× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

অর্থ-বাণিজ্য
US invests 28 billion to counter China in technology
google_news print-icon

প্রযুক্তিতে চীনকে মোকাবিলায় ২৮ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ যুক্তরাষ্ট্রের

প্রযুক্তিতে-চীনকে-মোকাবিলায়-২৮-হাজার-কোটি-ডলার-বিনিয়োগ-যুক্তরাষ্ট্রের
প্রযুক্তি খাতে বিপুল বিনিয়োগ নিশ্চিতের আইনে যুক্তরাষ্ট্রে কম্পিউটার চিপ উৎপাদন কারখানা নির্মাণকারী কোম্পানিগুলোর করে ছাড় দেয়ার কথা বলা হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত
চীনের ওপর নির্ভরশীলতা কমানোর অংশ হিসেবে আরও সমর্থন দিতে যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে দীর্ঘদিন ধরে চাপ দিয়ে আসছিল বিভিন্ন শিল্পগোষ্ঠী। মাইক্রোচিপের বৈশ্বিক স্বল্পতা তাদের এ আহ্বানকে আরও জোরালো করে।

অত্যাধুনিক প্রযুক্তি পণ্য উৎপাদন ও বৈজ্ঞানিক গবেষণায় ২৮ হাজার কোটি ডলার বরাদ্দের প্রতিশ্রুতি দেয়া একটি আইনে সই করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

প্রযুক্তি খাতে চীনের এগিয়ে যাওয়ার শঙ্কার মধ্যে স্থানীয় সময় মঙ্গলবার আইনটিতে সই করেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট।

প্রযুক্তি খাতে বিপুল বিনিয়োগ নিশ্চিতের এ আইনে যুক্তরাষ্ট্রে কম্পিউটার চিপ উৎপাদন কারখানা নির্মাণকারী কোম্পানিগুলোর করে ছাড় দেয়ার কথা বলা হয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, চীনের ওপর নির্ভরশীলতা কমানোর অংশ হিসেবে আরও সমর্থন দিতে যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে দীর্ঘদিন ধরে চাপ দিয়ে আসছিল বিভিন্ন শিল্পগোষ্ঠী। মাইক্রোচিপের বৈশ্বিক স্বল্পতা তাদের এ আহ্বানকে আরও জোরালো করে।

আইনটির বিষয়ে ডেমোক্রেটিক পার্টির বর্ষীয়ান রাজনীতিক ও যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা চাক শুমার বলেন, এটি পটপরিবর্তন করে দেবে, যা আগামী শতকে আমেরিকার নেতৃত্ব ও সমৃদ্ধি নিশ্চিত করবে।

প্রযুক্তি খাতে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী চীনের কথা উল্লেখ না করে শুমার বলেন, ‘আমাদের পিছিয়ে পড়তে দেখে কর্তৃত্ববাদীরা উল্লসিত ছিল এবং ভেবেছিল আমরা নির্বিকার বসে থাকব। চিপস অ্যান্ড সায়েন্স অ্যাক্ট পাসের মধ্য দিয়ে আমরা আরেকটি মহান আমেরিকান শতক নিশ্চিতের বিষয়টি খোলাসা করে দিচ্ছি।’

যুক্তরাষ্ট্র বর্তমানে বিশ্বের মোট সেমিকনডাক্টরের ১০ শতাংশের মতো জোগান দেয়। গাড়ি থেকে মোবাইল ফোনের মতো নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ এই সেমিকনডাক্টর। ১৯৯০ সালে সেমিকনডাক্টরের বৈশ্বিক জোগানের প্রায় ৪০ শতাংশ দিত যুক্তরাষ্ট্র।

এ খাতে হারানো প্রভাব ফিরিয়ে আনতেই বিপুল পরিমাণ বিনিয়োগের পথ তৈরি করল বাইডেনের নেতৃত্বাধীন প্রশাসন।

আইনটিতে সমর্থন দিয়েছে বিরোধী রিপাবলিকান পার্টিও।

আরও পড়ুন:
যুক্তরাষ্ট্রের ফোন ‘ধরছে না’ চীন
উত্তেজনা বাড়িয়ে তাইওয়ানে শান্তি চাইলেন পেলোসি
চীনকে মোকাবিলায় ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন তাইওয়ানের
তাইওয়ান প্রণালিতে যাবে যুক্তরাষ্ট্রের রণতরি
তাইওয়ানে ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ল চীন

মন্তব্য

আরও পড়ুন

অর্থ-বাণিজ্য
Netanyahu gets invitation to US despite arrest warrant application

গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদন সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্রে আমন্ত্রণ পাচ্ছেন নেতানিয়াহু

গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদন সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্রে আমন্ত্রণ পাচ্ছেন নেতানিয়াহু যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশনে ২০১৫ সালের মার্চে সর্বশেষ ভাষণ দেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। ছবি: নিউ ইয়র্ক টাইমস
কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশনে ভাষণের জন্য বিদেশি নেতাদের আমন্ত্রণকে বিরল সম্মান হিসেবে দেখা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের ঘনিষ্ঠতম মিত্র বা বিশ্বজুড়ে পরিচিত কোনো ব্যক্তিকে এ ধরনের সুযোগ দেয়া হয়।

আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদন সত্ত্বেও ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে আমন্ত্রণের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভসের স্পিকার মাইক জনসন।

নেদারল্যান্ডসের হেগভিত্তিক আইসিসির প্রসিকিউটর করিম খান সোমবার জানান, ২০২৩ সালের ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে ঢুকে হামাসের হামলা এবং পরবর্তী সময়ে গাজায় ইসরায়েলের হামলার ঘটনায় যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে কয়েকজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদন করা হয়েছে। তাদের মধ্যে রয়েছেন গাজায় হামাসের প্রধান ইয়াহইয়া সিনওয়ার, দলটির সামরিক শাখা আল কাসাম ব্রিগেডসের প্রধান মোহাম্মদ দেইফ ও রাজনৈতিক ব্যুরোর প্রধান ইসমাইল হানিয়া এবং ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ও দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইউআভ গালান্ট।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, আইসিসির এ ঘোষণার এক দিন পর মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের নিম্নকক্ষের স্পিকার মাইক জনসন জানান, তিনি এখনও নেতানিয়াহুকে আমন্ত্রণপত্র পাঠাননি। কারণ তিনি কংগ্রেসে যৌথ অধিবেশনে নেতানিয়াহু আমন্ত্রণের চিঠিতে উচ্চকক্ষ সিনেটের ডেমোক্রেটিক পার্টির নেতা চাক শুমারের সাড়ার অপেক্ষায় আছেন।

জনসন আরও জানান, শুমার চিঠিতে সই করতে রাজি না হলে নেতানিয়াহুকে কংগ্রেসের নিম্নকক্ষে আমন্ত্রণ জানানো হবে।

কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশনে ভাষণের জন্য বিদেশি নেতাদের আমন্ত্রণকে বিরল সম্মান হিসেবে দেখা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের ঘনিষ্ঠতম মিত্র বা বিশ্বজুড়ে পরিচিত কোনো ব্যক্তিকে এ ধরনের সুযোগ দেয়া হয়।

নেতানিয়াহু এরই মধ্যে তিনবার সেই সুযোগ পেয়েছেন, যার সর্বশেষটি ছিল ২০১৫ সালে।

আরও পড়ুন:
ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতির তারিখ ঘোষণা করবে স্পেন
যুদ্ধাপরাধে নেতানিয়াহু-হানিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদন
ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুর সঙ্গে ইসরায়েল জড়িত নয়: কর্মকর্তা
নেতানিয়াহুর মন্ত্রিসভা ছাড়ার হুমকি সাবেক জেনারেল গানৎজের
গাজায় হামাসপ্রধান সিনওয়ারের খোঁজে যুক্তরাষ্ট্র

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
What did the US say about lifting the ban on RAB?

র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার প্রশ্নে কী বলল যুক্তরাষ্ট্র

র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার প্রশ্নে কী বলল যুক্তরাষ্ট্র
যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখ্য উপমুখপাত্র ভেদান্ত প্যাটেল। ফাইল ছবি
র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার নিয়ে প্রশ্নের জবাবে ভেদান্ত প্যাটেল বলেন, ‌‌‌‘এসব দাবি মিথ্যা। যুক্তরাষ্ট্র র‌্যাবের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করছে না। এসব দাবি মিথ্যা। নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয় আচরণ পরিবর্তন ও জবাবদিহিতা বাড়াতে।’

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের বিষয়ে খোলাখুলি অবস্থান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের ব্রিফিংয়ে এক প্রশ্নের জবাবে দেশটির অবস্থান ব্যক্ত করেন মুখ্য উপমুখপাত্র ভেদান্ত প্যাটেল।

মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে র‌্যাব এবং এর বর্তমান ও সাবেক সাত কর্মকর্তার ওপর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নেতৃত্বাধীন প্রশাসন নিষেধাজ্ঞা দেয় ২০২১ সালের ১০ ডিসেম্বর।

ঢাকায় সফর শেষ করা যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু গত বুধবার সন্ধ্যায় দৈনিক প্রথম আলো ও বেসরকারি টিভি চ্যানেল ইনডিপেনডেন্ট টিভিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা নিয়ে কথা বলেন।

র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার নিয়ে প্রথম আলোর এক প্রশ্নের জবাবে লু বলেন, ‘র‌্যাবের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা এখনও বহাল আছে। এক বছর আগে বাংলাদেশ সফরের সময় র‌্যাবের বিষয়ে হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রতিবেদনের প্রসঙ্গ তুলেছিলাম। হিউম্যান রাইটস ওয়াচ গত বছর তাদের প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছিল, র‌্যাবের হাতে বিচারবহির্ভূত হত্যা ও গুম নাটকীয়ভাবে কমে গেছে। এটা বিরাট ঘটনা। এটা অবশ্যই ভালো অগ্রগতি উল্লেখ করেই বলতে চাই, আমাদের এখনও উদ্বেগ রয়ে গেছে।’

এমন বাস্তবতায় বাংলাদেশ বিষয়ে প্রশ্নকারী সাংবাদিক ব্রিফিংয়ে ভেদান্ত প্যাটেলের উদ্দেশে বলেন, ‘সফররত সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লুর সঙ্গে বৈঠকের পর বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা রিপোর্টারদের বলেছেন যে, হোয়াইট হাউস ও স্টেট ডিপার্টমেন্ট র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে খুবই আগ্রহী, যেটা দেয়া হয়েছিল গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘন ও বিচার-বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের কারণে। সুতরাং তিনি বলেছেন যে, স্টেট ডিপার্টমেন্ট ও হোয়াইট হাউস নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে কাজ করছে।’

উল্লিখিত প্রশ্নের জবাবে ভেদান্ত প্যাটেল বলেন, ‌‌‌‘এসব দাবি মিথ্যা। যুক্তরাষ্ট্র র‌্যাবের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করছে না। এসব দাবি মিথ্যা। নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয় আচরণ পরিবর্তন ও জবাবদিহিতা বাড়াতে।’

আরও পড়ুন:
ভারতকে নিষেধাজ্ঞার হুমকি যুক্তরাষ্ট্রের
ঢাকায় হাসের উত্তরসূরি হিসেবে বাইডেনের মনোনয়ন পেলেন মিল
বাইডেনের হুঁশিয়ারি উপেক্ষা করে রাফায় ইসরায়েলের হামলা
এমআইটি’র ক্যাম্প পুনরুদ্ধার করেছে ফিলিস্তিনপন্থী বিক্ষোভকারীরা
যুক্তরাষ্ট্রে ফিলিস্তিনপন্থী বিক্ষোভ থেকে ২২০০ শিক্ষার্থী আটক

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
4 dead in heavy storms in the United States

যুক্তরাষ্ট্রে প্রবল ঝড়-বৃষ্টিতে ৪ প্রাণহানি

যুক্তরাষ্ট্রে প্রবল ঝড়-বৃষ্টিতে ৪ প্রাণহানি ঝড়-বৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত একটি এলাকা। ছবি: সিএনএন
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করা ভিডিও ফুটেজে এবং বিভিন্ন ছবিতে দেখা যায়, প্রচণ্ড বাতাসে উড়ে যাওয়া জানালার কাঁচের ভাঙ্গা টুকরোয় হিউস্টনের রাস্তাগুলো ঢাকা পড়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় টেক্সাস রাজ্যে ঝড় ও প্রবল বর্ষণে অন্তত ৪ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাত ও শুক্রবার ভোরে তাদের মৃত্যু হয় বলে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের বরাতে জানিয়েছে সিএনএন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করা ভিডিও ফুটেজে এবং বিভিন্ন ছবিতে দেখা যায়, প্রচণ্ড বাতাসে উড়ে যাওয়া জানালার কাঁচের ভাঙ্গা টুকরোয় হিউস্টনের রাস্তাগুলো ঢাকা পড়েছে।

জাতীয় আবহাওয়া অফিস ‘প্রচণ্ড’ বজ্রঝড় এবং সম্ভাব্য টর্নেডো সম্পর্কে সতর্ক করে দিয়েছে।

এমন দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে বহু গাছ ভেঙ্গে পড়ায় এবং বিদ্যুত লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় হিউস্টনের প্রায় ১০ লাখ গ্রাহক বিদ্যুত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।

টেক্সাসের মেয়র জন হুইটমায়ার সাংবাদিকদের বলেন, দুর্যোগে অনেক মানুষ তাদের গাড়ির ভিতরে অটকা পড়ে। তবে সেখানের পরিস্থিতির ব্যাপারে বিস্তারিত আর কিছু জানা যায়নি। ঝড়বৃষ্টিতে ৪ জন মারা গেছেন।

তিনি আরও বলেন, এ সময় প্রতি ঘণ্টায় ৮০ থেকে সর্বোচ্চ ১০০ মাইল বেগে বাতাস বয়ে যায়।

হুইটমায়ার বাসিন্দাদের হিউস্টনের মধ্যাঞ্চল এড়িয়ে চলার আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, এমন দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতে শুক্রবার পাবলিক স্কুলগুলো বন্ধ থাকবে এবং অফিসের জন্য একেবারে অত্যাবশ্যকীয় নয় এমন কর্মীদেরও বাড়িতে থাকতে বলা হয়েছে।

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
Indias response to US sanctions warning
চাবাহার বন্দর পরিচালনা চুক্তি

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার হুঁশিয়ারির জবাব ভারতের

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার হুঁশিয়ারির জবাব ভারতের ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। ছবি: পিটিআই
যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কবার্তার এক দিন পর বুধবার জয়শঙ্কর বলেছেন, বন্দরকেন্দ্রিক প্রকল্পটি পুরো অঞ্চলকে উপকৃত করবে এবং এ নিয়ে লোকজনের সংকীর্ণ দৃষ্টিভঙ্গি থাকা উচিত নয়।

ইরানের চাবাহার সমুদ্র বন্দর পরিচালনা নিয়ে দেশটির সঙ্গে ভারতের ১০ বছর মেয়াদি চুক্তির পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞার সম্ভাব্য ঝুঁকির বিষয়ে যে সতর্কবার্তা দিয়েছে, তার জবাব দিয়েছেন দক্ষিণ এশিয়ার দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়, যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কবার্তার এক দিন পর বুধবার জয়শঙ্কর বলেছেন, বন্দরকেন্দ্রিক প্রকল্পটি পুরো অঞ্চলকে উপকৃত করবে এবং এ নিয়ে লোকজনের সংকীর্ণ দৃষ্টিভঙ্গি থাকা উচিত নয়।

তিনি উল্লেখ করেন, অতীতে চাবাহার বন্দরের বৃহত্তর প্রাসঙ্গিকতার তারিফ করেছে খোদ যুক্তরাষ্ট্র।

নিজের লেখা ‘ওয়াই ভারত ম্যাটার্স’ বইয়ের বাংলা সংস্করণের মোড়ক উন্মোচন উপলক্ষে আয়োজিত মতবিনিময় অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন জয়শঙ্কর।

চাবাহার বন্দর নিয়ে চুক্তির বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের মন্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমি মন্তব্যের কিছু অংশ দেখেছি, তবে আমি মনে করি এটি যোগাযোগ, বোঝানো ও লোকজনের বোঝার বিষয় যে, এটি (চুক্তি) মূলত সবার কল্যাণের জন্য করা হয়েছে। এ নিয়ে লোকজনের সংকীর্ণ দৃষ্টিভঙ্গি থাকা উচিত বলে মনে করি না।’

এর আগে স্থানীয় সময় মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে সতর্ক করে বলা হয়, ইরানের সঙ্গে বাণিজ্যিক চুক্তির বিষয়ে ভাবা যে কারও নিষেধাজ্ঞার সম্ভাব্য ঝুঁকির বিষয়ে সতর্ক থাকা উচিত।

আরও পড়ুন:
বাইডেনের হুঁশিয়ারি উপেক্ষা করে রাফায় ইসরায়েলের হামলা
ভারতের পররাষ্ট্র সচিব ঢাকায়
এমআইটি’র ক্যাম্প পুনরুদ্ধার করেছে ফিলিস্তিনপন্থী বিক্ষোভকারীরা
লোকসভা নির্বাচন: তৃতীয় ধাপে ভোট দিলেন মোদি
যুক্তরাষ্ট্রে ফিলিস্তিনপন্থী বিক্ষোভ থেকে ২২০০ শিক্ষার্থী আটক

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
Israel may be violating international law with American weapons
বাইডেন প্রশাসনের ভাষ্য

আমেরিকান অস্ত্র দিয়ে আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে থাকতে পারে ইসরায়েল

আমেরিকান অস্ত্র দিয়ে আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে থাকতে পারে ইসরায়েল ইসরায়েলের হামলায় বিধ্বস্ত গাজার একটি এলাকা। ফাইল ছবি
যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট ৪৬ পৃষ্ঠার প্রতিবেদনে অস্ত্রের ব্যবহার নিয়ে এ মূল্যায়ন তুলে ধরেছে, যা কংগ্রেসে জমা দেয়া হয়েছে।

ফিলিস্তিনের গাজায় সামরিক অভিযানে আমেরিকার সরবরাহ করা অস্ত্র ব্যবহার করে ইসরায়েল আন্তর্জাতিক মানবিক আইন লঙ্ঘন করে থাকতে পারে বলে মনে করছে যুক্তরাষ্ট্র।

দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নেতৃত্বাধীন প্রশাসন স্থানীয় সময় শুক্রবার এ বক্তব্য দিয়েছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

বার্তা সংস্থাটির খবরে বলা হয়, গাজায় গত বছরের ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের হামলা শুরুর পর যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে এটিই মিত্র রাষ্ট্রটির সবচেয়ে কড়া সমালোচনা।

আমেরিকান অস্ত্র ব্যবহার করে ইসরায়েলের সম্ভাব্য আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন নিয়ে বাইডেন প্রশাসন সুনির্দিষ্ট কোনো মূল্যায়ন করেনি।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যুদ্ধকালীন গোলমেলে পরিস্থিতিতে ইসরায়েলের সম্ভাব্য আইন লঙ্ঘনের সুনির্দিষ্ট ঘটনা যাচাই-বাছাই করা যায়নি।

যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট ৪৬ পৃষ্ঠার প্রতিবেদনে অস্ত্রের ব্যবহার নিয়ে এ মূল্যায়ন তুলে ধরেছে, যা কংগ্রেসে জমা দেয়া হয়েছে।

গাজার রাফাহতে ইসরায়েলের হামলা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দেশটির তিক্ততা বাড়ার মধ্যে প্রতিবেদনটি মিত্র দুই রাষ্ট্রের বিরোধ আরও বাড়ানোর ঝুঁকি তৈরি করেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন:
এমআইটি’র ক্যাম্প পুনরুদ্ধার করেছে ফিলিস্তিনপন্থী বিক্ষোভকারীরা
রাফাহ ক্রসিংয়ের নিয়ন্ত্রণ নিল ইসরায়েল
যুদ্ধবিরতিতে ‘রাজি’ হামাস
কায়রোর বৈঠক ‘ব্যর্থ’, গাজায় যুদ্ধবিরতি হচ্ছে না
ইসরায়েলে আল জাজিরার সম্প্রচার বন্ধ

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
The Pulitzer Prize is being awarded today

পুলিৎজার পুরস্কার দেয়া হচ্ছে আজ

পুলিৎজার পুরস্কার দেয়া হচ্ছে আজ সাংবাদিকতা ছাড়াও সাহিত্য, সংগীত ও নাটকে বিশেষ অবদানের জন্য ১৯১৭ সাল থেকে এ পুরস্কার দেয়া হচ্ছে। ছবি: সংগৃহীত
গত ৭ অক্টোবর হামাসের অতর্কিত ইসরায়েলে হামলা ও তার পর থেকে গাজায় ইসরায়েলের আগ্রাসন এবারের পুলিৎজার প্রদানের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সাংবাদিকতার ‘নোবেল’ হিসেবে খ্যাত পুলিৎজার পুরস্কার দেয়া হচ্ছে আজ। যুক্তরাষ্ট্রের কলাম্বিয়া ইউনিভার্সিটির একটি বোর্ড প্রতি বছর এ পুরস্কার ঘোষণা করে।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান সোমবার বিকেল তিনটা থেকে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে বলে জানায় বার্তা সংস্থা ইউএনবি।

সাংবাদিকতার ১৫টি বিভাগে এ পুরস্কার দেয়া হয়। সাংবাদিকতা ছাড়াও সাহিত্য, সংগীত, নাটকে বিশেষ অবদানের জন্য ১৯১৭ সাল থেকে এ পুরস্কার দেয়া হচ্ছে।

২০২৩ সালে ঘটে যাওয়া ঘটনাবলির ওপর করা সংবাদের ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন বিভাগে এ বছর পুরস্কার ঘোষণা করা হবে। বছরের সবচেয়ে বড় খবর কভার করা সাংবাদিকরাই সাধারণত এ সম্মাননা পান।

গত ৭ অক্টোবর হামাসের অতর্কিত ইসরায়েলে হামলা ও তার পর থেকে গাজায় ইসরায়েলের আগ্রাসন এবারের পুলিৎজার প্রদানের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ইসরায়েলি আগ্রাসনের শুরু থেকে সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে এ পর্যন্ত গাজায় অন্তত ৯৭ জন সংবাদকর্মী প্রাণ হারিয়েছেন। বিষয়টি পুরস্কার প্রদান কমিটি বিশেষভাবে বিবেচনায় রাখবে। এ ছাড়া ফিলিস্তিনের কোনো সাংবাদিকের কাজকে এবার স্বীকৃতি দেয়া হয় কি না, পর্যবেক্ষকরা সেটি দেখতেও মুখিয়ে আছেন।

ইউক্রেনে চলমান যুদ্ধ নিয়ে খবর প্রকাশের জন্য গত বছর পুলিৎজার পুরস্কার পায় বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস (এপি)। এ ছাড়া এ যুদ্ধ নিয়ে খবরাখবর তুলে ধরায় যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমসকেও পুরস্কৃত করা হয়।

আরও পড়ুন:
আইনজীবী ফাওজিয়ার হাতে যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক সাহসী নারী পুরস্কার
বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার হস্তান্তর
ক্লাইমেট মোবিলিটি চ্যাম্পিয়ন লিডার অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
‘বুকার’ পুরস্কার জিতলেন আইরিশ লেখক পল লিঞ্চ
জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিতরণ সন্ধ্যায়

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
Trump praises police raid at Columbia University

কলাম্বিয়া ইউনিভার্সিটিতে পুলিশি অভিযানের প্রশংসায় ট্রাম্প

কলাম্বিয়া ইউনিভার্সিটিতে পুলিশি অভিযানের প্রশংসায় ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিনে স্থানীয় সময় বুধবার নির্বাচনি প্রচার সমাবেশে ডনাল্ড ট্রাম্প। ছবি: রয়টার্স
যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ক্যাম্পাসগুলোতে গাজায় ইসরায়েলি আগ্রাসন বন্ধের পক্ষে বিক্ষোভগুলোর ওপর চড়াও হওয়ার আহ্বান জানান ট্রাম্প।

গাজায় ইসরায়েলের যুদ্ধ বন্ধে কলাম্বিয়া ইউনিভার্সিটির একটি ভবন দখল নেয়া বিক্ষোভকারীদের সরিয়ে দিতে মঙ্গলবার নিউ ইয়র্ক পুলিশ কর্মকর্তাদের অভিযানের প্রশংসা করেছেন সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প।

স্থানীয় সময় বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিনে নির্বাচনি প্রচার সমাবেশে তিনি এ অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন।

সমাবেশে চলতি বছরের নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী পুলিশি অভিযানের প্রশংসা করে বলেন, এটি দেখতে ভালো লেগেছে।

ওই সময় তিনি যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ক্যাম্পাসগুলোতে গাজায় ইসরায়েলি আগ্রাসন বন্ধের পক্ষে বিক্ষোভগুলোর ওপর চড়াও হওয়ার আহ্বান জানান।

কলাম্বিয়া ইউনিভার্সিটিতে শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশি হানার বিষয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘গত (মঙ্গলবার) রাতে নিউ ইয়র্ক ঘেরাও করা হয়েছিল।’

পুলিশ কর্মকর্তারা কলাম্বিয়া ইউনিভার্সিটি ও সিটি কলেজ অফ নিউ ইয়র্ক থেকে প্রায় ৩০০ বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করেন। গ্রেপ্তারকৃতদের ‘সংক্ষুব্ধ উন্মাদ’ ও ‘হামাসের প্রতি সহানুভূতিশীল’ হিসেবে আখ্যা দেন ট্রাম্প।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাম্পাসগুলোতে বিভিন্ন দাবিতে জড়ো হন শিক্ষার্থীরা। তাদের কেউ কেউ গাজায় অবিলম্বে যুদ্ধবিরতির দাবি জানান, কেউ আবার ইসরায়েলের সঙ্গে সামরিক সম্পর্ক রয়েছে এমন কোম্পানির সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্পর্ক ছিন্নের দাবি জানান।

আরও পড়ুন:
আমেরিকান ও ইসরায়েলি বন্দির ভিডিও প্রকাশ হামাসের
ইসরায়েলি ব্যাটালিয়নকে নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত স্থগিত করল যুক্তরাষ্ট্র
ট্রাম টাওয়ারে ড্যানিয়েলসকে দেখেছেন ট্রাম্পের সাবেক সহকারী
গাজার দুই হাসপাতালে গণকবরের সন্ধান
বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ায় যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে গণগ্রেপ্তার

মন্তব্য

p
উপরে