× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বিনোদন
Entertainment Fun Furti Revenge Story Beauty Circus
hear-news
player
print-icon

বিনোদন, ফান, ফুর্তি, প্রতিশোধের গল্প 'বিউটি সার্কাস'

বিনোদন-ফান-ফুর্তি-প্রতিশোধের-গল্প-বিউটি-সার্কাস
সংবাদ সম্মেলনে বিউটি সার্কাস সিনেমার কলাকুশলীরা। ছবি: নিউজবাংলা
জয়া আহসান বলেন, ‘বিউটি সার্কাস সিনেমায় আমার জন্য অসাধারণ একটি চরিত্র লিখেছে সে, আমার খুব ভালো লেগেছে। আমি কোনো স্টান্ট ম্যান ব্যবহার করিনি শুটিংয়ে। অনেক ঝুঁকি নিয়েছি, আবার মজাও ছিল। কারণ এরকম কিছু আর পাব কি না কে জানে। আমিসহ সবাই কষ্ট করেছে।’

সিনেমার নির্মাতা হিসেবে অভিষিক্ত হতে যাচ্ছেন মাহমুদ দিদার। ২৩ সেপ্টেম্বর প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে যাচ্ছে সরকারি অনুদানে নির্মিত বিউটি সার্কাস সিনেমা।

বিষয়টি জানান দিতেই শনিবার রাজধানীর বিয়াম অডিটরিয়ামে সংবাদ সম্মেলন করেন সিনেমা সংশ্লিষ্টরা।

অনুষ্ঠানে মাহমুদ দিদার বলেন, ‘এই সংবাদ সম্মেলন আমার জীবনে খুব গুরুত্বপূর্ণ, আমার সিনেমা প্রথমবারেরর মতো প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে যাচ্ছে। আমার সামনে বসে আছেন জয়া আহসান, আমার মেন্টর। আমার বিগত নাট্য নির্মাতা জীবনে তার দার্শনিক ঋণ রয়েছে। বিউটি সার্কাসের অভিনেত্রী ছাড়াও সিনেমাটির ন্যারেটিভ গঠনের সঙ্গেও তিনি জড়িয়ে আছেন।

‘বিনোদন, ঐতিহ্য এবং সিনেমাটিক ন্যারেটিভ দাঁড় করানোর জন্য সার্কাসের প্রেক্ষাপটটাই আমার সবচেয়ে ভালো মনে হয়েছে, তাই এ প্লটটি আমার বেছে নেয়া।’

দিদার জানান, বিউটি সার্কাস বিনোদন, ফান, ফুর্তি, প্রতিশোধের গল্প নিয়ে তৈরি।

অনুদানের সিনেমা হলেই অনেকে একটা টাইপড সিনেমা মনে করেন। নির্মাতা বলেন, ‘সেই ট্যাবু ভেঙে ফেলতে চাই।’

সম্প্রতি প্রকাশ পেয়েছে সিনেমার একটি গান। চিরকুট ব্যান্ডের নিবেদন গানটি গেয়েছের শারমিন সুলতানা সুমি। গানটির সংগীত পরিচালনা করেছেন পাভেল আরিন।

গানটি তৈরির পেছনের গল্প বলতে গিয়ে চিরকুটের সুমি বলেন, ‘সংগ্রামের বিজয় দেখতে পাচ্ছি। সাড়ে তিন বছর আগে দিদার এসেছিল চিরকুটের কাছে। আমি এক রাতেই মনে হয় গানটি লিখেছিলাম। দিদার প্রথম লাইন শুনে খুব অ্যাপ্রিসিয়েট করেছিল।

‘জয়া আপার স্ট্রাগল দেখেছি। আমাদের এখানে নারীদের একটু বেশি সংগ্রাম করতে হয়। জয়া আপার নাম শুনে আমি আরও আগ্রহী হই। তিনি আমার অনুপ্রেরণা, আমার মনে হয় তিনি সবার অনুপ্ররণা।’

সুমি গানটি বাদ্যযন্ত্র ছাড়াই গেয়ে শোনান। তার সঙ্গে কণ্ঠ মেলান জয়া আহসান, ফেরদৌস আহমেদ ও এ বি এম সুমন।

সিনেমায় রংলাল চরিত্রে অভিনয় করেছেন এ বি এম সুমন। তিনি বলেন, ‘চরিত্রটির জন্য পাগলামি করেছি। পরিচালক আমাকে এটা বিশ্বাস করিয়েছে। চুল ধুতে দেয়নি ৯ দিন, সরিষার তেল মুখে মেখে রোদে দাঁড় করিয়ে রেখেছে। রিয়েল লোকেশন আছে, এটা বড় বাজেটের সিনেমাতেও অনেক সময় সম্ভব না। আমি দেখেছি জয়া আপার জ্বর, তারপরও তিনি শুটিংয়ের জন্য দুই ঘণ্টা ভিজলেন। এসব ডেডিকেশন দেখেছি কাছ থেকে।’

ফেরদৌস বলেন, ‘বিউটির প্রেমে কে পড়েনি। এ ধরনের চরিত্র আমি কখনও করিনি। আমি পজিটিভভাবে আসতে পছন্দ করি। কিন্তু এখানে এটা হয়নি। পরিচালক আমাকে কনভিন্স করেছে। অভিনয়ের ক্ষুধা থেকেই চরিত্রটি করা।

‘যাত্রার, সার্কাসের মেয়েদের সস্তা মনে করা হয়। কিন্তু তাদেরও যে ব্যক্তিত্ব আছে সেটা মনে করা হয় না। তাদের কত রকম চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে চলতে হয় সেটা এ সিনেমায় আছে। জয়ার চরিত্রটি সার্কাসের মেয়ের। সে যে এলাকায় আসে, আমি সেই এলাকার নবাব। কিন্তু আমি আমার সমস্ত শৌর্য্য দিয়েও তাকে আমি পাইনি। তার ব্যক্তিত্বের কাছে আমি হার মানি।’

সবার শেষে কথা বলেন জয়া আহসান। তিনি বলেন, ‘দেড় বছর পর আমার অভিনীত সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে। ইমোশনের সঙ্গে জড়িয়ে আছে বিউটি সার্কাস। ফিকশন থেকেই দেখেছি মাহমুদ দিদারের আইডিয়া খুব ভালো হয়।

‘বিউটি সার্কাস সিনেমায় আমার জন্য অসাধারণ একটি চরিত্র লিখেছে সে, আমার খুব ভালো লেগেছে। আমি কোনো স্টান্ট ম্যান ব্যবহার করিনি শুটিংয়ে। অনেক ঝুঁকি নিয়েছি, আবার মজাও ছিল। কারণ এরকম কিছু আর পাব কি না কে জানে। আমিসহ সবাই কষ্ট করেছে।’

আরও পড়ুন:
‘বিউটি সার্কাস’-এ চিরকুটের নিবেদন ‘বয়ে যাও নক্ষত্র’
রক্তের ইতিহাসের সাক্ষ্য ‘বিউটি সার্কাস’
‘বিউটি সার্কাস’ সিনেমার পোস্টার ও মুক্তির তারিখ প্রকাশ
‘বিউটি সার্কাস’ আসছে সেপ্টেম্বরের চতুর্থ সপ্তাহে
সেন্সর পেল ‘বিউটি সার্কাস’, মুক্তির ঘোষণা শিগগিরই

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বিনোদন
Pooja did not dismiss the rumors of talking to a foreign casting unit

বিদেশি কাস্টিং ইউনিটের সঙ্গে কথা হওয়ার গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন না পূজা

বিদেশি কাস্টিং ইউনিটের সঙ্গে কথা হওয়ার গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন না পূজা অভিনেত্রী পূজা চেরী। ছবি: সংগৃহীত
তাহলে তথ্যটি ঠিক, কিন্তু আপনি এ নিয়ে কথা বলতে পারবেন না, বিষয়টা কি এমন? পূজা এবারও উত্তরে বললেন, ‘এটা নিয়ে আমি কিছু বলতে পারব না।’

‘বাংলা চলচ্চিত্র’ নামের ফেসবুক গ্রুপে ১৫ সেপ্টেম্বর দেয়া একটি পোস্ট নজরে আসে নিউজবাংলার। যেখানে এক নেটিজেন অভিনেত্রী পূজা চেরীর কিছু তথ্য শেয়ার করেছেন।

সেই পোস্টে লেখা, ‘বিশ্বস্ত সূত্রের খবর বলছে আগামী দিনে বলিউডি সিনেমায় আয়ুষ্মানের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করতে দেখা যেতে পারে বাংলাদেশের মেধাবী অভিনেত্রী পূজা চেরীকে। পরিচালনা করবেন রোহি খ্যাত নির্মাতা হারদিক মেহতা। এরই ধারাবাহিকতায় গত কিছুদিন আগে পূজা তার ওয়েবফিল্ম এর শুটিং করতে দেশের বাইরে থাকাকালীন মিটিং এ বসেছিলেন সিনেমাটির কাস্টিং ইউনিটের সঙ্গে।’

পোস্টটিতে আরও লেখা, ‘জানা যায়, সিনেমাটির জন্য নিজের ওজন কমানো শুরু করেছেন অভিনেত্রী পূজা চেরী। পাশাপাশি দেশীয় সিনেমার থেকে কিছু মাসের জন্য ছুটি নিয়ে পূজার পরেই মুম্বাই উড়াল দেবেন পূজা।’

২৬ সেপ্টেম্বর পূজা অভিনীত মুক্তি প্রতীক্ষিত হৃদিতা সিনেমার গান প্রকাশের অনুষ্ঠান ছিল। সেখানে উপস্থিত ছিলেন পূজা চেরী।

উপরের লেখাটি পূজা চেরীকে দেখিয়ে তার কাছে জানতে চাওয়া হয়, তথ্যটি কি ঠিক নাকি ভুল? পোস্টটির কিছু অংশ পড়ে পূজা নিউজবাংলাকে বলেন, ‘এটা নিয়ে আমি কিছু বলতে পারব না।’

তথ্যটি কি ভুল? প্রশ্নের উত্তরে পূজা বলেন, ‘এটা নিয়ে আমি কিছু বলতে পারব না।’

তাহলে তথ্যটি ঠিক, কিন্তু আপনি এ নিয়ে কথা বলতে পারবেন না, বিষয়টা কি এমন? পূজা এবারও উত্তরে বললেন, ‘এটা নিয়ে আমি কিছু বলতে পারব না।’

এ থেকে ধারণা করা হচ্ছে পূজা যখন চলতি মাসের শুরুতে থাইল্যান্ডে একটি কনটেন্টের শুটিংয়ে ছিলেন, তখন কাস্টিং ইউনিটের সঙ্গে কথা হয়েছে তার। তবে কোন প্রোজেক্ট, কার প্রজেক্ট বা কোথাকার প্রজেক্ট তা নিয়ে এখনও কিছুই নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন:
প্রত্যাশা পূরণ হয়নি পূজার

মন্তব্য

বিনোদন
Bublis baby bump is the reason Shakib is doubting the netizens

বুবলীর ‘বেবি বাম্প’, নেটিজেনদের সন্দেহে শাকিব, যত যুক্তি

বুবলীর ‘বেবি বাম্প’, নেটিজেনদের সন্দেহে শাকিব, যত যুক্তি বুবলীর বেবি বাম্প এর ছবি (বাঁয়ে), সিনেমার দৃশ্যে শাকিব খান ও বুবলী (ডানে)। ছবি: নিউজবাংলা
এসব ছাড়াও একটি পোস্টের মন্তব্যের ঘরে একজন লিখেছেন, ‘আসল খবর হল, বুবলী ও শাকিবের একটা মেয়ে সন্তান হয়েছে আমেরিকাতে, বতর্মানে তার বয়স ১ বছর হতে চলছে।’

ঢাকাই সিনেমার অভিনেত্রী বুবলী মঙ্গলবার দুপুরে তার বেবি বাম্পের একটি ছবি পোস্ট করেন। তারপর থেকেই বিষয়টি তুমুল আলোচনায়।

পোস্টটির কারণে নানা প্রশ্ন ঘুরছে সবার মনে। বুবলী কবে অন্তঃসত্ত্বা হয়েছিলেন, বুবলী মা হয়েছেন কি না, কবে মা হয়েছেন? সেই সন্তান কোথায়? পাশাপাশি সবচেয়ে বড় প্রশ্ন সন্তানের বাবা কে?

মঙ্গলবার বুবলী করছিলেন চাদর সিনেমার শুটিং। সন্ধ্যায় সেই শুটিং সেটে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন অভনেত্রী। তিনি স্বীকার করেছেন যে, ‘ডেফিনেটলি কিছু ব্যাপার তো আছেই। আমি এর আগেও বলেছি যে এগুলো নিয়ে পরে কথা বলব। কোনো ঘটনার পেছনে আরও অনেক ঘটনা থাকে।’

সন্তান, সন্তানের বাবা প্রসঙ্গে কোনো কথা বলেননি বুবলী। জানিয়েছেন শিগগিরই এ নিয়ে বিস্তারিত জানাবেন।

বুবলী সময় নিলেও নেটিজেনরা সময় নিচ্ছেন না। তারা বিভিন্ন যুক্তি, ধারণা ও মতামত লিখছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। আর তাদের লেখায় বুবলীর সন্তানের বাবা হিসেবে বার বার চলে আসছে শাকিব খানের নাম।

ফেসবুকে বুবলীর বেবি বাম্প এর ছবি পোস্ট করার ঘটনাকে নেটিজেনদের অনেকে মিলিয়ে দেখছেন সন্তানসহ অপু বিশ্বাসের আত্মপ্রকাশের ঘটনার সঙ্গে।

এ প্রসঙ্গে একজন লিখেছেন, ‘একদিন অপু বিশ্বাস টিভি লাইভে এসে সাকিব খানের সন্তান নিয়ে কান্না করছিল। শবনম বুবলী ছিল তার সংসার ভাঙার কারণ। গতকাল (মঙ্গলবার) ঠিক একই অবস্থায় দেখলাম বুবলিকে। সেও অপু বিশ্বাস এর মতো লাইভে, চোখে তার পানি। আর অপু বিশ্বাস শাকিব খানের বাসায় শাকিব খানকে সঙ্গে নিয়ে ছেলের জন্মদিন পালন করে।

বুবলীর ‘বেবি বাম্প’, নেটিজেনদের সন্দেহে শাকিব, যত যুক্তি
নেটিজেনের মন্তব্য। ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া স্ক্রিন শট

‘আজ থেকে মাএ সাড়ে পাঁচ বছর আগের কথা। অপু বিশ্বাস তখন কতটা অসহায় ছিল এই বুবলী ডাইনির জন্য। তখন বুবলী বোঝে নাই আল্লাহর বিচার বলে কিছু আছে। সবচেয়ে অবাক করা বিষয় হলো আল্লাহ ঠিক একই রকম পরিস্থিতি তৈরি করে বুবলীর বিচার করছে। (সংক্ষিপ্ত)’

মঙ্গলবার ছিল সাবেক দম্পতি শাকিব-অপুর সন্তান আব্রাম খান জয়ের জন্মদিন। শাকিব ও অপু দুজনেই তাদের সন্তানকে নিয়ে ফেসবুকে দিয়েছেন আবেগঘন পোস্ট।

জয়কে নিয়ে শাকিব খানের এমন পোস্ট সহজে নিতে পারেননি বলে মনে করছেন নেটিজেনদের কেউ কেউ। তাদের মতে এক সন্তানের জন্মদিনে বাবা শাকিবের আবেগ উতলে উঠলেও আরেক সন্তানের স্বীকৃতি দিচ্ছে না জন্যই বুবলী বেবি বাম্পের ছবি পোস্ট করেছেন।

বুবলীর ‘বেবি বাম্প’, নেটিজেনদের সন্দেহে শাকিব, যত যুক্তি
নেটিজেনের মন্তব্য। ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া স্ক্রিন শট

এ প্রসঙ্গে ফেসুবকে একজন লিখেছেন, “ছেলের জন্মদিনে শাকিব নিজের ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আমার ছোট্ট আব্রাম তার জীবনে নতুন বছরে পা রাখল। প্রতিনিয়ত খেয়াল করছি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে তুমি মানুষের মতো মানুষ হতে এগিয়ে যাচ্ছ। হয়তো একটা সময় গিয়ে বুঝবে, তোমার বাবা আছে বলেই জীবন এত সুন্দর। বাবারা কখনও শো অফ করে না, তারা দেখিয়ে দেয়! তোমার প্রতি আমার স্নেহ, আদর, দোয়া ও মঙ্গলকর দায়িত্ব সারা জীবন থাকবে। শুভ জন্মদিন রাজকুমার।’ নেটিজেনরা বলছেন, এক সন্তানকে নিয়ে শাকিবের আহ্লাদ মানতে পারেননি বুবলী। যার ফলে বুবলী ইঙ্গিত দিলেন, আরেক সন্তানের বিষয়টি আড়াল করা উচিত হচ্ছে না।’

ছেলে আব্রাম খান জয়ের জন্মদিনে শাকিব খানের বাসায় কেক কাটার কিছু ছবি মা অপু বিশ্বাস মঙ্গলবার রাতে পোস্ট করেছেন তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে। সেখানে দেখা যাচ্ছে জয় ও শাকিব খান কেক কাটছেন। তাদের পাশেই আছেন শাকিব খানের বাবা-মা।

একই জায়গায় অপু বিশ্বাসকেও দেখা গেছে জয় ও শাকিবের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দাঁড়িয়ে কেক কাটতে। সেসব ছবিতে অবশ্য শাকিব খান ছিলেন না। অপু সেই ছবিগুলো দিয়ে ক্যাপশনের একজায়গায় হ্যাসট্যাগ দিয়ে লিখেছেন, ‘হ্যাপি ফ্যামিলি’।

বুবলীর ‘বেবি বাম্প’, নেটিজেনদের সন্দেহে শাকিব, যত যুক্তি
নেটিজেনের মন্তব্য। ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া স্ক্রিন শট

২০১৭ সালের ১৮ মার্চ বুবলী তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন। সেখানে বুবলী ও তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ছিলেন শাকিব খান। সেই ছবির ক্যাপশন ছিল, ‘ফ্যামিলি টাইম’।

নেটিজেনদের দাবি, বুবলীর পোস্ট করা ছবিটি দেখে অপু বিশ্বাস রেগে গিয়েছিলেন। জানিয়েছিলেন, শাকিব খানকে নিয়ে একটি ছবি তুলে তার ক্যাপশনে কেন ফ্যামিলি টাইম লিখতে হবে। শাকিব খান কি তার (বুবলীর) ফ্যামিলির অংশ?

বুবলী ও অপুর দুটি পোস্টকে তুলনা করছেন নেটিজেনরা। একজন লিখেছেন, ‘শাকিবের প্রাক্তন স্ত্রীর পোস্ট দেখে এতো চিল হওয়ার কিছু নাই। পুরোটাই রিভেঞ্জ Family time Vs family love’।

এসব ছাড়াও একটি পোস্টের মন্তব্যের ঘরে একজন লিখেছেন, ‘আসল খবর হল, বুবলী ও শাকিবের একটা মেয়ে সন্তান হয়েছে আমেরিকাতে, বতর্মানে তার বয়স ১ বছর হতে চলছে।’

বুবলীর ‘বেবি বাম্প’, নেটিজেনদের সন্দেহে শাকিব, যত যুক্তি
নেটিজেনের মন্তব্য। ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া স্ক্রিন শট

বলী বিষয়টি নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বললেই নেটিজেনদের এ যুক্তি, ধারণা ও মতামত ঠিক না ভুল তা হয়তো জানা যাবে।

বেবি বাম্পের ছবি পোস্ট করার ঘটনাটিকে সেনসেটিভ ও ইমোশনাল ইস্যু বলে জানিয়েছেন বুবলী। তিনি এও বলেছেন, ‘আমরা যেহেতু মুসলিম, আমি একজন মুসলিম মানুষ, সবকিছুর পেছনে অবশ্যই ব্যাখ্যা আছে। সবকিছু সুন্দর, শালীনভাবেই হয়েছে।’

মঙ্গলবার দুপরে দেয়া পোস্টের ক্যাপশনে বুবলী লিখেছেন, ‘আমার জীবনের সঙ্গে আমি’। এর নিচে হ্যাসট্যাগ দিয়ে লিখেছেন ‘থ্রোব্যাক আমেরিকা’। এই ‘থ্রোব্যাক আমেরিকা’ শব্দ দুটির কারণে ধারণা করা হচ্ছে, ২০২০ সালে বুবলী যখন আমেরিকাতে ছিলেন, ছবিদুটি সেই সময়ের।

বুবলীর মা হওয়ার গুঞ্জন উঠেছিল ২০২০ সালে। বুবলী যখন শাকিব খান প্রযোজিত ও কাজী হায়াৎ পরিচালিত বীর সিনেমায় অভিনয় করছিলেন, তখন তার মা হওয়ার গুঞ্জন ওঠে।

সিনেমাটির শুটিং শেষ করেই বুবলী পাড়ি জমান আমেরিকা। করোনা মহামারির সময় যখন দেশে লকডাউন চলছিল, তখন তিনি আমেরিকাতে ছিলেন। গুঞ্জন আছে, আমেরিকাতে সন্তান প্রসব করেছেন এ অভিনেত্রী। সন্তানের বাবার পরিচয় হিসেবে শাকিব খানের নাম শোনা গিয়েছিল সেসময়।

তবে পরবর্তীতে দেশে ফিরে এসবকে গুঞ্জন বলেই জানিয়েছেন বুবলী। নায়ক শাকিব খানের সঙ্গে তার সম্পর্কের গুঞ্জনটিও স্বীকার করেননি তিনি।

আরও পড়ুন:
‘বিট্রে’ সিনেমায় বুবলী-রোশান
২৭ জানুয়ারি আসছে সিয়াম-বুবলীর ‘টান’
এলো সিয়াম-বুবলীর ‘টান’-এর ঝলক
অবনী-রাশেদের প্রেম ও এক বীভৎস ঘটনা
জুটি বাঁধলেন সিয়াম-বুবলী

মন্তব্য

বিনোদন
There is definitely something bubbly

সবকিছু সুন্দর-শালীনভাবেই হয়েছে: বুবলী

সবকিছু সুন্দর-শালীনভাবেই হয়েছে: বুবলী অভিনেত্রী বুবলী (বাঁয়ে) ও মঙ্গলবার পোস্ট করা তার ছবি। ছবি: সংগৃহীত
কয়েকদিনের মধ্যেই সাংবাদিকদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলবেন বলে জানান তিনি এবং ঘটনাটিকে সেনসেটিভ ও ইমোশনাল ইস্যু বলে জানান বুবলী।

ঢাকাই সিনেমার অভিনেত্রী শবনম বুবলী মঙ্গলবার দুপুরে তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দুটি ছবি পোস্ট করেছেন। যার একটি দেখে নেটিজেনরা মনে করছেন তিনি অন্তঃস্বত্বা।

ছবিটি কবেকার সে বিষয়ে পোস্টে কিছু জানাননি বুবলী। তবে ধারণা করা হচ্ছে ছবিগুলো আগের। কারণ, বুবলী এখন অভিনয় করছেন জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত চাদর সিনেমায়। সিনেমার শুটিংয়ে তাকে স্বাভাবিক দেখা গেছে।

স্ট্যাটাসটি দেয়ার পরপরই বুবলীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তিনি ফোন না ধরলেও সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। সেসময় তিনি ছিলেন চাদর সিনেমার শুটিংয়ে।

সেখানে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি কখনই আমার ব্যক্তিগত বিষয় সামনে আনতে চাই না। আপনারা অনেকবার অনেককিছু জানতে চেয়ছেন, কিন্তু আমি বরাবরই বলেছি যে, আমি আমার প্রফেশনাল লাইফটা নিয়ে ফোকাসে থাকতে চাই।’

স্ট্যাটাস ও ছবি নিয়ে বুবলী বলেন, ‘ডেফিনেটলি কিছু ব্যাপার তো আছেই। আমি এর আগেও বলেছি যে এগুলো নিয়ে পরে কথা বলব। কোনো ঘটনার পেছনে আরও অনেক ঘটনা থাকে।’

কয়েকদিনের মধ্যেই সাংবাদিকদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলবেন বলে জানান তিনি এবং ঘটনাটিকে সেনসেটিভ ও ইমোশনাল ইস্যু বলে জানান বুবলী।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা যেহেতু মুসলিম, আমি একজন মুসলিম মানুষ, সবকিছুর পেছনে অবশ্যই ব্যাখ্যা আছে। সবকিছু সুন্দর, শালীনভাবেই হয়েছে।’

মঙ্গলবার দুপরে দেয়া পোস্টের ক্যাপশনে বুবলী লিখেছেন, ‘আমার জীবনের সঙ্গে আমি’। এর নিচে হ্যাসট্যাগ দিয়ে লিখেছেন ‘থ্রোব্যাক আমেরিকা’। এই ‘থ্রোব্যাক আমেরিকা’ শব্দ দুটির কারণে ধারণা করা হচ্ছে, ২০২০ সালে বুবলী যখন আমেরিকাতে ছিলেন, ছবিদুটি সেই সময়ের।

বুবলীর মা হওয়ার গুঞ্জন উঠেছিল ২০২০ সালে। বুবলী যখন শাকিব খান প্রযোজিত ও কাজী হায়াৎ পরিচালিত বীর সিনেমায় অভিনয় করছিলেন, তখন তার মা হওয়ার গুঞ্জন ওঠে।

সিনেমাটির শুটিং শেষ করেই বুবলী পাড়ি জমান আমেরিকা। করোনা মহামারির সময় যখন দেশে লকডাউন চলছিল, তখন তিনি আমেরিকাতে ছিলেন। গুঞ্জন আছে, আমেরিকাতে সন্তান প্রসব করেছেন এ অভিনেত্রী। সন্তানের বাবার পরিচয় হিসেবে শাকিব খানের নাম শোনা গিয়েছিল সেসময়।

তবে পরবর্তীতে দেশে ফিরে এসবকে গুঞ্জন বলেই জানিয়েছেন বুবলী। নায়ক শাকিব খানের সঙ্গে তার সম্পর্কের গুঞ্জনটিও স্বীকার করেননি তিনি।

আরও পড়ুন:
২৭ জানুয়ারি আসছে সিয়াম-বুবলীর ‘টান’
এলো সিয়াম-বুবলীর ‘টান’-এর ঝলক
অবনী-রাশেদের প্রেম ও এক বীভৎস ঘটনা
জুটি বাঁধলেন সিয়াম-বুবলী
‘কয়লা’য় জুটি নিরব-বুবলী

মন্তব্য

বিনোদন
Nuhashs Hulu project Foreigners Only

নুহাশের হুলু প্রজেক্ট ‘ফরেনার্স অনলি’

নুহাশের হুলু প্রজেক্ট ‘ফরেনার্স অনলি’ ফরেনার্স অনলি কনটেন্টের পোস্টার (বাঁয়ে), নির্মাতা নুহাশ হুমায়ূন। ছবি: সংগৃহীত
নুহাশ নিউজবাংলাকে জানান, হরর-থ্রিলার ঘরানার কনটেন্ট এটি। যার শুটিং হয়েছে জুন-জুলাইয়ের দিকে। তিনি নিশ্চিত করেছেন যে, এটি কোনো ওয়েব সিরিজ না, এক পর্বের একটি কাজ। 

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ওটিটি প্ল্যাটফর্ম ‘হুলু’তে প্রচার হতে যাচ্ছে দেশের নির্মাতা নুহাশ হুমায়ূনের নির্মিত কনটেন্ট। কনটেন্টটির নাম ফরেনার্স অনলি। নুহাশ নিউজবাংলাকে জানান, ১ অক্টোবর কনটেন্টটি প্রকাশ পাবে হুলুতে।

নুহাশ তার ভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে কনটেন্টের পোস্টার শেয়ার করেছেন। এর মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইরেশ যাকের, মোস্তফা মনোয়ার। আরও আছেন রেবেকা নুসরাত আলী, সুভাশীষ ভৌমিক, কাজী তৌফিকুল ইসলাম ইমন, সৈয়দ তসলিমা হোসেন নদী ও জেমি প্যাটিনসন।

নুহাশ নিউজবাংলাকে জানান, হরর-থ্রিলার ঘরানার কনটেন্ট এটি। যার শুটিং হয়েছে জুন-জুলাইয়ের দিকে। তিনি নিশ্চিত করেছেন যে, এটি কোনো ওয়েব সিরিজ না, এক পর্বের একটি কাজ।

নুহাশ বলেন, ‘কাজ করে খুবই ভালো লেগেছে। হুলুও কাজটি পছন্দ করেছে। যখন আমি কাজটি পিচ করেছিলাম, তখন থেকেই তারা কাজটি করার জন্য উৎসাহি ছিল। পিচ করার পরদিনই আমি গল্পটি নিয়ে কাজ করার অনুমতি পেয়ে যাই। কাজটি করে মনে হয়েছে, আমরা গুড এনাফ।’

নুহাশ এও জানান কনটেন্টে চরিত্রের মুখে বাংলা ও ইংরেজি ভাষা শোনা যাবে। ১ অক্টোবর হুলুতে প্রকাশ পেলেও দেশের দর্শকরা এটা দেখতে পাবেন পরে। ভিপিএন ব্যাবহার করে দেখা যেতে পারে বলে জানান নুহাশ।

ফেসবুকে নুহাশ পোস্টার শেয়ার করার পাশাপাশি কিছু কথাও লিখেছেন। যেখানে তিনি আরও অনেক কথার সঙ্গে জানিয়েছেন, কেন এটা এত গুরুত্বপূর্ণ, কেন আমরা নিজেদের চেয়েও বিদেশিদের বেশি গুরুত্ব দেই, ফরেনার্স অনলি এ প্রশ্নসহ আরও কিছু প্রশ্ন তুলবে। এর উত্তর আমরা পছন্দ নাও করতে পারি।’

আরও পড়ুন:
দেশের শিল্পীদের নিয়ে দেশেই হয়েছে নুহাশের হুলু প্রজেক্টের শুটিং
অস্কার মনোনয়নে গুরুত্বপূর্ণ প্রতিযোগী হয়ে উঠছে নুহাশের ‘মশারী’
নুহাশের খবরটি কেন গুরুত্বপূর্ণ? রেজার ব্যাখ্যা
হলিউড সংস্থার সঙ্গে নুহাশের চুক্তি, প্রথম কাজ ওটিটিতে
সাক্ষাৎকারের প্রশ্নে বিরক্ত নুহাশ

মন্তব্য

বিনোদন
The glimpse of motherhood in Bublis film

বুবলীর ছবিতে মাতৃত্বের আভাস!

বুবলীর ছবিতে মাতৃত্বের আভাস! বুবলীর পোস্ট এর স্ক্রিন শট (বাঁয়ে) ও মাতৃত্বের আভাস দেয়া ছবি (ডানে)। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা
ছবি দুটি পোস্ট করে বুবলী ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘আমার জীবনের সঙ্গে আমি’। এর নিচে হ্যাসট্যাগ দিয়ে লিখেছেন ‘থ্রোব্যাক আমেরিকা’।

ঢাকাই সিনেমার অভিনেত্রী শবনম বুবলী মঙ্গলবার দুপুরে তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দুটি ছবি পোস্ট করেছেন। যার একটি দেখে নেটিজেনরা মনে করছেন তিনি অন্তঃস্বত্বা।

ছবিটি কবেকার সে বিষয়ে পোস্টে কোনো ধারণা দেননি বুবলী। তবে ধারণা করা হচ্ছে ছবিগুলো আগেকার। কারণ, বুবলী এখন অভিনয় করছেন জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত চাদর সিনেমায়। সিনেমার শুটিংয়ে তাকে স্বাভাবিক দেখা গিয়েছে।

তাছাড়া ছবি দুটি পোস্ট করে বুবলী ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘আমার জীবনের সঙ্গে আমি’। এর নিচে হ্যাসট্যাগ দিয়ে লিখেছেন ‘থ্রোব্যাক আমেরিকা’। এই ‘থ্রোব্যাক আমেরিকা’ শব্দ দুটির কারণে ধারণা করা হচ্ছে, ২০২০ সালে বুবলী যখন আমেরিকাতে ছিলেন, ছবিদুটি সেই সময়ের।

ছবিটিতে মাতৃত্বের যে ইঙ্গিত খুঁজছেন নেটিজেনরা, সে বিষয়ে জানতে বুবলীকে অসংখ্যবার ফোন করেও পাওয়া যায়নি।

পোস্টটির মন্তব্যের ঘরে একজন লিখেছেন, ‘১০০% প্রেগনেন্ট’। আরেকজন লিখেছেন, ‘মা হবার সম্ভাবনা বেশি মনে হচ্ছে।’

বুবলীর মা হওয়ার গুঞ্জন উঠেছিল ২০২০ সালে। বুবলী যখন শাকিব খান প্রযোজিত ও কাজী হায়াৎ পরিচালিত বীর সিনেমায় অভিনয় তখন তার মা হওয়ার গুঞ্জন ওঠে।

সিনেমাটির শুটিং শেষ করেই বুবলী পাড়ি জমান আমেরিকা। করোনা মহামারির সময় যখন দেশে লকডাউন চলছিল, তখন তিনি আমেরিকাতে ছিলেন। গুঞ্জন আছে, আমেরিকাতে সন্তান প্রসব করেছেন এ অভিনেত্রী। সন্তানের বাবার পরিচয় হিসেবে শাকিব খানের নাম শোনা গিয়েছিল সেসময়।

তবে পরবর্তীতে দেশে ফিরে এসবকে গুঞ্জন বলেই জানিয়েছেন বুবলী। নায়ক শাকিব খানের সঙ্গে তার সম্পর্কের গুঞ্জনটিও স্বীকার করেননি তিনি।

মঙ্গলবারের স্ট্যাটাসে বুবলীর ছবি এবং ‘#থ্রোব্যাক আমেরিকা’ লেখা দেখে দুইয়ে দুইয়ে চার মেলাতে চাইছেন অনেকে।

আরও পড়ুন:
এলো সিয়াম-বুবলীর ‘টান’-এর ঝলক
অবনী-রাশেদের প্রেম ও এক বীভৎস ঘটনা
জুটি বাঁধলেন সিয়াম-বুবলী
‘কয়লা’য় জুটি নিরব-বুবলী
‘কয়লা’ সিনেমায় বুবলী

মন্তব্য

বিনোদন
We Are Distracted What Our National Film Really Is The Sadia Khalid Genre

আমরা বিক্ষিপ্ত, আমাদের ন্যাশনাল ফিল্ম আসলে কী: সাদিয়া খালিদ রীতি

আমরা বিক্ষিপ্ত, আমাদের ন্যাশনাল ফিল্ম আসলে কী: সাদিয়া খালিদ রীতি চলচ্চিত্র সমালোচক, সাংবাদিক সাদিয়া খালিদ রীতি। ছবি: সংগৃহীত
‘আর্ট হাউস সিনেমাগুলো তো ইউরোপের ফিল্ম মুভমেন্ট থেকে শুরু হয়েছে। আমরা আমাদের আর্ট হাউস করতে গিয়ে ওদের অনেক ক্ষেত্রে কপি করেছি। এ ক্ষেত্রে আমাদের নিজেদের মানুষ, দর্শক ও দর্শনকে গুরুত্ব দেয়া উচিত। আমরা কিন্তু এখনও স্ক্যাটার্ড, আমাদের ন্যাশনাল ফিল্ম আসলে কী? কেউ ইউরোপকে ফলো করছে, কেউ বলিউডকে ফলো করছে।’

সাদিয়া খালিদ রীতি প্রথম না দ্বিতীয় সেই আলাপে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তিনি স্পষ্ট করে বললেন, ‘আমি দ্বিতীয় বলতেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করব।’

হলিউডের প্রেস অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে হওয়া নামকরা অ্যাওয়ার্ড প্ল্যাটফর্ম গোল্ডেন গ্লোবে ভোটার হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন দেশের এ সাংবাদিক ও ফিল্ম ক্রিটিক।

এটি নিঃসন্দেহে উদযাপনের বিষয় এবং রীতি সেটি করছেনও। তার ভাষ্যে, ‘হ্যাঁ, আমি উদযাপন করছি। এটা এমন না যে হঠাৎ করে পেয়ে গেছি। এটার জন্য অনেক হার্ড ওয়ার্ক করেছি। শ্রম করে পাওয়ার যে আনন্দ সেটা পাচ্ছি।’

আর কেন তিনি দ্বিতীয় সেটি ব্যাখ্যা করতে জানান, ১৯৯৩ সালে ভোটার হিসেবে একজন যুক্ত হয়েছিলেন, তিনি বাংলাদেশি তবে আমেরিকান নাগরিক ছিলেন এবং আমেরিকান জার্নালিস্ট হিসেবেই তিনি ভোটার হয়েছিলেন। মূলত ফটো জার্নালিস্ট ছিলেন তিনি।

কীভাবে এ অর্জন? জানতে চাইলে রীতি নিউজবাংলাকে বলেন, ‘গোল্ডেন গ্লোব এর আগে শুধু আমেরিকার নাগরিকদের মধ্যে থেকে ভোটার হিসেবে নিত, এবার ওরা অন্য দেশ থেকেও ভোটার নিচ্ছে, যাদের হাইপ্রোফাইল মনে করছে। আগে ভোটার সংখ্যা ছিল ১০০ জনের মধ্যে, এখন সেটা ডাবলের মতো হয়ে যাচ্ছে।

আমরা বিক্ষিপ্ত, আমাদের ন্যাশনাল ফিল্ম আসলে কী: সাদিয়া খালিদ রীতি
চলচ্চিত্র সমালোচক, সাংবাদিক সাদিয়া খালিদ রীতি। ছবি: সংগৃহীত

‘আমি এটার খবর রাখতাম না, কারণ এটা শুধু আমেরিকার নাগরিকদের জন্য ছিল। তো হঠাৎ করে একদিন গোল্ডেন গ্লোবের ভোটিং বডির প্রেসিডেন্ট মেইল করল। আমি ভেবেছিলাম এটা হয়তো প্রি-সিলেকশন, আমি বোধহয় সিলেকশন হয়ে গিয়েছি। পরে দেখলাম, না, ওরা অ্যাপ্লিকেশন চেয়েছে এবং সেগুলো থেকে যাচাই-বাছাই করে তারপর চূড়ান্ত করবে। কয়েকটা মাস টেনশনে ছিলাম, হয় কি না।’

শেষমেশ জয়ের হাসি হেসেছেন রীতি। অনেকগুলো সিনেমা দেখতে হবে তার। নেটফ্লিক্স এবং ডিজনি নাকি এরই মধ্যে স্ক্রিনার (প্রমোশনাল) পাঠানো শুরু করেছ। অনেক বড় কাজ।

রীতি বলেন, ‘কাজটা যেন ঠিকমতো করতে পারি। গোল্ডেন গ্লোব কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ থেকে একজনকে নিয়েছে, দেশের সম্মানটা যেন রাখতে পারি।’

রীতি সিনেমাপাগল। স্বপ্নের পেছনেই ছুটছেন এখনও। রীতির বাবা ছিলেন এয়ারফোর্সে। যশোরে জন্ম রীতির, বেড়ে উঠেছেন দেশের বিভিন্ন জায়গায়। ক্লাস ৪-৫-এ চায়নাতেও ছিলেন তিনি।

আমরা বিক্ষিপ্ত, আমাদের ন্যাশনাল ফিল্ম আসলে কী: সাদিয়া খালিদ রীতি
চলচ্চিত্র সমালোচক, সাংবাদিক সাদিয়া খালিদ রীতি। ছবি: সংগৃহীত

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে মার্কেটিং ও হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্টে অনার্স করে ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়ার স্কুল অফ থিয়েটার, ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন বিভাগে লেখাপড়া করেছেন। তার বিষয় ছিল স্ক্রিপ্ট রাইটিং।

রীতি জানান, ২০১৫-১৭তে যখন তিনি লস অ্যাঞ্জেলসে ছিলেন, তখন ওখানে রাইটার হিসেবে কাজ করতে গেলে ওদের গল্পটাই বলতে হতো। কিন্তু রীতি চেয়েছিলেন নিজের দেশের গল্পটা আগে বলতে। হলিউডে রীতি দুটি প্রোডাকশন হাউস ও একটি আর্টিস্ট ম্যানেজমেন্ট ফার্মে কাজ করেছেন। সাংবাদিক হিসেবেও সেখানকার সংবাদমাধ্যমে কাজ করেছেন তিনি।

সিনেমার প্রতি এ ভালোবাসা রীতির টিনএজ বয়স থেকে। তিনি বলেন, ‘মুলান রুজ সিনেমাটা দেখে আমার সিনেমার প্রতি আগ্রহ জন্মে। ইচ্ছা ছিল মিউজিক ভিডিও বানাব।’

পরে রাইটিংয়ে আগ্রহ বাড়ে রীতির। বিদেশে লেখাপড়া ও কাজ শেষে দেশে এসে ফুল টাইম লিখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সে আশায় গুড়েবালি।

রীতি বলেন, ‘আমাদের এখানে রাইটারদের মূল্যায়ন করা হয় না। মাসের পর মাস একটা প্রজেক্টে কাজ করেছি কিন্তু কোনো টাকা দেয় নাই; কোনো কনট্রাক্ট সাইন করে নাই। খুবই আনপ্রফেশনাল এই রাইটিংয়ের জায়গাটা। টাকা দিলেও খুব সামান্য টাকা দেয়। আমি বুঝলাম লিখে টিকে থাকা সম্ভব না। আসার পর ছয় মাস রাইটিং করেছি, পরে দেখলাম এভাবে হয় না, পরে আবার সাংবাদিক পেশায় যুক্ত হয়েছি ও রাইটিংয়ের কাজ করছি।’

এর পাশাপাশি রীতি যুক্ত হতে থাকেন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবগুলোতে। এরই মধ্যে কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের জুরির দায়িত্ব পালন করেছেন, ছিলেন বার্লিনালে ট্যালেন্টসে।

আমরা বিক্ষিপ্ত, আমাদের ন্যাশনাল ফিল্ম আসলে কী: সাদিয়া খালিদ রীতি
চলচ্চিত্র সমালোচক, সাংবাদিক সাদিয়া খালিদ রীতি। ছবি: সংগৃহীত

ফেস্টিভ্যাল সার্কিটে যুক্ত হওয়ার শুরুর গল্প জানিয়ে রীতি বলেন, ‘আমি ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের (ডিআইএফএফ) সঙ্গে যুক্ত হই ২০১২তে। ২০১৮তে ফেস্টিভ্যালের জুরি হিসেবে দায়িত্ব পাই। ঢাকা ফিল্ম ফেস্টিভ্যালকে এখানকার মানুষ বোঝে কি না জানি না, কিন্তু এটা অনেক বড় ফেস্টিভ্যাল। ওই বছরেই আমার অনেকগুলো ফেস্টিভ্যাল থেকে ডাক আসে।’

অনেকে বলবেন, এসব ফেস্টিভ্যালে যুক্ত হয়ে দেশের সিনেমার কী হবে? তার ব্যাখ্যা দিয়ে রীতি বলেন, ‘ফায়দা হলো, আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে আমাদের অংশগ্রহণ বাড়বে। ওরা কিন্তু আমাদের পয়েন্ট অফ ভিউটাই জানে না। ইউরো সেন্ট্রিক পয়েন্ট অফ ভিউ বা ওয়েস্টার্ন পয়েন্ট অফ ভিউ থেকে ফিল্ম ক্রিটিসিজমটা চলে আসছে। ফেস্টিভ্যালে যখন কোনো ক্রিটিক সিনেমা দেখছে তার অধিকাংশই ওয়েস্টার্ন। ওরা সিনেমা দেখার পর যখন কথা বলে আমাদের সঙ্গে, তখন আমি বুঝি যে আমাদের কালচার সম্পর্কে ওদের কোনো ধারণাই নাই।

‘এতে করে সমস্যা হলো, আমাদের এখান থেকে সিনেমা নির্মাণ হবে ঠিকই, কিন্তু ওরা বুঝবেই না কিছু এবং এ অঞ্চলের সিনেমার যথার্থ মূল্যায়ন হবে না। ফিল্মের ইকোসিস্টেমের মধ্যে এটা গুরুত্বপূর্ণ একটা পার্ট, যে ইন্টারন্যাশনাল প্ল্যাটফর্মে বসার মতো ফিল্ম ক্রিটিকও থাকতে হবে।’

আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সিনেমা দেখে রীতির পর্যবেক্ষণ হলো- সেসব সিনেমার সঙ্গে দেশের সিনেমার পার্থক্য অনেক।

কারণ ব্যাখ্যা করে রীতি বলেন, ‘আর্ট হাউস সিনেমাগুলো তো ইউরোপের ফিল্ম মুভমেন্ট থেকে শুরু হয়েছে। আমরা আমাদের আর্ট হাউস করতে গিয়ে ওদের অনেক ক্ষেত্রে কপি করেছি। এ ক্ষেত্রে আমাদের নিজেদের মানুষ, দর্শক ও দর্শনকে গুরুত্ব দেয়া উচিত। আমরা কিন্তু এখনও স্ক্যাটার্ড, আমাদের ন্যাশনাল ফিল্ম আসলে কী? কেউ ইউরোপকে ফলো করছে, কেউ বলিউডকে ফলো করছে।’

সম্প্রতি ঘোষণা এসেছে অস্কারের আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র বিভাগে লড়তে বাংলাদেশ থেকে পাঠানো হাওয়া সিনেমাটি। এর সম্ভাবনা কেমন জানতে চাওয়া হয় রীতির কাছে।

আমরা বিক্ষিপ্ত, আমাদের ন্যাশনাল ফিল্ম আসলে কী: সাদিয়া খালিদ রীতি
চলচ্চিত্র সমালোচক, সাংবাদিক সাদিয়া খালিদ রীতি। ছবি: সংগৃহীত

তিনি বলেন, ‘অস্কারে লবিং হয়, প্রচুর লবিং হয়। আমি যখন লস অ্যাঞ্জেলেসে কাজ করতাম তখন দেখতাম আমাদের অফিসে এসে কেক দিয়ে যাচ্ছে, গিফট দিয়ে যাচ্ছে। একবার দেখেছিলাম যে টম হ্যাঙ্কসের কোনো একটি সিনেমা, নাম মনে করতে পারছি না, ওরা এক মাস ধরে প্রতি রাতে পার্টি দিয়েছে।

‘তবে ইন্টারন্যাশনাল ফিচার ফিল্মে এই লবিং মনে হয় না প্রযোজ্য। এ ক্ষেত্রে ওরা দেখে ফেস্টিভ্যালে কেমন পারফর্ম করেছে সিনেমাটি। হাওয়া তো সেই অর্থে ফেস্টিভ্যালে পারফর্ম করেনি। তার পরও সিনেমাটি যদি কয়েক ধাপ এগিয়ে যেতে পারে, সেটাই আমাদের পাওয়া হবে।’

কাজ তো চলছেই, পাশাপাশি একটি টার্গেট নিয়ে এগোচ্ছেন রীতি। সেটি কেমন?

রীতি বলেন, ‘ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে একটা সেগমেন্ট করি আমরা, যেটার নাম ওয়েস্ট মিট ইস্ট। ওখানে আমরা সাউথ এশিয়ান রিজিয়নের স্ক্রিপ্ট নিয়ে একটা কম্পিটিশন করি। আমার একটা স্বপ্ন হচ্ছে যে, সাউথ এশিয়ান ফিল্মের মধ্যে রিজিয়নাল কো-অপারেশনকে আরও শক্তিশালী করা। আমাদের মধ্যে এই কো-অপারেশনটা খুবই উইক এখন পর্যন্ত।

কো-অপারেশন বাড়লে কী হবে জানতে চাইলে রীতি বলেন, ‘গ্লোবাল প্ল্যাটফর্মটা যে এত ওয়েস্ট ঘ্যাসা সেটা চেঞ্জ হবে। আমার সংঘবদ্ধ হলে আমাদের পয়েন্ট অফ ভিউটা সবার শুনতেই হবে। ওয়েস্ট মিট ইস্ট প্রোগ্রামটা নিয়ে সাউথ এশিয়ানদের মধ্যে বেশ একটা আগ্রহ আছে। আশা করি বিষয়টা নিয়ে এগোনো যাবে।’

মন্তব্য

বিনোদন
In the teaser Tisha appeared as heroine Pritilata

টিজারে ‘বীরকন্যা প্রীতিলতা’ রূপে দেখা দিলেন তিশা

টিজারে ‘বীরকন্যা প্রীতিলতা’ রূপে দেখা দিলেন তিশা প্রীতিলতা চরিত্রে নুসরাত ইমরোজ তিশা। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা, ছবি: টিজার থেকে নেয়া
উপন্যাস থেকে একই নামে সিনেমা নির্মাণ করেছেন প্রদীপ ঘোষ। রোববার প্রকাশ পেয়েছে সিনেমাটির টিজার। সিনেমায় প্রীতিলতার চরিত্রে অভিনয় করেছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা। টিজারে বিভিন্ন লুকে দেখা গেছে তাকে।

প্রীতিলতা ছিলেন ব্রিটিশবিরোধী স্বাধীনতা সংগ্রামী। মাস্টারদা সূর্যসেনের নেতৃত্বে চট্টগ্রামের বিপ্লবে অংশ নিয়েছিলেন তিনি।

ক্রেইগ হত্যা মামলায় আরেক বিপ্লবী রামকৃষ্ণ বিশ্বাস আলীপুর জেলে আটক ছিলেন। জেলেই তার সঙ্গে প্রীতিলতা দেখা করেছিলেন ৪০ বার।

সূর্যসেনের নির্দেশ ছিল একজন বিপ্লবী আরেকজন বিপ্লবীর সঙ্গে দেখা করতে পারবে না। কিন্তু প্রীতিলতা সেই নির্দেশ অমান্য করেছিলেন। কিন্তু কেন? কী এমন টান ছিল প্রীতিলতার?

হয়তো রামকৃষ্ণকে পছন্দ করতেন, ভালোবাসতেন প্রীতিলতা! এর উত্তর কি পাওয়া সম্ভব? কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেনের উপন্যাস ‘ভালোবাসা প্রীতিলতা’ লেখার আগে এসবের উত্তর খুঁজেছেন।

চট্টগ্রামের পাহাড়তলী ইউরোপিয়ান ক্লাব আক্রমণের পর প্রীতিলতা বিষপান করে জীবন উৎসর্গ করেন। তার পোশাকের পকেটে পাওয়া যায় রামকৃষ্ণ বিশ্বাসের ছবি।

এ থেকে কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেনের বিশ্বাস দৃঢ় হয়। আর সেই বিশ্বাস থেকে প্রীতিলতার মনে গোপন করে রাখা ভালোবাসা নিয়ে সেলিনা হোসেন লিখেছেন ‘ভালোবাসা প্রীতিলতা’ উপন্যাস।

সেই উপন্যাস থেকে একই নামে সিনেমা নির্মাণ করেছেন প্রদীপ ঘোষ। রোববার প্রকাশ পেয়েছে সিনেমাটির টিজার। সিনেমায় প্রীতিলতার চরিত্রে অভিনয় করেছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা। টিজারে বিভিন্ন লুকে দেখা গেছে তাকে।

বিপ্লবী রামকৃষ্ণের চরিত্রে অভিনয় করেছেন মনোজ প্রামাণিক। টিজারে আছেন তিনিও। টিজারের শেষ অংশে তিশাকে দেখা গেছে সেই সময়ের পুলিশি পোশাকে; আর মাথায় পাগড়ি। গুলিবিদ্ধ তিশাকে কাতরাতে দেখা গেছে টিজারের শেষ অংশে।

সিনেমাটি কবে মুক্তি পাবে, তা এখনও জানানো হয়নি। ২০১৯-২০ অর্থবছরের সরকারি অনুদান পায় সিনেমাটি।

মন্তব্য

p
উপরে