প্রসূনের ‘প্রিয় সত্যজিৎ’ সিনেমায় আহমেদ রুবেল

প্রসূনের ‘প্রিয় সত্যজিৎ’ সিনেমায় আহমেদ রুবেল

প্রিয় সত্যজিৎ সিনেমার ওয়ার্কিং পোস্টার ও অভিনেতা আহমেদ রুবেল। ছবি: সংগৃহীত

সিনেমায় বেশ কটি চরিত্র রয়েছে, যার একটিতে অভিনয় করবেন আহমেদ রুবেল। প্রসূন রহমান বলেন, ‘সিনেমায় আহমেদ রুবেলকে দেখা যাবে সত্যজিৎ রায়ের চলচ্চিত্রের দ্বারা অনুপ্রাণিত একজন বয়স্ক পরিচালকের ভূমিকায়।’

এই উপমহাদেশের অনেক চলচ্চিত্র নির্মাতার বেড়ে ওঠা, গড়ে ওঠার পেছনে সত্যজিৎ রায়ের প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ প্রভাব রয়েছে। গত ৫০ বছর ধরে যারা জীবন ঘনিষ্ঠ চলচ্চিত্র নির্মাণে আগ্রহী হয়েছেন, তাদের প্রায় বেশির ভাগেরই আদর্শ নির্মাতা সত্যজিৎ রায়।

এরই মধ্যে সত্যজিৎ রায়ের গল্প থেকে নেটফ্লিক্স ইন্ডিয়া হিন্দি ভাষায় রে নামে একটি সিরিজ নির্মাণ করে তাকে ট্রিবিউট জানিয়েছে। সত্যজিতের নিজের শহর কলকাতা থেকে নির্মিত হচ্ছে দুটি চলচ্চিত্র।

বাংলাদেশ থেকে প্রিয় সত্যজিৎ নামে একটি ট্রিবিউট ফিল্ম নির্মাণ করছেন তরুণ নির্মাতা প্রসূন রহমান। জানিয়েছেন, এটি হবে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র এবং সত্যজিতের জন্মশতবর্ষে তার প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি।

নিউজবাংলাকে প্রসূন বলেন, ‘সত্যজিৎ রায় আমাকেও প্রভাবিত করেছে, তাহলে কেন আমি তাকে নিয়ে একটি কাজ করব না। জন্মশতবার্ষিকীতে তার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতেই আমার এ কাজ।’

প্রিয় সত্যজিৎ সিনেমার গল্প ও চিত্রনাট্য করেছেন প্রসূন। এর দৃশ্যধারণ শুরু হবে চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে। আর মুক্তি দেয়া হবে সত্যজিৎ রায়ের আগামী জন্মদিনে, ২ মে।

প্রসূনের ‘প্রিয় সত্যজিৎ’ সিনেমায় আহমেদ রুবেল
প্রিয় সত্যজিৎ সিনেমার পরিচালক প্রসূন রহমান। ছবি: সংগৃহীত

সিনেমায় বেশ কটি চরিত্র রয়েছে, যার একটিতে অভিনয় করবেন আহমেদ রুবেল। প্রসূন রহমান বলেন, ‘সিনেমায় আহমেদ রুবেলকে দেখা যাবে সত্যজিৎ রায়ের চলচ্চিত্রের দ্বারা অনুপ্রাণিত একজন বয়স্ক পরিচালকের ভূমিকায়।’

সিনেমার ওয়ার্কিং একটি পোস্টার বানানো হয়েছে। সেটি ফেসবুকে পোস্ট করেছেন পরিচালক। সেই পোস্টারে ব্যবহার করা হয়েছে সত্যজিতের ছবি। পরে অফিশিয়াল পোস্টার প্রকাশ করা হবে।

প্রসূন জানান, সিনেমায় সত্যজিৎ রায় নানাভাবে আসবেন কিন্তু তার চরিত্রে কেউ অভিনয় করবেন না।

গল্পসূত্র হিসেবে জানা গেছে, এর কাহিনি তিন সময়ের তিনজন চলচ্চিত্র নির্মাতাকে নিয়ে। প্রথমজন সত্যজিৎ রায় নিজে। আর অন্য দুজন পরবর্তী দুই প্রজন্মের। প্রবীণ নির্মাতা আসিফ মাহমুদের চরিত্রে অভিনয় করবেন আহমেদ রুবেল। তবে নবীন নির্মাতা অপরাজিতা চরিত্রের অভিনয়শিল্পী এখনও চূড়ান্ত হয়নি।

সিনেমাটিতে নির্মাতা অপরাজিতার সহযোগী ফিল্ম-ক্রুদের চরিত্রে অভিনয় করবেন সত্যিকারের কলাকুশলীদের কয়েকজন। চলচ্চিত্রটি নির্মিত হচ্ছে প্রসূন রহমানের নিজস্ব প্রযোজনা সংস্থা ইমেশন ক্রিয়েটরের ব্যানারে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য

সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় জয়ার কালো ব্যাজ

সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় জয়ার কালো ব্যাজ

সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় ফেসবুকে জয়ার কালো ব্যাজ। ছবি: সংগৃহীত

জয়া ফেসবুকে লিখেছেন, ‘এই মৃত্যু উপত্যকা আমার দেশ না/ এই জল্লাদের উল্লাসমঞ্চ আমার দেশ না/ এই বিস্তীর্ণ শ্মশান আমার দেশ না/ এই রক্তস্নাত কসাইখানা আমার দেশ না।’

দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান দুর্গাপূজা কাটিয়েছেন কলকাতাতে। তার আগে তিনি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে। যারা তার ফেসবুক নিয়মিত ফলো করেন, এসব তথ্য তারা নিশ্চয়ই জানেন।

সেই সঙ্গে এটিও জানেন যে, জয়া বরাবরই দেশ-বিদেশের চলতি ইস্যু নিয়ে খুবই সচেতন এবং সে বিষয়গুলো নিয়ে নিয়মিতই লেখেন ফেসবুকে।

কিছুদিন আগেই তো ‘প্রাণবিক বন্ধু’ সম্মাননা পেয়েছেন এ অভিনেত্রী। পরিবেশ নিয়েও সোচ্চার জয়া।

অসাম্প্রদায়িকতার পক্ষেও সবসময় সরব জয়া। নিজের দেশের পাশাপাশি কলকাতাতেও তিনি আবাস গেঁড়েছেন এবং নিজের গুণে সেখানকার মানুষদের মনও জয় করে নিয়েছেন।

ঈদ-পূজা-বড়দিন সমানভাবে উদযাপন করেন জয়া। বিশেষ দিনগুলোতে থাকে তার আলাদা পরিকল্পনা। তার সাজ-সজ্জা, খাবার নিয়ে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ পায় সাক্ষাৎকার।

এই অসাম্প্রদায়িক মানুষ তার নিজ দেশে সাস্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনায় কালো ব্যাজ ধারণ করেছেন। নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টের প্রোফাইল পিকচারের পুরোটা শোকের রঙ কালো করে দিয়েছেন তিনি।

সেই সঙ্গে রংপুরের ঘটনায় অভিব্যক্তি প্রকাশ করেছেন নবারুন ভট্টাচার্যের কবিতার লাইন দিয়ে।

জয়া লিখেছেন, ‘এই মৃত্যু উপত্যকা আমার দেশ না/ এই জল্লাদের উল্লাসমঞ্চ আমার দেশ না/ এই বিস্তীর্ণ শ্মশান আমার দেশ না/ এই রক্তস্নাত কসাইখানা আমার দেশ না।’

এই লাইনগুলোর নিচে জয়া ‘রংপুর’ লিখে এবং ছবি পোস্ট করে বুঝিয়ে দিয়েছেন, কোন প্রসঙ্গে কথাগুলো বলেছেন তিনি।

শেয়ার করুন

সহনশীল হওয়ার দিন শেষ: সুবর্ণা

সহনশীল হওয়ার দিন শেষ: সুবর্ণা

সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও সংসদ সদস্য সুবর্ণা মুস্তাফা। ছবি: ফেসবুক থেকে

বাংলাদেশ ফেরত চেয়ে সুবর্ণা মুস্তাফা লেখেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমরা আপনার সৈনিক। আপনি আদেশ করেন। '৭১-এ পারিনি ২০২১-এ দেশের জন্য প্রাণ দিতেও প্রস্তুত।’

দেশে চলমান সাম্প্রদায়িক অস্থিরতা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও সংসদ সদস্য সুবর্ণা মুস্তাফা। রোববার রাতে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লেখা এক স্ট্যাটাসে তিনি জানান, সহনশীল হওয়ার দিন শেষ।

স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, ‘গত কয়েক দিন ধরে এক বিশ্রী অনুভূতির মধ্যে বসবাস করছি। গ্লানি, দুঃখ, ক্ষোভ সব কিছু মিলেমিশে একাকার।’

সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপনে যেন কালো একটা পর্দা পরে গেল বলে মনে করেন সুবর্ণা।

তিনি লেখেন, ‘৩০ লাখ শহীদ আর তিন লাখ নারীর সর্বোচ্চ ত্যাগকে অসম্মানিত হতে দেখলাম। বঙ্গবন্ধুর ধর্মনিরপেক্ষ সোনার বাংলাকে ধর্মের ধুয়াধারীরা কলুষিত করতে উদ্গ্রী‌ব।’

কিন্তু আর না, সুবর্ণা মনে করেন নতুন করে যুদ্ধ শুরু করতে হবে। দেশকে এই কুচক্রীদের হাত থেকে মুক্ত করতে হবে।

তাই তিনি লেখেন, ‘যারা ষড়যন্ত্র করে আমাদের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে চাইছে, দেশকে অস্থিতিশীল করতে চাইছে, তাদের বলছি- বারে বারে ঘুঘু তুমি খেয়ে যাও ধান, এবার ঘুঘু তোমার বধিব পরাণ।’

অপরাধীদের উদ্দেশ করে সুবর্ণা লেখেন, ‘বাংলাদেশ এখন পুরোটাই ডিজিটাল। তোমরা সবাই চিহ্নিত, তোমাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে, আইনের শাসন দিয়েই তোমরা শাস্তি পাবে। সহনশীল হওয়ার দিন শেষ।’

লেখনীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য তুলে ধরেন সুবর্ণা। লেখেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কাউকে ছাড় দেয়া হবে না, মানে কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। ধর্ম যার যার উৎসব সবার, সব ধর্মের প্রতি সমান সম্মান।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল ভেঙে পড়ার ঘটনা উল্লেখ করে সুবর্ণা লেখেন, ‘যখন জগন্নাথ হল ভেঙে পড়ল, আমি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি। হাজার হাজার ছাত্র-ছাত্রী, সাধারণ মানুষ, ডাক্তার, নার্স, সারা দিন সারা রাত সবাই একসঙ্গে উদ্ধারকাজ, রক্ত দেয়া, ওষুধ আনার কাজ করে গেছি। মানুষ হিসেবে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে।’

সেই বাংলাদেশ ফেরত চেয়ে সুবর্ণার ভাষ্য, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমরা আপনার সৈনিক। আপনি আদেশ করেন। '৭১-এ পারিনি ২০২১-এ দেশের জন্য প্রাণ দিতেও প্রস্তুত।’

শেয়ার করুন

মিথিলার বলিউড সিনেমা ‘রোহিঙ্গা’ মুক্তি নভেম্বরে

মিথিলার বলিউড সিনেমা ‘রোহিঙ্গা’ মুক্তি নভেম্বরে

আগামী ১৫ নভেম্বর মুক্তি পাচ্ছে ‘মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ ২০২০’-এ বিজয়ী তানজিয়া জামান মিথিলা অভিনীত বলিউড সিনেমা ‘রোহিঙ্গা’। ছবি: সংগৃহীত

মিথিলা নিউজবাংলাকে বলেন, ‘একজন বাংলাদেশি অভিনেত্রী হিসেবে প্রথম বলিউডে কাজ করেছি। অবশ্যই আমি বলব যে সবাই সিনেমাটি দেখুক, দেখে তাদের কেমন লাগল, ভালো-মন্দ যেটাই হোক, সেটা নিয়ে কথা বলুক।’

বাংলাদেশি মডেল ও ‘মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ ২০২০’-এ বিজয়ী তানজিয়া জামান মিথিলার অভিনীত বলিউড সিনেমা রোহিঙ্গা মুক্তি পাচ্ছে আগামী ১৫ নভেম্বর।

বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন মিথিলা নিজেই।

তিনি জানান, আগামী ১৫ নভেম্বর আন্তর্জাতিক ওটিটি প্ল্যাটফর্ম অ্যাপেল টিভিতে সিনেমাটি মুক্তি পাবে।

সিনেমাটির মুক্তির তারিখ জানাতে উচ্ছ্বসিত মিথিলা। তিনি বলেন, ‘সিনেমাটার ইস্যু তো খুব সেনসেটিভ। অনেক দৃশ্য কেটেও সেন্সর পেয়েছে। সবকিছু মিলিয়ে বলব, আমি এটা নিয়ে অনেক হ্যাপি।’

বাংলাদেশি দর্শকদের সিনেমাটি দেখার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সিনেমাটি খুবই ইমোশনাল। গল্পটা ভীষণ ভালো। সত্য ঘটনা থেকে নেয়া গল্প। একটু এদিক ওদিক করা হয়েছে। অবশ্যই সিনেমাটি দেখার অনুরোধ রইল।’

সেই সঙ্গে অভিনেত্রী যোগ করেন, ‘একজন বাংলাদেশি অভিনেত্রী হিসেবে প্রথম বলিউডে কাজ করেছি। অবশ্যই আমি বলব যে সবাই সিনেমাটি দেখুক, দেখে তাদের কেমন লাগল, ভালো-মন্দ যেটাই হোক, সেটা নিয়ে কথা বলুক।’

মিথিলার বলিউড সিনেমা ‘রোহিঙ্গা’ মুক্তি নভেম্বরে
‘রোহিঙ্গা’ সিনেমার পোস্টারে তানজিয়া জামান মিথিলা। ছবি: সংগৃহীত

একই সঙ্গে মিথিলার চাওয়া, দর্শকরা অ্যাপ্রিশিয়েট করুক, যেন পরবর্তী সময়ে আরো অভিনেতা-অভিনেত্রীরা বলিউডে গিয়ে কাজ করার অনুপ্রেরণা পান।

সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন হায়দার খান। যিনি সালমান খান অভিনীত রাধে সিনেমার সহকারী পরিচালক ছিলেন।

এ সিনেমায় কেন্দ্রীয় নারী চরিত্রে অভিনয় করেছেন মিথিলা। তার চরিত্রের নাম হুসনে আরা। তার বিপরীতে অভিনয় করছেন স্যাঙ্গে শেলট্রিম। যাকে রাধে সিনেমার অন্যতম ভিলেনের চরিত্রে দেখা গেছে।

শেয়ার করুন

প্রকাশ পেল ‘পদ্মপুরাণ’ এর গান ‘দেখলে ছবি পাগল হবি’

প্রকাশ পেল ‘পদ্মপুরাণ’ এর গান ‘দেখলে ছবি পাগল হবি’

‘দেখলে ছবি পাগল হবি’ গানটির সঙ্গে সিনেমায় কণ্ঠ মিলিয়েছেন অভিনেত্রী শম্পা রেজা। ছবি: সংগৃহীত

মুক্তির দশ দিনের মাথায় আলাদা করে ইউটিউবে প্রকাশ পেল ‘পদ্মাপুরাণ’ সিনেমার একটি গান ‘দেখলে ছবি পাগল হবি’। জালাল উদ্দীন খাঁর কথা ও সুরে এবং নির্ঝর চৌধুরীর পরিচালনায় গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন চন্দনা মজুমদার।

পদ্মা নদীর বিবর্তন আর পদ্মাপাড়ে বসবাসরত মানুষের জীবননির্ভর গল্প নিয়ে নির্মিত পদ্মাপুরাণ সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছে গত ৮ অক্টোবর। মুক্তির দ্বিতীয় সপ্তাহেও কয়েকটি প্রেক্ষাগৃহে চলছে সিনেমাটি।

মুক্তির দশ দিনের মাথায় আলাদা করে ইউটিউবে প্রকাশ পেল সিনেমাটির একটি গান ‘দেখলে ছবি পাগল হবি’।

ইউটিউব চ্যানেল লাইভ টেকে রোববার দুপুরে প্রকাশ পেয়েছে গানটি।

জালাল উদ্দীন খাঁর কথা ও সুরে এবং নির্ঝর চৌধুরীর পরিচালনায় গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন চন্দনা মজুমদার।

সিনেমায় গানটির সঙ্গে ঠোঁট মিলিয়েছেন অভিনেত্রী শম্পা রেজা।

এ সপ্তাহেও ঢাকায় স্টার সিনেপ্লেক্স, যমুনা ব্লকবাস্টার, সৈনিক ক্লাব ও চট্টগ্রামের সুগন্ধায় চলছে পদ্মাপুরাণ

পদ্মাপুরাণ চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করেছেন পরিচালক রাশিদ পলাশ। পুণ্য ফিল্মসের প্রযোজনায় নির্মিত এ সিনেমায় অভিনয় করেছেন, প্রসূন আজাদ, সাদিয়া মাহি, শম্পা রেজা, জয়রাজ, সুমিত সেনগুপ্ত, কায়েস চৌধুরী, সূচনা শিকদার, রেশমী, হেদায়েত নান্নু, আশরাফুল আশিষ, সাদিয়া তানজিনসহ অনেকে।

শেয়ার করুন

অনন্ত-বর্ষার ‘দিন- দ্য ডে’র মুক্তি ডিসেম্বরে

অনন্ত-বর্ষার ‘দিন- দ্য ডে’র মুক্তি ডিসেম্বরে

‘দিন- দ্য ডে’ সিনেমার পোস্টার উন্মোচন অনুষ্ঠানে অনন্ত জলিল ও বর্ষা (মাঝে)। ছবি: সংগৃহীত

প্রায় ১০০ কোটি টাকার বাজেটের এ সিনেমাটি বাংলাদেশ, ইরান, তুরস্ক ও আফগানিস্তানে বিভিন্ন লোকেশনে শুটিং হয়েছে। এটি পরিচালনা করছেন ইরানি নির্মাতা মুর্তজা অতাশ জমজম। অনন্ত-বর্ষা ছাড়াও এই সিনেমায় অভিনয় করেছেন ইরান ও লেবাননের বেশ কয়েকজন অভিনেতা-অভিনেত্রী।

অনন্ত জলিল ও বর্ষা অভিনীত বাংলাদেশ এবং ইরানের যৌথ প্রযোজনার সিনেমা দিন- দ্য ডে আগামী ২৪ ডিসেম্বর মুক্তি পাবে।

রাজধানীর যমুনা ফিউচার পার্কের ব্লকবাস্টার সিনেমাসে শনিবার সন্ধ্যায় সিনেমাটির পোস্টার উন্মোচন অনুষ্ঠানে মুক্তির এই দিন ঘোষণা করেন অনন্ত জলিল।

অনুষ্ঠানে অনন্ত জলিল জানান, সব ঠিক থাকলে আগামী ২৪ ডিসেম্বর সিনেমাটি বাংলাদেশসহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে একযোগে মুক্তি পাবে।

প্রায় ১০০ কোটি টাকার বাজেটের এ সিনেমাটি বাংলাদেশ, ইরান, তুরস্ক ও আফগানিস্তানে বিভিন্ন লোকেশনে শুটিং হয়েছে।

অনন্ত-বর্ষার ‘দিন- দ্য ডে’র মুক্তি ডিসেম্বরে
‘দিন- দ্য ডে’ সিনেমার পোস্টার উন্মোচন অনুষ্ঠানে অনন্ত জলিল ও বর্ষা। ছবি: সংগৃহীত

এটি পরিচালনা করছেন ইরানি নির্মাতা মুর্তজা অতাশ জমজম। অনন্ত-বর্ষা ছাড়াও এই সিনেমায় অভিনয় করেছেন ইরান ও লেবাননের বেশ কয়েকজন অভিনেতা-অভিনেত্রী।

সেই অনুষ্ঠানে অনন্ত জলিল জানান, তার আসন্ন সিনেমা নেত্রী- দ্য লিডার আগামী বছরই মুক্তি পাবে। রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে অ্যাকশনধর্মী এ মূল চরিত্রে থাকছেন বর্ষা। অনন্ত জলিল অভিনয় করবেন বর্ষার দেহরক্ষী হিসেবে।

শেয়ার করুন

এ বছর নাও হতে পারে বাংলাদেশের অস্কার যাত্রা

এ বছর নাও হতে পারে বাংলাদেশের অস্কার যাত্রা

প্রতীকী ছবি

৯৪তম অস্কার কমিটি বাংলাদেশের সমন্বয়কারী আব্দুল্লাহ আল মারুফ নিউজবাংলাকে বলেন, ‘একটি সিনেমা জমা পড়েছে ঠিক কিন্তু এ সিনেমাটিই যে অস্কারে প্রতিনিধিত্ব করবে তা নয়। কারণ অস্কার কমিটি বাংলাদেশের সদস্যরা সিনেমাটি এখনও দেখেননি। তারা সিনেমাটি দেখবেন, তারপর সিদ্ধান্ত নেবেন। যদি কমিটি মনে করেন সিনেমাটি অস্কারের দেয়া নিয়ম মানেনি তাহলে এ বছর বাংলাদেশের কোনো সিনেমাই অস্কারে যাবে না।’

৯৪তম অস্কারের বেস্ট ইন্টারন্যাশনাল ফিচার ফিল্ম (বিদেশি ভাষার চলচ্চিত্র বিভাগ) বিভাগে মনোনয়নের জন্য ৪ অক্টোবর বাংলাদেশি চলচ্চিত্র আহ্বান করে বাংলাদেশ ফেডারেশন অব ফিল্ম সোসাইটিজ।

১৪ অক্টোবর ছিল সিনেমা জমা দেয়ার শেষ দিন। অস্কার কমিটি বাংলাদেশ নিউজবাংলাকে জানিয়েছে, মাত্র একটি সিনেমাই জমা পড়েছে এবং সেটি রেহানা মরিয়ম নূর

সিনেমাটি এখনও মুক্তি পায়নি দেশের প্রেক্ষাগৃহে। নিয়ম অনুযায়ী, ডিসেম্বরে মুক্তি পাওয়া সিনেমাও অস্কারের বেস্ট ইন্টারন্যাশনাল ফিচারফিল্ম বিভাগে প্রতিযোগিতা করানোর জন্য জমা দেয়ার সুযোগ ছিল। প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির চুক্তিপত্রসহ সুযোগটি নেয় রেহানা মরিয়ম নূর সিনেমা সংশ্লিস্টরা।

৯৪তম অস্কার কমিটি বাংলাদেশের সমন্বয়কারী আব্দুল্লাহ আল মারুফ নিউজবাংলাকে জানান, নভেম্বরে রেহানা মরিয়ম নূর সিনেমাটি মুক্তি পেতে পারে। সেই চুক্তিপত্র তারা জমা দিয়েছেন। তবে মুক্তির তারিখ তিনি নিশ্চিত করে বলতে পারেননি।

রেহানা মরিয়ম নূর সিনেমাটি যে অস্কারে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবে তা এখনও চূড়ান্ত না।

এর কারণ জানিয়ে আব্দুল্লাহ আল মারুফ বলেন, ‘একটি সিনেমা জমা পড়েছে ঠিক কিন্তু এ সিনেমাটিই যে অস্কারে প্রতিনিধিত্ব করবে তা নয়। কারণ অস্কার কমিটি বাংলাদেশের সদস্যরা সিনেমাটি এখনও দেখেননি। তারা সিনেমাটি দেখবেন, তারপর সিদ্ধান্ত নেবেন। যদি কমিটি মনে করেন সিনেমাটি অস্কারের দেয়া নিয়ম মানেনি তাহলে এ বছর বাংলাদেশের কোনো সিনেমাই অস্কারে যাবে না।’

মারুফ জানান, এ সপ্তাহের মধ্যেই সিনেমাটি দেখবে কমিটি।

শেয়ার করুন

জার্মানিতে পদক জিতল অমিতাভের ‘রিকশা গার্ল’

জার্মানিতে পদক জিতল অমিতাভের ‘রিকশা গার্ল’

‘রিকশা গার্ল’ চলচ্চিত্রে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করছেন নভেরা রহমান। ছবি: সংগৃহীত

রিকশা গার্ল  সিনেমার মূল চরিত্র নভেরা রহমান। এতে তার নাম নাঈমা। সিনেমায় আরও অভিনয় করেছেন চম্পা, মোমেনা চৌধুরী, নরেশ ভূঁইয়া ও অ্যালেন শুভ্র।

জার্মানিতে ২৬তম শ্লিঙ্গেল আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে এসএলএম টপ অ্যাওয়ার্ড জিতেছে অমিতাভ রেজা চৌধুরী পরিচালিত চলচ্চিত্র রিকশা গার্ল

স্থানীয় সময় শনিবার রাত ১০টায় এ পদক ঘোষণা করা হয়।

নিউজবাংলাকে বিষয়টি জানিয়েছেন সিনেমার নির্বাহী প্রযোজক আসাদুজ্জামান সকাল।

আন্তর্জাতিক উৎসবটি ১৯৯৬ সাল থেকে শিশু-কিশোরদের জন্য নির্মিত চলচ্চিত্র থেকে বাছাই করে বিভিন্ন বিভাগে মনোনয়ন দিয়ে থাকে। জার্মানির কেমনিটজে শহরে অনুষ্ঠিত উৎসবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের চলচ্চিত্র যায়।

চলচ্চিত্রগুলোকে বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক শ্রেণিতে ভাগ করা হয়। ৭৭টি ফিচার ফিল্ম ও ১১৬টিরও বেশি শর্ট ফিল্ম বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে।

মনোনীত চলচ্চিত্রগুলোর মধ্য থেকে পেশাদার বিচারকমণ্ডলীর মাধ্যমে নির্বাচিত আন্তর্জাতিক পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র বিভাগে রিকশা গার্ল পুরস্কার পেয়েছে।

এর আগে ২২ জুলাই থেকে ‍১ আগস্ট পর্যন্ত চলা দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে অংশ নেয় সিনেমাটি।

এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের মিল ভ্যালি চলচ্চিত্র উৎসবে অংশ নিয়েছে এটি।

জার্মানিতে পদক জিতল অমিতাভের ‘রিকশা গার্ল’

সিনেমার একটি দৃশ্যে নভেরা রহমান ও নরেশ ভূঁইয়া। ছবি: সংগৃহীত

রিকশা গার্ল সিনেমার মূল চরিত্র নভেরা রহমান। এতে তার নাম নাঈমা।

সিনেমায় আরও অভিনয় করেছেন চম্পা, মোমেনা চৌধুরী, নরেশ ভূঁইয়া ও অ্যালেন শুভ্র। একটি অতিথি চরিত্রে অভিনয় করেছেন সিয়াম আহমেদ।

আয়নাবাজি নির্মাতা অমিতাভ রেজা পরিচালিত দ্বিতীয় সিনেমা রিকশা গার্ল

শেয়ার করুন