20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
প্রধানমন্ত্রীর পদক্ষেপেই ভালো আছে শিল্প খাত: শ্রম প্রতিমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর পদক্ষেপেই ভালো আছে শিল্প খাত: শ্রম প্রতিমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হোটেলে আরএমজি বিষয়ক ত্রিপক্ষীয় পরামর্শ পরিষদের সপ্তম সভায় তিনি বলেন, ‘সারা বিশ্বের অর্থনৈতিক স্থবিরতার মধ্যেও আমাদের রফতানি আয় বৃদ্ধি পাচ্ছে।’

করোনার শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সময়োপযোগী ও দৃঢ় পদক্ষেপের কারণে গার্মেন্টসসহ দেশের সব শিল্প খাত ভালো অবস্থায় রয়েছে বলে মনে করেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হোটেলে আরএমজি বিষয়ক ত্রিপক্ষীয় পরামর্শ পরিষদের (টিসিসি) সপ্তম সভায় এ মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘সারা বিশ্বের অর্থনৈতিক স্থবিরতার মধ্যেও আমাদের রফতানি আয় বৃদ্ধি পাচ্ছে।’

সভায় জানানো হয়, সরকার রফতানিমুখী তৈরি পোশাক, চামড়াজাত পণ্য ও পাদুকা শিল্পের কর্মহীন হয়ে পড়া ও দুস্থ শ্রমিকদের জন্য সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রম বাস্তবায়ন নীতিমালা অনুমোদন করেছে। কার্যক্রমটি বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সরকারের পাশাপাশি উন্নয়ন সহযোগী ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও জার্মান সরকার অর্থায়ন করবে।

এসময় সভাপতির বক্তব্যে শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘করোনাকালে মালিক-শ্রমিকদের সহযোগিতায় প্রধানমন্ত্রীর ৩১ দফা নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করে রফতানিমুখী শিল্প-কারখানায় প্রয়োজনীয় উৎপাদন অব্যাহত রাখা সম্ভব হয়েছে। এর ফলে বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর জিডিপি ঋণাত্মক হলেও বাংলাদেশের জিডিপির হার ইতিবাচক রয়েছে।’

করোনার সংকট উত্তরণে প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগ তুলে ধরে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘করোনা সংক্রমণের শুরুতেই শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের কথা প্রথম ভাবেন প্রধানমন্ত্রী। সেই ভাবনা থেকেই গার্মেন্টস শিল্পের জন্য ১০ হাজার ৫০০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেন। এ সময় আমরা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মালিক-শ্রমিকদের নিয়ে বারবার বসে নানান সমস্যা নিরসনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছি।’

তিনি বলেন, ‘করোনা মোকাবেলা ও অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে সরকার এ পর্যন্ত এক লাখ ১১ হাজার ১৩৭ কোটি টাকার মোট ২০টি প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। সরকারের এসব পদক্ষেপের ফলে যেখানে এপ্রিল মাসে তৈরি পোশাক রফতানি হয় মাত্র ৩৭ কোটি ডলারের, গত জুলাই মাসে সেই রফতানি হয়েছে ৩২৪ কোটি ডলারের।’

সভায় মন্ত্রণালয়ের সচিব কে এম আব্দুস সালাম, অতিরিক্ত সচিব ড. মো. রেজাউল হক, শ্রম অধিদফতরের মহাপরিচালক একেএম মিজানুর রহমান, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক মো. নজরুল ইসলাম, বিকেএমইএ এর সহ-সভাপতি মোর্শেদ সারোয়ার সোহেল, ফজলে শামীম এহসান, বিজিএমইএ এর পরিচালক এ এন এম সাইফুদ্দিন, জাতীয় শ্রমিক লীগ সভাপতি মো. ফজলুল হক মন্টু, জাতীয় শ্রমিক জোটের জেনারেল সেক্রেটারি নাইমুল আহসান জুয়েল, সম্মিলিত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন সভাপতি নাজমা আক্তারসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, সংস্থার প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

শেয়ার করুন