× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য

বিনোদন
The last afternoon of Eid Jovan Safar
hear-news
player

ঈদে জোভান-সাফার ‘শেষ বিকেল’

ঈদে-জোভান-সাফার-শেষ-বিকেল ফারহান আহমেদ জোভান ও সাফা কবির। ছবি: সংগৃহীত
একদিন কোনো এক বিয়ে বাড়িতে ভিডিও করতে গিয়ে মায়াময় আফিয়ার সঙ্গে পরিচয় নিয়ামুলের। এরপর শুরু অন্য এক প্রেমের মতই আফিয়া-নিয়ামুলের প্রেমের গল্প, কিন্তু এ গল্পে বাঁধ সাধে শারীরিক সৌন্দর্য।

মফস্বল শহরে বিয়ে বাড়ির ভিডিও করা নিয়ামুলের পেশা। একদিন কোনো এক বিয়ে বাড়িতে ভিডিও করতে গিয়ে দেখা হয় মায়াময় আফিয়ার সঙ্গে। আফিয়া কাজ করে বিউটি পার্লারে।

এরপর শুরু হয় অন্য এক প্রেমের মতই আফিয়া-নিয়ামুলের প্রেমের গল্প, কিন্তু এ গল্পে বাঁধ সাধে শারীরিক সৌন্দর্য।

তবে কি নিয়ামুলের পাওয়া হয় না আফিয়াকে? শারীরিক সৌন্দর্য কি বাঁধা হয়ে দাঁড়ায় তাদের প্রেমে? এমনই এক প্রেমের গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে নাটক শেষ বিকেল

এতে নিয়ামুলের চরিত্রে অভিনয় করেছেন ফারহান আহমেদ জোভান ও আফিয়ার চরিত্রে সাফা কবির।

আহমেদ তাওকীরের রচনায় এই পরিচালনা করেছেন হাসান রেজাউল।

অনফোকাসের প্রযোজনায় যন্ত্রাক্ষি ফিল্মসের ব্যানারে নির্মিত এই নাটকটিতে আরও অভিনয় করেছেন, আশারফুল আশিষ, মাহবুবুর রহমানসহ অনেকে।

এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে ঈদে বেসরকারি একটি টিভি চ্যানেলে প্রচার হবে নাটকটি।

আরও পড়ুন:
গেরিলা যোদ্ধা শহীদ আজাদের চরিত্রে অপূর্ব
প্রধানমন্ত্রীর ১০ উদ্যোগ নিয়ে ধারাবাহিক নাটক
ভালোবাসা দিবসে আসছেন অপূর্ব-কেয়া পায়েল
ঋণে জর্জরিত হয়ে ‘অপহরণ নাটক’
গণহত্যা নিয়ে নাটক 'মধ্যরাতের মোলহেড' মঞ্চস্থ

মন্তব্য

বিনোদন
Drama mask in Chapainawabganj to prevent extremism

উগ্রবাদ প্রতিরোধে চাঁপাইনবাবগঞ্জে নাটক ‘মুখোশ’

উগ্রবাদ প্রতিরোধে চাঁপাইনবাবগঞ্জে নাটক ‘মুখোশ’ উগ্রবাদ রোধে চাঁপাইনবাবগঞ্জে প্রদর্শিত নাটক ‘মুখোশ’। ছবি: নিউজবাংলা
বাংলাদেশ পুলিশের সন্ত্রাস দমন ও আন্তর্জাতিক অপরাধ প্রতিরোধ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের অর্থায়নে নাটকটিতে উগ্রবাদ, সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ ও ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে বক্তব্য তুলে ধরা হচ্ছে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের উদ্যোগে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার বিভিন্ন স্থানে প্রদর্শিত হলো জনসচেতনতামূলক নাটক ‘মুখোশ’।

এরই ধারাবাহিকতায় রোববার বিকেল ৫টায় জেলার বারঘড়িয়া দৃষ্টিনন্দন পার্কে প্রদর্শিত হলো ‘মুখোশ’। এর আগে জেলার নাচোল, গোমস্তাপুর ও শিবগঞ্জেও প্রদর্শনী হয়েছে নাটকটির।

বাংলাদেশ পুলিশের সন্ত্রাস দমন ও আন্তর্জাতিক অপরাধ প্রতিরোধ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের অর্থায়নে নাটকটিতে উগ্রবাদ, সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ ও ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে বক্তব্য তুলে ধরা হচ্ছে।

নাটকটিতে দেখানো হয়েছে, কীভাবে, কোন পরিস্থিতিতে ধর্মের ভুল ব্যাখ্যা গ্রহণ করে মানুষ উগ্রবাদের দিকে ধাবিত হয়। উগ্রবাদের উসকানিদাতারা বিভিন্ন সংগঠনের নাম ধারণ করে, কীভাবে সমাজের মানুষদের আকৃষ্ট করে ভুল পথে নিয়ে বিপথগামী করে তোলে।

উগ্রবাদ প্রতিরোধে চাঁপাইনবাবগঞ্জে নাটক ‘মুখোশ’
চাঁপাইনবাবগঞ্জে মুখোশের প্রদর্শনীর সময় অভিনয়শিল্পীরা। ছবি: সংগৃহীত

এ ছাড়া একজন উগ্রবাদে বিশ্বাসী ব্যক্তির আচরণের মাঝে কী কী পরিবর্তন ঘটে এবং উগ্রবাদে জড়িত হওয়ার ক্ষেত্রে কারা ঝুঁকিতে রয়েছে তাই ফুটে উঠেছে নাটকটিতে।

নাটকটি পরিবেশনায় যুক্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্ট্যাডিজ বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থীরা।

জায়েদ জুলহাসের রচনায় নাটকটি নির্দেশনা দিয়েছেন থিয়েটার অ্যান্ড স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষক ড. আহমেদুল কবির।

উগ্রবাদ প্রতিরোধে চাঁপাইনবাবগঞ্জে নাটক ‘মুখোশ’
চাঁপাইনবাবগঞ্জে মুখোশের প্রদর্শনীতে উপচেপড়া ভিড় ছিল দর্শকের। ছবি: সংগৃহীত

নাটকটিতে অভিনয় করেছেন আবে হায়াত সৈকত, অপূর্ব গোমস্তা, রফিকুল ইসলাম সবুজ তালুকদার, মনিরুজ্জামান রিপন, রাগীর নাঈম, কৌশিক, কামরুন্নাহার মুন্নি, দেবাশীষ কুমার, শুদ্র সরকার, ইভানা মেঘলা।

পুরো প্রক্রিয়ার সার্বিক নির্দেশক ও তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে আছেন কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের প্রধান বাংলাদেশ পুলিশের উপমহাপরিদর্শক আসাদুজ্জামান।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি বলেন, ‘কেউ যাতে উগ্রবাদী আচরণ ও কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে না পড়ে এবং দেশের শান্তিশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তার বিঘ্ন ঘটাতে না পারে, সে বিষয়ে জনসচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে এই নাটক প্রদর্শিত হচ্ছে।’

আরও পড়ুন:
গণহত্যা নিয়ে নাটক 'মধ্যরাতের মোলহেড' মঞ্চস্থ
নাটকটির জন্য তিন দিন পুরো ট্রেন ভাড়া করা হয়েছিল
করোনা: হাসপাতালে ভর্তি রহমত আলী ও জলি
আসছে খায়রুল বাশার-চমক জুটির ‘অবশেষে একা’
অভিনেতা শামীম ভিস্তি আর নেই

মন্তব্য

বিনোদন
Want to be a good actress that can do all the characters

সুঅভিনেত্রী হতে চাই: লাবণ্য

সুঅভিনেত্রী হতে চাই: লাবণ্য মডেল ও অভিনেত্রী লাবণ্য চৌধুরী। ছবি: সংগৃহীত
লাবণ্য বলেন, ‘নাটকে আর তেমন মন বসে না, বিশেষ কোনো নাটক হলে করি। আমাকে সিনেমায় বেশি টানে। যেহেতু টিভিসি দিয়ে অভিনয়ে আসা, তাই টিভিসিও আমাকে খুব টানে। তবে সব মাধ্যমেই ভালো কাজগুলো করতে চাই।’

তখন তিনি ক্লাস ওয়ানে। প্রাণ মামা ওয়েফারের একটি বিজ্ঞাপন দিয়ে অভিনয় জীবন শুরু। দেখতে দেখতে প্রায় এক দশকের অভিনয়যাত্রা, তবে বর্তমান সময়ে পর্দায় তার সরব উপস্থিতি নজর কাড়ছে দর্শকদের। বলছি মডেল ও অভিনেত্রী লাবণ্য চৌধুরীর কথা।

এই ঈদেও তাকে দেখা যাবে বেশ কয়েকটি নাটকে। মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে তার অভিনীত কয়েকটি সিনেমা।

ঈদের কাজ ও অভিনয় ভাবনা নিয়ে নিউজবাংলার সঙ্গে আলাপকালে জানালেন নানা কথা।

চ্যানেল আইয়ে ঈদের দিন রাত ৭টা ৪০ মিনিটে প্রচারিত হবে লাবণ্যর অভিনীত হারাধনের একটি বাগান। বৃন্দাবন দাসের লেখা এই নাটকটি পরিচালনা করেছেন সালাউ‌দ্দিন লাভলু। এতে আরও রয়েছেন চঞ্চল চৌধুরী, শাহানাজ খু‌শি, সৌম্যসহ অনেকে।

সুঅভিনেত্রী হতে চাই: লাবণ্য
‘হারাধনের একটি বাগান’ নাটকের সেটে লাবণ্য ও সৌম্য। ছবি: সংগৃহীত

ঈদের দ্বিতীয় বা তৃতীয় দিনে জিটিভিতে প্রচা‌রিত হবে লাবণ্যর অভিনীত আরেক নাটক দুবাইওয়ালা। এতে তার চরিত্রের নাম পরী। নোয়াখা‌লীর আঞ্চ‌লিক ভাষায় এটি নির্মাণ করেছেন অরণ্য আনোয়া‌র।

সুঅভিনেত্রী হতে চাই: লাবণ্য
‘দুবাইওয়ালা’ নাটকে সেটে লাবণ্য ও জামিল হোসেন। ছবি: সংগৃহীত

তারিখ ঠিক না হলেও ‌বেঙ্গল মা‌ল্টি‌মি‌ডিয়ার ও‌টি‌টি প্ল্যাটফর্মে এই ঈদেই মুক্তি পাবে তার অভিনীত ওয়েব ফিল্ম সীমানা পে‌রিয়ে। এটি পরিচালনা করেছেন অরণ্য আনোয়ার।

এ ছাড়া মু‌ক্তির অপেক্ষায় রয়েছে তার অভিনীত আরও দুটি সিনেমা। এর মধ্যে রয়েছে হাসান আজিজুল হকের গল্প অবলম্বনে আকরাম খানের পরিচালনায় সরকারি অনুদানের সিনেমা নক‌শী কাঁথার জ‌মিন এবং অরণ্য আনোয়ারের সম্প্র‌তি শেষ হওয়া মু‌ক্তিযুদ্ধভি‌ত্তিক গল্পের সিনেমা মা। ইতোমধ্যে সিনেমা দু‌টির শুটিং ও ডা‌বিং শেষ হয়েছে।

এদিকে মুক্তির দিনক্ষণ ঠিক হয়ে আছে তার অভিনীত আরেক সিনেমা প্রিয় সত্যজিৎ। প্রসূন রহমানের পরিচালিত এই সিনেমাটি ২ মে সত্য‌জিৎ রায়ের জন্মশতবা‌র্ষিকীতে মু‌ক্তি পাবে।

এ ছাড়া বঙ্গমাতার বায়ো‌পিকে কিশোরী শেখ হা‌সিনার চ‌রিত্রে অভিনয় করছেন লাবণ্য। গৌতম কৈরীর নির্মিতব্য এই ডকুড্রামাতে বঙ্গমাতার বিয়ে থেকে মৃত্যু পর্যন্ত সব ঘটনা দেখানো হবে।

সুঅভিনেত্রী হতে চাই: লাবণ্য

অভিনয় নিয়ে নিজের ভাবনার কথা জানিয়ে লাবণ্য বলেন, ‘কাজ করে যেতে চাই, ওভাবে নায়িকা হওয়ার ইচ্ছা নেই, তবে একজন সুঅভিনেত্রী হতে চাই; যে কিনা সব ধরনের চরিত্র করতে পারবে। আরও ভালো কাজ করতে চাই।’

ইতোমধ্যে অনেকগুলো নাটকে কাজ করলেও নাটকে তেমন মন বসে না, এর চেয়ে সিনেমায় তাকে বেশি টানে বলে জানালেন লাবণ্য।

তিনি বলেন, ‘নাটকে আর তেমন মন বসে না, বিশেষ কোনো নাটক হলে করি। আমাকে সিনেমায় বেশি টানে। যেহেতু টিভিসি দিয়ে অভিনয়ে আসা, তাই টিভিসিও আমাকে খুব টানে। তবে সব মাধ্যমেই ভালো কাজগুলো করতে চাই।’

এ পর্যন্ত ছয়টি সিনেমায় কাজ করেছেন লাবণ্য। এর মধ্যে দেবীকৃষ্ণপক্ষ সিনেমা দুটি অনেক আগেই মুক্তি পেয়েছে। দেবীতে জয়ার ছোটবেলার চরিত্রে আর কৃষ্ণপক্ষে প্রিয়দ‌র্শিনীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি।

সিনেমার বাইরে প্রতিনিয়ত নানা নামীদামি প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনে লাবণ্য ছড়ান লাবণ্য চৌধুরী।

তিনি এখন পড়াশোনা করছেন মনিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজে। পড়াশোনার পাশাপাশি ভালো অভিনয়-ভালো অভিনয় করতে পারাই যেন লাবণ্যর এখন প্রধান তপস্যা।

মন্তব্য

বিনোদন
Being the son of Chanchal Chowdhury it is not easy to become an actor

‘চঞ্চল চৌধুরীর ছেলে বলে খুব সহজে অভিনেতা হওয়া যাবে না’

‘চঞ্চল চৌধুরীর ছেলে বলে খুব সহজে অভিনেতা হওয়া যাবে না’ চঞ্চল চৌধুরী, দিব্য-সৌম্যর সঙ্গে শুদ্ধ। ছবি: সংগৃহীত
চঞ্চল আরও লেখেন, ‘শুদ্ধর যথেষ্ট ইচ্ছা আছে অভিনয়ের। শুধু ইচ্ছায় তো আর কাজ হবে না। আগে তো শুটিং দেখতে হবে, এরপর অভিনয়টা শিখতে হবে, তারপর তো অভিনয়।’

দেশের অভিনয় জগতে অন্যতম ভরসার নাম চঞ্চল চৌধুরী। নাটক, সিনেমা বা ওয়েব কনটেন্টের ভিন্ন রকম চরিত্র হলেই চঞ্চলের কথা ভাবেন পরিচালক-প্রযোজকরা। চঞ্চলের করা চরিত্রগুলো তারই প্রমাণ দেয়।

এমন একজন অভিনেতার সন্তান অভিনয় করতে চাইলে হয়তো অনেকেই কাজে নেবেন, কিন্তু চঞ্চল তা চান না। তিনি মনে করেন, চঞ্চল চৌধুরীর ছেলে বলেই যে ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়েই খুব সহজে অভিনেতা হয়ে যাবে, ব্যাপারটা এ রকম নয়।

অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরীর একমাত্র ছেলেসন্তান শুদ্ধ। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রায়ই বাবা-ছেলেকে দেখা যায় একসঙ্গে।

শুদ্ধর অভিনয়ে অভিষেক হয়েছে সম্প্রতি। নাটকে অভিনয় করতে ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়েছিল সে।

শুটিংয়ে শুদ্ধ ও তার সহশিল্পীদের একটি ছবি পোস্ট করে চঞ্চল কিছু কথা লিখেছেন তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে।

চঞ্চল লেখেন, ‘শুদ্ধর জাস্ট প্রথম টিভি ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানো। ব্যাপারটা আহামরি কিছু না। গিয়েছিল পুবাইলে এবারের ঈদের নাটকের শুটিং দেখতে। সঙ্গে ওর মাও ছিল।’

‘চঞ্চল চৌধুরীর ছেলে বলে খুব সহজে অভিনেতা হওয়া যাবে না’
চঞ্চল চৌধুরী ও তার ছেলে শুদ্ধ। ছবি: সংগৃহীত

শুদ্ধ শুটিংয়ে অংশ করা একদমই অপরিকল্পিত বলে জানান চঞ্চল। ছোট চার-পাঁচটি সংলাপের ছোট্ট একটা সিকোয়েন্স করেছে সে। দৃশ্যটিতে শুদ্ধর সহশিল্পী দিব্য-সৌম্য।

চঞ্চল আরও লেখেন, ‘শুদ্ধর যথেষ্ট ইচ্ছা আছে অভিনয়ের। শুধু ইচ্ছায় তো আর কাজ হবে না। আগে তো শুটিং দেখতে হবে, এরপর অভিনয়টা শিখতে হবে, তারপর তো অভিনয়।’

চঞ্চল খুব জোর দিয়ে লেখেন, ‘চঞ্চল চৌধুরীর ছেলে বলেই যে ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়েই খুব সহজে অভিনেতা হয়ে যাবে, ব্যাপারটা এ রকম নয়। তবে ওর দেখাটা শুরু হলো।’

শুদ্ধর বয়স এখন ১২ বছর, বাংলা মাধ্যমে ক্লাস সিক্সে পড়ে। যদি শুদ্ধর যোগ্যতা ও নিয়তি তাকে ক্যামেরার সামনে নিয়ে আসে, তখন হয়তো এই ছবিগুলোই ইতিহাস হয়ে যাবে বলে মনে করেন চঞ্চল।

শুদ্ধকে সবাই আশীর্বাদ করলেই খুশি চঞ্চল। শুদ্ধ যে নাটকটিতে অভিনয় করেছে তার সুশীল ফেমেলি; লিখেছেন বৃন্দাবন দাস, পরিচালক দীপু হাজরা। নাটকটি প্রচার হবে গাজী টিভিতে।

আরও পড়ুন:
খারাপ ফলে হতাশদের জন্য চঞ্চল আছেন
নকশালবাড়ি নিয়ে সিরিজে জয়ার পাশাপাশি চঞ্চল
চোখ ছোট চঞ্চল
‘বলি’র জন্য ন্যাড়া হলেন চঞ্চল!
হইচইতে চঞ্চলের নতুন কনটেন্ট ‘বলি’

মন্তব্য

বিনোদন
শিল্পকলায় লাল জমিন

শিল্পকলায় লাল জমিন

শিল্পকলায় লাল জমিন
‘নাটকটি দেখে দর্শকরা যখন ছলছল চোখে এসে নিজের ভালোলাগার কথা বলে, আবেগে আপ্লুত হয়ে যায়, এর চেয়ে ভালোলাগা আর প্রাপ্তির কিছু হয় না।’

মুক্তিযুদ্ধ ও যুদ্ধোত্তর সময়ে এক সংগ্রামী নারীর জীবনের গল্প নিয়ে দর্শকনন্দিত নাটক লাল জমিন-এর ২৫২তম মঞ্চায়ন হতে যাচ্ছে।

শনিবার সন্ধ্যা ৭টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির স্টুডিও থিয়েটার হলে মঞ্চায়িত হবে রেপার্টরি থিয়েটার ‘শূন্যন’-এর নাটকটি।

নাটকটিতে একক অভিনয় করেছেন অভিনেত্রী মোমেনা চৌধুরী। নাটকটির ২৫২তম মঞ্চায়ন নিয়ে উচ্ছ্বসিত তিনি।

এ বিষয়ে মোমেনা চৌধুরী নিউজবাংলাকে বলেন, ‘নাটকটি দেখে দর্শকরা যখন ছলছল চোখে এসে নিজের ভালোলাগার কথা বলে, আবেগে আপ্লুত হয়ে যায়, এর চেয়ে ভালোলাগা আর প্রাপ্তির কিছু হয় না।’

নাটকটি কোরিয়া, কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র, লন্ডন ও ভারতে একাধিকবার মঞ্চায়িত হয়েছে জানিয়ে মোমেনা চৌধুরী বলেন, ‘নাটকটি নিয়ে আমার প্রাপ্তির আরেকটি জায়গা, এটি গত বছরের ১৫ এপ্রিল বঙ্গভবনে মঞ্চায়ন করেছি। বঙ্গভবনে কোনো সংগঠনের মঞ্চায়িত এটিই সম্ভবত প্রথম নাটক।’

নাটকটির গল্প এগিয়েছে একটি কিশোরী মেয়েকে ঘিরে। মুক্তিযুদ্ধের সময় ছাড়াও রয়েছে আরও কয়েকটি দশকের গল্প।

মুক্তিযুদ্ধে চৌদ্দ বছর বয়সী এক কিশোরীর ভূমিকা, লক্ষ্যে পৌঁছাবার আগেই পুরুষ সহযোদ্ধাদের শহিদ হওয়া, নারী সদস্যদের ওপর নেমে আসা ভয়াবহ নির্যাতন, কিশোরীর ত্যাগ, সবশেষে স্বাধীনতা অর্জনের দৃশ্য দর্শকদের এক নতুন অভিজ্ঞতা সামনে দাঁড় করিয়ে দেয়।

স্বাধীনতা অর্জনের দৃশ্যেই শেষ হয়নি নাটকটি। যুদ্ধোত্তর বাংলাদেশে ঘাতক-দালালদের বৃত্তান্ত ও একজন নারী মুক্তিযোদ্ধার উপলব্ধিও তুলে ধরা হয়েছে, যা দর্শকদের দাঁড় করিয়ে দেয় বর্তমানের মুখোমুখি।

জনপ্রিয় নাটকটির রচয়িতা মান্নান হীরা। নির্দেশনা দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলার শিক্ষক সুদীপ চক্রবর্তী।

আরও পড়ুন:
মাসব্যাপী ২২তম নবীন শিল্পী চারুকলা প্রদর্শনী শুরু
‘সোনার মানুষ’ চায় শিল্পকলা একাডেমি
নবান্ন উৎসবে শিল্পকলায় গান কবিতা নৃত্য

মন্তব্য

উপরে