× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বিনোদন
No appeal should be made directly to the boarder
hear-news
player
print-icon

সংশোধনী নেই, সরাসরি আপিল করতে হবে ‘বর্ডার’কে

সংশোধনী-নেই-সরাসরি-আপিল-করতে-হবে-বর্ডারকে
বর্ডার সিনেমার পোস্টার। ছবি: সংগৃহীত
সৈকত বলেন, ‘আমিরা চিঠিটা নিয়ে কিছু বলতে চাই না। আমি আমার মতো করে সিনেমাটি সংশোধন করে আগামী মাসের ১ তারিখের পরে আবার জমা দেব সেন্সর বোর্ডে।’

কোনো সিনেমা প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শনের অনুমতি পেতে চাইলে সেই সিনেমার প্রযোজককে সিনেমাটি সেন্সর বোর্ডে জমা দিতে হয়।

সেন্সর বোর্ড সিনেমাটি দেখে সব ঠিক আছে মনে করলে কোনো কর্তন, সংযোজন-বিয়োজন ছাড়াই সেন্সর সার্টিফিকেট ইস্যু করে।

অথবা, কোনো শব্দ, দৃশ্য, সংলাপে সমস্যা মনে করলে কর্তন বা সংযোজন-বিয়োজন করতে প্রয়োজনীয় সংশোধনী নিয়ে প্রযোজক বরাবর চিঠি ইস্যু করে।

তবে সৈকত নাসির পরিচালিত সিনেমা বর্ডার এর ক্ষেত্রে কোনো সংশোধনী দেয়নি সেন্সর বোর্ড। চিঠিতে জানানো হয়েছে ‘সিনেমাটি প্রদর্শনের যোগ্য নহে’। নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সেন্সর বোর্ডের উপ-পরিচালক মোমিনুল হক।

তিনি বলেন, ‘সেন্সর বোর্ড কোনো সংশোধনী দেয় নাই। সরাসরি আপিল করতে হবে বর্ডার সিনেমার প্রযোজককে। চিঠি ইস্যুর দিন থেকে পরের ৩০ দিনের মধ্যে তারা আপিল করতে পারবেন।’

কি কারণে সিনেমাটি প্রদর্শন যোগ্য নয় জানতে চাইলে মোমিনুল হক বলেন, ‘সেগুলো আমরা চিঠিতে জানিয়েছি। চিঠিটি বর্ডার সিনেমা সংশ্লিষ্টদের কাছ থেকে সংগ্রহ করতে পারেন। পরিচালক-প্রযোজকের কাছ থেকেও জেনে নিতে পারেন।’

পরিচালক সৈকত নাসিরের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি নিউজবাংলাকে চিঠিতে উল্লেখ করা কোনো কারণগুলো বলেননি।

সৈকত বলেন, ‘আমিরা চিঠিটা নিয়ে কিছু বলতে চাই না। আমি আমার মতো করে সিনেমাটি সংশোধন করে আগামী মাসের ১ তারিখের পরে আবার জমা দেব সেন্সর বোর্ডে।’

সীমান্তবর্তী এলাকার কিছু মানুষের জীবনচক্র নিয়ে নির্মিত হয়েছে সিনেমা বর্ডার। সিনেমাটি ৯ সেপ্টেম্বর মুক্তির কথা ছিল। এর কাহিনিকার আসাদ জামান।

সিনেমায় অভিনয় করেছেন আশীষ খন্দকার, সুমন ফারুক, সাঞ্জু জন, অধরা খান, রাশেদ মামুন অপু, মৌমিতা মৌ, শাহিন মৃধাসহ অসেকে। সিনেমাটি প্রযোজনা করেছে ম্যাক্সিমাম এন্টারটেইনমেন্ট।

আরও পড়ুন:
গ্যাংদের টুকরো চিত্র উঠে এলো ‘বর্ডার’-এর টিজারে

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বিনোদন
IGP praised Operation Sundarban

‘অপারেশন সুন্দরবন’ দেখে প্রশংসা করলেন আইজিপি

‘অপারেশন সুন্দরবন’ দেখে প্রশংসা করলেন আইজিপি অপারেশন সুন্দরবন সিনেমা দেখে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ। ছবি: সংগৃহীত
অপারেশন সুন্দরবন নির্মাণের গল্প উল্লেখ করে ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘জলদস্যুদের অভয়ারণ্য হিসেবে পরিচিত সুন্দরবনের শান্তি ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে অপারেশন শুরু করে র‍্যাব। অফিসার ও ট্রুপসদের দক্ষতা ও চৌকস অপারেশনের মাধ্যমে সুন্দরবনকে জলদস্যু মুক্ত করা হয়। আর সেই সাফল্যগাথা ফ্রেমে ফ্রেমে জাতির সামনে তুলে ধরার লক্ষ্যেই অপারেশন সুন্দরবন বানানোর পরিকল্পনা করি।’

দর্শকদের ভালোবাসা জয় করতে পেরেছে বলে অপারেশন সুন্দরবন মুক্তির পর থেকে দর্শকদের প্রশংসায় ভাসছে। ২ ঘণ্টা ২১ মিনিট দর্শকদের মনোযোগ ধরে রাখাটাও সিনেমাটির একটা সাফল্য। সিনেমাটি ঝুলে যায়নি। টানটান উত্তেজনা ও সাসপেন্সে ভরপুর ছিল বলে সিনেমাটি দর্শকরা গ্রহণ করেছের।

ভিএফএক্স, সাউন্ড কোয়ালিটি, শিল্পীদের অভিনয়, কলাকুশলীদের মুনশিয়ানায় অপারেশন সুন্দরবন ছবিটি একটি ভিন্নধর্মী ও মানসম্পন্ন চলচ্চিত্রের কাতারে স্থান পেয়েছে।

শুক্রবার বিকেলে বসুন্ধরার স্টার সিনেপ্লেক্সে অপারেশন সুন্দরবন দেখার পর এসব কথা বলেন বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের র‍্যাব ট্রুপস ও অফিসাররাও দুর্দান্ত কাজ করেছে। নানা মাত্রিকতায় অপারেশনের দৃশ্যগুলো তুলে ধরা হয়েছে। সিনেমাটি না দেখলে বোঝা যাবে না আমাদের অফিসাররা কত চৌকস ও তারা কত পরিশ্রম করতে পারে। দর্শকরা সিনেমাটি গ্রহণ করেছেন এটাই আমাদের বড় সাফল্য।’

অপারেশন সুন্দরবন নির্মাণের গল্প উল্লেখ করে ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘জলদস্যুদের অভয়ারণ্য হিসেবে পরিচিত সুন্দরবনের শান্তি ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে অপারেশন শুরু করে র‍্যাব। অফিসার ও ট্রুপসদের দক্ষতা ও চৌকস অপারেশনের মাধ্যমে সুন্দরবনকে জলদস্যু মুক্ত করা হয়। আর সেই সাফল্যগাথা ফ্রেমে ফ্রেমে জাতির সামনে তুলে ধরার লক্ষ্যেই অপারেশন সুন্দরবন বানানোর পরিকল্পনা করি।

‘তবে মাত্র একটি সিনেমায় র‍্যাবের সাফল্য তুলে ধরা সম্ভব না। আমি মনে করি, এই সিনেমাটি র‍্যাবের বহু সাফল্যের একটি অংশ। সিনেমাটি নির্মাণের পরিকল্পনার পর দীপনকে বললাম তুমি সুন্দরবনে যাও, সেখানে থাকো, সেখানকার ভাওয়ালি, মধু সংগ্রহকারী, জেলেসহ সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলো এবং সেসব নিয়ে স্ক্রিপ্ট করো। দীপন তাই করল।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন, র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের উপপরিচালক মেজর রইসুল আযম, নির্মাতা অরুণ চৌধুরী, চয়নিকা চৌধুরী, অভিনেত্রী তানজিকা, এস এ হক অলিক, অভিনেত্রী ও নির্দেশক হৃদি হক, রায়হান রাফি ও অপারেশন সুন্দরবন সিনেমার শিল্পী ও কলাকুশলীরা।

আরও পড়ুন:
জবিতে ‘অপারেশন সুন্দরবন’ টিম
এলো ‘অপারেশন সুন্দরবন’-এর প্রথম গান ‘এ মন ভিজে যায়’
সেপ্টেম্বরে আসছে ‘অপারেশন সুন্দরবন’
‘অপারেশন সুন্দরবন’-এর ট্রেইলার প্রকাশ হবে সমুদ্রসৈকতে
পার্থর প্রথম, পার্থ-বাপ্পা-পান্থও এক সঙ্গে প্রথমবার

মন্তব্য

বিনোদন
Cineplexs explanation on Jayas objection to show time

শো টাইম নিয়ে জয়ার আপত্তিতে সিনেপ্লেক্সের ব্যাখ্যা

শো টাইম নিয়ে জয়ার আপত্তিতে সিনেপ্লেক্সের ব্যাখ্যা সিনেপ্লেক্সে সিনেমা দেখতে ঢুকছেন দর্শক (বাঁয়ে) ও অভিনেত্রী জয়া আহসান (ডানে)। ছবি: নিউজবাংলা
তিনি জোর দিয়ে বলেন, ‘শো টাইম নির্ধারণে নিজস্ব পলিসি ও অভিজ্ঞতা কাজে লাগালেও দর্শকদের চাহিদার ওপর আর কিছু নেই। যখন যে সিনেমা দেখতে দর্শকদের চাহিদা থাকে, আমরা সেই সিনেমার শো বাড়াই। এমন উদাহরণ অনেক আছে সিনেপ্লেক্সের।’

শুক্রবার দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে অপারেশন সুন্দরবনবিউটি সার্কাস। মুক্তির দিন সকালে স্টার সিনেপ্লেক্সের পান্থপথ শাখায় গিয়েছিলেন বিউটি সার্কাস সিনেমার মূল চরিত্রের অভিনেত্রী জয়া আহসান।

সেখানে গিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় তিনি জানান, কাজ শেষ করে সাধারণত যখন দর্শকরা সিনেমা দেখতে আসতে পছন্দ করেন অর্থাৎ সন্ধ্যায় বিউটি সার্কাসের কোনো শো নেই। অনেকেই নাকি বিষয়টি নিয়ে অভিযোগ বা আক্ষেপের কথা জানিয়েছেন জয়ার কাছে।

স্টার সিনেপ্লেক্সের ফেসবুক পেজে শো টাইমের যে তথ্য দেয়া হয়েছে, তা যাচাই করে জয়ার আক্ষেপের সত্যতা পাওয়া যায়।

সিনেপ্লেক্সের ফেসবুক পেজে দেয়া তথ্য অনুযায়ী অপারেশন সুন্দরবন পান্থপথ শাখায় ২৩ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বরে ১ থেকে ৩ নম্বর হলে শো রয়েছে ১টা ৫০, ৭টা ১৫ মিনিটে। আর ভিআইপি হলের শো টাইম ১০টা ৪৫, ১টা ৪০, ৪টা ৩৫, ৭টা ৩০ মিনিট।

আর সিনেপ্লেক্সের পান্থপথ শাখায় ২৩ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর বিউটি সার্কাস সিনেমার শো টাইম ১১টা ১৫, ৪টা ৫০ মিনিট।

অপারেশন সুন্দরবন (বঙ্গবন্ধু সামরিক জাদুঘর) ২৪ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর ১১টা, ৪টা ১৫, ৭টা ১৫ মিনিট।

এস কে এস টাওয়ার শাখায় অপারেশন সুন্দরবন ২৩ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর (স্টার প্রিমিয়াম) ১০টা ৪৫, ১টা ৪০, ৪টা ৩৫, ৭টা ৩০ মিনিট।

সনি স্কয়ারে (হল ১ থেকে ৩) ২৩ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর অপারেশন সুন্দরবন চলবে ১১টা, ১টা ৪০, ৪টা ৪০, ৭টা ৪৫ মিনিটে।

সীমান্ত সম্ভারে (স্টার প্রিমিয়াম) ১০টা ৫০, ১টা ৪৫, ৪টা ৪০, ৭টা ৩৫ মিনিটে দেখা যাবে সিনেমা অপারেশন সুন্দরবন

বিউটি সার্কাস এস কে এস টাওয়ারে (২৩ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর) ১১টা, ৪টা ২০, সনি স্কয়ারে (হল ১ থেকে ৩) ২৩ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর ১১টা ১০, ৫টায়, বঙ্গবন্ধু সামরিক জাদুঘরে ২৪ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর ১টা ৫০ মিনিটে দেখা যাবে। আর সীমান্ত সম্ভারে সিনেমাটির কোনো শো রাখা হয়নি।

যাচাই করে দেখা যায়, সিনেপ্লেক্সের পাঁচটি শাখার কোনোটিতেই সন্ধ্যায় অর্থাৎ সন্ধ্যা ৭টার কিছু আগে-পরে কোনো শো নেই বিউটি সার্কাসের

বিষয়টি নিয়ে শনিবার বিকেলে নিউজবাংলা কথা বলে স্টার সিনেপ্লেক্সের জ্যেষ্ঠ বিপণন কর্মকর্তা মেজবাহ উদ্দিন আহমেদের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘শো টাইম নির্ধারণ করে সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ। নিজস্ব পলিসি এবং পূর্ব অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে শো টাইম নির্ধারণ করা হয়।’

তিনি জোর দিয়ে বলেন, ‘শো টাইম নির্ধারণে নিজস্ব পলিসি ও অভিজ্ঞতা কাজে লাগালেও দর্শকদের চাহিদার ওপর আর কিছু নেই। যখন যে সিনেমা দেখতে দর্শকদের চাহিদা থাকে, আমরা সেই সিনেমার শো বাড়াই। এমন উদাহরণ অনেক আছে সিনেপ্লেক্সের।’

শুক্রবার জয়া আহসানের দেয়া বক্তব্য শুনেছেন বলে উল্লেখ করে মেজবাহ জানান, শো টাইমন এখন এমন আছে, এটা পরিবর্তনও হয়ে যেতে পারে। সবই দর্শকদের ওপর নির্ভর করছে।

পরাণদিন- দ্য ডে সিনেমার উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, ‘পরাণ সিনেমার শো প্রথম সপ্তাহে ছিল ৮টি আর দিন- দ্য ডে সিনেমার শো ছিল ১৯টি। পরে এ চিত্র কেমন হয়েছে, সেটি দর্শকদের সবার জানা।’

সন্ধ্যা ৭টার আগে-পরে কোনো শো কেন রাখা হয়নি জানতে চাইলে মেজবাহ নিউজবাংলাকে বলেন, ‘হলিউড সিনেমার শো ড্রপ করে দিয়ে আমরা বাংলা সিনেমা চালিয়েছি। দর্শকদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে তাৎক্ষণিকভাবে বাংলা সিনেমার শো বাড়িয়েছি আমরা। সে রকম পরিবেশ তৈরি হলে সিনেপ্লেক্স শো বাড়াতে বাধ্য।’

সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, শুক্র ও শনিবার স্টার সিনেপ্লেক্সের পান্থপথ শাখায় দুটি সিনেমারই একটি-দুটি শোতে দর্শক সমাগম একটু বেশি। অধিকাংশ শোতেই নেই আশানুরূপ দর্শক।

আরও পড়ুন:
প্রথম সিনেমা প্রথম প্রেমের মতো: সালওয়া
সোহেল আরমান-অপু বিশ্বাসের সিনেমা করার কথা চলছে
সফলতার দাবি নেই, ‘লাইভ’ সিনেমায় আছে সবার চেষ্টা
বাণিজ্যিক সিনেমায় অনুদান অব্যাহত রাখার ঘোষণা মন্ত্রীর
‘অপারেশন সুন্দরবন’-এর পোস্টার প্রকাশ

মন্তব্য

বিনোদন
Khufis Teaser Depicts Octopus Tying

‘অক্টোপাস’ বাঁধনের বর্ণনায় ‘খুফিয়া’র টিজার

‘অক্টোপাস’ বাঁধনের বর্ণনায় ‘খুফিয়া’র টিজার খুফিয়া এর টিজারে আজমেরী হক বাঁধন। ছবি: টিজার থেকে নেয়া
সিনেমায় আরও অভিনয় করেছেন আলী ফজল, ওয়ামিকা গাব্বিসহ অনেকে। খুফিয়ায় বাঁধনের অভিনয় করার মধ্য দিয়ে প্রথমবার বাংলাদেশের কোনো অভিনয়শিল্পী কাজ করলেন নেটফ্লিক্সের কোনো প্রোজেক্টে।

খুবই অদ্ভুত ছিল মেয়েটি! গুনাহ এর মতো চুপ চুপ ভাব; আবার মৃত্যুর মতো স্পষ্ট। কখনও আবার ভাগ্যের মতো; অযৌক্তিক।

এই স্বভাবগুলো অক্টোপাসের। এ অক্টোপাস সমুদ্রের নয়; এটি একটি চরিত্রের নাম। বলিউড সিনেমা খুফিয়ায় এ নামে অভিনয় করবেন দেশের অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন। নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অভিনেত্রী।

শনিবার প্রকাশ পেয়েছে নেটফ্লিক্সের ভারতীয় সিনেমা খুফিয়া এর টিজার। সেখানে প্রায় পুরো অংশে অক্টোপাস তথা বাঁধনের স্বভাবের বর্ণনা দেয়া হয়েছে।

বর্ণনাটি দিয়েছেন সিনেমার গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রের অভিনেত্রী বলিউডের টাবু। বর্ণনায় আরও বলা হয়েছে, ‘হাতের আঙুলের কাছে এসে থাকা কাপর টেনে আঙুলগুলো ঢেকে রাখার স্বভাব ছিল অক্টোপাসের। হাছি দিলে একসঙ্গে তিনটা দিত। আর গলার কাছে যেখানে গর্তের মতো আছে, সেখানে ওর একটা তিল ছিল, আঁচিলের মতো।’

বর্ণার একপর্যায়ে টাবু বলেন, ‘আরেকটা আঁচিল ছিল আমাদের জীবনে। সেটা নিয়ে অক্টোপাসের না কোনো ধারণা ছিল, না আমার।’

বাঁধন নিউজবাংলাকে জানান, সিনেমায় টাবুর নাম কৃষ্ণা মেহরা (কে এম)। তার মুখে অক্টোপাস বা নিজের চরিত্রের বর্ণনায় টিজার প্রকাশে উচ্ছ্বসিত বাঁধন।

তিনি বলেন, ‘টিজারে সে বর্ণনা শোনা যাচ্ছে, সেটা অক্টোপাসের। এ চরিত্রটিতে আমি অভিনয় করেছি। যদিও আমার স্ক্রিন টাইম খুবই কম, তারপরও আমি আমার চরিত্রটিকে খুবই পছন্দে করেছি।

‘আমিই সারপ্রাইজড। কারণ আমি তো জানি না ওরা কখন কোন টিজার করবে বা ছাড়বে। আমি যখন দেখলাম যে, অক্টোপাসকে বর্ণনা করে টিজার প্রকাশ করা হয়েছে, আমার খুবই ভালো লাগছে।’

বিশাল ভারদ্বাজ পরিচালিত সিনেমাটি কবে মুক্তিপাবে তা এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তবে সিনেমার প্রচার শুরু হয়েছে। কিছুদিন আগে সিনেমাটির চরিত্রগুলোর লুকের একটি টিজার প্রকাশ পায়। এবার প্রকাশ পেল টিজার।

সিনেমায় আরও অভিনয় করেছেন আলী ফজল, ওয়ামিকা গাব্বিসহ অনেকে। খুফিয়ায় বাঁধনের অভিনয় করার মধ্য দিয়ে প্রথমবার বাংলাদেশের কোনো অভিনয়শিল্পী কাজ করলেন নেটফ্লিক্সের কোনো প্রোজেক্টে।

আরও পড়ুন:
‘শুভ জন্মদিন আজমেরী’
বিশাল ভরদ্বাজ জানেন কীভাবে সম্মান করতে হয়: বাঁধন
বলিউডের ‘খুফিয়া’য় বাঁধন
পরীমনিকে নিয়ে আমি চিন্তিত: বাঁধন
মুসকান জুবেরী হয়ে ওঠার গল্প শোনালেন বাঁধন

মন্তব্য

বিনোদন
Adar Azad is in a romance with Mahi

মাহির সঙ্গে রোমান্সে মেতেছেন আদর আজাদ

মাহির সঙ্গে রোমান্সে মেতেছেন আদর আজাদ পর্দায় একটি দৃশ্যে আদর-মাহি
মুক্তি সামনে রেখে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় টাইগার মিডিয়ার ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত হয়েছে সিনেমাটির টাইটেল গান। এতে কণ্ঠ দিয়েছেন বেলাল খান ও সায়েরা রেজা। সুদীপ কুমার দীপের লেখা গানটির সংগীতায়োজন করেছেন জেকে মজলিশ।

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত নির্মাতা মোস্তাফিজুর রহমান মানিক নির্মাণ করেছেন সিনেমা ‘যাও পাখি বলো তারে’। আগামী ৭ অক্টোবর দেশজুড়ে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে ত্রিভুজ প্রেমের গল্পে নির্মিত এ সিনেমাটি।

মুক্তি সামনে রেখে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় টাইগার মিডিয়ার ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত হয়েছে সিনেমাটির টাইটেল গান। এতে কণ্ঠ দিয়েছেন বেলাল খান ও সায়েরা রেজা। সুদীপ কুমার দীপের লেখা গানটির সংগীতায়োজন করেছেন জেকে মজলিশ।

শুক্রবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ‘যাও পাখি বলো তারে, সে যেন ভোলে না মোরে, তার বিহনে আমি যাবো গো মরে’- এমন কথায় ঠোঁট মিলিয়েছেন চিত্রনায়ক আদর আজাদ ও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। দুজনের সাবলীল রসায়ন দেখে ভালো লাগা প্রকাশ করছেন দর্শক। গানটির কোরিওগ্রাফি করেছেন হাবিবুর রহমান। গানের দৃশ্যায়ন হয়েছে পার্বত্য অঞ্চল বান্দরবানে।

গত ১৭ সেপ্টেম্বর প্রকাশ করা হয় সিনেমাটির ট্রেলার। তাতে আভাস পাওয়া যায়, ত্রিভুজ প্রেমের গল্পে নির্মিত হয়েছে এই সিনেমা। যেটার মুখ্য চরিত্রগুলো ফুটিয়ে তুলেছেন আদর, মাহি ও শিপন মিত্র।

ক্লিওপেট্রা ফিল্মসের ব্যানারে নির্মিত এই সিনেমায় আদর-মাহি ছাড়াও বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করেছেন অভিনেতা রাশেদ মামুন অপু, সুব্রত, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু (বড়দা মিঠু), মাসুম বাশার, অভিনেত্রী রেবেকা, মিলি বাশার, লাবণ্য প্রমুখ। সিনেমাটির নির্বাহী প্রযোজক তমালিকা আকরাম।

জাহিদ হাসান অভির দ্য অভি কথা চিত্র পরিবেশিত ‘যাও পাখি বলো তারে’ সিনেমার কাহিনি, সংলাপ ও চিত্রনাট্য লিখেছেন আসাদ জামান। এর গান লিখেছেন সুদীপ কুমার দীপ, এ মিজান ও সঞ্জীবন চক্রবর্তী। ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক করেছেন ইমন সাহা। গানের সংগীত করেছেন জেকে মজলিশ, বেলাল খান ও রেজওয়ান শেখ এবং গানে কণ্ঠ দিয়েছেন বেলাল খান, কোনাল, ইলিয়াস হোসাইন, সায়েরা রেজা, মোহাম্মদ জসিউর রহমান সেতু ও বিন্দিয়া খান।

আরও পড়ুন:
আমার মেয়েই হবে ইনশাআল্লাহ: মাহি
মা হচ্ছেন মাহি
শুক্রবার সিনেমা মুক্তি, তবু মন ভালো নেই সাইমন-মাহির

মন্তব্য

বিনোদন
Joys beauty circus was released

‘বিউটি সার্কাস’ দেখতে হলগুলোতে যথেষ্ট ভিড়: জয়া

‘বিউটি সার্কাস’ দেখতে হলগুলোতে যথেষ্ট ভিড়: জয়া রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সে ‘বিউটি সার্কাস’ সিনেমার বিরতির সময় সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন জয়া আহসান। ছবি: নিউজবাংলা
বেলা সোয়া ১১টার সিনেমার প্রথম শোতে রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সে প্রবেশ করতে দেখা যায় দর্শকদের। প্রেক্ষাগৃহটিতে সিনেমা দেখেছেন জয়াসহ অন্য কলাকুশলীরা।

দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান অভিনীত বহুল প্রতীক্ষিত চলচ্চিত্র ‘বিউটি সার্কাস’ মুক্তি পেয়েছে।

দেশের ১৯টি প্রেক্ষাগৃহে শুক্রবার সকালে মুক্তি পায় সিনেমাটি।

‘বিউটি সার্কাস’ দেখতে হলগুলোতে যথেষ্ট ভিড়: জয়া

বেলা সোয়া ১১টার সিনেমার প্রথম শোতে রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সে প্রবেশ করতে দেখা যায় দর্শকদের। প্রেক্ষাগৃহটিতে সিনেমা দেখেছেন জয়াসহ অন্য কলাকুশলীরা।

বিরতির সময় সাংবাদিকদের কাছে অনুভূতি ব্যক্ত করে জয়া বলেন, ‘হলগুলোতে যথেষ্ট ভিড় আছে। আমি নিজেও টিকিট কাটতে পারছিলাম না। জুমার দিন সকালে হল এ রকমভাবে কানায় কানায় পূর্ণ হবে, এটা আমি বুঝতে পারিনি।

‘সেই আগ্রহ দেখে খুবই ভালো লাগছে, ভালো লাগছে দর্শকদের পার্টিসিপ্যাশন (অংশগ্রহণ) দেখে। বিশেষ করে খেলার জায়গাগুলো যখন আসছে। সার্কাস যেমন র (আদি), ওই রকম র ফর্মেই শুট করা। আমার সেটা খুব ভালো লাগছে; এনজয় করছি।’

বিরতির সময় সিনেমাটি নিয়ে দুয়েকজন দর্শকের কাছে মন্তব্য জানতে চাওয়া হয়। তারা জানান, হাফ টাইম দেখে মন্তব্য করা ঠিক হবে না, তবে সব মিলিয়ে ভালো।

সার্কাসের দলপতি অদম্য এক নারীর টিকে থাকার লড়াই ও প্রতিশোধের গল্প বিউটি সার্কাস।

মাহমুদ দিদার পরিচালিত সিনেমায় জয়া ছাড়াও অভিনয় করেছেন ফেরদৌস আহমেদ, তৌকীর আহমেদ, এ বি এম সুমন, গাজী রাকায়েত, হুমায়ুন সাধুসহ অনেকে।

আরও পড়ুন:
‘বিউটি সার্কাস’-এ চিরকুটের নিবেদন ‘বয়ে যাও নক্ষত্র’
রক্তের ইতিহাসের সাক্ষ্য ‘বিউটি সার্কাস’
‘বিউটি সার্কাস’ সিনেমার পোস্টার ও মুক্তির তারিখ প্রকাশ
‘বিউটি সার্কাস’ আসছে সেপ্টেম্বরের চতুর্থ সপ্তাহে
সেন্সর পেল ‘বিউটি সার্কাস’, মুক্তির ঘোষণা শিগগিরই

মন্তব্য

বিনোদন
Operation Sundarbans in Beauty Circus 1935 theaters

‘বিউটি সার্কাস’ ১৯, ৩৫ প্রেক্ষাগৃহে ‘অপারেশন সুন্দরবন’

‘বিউটি সার্কাস’ ১৯, ৩৫ প্রেক্ষাগৃহে ‘অপারেশন সুন্দরবন’ বাঁয়ে বিউটি সার্কাস সিনেমার পোস্টার ও ডানে অপারেশন সুন্দরবন সিনেমার পোস্টার। ছবি: সংগৃহীত
সার্কাসের দলপতি হয়ে এক অদম্য নারীর টিকে থাকার লড়াই ও প্রতিশোধের গল্প বিউটি সার্কাস। সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত করার জন্য র‌্যাবের যে দুঃসাহসিক অভিযান, সে ঘটনা নিয়েই নির্মিত হয়েছে অপারেশন সুন্দরবন।

শুক্রবার সারা দেশের ৫৪ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে যাচ্ছে আলোচিত ও প্রতীক্ষিত দুটি সিনেমা। এর মধ্যে ১৯টি প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হবে বিউটি সার্কাস এবং ৩৫ প্রেক্ষাগৃহে অপারেশন সুন্দরবন

বিউটি সার্কাস সিনেমার পরিবেশক অ্যাকশন কাট জানিয়েছে, রাজধানীতে স্টার সিনেপ্লেক্সের পাঁচটি শাখা, ব্লকবাস্টার সিনেমাসে দর্শকরা সিনেমাটি দেখতে পারবেন।

আরও যেসব প্রেক্ষাগৃহে দেখা যাবে বিউটি সার্কাস- লায়ন সিনেমাস (কেরানীগঞ্জ), গ্র্যান্ড সিলেট সিনেপ্লেক্স (সিলেট), সিলভার স্ক্রিন (চট্টগ্রাম), মম ইন (বগুড়া), পূরবী (ময়মনসিংহ), বিজিবি (সিলেট), তাজ সিনেমা (নওগাঁ), সংগীত সিনেমা (খুলনা), মর্ডান সিনেমা (দিনাজপুর), পান্না সিনেমা (মুক্তারপুর), রাজ সিনেমা (কুলিয়ারচর), মাধবী সিনেমা (মধুপুর), আনন্দ সিনেপ্লেক্স (গুরু দাসপুর), রাজিয়া সিনেমা (নাগরপুর)।

সার্কাসের দলপতি হয়ে এক অদম্য নারীর টিকে থাকার লড়াই ও প্রতিশোধের গল্প বিউটি সার্কাস। সিনেমায় অভিনয় করেছেন জয়া আহসান, ফেরদৌস আহমেদ, তৌকির আহমেদ, এ বি এম সুমন, গাজী রাকায়েত, হুমায়ুন সাধুসহ অনেকে।

টিভি পর্দায় নিজের মুনশিয়ানা প্রতিষ্ঠিত করে বড় পর্দায় নির্মাতা হিসেবে অভিষেক ঘটতে যাচ্ছে মাহমুদ দিদারের।

সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত করার জন্য র‌্যাবের যে দুঃসাহসিক অভিযান, সে ঘটনা নিয়েই নির্মিত হয়েছে অপারেশন সুন্দরবন। র‌্যাব ওয়েলফেয়ার কো-অপারেটিভ সোসাইটির প্রযোজনায় সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন দীপংকর দীপন।

সিনেমাটি দেখা যাবে যেসব প্রেক্ষাগৃহে- ঢাকা স্টার সিনেপ্লেক্সের পাঁচটি শাখা, ব্লকবাস্টার সিনেমাস যমুনা ফিউচার পার্ক, শ্যামলী সিনেমা, মধুমিতা, চিত্রামহল, আনন্দ, সৈনিক ক্লাব, গীত সিনেমা, বি.ডি.আর (পিলখানা), নারায়ণগঞ্জ সিনে স্কোপ, কেরানীগঞ্জ লায়ন সিনেমাস, সিলেট গ্র্যান্ড সিনেপ্লেক্স, চট্টগ্রাম সিলভার স্ক্রিন, সিনেমা প্যালেস, সুগন্ধা সিনেমা, সিরাজগঞ্জ রুটস সিনেক্লাব, বগুড়া মধুবন সিনেপ্লেক্স, কাঁচপুর চাঁদমহল সিনেমা, নারায়ণগঞ্জ নিউমেট্রো সিনেমা, জয়দেবপুর বর্ষা সিনেমা, সাভার চন্দ্রিমা সিনেমা, সেনা অডিটোরিয়াম (নবীনগর), শেরপুর সত্যবতী, খুলনা শঙ্খ, লিবার্টি, ময়মনসিংহ ছায়াবাণী, রংপুর শাপলা, বরিশাল অভিরুচি, যশোর মণিহার, কিশোরগঞ্জ আনন্দ।

সিনেমায় অভিনয় করেছেন রিয়াজ, সিয়াম, নুসরাত ফারিয়া, রোশান, মনোজ প্রামাণিক, দর্শনা বণিক, তাসকিন, রাইসুল ইসলাম আসাদসহ অনেকে।

আরও পড়ুন:
সোহেল আরমান-অপু বিশ্বাসের সিনেমা করার কথা চলছে
সফলতার দাবি নেই, ‘লাইভ’ সিনেমায় আছে সবার চেষ্টা
বাণিজ্যিক সিনেমায় অনুদান অব্যাহত রাখার ঘোষণা মন্ত্রীর
‘অপারেশন সুন্দরবন’-এর পোস্টার প্রকাশ
অপমানের পরও দমেনি 'আদিম' টিম

মন্তব্য

বিনোদন
Salwar hint to quit acting

সালওয়ার অভিনয় ছাড়ার ইঙ্গিত!

সালওয়ার অভিনয় ছাড়ার ইঙ্গিত! অভিনেত্রী নিশাত নাওয়ার সালওয়া। ছবি: সংগৃহীত
তিনি লেখেন, ‘প্রফেশনালিজমের জায়গা থেকে এগুলোর অবশিষ্ট কাজে আমার অংশগ্রহণ করতে হবে। তবে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির যেকোনো চাকচিক্য থেকে আমার কাছে পারিবারিক বন্ধন ও মূল্যবোধের মর্যাদা অনেক বেশি একজন সিলেটি রক্ষনশীল পরিবারের মেয়ে হিসেবে।’

মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশের প্রথম রানারআপ ও অভিনেত্রী নিশাত নাওয়ার সালওয়া বৃহস্পতিবার সকালে তার ভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে দেয়া এক স্ট্যাটাসে অভিনয় ছাড়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন।

স্ট্যাটাসে তিনি অভিনয় ছাড়ার বিষয় নিয়ে পরিষ্কার কোনো বক্তব্য না দিলেও জানিয়েছেন, ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির যেকোনো চাকচিক্য থেকে তার কাছে পারিবারিক বন্ধন ও মূল্যবোধের মর্যাদা অনেক বেশি।

বৃহস্পতিবার সকালে দেয়া স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, ‘সবাইকে সালাম। আশা করছি কিছুটা সময় নিয়ে এই দীর্ঘ পোস্টটি পড়বেন। আমি সিলেটের মেয়ে। আপনারা ইতিমধ্যে জানেন আমি ৪টি চলচ্চিত্রে কাজ করেছি। একটি (বীরত্ব) মুক্তি পেয়েছে।’

যে সিনেমাগুলোর কাজ এখনও শেষ হয়নি সেগুলো শেষ করবেন বলে জানিয়েছেন সালওয়া। তবে নতুন করে কোনো সিনেমায় আর যুক্ত হবেন কি না সে বিষয়ে কোনো কথা নেই তার লেখায়।

তিনি লেখেন, ‘প্রফেশনালিজমের জায়গা থেকে এগুলোর অবশিষ্ট কাজে আমার অংশগ্রহণ করতে হবে। তবে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির যেকোনো চাকচিক্য থেকে আমার কাছে পারিবারিক বন্ধন ও মূল্যবোধের মর্যাদা অনেক বেশি একজন সিলেটি রক্ষনশীল পরিবারের মেয়ে হিসেবে।’

সালওয়া তার পরিবারের সঙ্গে সম্প্রতি হজ করে এসেছেন। হজ করার পর তার সিনেমায় কাজ করা নিয়ে আপত্তি রয়েছে পরিবারের।

এ প্রসঙ্গে সালওয়া লেখেন, ‘আমাদের পরিবার চায়নি পবিত্র হজ পালনের পর আমি পুনরায় চলচ্চিত্রে কাজ করি। এ থেকে আমাদের মাঝে মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়। পরবর্তীতে কিছু অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। তবে সবকিছুর পরে আমার একান্ত উপলব্ধি আমাদের জীবনে সবকিছুর উর্ধে পারিবারিক বন্ধন ও ভালোবাসা। ক্ষনস্থায়ী কোনোকিছুর জন্য নিজের পারিবারিক শান্তি বিনষ্ট করার কোনো মানে হয় না।’

বুধবার সালওয়া নিউজবাংলাকে জানিয়েছিলেন, সিলেটের সাবেক এমপি নবাব আলী আব্বাস খানের ছেলে নবাব আলী হাসিব খানের সঙ্গে তিনি সম্পর্কে ছিলেন। তাদের সম্পর্কের ব্যাপারে দুই পরিবারই জানত। বছরখানেক হলো তারা সম্পর্কে জড়ান এবং গত ছয় মাস থেকে আর সম্পর্কে নেই।

প্রসঙ্গটি টেনে বৃহস্পতিবারের স্ট্যাটাসে সালওয়া লেখেন, ‘সিলেট বিভাগের কুলাউড়া উপজেলা (জুরি-কমলগঞ্জ একাংশ) জনগণের ভোটে সর্বাধিকবার নির্বাচিত এমপি নবাব আলী আব্বাস খান আমাকে তার নিজ কন্যার মতো স্নেহ করেন। যার রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে কোনো দুর্নিতির তকমা নেই। তিনি অত্যন্ত ভালো একজন মানুষ। তার পুত্র নবাব আলী হাসিব খানের সঙ্গে তৃতীয় ব্যক্তির ইন্ধনে আমাদের সম্পর্কের অবনতি ঘটে।’

এ অভিনেত্রী তার সামর্থ্য অনুযায়ী সিলেটবাসীর জন্য কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘আমি আমার এ ক্ষুদ্র ক্যারিয়ারে আমার সকল শুভাকাঙ্ক্ষী ও সাংবাদিক ভাইদের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি সবসময় আমার পাশে থাকার জন্য। বিশেষ করে সিলেট এর মানুষের ভালোবাসায় আমি সিক্ত। ইনশাআল্লাহ আমি আমার সামর্থ্য অনুযায়ী সিলেটবাসীর জন্য কাজ করে যেতে চাই। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’

সালওয়া অভিনয় ছাড়ছেন কিনা জানতে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ফোন, হোয়াটস অ্যাপ ও মেসেঞ্জারে একাধিকবার ফোন করেও তার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

বৃহস্পতিবার সকালে দেয়া স্ট্যাটাসের মন্তব্যের ঘরে ‘অভিনয় ছাড়ছেন’ কি না জানতে চেয়ে অনেকেই প্রশ্ন করেছেন। সেসব প্রশ্নের কোনো উত্তর দেননি সালওয়া।

বুধবার বিকেলে নবাব আলী হাসিব খানের কাছ থেকে উপর্যপুরি হত্যার হুমকি পাচ্ছেন বলে সালওয়া তার ভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লেখার কিছু পর সেটি আবার মুছে দেন।

বুধবারদিন রাতেই আরেক স্ট্যাটাসে তিনি জানান, বিষয়টি পারিবারিকভাবে ‘সমাধান’ হয়েছে।

আরও পড়ুন:
পারিবারিকভাবে বিষয়টি সমাধান করে ফেলেছি: সালওয়া
সাবেক এমপিপুত্রের বিরুদ্ধে অভিনেত্রী সালওয়াকে হত্যার হুমকির অভিযোগ

মন্তব্য

p
উপরে