‘মুখোশ’ পরিবেশনায় কপ ক্রিয়েশন, সোমবার ফার্স্টলুক

‘মুখোশ’ পরিবেশনায় কপ ক্রিয়েশন, সোমবার ফার্স্টলুক

মুখোশ সিনেমার পরিচালকের সঙ্গে পরীমনি ও রোশান। ছবি: সংগৃহীত

সানী সানোয়ার বলেন, ‘তৈরি করা মানসম্পন্ন সিনেমার যথাযথ পরিবেশনা নিশ্চিত করার সংকল্প নিয়ে কপ ক্রিয়েশন অভিজ্ঞতাসম্পন্ন একদল পেশাদার লোকের সমন্বয়ে পরিবেশনায় যুক্ত হয়েছে। এ ক্ষেত্রে মুখোশ সিনেমাটি আমাদের ইন-হাউস সিনেমার বাইরে প্রথম সিনেমা।’

পুলিশি অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমা ‘মিশন এক্সট্রিম’ দিয়ে আত্মপ্রকাশ ঘটেছে নতুন প্রযোজনা ও পরিবেশনা সংস্থা কপ ক্রিয়েশনের। সিনেমা ব্যবসার মন্দাভাবের মধ্যেই ঝুঁকি নিয়ে প্রতিষ্ঠানটি ‘সুদিন’ ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টায় কাজ করে যাচ্ছে। সে জন্য নিজেদের সিনেমার বাইরেও তারা অন্য প্রযোজক ও পরিচালকের সিনেমার স্বার্থে এগিয়ে আসতে বদ্ধপরিকর।

সে ভাবনা থেকে মুখোশ সিনেমার পরিবেশনার দায়িত্ব নিয়েছে কপ ক্রিয়েশন। ইফতেখার শুভর পরিচালনায় সিনেমাটি সরকারি অনুদান ও ব্যাচেলর ডট কম প্রোডাকশনের প্রযোজনায় নির্মিত হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বুধবার (১০ নভেম্বর) রাতে কপ ক্রিয়েশনের পরিবেশনা ম্যানেজিং পার্টনার মাশফিকুর রহমান ও ইফতেখার শুভর মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। সে সময় উপস্থিত ছিলেন কপ ক্রিয়েশনের সানী সানোয়ারও।

এ প্রসঙ্গে পরিচালক ইফতেখার শুভ বলেন, ‘কপ ক্রিয়েশনের মতো প্রোডাকশন হাউস মুখোশ সিনেমার পরিবেশনার দায়িত্ব নিয়েছে, এটা আমার জন্য খুব আনন্দের। এ জন্য ঢাকা অ্যাটাকমিশন এক্সট্রিম এর অন্যতম প্রযোজক সানী সানোয়ার ভাইকে ধন্যবাদ জানাই। আশা করি আমরা যৌথভাবে সকল দর্শকের কাছে সিনেমাটি পৌঁছে দিতে পারব।’

সানী সানোয়ার বলেন, ‘তৈরি করা মানসম্পন্ন সিনেমার যথাযথ পরিবেশনা নিশ্চিত করার সংকল্প নিয়ে কপ ক্রিয়েশন অভিজ্ঞতাসম্পন্ন একদল পেশাদার লোকের সমন্বয়ে পরিবেশনায় যুক্ত হয়েছে। এ ক্ষেত্রে মুখোশ সিনেমাটি আমাদের ইন-হাউস সিনেমার বাইরে প্রথম সিনেমা। আশা করছি সিনেমাটি আশানুরূপ ফলাফল পাবে।’

পরিচালক ইফতেখার শুভ আরও জানান, সিনেমার ফার্স্টলুক প্রকাশ পাবে ১৫ নভেম্বর।

সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম, রোশান, পরীমনি, আজাদ আবুল কালাম, ইরেশ যাকের, প্রাণ রায়, রাশেদ মামুন অপু, ফারুক আহমেদ, তারেক স্বপন, ইলিনা শাম্মি।

মুখোশ সিনেমাটি নির্মিত হচ্ছে ইফতেখার শুভর নিজেরই লেখা ‘পেইজ নাম্বার 44’ উপন্যাস অবলম্বনে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য

কঙ্গনার সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট সেন্সরের আবেদন সুপ্রিম কোর্টে

কঙ্গনার সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট সেন্সরের আবেদন সুপ্রিম কোর্টে

বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। ছবি: সংগৃহীত

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে নির্দেশনা চেয়ে আইনজীবী চরণজিৎ সিং চন্দর পাল আবেদনটি করেন। সেখানে আইটি মন্ত্রণালয় ও বিভিন্ন রাজ্যের পুলিশ কর্তৃপক্ষের কাছে কঙ্গনা রানাউতের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানানো হয়।

বলিউডে বিতর্কের রানি হিসেবে পরিচিত অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। বিভিন্ন সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিতর্কিত মন্তব্য করেন অভিনেত্রী। এর জেরে তাকে নিষিদ্ধ করেছে টুইটার কর্তৃপক্ষ।

এবার কঙ্গনার অন্যান্য সামজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সব পোস্ট সেন্সর করতে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করা হয়েছে।

সে বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে নির্দেশনা চেয়ে আইনজীবী চরণজিৎ সিং চন্দর পাল আবেদনটি করেন।

সেখানে বলা হয়, আইটি মন্ত্রণালয় ও বিভিন্ন রাজ্যের পুলিশ কর্তৃপক্ষ কঙ্গনা রানাউতের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নেবে।

সম্প্রতি কৃষক আইন নিয়ে কঙ্গনার করা বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে এ আবেদন করা হয়।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, ‘অভিনেত্রীর মন্তব্যগুলো কেবল আপত্তিকর ও নিন্দাজনকই নয় বরং দাঙ্গা সৃষ্টিকারী, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার অভিপ্রায়ে করা, মানিহানিকর। সেই সঙ্গে মন্তব্যে শিখদের সম্পূর্ণরূপে দেশবিরোধী হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে।

‘এটি শিখদের হত্যাকেও ন্যায্যতা দেয়। মন্তব্যটি সম্পূর্ণরূপে আমাদের দেশের ঐক্যের পরিপন্থি এবং অভিনেত্রীর আইনে কঠোর শাস্তি প্রাপ্য। এগুলোকে এক পাশে সরিয়ে দেয়া যাবে না বা অজুহাত দেয়া যাবে না।’

কঙ্গনার সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট সেন্সরের আবেদন সুপ্রিম কোর্টে
বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। ছবি: সংগৃহীত

সম্প্রতি ভারতের বিতর্কিত কৃষি আইন বাতিলের ঘোষণা দেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তাতে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে ইনস্টাগ্রামে ভারতকে ‘জেহাদি দেশ’ বলে বিতর্কিত মন্তব্য করেন কঙ্গনা।

একই সঙ্গে সেই পোস্টের আরেক অংশে শিখ ধর্মাবলম্বীদের ‘খালিস্তানি সন্ত্রাসবাদী’ বলে আখ্যা দেন অভিনেত্রী।

কৃষি আইন প্রত্যাহার করার পর কঙ্গনা লিখেছিলেন, ‘খালিস্তানি সন্ত্রাসবাদীরা আজ সরকারের হাত মচকে দিল, কিন্তু ভুললে চলবে না একমাত্র নারী প্রধানমন্ত্রী এদের জুতোর নিচে পিষে দিয়েছিল; দেশকে টুকরো হতে দেননি তিনি। তার মৃত্যুর এত বছর পরেও তার নামে ভয় পায় এরা (শিখ)। এদের জন্য এমনই গুরু দরকার।’

শেয়ার করুন

মোশাররফের ‘বকুল ফুল’ আসছে বৃহস্পতিবার

মোশাররফের ‘বকুল ফুল’ আসছে বৃহস্পতিবার

বকুল ফুল স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমার দৃশ্যে মোশাররফ করিম এবং তাসনুভা তিশা। ছবি: সংগৃহীত

শরাফ আহমেদ জীবন পরিচালিত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের মাধ্যমে প্রথমবারের মতো চরকিতে দেখা যাবে মোশাররফ করিমকে। তার বিপরীতে আছেন তাসনুভা তিশা।

একদিন ডাকাতি করতে গিয়ে ডাকাত সরদার ময়নালের মনে হয় ডাকাতরাও সাধারণ মানুষের মতোই আবেগের বেড়াজালে আবদ্ধ। তাদেরও সুখ-দুঃখ আছে, হাসি–কান্না পায়, প্রেম হয়।

এমনই এক গল্প নিয়ে বৃহস্পতিবার ওয়েব প্ল্যাটফর্ম প্রকাশ পেতে যাচ্ছে মোশাররফ করিম অভিনীত ওয়েব কনটেন্ট বকুল ফুল। শরাফ আহমেদ জীবন পরিচালিত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের মাধ্যমে প্রথমবারের মতো চরকিতে দেখা যাবে মোশারফ করিমকে। তার বিপরীতে আছেন তাসনুভা তিশা।

ডাকাতিয়া বাঁশি সিরিজের চতুর্থ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র বকুল ফুল। পরিচালক শরাফ আহমেদ জীবন বলেন, ‘দীর্ঘদিনের ক্যারিয়ারে ওটিটি প্লাটফর্মের জন্য এটি আমার প্রথম কাজ। আমি ও আমার পুরো টিম বেশ সময় নিয়ে বকুলফুলের গল্প নিয়ে প্ল্যানিং করে আসছিলাম। দর্শকদের এই গল্পের মধ্য দিয়ে আনন্দ, কষ্ট, প্রেম, ভালোবাসা সবকিছুর ছোঁয়া পাবে।’

তিনি দর্শকদের উদ্দেশে আরও বলেন, ‘আমি ও আমার পুরো টিম বিশেষ করে মোশারফ ভাইসহ সকল আর্টিস্ট ঢাকার বাইরে বিভিন্ন লোকেশনে নানা প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে শুটিং করেছি।

‘আমাদের কষ্ট সার্থক হবে যদি আপনারা গল্পটি দেখেন। আমার বিশ্বাস যে গল্পটি প্রথম দেখবেন, সে তার কাছের মানুষকে গল্পটা দেখতে অনুরোধ করবেন।’

স্বল্পদৈর্ঘ্য এই চলচ্চিত্রে আরও অভিনয় করেছেন হিন্দোল রায়, মাসুদ হারুন, শেখ মেরাজুল ইসলাম, হেদায়েত নান্নু, হাসনাত রিপন, তুহিন চৌধুরী, দিপক কর্মকার, শেখ স্বপ্না, শেরতাজ জেবিন, আরিয়ান। বকুল ফুল ২ ডিসেম্বর রাত ৮টা থেকে দেখা যাবে।

শেয়ার করুন

সিনেমায় একসঙ্গে রোশান-প্রিয়মনি

সিনেমায় একসঙ্গে রোশান-প্রিয়মনি

জুটি বাঁধতে যাচ্ছেন রোশান ও প্রিয়মিন। ছবি: সংগৃহীত

সিনেমার নাম চূড়ান্ত না হওয়ার কারণ জানতে চাইলে প্রযোজনা সূত্র নিউজবাংলাকে জানায়, সিনেমার নাম ও চিত্রনাট্য চূড়ান্ত করেই আনা হয়েছিল, কিন্তু চুক্তি হওয়ার আগে যে মিটিং হয় সেখানে অনেকের মনে হয়েছে নাম ও চিত্রনাট্যে কিছু পরিবর্তন দরকার।

প্রথমবারের মতো জুটি বাঁধতে যাচ্ছেন হালের আলোচিত নায়ক রোশান ও নায়িকা প্রিয়মনি। নাম চূড়ান্ত না হওয়া সিনেমাটির সংলাপ ও চিত্রনাট্য লিখেছেন ফজলুল হক আকাশ এবং পরিচালনা করবেন মাসুদ মহিউদ্দীন ও মাহামুদ হাসান শিকদার।

বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়া করপোরেশন প্রযোজিত সিনেমায় রোশান ও প্রিয়মনি চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন মঙ্গলবার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আরটিভির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়া লিমিটেডের পরিচালক সৈয়দ আশিক রহমান, আরটিভির অনুষ্ঠান প্রধান দেওয়ান শামসুর রকিব, অভিনয়শিল্পী ও সংশ্লিষ্টরা। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সিনেমার নাম চূড়ান্ত না হওয়ার কারণ জানতে চাইলে প্রযোজনা সূত্র নিউজবাংলাকে জানায়, সিনেমার নাম ও চিত্রনাট্য চূড়ান্ত করেই আনা হয়েছিল, কিন্তু চুক্তি হওয়ার আগে যে মিটিং হয় সেখানে অনেকের মনে হয়েছে নাম ও চিত্রনাট্যে কিছু পরিবর্তন দরকার। তাই নামটি পরিবর্তন করা হবে। যখন মহরত করা হবে, তখন নামটি জানিয়ে দেয়া হবে।

পরিচালক মাসুদ মহিউদ্দীন বলেন, ‘আমি সব নির্মাণের ক্ষেত্রেই টিমওয়ার্কে বিশ্বাস করি। এর আগেও বেঙ্গলের একটি কাজ করেছি, এখন নতুন একটি চলচ্চিত্র করতে যাচ্ছি। এর চেয়ে আনন্দের আর কী হতে পারে।’

সিনেমায় একসঙ্গে রোশান-প্রিয়মনি
সিনেমায় চুক্তির মুহূর্তে সিনেমা সংশ্লিষ্টরা। ছবি: সংগৃহীত

চিত্রনায়ক রোশান বলেন, ‘এ নিয়ে বেঙ্গলের তিনটি কাজ করতে যাচ্ছি। আমি অনেক ভাগ্যবান, অল্পতেই অনেক বড় বড় মানুষের আশীর্বাদ ও ভালোবাসা পেয়েছি।’

চিত্রনায়িকা প্রিয়মনি বলেন, ‘সিনেমার গল্প শুনেই পছন্দ করেছি। এখন স্ক্রিপ্ট পড়ছি। একজন সাধারণ নারীর অসাধারণ হয়ে ওঠার গল্প এটি। সবাই মিলে যাতে খুব দ্রুত কাজটি শুরু করতে পারি, সে জন্য দোয়া ও ভালোবাসা রাখবেন।’

শিগগিরই আনুষ্ঠানিক মহরতের মাধ্যমে সিনেমাটির দৃশ্য ধারণ শুরু হবে ঢাকাসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন লোকেশনে।

শেয়ার করুন

প্রিয় পোশাকগুলো কেন বিক্রি করবেন স্বস্তিকা

প্রিয় পোশাকগুলো কেন বিক্রি করবেন স্বস্তিকা

টালিউড অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। ছবি: সংগৃহীত

স্বস্তিকা পোস্টে লেখেন, ‘‘এ বছর জন্মদিনে আমার আবদার তোমাদের কাছে। এমন কিছু আউটফিট যেগুলো আমি সিনেমায়, শুটে পরেছি, এমন কিছু জামাকাপড়, গয়নাগাটি যেগুলো আমার খুব প্রিয়। তোমরা যদি সেই আউটফিট কিনতে চাও, তাহলে ওই টাকায় আমার খুব প্রিয় কিছু ‘ভৌ ভৌ’দের শীতের জামা হবে, ট্রিটমেন্ট হবে…আরও অনেক কিছু।’’

টালিউডে বিভিন্ন ভূমিকায় অভিনয় করেছেন অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। এসব ভূমিকায় যেসব পোশাকে দর্শকদের সামনে হাজির হয়েছেন, সেগুলোর বেশ কিছু বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে এক পোস্টে পোশাক বিক্রির কথা জানান স্বস্তিকা।

‘চারপেয়ে আছে চেয়ে’ শিরোনামে একটি ছবি পোস্ট করে স্বস্তিকা লেখেন, ‘‘হ্যাপি ভৌ ভৌ টু মি...ডিসেম্বর মানেই প্রি-নিউ ইয়ারের টুনিলাইটের সঙ্গে আমার জন্মদিনের মাস। বয়স বাড়ার সুবিধে হলো অনেক কিছু ছেড়ে দেয়া যায় খুব সহজে, ভালোবেসে। ভালোবেসে আর একটা জিনিস করা যায়…আবদার।

‘‘এ বছর জন্মদিনে আমার আবদার তোমাদের কাছে। এমন কিছু আউটফিট যেগুলো আমি সিনেমায়, শুটে পরেছি, এমন কিছু জামাকাপড়, গয়নাগাটি যেগুলো আমার খুব প্রিয়। তোমরা যদি সেই আউটফিট কিনতে চাও, তাহলে ওই টাকায় আমার খুব প্রিয় কিছু ‘ভৌ ভৌ’দের শীতের জামা হবে, ট্রিটমেন্ট হবে…আরও অনেক কিছু।’’

প্রিয় পোশাকগুলো কেন বিক্রি করবেন স্বস্তিকা
ইনস্টাগ্রামে স্বস্তিকা ছবিটি পোস্ট করেছেন। ছবি: সংগৃহীত

অভিনেত্রী জানান, দেশের যেসব এনজিও কুকুর নিয়ে কাজ করে তাদের সঙ্গে কাজ করার চেষ্টা করছেন তিনি।

ডিসেম্বরের প্রথম দিন থেকেই সেসব পোশাক বিক্রি শুরু হবে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, করোনার সময়ে একটানা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অসুস্থদের জন্য চিকিৎসক, অ্যাম্বুলেন্স ও ওষুধের ব্যবস্থা করেছিলেন অভিনেত্রী।

কয়েক দিন আগেই ব্যারাকপুরের একটি মেয়ে রাস্তায় থাকা এক সারমেয়র জন্য সাহায্য চান অভিনেত্রীর কাছে। আর তা নিয়ে বিভিন্ন এনজিওর কাছেও যান স্বস্তিকা।

শেয়ার করুন

ধর্ষণচেষ্টা মামলার প্রতিবেদনে পরীমনির নারাজি

ধর্ষণচেষ্টা মামলার প্রতিবেদনে পরীমনির নারাজি

ধর্ষণচেষ্টা মামলায় তদন্ত প্রতিবেদনে নারাজি আবেদন করেছেন অভিনেত্রী পরীমনি। ছবি: নিউজবাংলা

নারাজির বিষয়ে পরীমনি বলেন, ‘এ মামলার ভিডিও ফুটেজ নাই। গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষীদের চার্জশিটে রাখা হয়নি। দুজন ম্যাজিস্ট্রেটকেও সাক্ষী থেকে বাদ দেয়া হয়েছে। যারা ভিডিওটি করেছেন এবং ঘটনার সময় যারা ছিল তাদের সাক্ষী করা হয়নি। তারা কোথায়? মামলাটি একতরফাভাবে তদন্ত হয়েছে।’

ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও তুহিন সিদ্দিকী অমিসহ তিনজনের বিরুদ্ধে অভিনেত্রী পরীমনির করা মারধর, হত্যার হুমকি এবং ধর্ষণচেষ্টার মামলার তদন্ত প্রতিবেদনে নারাজি দিয়েছেন তিনি। বলেছেন, মামলাটি একতরফাভাবে তদন্ত করা হয়েছে।

ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৯-এর বিচারক মোহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিনের আদালতে বুধবার মামলাটির অভিযোগ গ্রহণ শুনানিতে প্রতিবেদনে নারাজির আবেদন করেন পরীমনি। আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে পরে আদেশ দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিচারক।

এর আগে সকাল ১০টার দিকে আদালতে উপস্থিত হন পরীমনি। আদালতে উপস্থিত হন নাসির উদ্দিন ও অমি।

আদালত আসামিদের পূর্বশর্তে জামিনের আবেদনও গ্রহণ করেছে আদালত।

শুনানির শুরুতে আসামিপক্ষের আইনজীবী কাওছার হোসেন বলেন, ‘মামলাটি অভিযোগ গ্রহণের জন্য আছে। আসামিরা আদালতে হাজির হয়েছেন। তারা জামিনে আছেন। যেহেতু মামলাটি ট্রাইব্যুনালে এসেছে, তাই আবার তাদের পূর্বশর্তে জামিন প্রার্থনা করছি।’

তিনি বলেন, ‘বাদীপক্ষ এ মামলায় নারাজি দাখিল করবেন বলে শুনতেছি। তবে আমরা নারাজির কপি পাইনি। আমাদের একটি কপি দেয়ার জন্য অনুরোধ করছি। নারাজি দাখিল করলে আমরা এ বিষয়ে পরে আবার বলব।’

পরীমনির আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভী আসামিদের জামিন বাতিলের আবেদন করেন। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘আসামিরা বাদী, সাক্ষীদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। তারা বাইরে থাকলে মামলার বিচারে বিঘ্ন ঘটবে। বাদী ও সাক্ষীরা ঠিকমতো আদালতে এসে সাক্ষী দিতে পারবেন না। এ জন্য তাদের জামিন বাতিলের আবেদন করছি।’

এই আইনজীবী আদালতকে জানান, মামলার বাদী একজন চলচ্চিত্র নায়িকা, তার অনেক রেসট্রিকশন আছে। তার ওপর অনেক অন্যায় আচরণ করা হয়েছে। এখন আবার ভয়ভীতি প্রদর্শন করা হচ্ছে, যাতে তিনি এই মামলাটি প্রমাণে ব্যর্থ হন।

নারাজির বিষয়ে পরীমনির আইনজীবী বলেন, ‘মামলার তদন্তে অনেক বিষয় মিসিং আছে। গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষীদের চার্জশিটে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। তাই আমরা মামলাটি পুনরায় তদন্তের আবেদন করছি। আদালত চাইলে আবেদনে উল্লেখিত ধারা যোগ করেও আমলে নিতে পারেন। এ ছাড়াও আসামিদের পূর্বশর্তে জামিন আবেদন বাতিল করে তাদের জেল হাজতে প্রেরণের প্রার্থনা করেছি।’

এরপর বিচারক নারাজির বিষয়ে পরীমনির জবানবন্দি গ্রহণ করেন। জবানবন্দিতে তিনি বলেন, ‘এ মামলার ভিডিও ফুটেজ নাই। গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষীদের চার্জশিটে রাখা হয়নি। দুজন ম্যাজিস্ট্রেটকেও সাক্ষী থেকে বাদ দেয়া হয়েছে।

‘যারা ভিডিওটি করেছেন এবং ঘটনার সময় যারা ছিলেন, তাদের সাক্ষী করা হয়নি। তারা কোথায়? মামলাটি একতরফাভাবে তদন্ত হয়েছে। এ জন্য মামলাটি পুনরায় তদন্তের প্রয়োজন।’

এরপর রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী শহিদ হোসেন ঢালী বলেন, ‘মামলায় গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষীদের সাক্ষীর তালিকায় রাখা হয়নি। মামলাটি পুনরায় তদন্তের প্রয়োজন। পুলিশ ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) এর এসপি পদমর্যাদার কর্মকর্তাকে দিয়ে মামলাটি পুনরায় তদন্তের আবেদন প্রার্থনা করছি।’

এরপর আসামিপক্ষের আইনজীবী বলেন, ‘মামলাটি সঠিকভাবে তদন্ত হয়েছে। এখন আবার পুনরায় তদন্তের প্রয়োজন নেই।’

উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত দুই আসামিকে পূর্বশর্তে জামিনের আদেশ দেন। আর নারাজির বিষয়ে পরে আদেশ দেবেন বলে জানিয়ে দেন।

‘আমার না, র‌্যাপিস্টদের ছবি তুলুন’

শুনানি শেষে আদালত থেকে বের হওয়ার সময় সাংবাদিকরা পরীমনির ছবি তুলতে যান। তখন পরীমনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমার ছবি না তুলে র‌্যাপিস্টদের ছবি তুলুন।’

পরীমনির গত ৬ সেপ্টেম্বরের মামলায় নাসির, অমি ও শহিদুল আলম নামের ব্যক্তিদের অভিযুক্ত করে অভিযোগ দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা কামাল হোসেন।

গত ১৪ জুন সাভার থানায় হত্যার হুমকি এবং ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিনসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন পরীমনি। মামলার পর অভিযানে নামে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।

ওই দিনই নাসির উদ্দিনসহ পাঁচজনকে উত্তরার একটি বাসা থেকে আটক করে ডিবি পুলিশ। অভিযানে ওই বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মদ-বিয়ার ও ইয়াবা জব্দ করা হয়।

এরপর দিবাগত রাতে ডিবির গুলশান জোনাল টিমের উপপরিদর্শক (এসআই) মানিক কুমার শিকদার বাদী হয়ে রাজধানীর বিমানবন্দর থানায় আসামিদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৫ জনের বিরুদ্ধে আরও একটি মামলা করেন।

শেয়ার করুন

আদালতে পরীমনি-নাসির-অমি

আদালতে পরীমনি-নাসির-অমি

পরীমনির আইনজীবী নীলাঞ্জানা রিফাত সুরভী বিষয়টি নিশ্চিত করে নিউজবাংলাকে বলেন, ‘পরীমনি যে মামলাটি দায়ের করেছিলেন সেই মামলায় মাত্র তিনজনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দেয়া হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত আরও অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে অভিযুক্ত করা হয়নি। এ কারণে আমরা নারাজি দাখিল করেছি।’

মারধর, হুমকি ও যৌন হয়রানির অভিযোগে ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও তুহিন সিদ্দিকী অমিসহ তিনজনের করা মামলায় অভিযোগ গ্রহণের শুনানিতে অংশ নিতে আদালতে হাজির হয়েছেন অভিনেত্রী পরীমনি।

ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৯-এর বিচারক মোহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিনের আদালতে পরীমনির করা মামলার অভিযোগ গ্রহণের ওপর শুনানির কথা রয়েছে।

এ উপলক্ষে সকাল ১০টার দিকে আদালতে উপস্থিত হন পরীমনি। আদালতে উপস্থিত রয়েছেন নাসির উদ্দিন মাহমুদ, তুহিন সিদ্দিকী অমিও।

পরীমনির আইনজীবী নীলাঞ্জানা রিফাত সুরভী বিষয়টি নিশ্চিত করে নিউজবাংলাকে বলেন, ‘পরীমনি যে মামলাটি করেছিলেন সেই মামলায় মাত্র তিনজনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দেয়া হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত আরও অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে অভিযুক্ত করা হয়নি। এ কারণে আমরা নারাজি দাখিল করেছি।’

গত ৬ সেপ্টেম্বর মামলায় নাসির, অমি ও শহিদুল আলম নামের আরেক ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা কামাল হোসেন।

গত ১৪ জুন সাভার থানায় ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিনসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন চিত্রনায়িকা পরীমনি।

মামলা দায়েরের পর অভিযানে নামে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। ওই দিনই নাসির উদ্দিনসহ পাঁচজনকে উত্তরার একটি বাসা থেকে আটক করে ডিবি পুলিশ। অভিযানে ওই বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মদ-বিয়ার ও ইয়াবা জব্দ করা হয়।

এরপর দিবাগত রাত ১২টা ৫ মিনিটে ডিবির গুলশান জোনাল টিমের উপপরিদর্শক (এসআই) মানিক কুমার শিকদার বাদী হয়ে রাজধানীর বিমানবন্দর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৫ জনের বিরুদ্ধে আরও একটি মামলাটি করেন।

শেয়ার করুন

এলোমেলো ববিকে ঘিরে রহস্যের ঘনঘটা

এলোমেলো ববিকে ঘিরে রহস্যের ঘনঘটা

ময়ূরাক্ষী সিনেমার পোস্টার। ছবি: সংগৃহীত

সন্ধ্যায় রাজধানীর পাঁচ তারকা হোটেলে অনুষ্ঠিত হয় সিনেমাটির মহরত অনুষ্ঠান। সিনেমার পরিচালক রাশিদ পলাশ জানান, জানুয়ারিতে শুরু হবে সিনেমার শুটিং।

মেঝেতে পুড়ছে খবরের কাগজ। পুড়তে থাকা সেই খবরের কাগজে দেখা যাচ্ছে ববিরই ছবি। সহজেই বোঝা যাচ্ছে সংবাদের শিরোনামে তিনি।

ববি যেখানে বসে আছেন, তার পাশেই জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ অন্যান্য পুরস্কার পড়ে আছে এলোমেলোভাবে।

জানালার বাইরে সাংবাদিক। যেন সবাই খুঁজছেন ববিকে। আর ববি পরিপাটি হয়ে বসে আছেন, হাতে সিগারেট।

এভাবে ডিজাইন করা হয়েছে ববি অভিনীত নতুন সিনেমা ময়ূরাক্ষী-এর পোস্টার। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পোস্টারটি প্রকাশ করেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান।

সন্ধ্যায় রাজধানীর পাঁচ তারকা হোটেলে অনুষ্ঠিত হয় সিনেমাটির মহরত অনুষ্ঠান। সিনেমার পরিচালক রাশিদ পলাশ জানান, জানুয়ারিতে শুরু হবে সিনেমার শুটিং।

শোনা গিয়েছিল, সিনেমার গল্প গড়ে উঠেছে ২০১৯ সালে চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরে বিমান ছিনতাইয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে।

তবে মহরত অনুষ্ঠানে পরিচালক বলেন, ‘সিনেমায় একটি বিমান ছিনতাইয়ের ঘটনা আছে, কিন্তু এটি সেই ঘটনা নিয়ে নির্মিত কোনো সিনেমা নয়। এটি পুরোপুরি একটি প্রেমের গল্প।’

সিনেমার নামও পরিবর্তন হয়েছে। আগে সিনেমার নাম ময়ূরপঙ্খী থাকলেও এখন সিনেমার নাম রাখা হয়েছে ময়ূরাক্ষী। সিনেমার রহস্যময়তা বোঝাতেই এ নাম রাখা হয়েছে বলে জানান পরিচালক।

সিনেমার মূল অভিনেত্রী ববি উপস্থিত ছিলেন না আনুষ্ঠানে। কারণ জানতে চাইলে পলাশ জানান, ববি দেশের বাইরে রয়েছেন, তাই অনুষ্ঠানে আসতে পারেননি।

সিনেমায় আরও অভিনয় করছেন অভিনেত্রী শিরিন শিলা। তিনি চরিত্র নিয়ে তেমন কিছু না জানালেও বলেন, ‘চরিত্রটি পেয়ে আমি খুব খুশি। এমন সুন্দর গল্পে অভিনয় করতে পেরে নিজেকে ভাগ্যবতী মনে করছি।’

সিনেমাটি প্রযোজন করছে আজ ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড। এর চিত্রনাট্য করেছেন গোলাম রাব্বানী।

শেয়ার করুন