কোম্পানি আইন আরও সংশোধনের দাবি

কোম্পানি আইন আরও সংশোধনের দাবি

আইসিএবি আয়োজিত এক ওয়েবিনারে ব্যবসা-বাণিজ্যের বৈশ্বিক সূচকে এবং বাংলাদেশে ব্যবসার পরিবেশের উন্নতির জন্য বেশ কয়েকটি সুপারিশ তুলে ধরা হয়।

দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ বৃদ্ধি এবং ব্যবসা সহজ করার লক্ষ্যে বিদ্যমান কোম্পানি আইন আরও সংশোধন এবং রেজিস্ট্রার অব জয়েন্ট স্টক কোম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মসকে (আরজেএসসি) পূর্ণাঙ্গ অটোমেশনের দাবি জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ইনস্টিটিউট অফ চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস অফ বাংলাদেশ (আইসিএবি) আয়োজিত এক ওয়েবিনারে এ দাবি জানান বক্তরা। এতে ব্যবসা-বাণিজ্যের বৈশ্বিক সূচকে বাংলাদেশের পরিবেশের উন্নতির জন্য বেশ কয়েকটি সুপারিশ তুলে ধরা হয়।

সভায় বক্তরা বলেন, বাংলাদেশের অনেক আর্থিক প্রতিষ্ঠান আছে, যাদের বার্ষিক অডিট রিপোর্ট স্বচ্ছ নয়। আর্থিক খাতে সুশাসন নিশ্চিত করতে হলে অডিট রিপোর্ট অবশ্যই স্বচ্ছ এবং আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করতে হবে।

এ জন্য আন্তর্জাতিক নিরীক্ষণ স্ট্যান্ডার্ড (আইএসএ) এর মাধ্যমে অডিট রিপোর্ট নিরীক্ষা করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন তারা। সভায় অডিটরদের ন্যূনতম নিরীক্ষা ফি নির্ধারণের পক্ষে মত দেয় আইসিএবি।

‘ইজ অব ডুয়িং বিজনেস’ শীর্ষক ওয়েবিনারে বাণিজ্য সচিব তপন ঘোষ প্রধান অতিথি ছিলেন। স্নেহাশীষ বড়ুয়া এফসিএ ও আইনজীবী তানজিব-উল আলম যৌথভাবে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন আরজেএসসি-এর ভারপ্রাপ্ত নিবন্ধক এএইচএম আহসান, বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিআইডিএ) পরিচালক জীবনকৃষ্ণ সাহা রায়, এমসিসিআই-এর সভাপতি ব্যারিস্টার নীহাদ কবির, বাংলাদেশের পলিসি এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান ড. এম. মাসরুর রিয়াজ এবং স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের করপোরেট, বাণিজ্যিক ও ইনস্টিটিউশনাল ব্যাংকিং-এর প্রধান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ এনামুল হক। আইসিএবির সাবেক সভাপতি মো. হুমায়ুন কবির এফসিএ, অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন।

আইসিএবির বর্তমান সভাপতি মাহমুদুল হাসান খুসরু এফসিএ বলেন, ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করতে বিদ্যমান কোম্পানি আইন আরও সংশোধনের প্রয়োজন রয়েছে। এই আইনের কিছু বিধান সিঙ্গাপুর ও হংকংয়ে গৃহীত পদক্ষেপের সাথে সামঞ্জস্য রেখে সংশোধন করা যেতে পারে। এটা করা হলে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ আরও আকর্ষণ করা সম্ভব হবে এবং একই সঙ্গে উন্নত হবে ব্যবসার পরিবেশ।

শেয়ার করুন

মন্তব্য