20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
আলু নেই ঝিনাইদহের বাজারে

বিভিন্ন সবজি থাকলেও ঝিনাইদহের কাঁচাবাজারে মিলছে না আলু। ছবি: নিউজবাংলা

আলু নেই ঝিনাইদহের বাজারে

মঙ্গলবার সকাল থেকে শহরের নতুন হাটখোলা, তহ বাজার, পানি উন্নয়ন বোর্ড সবজি বাজারসহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, কোনো দোকানেই আলু বিক্রি হচ্ছে না।

ঝিনাইদহের পাইকারি ও খুচরা বাজারগুলোতে আলু বিক্রি করছেন না ব্যবসায়ীরা। শহর ও পার্শ্ববর্তী এলাকার বাজারগুলোতে পাওয়া যাচ্ছে না নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যটি।

মঙ্গলবার সকাল থেকে শহরের নতুন হাটখোলা, তহ বাজার, পানি উন্নয়ন বোর্ড সবজি বাজারসহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, কোনো দোকানেই আলু বিক্রি হচ্ছে না। এতে বিপাকে পড়েন খুচরা ক্রেতারা। বিভিন্ন বাজার ঘুরে আলু না পেয়ে অন্য সবজি নিয়ে ফিরেন তারা।

এ বিষয়ে শহরের হামদহ এলাকা থেকে আসা গৃহিণী জুলিয়া খাতুন বলেন, সকালে সবজি কিনতে এসে নতুন হাটখোলার ১০টি দোকান ঘুরেছেন। কিন্তু কোনো দোকানেই আলু নেই। এ কারণে ফুলকপি, শাকসহ অন্য সবজি কিনেই বাড়ি ফিরতে হয়েছে।

মডার্ন মোড় এলাকার বাসিন্দা রবিউল ইসলাম বলেন, দোকানে গিয়ে আলুর কথা জিজ্ঞেস করলে খুচরা ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, স্থানীয় আড়তদাররা আলু দিতে পারছেন না। তাই তারা আলু বিক্রি করতে পারছেন না।

ঝিনাইদহ শহরের নতুন হাটখোলা পাইকারি বাজারের আড়তদার জাহিদ হোসেন বলেন, উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলার আড়ত থেকে প্রতি কেজি আলু ৩৪ টাকা ৫০ পয়সা দরে কিনতে হচ্ছে।

তিনি বলেন, পাইকারি পর্যায়ে সরকার নির্ধারিত ২৫ টাকা ও খুচরা পর্যায়ে ৩০ টাকা দরে সেই আলু বিক্রি করলে প্রতি ট্রাকে দুই থেকে আড়াই লাখ টাকা লোকসান গুনতে হবে।

এ ব্যবসায়ী জানান, বেশি দামে বিক্রি করলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানা করা হচ্ছে। এ কারণে আলু কিনছেন না; বিক্রিও করছেন না।

আলু বিক্রি বন্ধ হওয়ায় সকাল থেকেই শহরসহ বিভিন্ন বাজারে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে দ্রুত সরকার ঘোষিত মূল্যে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) মাধ্যমে আলু বিক্রির দাবি জানিয়েছেন ক্রেতা ও ভোক্তারা।

শেয়ার করুন