স্থানীয় লকডাউনে ব্যাংক খোলা আলোচনা সাপেক্ষে

স্থানীয় লকডাউনে ব্যাংক খোলা আলোচনা সাপেক্ষে

ব্যাংক খোলা রাখতে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। ছবি: সাইফুল ইসলাম

বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্কুলারে বলা হয়, ‘কোভিড-১৯-এর বিস্তার রোধকল্পে মহানগর, জেলা প্রশাসন স্থানীয়ভাবে লকডাউন ঘোষণা করলে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করে ব্যাংকিং লেনদেন কার্যক্রম পরিচালনা করা যাবে।’

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে বিভিন্ন এলাকায় স্থানীয়ভাবে লকডাউন ঘোষণা করা হচ্ছে। যেসব এলাকায় স্থানীয়ভাবে লকডাউন দেয়া হবে, সেখানে প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করে ব্যাংক খোলা রাখা যাবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অফ সাইট সুপারভিশন বিভাগ থেকে মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত এক সার্কুলার জারি করে দেশের সব তফসিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীর কাছে পাঠানো হয়েছে।

সার্কুলারে বলা হয়, ‘কোভিড-১৯-এর বিস্তার রোধকল্পে মহানগর, জেলা প্রশাসন স্থানীয়ভাবে লকডাউন ঘোষণা করলে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করে ব্যাংকিং লেনদেন কার্যক্রম পরিচালনা করা যাবে।’

এ ক্ষেত্রে শাখার কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের যাতায়াত নির্বিঘ্ন রাখার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে জানিয়ে রাখতে হবে বলে উল্লেখ করা হয় সার্কুলারে।

ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১-এর ৪৫ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

সারা দেশে চলমান লকডাউনে ব্যাংকিং লেনদেন চলছে সকাল ১০টা থেকে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত। আর আনুষঙ্গিক কাজ শেষ করার জন্য ব্যাংক খোলা থাকছে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

আরও পড়ুন:
পদ্মা ব্যাংকের রিস্ক ম্যানেজমেন্ট কমিটির প্রথম সভা
এনআরবিসি ব্যাংকের পাঁচ উপশাখার কার্যক্রম শুরু
কমিউনিটি ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের ২২তম সভা অনুষ্ঠিত
আন্তব্যাংক চেক নিষ্পত্তির নতুন সময়
ব্যাংক লেনদেনের সময় বাড়ল আধা ঘণ্টা

শেয়ার করুন

মন্তব্য