এবারও জামিন হলো না শাহরুখপুত্রের

player
এবারও জামিন হলো না শাহরুখপুত্রের

জামিন হলো না শাহরুখপুত্র আরিয়ান খানের। ছবি: সংগৃহীত

কারাগারেই থাকতে হচ্ছে আরিয়ানকে। তার সঙ্গে আরও দুই অভিযুক্ত আরবাজ মার্চেন্ট ও মুনমুনের জামিন আবেদনও খারিজ হয়েছে।

দফায় দফায় আবেদন করেও জামিন পাচ্ছেন না শাহরুখপুত্র আরিয়ান খান। শেষ বুধবারও শাহরুখপুত্রের জামিনের আবেদন মঞ্জুর করল না মুম্বাইয়ের বিশেষ আদালত।

ফলে কারাগারেই থাকতে হচ্ছে আরিয়ানকে। তার সঙ্গে আরও দুই অভিযুক্ত আরবাজ মার্চেন্ট ও মুনমুনের জামিন আবেদনও খারিজ হয়েছে।

বুধবার আরিয়ানের জামিন শুনানির আগে নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) কর্মকর্তারা আদালতের হাতে নতুন তথ্য তুলে দিয়েছেন। যেখানে জানা গেছে, প্রমোদতরির ওই পার্টিতে যোগ দেয়ার আগে উঠতি এক বলিউড অভিনেত্রীর সঙ্গে শাহরুখ খানের ছেলে মাদক বিষয়ে আলোচনা করেছিলেন।

গত সপ্তাহে অর্থাৎ ১৪ অক্টোবরেও আরিয়ানের জামিন আবেদন খারিজ হয়। আদালত ঘোষণা করেছিল, মামলার পরবর্তী শুনানি হবে বুধবার, ২০ অক্টোবর। সেই মতোই শুনানি হয় কিন্তু কারাগার থেকে বের হতে পারলেন না আরিয়ান।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, আরিয়ানের জন্য করা মানত এখনও ভাঙতে পারলেন না শাহরুখপত্নী গৌরী। অর্থাৎ তাদের বাড়ি ‘মান্নাত’-এর চুলায় এবারও মিষ্টি রান্না করার সুযোগ পেলেন না গৌরী খান।

আরও পড়ুন:
শাহরুখপুত্রের জেল না জামিন?
জামিন হলো না, আরিয়ানের আগামী শুনানি বুধবার
শাহরুখপুত্র গ্রেপ্তার: কড়া প্রতিবাদ রাভিনার
শাহরুখপুত্রকে বাঁচাতে মাফিয়া পাপ্পুরা: কঙ্গনা
শাহরুখপুত্রের সাদামাটা হাজতবাস

শেয়ার করুন

মন্তব্য

দক্ষিণী তারকাদের বলিউডে এসে ‘কলুষিত’ না হওয়ার পরামর্শ কঙ্গনার

দক্ষিণী তারকাদের বলিউডে এসে ‘কলুষিত’ না হওয়ার পরামর্শ কঙ্গনার

বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। ছবি: সংগৃহীত

‘কেজিএফ’ কিংবা ‘পুষ্পা’র মতো দক্ষিণী সিনেমাগুলো নিয়ে দর্শকদের মধ্যে উন্মাদনার অন্ত নেই। সেই উন্মাদনাকে হাতিয়ার করেই ফের বলিউডের সমালোচনা করলেন কঙ্গনা। এই অভিনেত্রীর কথায়, দক্ষিণী সিনেমার তারকারা বলিউডের থেকে অনেকটাই এগিয়ে। কীভাবে এগিয়ে তার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন তিনি।

বলিউডের ‘কন্ট্রোভার্সি কুইন’ খ্যাত অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত যেন বিতর্কের মধ্যমণিতে থাকতেই ভালোবাসেন। বলিউড নিয়ে আরেকবার বিষোদগার উগরে দিলেন তিনি।

এবার ভারতের দক্ষিণী সিনেমার তারকাদের বলিউডে এসে ‘কলুষিত’ না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন কঙ্গনা।

সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া দক্ষিণী সুপারস্টার আল্লু অর্জুন অভিনীত পুষ্পা: দ্য রাইস সিনেমা দেখে মুগ্ধ অভিনেত্রী।

সমসাময়িক মুক্তি পাওয়া বলিউডের সব সিনেমাকে বক্স অফিসে টেক্কা দিয়েছে পুষ্পা। সমালোচক ও দর্শকদেরও ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছে সিনেমাটি।

কেজিএফ কিংবা পুষ্পা-এর মতো দক্ষিণী সিনেমাগুলো নিয়ে দর্শকদের মধ্যে উন্মাদনার শেষ নেই। সেই উন্মাদনাকে হাতিয়ার করেই ফের বলিউডের সমালোচনা করলেন কঙ্গনা।

এই অভিনেত্রীর ভাষায়, দক্ষিণী সিনেমার তারকারা বলিউড থেকে অনেকটাই এগিয়ে। কীভাবে এগিয়ে তার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন তিনি।

দক্ষিণী তারকাদের বলিউডে এসে ‘কলুষিত’ না হওয়ার পরামর্শ কঙ্গনার
বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। ছবি: সংগৃহীত

কঙ্গনার বলেন, ‘প্রথমত, দক্ষিণী তারকারা নিজেদের সংস্কৃতির সঙ্গে আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িত। দ্বিতীয়ত, তারা নিজেদের পরিবার-পরিজনদের খুব ভালোবাসেন, পাশ্চাত্য সংস্কৃতির হাওয়া এখনও তাদের গায়ে লাগেনি। তৃতীয়ত, ওদের পেশাদারত্ব এবং প্যাশন দুটোই সমানভাবে চালাতে পারেন।’

আর সে পরিপ্রেক্ষিতেই দক্ষিণী তারকাদের কঙ্গনার পরামর্শ, ‘দয়া করে বলিউডে ঢুকে নিজেদের কলুষিত করো না।’

কেজিএফ চ্যাপ্টার-টু এবং পুষ্পার ‘ওঁ আন্তাভা’ গানটির কথা উল্লেখ করে ইনস্টাগ্রাম স্টোরি পোস্টে এসব মন্তব্য করেন তারকা এই অভিনেত্রী।

দক্ষিণী তারকাদের বলিউডে এসে ‘কলুষিত’ না হওয়ার পরামর্শ কঙ্গনার
বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। ছবি: সংগৃহীত

গত বছর বলিউডকে ‘বিষাক্ত’ আখ্যা দিয়ে এক সাক্ষাৎকারে কঙ্গনা বলেছিলেন, বলিউডের চেয়ে তামিল সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি অনেক ভালো।

শুধু তাই নয়, এর আগে বলিউডকে ‘বুলিউড’ ও ‘নোংরা নর্দমা’ বলেও মন্তব্য করেছিলেন কঙ্গনা।

আরও পড়ুন:
শাহরুখপুত্রের জেল না জামিন?
জামিন হলো না, আরিয়ানের আগামী শুনানি বুধবার
শাহরুখপুত্র গ্রেপ্তার: কড়া প্রতিবাদ রাভিনার
শাহরুখপুত্রকে বাঁচাতে মাফিয়া পাপ্পুরা: কঙ্গনা
শাহরুখপুত্রের সাদামাটা হাজতবাস

শেয়ার করুন

মিশার ইশতেহার ও জায়েদের কান্না

মিশার ইশতেহার ও জায়েদের কান্না

প্যানেল পরিচিতি পর্ব অনুষ্ঠানে মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান। ছবি: নিউজবাংলা

সিনিয়র অভিনেত্রী আনোয়ারা বলেন, “এবার কিছু বিষয় আমার ভালো লাগেনি। ‘নোট দিয়ে ভোট কেনার দিন শেষ’ এমন কথার গানের সঙ্গে শিল্পীদের নাচতে দেখেছি। এটা আমার কাছে একদমই পছন্দ হয়নি। আমরা জোকারে পরিণত হচ্ছি।”

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিরি নির্বাচন ২৮ জানুয়ারি। ২০২২-২৪ মেয়াদে সমিতির দায়িত্ব নিতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে দুটি প্যানেল। যার একটি গত দুই মেয়াদে দায়িত্বে থাকা মিশা-জায়েদ প্যানেল এবং অন্যটি ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ প্যানেল।

২৩ জানুয়ারি ছিল মিশা-জায়েদ প্যানেলের পরিচিতি পর্ব। সাধারণ ভোটারদের সামনে নিজেদের বক্তব্য তুলে ধরতেই ছিল আয়োজন।

অনুষ্ঠানে নিজেদের ইশতেহার তুলে ধরেন সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর।

তিনি বলেন, ‘আমাদের মধ্যে অনেকেরই বাড়ি-গাড়ি আছে। অনেকের আবার নেই। যাদের নেই, তাদের থাকার ব্যবস্থা করার জন্য আমরা আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আপিল করব, যেন ভূমি মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে ১০-২০ বিঘা জায়গার মধ্যে শিল্পীদের থাকার জন্য একটা ব্যবস্থা করে দেন। শিল্পী সমিতি এবার দায়িত্বে এলে এটি নিয়ে সবচেয়ে বেশি কাজ করবে।’

মিশা আরও বলেন, ‘এটা কিন্তু মিথ্যা লোভ না। সরকার এরই মধ্যে শিল্পী কল্যাণ ট্রাস্ট করে দিয়েছে। এটার জন্য খেয়ে না খেয়ে মন্ত্রণালয় পড়ে থেকেছি, বারবার বলেছি এবং সেটা প্রধানমন্ত্রী করে দিয়েছেন।’

মিশা জানান, শিল্পী সমিতির কোষাগারে ১২ লাখ টাকা আছে। এটাকে ৫০ লাখ করার লক্ষ্য তাদের।

ভোটারদের মন আর বিবেককে প্রশ্ন করে সিদ্ধান্ত নেয়ার আহ্বান জানিয়ে মিশা বলেন, ‘আমরা ঠিক বললাম না ভুল বললাম, বিগত চার বছর কী করেছি কী করিনি, তা বিবেচনা করে ভোট দেবেন। অনেকে আপনাদের আম-কলা দেখাবে, আমরা বিচি কলা সঠিকভাবে দিতে পেরেছি। আমরা ভাত দিতে পারলে ভাত দেব, পোলাওয়ের কথা বলব না।’

সমিতি থেকে কিছু শিল্পীর সদস্যপদ বাতিল হওয়ার বিষয় নিয়েও কথা বলেন মিশা। তিনি বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে আইনের জটিলতা দূর হোক। আমি ওয়াদা করছি, যারা যোগ্য তাদের ফিরিয়ে আনব, কিন্তু যারা যোগ্য লোক না, তাদের কাউকে নেয়া হবে না ভাই, এটা বলে রাখলাম। তা না হলে আমি রিজাইন করব।’

যোগ্য সদস্যকে ফিরিয়ে আনা না হলে রিজাইন করবেন বলে জানিয়েছেন অভিনেত্রী ও প্যানেলটির কার্যকরী সদস্য রোজিনাও।

আলোচনায় অভিনেত্রী মৌসুমী জানিয়েছেন, মিশা-জায়েদ প্যানেলে তার নির্বাচন করার কারণ।

মিশার ইশতেহার ও জায়েদের কান্না
প্যানেল পরিচিতি পর্বে কথা বলছেন মৌসুমী। ছবি: নিউজবাংলা

মৌসুমী বলেন, ‘আমি সব সময় আপনাদের ভালোবাসা পেয়ে এসেছি। এখন আপনাদের ভালোবাসা দিতে গেলে তো সবার হাতে হাতে গিয়ে দিতে পারব না। তাই নির্বাচন একটা প্রক্রিয়া। এ ক্ষেত্রে ডিপজল ভাই আমার গুরুজন। তার ভালোবাসা আমি উপেক্ষা করতে পারব না। সে যখন চেয়েছে, তখন আমি রাজি হয়েছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘ভেদাভেদের বিষয় তো আসেই না, এটা তো রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট নয়। সবাই ভালো উদ্দেশ্য নিয়ে এসেছে। যাকে যার ভালো লাগবে সে কেবিনেটে আসবে।’

সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান করোনার সময়ের অনেক ঘটনার কথা উল্লেখ করেন তার আলোচনায়। তবে তিনি গুরুত্ব দিয়ে কথা বলেছেন সহযোগী সদস্য হওয়া শিল্পীদের নিয়ে।

তিনি বলেন, ‘২০১৭ সালে যাদের সহযোগী করা হয়েছে তাদের সহযোগী করার জন্য আমাকে গালি দেয়া হয়, কিন্তু কেন।’

এ সময় তিনি সেই সময়ের কাগজ দেখান, যেখানে রিয়াজ, নিপুণ, রোজিনা, জায়েদ, মিশা, আলমগীর, সোহেল রানা, ফারুকের স্বাক্ষরও রয়েছে।

জায়েদ বলেন, ‘সবার সাক্ষাৎকার নেয়া হয়েছে। দেখেছি তারা কথা বলতে পারে না। তাদের কেউ সবজি ব্যবসায়ী, মজবাগারে সেলুনে কাজ করে, এমন মানুষ শিল্পীর তালিকায়। তারাও জানে না কীভাবে শিল্পী সমিতির সদস্য হয়েছে।’

মিশার ইশতেহার ও জায়েদের কান্না
আলোচনায় কাগজ দেখাচ্ছেন জায়েদ খান। ছবি: নিউজবাংলা

প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে শিল্পীদের জন্য টাকা এসেছে, সে টাকার অধিকাংশ পরিমাণ জায়েদ খান নিয়ে নিয়েছে, আর অল্প টাকা শিল্পীদের দিয়েছে, এমন কথাও শোনা যায় অনেকের মুখে।

এ বিষয়ে জায়েদ বলেন, ‘এসব মিথ্যা কথা। কারণ প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে যে টাকা এসেছে সেটা সরাসরি মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে গ্রাহকের কাছে চলে গেছে। কোনো নগদ টাকা দপ্তর থেকে আসেনি। আর আমি যদি আপনাদের টাকা খেয়ে থাকি আমার মৃত বাবা-মা যেন কষ্ট পায়।’

জায়েদ আরও বলেন, ‘এই চার বছরে ভুলত্রুটি করে থাকি ক্ষমা করে দেবেন। যদি পাশে রাখেন, জীবন দিয়ে আপনাদের সেবা করব, আর যদি লাথি দিয়ে বের করে দেন আগেই বলবেন চলে যাব, আপনাদের পাশে আর কখনও আসব না।’

সিনিয়র অভিনেত্রী আনোয়ারা বলেন, “এবার কিছু বিষয় আমার ভালো লাগেনি। ‘নোট দিয়ে ভোট কেনার দিন শেষ’ এমন কথার গানের সঙ্গে শিল্পীদের নাচতে দেখেছি। এটা আমার কাছে একদমই পছন্দ হয়নি। আমরা জোকারে পরিণত হচ্ছি।”

আরও পড়ুন:
শাহরুখপুত্রের জেল না জামিন?
জামিন হলো না, আরিয়ানের আগামী শুনানি বুধবার
শাহরুখপুত্র গ্রেপ্তার: কড়া প্রতিবাদ রাভিনার
শাহরুখপুত্রকে বাঁচাতে মাফিয়া পাপ্পুরা: কঙ্গনা
শাহরুখপুত্রের সাদামাটা হাজতবাস

শেয়ার করুন

ডিআইএফএফ-এ পুরস্কৃত দেশ-বিদেশের সিনেমা

ডিআইএফএফ-এ পুরস্কৃত দেশ-বিদেশের সিনেমা

ডিআইএফএফ-এ বিজয়ীর হাতে পুরস্কার তুলে দেন তথ্যমন্ত্রী। ছবি: সংগৃহীত

সেরা অভিনেত্রী সুশান পারভা (ইরান-কানাডার সিনেমা বোটক্স)। সেরা অভিনেতা মি. জায়সুরিয়া (ভারতীয় সিনেমা সানি)। সেরা পরিচালক সুজিত বিডারি (সিনেমা আইনা ঝায়াল কো পাতুরি)।

রোববার শেষ হয়েছে ২০তম ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। বাংলাদেশসহ ৭০টি দেশের সোয়া ২০০ চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হয় উৎসবে। ১৫ জানুয়ারি শুরু হয়ে উৎসব চলে ২৩ জানুয়ারি পর্যন্ত।

রোববার সমাপনী দিনে চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর পাশাপাশি ছিল পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

এবারের আয়োজনে সেরা শিশুতোষ চলচ্চিত্র বাদল রহমান অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে রাশিয়ার সিনেমা আফ্রিকা, এটি পরিচালনা করেছেন দারিয়া বিনেভস্কায়া।

ডিআইএফএফ-এ পুরস্কৃত দেশ-বিদেশের সিনেমা
ডিআইএফএফ-এ বিজয়ীর হাতে পুরস্কার তুলে দেন তথ্যমন্ত্রী। ছবি: সংগৃহীত

স্পেশাল অডিয়েন্স অ্যাওয়ার্ড ভারতের সিনেমা সেমখোর, অডিয়েন্স অ্যাওয়ার্ড বাংলাদেশের চন্দ্রাবতী কথালাল মোরগের ঝুটি

বাংলাদেশ প্যানারোমা বিভাগের সেরা সিনেমা আজব কারখানা, পরিচালক শবনম ফেরদৌসী।

স্পিরিচুয়াল সেকশনে সেরা পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমা চীনেরি ইয়াংজেন’স জার্নি, পরিচালক চেংজু ল্যান। সেরা তথ্যচিত্র ইরানের হলি ব্রিড, সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমা তুর্কির আনটোল্ড স্টোরি অফ ফাতেমা কায়াচি

ডিআইএফএফ-এ পুরস্কৃত দেশ-বিদেশের সিনেমা
ডিআইএফএফ-এ বিজয়ীর হাতে পুরস্কার তুলে দেন তথ্যমন্ত্রী। ছবি: সংগৃহীত

নারী চলচ্চিত্র পরিচালক বিভাগে সেরা সিনেমা ইরানের লেডি অফ দ্য সিটি। সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য সাইপ্রাস ও ফ্রান্সের আ সামার প্লেস, সেরা তথ্যচিত্র জার্মানি ও ফিনল্যান্ডের দ্য আদার সাইড অফ দ্য রিভার

এশিয়ান সিনেমা প্রতিযোগিতা বিভাগের সেরা সিনেমাটোগ্রাফার চীনের ঝাউ ওয়েনকাও। সেরা চিত্রনাট্যকার ইন্দ্রনীল রায় চৌধুরী ও সৌগত সিনহা, সিনেমা বাংলাদেশ ভারেতর মায়ার জঞ্জাল

ডিআইএফএফ-এ পুরস্কৃত দেশ-বিদেশের সিনেমা
পুরস্কার নিচ্ছেন নূরুল আলম আতিক ও এন রাশেদ চৌধুরী। ছবি: সংগৃহীত

সেরা অভিনেত্রী সুশান পারভা (ইরান-কানাডার সিনেমা বোটক্স)। সেরা অভিনেতা মি. জায়সুরিয়া (ভারতীয় সিনেমা সানি)। সেরা পরিচালক সুজিত বিডারি (সিনেমা আইনা ঝায়াল কো পাতুরি)।

ডিআইএফএফ-এ পুরস্কৃত দেশ-বিদেশের সিনেমা
ডিআইএফএফ-এ বিজয়ীর হাতে পুরস্কার তুলে দেন তথ্যমন্ত্রী। ছবি: সংগৃহীত

সেরা সনেমার পুরস্কার পেয়েছে ভারতের কোঝানগাল, এটি পরিচালনা করেছেন পি এস ভিনোথরাজ।

ডিআইএফএফ-এ পুরস্কৃত দেশ-বিদেশের সিনেমা
ডিআইএফএফ-এ স্ক্রিনপ্লে ল্যাবের পুরস্কৃতদের সঙ্গে অতিথিরা। ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে এবারই প্রথম চালু করা হয়েছে স্ক্রিনপ্লে ল্যাব। এতে সেরা হয়েছে নেপালের কিরণ পোখরেল এর চিত্রনাট্য পুতালি কো সাপ্না (ড্রিম অফ আ বাটারফ্লাই)। চিত্রনাট্যটি পাবে ৫ হাজার ইউএসডলার। বিজয়ী আরও দুটি চিত্রনাট্য হলো, দেশের তাসমিয়াহ আফরিন মৌ এর ফিয়ার-ওয়াই-টেল, পেয়েছে ৩ হাজার ডলার ও ভারতের গৌরভ মদনের চিত্রনাট্য কান্দা ভান্দা (দ্য জায়ান্ট অনিয়ন), পেয়েছে ২ হাজার ইউএস ডলার।

আরও পড়ুন:
শাহরুখপুত্রের জেল না জামিন?
জামিন হলো না, আরিয়ানের আগামী শুনানি বুধবার
শাহরুখপুত্র গ্রেপ্তার: কড়া প্রতিবাদ রাভিনার
শাহরুখপুত্রকে বাঁচাতে মাফিয়া পাপ্পুরা: কঙ্গনা
শাহরুখপুত্রের সাদামাটা হাজতবাস

শেয়ার করুন

বাবার ম্যাচে ফাঁস মেয়ের ছবি, ‘ভিরুশকা’র মিনতি

বাবার ম্যাচে ফাঁস মেয়ের ছবি, ‘ভিরুশকা’র মিনতি

মায়ের কোলে ভামিকা। ছবি: সংগৃহীত

ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে দুজন লিখেছেন একই কথা। তারা বলেন, ‘আমরা বুঝতে পেরেছি আমাদের মেয়ের ছবি গতকাল স্টেডিয়ামে ধারণ হয়েছে এবং সেটা ছড়িয়ে পড়েছে। আমরা সবাইকে বলতে চাই, আমরা হতভম্ব এবং সত্যি বুঝতে পারিনি ক্যামেরা আমাদের দিকে তাক করা ছিল।’

কেপ টাউনে রোববার সাউথ আফ্রিকার মুখোমুখি হয়েছিল ভারত ক্রিকেট দল। টেস্টের অধিনায়কত্ব ছাড়ার পর সবার নজর এখন ভিরাট কোহলির দিকে। ভালোই খেলেছেন। ২৫তম ওভারে হাফ সেঞ্চুরি করেন কোহলি।

গ্যালারিতে ছিলেন স্ত্রী অনুশকা শর্মা। স্বাভাবিকভাবেই তিনি উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। সেই সময় মায়ের কোলেই ছিল কোহলি-আনুশকার মেয়ে ভামিকা।

মায়ের পাশাপাশি বাবাকে খেলার মাঠের বড় স্ক্রিনে দেখে খুশিতে আটখানা সেও। পুরো ঘটনাই হয়েছে ক্যামেরাবন্দি। সরাসরি সম্প্রচারে ভিরুশকার মেয়েকে দেখা গেল প্রথমবারের মতো। এতে সবাই বেজায় খুশি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছবি ছড়িয়ে পড়েছে। ভামিকাকে দেখে সবার মুখেই একটাই কথা, ‘একদম ভিরাটের মতো দেখতে হয়েছে ভামিকা।'

স্টেডিয়ামে ভামিকার দেখা মেলায় অনেকে ভাবতে শুরু করেছেন, এবার বোধহয় মেয়ের মুখ না দেখানোর প্রতিজ্ঞা ভাঙল বিরুশকা।

তবে না, সেই আশা করা ভুল। কারণ সোমবার দুপুরে আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিয়েছেন ভিরাট-আনুশকা।

ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে দুজন লিখেছেন একই কথা। তারা বলেন, ‘আমরা বুঝতে পেরেছি আমাদের মেয়ের ছবি গতকাল স্টেডিয়ামে ধারণ হয়েছে এবং সেটা ছড়িয়ে পড়েছে। আমরা সবাইকে বলতে চাই, আমরা হতভম্ব এবং সত্যি বুঝতে পারিনি ক্যামেরা আমাদের দিকে তাক করা ছিল। আমাদের অবস্থান একই আছে, সবাইকে একই অনুরোধ জানাব। আমরা সত্যিই চাই ভামিকার ছবি তোলা না হোক বা সেটি প্রকাশ্যে না আনা হোক।’

গত বছর জানুয়ারিতে মেয়ের জন্মের পর পাপারাৎসিদের কাছে ভিরাট-অনুশকা অনুরোধ করে বলেছিলেন, ‘নমস্কার, এত বছর ধরে আপনারা আমাদের যে ভালোবাসা দিয়েছেন তার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। আমরা খুশি হয়ে আপনাদের সঙ্গে এই মুহূর্ত ভাগ করে নিচ্ছি। বাবা-মা হিসেবে আমাদের একটা অতি সাধারণ অনুরোধ রয়েছে আপনাদের কাছে। আমরা নিজেদের সন্তানের গোপনীয়তা বজায় রাখতে চাই, এই কাজে আপনাদের সাহায্য ও সমর্থন প্রয়োজন।’

আরও পড়ুন:
শাহরুখপুত্রের জেল না জামিন?
জামিন হলো না, আরিয়ানের আগামী শুনানি বুধবার
শাহরুখপুত্র গ্রেপ্তার: কড়া প্রতিবাদ রাভিনার
শাহরুখপুত্রকে বাঁচাতে মাফিয়া পাপ্পুরা: কঙ্গনা
শাহরুখপুত্রের সাদামাটা হাজতবাস

শেয়ার করুন

নাট্যকর্মীদের প্রতি রামেন্দুর খোলা চিঠি

নাট্যকর্মীদের প্রতি রামেন্দুর খোলা চিঠি

নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার। ছবি: সংগৃহীত

নিউজবাংলাকে রামেন্দু মজুমদার লিখেছেন, ‘এখন নাটক নয়, তথাকথিত ক্ষমতার রাজনীতিই প্রধান হয়ে উঠেছে। জাতীয় নির্বাচনের মতো ফেডারেশনের নির্বাচনে প্রার্থীরা দেশব্যাপী ঘুরে প্রচার চালান। প্রতিনিধিরা ঢাকায় এলে তাদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করেন। কেবল ভোটের আশায়। কী এমন মধু আছে ফেডারেশনে আমি বুঝতে পারি না।’

টাকা আত্মসাৎসহ নানা অভিযোগে বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কামাল বায়েজীদকে শনিবার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়।

এমন খবরে বিষ্ময় প্রকাশ করেছেন দেশের বরেণ্য নাট্য ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার। এ বিষয়ের উল্লেখ করে রোববার তিনি একটি খোলা চিঠি লিখেছেন। তা প্রকাশ পেয়েছে থিয়েটার বিষয়ক পত্রিকা ‘ক্ষ্যাপা’-এর ফেসবুক পেজে।

খোলা চিঠিতে রামেন্দু লেখেন-

প্রিয় স্বজন,

বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনকে কেন্দ্র করে বর্তমানে যা ঘটছে, তা জানতে পেরে আমি অত্যন্ত মর্মাহত। অনেকেই আমাকে টেলিফোন করে এ অবস্থার নিরসনে ভূমিকা রাখার অনুরোধ করেছেন। সেই প্রেক্ষিতে আমি সংবাদপত্রে প্রকাশ করে জনসমক্ষে আমাদের নিজেদের অনাকাঙ্ক্ষিত চেহারাটা তুলে না ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সহায়তায় আপনাদের কাছে আমার ব্যক্তিগত মতামত ব্যক্ত করছি।

দীর্ঘদিন ধরেই আমি ফেডারেশনের ব্যাপারে নির্লিপ্ত। থিয়েটার পত্রিকার সম্পাদক হিসেবে ১৯৮০ সালে আমার আহ্বানে নাট্যকর্মীরা সভায় মিলিত হয়ে ফেভারেশন গঠনে একমত হন এবং আমি প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হই। তাই সংকটকালে একটা দায়িত্ববোধ অনুভব করছি।

আমরা প্রতিষ্ঠাকালে যে ফেডারেশনের স্বপ্ন দেখেছিলাম, আজকের পরিস্থিতি আমাদের কল্পনারও অতীত ছিল। অনেক কষ্ট করে সব মত ও পথের মানুষকে ফেডারেশনের পতাকাতলে এক করে সংগঠনকে নাট্যকর্মীদের একটি বিশাল শক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে পেরেছিলাম। কোনো সরকারি আর্থিক অনুদান ছাড়া নিজেরা পরিশ্রম করে বিভিন্ন জায়গা থেকে অর্থ সংগ্রহ করে দীর্ঘদিন ফেডারেশনের কাজকর্ম চালিয়েছি। আমরা সমবয়সী হলেও একে অন্যের সিদ্ধান্ত মেনে চলেছি, অন্যের মতামতকে শ্রদ্ধা করেছি।

এখন দেখছি- নাটক নয়, তথাকথিত ক্ষমতার রাজনীতিই প্রধান হয়ে উঠেছে। জাতীয় নির্বাচনের মতো ফেডারেশনের নির্বাচনে প্রার্থীরা দেশব্যাপী ঘুরে প্রচার চালান। প্রতিনিধিরা ঢাকায় এলে তাদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করেন। কেবল ভোটের আশায়। কী এমন মধু আছে ফেডারেশনে আমি বুঝতে পারি না।

বর্তমানে ফেডারেশনের কর্তা ব্যক্তিদের এই বিরোধ জনসমক্ষে নাট্যকর্মীদের ভাবমূর্তিকে চরমভাবে কালিমালিপ্ত করেছে। এর দায় নাট্যকর্মীরা কেন নেবেন? তারা সুন্দর পরিবেশে নাটক করতে চান, নোংরা রাজনীতি চান না।

এমন অবস্থায় আমার ব্যক্তিগত মত হচ্ছে, অনির্দিষ্টকালের জন্য বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সব কর্মকাণ্ড স্থগিত করা হোক। এবং ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করে রাখা হোক। গঠনতান্ত্রিক উপায়ে কাজটি করার জন্য ফেডারেশনের একটি জরুরি সাধারণ সভা আহ্বান করে এসব সিদ্ধান্ত নিতে হবে। বর্তমান নির্বাহী ও কেন্দ্রীয় পরিষদ বাতিল করে ৭/৮ জনের একটি অ্যাডহক কমিটি করে দেয়া যেতে পারে, যারা বেশ কিছুদিন পর পরিস্থিতি শীতল হলে ফেডারেশনকে ঢেলে সাজিয়ে নতুনভাবে যাত্রা শুরু করবেন।

আবারও বলছি, এটা একান্তই আমার ব্যক্তিগত মত। সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা ফেডারেশনের সাধারণ সদস্যদের। আমরা কোনোভাবেই চাই না নাট্যকর্মীদের এমন একটি প্রতিষ্ঠান নষ্ট হয়ে যাক।

আসুন সবাই নিজ নিজ দলের নাট্যকর্মে মনোযোগ দেই। কারণ আমাদের প্রধান কাজ নাটক করা, নাটক নিয়ে রাজনীতি করা নয়। অতিমারিকালে সব সতর্কতা অবলম্বন করবেন। আপনাদের সবার মঙ্গল কামনা করি।

প্রীতি ও শুভেচ্ছান্তে,

রামেন্দু মজুমদার

আরও পড়ুন:
শাহরুখপুত্রের জেল না জামিন?
জামিন হলো না, আরিয়ানের আগামী শুনানি বুধবার
শাহরুখপুত্র গ্রেপ্তার: কড়া প্রতিবাদ রাভিনার
শাহরুখপুত্রকে বাঁচাতে মাফিয়া পাপ্পুরা: কঙ্গনা
শাহরুখপুত্রের সাদামাটা হাজতবাস

শেয়ার করুন

সিনেমা হল নির্মাণে স্বল্প সুদে ঋণ দেবে সরকার: তথ্যমন্ত্রী

সিনেমা হল নির্মাণে স্বল্প সুদে ঋণ দেবে সরকার: তথ্যমন্ত্রী

রোববার জাতীয় জাদুঘর মিলনায়তনে ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রীসহ অতিথি ও আয়োজকরা। ছবি: নিউজবাংলা

২০তম ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ভারতের ‘কুজহানগাল’ সেরা চলচ্চিত্র, ফিনল্যান্ডের ‘দ্য আদার সাইড অব দি রিভার’ সেরা প্রামাণ্যচিত্র, ফ্রান্সের ‘আ সামার প্লেস’ সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য ও নারীনির্মাতা বিভাগে ইরানের ‘সাহারবানু’ সেরা ফিচার ফিল্মের পুরস্কার পায়। দর্শক পছন্দে সেরা চলচ্চিত্র পুরস্কার জিতেছে বাংলাদেশের ‘চন্দ্রাবতী কথা’ ও ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’। আর বাংলাদেশ প্যানোরামা বিভাগে সেরা চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছে ‘আজব কারখানা’।

সারাদেশে বন্ধ হয়ে যাওয়া সিনেমা হলগুলো পুনরায় চালু, পুরনো হলগুলো সংস্কার ও আধুনিকায়ন এবং নতুন হল নির্মাণে স্বল্প সুদে ঋণ দেবে সরকার৷ এ জন্য সরকার এক হাজার কোটি টাকার তবহিল গঠন করেছে।

রোববার রাজধানীতে জাতীয় জাদুঘর মিলনায়তনে ২০তম ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এ তথ্য জানিয়েছেন।

গত ১৫ জানুয়ারি প্রায় ৭০টি দেশের ২২৫টি সিনেমা নিয়ে শুরু হওয়া এই উৎসবে জাতীয় জাদুঘর, গণগ্রন্থাগার, অলিয়ঁস ফ্রসেজসহ কয়েকটি স্থানে চলচ্চিত্র দেখানো হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিভাগে পুরস্কার বিতরণ করেন মন্ত্রী ড. হাছান।

ভারতের ‘কুজহানগাল’ সেরা চলচ্চিত্র, ফিনল্যান্ডের ‘দ্য আদার সাইড অব দি রিভার’ সেরা প্রামাণ্যচিত্র, ফ্রান্সের ‘আ সামার প্লেস’ সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য ও নারীনির্মাতা বিভাগে ইরানের ‘সাহারবানু’ সেরা ফিচার ফিল্মের পুরস্কার পায়। দর্শক পছন্দে সেরা চলচ্চিত্র পুরস্কার জিতেছে বাংলাদেশের ‘চন্দ্রাবতী কথা’ ও ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’। আর বাংলাদেশ প্যানোরামা বিভাগে সেরা চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছে ‘আজব কারখানা’।

তথ্যমন্ত্রী জানান, ‘সিনেমা হল নির্মাণ, পুরনো হল চালু কিংবা আধুনিকায়নে এমনকি মার্কেটের সঙ্গে সিনেপ্লেক্স নির্মাণেও মেট্রোপলিটন এলাকার বাইরে ৪ দশমিক ৫ শতাংশ ও মেট্রোপলিটন এলাকায় ৫ শতাংশ হারে ব্যাংককে লভ্যাংশ দিয়ে একজন উদ্যোক্তা দশ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ পাবেন।

‘এ জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এক হাজার কোটি টাকার তহবিল গঠন হয়েছে। বঙ্গবন্ধু-কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে চলচ্চিত্র শিল্প যাতে ঘুরে দাঁড়ায় এবং বাংলা চলচ্চিত্র যেন বিশ্বময় জায়গা করে নিতে পারে সে লক্ষ্যে আমরা কাজ শুরু করেছি।

‘তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় থেকে চলচ্চিত্র নির্মাণে বার্ষিক অনুদানের সংখ্যা ও পরিমাণ বাড়ানো হয়েছে। আশা করি এসব উদ্যোগ আমাদের চলচ্চিত্র শিল্পের জন্য সুদিন বয়ে আনবে।’

অনুষ্ঠানে সুন্দর দেশ, সমাজ ও পৃথিবী গড়তে চলচ্চিত্র অনন্য ভূমিকা রাখতে পারে বলে মন্তব্য করেন তথ্যমন্ত্রী। বলেন, ‘এদেশের কালজয়ী চলচ্চিত্রগুলো আমাদের স্বাধিকার আন্দোলনে, স্বাধীনতা সংগ্রাম ও স্বাধীনতা-উত্তরকালে দেশ গঠনে ভূমিকা রেখেছে। একইসঙ্গে অনেক বিষয় যা সমাজ ও সমাজপতিরা ভাবে না, সেগুলোও চলচ্চিত্রের মাধ্যমে উঠে আসে, সমাজকে পথ দেখায়।’

উৎসবের মূল আয়োজক রেইনবো ফিল্ম সোসাইটির বোর্ড সদস্য মফিদুল হকের সভাপতিত্বে ও উৎসব পরিচালক আহমেদ মুজতবা জামালের পরিচালনায় সমাপনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী ও ঢাকা ক্লাবের প্রেসিডেন্ট খন্দকার মশিউজ্জামান রোমেল।

আরও পড়ুন:
শাহরুখপুত্রের জেল না জামিন?
জামিন হলো না, আরিয়ানের আগামী শুনানি বুধবার
শাহরুখপুত্র গ্রেপ্তার: কড়া প্রতিবাদ রাভিনার
শাহরুখপুত্রকে বাঁচাতে মাফিয়া পাপ্পুরা: কঙ্গনা
শাহরুখপুত্রের সাদামাটা হাজতবাস

শেয়ার করুন

সারোগেসি: তসলিমার একের পর এক মন্তব্যের লক্ষ্য প্রিয়াঙ্কা?

সারোগেসি: তসলিমার একের পর এক মন্তব্যের লক্ষ্য প্রিয়াঙ্কা?

ধারণা করা হচ্ছে, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ও নিক জোনাস দম্পতির সারোগেট শিশু নেয়ার কারণে কঠোর সমালোচনা করে দীর্ঘ লেখা লিখেছেন তসলিমা নাসরিন।

গৃহহীন স্বজনহীন কোনো শিশুকে দত্তক নেয়ার চেয়ে সারোগেসির মাধ্যমে ধনী এবং ব্যস্ত সেলিব্রিটিরা নিজের জিনসমেত একখানা রেডিমেড শিশু চায়। মানুষের ভেতরে এই সেলফিস জিনটি, এই নার্সিসিস্টিক ইগোটি বেশ আছে। এসবের ঊর্ধ্বে উঠতে কেউ যে পারে না তা নয়, অনেকে গর্ভবতী হতে, সন্তান জন্ম দিতে সক্ষম হলেও সন্তান জন্ম না দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।’

গর্ভ ভাড়া নিয়ে সন্তানের জন্ম বা সারোগেসি নিয়ে এক উক্তি করে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছেন আলোচিত লেখক তসলিমা নাসরিন। এই সমালোচনার জবাবে তিনি আবার বলেছেন, তিনি পদ্ধতি নয় প্রথার বিরুদ্ধে।

সারোগেসির বিজ্ঞানের চমৎকার একটি আবিষ্কার উল্লেখ করে এই প্রথার কঠোর সমালোচনা করেছিলেন তসলিমা। নিজের ফেসবুক পেজে তিনি লেখেন, ‘এই প্রথার (সারোগেসি) মাধ্যমে সন্তানদানের প্রক্রিয়া ততদিন টিকে থাকবে, যতদিন সমাজে দারিদ্র্য টিকে থাকবে।’

শনিবার রাতে এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে এ মন্তব্য করেন এ লেখিকা।

ধারণা করা হচ্ছে, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ও নিক জোনাস দম্পতির সারোগেট শিশু নেয়ার কারণে এই দীর্ঘ লেখা লিখেছেন তসলিমা।

তাদের নাম উল্লেখ না করলেও সোশ্যাল মিডিয়ায় জল্পনা শুরু তারকা দম্পতিকে উদ্দেশ করেই এমন মন্তব্য তসলিমার।

তসলিমা লেখেন, ‘দারিদ্র্য নেই তো সারোগেসি নেই। দরিদ্র মেয়েদের জরায়ু টাকার বিনিময়ে নয় মাসের জন্য ভাড়া নেয় ধনীরা। ধনী মেয়েরা কিন্তু তাদের জরায়ু কাউকে ভাড়া দেবে না। কারণ, গর্ভাবস্থায় জীবনের নানা ঝুঁকি থাকে, শিশুর জন্মের সময়ও থাকে ঝুঁকি। দরিদ্র না হলে কেউ এই ঝুঁকি নেয় না।’

ধনী ও ব্যস্ত সেলিব্রেটিদের কঠোর সমালোচনা করে তিনি লেখেন, ‘গৃহহীন স্বজনহীন কোনো শিশুকে দত্তক নেয়ার চেয়ে সারোগেসির মাধ্যমে ধনী এবং ব্যস্ত সেলিব্রিটিরা নিজের জিনসমেত একখানা রেডিমেড শিশু চায়। মানুষের ভেতরে এই সেলফিস জিনটি, এই নার্সিসিস্টিক ইগোটি বেশ আছে। এসবের ঊর্ধ্বে উঠতে কেউ যে পারে না তা নয়, অনেকে গর্ভবতী হতে, সন্তান জন্ম দিতে সক্ষম হলেও সন্তান জন্ম না দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।’

টাকার বিনিময়ে নয়, ভালোবেসে যখন সারোগেট মা হবেন তখন এই পদ্ধতিকে সমর্থন করবেন উল্লেখ করে তসলিমা লেখেন, ‘সারোগেসিকে তখন মেনে নেব যখন শুধু দরিদ্র নয়, ধনী মেয়েরাও সারোগেট মা হবে, টাকার বিনিময়ে নয়, সারোগেসিকে ভালোবেসে হবে। ঠিক যেমন বোরখাকে মেনে নেব, যখন পুরুষেরা ভালোবেসে বোরখা পরবে। মেয়েদের পতিতালয়কে মেনে নেব, যখন পুরুষেরা নিজেদের পতিত-আলয় গড়ে তুলবে, মুখে মেকআপ করে রাস্তায় ত্রিভঙ্গ দাঁড়িয়ে কুড়ি-পঁচিশ টাকা পেতে নারী-খদ্দেরের জন্য অপেক্ষা করবে।

‘তা না হলে সারোগেসি, বোরখা, পতিতাবৃত্তি রয়ে যাবে নারী এবং দরিদ্রকে এক্সপ্লয়টেশানের প্রতীক হিসেবে।’

সামাজিক মাধ্যমে নেটিজেনদের নানা প্রতিক্রিয়ার পর তসলিমা আবার টুইট করেন বিষয়টি নিয়ে।

এক টুইটে তিনি লেখেন, ‘সারোগেসির মাধ্যমে তাদের রেডিমেড বাচ্চা পেলে সেই মায়েরা কেমন অনুভব করেন? যে মায়েরা বাচ্চাদের জন্ম দেয় তাদের প্রতি কি তাদের একই অনুভূতি আছে?’

পরে আবার তিনি লেখেন, ‘আমার সারোগেসি সংক্রান্ত টুইটগুলো সারোগেসি সম্পর্কে আমার বিভিন্ন মতামত। এর সঙ্গে প্রিয়াঙ্কা-নিকের কোনো সম্পর্ক নেই। আমি এই জুটিকে ভালোবাসি।’

আরও পড়ুন:
শাহরুখপুত্রের জেল না জামিন?
জামিন হলো না, আরিয়ানের আগামী শুনানি বুধবার
শাহরুখপুত্র গ্রেপ্তার: কড়া প্রতিবাদ রাভিনার
শাহরুখপুত্রকে বাঁচাতে মাফিয়া পাপ্পুরা: কঙ্গনা
শাহরুখপুত্রের সাদামাটা হাজতবাস

শেয়ার করুন