20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
নারী উদ্যোক্তাদের জামানতবিহীন ঋণ সুবিধা চান স্পিকার  

নারী উদ্যোক্তাদের জামানতবিহীন ঋণ সুবিধা চান স্পিকার  

‘করোনার কারণে দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যে বিরূপ প্রভাব পড়েছে। অনেক নারী উদ্যোক্তা কর্মীদের বেতন দিতে পারছেন না। পণ্য বাজারজাত করতে না পেরে সংকটে আছেন। তাদের সহায়তা করতে হবে।’

করোনা পরবর্তী অর্থনীতিতে গতি ফেরাতে নারী উদ্যেক্তাদের সহজ শর্তে ঋণ দেয়ার ওপর জোর দিয়েছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

বুধবার বিকেলে নারীর ক্ষমতায়ন বিষয়ক এক ওয়েবিনারে নারী উদ্যোক্তাদের জামানতবিহীন সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ টাকা ঋণ দেয়ার পরামর্শও দেন স্পিকার।

আমেরিকান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ বাংলাদেশ (অ্যামচেম) এ ওয়েবিনার আয়োজন করে। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এতে প্রধান অতিথি ছিলেন। সভাপতিত্ব করেন অ্যামচেম সভাপতি সৈয়দ এরশাদ আহমেদ।

স্পিকার বলেন, ‘করোনার কারণে দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যে বিরূপ প্রভাব পড়েছে। অনেক নারী উদ্যোক্তা কর্মীদের বেতন দিতে পারছেন না। পণ্য বাজারজাত করতে না পেরে সংকটে আছেন। তাদের সহায়তা করতে হবে।’

অর্থনীতিতে নারী উদ্যোক্তাদের অবদান উল্লেখ করে শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘পুঁজি ও ব্যবস্থাপনার সংকট, প্রযুক্তিগত জ্ঞানের অভাব, বাজার প্রবেশের সীমাবদ্ধতা, বিপনন সমস্যা ও তথ্যের সংকটের মতো চ্যালেঞ্জের মুখে কাজ করতে হয় নারী উদোক্তাদের।’

ওয়েবিনারে তৈরি পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর সভাপতি ড. রুবানা হক বলেন, ‘নারী উদ্যোক্তা ও শ্রমিকদের দক্ষ করে তোলার জন্য ডিজিটাল জ্ঞান খুবই জরুরি।’

এ বিষয়ে সরকারি সহায়তার ওপর জোর দিয়ে তিনি নারীর ক্ষমতায়নে সংশ্লিষ্ট সবাইকে একসঙ্গে কাজ করার আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে ঢাকায় বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি মিয়াং টেমবন বলেন, ‘বাংলাদেশের পোশাক খাতের নারী উদ্যোক্তারা এ অঞ্চলের অন্য দেশের তুলনায় এগিয়ে। এ ধারা অব্যাহত রাখতে হলে নারী উদ্যোক্তাদের প্রযুক্তি শিক্ষার ওপর জোর দিতে হবে।’

ওয়েবিনার সঞ্চালনা করেন দোহা টেকের চেয়ারম্যান লুনা সামসুদ্দোহা। আলোচনায় আরো অংশ নেন প্রাণ আরএফএলের সিএফও উজমা চৌধুরী ও ওরাকল বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুবাবা দৌলা।

শেয়ার করুন

মন্তব্য