× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বিনোদন
Directors complaints and subsequent statements about The Day
hear-news
player
print-icon

দিন- দ্য ডে’ নিয়ে পরিচালকের অভিযোগ ও অনন্তর বক্তব্য

দিন--দ্য-ডে-নিয়ে-পরিচালকের-অভিযোগ-ও-অনন্তর-বক্তব্য
দিন- দ্য ডে সিনেমার পোস্টার। ছবি: সংগৃহীত
অনন্ত জলিল ‘দিন- দ্য ডে’ সিনেমা নির্মাণ নিয়ে করা চুক্তি ভঙ্গ করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন ইরানি পরিচালক মোর্তেজা অতশ জমজম। এর প্রতিক্রিয়ায় এই অভিনেতা নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দীর্ঘ স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

‘দিন- দ্য ডে’ সিনেমা নির্মাণ নিয়ে করা পরিকল্পনা ও চুক্তি অনন্ত জলিল ভঙ্গ করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন ছবিটির ইরানি পরিচালক মোর্তেজা অতশ জমজম।

বৃহস্পতিবার ইনস্টাগ্রামে এক স্ট্যাটাসে এমন অভিযোগ তুলে তিনি বলেছেন, চুক্তি ভঙ্গ করার দায়ে তিনি অনন্ত জলিলের বিরুদ্ধে ইরান ও বাংলাদেশের আদালতে মামলা করবেন।

অনন্ত জলিল এ নিয়ে প্রথমে কোনো কথা না বললেও বৃহস্পতিবার রাত ৯টা ১৫ মিনিটের দিকে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দীর্ঘ স্ট্যাটাস দিয়েছেন। সেখানে তিনি নিজের বক্তব্য তুলে ধরেছেন।

অনন্ত জলিলের স্ট্যাটাসটি পাঠকের জন্য হুবহু তুলে দেয়া হলো-

‘আজ বিকাল থেকে দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিক ভাই ও বোনেরা আমাকে ফোন দিয়ে জানতে চাইছেন যে, কুরবানির ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত আমার সিনেমা ‘দিন: দ্য ডে’র পরিচালক ইরানী নাগরিক মুর্তজা অতাশ জমজম সিনেমাটি নিয়ে আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ করেছেন। তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিস্তারিত বিষয় আমি এই পোস্টের মাধ্যমে তুলে ধরছি।

দিন : দ্য ডে’র শুটিং শুরু হয় ২০১৯ সালে ইরান থেকে। শেষ হয় ২০২০ সালে। বাংলাদেশসহ আরও কয়েকটি দেশে আমরা সিনেমাটির শুটিং করি। আমি শুরুতেই বলে এসেছি, সিনেমাটি প্রযোজনা করেছে ইরান। আমার সঙ্গে চুক্তি আছে যে, সিনেমাটির বাংলাদেশে যেসব কাজ হবে (শুটিং, ডাবিং) সেটার ব্যয়ভার আমি বহন করব। এবং আমি সেটাই করেছি।

চুক্তি অনুযায়ী ইরানসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশে শুটিংয়ের খরচ বহন করবে ইরানি প্রযোজক। ইরান যে সিনেমাটির মূল প্রযোজক সেটা পরিচালকই তার স্ট্যাটাসে দেয়া একটি বাক্যের (আমি ছিলাম সিনেমাটির মূল প্রযোজক) মাধ্যমে স্বীকার করেছেন। এর মাধ্যমে একটা বিষয় পরিষ্কার হয় যে, সিনেমাটিতে আমি শুধু বাংলাদেশের খরচ বহন করেছি এবং এটাই ছিল চুক্তি।

২০১৯ সাল থেকে আজ পর্যন্ত দেশি-বিদেশি বিভিন্ন পত্রিকা, অনলাইন পোর্টাল, টেলিভিশন চ্যানেল- সব জায়গাতেই সাক্ষাৎকারসহ বিভিন্ন প্রচরণায় আমি বলেছি, ‘দিন: দ্য ডে’ সিনেমার মূল প্রযোজক ইরানি। আমি শুধু বাংলাদেশের শুটিংকৃত অংশটুকুর খরচ বহন করেছি।

সিনেমার নামের ক্ষেত্রে আমি বাংলায় একটি নাম ব্যবহার করেছি। তাও ‘ডে’-এর বাংলা, অর্থাৎ ‘দিন’। ইরানি প্রযোজকের দেয়া নামও (ডে) কিন্তু সিনেমায় রয়ে গেছে। এটাও আমাদের মৌখিক আলোচনায় ছিল। যেহেতু সিনেমাটি বাংলাদেশে মুক্তি দেয়া হবে, তাই বাংলা নাম থাকাটাই যুক্তিযুক্ত। আর আন্তর্জাতিকভাবে মুক্তির জন্য সঙ্গে ইংরেজি নামও রয়েছে। সুতরাং নাম নিয়ে প্রশ্ন তোলাটা অবান্তর।

তিনি (ইরানি নির্মাতা) যে গল্পের কথা বলেছেন, সেটা আমাদের দু’জনেরই আইডিয়া। সিনেমার গল্প আমি ও মুর্তজা সাহেব আলোচনা করে ঠিক করেছি। ইরানে শুটিং শুরুর পর ইরানি প্রযোজক আমাদেরকে সম্মানের সঙ্গে পাঁচতারকা হোটেলে রেখেছেন। আমরাও বাংলাদেশে শুটিংয়ের সময় ইরানি ইউনিটকে ঢাকার সোনারগাঁ হোটেলে রেখেছিলাম। সম্মান এবং আতিথেয়তায় কোনো ঘাটতি রাখিনি।

এ সিনেমার পরিচালক যেহেতু মুস্তফা অতাশ জমজম, তাই শুটিংয়ের যাবতীয় ইকুইপমেন্ট, অর্থাৎ এইট-কে রেজুলেশনের ক্যামেরা তিনি ইরান থেকেই সঙ্গে নিয়ে এসেছিলেন; যেহেতু এইট-কে রেজুলেশনের ক্যামেরা বাংলাদেশে নেই। ইরানসহ অন্যান্য দেশের শুটিংয়ের ফুটেজ, এমনকি বাংলাদেশে শুটিংয়ের ফুটেজও তিনি শুটিং শেষে ইরানে নিয়ে গেছেন, লাইনআপ করার জন্য।

২০২০ সালে শুটিং শেষে তিনি আমাকে এডিট করা একটা লাইনআপ পাঠালেন। আমি সেটা দেখে গল্পে বেশকিছু জায়গায় অসামঞ্জস্যতা দেখে বলেছি, আমাকে একটা কপি দেন। আমি সেটা ঠিক করে দিচ্ছি।

যেহেতু ইরানে গিয়ে এডিটিং করা সম্ভব নয়, তাই আমি ঠিক করি ভারতের হায়দ্রাবাদের অন্নপূর্ণা স্টুডিওতে কাজটি করব। সেই ফুটেজের কপি তিনি নিজেই সঙ্গে করে অন্নপূর্ণা স্টুডিওতে নিয়ে আসেন। আমাদের সঙ্গে ৪/৫ দিন হায়দ্রাবাদে অবস্থান করে তিনি নিজ দেশ ইরানে ফিরেও যান।

আমরা সিনেমাটিতে ডলবি সাউন্ড ব্যবহার করতে চাইলাম। যেহেতু ডলবি সাউন্ড ব্যবহার করলে তাদের (ডলবি কোম্পানির) লাইসেন্স লাগে, আর ডলবি আমেরিকান কোম্পানি, ইরান সেটা ব্যবহার করতে পারবে না। তাই আমি বলেছি, আমার দেশে (বাংলাদেশ) ডলবি সাউন্ড ব্যবহার করব। বিষয়টিতে তিনি রাজি হয়েই স্বশরীরে ভারতের হায়দ্রাবাদের অন্নপূর্ণা স্টুডিওতে সিনেমাটির ফুটেজ নিয়ে আসেন।

যদি কোনো অর্থ পাওনা থাকত তাহলে তিনি কি ফুটেজ নিয়ে আসতেন? এছাড়া সিনেমাটির সম্পূর্ণ ফুটেজ এখনও তার কাছেই রয়ে গেছে। যেহেতু তিনি সিনেমাটির মূল প্রযোজক ও পরিচালক, তাই তার কাছে সেটা থাকাটাই স্বাভাবিক।

আমি একটা কথা স্পষ্ট বলতে চাই, চুক্তিতে যেভাবে যা কিছু উল্লেখ ছিল সে অনুযায়ীই আমি কাজ করেছি। যদি আমার কাছে তার ১০০ টাকাও অর্থাৎ কোনো অর্থ পাওনা থাকত তাহলে তিনি কি আমাকে সিনেমার সম্পূর্ণ ফুটেজ দিতেন? কিংবা ফুটেজ না পেলে আমি কি মুক্তি দিতে পারতাম? যেহেতু তার কাছেই শুটিংয়ের পর সম্পূর্ণ ফুটেজ ছিল এবং এখনও রয়েছে! নিশ্চয়ই তার অনুমতি এবং সম্পূর্ণ সম্মতিতেই আমি সিনেমাটি মুক্তি দিয়েছি। এখন তার অবান্তর অভিযোগ মূলত আমাকে ও আমার দেশ অর্থাৎ বাংলাদেশকে ছোট করার অপপ্রয়াস বলে আমি মনে করি।

আরেকটি বিষয় উল্লেখ করা প্রয়োজন, ২০২১ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি আমরা যখন বাংলাদেশে হোটেল লি মেরিডিয়ানে এ সিনেমার গান ও প্রাথমিক ট্রেইলর উদ্বোধন করি তখনও তিনি উপস্থিত ছিলেন এবং সিনেমাটি যে আমরা বাংলাদেশে মুক্তি দেব, সে ব্যাপারে কোনো আপত্তি জানাননি।

আমি এটাও বলেছি যে, ইরান যদি সময়মতো মুক্তি দিতে না পারে তাহলে আমি বাংলাদেশে মুক্তি দেব। এসব নিয়েও তখন কোনো আপত্তি করেননি তিনি। ইরান সময়মতো মুক্তি দিতে পারছে না বলে তিনবার আমরা মুক্তির তারিখ ঘোষণা দিয়েও সেটা পরিবর্তন করি। বাংলাদেশে মুক্তির সময় পরিবর্তনের কারণে আমার ইমেজ ক্ষুণ্ন হচ্ছে জেনেও শুধু তাদের প্রতি সম্মান জানিয়ে আমি সেটা মেনে নিয়েছি। শুরু থেকেই সবসময় আমাদের মধ্যে ভালো সম্পর্ক ছিল এবং সেটা এখনও আছে বলে আমি মনে করি।

আপনারা দেখেছেন, গত কুরবানির ঈদে ‘দিন: দ্য ডে’ মুক্তি পাওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন রকম ষড়যন্ত্রের মুখোমুখি হচ্ছি আমরা এবং সেটা দেশ থেকেই। আমি মনে করি, এটাও তেমনই একটি ষড়যন্ত্র। এরপরও মুর্তজা সাহেবের যদি কোনো অভিযোগ থাকে তাহলে সেটা আমরা নিজেরাই বসে সমাধান করতে পারি (যদিও আমি চুক্তির বাইরে কিছু করিনি সেটা আগেই বলেছি)।

তিনি বাংলাদেশি কারও পরামর্শে কিংবা নিজের প্রচারের স্বার্থে যদি ভুল ও মিথ্যা তথ্য দিয়ে গণমাধ্যমকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেন তাহলে সেটা হবে খুবই দুঃখজনক। যদি এরকম কিছু ঘটে থাকে তাহলে আমিও দেশে এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আইনি ব্যবস্থা নেব। কারণ, একই চুক্তিপত্র আমার কাছেও রয়েছে।

আমি সাংবাদিক ভাই ও বোনদের প্রতি অনুরোধ করব, সত্যটা জেনে আপনারা খবর প্রকাশ করবেন। আমি চেষ্টা করব আমার পেজ থেকে বিস্তারিত তথ্য আপনাদের জানানোর জন্য। এমনিতেই আমাদের বাংলাদেশি সিনেমার দুর্দিন চলছে। এর মধ্যে গত ঈদে আমার ‘দিন : দ্য ডে’সহ আরও দুটি সিনেমা দেশের সিনেমা অঙ্গনে আশার আলো দেখিয়েছে। দর্শকরা প্রেক্ষাগৃহে ফিরছেন। দেশি সিনেমা অঙ্গন চাঙা হয়ে উঠছে। তাই একটি চক্র উঠেপড়ে লেগেছে কীভাবে বাংলাদেশের এই বাজারটি নষ্ট করা যায়। এবং তারা আমাদেরই সিনেমার লোক বলে আমি মনে করি।

সিনেমা নিয়ে আমি বিশেষ কিছু কাজ করার পরিকল্পনা করছি। সেটা যাতে থামিয়ে দেয়া যায়, এমনকি ঈদের সিনেমার জোয়ার দেখে যারা নতুন করে প্রযোজনার প্রতি আগ্রহী হচ্ছেন তাদেরকেও দূরে সরিয়ে রাখা যায়, এজন্য বিভিন্নভাবে উদ্দেশ্যমূলকভাবে আমাদের ইন্ডাস্ট্রিকে ছোট করার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে একটি অসাধু চক্র। এই ঘটনা তারই একটা অংশ বলে আমি মনে করি।

আমার যদি কোনো ভুল-ত্রুটি থাকে সেটা ভবিষ্যতে শুধরে নেয়ার চেষ্টা করব। কিন্তু আপনাদের প্রতি অনুরোধ থাকবে, আমাদের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিকে চাঙা করার জন্য, আন্তর্জাতিক বাজারে পৌঁছে দেয়ার জন্য নেগেটিভ খবর প্রচার করা থেকে আপাতত বিরত থাকবেন। যাতে আমরা (বাংলাদেশি সিনেমা) আবার মাথা তুলে দাঁড়াতে পারি।

আপনাদের ভালোবাসা ও দায়িত্ববোধের প্রতি আমাদের অগাধ শ্রদ্ধা আছে। সবসময় আপনারা আমার পাশে ছিলেন, ভবিষ্যতেও থাকবেন এটা আশা করি।

আরও পড়ুন:
মুখে বলি চলচ্চিত্র পরিবার, কাজে দেখি না: অনন্ত
সিনেপ্লেক্সে ‘পরান’র শো বেড়েছে, ‘দিন- দ্য ডে’ আগের মতোই
৮ বছর পর সিনেপ্লেক্সে অনন্ত, নার্ভাস বর্ষা
দিন- দ্য ডে: সিনেপ্লেক্সে ১২টি, ব্লকবাস্টারে শো ৮টি
বর্ষাকে খুব আদরে রাখার প্রতিশ্রুতি অনন্তর

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বিনোদন
A day long program on BTV on Prime Ministers birthday

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে বিটিভিতে দিনব্যাপী অনুষ্ঠান

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে বিটিভিতে দিনব্যাপী অনুষ্ঠান
জাতীয় জীবনের বহুক্ষেত্রে সাফল্য এসেছে তার সময়ে। প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে বাংলাদেশ টেলিভিশনের অনুষ্ঠানসূচি সেজেছে নতুন সাজে। এদিন বিটিভিতে বেশ কয়েকটি বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচারিত হবে।

সংকট, চড়াই-উতরাই পেরিয়ে ৭৫ বছর অতিক্রম করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২৮ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রীর ৭৬তম জন্মদিন। তার নেতৃত্বে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, খাদ্যে স্বনির্ভরতা, নারীর ক্ষমতায়ন, কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, গ্রামীণ অবকাঠামো, যোগাযোগ, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ, বাণিজ্য, তথ্যপ্রযুক্তি খাতে উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জন করেছে বাংলাদেশ।

জাতীয় জীবনের বহুক্ষেত্রে সাফল্য এসেছে তার সময়ে। প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে বাংলাদেশ টেলিভিশনের অনুষ্ঠানসূচি সেজেছে নতুন সাজে। এদিন বিটিভিতে বেশ কয়েকটি বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচারিত হবে।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এমনটাই জানিয়েছে জাতীয় গণমাধ্যমটির অনুষ্ঠান বিভাগ। বিশেষ অনুষ্ঠান ‘কৃষকের হৃদয়ে শেখ হাসিনা’ প্রচারিত হবে সকাল ১০টা ১০ মিনিটে। বিশেষ অনুষ্ঠান ‘গম্ভীরা’ প্রচারিত হবে দুপুর ১২টা ৪০ মিনিটে। দুপুর ১ টা ৪০ মিনিটে প্রচারিত হবে কবিতা আবৃত্তির অনুষ্ঠান।

চলচ্চিত্র ‘হাসিনা: আ ডটার’স টেল’ প্রচারিত হবে দুপুর ৩টা ৩০ মিনিটে। কবিতা আবৃত্তির বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচারিত হবে বিকাল ৫টা ৪৫ মিনিটে। সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিটে প্রচারিত হবে আলেখ্যানুষ্ঠান।

রাত সাড়ে ৮টায় প্রচার হবে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে বিশেষ তথ্যচিত্র ‘জয়তু মাননীয়’। রাত ৮টা ৪০ মিনিটে থাকছে বিশেষ সংগীতানুষ্ঠান ‘শুভ জন্মদিন দেশরত্ন’। রাত ১০টা ২০ মিনিটে থাকছে বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠান ‘সাফল্যের সরকার’।

এছাড়াও দিনব্যাপি অনুষ্ঠানের ফাঁকে ফাঁকে প্রচারিত হবে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে শুভেচ্ছা কার্ড, গান ও ইনফোগ্রাফিক্স।

মন্তব্য

বিনোদন
Legal notice to actress Saba seeking compensation of Rs

কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে অভিনেত্রী সাবার আইনি নোটিশ

কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে অভিনেত্রী সাবার আইনি নোটিশ অভিনেত্রী সোহানা সাবা। ছবি: সংগৃহীত
নোটিশে ওই কনটেন্ট ব্যবহার বন্ধ এবং দুই কোম্পানির কাছে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কোটি টাকা চাওয়া হয়েছে। অন্যথায় তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

অনুমতি ছাড়া ‘আড্ডা উইথ সোহানা সাবা’ নামের একটি কনটেন্ট ব্যবহার করায় ১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে রবি অজিয়াটা লিমিটেডসহ দুটি কোম্পানিকে আইনি নোটিশ দিয়েছেন অভিনেত্রী সোহানা সাবা।

নোটিশে ওই কনটেন্ট ব্যবহার বন্ধ এবং দুই কোম্পানির কাছে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কোটি টাকা চাওয়া হয়েছে। অন্যথায় তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

২৫ সেপ্টেম্বর অভিনেত্রী সোহানা সাবার পক্ষে এ নোটিশ দেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মুজিবুল কামাল।

রবি অজিয়াটাসহ তাদের ১২ কর্মকর্তা এবং এম/এস আইনস্টেক স্টুডিও বরাবর এ নোটিশ দেয়া হয়।

পরে এক বার্তায় সোহানা সাবা জানান, চার বছর আগে তারকালয় ‘আড্ডা উইথ সোহানা সাবা’ নামে একটি সেলিব্রিটি টক শোসহ নির্মাণ করেন। যা এম/এস আইনস্টেক স্টুডিস এবং রবি আজিয়াটা লিমিটেডসহ অনেক ডিজিটাল প্লাটফর্মে অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করছে।

সাবা মনে করেন, অনেকেই অর্থিকভাবে লাভবান হয়েছে। কিন্তু এটি তার কপিরাইট করা। এ দুটি কোম্পানি কোনো ধরনের সম্মতি ও লাইসেন্স ছাড়া অনুষ্ঠানগুলো অনলাইন এবং অফলাইন বিভিন্ন চ্যানেলে সম্পচার করেছে যা আইন অনুযায়ী কপিরাইট আইনের লঙ্ঘন।

সাবা বলেন, ‘৪ বছর ধরে ৪২টি পর্ব তৈরি করেছি। এগুলো তারা নিজেদের ইচ্ছা মতো ব্যবহার করে উচ্চ মুনাফা অর্জন করেছে। এটি দেশের আইন অনুযায়ী চুরিরও সামিল। উক্ত কনটেন্টগুলো থেকে আয় করা টাকা তারা আমাকে বুঝিয়ে দেয়নি। এ বিষয়ে অবগত হলে তাদের কাছে যাওয়ার পরও তারা আমার কথা শোনেনি।’

আরও পড়ুন:
সোহানা সাবার ৩ সিনেমা নতুন বছরে
ওয়েব সিরিজে দ্বৈত চরিত্রে সাবা

মন্তব্য

বিনোদন
Jacquelines interim bail

জ্যাকলিনের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন

জ্যাকলিনের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন বলিউড অভিনেত্রী জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ। ছবি: সংগৃহীত
ইডি গত মাসে জ্যাকলিনের বিরুদ্ধে মামলায় চার্জশিট জমা দিলে অভিনেত্রী অভিযোগ করে বলেন, ইডির তদন্ত পদ্ধতি ভুয়া ও অন্যের মদতপুষ্ট।

অর্থ আত্মসাৎ মামলায় সুকেশ চন্দ্রশেখরের সঙ্গে নাম জড়ানোর পর এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) তলব করেছিল বলিউড অভিনেত্রী জ্যাকলিন ফার্নান্দেজকে। সুকেশের সঙ্গে সম্পর্কিত আরও অনেককেই থানায় ডেকেছিল দিল্লির আর্থিক অপরাধ দমন শাখা।

দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে ইডি। এর মধ্যেই ৩৭ বছর বয়সী জ্যাকলিন পেলেন অন্তর্বর্তীকালীন জামিন। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

ইডি গত মাসে জ্যাকলিনের বিরুদ্ধে মামলায় চার্জশিট জমা দিলে অভিনেত্রী অভিযোগ করে বলেন, ইডির তদন্ত পদ্ধতি ভুয়া ও অন্যের মদতপুষ্ট।

এ অভিযোগ এনে অন্তর্বর্তীকালীন জামিনের আপিল করেছিলেন দিল্লির একটি আদালতে। সেই আপিলের পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার জামিন মঞ্জুর হলো তার।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, অস্বীকার করার উপায় নেই যে জ্যাকলিনের ‘স্বপ্নের পুরুষ’ ছিলেন সুকেশ! ২০০ কোটি রুপির অর্থ আত্মসাৎ মামলায় তদন্তে নেমে এমন কথাই জানতে পেরেছে তদন্তকারী। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এও জানিয়েছিল, সুকেশকে বিয়েও করতে চেয়েছিলেন এ নায়িকা। সুকেশের অপরাধের কথা জেনেও তাকে ছেড়ে জাননি জ্যাকলিন।

আরও পড়ুন:
২০০ কোটি রুপি পাচার মামলায় জ্যাকলিনের বিরুদ্ধে চার্জশিট
জ্যাকলিনকে ফের জিজ্ঞাসাবাদ ইডির 
জ্যাকলিনের সঙ্গে বলিউডে অভিষেক হচ্ছে মিশেলের
ব্যক্তিগত মুহূর্তের আরেকটি ছবি ভাইরাল, বিশেষ অনুরোধ জ্যাকলিনের
জ্যাকুলিন-নোরাকে দেয়া সুকেশের উপহার বাজেয়াপ্ত

মন্তব্য

বিনোদন
One night at Prosenjits house

এক রাতে প্রসেনজিতের বাড়িতে

এক রাতে প্রসেনজিতের বাড়িতে অভিনেতা প্রসেনজিতের বাড়িতে দেশের অভিনয়শিল্পী ও কলাকুশলীরা। ছবি: সংগৃহীত
প্রসেনজিৎ ও চঞ্চলের একটি ছবি রয়েছে পোস্ট করা অ্যালবামে। ছবিটি দেখে মনে হচ্ছে দুই বাংলার দুই জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী একে অন্যকে ধরে গান গাইছেন এবং তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে করছেন অঙ্গভঙ্গি।

কলকাতার জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী প্রসেনজিতের বাড়িতে আমন্ত্রিত হয়েছিলেন এ দেশের কয়েকজন শিল্পী-কলাকুশলী। সেখানে রাতের খাবারের আমন্ত্রণ ছিল তাদের। আড্ডা-গানে প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে আমন্ত্রণ পর্বটি।

প্রসেনজিতের আমন্ত্রণে গিয়েছিলেন চঞ্চল চৌধুরী ও তার স্ত্রী-সন্তান, নাট্যকার-অভিনেত্রী দম্পতি বৃন্দাবন দাস, সাহনাজ খুশি ও তাদের দুই সন্তান, বিজরী বরকতুল্লাহ ও ইন্তেখাব দিনার দম্পতি এবং নির্মাতা শাওকি।

আমন্ত্রণ পর্বের কিছু ছবি রোববার রাতে ফেসবুকে পোস্ট করেন অভিনেত্রী বিজরী বরকতুল্লাহ। সেসব ছবিতে পাওয়া গেছে প্রসেনজিতের বাড়ির বাইরের ও ভেতরের দৃশ্য।

এক রাতে প্রসেনজিতের বাড়িতে
বাঁ থেকে- বাইরে থেকে প্রসেনজিতের বাড়ি, চঞ্চল চৌধুরীর সঙ্গে গান, বাড়ির ভেতরের কিছু অংশ। বিজরী বরকতুল্লাহর ফেসবুক থেকে

প্রসেনজিৎ ও চঞ্চলের একটি ছবি রয়েছে পোস্ট করা অ্যালবামে। ছবিটি দেখে মনে হচ্ছে দুই বাংলার দুই জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী একে অন্যকে ধরে গান গাইছেন এবং তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে করছেন অঙ্গভঙ্গি।

ছবিটি শেয়ার করে অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে লিখেছেন, ‘সবার সঙ্গে ছবি তোলা শেষে আমাকে বললেন, চল বাবু... মনের মানুষ এ আমরা যেমন করে গানের সঙ্গে নাচতাম, সে রকম একটা ছবি তুলি।’

বাংলাদেশ-ভারতের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত মনের মানুষ সিনেমাটি ২০১০ সালে মুক্তি পায়। এতে একসঙ্গে অভিনয় করেছিলেন চঞ্চল ও প্রসেনজিৎ।

এক রাতে প্রসেনজিতের বাড়িতে
প্রসেনজিতের বাড়ির দেয়ালে রাখা ক্লাসিক সিনেমার পোস্টার। বিজরী বরকতুল্লাহর ফেসবুক থেকে

ছবির ক্যাপশনে বিজরী লিখেছেন, ‘একজন শিল্পীর বিনয় তাকে মানুষ হিসেবে অনেক উঁচুতে নিয়ে যায়। সেটি প্রমাণ করেছেন কলকাতার প্রথিতযশা জনপ্রিয় অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (বুম্বাদা)। তার সৌহার্দ্যপূর্ণ ব্যবহার ও বিনয়ে আমরা মুগ্ধ হলাম।

এক রাতে প্রসেনজিতের বাড়িতে
প্রসেনজিতের বাড়ির একটি কক্ষ। ছবি: বিজরী বরকতুল্লাহর ফেসবুক থেকে

‘তিনি রাতের খাবারের আয়োজন করেছিলেন তার বাড়িতে আমাদের জন্য, মানে বাংলাদেশের কিছু শিল্পীর জন্য। চমৎকার সময় আমরা কাটিয়েছি তার বাড়িতে। ভীষণ পরিপাটি এবং শৈল্পিকতার ছোঁয়ায় পরিপূর্ণ এ বাড়িটির রয়েছে ঐতিহাসিক মর্যাদা। দারুণ একটি সময় কাটালাম আমরা।’

লেখার শেষ পর্যায়ে এমন আয়োজনের উদ্যোগ নেয়ার জন্য চঞ্চল চৌধুরীকে ধন্যবাদ দিয়েছেন বিজরী।

এক রাতে প্রসেনজিতের বাড়িতে
খাবার টেবিলে প্রসেনজিতের সঙ্গে দেশের অভিনয়শিল্পী ও কুশলীরা। ছবি: বিজরী বরকতুল্লাহর ফেসবুক থেকে

ভারতীয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম হইচইয়ের ষষ্ঠ সিজনের প্রোজেক্ট ঘোষণার অনুষ্ঠানে অংশ নিতে কলকাতায় অবস্থান করছিলেন দেশের কয়েকজন অভিনয়শিল্পী, নির্মাতা ও কলাকুশলীরা।

আরও পড়ুন:
‘শিখো’তে যুক্ত হলেন চঞ্চল চৌধুরী
এটা স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে: চঞ্চল চৌধুরী
হাওয়ার জন্য বসুন্ধরায় ভিড়, চাপ নেই এসকেএসে
‘চঞ্চল চৌধুরীর ছেলে বলে খুব সহজে অভিনেতা হওয়া যাবে না’
খারাপ ফলে হতাশদের জন্য চঞ্চল আছেন

মন্তব্য

বিনোদন
Wifes smile with Shahrukhs picture

শাহরুখের ছবি নিয়ে স্ত্রীর মস্করা

শাহরুখের ছবি নিয়ে স্ত্রীর মস্করা ইনস্টাতে শেয়ার করা শাহরুখ খানের ছবি (বাঁয়ে) ও গৌরী খান। ছবি: সংগৃহীত
গৌরীর এমন মস্করায় মজা পেয়েছে নেটিজেনরা। অভিনেত্রী রিচা চাড্ডা শাহরুখের পোস্টের মন্তব্যের ঘরে লিখেছেন, ‘যাদের তাড়াতাড়ি বিয়ে হতে যাচ্ছে তাদের আরও সাবধান হতে হবে।’

খালি গায়ে পেশিবহুল শরীরের ছবি পোস্ট করেছেন শাহরুখ। রোববার সেই ছবি নিয়ে ঝড় ওঠে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। বলিউড বাদশাহ প্রতিনিয়ত আসেন না নেট দুনিয়ায়। কিন্তু যখন আসেন, একদম তোলপাড় করে ফেলেন।

নেটিজেনরা শাহরুখের ছবি শেয়ার করছেন, মন্তব্য করছেন। শাহরুখের স্ত্রী গৌরীও একটু মস্করা করার সুযোগ ছাড়েননি।

শাহরুখ তার সেই ছবি শেয়ার করে ক্যাপশনে লিখেছিলেন, “আমি আমার শার্টকে: ‘তুমি থাকলে কেমন হতো? তুমি এ কথায় উদ্বিগ্ন হতে, এ কথায় কতই না হাসতে তুমি, তুমি থাকলে এমনটাই হতো।’ আমিও পাঠানের জন্য অপেক্ষা করে আছি।”

শাহরুখের এই পোস্টটাই নিজের ইনস্টা স্টোরিতে শেয়ার করছেন গৌরী খান। তাতে লিখলেন, ‘হায় সৃষ্টিকর্তা!!! এই মানুষটা এখন নিজের শার্টের সঙ্গেও কথা বলতে শুরু করেছে।’

গৌরীর এমন মস্করায় মজা পেয়েছে নেটিজেনরা। অভিনেত্রী রিচা চাড্ডা শাহরুখের পোস্টের মন্তব্যের ঘরে লিখেছেন, ‘যাদের তাড়াতাড়ি বিয়ে হতে যাচ্ছে তাদের আরও সাবধান হতে হবে।’ অক্টোবরে রিচা বিয়ে করছেন অভিনেতা আলি ফজলকে।

শাহরুখের ছবিতে দেখা যাচ্ছে কাউচের ওপরে আধশোয়া তিনি। বড় বড় চুল, খালি গা, তাতে সিক্স প্যাক পরিষ্কার।

এটি মূলত শাহরুখ খানের মুক্তি প্রতীক্ষিত সিনেমা পাঠান এর লুক। ২০২৩ সালের ২৫ জানুয়ারি মুক্তি পাবে সিনেমাটি। সঙ্গে রয়েছেন দীপিকা পাড়ুকোন, জন আব্রাহামসহ অনেকে।

আটলির পরিচালনায় জাওয়ান আসবে জুন মাসে আর তাপসী পান্নুর সঙ্গে রাজকুমার হিরানির ডংকিতে শাহরুখ আসবেন বছরের শেষে। সব মিলিয়ে শাহরুখ ভক্তদের জন্য জমজমাট হতে চলেছে ২০২৩ সালটা।

আরও পড়ুন:
বাতিল হচ্ছে আমির-অক্ষয়ের সিনেমার হাজার শো
‘ভিক্যাট’কে হত্যার হুমকি
বলিউডের ঈদ
২৭ বছর পর এক সিনেমায় বলিউড ‘বাদশাহ-ভাইজান’!
১৮৭১ সালের প্রেক্ষাপটে বাবা-ছেলে রণবীর

মন্তব্য

বিনোদন
This is Saudi Idol

এবার সৌদি আইডল

এবার সৌদি আইডল  সৌদি আরবে শুরু হতে যাচ্ছে 'সৌদি আইডল' রিয়েলিটি শো
এ বছরের শেষ দিকেই ‘সৌদি আইডল’ নামের নতুন এই সংস্করণের সম্প্রচার শুরু হবে বলে জানিয়েছেন সৌদি আরবের জেনারেল এন্টারটেইনমেন্ট অথরিটির (জিইএ) চেয়ারম্যান তুর্কি আল-শেখ। সামনের মাসেই এর শুটিং কার্যক্রম শুরু হবে।

ইন্টারন্যাশনাল ‘আইডল’ টেলিভিশন ফ্র্যাঞ্চাইজি ট্যালেন্ট শোর নতুন সংস্করণ আসতে যাচ্ছে সৌদি আরবে।

এ বছরের শেষ দিকে ‘সৌদি আইডল’ নামের নতুন এই সংস্করণের সম্প্রচার শুরু হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির জেনারেল এন্টারটেইনমেন্ট অথরিটির (জিইএ) চেয়ারম্যান তুর্কি আল-শেখ।

শনিবার দেয়া এক ঘোষণায় এমনটাই জানিয়েছেন তিনি। সামনের মাসেই এর শুটিং কার্যক্রম শুরু হবে। আশা করা হচ্ছে, এই বছরের ডিসেম্বরেই প্রথম পর্বের সম্প্রচার সম্ভব হবে। আরবের জিইএ ও এমবিসি গ্রুপের সহযোগিতায় এই শো চালু হতে যাচ্ছে।

নতুন এই শো-এর মাধ্যমে সৌদি গায়ক-গায়িকা অন্বেষণ করা হবে। আর এর বিচারক হিসেবে থাকছেন সৌদি আরবের গায়ক আসিল আবু বকর, আরব আমিরাতের অভিনেত্রী ও গায়িকা আহলাম, সিরিয়ার গায়িকা আসালা ও সৌদি-ইরাকি সুরকার মাজিদ আল-মোহান্দিস।

অন্যান্য দেশের আইডলের মতো সৌদি আইডলেও থাকছে অডিশন রাউন্ড ও লাইভ পারফরম্যান্স রাউন্ড। প্রাথমিক বাছাইকৃত প্রতিযোগীরা অডিশন রাউন্ডে সুযোগ পাবেন সেখান থেকে বিচারকরা তাদের নির্বাচিত করলে পরের রাউন্ডে যাওয়ার সুযোগ পাবেন।

বৃটেনে ২০০১ সালে প্রথম শুরু হয় পপ আইডল। সেখান থেকে পুরো বিশ্বের ৫৬টি অঞ্চলে এর ফ্র্যাঞ্চাইজি রয়েছে। ২০১৪ সালে লেবাননে শুরু হয় মধ্যপ্রাচ্যের প্রথম আরব আইডল।

আরও পড়ুন:
মদিনায় স্বর্ণের খনি
‘মেয়ে জীবিত না মরে গেছে জানতাম না’
সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই ভাইসহ ৩ বাংলাদেশি নিহত

মন্তব্য

বিনোদন
Iranian Oscar Jayeer calls on the world to stand by the protesters

বিশ্ববাসীকে বিক্ষোভকারীদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান ইরানি অস্কারজয়ীর

বিশ্ববাসীকে বিক্ষোভকারীদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান ইরানি অস্কারজয়ীর  সাইপ্রাসে ইরানি দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভকারীরা। ছবি: সংগৃহীত
কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যুর পর পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে ছড়িয়ে পড়া আন্দোলনে সমর্থন জানাচ্ছেন ইরানের বিশিষ্টজনরা। এবার এই বিক্ষোভের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে বিশ্ববাসীকেও ইরানের বিক্ষোভকারীদের প্রতি সংহতি প্রকাশ করার আহ্বান জানিয়েছেন দুইবারের অস্কার জয়ী ইরানি পরিচালক আসঘার ফারহাদি।

নৈতিকতা পুলিশের হেফাজতে মাহসা আমিনির মৃত্যুর ঘটনায় সৃষ্ট আন্দোলনে বিক্ষোভকারীদের পাশে দাঁড়িয়ে সংহতি জানাতে বিশ্ববাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দুইবারের অস্কার বিজয়ী ইরানি চলচ্চিত্র পরিচালক আসঘার ফারহাদি।

রোববার ইনস্টাগ্রামে দেয়া এক ভিডিও বার্তায় এ আহ্বান জানান তিনি।

এই সময় চলমান আন্দোলনে পুরুষদের পাশাপাশি প্রতিবাদে নেতৃত্ব দেয়া প্রগতিশীল ও সাহসী নারীদেরও প্রশংসা করেছেন তিনি।

ফারহাদি বলেন, ‘তারা এমন সাধারণ, অথচ মৌলিক অধিকার খুঁজছে যেগুলো রাষ্ট্র তাদের দিতে প্রত্যাখ্যান করেছে।

‘এই সমাজ, বিশেষ করে নারীরা, এই সময়ে এসে কঠোর ও বেদনাদায়ক পথ অতিক্রম করেছে এবং তারা স্পষ্টভাবেই একটি গন্তব্যে পৌঁছেছে।’

তিনি বলেন, ‘আমি তাদের খুব কাছ থেকে দেখেছি, তারা ১৭ থেকে ২০ বছর বয়সী তরুণ-তরুণী।

বিশ্ববাসীকে বিক্ষোভকারীদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান ইরানি অস্কারজয়ীর
দুইবারের অস্কার জয়ী ইরানি পরিচালক আসঘার ফারহাদি

‘তারা যেভাবে রাস্তায় মিছিল করেছে, আমি তাদের মুখে ক্ষোভ ও আশা দেখেছি । সব বর্বরতাকে উপেক্ষা করে তাদের নিজেদের ভাগ্য বেছে নেয়ার অধিকারের দাবিতে তাদের স্বাধীনতার সংগ্রামকে আমি গভীরভাবে সম্মান করি।’

বিশ্ববাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি সারা বিশ্বের সব শিল্পী, চলচ্চিত্র নির্মাতা, বুদ্ধিজীবী, নাগরিক অধিকার কর্মীদের আহ্বান জানাচ্ছি, যারা মানবিক মর্যাদা ও স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে এবং তারা যাতে ইরানের শক্তিশালী ও সাহসী নারী-পুরুষের প্রতি সংহতি জানিয়ে ভিডিও প্রকাশ করে।’

মূলত জীবনঘনিষ্ঠ চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য পরিচিতি রয়েছে আসঘার ফারহাদির। ২০১১ সালে ‘এ সেপারেশন’ এবং ২০১৬ সালে ‘দ্য সেলসম্যান’ চলচ্চিত্রের জন্য বিদেশি ভাষা ক্যাটাগরিতে দুইবার অস্কার (অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড) জেতেন তিনি।

আমি তাদের মুখে ক্ষোভ ও আশা দেখেছি । সব বর্বরতাকে উপেক্ষা করে তাদের নিজেদের ভাগ্য বেছে নেয়ার অধিকারের দাবিতে তাদের স্বাধীনতার সংগ্রামকে আমি গভীরভাবে সম্মান করি।

এদিকে ‘সঠিক নিয়মে’ হিজাব না পরার অভিযোগে নৈতিকতা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তারের পর ২২ বছরের মাহসা আমিনির মৃত্যুর ঘটনায় ক্ষোভের আগুনে জ্বলছে ইরান।

তেহরানসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় গত কয়েক দিনে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের ব্যাপক সংঘর্ষ চলছে।

নারীর পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে এই বিক্ষোভে নারীদের পাশাপাশি ইরানি পুরুষও যোগ দিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেক নারী নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী পোশাক পরার ঘোষণা দিয়ে ভিডিও পোস্ট করছেন।

বিশ্ববাসীকে বিক্ষোভকারীদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান ইরানি অস্কারজয়ীর
এ সেপারেশন ও দ্য সেলসম্যান চলচ্চিত্রের জন্য অস্কার পেয়েছিলেন আসঘার ফারহাদি

কুর্দি নারী মাহসা আমিনিকে ১৩ সেপ্টেম্বর তেহরানের নৈতিকতা পুলিশ গ্রেপ্তার করে। ইরানের দক্ষিণাঞ্চল থেকে তেহরানে ঘুরতে আসা মাহসাকে একটি মেট্রো স্টেশন থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি সঠিকভাবে হিজাব করেননি।

পুলিশ হেফাজতে থাকার সময়েই মাহসার হার্ট অ্যাটাক হয়, এরপর তিনি কোমায় চলে যান। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার তার মৃত্যু হয়। পুলিশ মাহসাকে হেফাজতে নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করলেও পরিবারের অভিযোগ গ্রেপ্তারের পর তাকে পেটানো হয়।

মাহসার মৃত্যুর প্রতিবাদে গত কয়েক দিন ধরেই উত্তাল ইরান। ইরানের বিভিন্ন জায়গায় নারীর পোশাকের স্বাধীনতার পক্ষে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষও চলছে।

আরও পড়ুন:
ইরানে পোশাকের স্বাধীনতার বিক্ষোভে মৃত্যু বেড়ে ৫০
ইরানের রাস্তায় এবার হিজাবপন্থিরা
ইরানে পোশাকের স্বাধীনতার বিক্ষোভে মৃত বেড়ে ২৬
হিজাবে রাজি হননি সিএনএনের আমানপোর, ইরানি প্রেসিডেন্টের সাক্ষাৎকার বাতিল
ইরানি সেনারা জনতার পক্ষ নিন: সাবেক ফুটবল তারকা

মন্তব্য

p
উপরে