অর্থবছর শেষ হওয়ার এক বছর পর লভ্যাংশ ঘোষণার সভা

অর্থবছর শেষ হওয়ার এক বছর পর লভ্যাংশ ঘোষণার সভা

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি বা মিউচ্যুয়াল ফান্ডগুলোতে অর্থবছর সমাপ্ত হওয়ার ৯০ কর্মদিবসের মধ্যে লভ্যাংশ ঘোষণা সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত জানাতে হয়। তবে গত বছরের জুনে সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য এই সভা করেনি গ্রিনডেল্টা ও ডিবিএইচ মিউচ্যুয়াল ফান্ড। সেই সভা হবে আগামী ২৯ জুন।

অর্থবছর শেষ হওয়ার এক বছর পর বোর্ড সভার তারিখ ঘোষণা করল পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ‍দুটি মিউচ্যুয়াল ফান্ড।

২০২০ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত অর্থবছরের হিসাব পর্যালোচনা করে লভ্যাংশ দেয়া বা না দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানাবে গ্রিন ডেল্টা মিউচ্যুয়াল ফান্ড ও ডিবিএই্ ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড। আগামী ২৯ জুন এই বৈঠক হবে।

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি বা মিউচ্যুয়াল ফান্ডগুলোতে অর্থবছর সমাপ্ত হওয়ার ৯০ কর্মদিবসের মধ্যে লভ্যাংশ ঘোষণা সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত জানাতে হয়।

তবে এই দুটি ফান্ড গত বছর এই সভা করেনি। আইনি জটিলতার জন্য এক বছর আগের ২০২০ সালের হিসাব পর্যালোচনা করতে হচ্ছে এখন।

ফান্ড দুটির সম্পদ ব্যবস্থাপক এল আর গ্লোবাল বাংলাদেশ অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট। গত বছরের শুরুতে ডিবিএইচ ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের ৭২.৭৫ শতাংশ এবং গ্রিন ডেল্টা মিউচুয়াল ফান্ডের ৭০.১০ শতাংশ ইউনিটহোল্ডার সম্পদ ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব থেকে প্রতিষ্ঠানটিকে বাদ দেয়ার আবেদন করে।

এর আগে ২০১৯ সালের ২৩ ডিসেম্বর গ্রিন ডেল্টা মিউচ্যুয়াল ফান্ড ও ডিবিএইচ ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের সম্পদ ব্যবস্থাপনা থেকে এলআর গ্লোবালকে অপসারণের অনুমোদন দেয় বিএসইসি। এই অনুমোদন চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্ট রিট করে এলআর গ্লোবাল।

ওই আবেদনের প্রাথমিক শুনানির পর হাই কোর্ট বিবাদীদের কারণ দর্শানোর নোটিস দেয়ার পাশাপাশি বিএসইসির ওই সিদ্ধান্ত ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে।

গত বছরের মার্চে গ্রিন ডেল্টা মিউচুয়াল ফান্ড ও ডিবিএইচ ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের সম্পদ ব্যবস্থাপনায় সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার আদালতের দেওয়া স্থিতাবস্থা প্রত্যাহার করে আপিল বিভাগ। ফলে এই দুই ফান্ডের সম্পদ ব্যবস্থাপনায় এলআর গ্লোবালকে রাখতে হাইকোর্টের অন্তর্বর্তীকালীন আদেশটি বাতিল হয়।

এরপর চলতি বছরের মার্চে এসে বিএসইসিও তাদের আগের নির্দেশনা থেকে সরে আসে। ফলে এই দুই মিউচ্যুয়াল ফান্ডের কর্তৃত্ব থাকে যায় এলআর গ্লোবালের হাতে।

এ বিষয়ে এলআর গ্লোবালের হেড অফ লিগ্যাল অ্যান্ড কমপ্ল্যায়েন্স মনোয়ার হোসেন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘গত বছরের আমাদের এই দুই ফান্ড পরিচালনা বৈধতা নিয়ে জটিলতা দেখা দিয়েছিল। গত ৩০ মার্চ বিএসইসি’র আগের অর্ডার পরিবর্তন করার পর আমরা ২০২০ সালের আর্থিক প্রতিবেদন তৈরি করেছি। সেটি ২৯ মার্চ পর্যালোচনা করা হবে।’

তিনি বলেন, ২০২১ সালের অর্থবছর শেষ হবে জুনে। এ ক্ষেত্রে আমরা নির্ধারীত সময়েই আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে বোর্ড সভা করতে পারব।

আরও পড়ুন:
আয়ের পাশাপাশি সম্পদও বাড়ছে মিউচ্যুয়াল ফান্ডের
উড়ছে মিউচ্যুয়াল ফান্ডও
মন্দাতেও সফল মিউচ্যুয়াল ফান্ড, ভালো লভ্যাংশের আভাস
মিউচ্যুয়াল ফান্ডের স্পন্সর হবে বিদেশি কোম্পানি
আরও চাঙ্গা মিউচ্যুয়াল ফান্ড

শেয়ার করুন

মন্তব্য