কঙ্গনার বিরুদ্ধে আবারও এফআইআর

কঙ্গনার বিরুদ্ধে আবারও এফআইআর

বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত।ছবি: সংগৃহীত

শিখদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে কঙ্গনার বিরুদ্ধে মুম্বাইয়ের খার থানায় ২৯৫ (এ) ধারায় অভিযোগ করেন অমরজিৎ সিং সাঁধু নামের এক ব্যক্তি।

বিতর্ক পিছু ছাড়ে না বলিউডের ‘বিতর্কের রানি’ কঙ্গনা রানাউতের। বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে আবারও তার নামে এফআইআর হয়েছে।

শিখদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে বলিউড অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে মুম্বাই পুলিশের কাছে এফআইআর হয়েছে।

মুম্বাইয়ের খার থানায় ২৯৫ (এ) ধারায় কঙ্গনার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন অমরজিৎ সিং সাঁধু নামের এক ব্যক্তি।

সম্প্রতি অভিনেত্রীর ইনস্টাগ্রামের একটি পোস্ট ঘিরেই শুরু এ বিপত্তি। গত ২০ নভেম্বর ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে কঙ্গনা শিখ ধর্মাবলম্বীদের ‘খালিস্তানি সন্ত্রাসবাদী’ বলে আখ্যা দেন।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কৃষি আইন প্রত্যাহার করার পর কঙ্গনা লিখেছিলেন, ‘খালিস্তানি সন্ত্রাসবাদীরা আজ সরকারের হাত মচকে দিল, কিন্তু ভুললে চলবে না, একমাত্র নারী প্রধানমন্ত্রী এদের জুতোর নিচে পিষে দিয়েছিল; দেশকে টুকরো হতে দেননি তিনি। তার মৃত্যুর এত বছর পরেও তার নামে ভয় পায় এরা (শিখ)। এদের জন্য এমনই গুরু দরকার।’

কঙ্গনার এহেন মন্তব্যেই চটেছে শিখ সম্প্রদায়ের মানুষেরা।

রোববার দিল্লি শিখ গুরুদুয়ারা ম্যানেজমেন্ট কমিটির প্রেসিডেন্ট মনজিন্দর সিং সিরসা চিঠি লেখেন মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দিলীপ ওয়ালস-পাতিলকে। কঙ্গনার বিরুদ্ধে মামলার দাবি করেন সিরসা।

তিনি লেখেন, ইচ্ছা করে বারবার কৃষক আন্দোলনকে ‘খালিস্তানি সন্ত্রাসবাদ’ বলে দাবি করেন অভিনেত্রী।

সিরসা অবিলম্বে কঙ্গনা রানাউতের পদ্মশ্রী সম্মান কেড়ে নেয়ার দাবি জানান রাষ্ট্রপতির কাছে।

এ নিয়ে সোমবার মুম্বাইয়ে কঙ্গনার বাড়ির সামনে বিক্ষোভও করেন শিখ ধর্মাবলম্বীরা।

ভারতের স্বাধীনতা নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে চলতি মাসেই কঙ্গনার নামে এফআইআর করেন আম আদমি পার্টির (এএপি) নেতা প্রীতি মেনন।

কৃষি আইন বাতিলের পর ভারতকে ‘জিহাদি দেশ’ বলেছিলেন কঙ্গনা। এর জেরে কয়েক দিন আগে তার নামে দিল্লির পার্লামেন্ট স্ট্রিট থানায় রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হয়।

শেয়ার করুন

মন্তব্য

কুমকুম, শাড়ি-চুড়ি দিয়ে দীপিকাকে শুটিংয়ে আমন্ত্রণ

কুমকুম, শাড়ি-চুড়ি দিয়ে দীপিকাকে শুটিংয়ে আমন্ত্রণ

বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোনকে দক্ষিণী সিনেমার শুটিং সেটে শাড়ি-চুড়ি দিয়ে স্বাগত জানান নির্মাতা। ছবি: সংগৃহীত

সেই সঙ্গে নির্মাতা একটি চিরকুটও দিয়েছেন দীপিকাকে। তাতে লেখা, ‘দক্ষিণ ভারতের কন্যা, যিনি গোটা বিশ্বের হৃদয়ে রাজ করছেন, জাতির রাজকন্যা, তোমাকে স্বাগত নিজ বাড়িতে। এসো একসঙ্গে বিশ্বজয় করি।’

অনেক আগেই জানা গিয়েছিল, নির্মাতা নাগ অশ্বিনের সিনেমায় দক্ষিণী সুপারস্টার প্রভাসের সঙ্গে জুটি বাঁধবেন বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোন।

শনিবার শুরু হলো প্রতীক্ষিত সেই সিনেমার শুটিং। সেটে দীপিকাকে স্বাগত জানিয়ে একটি উপহারের ঝুড়ি দেন নির্মাতা নাগ অশ্বিন।

দীপিকা তার ইনস্টাগ্রামের স্টোরিতে সেই ঝুড়ির একটি ছবি পোস্ট করেছেন। যাতে রয়েছে ভারতের দক্ষিণের ঐতিহ্যবাহী কাঞ্চি পাট্টু শাড়ি, কুমকুম, হলুদ, চুড়ি ও ফুল।

সেই সঙ্গে নির্মাতা একটি চিরকুটও দিয়েছেন অভিনেত্রীকে। তাতে লেখা, ‘দক্ষিণ ভারতের কন্যা, যিনি গোটা বিশ্বের হৃদয়ে রাজ করছেন, জাতির রাজকন্যা, তোমাকে স্বাগত নিজ বাড়িতে। এসো একসঙ্গে বিশ্বজয় করি।’

প্রথমে নাম ঠিক না করা হলেও পরে জানা যায়, সিনেমার নাম রাখা হয়েছে, প্রজেক্ট কে। একাধিক ভাষায় মুক্তি পাবে বিগ বাজেটের এই সিনেমাটি।

কুমকুম, শাড়ি-চুড়ি দিয়ে দীপিকাকে শুটিংয়ে আমন্ত্রণ

দক্ষিণী সিনেমা ‘প্রজেক্ট কে’র শুটিং শুরু করেছেন বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোন। ছবি: সংগৃহীত

দীপিকা প্রসঙ্গে এর আগে পরিচালক বলেছিলেন, ‘দীপিকা এই চরিত্রে অভিনয় করছেন বলে আমি ভীষণ উচ্ছ্বসিত। মেইনস্ট্রিম অভিনেত্রীদের কেউ এর আগে এমন চরিত্রে অভিনয় করেননি। তাই সবার জন্যই একটা চমক থাকছে। তবে বিশেষভাবে উল্লেখ্য, দীপিকা-প্রভাস জুটি। আশা করি, তাদের জুটি দর্শকদের মনে দাগ কাটবে।’

এই সিনেমার মাধ্যমেই দীপিকার সঙ্গে প্রথমবার জুটি বাঁধছেন প্রভাস। এতে অমিতাভ বচ্চনকেও একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় দেখা। প্রথম শিডিউলের শুটিং হবে রামোজি ফিল্ম সিটিতে।

শেয়ার করুন

টুইটারে আবদার, ভক্তের জন্মদিনে অক্ষয়ের শুভেচ্ছা

টুইটারে আবদার, ভক্তের জন্মদিনে অক্ষয়ের শুভেচ্ছা

বলিউড সুপারস্টার অক্ষয় কুমার। ছবি: সংগৃহীত

টুইটারে অক্ষয় লেখেন, ‘শুভ জন্মদিন প্রিয় পলক, তুমি বাড়ির বাইরে থাকলেও আমি নিশ্চিত তোমার পরিবারের শুভ কামনা এবং ভালোবাসা তোমার সঙ্গে রয়েছে। আশা করি তোমার পুরো বছর খুব ভালো কাটবে। অনেক ভালোবাসা এবং আশীর্বাদ।’

তারকাদের জন্মদিনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের অনেক ভক্তের শুভেচ্ছা জানিয়ে পোস্ট দেয়ার বিষয়টি নতুন নয়, কিন্তু ভক্তের জন্মদিনে তারকাদের পক্ষ থেকে পোস্ট দেয়ার বিষয়টি বিরল।

তেমনই একটি নজির দেখিয়েছেন বলিউড সুপারস্টার অক্ষয় কুমার। জন্মদিনে এক ভক্তকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তিনি।

সম্প্রতি অক্ষয়ের এক ভক্ত টুইটারে তার কাছে আবদার করেন, তাকে জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানাতে হবে অভিনেতার।

এ আবদার অগ্রাহ্য করেননি বলিউডের এ সুপারস্টার। টুইটার হ্যান্ডেলে আসা এমন আবদারের মিষ্টি উত্তর দিয়ে ভক্তকে শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন তিনি।

টুইটারে অক্ষয়ের সেই ভক্তের নাম পলক। অভিনেতাকে ট্যাগ করে তিনি লেখেন, ‘প্রিয় অক্ষয় কুমার স্যার, অনেক বছর ধরে আমি আপনার বিশাল ভক্ত। আজ আমার জন্মদিন এবং আপনার শুভেচ্ছা পেলে আমার দিনটা ভরে উঠবে। বাড়ি থেকে দূরে থাকলে পরিবারের সদস্যদের ছাড়া জন্মদিনে খালি খালি লাগে। হয়তো আপনার শুভেচ্ছা আমার মুখে হাসি ফোটাবে আজকের দিনে।’

সেই ভক্তের এমন অনুরোধ ফেলতে পারেননি অক্ষয় কুমার। তিনি লেখেন, ‘শুভ জন্মদিন প্রিয় পলক, তুমি বাড়ির বাইরে থাকলেও আমি নিশ্চিত তোমার পরিবারের শুভ কামনা ও উষ্ণ ভালোবাসা তোমার সঙ্গে রয়েছে। আশা করি তোমার পুরো বছর খুব ভালো কাটবে। অনেক ভালোবাসা ও আশীর্বাদ।’

অক্ষয় কুমারের এমন শুভেচ্ছায় শুধু পলকই নয়, তার অন্য ভক্ত-অনুরাগীরাও খুশি। তারা অভিনেতার এমন কাজের প্রশংসায় পঞ্চমুখ।

শেয়ার করুন

সংসার ভাঙছে সংগীতশিল্পী পূজার

সংসার ভাঙছে সংগীতশিল্পী পূজার

সংগীতশিল্পী বাঁধন সরকার পূজা। ছবি: সংগৃহীত

২০১৭ সালে বিয়ে করেন পূজা ও অর্ণব। চার বছরেরও বেশি সময়ের সংসার তাদের। এর আগে একটি মিউজিক ভিডিওর কাজের সুবাধে ২০১৬ পরিচয় এ দম্পতির, সেখান থেকেই প্রেম ও বিয়ে।  

সংগীতশিল্পী বাঁধন সরকার পূজার সঙ্গে বিয়ে বিচ্ছেদের ঘোষণা দিলেন তার স্বামী মডেল অর্ণব অন্তু। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এক স্ট্যাটাস দিয়ে শুক্রবার রাতে এ ঘোষণা দেন তিনি।

অর্ণব লেখেন, ‘মহানের কাছে সুস্থ এবং সুন্দর জীবনের কামনা করে, আমাদের সাংসারিক যাত্রা, আমার পক্ষ থেকে এখানেই ইতি টানলাম। ভালো থেকো।’

তবে এ বিষয়ে জানতে শনিবার দুপুরে একাধিকবার পূজাকে ফোন দেয়া হলেও তিনি ধরেননি।

সংসার ভাঙছে সংগীতশিল্পী পূজার
সংগীতশিল্পী পূজা ও তার স্বামী মডেল অর্ণব। ছবি: সংগৃহীত

২০১৭ সালে বিয়ে করেন পূজা ও অর্ণব। চার বছরেরও বেশি সময়ের সংসার তাদের। এর আগে একটি মিউজিক ভিডিওর কাজের সুবাধে ২০১৬ পরিচয় এ দম্পতির, সেখান থেকেই প্রেম ও বিয়ে।

২০০৮ সালে চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে সংগীত জীবনের ক্যারিয়ার শুরু পূজার। ২০১০ সালের ফেব্রুয়ারিতে প্রকাশ পায় তার প্রথম অ্যালবাম ‘প্রজাপতির মন’। এরপর একাধিক গানের অ্যালবাম প্রকাশ পেয়েছে পূজার। সিনেমার গানও গাইছেন নিয়মিত।

শেয়ার করুন

কৃতিকে কি ‘লেডি আমির খান’ ডাকা যাবে

কৃতিকে কি ‘লেডি আমির খান’ ডাকা যাবে

বলিউড অভিনেত্রী কৃতি শ্যানন। ছবি: সংগৃহীত

ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যম কৃতির কাছে জানতে চেয়েছিল, তাকে ‘লেডি আমির খান’ বলা যাবে কি না। জবাবে কৃতি বলেন, ‘না না, একদম না। আমাকে এসব বলে চাপে ফেলবেন না। আমার পক্ষে আমির স্যারকে ছোঁয়া এখনও অনেক দূরের বিষয়।’

চলতি বছর জুলাইয়ে মুক্তি পায় বলিউড অভিনেত্রী কৃতি শ্যানন অভিনীত সিনেমা মিমি। এতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন তিনি।

সিনেমাটিতে অভিনয়ের জন্য দর্শক ও সমালোচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী।

ছবিতে সারোগেট মায়ের চরিত্রে দেখা যায় কৃতিকে। পর্দায় নিজের চরিত্রকে বিশ্বাসযোগ্য করে তুলতে ১৫ কেজি পর্যন্ত ওজন বাড়িয়েছিলেন অভিনেত্রী।

কৃতির এই কৃতিত্বকে শ্রদ্ধা জানিয়ে অভিনেত্রীকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, তাকে ‘লেডি আমির খান’ আখ্যা দেয়া যেতে পারে কি না।

ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দেয়ার সময় তাকে এই প্রশ্ন করা হয়। জবাবে কৃতি বলেন, ‘না না একদম না। আমাকে এসব বলে চাপে ফেলবেন না। আমার পক্ষে আমির স্যারকে ছোঁয়া এখনও অনেক দূরের বিষয়।’

কৃতি আরও বলেন, ‘তবে হ্যাঁ, এ ব্যাপারে একটি কথা বলতে চাই। মিমির জন্য খুব পরিশ্রম করেছিলাম। আর কোনো চরিত্রে বিশ্বাসযোগ্য করে তোলার জন্য যখন আপনি আপ্রাণ চেষ্টা করেন এবং দর্শকের তা ভালো লাগে, সেটাই সবচেয়ে বড় পাওয়া। একজন শিল্পীর পক্ষে সেটা দারুণ তৃপ্তিদায়ক, এটুকু বলতে পারি।’

কৃতিকে কি ‘লেডি আমির খান’ ডাকা যাবে
বলিউড অভিনেত্রী কৃতি শ্যানন। ছবি: সংগৃহীত

বেশ কয়েক মাস আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শরীরচর্চার একটি ভিডিও পোস্ট করেন কৃতি।

ক্যাপশনে তিনি লেখেন, ‘মিমির জন্য ১৫ কেজি ওজন বাড়ানো নিঃসন্দেহে চ্যালেঞ্জ ছিল আমার কাছে, কিন্তু পরবর্তী সময়ে সেটা ঝরানো মুখের কথা নয়।’

এ মুহূর্তে অভিনেত্রীর হাতে রয়েছে বেশ কয়েকটি সিনেমার কাজ। অক্ষয়ের নায়িকা হিসেবে বচ্চন পাণ্ডেতে থাকছেন তিনি। এ ছাড়াও আদিপুরুষ সিনেমায় প্রভাসের সঙ্গে কাজ করছেন। পাশাপাশি ভেড়িয়া, গণপত, শেহজাদার মতো আলোচিত সিনেমা রয়েছে কৃতির হাতে।

শেয়ার করুন

‘কাঁচা বাদাম’ গানের কপিরাইট চান ভুবন

‘কাঁচা বাদাম’ গানের কপিরাইট চান ভুবন

গান গেয়ে বাদাম বিক্রি করছেন ভারতের ভুবন বাদ্যকর। ছবি: সংগৃহীত

ভুবন বলেন, ‘গানটি ভাইরাল হওয়ার পর আমার বাড়িতে মানুষের আনাগোনা বেড়ে গেছে। তারা গানের ভিডিও করছেন। পরে সেই গান ইন্টারনেটে ছেড়ে অনেক টাকা কামিয়ে নিচ্ছেন। অথচ আমার হাত খালি।’

বাদাম বাদাম, দাদা কাঁচা বাদাম, আমার কাছে নাই গো বুবু ভাজা বাদাম... গানটি নিয়ে তোলপাড় নেট দুনিয়ায়। বিশ্বজুড়ে বাংলাভাষাভাষিদের কাছে তুমুল জনপ্রিয়তা পেয়েছে গানটি।

এর গায়ক ভুবন বাদ্যকর। ভারতের বীরভূমের কুড়ালজুড়ি গ্রামের ভুবন পেশায় বাদাম বিক্রেতা। আর সুর নিয়ে খেলা তার নেশা।

গানটিকে রিমেক করে সামাজিক মাধ্যমগুলোয় বাহবা কুড়িয়ে নিচ্ছেন বহু মানুষ। কামিয়ে নিচ্ছেন টাকাও। আর এখানেই আপত্তি ভুবন বাদ্যকরের। অর্থ তো পাচ্ছেনই না, মিলছে না কৃতজ্ঞতাও।

ক্ষুব্ধ ভুবন বিষয়টিকে মেনে নিতে পারছেন না। উপায়ান্তর না দেখে সরাসরি থানায় গিয়ে অভিযোগ করে বসলেন।

ভুবন বলেন, ‘গানটি ভাইরাল হওয়ার পর আমার বাড়িতে মানুষের আনাগোনা বেড়ে গেছে। তারা গানের ভিডিও করছেন। পরে সেই গান ইন্টারনেটে ছেড়ে অনেক টাকা কামিয়ে নিচ্ছেন। অথচ আমার হাত খালি।’

ইউটিউবে গানটির স্বত্ব ‘সংরক্ষিত’ দেখানো হলেও সেখানে নিজের কোনো অ্যাকাউন্টই নেই বলে জানিয়েছেন ভুবন।

বিষয়টি তদন্ত করে দুবরাজপুর থানা পুলিশ যেন তার প্রাপ্য টাকা পাইয়ে দেয়, সেই দাবি ভুবনের।

গান জনপ্রিয় হওয়ায় রীতিমতো খ্যাতির বিড়ম্বনায় পড়েছেন ভুবন। রাতারাতি তারকা বনে যাওয়া ভুবনকে দেখলেই লোকজন ছুটে আসে। তার সঙ্গে ছবি তুলতে চায়। আর এ কারণে শুক্রবার হেলমেট পরে থানায় উপস্থিত হন।

মজার বিষয় হলো থানায় যখন হেলমেট খোলেন, সেখানেও বেঁধে যায় জটলা। ছবি তোলার আবদার নিয়ে আসেন অনেকেই। অবশ্য হাসিমুখেই তাদের আবদার মেটান ভুবন বাদ্যকর।

শেয়ার করুন

যাত্রা উৎসবে শিল্পী-দর্শকের উচ্ছ্বাস

যাত্রা উৎসবে শিল্পী-দর্শকের উচ্ছ্বাস

গোপালগঞ্জ শহরের মুক্তমঞ্চে বৃহস্পতিবার রাতে যাত্রাপালার আয়োজন করা হয়। ছবি: নিউজবাংলা

সাংস্কৃতিক কর্মী সপ্তর্ষী বিশ্বাস বলেন, ‘বাঙালি সংস্কৃতির ধারক ও বাহক হিসেবে পরিচিত যাত্রাপালা। আধুনিকায়নের এই যুগে হারিয়ে যেতে বসেছে সেই ঐতিহ্য। বর্তমান প্রজন্মের কাছে দেশীয় সংস্কৃতি পৌঁছে দিতে অনেক দিন পর হলেও যাত্রা উৎসবের আয়োজন হলো। এ ধরনের অনুষ্ঠান প্রায়ই হওয়া প্রয়োজন।’

বর্তমান প্রজন্মের কাছে দেশীয় সংস্কৃতি পৌঁছে দিতে গোপালগঞ্জে হয়ে গেল যাত্রা উৎসব। দীর্ঘদিন পর হলেও উৎসব ঘিরে উচ্ছ্বসিত শিল্পী, দর্শক ও আয়োজকরা।

মুজিব জন্মশতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে শিল্পকলা একাডেমি এ উৎসবের আয়োজন করে। অরণ্য অপেরার শিল্পীরা মঞ্চায়ন করেন রক্ত করবী যাত্রাপালা।

গোপালগঞ্জ শহরের লেকপাড়ের মুক্তমঞ্চে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উৎসবের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা।

যাত্রাপালা দেখতে মুক্তমঞ্চ ঘরে ভিড় করেন নানা বয়সের দর্শক। নতুন প্রজন্মের দর্শকরাও যাত্রাপালা দেখে উচ্ছ্বসিত।

বাঙালি সংস্কৃতি ধরে রাখতে এমন উৎসব আরও আয়োজনের প্রত্যাশা করেন দর্শনার্থীরা।

হারিয়ে যাওয়া যাত্রাপালা টিকিয়ে রাখতে আগামীতেও এ ধরনের উদ্যোগ নেয়ার কথা জানান জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা।

গ্রামবাংলার ঐতিহ্য টিকিয়ে রাখতে সরকারি সহযোগিতার পাশাপাশি এগিয়ে আসবেন উদ্যোক্তারা, এমন প্রত্যাশা সাংস্কৃতিক কর্মীদের।

সাংস্কৃতিক কর্মী সপ্তর্ষী বিশ্বাস বলেন, ‘বাঙালি সংস্কৃতির ধারক ও বাহক হিসেবে পরিচিত যাত্রাপালা। আধুনিকায়নের এই যুগে হারিয়ে যেতে বসেছে সেই ঐতিহ্য। বর্তমান প্রজন্মের কাছে দেশীয় সংস্কৃতি পৌঁছে দিতে অনেক দিন পর হলেও যাত্রা উৎসবের আয়োজন হলো। এ ধরনের অনুষ্ঠান প্রায়ই হওয়া প্রয়োজন।’

দীর্ঘদিন অনুষ্ঠান না হওয়ায় কর্মহীন ছিলেন শিল্পীরা। শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে যাত্রাপালায় অংশ নিয়ে খুশি শিল্পীরা।

যাত্রাশিল্পী কল্যাণী বাগচী বলেন, ‘স্যাটেলাইট ও আধুনিকাতার যুগে জনপ্রিয়তা হারিয়ে যেতে বসেছে যাত্রাপালা। সেই সঙ্গে করোনার কারণে কোনো অনুষ্ঠান না হওয়ায় কমে যেতে থাকে যাত্রাপালার কদর। এতে কর্মহীন হয়ে পড়েন যাত্রাশিল্পীরা। মেলা, অনুষ্ঠাসহ বিভিন্ন উৎসবে যাত্রাপালা হলে কর্মময় হয়ে উঠবে শিল্পীদের জীবন।’

শেয়ার করুন

অজয়কে অ্যাকশন হিরো হিসেবে পাত্তা দিতেন না তানিশা

অজয়কে অ্যাকশন হিরো হিসেবে পাত্তা দিতেন না তানিশা

বলিউড অভিনেতা অজয় দেবগন ও তানিশা। ছবি: সংগৃহীত

তানিশা বলেন, ‘নিজে যেহেতু প্রথমবার অ্যাকশন সিনেমায় অভিনয় করলাম, তাই এর মর্ম বুঝতে পেরেছি। না হলে এতদিন তো অজয়কে অ্যাকশন হিরো হিসেবে তেমন পাত্তাই দেইনি।’

বলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় অ্যাকশন হিরো হিসেবে অজয় দেবগনের জনপ্রিয়তা তর্কের ঊর্ধ্বে। তবে তাকে কোনোদিন অ্যাকশন হিরো হিসেবে তেমন পাত্তাই দিতেন তার শ্যালিকা অভিনেত্রী তানিশা মুখোপাধ্যায়।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এ কথা নিজেই ফাঁস করেছেন অজয় পত্নী কাজলের ছোট বোন। তানিশা জানান, যে এতো বছর যাবৎ অজয়কে অ্যাকশন হিরো হিসেবে নাকি ধর্তব্যের মধ্যেই আনতেন না তিনি।

চলতি মাসেই বড়পর্দায় মুক্তি পেতে চলেছে তানিশার নতুন সিনেমা কোড নেম আব্দুল। দীর্ঘ চার বছর পর এ সিনেমার মাধ্যমেই আবারও অভিনয়ে ফিরতে চলেছেন অভিনেত্রী।

জানা গেছে, পুরোদস্তুর অ্যাকশনে ভরা ক্রাইম-থ্রিলার সিনেমা এটি। সেই প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়েই অজয়কে নিয়ে এমন অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন তানিশা।

তিনি বলেন, ‘নিজে যেহেতু প্রথমবার অ্যাকশন সিনেমায় অভিনয় করলাম, তাই এর মর্ম বুঝতে পেরেছি। না হলে এতদিন তো অজয়কে অ্যাকশন হিরো হিসেবে তেমন পাত্তাই দেইনি। এই সিনেমার পর এটুকু বুঝেছি যে, অ্যাকশন দৃশ্যে অভিনয় করার মূলমন্ত্র হচ্ছে অভিব্যক্তি এবং সবচেয়ে জরুরি সেটাই।’

অজয়কে অ্যাকশন হিরো হিসেবে পাত্তা দিতেন না তানিশা
বলিউড তারকা অজয়, কাজল ও তানিশা। ছবি: সংগৃহীত

এ নিয়ে অজয়ের থেকে কোনো পরামর্শ পেয়েছেন কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে তানিশা বলেন, ‘একদম না। অজয়ের সঙ্গে দেখা করলে বুঝবেন তিনি পরামর্শ দেয়ার লোক নন, বরং বেশি শোনেন। আর আমি সামনে থাকলে তো নিজেই বকে যাই এক নাগাড়ে।’

শেয়ার করুন