পালনকে আরও সহজ এবং সুবিধাজনক করে তোলে। হজক্যাম্প থেকে বিমান পর্যন্ত যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সকে ব্যাংকের পক্ষ থেকে বাস সরবরাহ করা হয়েছে। প্রেস রিলিজ

মন্তব্য

p
উপরে