20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
ফের শীর্ষে বাংলাদেশের পুঁজিবাজার

ফের শীর্ষে বাংলাদেশের পুঁজিবাজার

এর আগে গত আগস্টেও বাংলাদেশের পুঁজিবাজার বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে ভালো পারফরম্যান্স করেছিল। সেসময় পুঁজিবাজারের সূচক বেড়েছিল ১৫ দশমিক ৮ শতাংশ। সে সময় দ্বিতীয় স্থানে ছিল ভিয়েতনাম।

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেও জুলাই-সেপ্টেম্বরে বিশ্বের পুঁজিবাজারগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি সূচক বেড়েছে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে। মূলসূচক বৃদ্ধির এই তালিকায় এশিয়ায় দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে যথক্রমে পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার শেয়ারবাজার।

এ সময় দেশের পুঁজিবাজারের মূল্যসূচক বেড়েছে ২৪ দশমিক ৪ শতাংশ। এতে করে গত তিনমাসে বাংলাদেশের পুঁজিবাজার বিশ্বের সেরা পারফর্মিং বাজার হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে।

ব্লুমবার্গের তথ্যের ভিত্তিতে হংকংভিত্তিক তহবিল ব্যবস্থাপক এশিয়া ফ্রন্টিয়ার কোম্পানির (এএফসি) এশিয়া ফ্রন্টিয়ার ফান্ডের প্রতিবেদনে এমন তথ্যই উঠে এসেছে।

এর আগে গত আগস্টেও বাংলাদেশের পুঁজিবাজার বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে ভালো পারফরম্যান্স করেছিল। সে সময় পুঁজিবাজারের সূচক বেড়েছিল ১৫ দশমিক ৮ শতাংশ। দ্বিতীয় স্থানে ছিল ভিয়েতনাম।

জুলাই-সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশের পরের স্থানে থাকা পাকিস্তানের শেয়ারবাজারের মূল্যসূচক বেড়েছে ১৯ দশমিক ৪০ শতাংশ। ১৭ শতাংশ উত্থানের মধ্য দিয়ে তৃতীয় স্থানটি দখল করেছে শ্রীলঙ্কার শেয়ারবাজার।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের শেয়ারবাজারের উত্থান হয়েছে দেশীয় বিনিয়োগকারীদের কারণে। বিদেশিদের নিট বিক্রির পরিমাণ বেশি সত্ত্বেও দেশীয় বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগ দিয়ে এই উত্থান হয়েছে। এই উত্থানের পেছনে আকর্ষণীয় মূল্য, সুদহার কম, করোনা পরবর্তী অর্থনীতি চালু এবং রফতানি বৃদ্ধি ও রেমিট্যান্স গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।

গত ১৭ মে দেশের পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এর নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম।

বাজার বিশ্লেষকরা মনে করেন, শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের নেতৃত্বে পুনর্গঠিত কমিশন কাজ শুরুর পর থেকেই আস্থা ফিরতে শুরু করছে দেশের পুঁজিবাজারে। কমিশনের নানামুখী পদক্ষেপে গত তিন মাস ধরে চাঙ্গাভাব রয়েছে পুঁজিবাজারে। এ সময়ে সুদের নিম্নমুখী হারও বাজারে বিনিয়োগ বাড়াতে ভূমিকা রেখেছে। ফলে স্থানীয় বিনিয়োগকারীর অংশগ্রহণে লেনদেন হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়ে গেছে।

এএফসি এশিয়া ফ্রন্টিয়ার ফান্ডের প্রতিবেদনে বলা হয়, সুদের নিম্নহার, রফতানি ও রেমিট্যান্স বৃদ্ধিসহ করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেও অর্থনৈতিক কার্যক্রম আবারও শুরু হওয়ায় ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই)। এ বিষয়গুলোয় ভর করেই গত মাসে বেড়েছে ডিএসইর সূচক।

শেয়ার করুন