× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

google_news print-icon

করোনা: আমানত সংগ্রহে পিছিয়ে ইসলামি ব্যাংকগুলো

করোনা-আমানত-সংগ্রহে-পিছিয়ে-ইসলামি-ব্যাংকগুলো
বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যানে আরও দেখা যায়, গত জুন মাসের শেষে দেশের ব্যাংক খাতের মোট আমানত বেড়ে ১১ লাখ ৮০ হাজার ৯৯৯ কোটি টাকা হয়। এর মধ্যে ইসলামি ব্যাংকগুলোর সংগ্রহ ছিল দুই লাখ ৯১ হাজার ৩০৩ কোটি টাকা।

বিগত বছরগুলোতে ব্যাংকিং কার্যক্রমে প্রসার ঘটলেও করোনাভাইরাসের প্রভাবে দেশের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে আমানত সংগ্রহের দিক দিয়ে ইসলামি ব্যাংকগুলো কিছুটা পিছিয়ে পড়েছে।

জুন মাস শেষে মোট আমানতের মধ্যে ইসলামি ব্যাংকগুলোর সংগৃহীত আমানতের অংশ কমে ২৪.৬৭ শতাংশে নেমে এসেছে।

মার্চের শেষে ব্যাংক খাতের মোট আমানতের মধ্যে ২৫.০৪ শতাংশ ছিল ইসলামি ব্যাংকগুলোর দখলে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ করা পরিসংখ্যানে এসব তথ্য উঠে এসেছে। প্রতি তিন মাসে এ সংক্রান্ত তথ্য হালনাগাদ করে ব্যাংকটি।

পরিসংখ্যানে দেখা যায়, আলোচ্য সময়ে ঋণের দিক থেকে অংশগ্রহণ কিছুটা বেড়েছে ইসলামি ব্যাংকগুলোর।

মার্চের শেষে ব্যাংক খাতের মোট ঋণের মধ্যে ইসলামি ব্যাংকগুলোর বিতরণ করা বিনিয়োগ বা ঋণ ছিল ২৪.৯৩ শতাংশ। জুনে এই হার বেড়ে ২৫.০৩ শতাংশ হয়।

ইসলামি ব্যাংকগুলো সুদভিত্তিক ব্যাংকিং করে না বলে তারা ঋণকে বিনিয়োগ হিসেবে ধরে। তারা মুনাফা ভাগাভাগির প্রতিশ্রুতির বিপরীতে বিনিয়োগ দিয়ে থাকে।

করোনা: আমানত সংগ্রহে পিছিয়ে ইসলামি ব্যাংকগুলো

বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যানে আরও দেখা যায়, গত জুন মাসের শেষে দেশের ব্যাংক খাতের মোট আমানত বেড়ে ১১ লাখ ৮০ হাজার ৯৯৯ কোটি টাকা হয়। এর মধ্যে ইসলামি ব্যাংকগুলোর সংগ্রহ ছিল দুই লাখ ৯১ হাজার ৩০৩ কোটি টাকা।

এ ছাড়া একই সময়ে সব ব্যাংকের বিতরণ করা ১১ লাখ ৬৩৮ কোটি টাকা ঋণের মধ্যে শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকগুলোর অংশগ্রহণ ছিল দুই লাখ ৭৫ হাজার ৪৬৫ কোটি টাকা।

বর্তমানে আটটি ব্যাংক পূর্ণাঙ্গভাবে ইসলামি ব্যাংকিং করছে, যাদের শাখা রয়েছে ১ হাজার ২৭৪টি। এ ছাড়া নয়টি প্রথাগত ব্যাংকের ১৯টি ইসলামি ব্যাংকিং শাখা আছে। এ ছাড়া অন্য ১২টি ব্যাংকের ১৫৫টি ইসলামি ব্যাংকিং উইন্ডো আছে।

গত মার্চ ও এপ্রিলে যমুনা, স্ট্যান্ডার্ড ও এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংককে পূর্ণাঙ্গরূপে ইসলামি ব্যাংকিংয়ে রূপান্তরের অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।
সম্প্রতি তাকওয়া নামে ইসলামি ব্যাংকিং সেবা চালু করেছে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশে আসা রেমিট্যান্সের মধ্যে ইসলামি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে আসছে প্রায় ২৮ শতাংশ।

এ দিকে শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকগুলোকে আরও এগিয়ে নিতে সোমবার অর্থ মন্ত্রণালয় সুকুক নামের একটি ইসলামি বন্ড চালুর নীতিমালা জারি করেছে।

ট্রেজারি বন্ড ও বিলে ইসলামি ব্যাংকগুলো বিনিয়োগ করতে পারে না। সুকুক চালু হলে এ ধরনের ব্যাংকগুলোও বন্ডে বিনিয়োগ করে বাড়তি মুনাফা করতে পারবে।

এ বিষয়ে শিগগিরই ব্যাংকগুলোর জন্য একটি সার্কুলার জারি করা হবে বলে নিউজবাংলাকে জানান বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক মো. সিরাজুল ইসলাম।

আরও পড়ুন

অর্থ-বাণিজ্য
There may be rain in some places of the five divisions

পাঁচ বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় হতে পারে বৃষ্টি

পাঁচ বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় হতে পারে বৃষ্টি দেশের সব বিভাগে বৃষ্টির আভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। ছবি: পিয়াস বিশ্বাস/নিউজবাংলা
বৃষ্টিপাতের বিষয়ে পূর্বাভাসে বলা হয়, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গা এবং রাজশাহী, রংপুর ও বরিশাল বিভাগের দুই-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হতে পারে।

দেশের পাঁচটি বিভাগের কিছু কিছু জায়গা এবং অপর তিনটির দুই-এক জায়গায় বৃষ্টি হতে পারে জানিয়ে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর বলেছে, কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে হতে পারে শিলা বৃষ্টি।

রাষ্ট্রীয় সংস্থাটি শনিবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ৭২ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে এমন বার্তা দিয়েছে।

পূর্বাভাসে সিনপটিক অবস্থা নিয়ে বলা হয়, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ থেকে উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত।

বৃষ্টিপাতের বিষয়ে বলা হয়, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গা এবং রাজশাহী, রংপুর ও বরিশাল বিভাগের দুই-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হতে পারে।

তাপপ্রবাহের বিষয়ে বলা হয়, রাজশাহী, রংপুর, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের পাশাপাশি মৌলভীবাজার, রাঙ্গামাটি, চাঁদপুর ও ফেনী জেলার ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা প্রশমিত হতে পারে।

তাপমাত্রার বিষয়ে বলা হয়, সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

আরও পড়ুন:
আরও ৪৮ ঘণ্টা অব্যাহত থাকতে পারে ঢাকাসহ চার বিভাগের তাপপ্রবাহ
তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে
সব বিভাগে মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ
তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে আরও দুই দিন
চার বিভাগ ও ১২ জেলায় মৃদু তাপপ্রবাহ

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
Legislation to deal with adverse effects of AI Minister of State for Telecom

এআইয়ের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় আইন হচ্ছে

এআইয়ের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় আইন হচ্ছে শুক্রবার জাতীয় পর্যায়ে বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস-২০২৪ উদযাপন করে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ। ছবি: সংগৃহীত
ইন্টারনেটের ২০ এমবিপিএস গতিকে ব্রডব্যান্ড হিসেবে সংজ্ঞায়িত করতে এবং ইন্টারনেট সুলভ ও সহজলভ্য করতে ২০২৪ সালের মধ্যেই নতুন ব্রডব্যান্ড নীতিমালা প্রণয়ণ করা হবে বলে জানান ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের (এআই) বিরূপ প্রভাব সামলাতে সরকার আইন প্রণয়ন করতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

শুক্রবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। জাতীয় পর্যায়ে বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস-২০২৪ উদযাপনে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের উদ্যোগে এই অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। খবর ইউএনবি

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় পলক বলেন, ‘এআই মানুষের জীবনধারা যেমন সহজ করবে, ঠিক তেমনি এটি সভ্যতার জন্য একটি বড় ঝুঁকি। প্রযুক্তির এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায়, বিশেষ করে এআইর বিরূপ প্রভাব সামলাতে সরকার আইন প্রণয়ণ করতে যাচ্ছে।’

এ ছাড়াও ইন্টারনেটের ২০ এমবিপিএস গতিকে ব্রডব্যান্ড হিসেবে সংজ্ঞায়িত করতে এবং ইন্টারনেট সুলভ ও সহজলভ্য করতে ২০২৪ সালের মধ্যেই নতুন ব্রডব্যান্ড নীতিমালা প্রণয়ণ করা হবে বলে জানান তিনি।

বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস উদযাপনের তাৎপর্য তুলে ধরে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ১৯৭৩ সালে আইটিইউর সদস্যপদ অর্জন করেন এবং যুদ্ধের ধ্বংস্তূপের ওপর দাঁড়িয়েও বেতবুনিয়ায় ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বিশ্ব তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দুনিয়ায় বাংলাদেশকে অন্তর্ভুক্ত করেন।

‘আর ভিস্যাটের মাধ্যমে দেশে ইন্টারনেট সংযোগ, তিনটি মোবাইল কোম্পানিকে লাইসেন্স দেয়ার মাধ্যমে মোবাইল ফোন সাধারণের নাগালে পৌঁছে দেয়া এবং ১৯৯৮-৯৯ অর্থবছরে কম্পিউটারের ওপর থেকে ভ্যাট-ট্যাক্স প্রত্যাহার করে কম্পিউটার সাধারণের জন্য সহজলভ্য করা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদৃষ্টিসম্পন্ন নেতৃত্বেরই ফসল।’

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বিগত বছরগুলোর সফলতা ডিজিটাল দুনিয়ায় বাংলাদেশকে নেতৃত্বদানকারী দেশের কাতারে সামিল করেছে বলে জানান তিনি।

এর আগে, প্রতিমন্ত্রী বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস উপলক্ষে স্মারক ডাকটিকিট অবমুক্ত করেন এবং এই দিবস উপলক্ষে আয়োজিত রচনা ও বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন।

বাংলাদেশে এ বছর প্রথমবারের মতো ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগসহ টেলিযোগাযোগ এবং আইসিটি খাতের সরকারি ও বেসরকারি খাতের অংশীজনদের নিয়ে বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস উদযাপনের আয়োজন করা হয়।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব আবু হেনা মোরশেদ জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব মো. সামসুল আরেফিন, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব এ কে এম, আমিরুল ইসলাম, বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানির চেয়ারম্যান ও সিইও ড. শাহজাহান মাহমুদ এবং বিটিআরসির চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. মহিউদ্দিন আহমেদ।

পরে প্রতিমন্ত্রীর উপস্থিতিতে মোবাইল অপারেটর রবি ও বাংলালিংকের মধ্যে নেটওয়ার্ক স্মারক সই হয়।

আরও পড়ুন:
এআইকে স্বাগত, তবে অপব্যবহার রোধে পদক্ষেপ প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী
৪০% চাকরিকে প্রভাবিত করবে এআই: আইএমএফ
অনলাইন সাংবাদিকতার চ্যালেঞ্জ বিষয়ে এআইইউবিতে সেমিনার
কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ‘বিপজ্জনক’, সতর্ক করে গুগল ছাড়লেন এআই গডফাদার

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
Bangladeshis cannot visit India for three days on tourist visa

ট্যুরিস্ট ভিসায় তিন দিন ভারতে যেতে পারবেন না বাংলাদেশিরা

ট্যুরিস্ট ভিসায় তিন দিন ভারতে যেতে পারবেন না বাংলাদেশিরা ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান স্থলবন্দর বেনাপোল। ফাইল ছবি
ভারতের পুলিশ ইমিগ্রেশনের বরাতে বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আযহারুল ইসলাম জানান, শুক্রবার (১৭ মে) সন্ধ্যা ৬টা থেকে আগামী সোমবার (২০ মে) ভোট গণনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত শুধু চিকিৎসা ভিসা ও ভারতীয় পাসপোর্টধারী যাত্রীরা ভারত ভ্রমণে যেতে পারবেন।

ভারতে আগামী তিন দিনের জন্য ট্যুরিস্ট ভিসায় বাংলাদেশিদের ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টার পর থেকে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করা হয়েছে। ২১ মে মঙ্গলবার এই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেয়া হবে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে লোকসভা নির্বাচনের কারণে এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

ভারতের পুলিশ ইমিগ্রেশনের বরাতে বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আযহারুল ইসলাম জানান, শুক্রবার (১৭ মে) সন্ধ্যা ৬টা থেকে আগামী সোমবার (২০ মে) ভোট গণনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত শুধু চিকিৎসা ভিসা ও ভারতীয় পাসপোর্টধারী যাত্রীরা ভারত ভ্রমণে যেতে পারবেন।

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা নির্বাচন অফিসারের সই করা এক চিঠিতে বলা হয়, নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য সব আন্তর্জাতিক রুট সিলগালা করা প্রয়োজন। ফলে ১৭ মে সন্ধ্যা থেকে ২০ মে ভোট গণনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত সব ধরনের আমদানি-রপ্তানি বন্ধসহ ট্যুরিস্ট ভিসায় যাতায়াত বন্ধ করা হয়েছে। এই সময়কালে শুধু মেডিকেল ভিসায় ভারত যাওয়া যাবে।

বেনাপোল বন্দর পরিচালক রেজাউল করিম বলেন, লোকসভা নির্বাচনের কারণে তিন দিন ট্যুরিস্ট ভিসায় ভারত ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। তবে ট্যুরিস্ট, স্টুডেন্ট ও বিজনেস ভিসায় যাত্রী যাতায়াত বন্ধ থাকলেও জরুরি মেডিক্যাল ভিসাধারীরা ভারতে যেতে পারবেন।

অন্যদিকে অনুপ্রবেশ বন্ধ করতে ভারতের সীমান্তরক্ষী বিএসএফের টহল জোরদার করা হয়েছে। সীমান্তে অতিরিক্ত বিএসএফ সদস্যও মোতায়েন করা হয়েছে। রাতে সীমান্তে কাউকে যেতে দেয়া হচ্ছে না।

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
What did the US say about lifting the ban on RAB?

র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার প্রশ্নে কী বলল যুক্তরাষ্ট্র

র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার প্রশ্নে কী বলল যুক্তরাষ্ট্র
যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখ্য উপমুখপাত্র ভেদান্ত প্যাটেল। ফাইল ছবি
র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার নিয়ে প্রশ্নের জবাবে ভেদান্ত প্যাটেল বলেন, ‌‌‌‘এসব দাবি মিথ্যা। যুক্তরাষ্ট্র র‌্যাবের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করছে না। এসব দাবি মিথ্যা। নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয় আচরণ পরিবর্তন ও জবাবদিহিতা বাড়াতে।’

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের বিষয়ে খোলাখুলি অবস্থান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের ব্রিফিংয়ে এক প্রশ্নের জবাবে দেশটির অবস্থান ব্যক্ত করেন মুখ্য উপমুখপাত্র ভেদান্ত প্যাটেল।

মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে র‌্যাব এবং এর বর্তমান ও সাবেক সাত কর্মকর্তার ওপর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নেতৃত্বাধীন প্রশাসন নিষেধাজ্ঞা দেয় ২০২১ সালের ১০ ডিসেম্বর।

ঢাকায় সফর শেষ করা যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু গত বুধবার সন্ধ্যায় দৈনিক প্রথম আলো ও বেসরকারি টিভি চ্যানেল ইনডিপেনডেন্ট টিভিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা নিয়ে কথা বলেন।

র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার নিয়ে প্রথম আলোর এক প্রশ্নের জবাবে লু বলেন, ‘র‌্যাবের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা এখনও বহাল আছে। এক বছর আগে বাংলাদেশ সফরের সময় র‌্যাবের বিষয়ে হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রতিবেদনের প্রসঙ্গ তুলেছিলাম। হিউম্যান রাইটস ওয়াচ গত বছর তাদের প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছিল, র‌্যাবের হাতে বিচারবহির্ভূত হত্যা ও গুম নাটকীয়ভাবে কমে গেছে। এটা বিরাট ঘটনা। এটা অবশ্যই ভালো অগ্রগতি উল্লেখ করেই বলতে চাই, আমাদের এখনও উদ্বেগ রয়ে গেছে।’

এমন বাস্তবতায় বাংলাদেশ বিষয়ে প্রশ্নকারী সাংবাদিক ব্রিফিংয়ে ভেদান্ত প্যাটেলের উদ্দেশে বলেন, ‘সফররত সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লুর সঙ্গে বৈঠকের পর বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা রিপোর্টারদের বলেছেন যে, হোয়াইট হাউস ও স্টেট ডিপার্টমেন্ট র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে খুবই আগ্রহী, যেটা দেয়া হয়েছিল গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘন ও বিচার-বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের কারণে। সুতরাং তিনি বলেছেন যে, স্টেট ডিপার্টমেন্ট ও হোয়াইট হাউস নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে কাজ করছে।’

উল্লিখিত প্রশ্নের জবাবে ভেদান্ত প্যাটেল বলেন, ‌‌‌‘এসব দাবি মিথ্যা। যুক্তরাষ্ট্র র‌্যাবের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করছে না। এসব দাবি মিথ্যা। নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয় আচরণ পরিবর্তন ও জবাবদিহিতা বাড়াতে।’

আরও পড়ুন:
ভারতকে নিষেধাজ্ঞার হুমকি যুক্তরাষ্ট্রের
ঢাকায় হাসের উত্তরসূরি হিসেবে বাইডেনের মনোনয়ন পেলেন মিল
বাইডেনের হুঁশিয়ারি উপেক্ষা করে রাফায় ইসরায়েলের হামলা
এমআইটি’র ক্যাম্প পুনরুদ্ধার করেছে ফিলিস্তিনপন্থী বিক্ষোভকারীরা
যুক্তরাষ্ট্রে ফিলিস্তিনপন্থী বিক্ষোভ থেকে ২২০০ শিক্ষার্থী আটক

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
Heat wave in four divisions including Dhaka may continue for another 48 hours

আরও ৪৮ ঘণ্টা অব্যাহত থাকতে পারে ঢাকাসহ চার বিভাগের তাপপ্রবাহ

আরও ৪৮ ঘণ্টা অব্যাহত থাকতে পারে ঢাকাসহ চার বিভাগের তাপপ্রবাহ তীব্র গরমের মধ্যে রাজধানীর কমলাপুর এলাকায় পাইপের পানি দিয়ে গোসল করছেন এক ব্যক্তি। ফাইল ছবি
তাপপ্রবাহের সতর্কবার্তায় বলা হয়, ‘ঢাকা বিভাগের পশ্চিমাঞ্চলসহ রংপুর, রাজশাহী এবং খুলনা বিভাগের ওপর দিয়ে চলমান তাপপ্রবাহ আজ (১৭ মে, ২০২৪) সন্ধ্যা ছয়টা থেকে পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টা অব্যাহত থাকতে পারে।’

ঢাকাসহ চারটি বিভাগের তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর।

রাষ্ট্রীয় সংস্থাটি শুক্রবার তাপপ্রবাহের সতর্কবার্তায় এ তথ্য জানিয়েছে।

বার্তায় বলা হয়, ‘ঢাকা বিভাগের পশ্চিমাঞ্চলসহ রংপুর, রাজশাহী এবং খুলনা বিভাগের ওপর দিয়ে চলমান তাপপ্রবাহ আজ (১৭ মে, ২০২৪) সন্ধ্যা ছয়টা থেকে পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টা অব্যাহত থাকতে পারে।

‘জলীয় বাষ্পের আধিক্যের কারণে অস্বস্তিকর পরিস্থিতি অব্যাহত থাকতে পারে।’

এর আগে শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ৭২ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে তাপপ্রবাহ নিয়ে অধিদপ্তর জানায়, রাজশাহী, রংপুর, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে।

বৃষ্টিপাত নিয়ে পূর্বাভাসে বলা হয়, সিলেট বিভাগের দুই-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হতে পারে। এ ছাড়া দেশের অন্যান্য জায়গায় অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

তাপমাত্রা নিয়ে বলা হয়, সারা দেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

আরও পড়ুন:
পঞ্চগড়ে বৈরী আবহাওয়ায় নানা রোগে আক্রান্ত শিশুরা
দেশজুড়ে বাড়তে পারে দিনের তাপমাত্রা
দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি হতে পারে সব বিভাগে
ঢাকাসহ ৫ বিভাগের অনেক জায়গায় হতে পারে বৃষ্টি
দেশজুড়ে ঝড় বৃষ্টির আভাস, কমতে পারে রাতের তাপমাত্রা

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
BGB control the terrible fire in Thanchis Thuisapara

থানচির থুইসাপাড়ায় ভয়াবহ আগুন নিয়ন্ত্রণ বিজিবির

থানচির থুইসাপাড়ায় ভয়াবহ আগুন নিয়ন্ত্রণ বিজিবির বিজিবি সদস্যদের কয়েক ঘণ্টার চেষ্টায় দুপুরের দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। ছবি: বিজিবি
বিজিবির বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘বিজিবি সদস্যদের কয়েক ঘণ্টার প্রাণান্তকর চেষ্টায় দুপুরের দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। অগ্নিকাণ্ডে থুইসাপাড়ায় বেশ কয়েকটি বসতবাড়ি পুড়ে যায়, তবে বিজিবি সদস্যদের প্রাণান্তকর প্রচেষ্টায় পাহাড়ি বসতঘর ও তাদের অন্যান্য সম্পদ রক্ষা পায়।’

বান্দরবানের থানচির থুইসাপাড়ায় ভয়াবহ আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা।

বাহিনীর জনসংযোগ কর্মকর্তা শরীফুল ইসলাম শুক্রবার বিকেলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানিয়েছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘অদ্য ১৭ মে, ২০২৪ তারিখ সকাল ১০টার দিকে বিজিবির বলিপাড়া ব্যাটালিয়নের (৩৮ বিজিবি) অধীনস্থ জিন্নাপাড়া বিজিবি ক্যাম্পের দায়িত্বপূর্ণ থুইসাপাড়ায় পাহাড়িদের বসতঘরের রান্নাঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। আগুন লাগার সংবাদ পেয়ে জিন্নাপাড়া বিজিবি ক্যাম্প হতে বিজিবি সদস্যরা তাৎক্ষণিকভাবে থুইসাপাড়ায় ছুটে যায় এবং বিজিবি সদস্যরা অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র ব্যবহারসহ বিভিন্ন উপায়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে।

‘বিজিবি সদস্যদের কয়েক ঘণ্টার প্রাণান্তকর চেষ্টায় দুপুরের দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। অগ্নিকাণ্ডে থুইসাপাড়ায় বেশ কয়েকটি বসতবাড়ি পুড়ে যায়, তবে বিজিবি সদস্যদের প্রাণান্তকর প্রচেষ্টায় পাহাড়ি বসতঘর ও তাদের অন্যান্য সম্পদ রক্ষা পায়।’

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ‘আগুন নেভাতে গিয়ে বেশ কয়েকজন পাহাড়ি আহত হন। বিজিবি ক্যাম্পের মেডিক্যাল সহকারী তাদের তাৎক্ষণিকভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা ও প্রয়োজনীয় ওষুধ সরবরাহ করেছে। এ ছাড়াও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যদের জিন্নাপাড়া বিজিবি ক্যাম্পের পক্ষ থেকে দুপুরের খাবার সরবরাহ করা হয়।’

আরও পড়ুন:
সুন্দরবনের আগুন নিয়ন্ত্রণে
আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও পুড়ছে বিশ্ব ঐতিহ্য সুন্দরবন
পুড়ছে সুন্দরবন
সুন্দরবনের আগুন ছড়িয়েছে ২ কিলোমিটারে
সুন্দরবনে আগুন, নিয়ন্ত্রণে বনরক্ষীরা, যাচ্ছে ফায়ার সার্ভিস

মন্তব্য

অর্থ-বাণিজ্য
Plan for the countrys soil and people Prime Minister of Economists

দেশের মাটি ও মানুষের কথা বিবেচনা করে পরিকল্পনা করুন: অর্থনীতিবিদদের প্রধানমন্ত্রী

দেশের মাটি ও মানুষের কথা বিবেচনা করে পরিকল্পনা করুন: অর্থনীতিবিদদের প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফাইল ছবি
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশি বিশেষজ্ঞরা অবশ্যই বিদেশি উৎস থেকে যে কোনো কিছু শিখতে পারেন, কিন্তু দেশ, জনগণ এবং সম্পদ বিবেচনা করে এখানে তা বাস্তবায়ন করতে পারেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অর্থনীতিবিদদের দেশের মাটি ও মানুষের কথা বিবেচনা করে তাদের নীতি, পরিকল্পনা ও কর্মসূচি প্রণয়ন করতে বলেছেন।

তিনি বলেন, ‘আমি অর্থনীতিবিদদের কাছে চাই- আপনারা দেশের মাটি ও মানুষের কথা বিবেচনা করে আপনাদের নীতি, পরিকল্পনা ও কর্মসূচি প্রণয়ন করবেন।’

শুক্রবার রাজধানীর রমনা এলাকায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি) মিলনায়তনে বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির (বিইএ) ২২তম দ্বিবার্ষিক সম্মেলন-২০২৪ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। খবর ইউএনবির

তিনি বলেন, স্থানীয় বাস্তবতা ও জনকল্যাণকে কেন্দ্র করে কোনো পরিকল্পনা ও কর্মসূচি প্রণয়ন করা হলে তা কার্যকর হবে। কেউ (বিদেশি) যদি দু-একদিনের জন্য এখানে এসে আমাদের পরামর্শ দিয়ে চলে যায়, তাহলে আমাদের জন্য সেই পরামর্শ দিয়ে কোনো লাভ হবে না।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশি বিশেষজ্ঞরা অবশ্যই বিদেশি উৎস থেকে যে কোনো কিছু শিখতে পারেন, কিন্তু দেশ, জনগণ এবং সম্পদ বিবেচনা করে এখানে তা বাস্তবায়ন করতে পারেন।

জনগণের ভাগ্য পরিবর্তনই বাংলাদেশকে উন্নত করাই তার লক্ষ্য উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশ ইতোমধ্যে তার উন্নয়ন যাত্রায় অনেক অগ্রগতি অর্জন করেছে।

করতালির মধ্যে হাসিনা বলেন, ‘ইনশাল্লাহ আমরা এখন যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছি সেভাবেই এগিয়ে যাব। যত বাধাই আসুক না কেন আমরা সব বাধা অতিক্রম করতে সক্ষম হবো।’

দুই দিনব্যাপী দ্বিবার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সভাপতি অধ্যাপক আবুল বারকাত। সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ড. জামালউদ্দিন আহমেদ স্বাগত বক্তব্য রাখেন এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. আইনুল ইসলাম।

মন্তব্য

p
উপরে