ন্যানসি-মহসীনের আংটি বদল

ন্যানসি-মহসীনের আংটি বদল

ন্যানসি-মহসীনের আংটি বদল। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা

মহসীন মেহেদী তার ফেসবুকের প্রোফাইল পিকচারে আঙুলে আংটি পরা দুটি হাতের ছবি দিয়ে রেখেছেন। ছবিটি ন্যানসি ও মহসীনের আংটি বদল করার পরের ছবি বলে নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন ন্যানসি।

দেশের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী ন্যানসি এবং গীতিকার মহসীন মেহেদী আংটি বদল করেছেন। বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন কণ্ঠশিল্পী ন্যানসি।

তিনি নিউজবাংলাকে বলেন, ‘আমাদের আংটি বদল হয়েছে পারিবারিকভাবে।’

ন্যানসি ও মহসীন দুজনেই তাদের ফেসবুকের রিলেশনশিপ স্ট্যাটাস পরিবর্তন করেছেন। ফেসবুকের রিলেশনশিপ স্ট্যাটাসে ‘এনগেজড টু’ অপশনে একে অন্যের নাম লিখেছেন তারা।

মহসীন মেহেদী তার ফেসবুকের প্রোফাইল পিকচারে আঙুলে আংটি পরা দুটি হাতের ছবি দিয়ে রেখেছেন।

ছবিটি ন্যানসি ও মহসীনের আংটি বদল করার পরের ছবি বলে নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন ন্যানসি।

মহসীন মেহেদী দেশের নামকরা সংগীত প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান অনুপম-এর চিফ অপারেটিং অফিসার (সিওও) হিসেবে কাজ করছেন।

গানও লেখেন মহসীন। তার লেখা গানে কণ্ঠও দিয়েছেন ন্যানসি। শেষ ২০২০ সালের ৩০ জুলাই ইউটিউবে প্রকাশ পেয়েছে মহসীনের লেখা ‘এমন একটা মন’ নামে ন্যানসির গাওয়া গান।

কবে বিয়ে করছেন ন্যানসি-মহসীন, এ বিষয়ে কিছু জানাননি ন্যানসি। শুধু বললেন, ‘জানতে পারবেন’।

গত ২৮ জুলাই ন্যানসি তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে আরও অনেক কথার সঙ্গে একটি লাইনে লিখেছিলেন, ‘নতুন পথে যাত্রা শুরু করলাম।’ তখন তিনি তার নতুন জীবনের কথার ইঙ্গিতই দিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন:
নতুন পথে যাত্রা শুরু করলাম: ন্যানসি
ন্যানসির কণ্ঠে প্রথম মৌলিক হিন্দি গান
পৈতৃক সম্পত্তি উদ্ধারে ন্যানসির মামলা
এবার হাবিবের সঙ্গে ন্যানসিকন্যা রোদেলা

শেয়ার করুন

মন্তব্য

সালমানের বলিউডজীবন নিয়ে ডকু সিরিজ

সালমানের বলিউডজীবন নিয়ে ডকু সিরিজ

বলিউড সুপারস্টার সালমান খান। ছবি: সংগৃহীত

সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ওটিটি প্ল্যাটফর্মের এই ডকু সিরিজে সালমানের ক্যারিয়ারের জার্নি, চড়াই-উতরাই, তার ছবির সাফল্য-ব্যর্থতা সব দিকই তুলে ধরা হবে।

বলিউড ভাইজান মানেই নতুন নতুন চমক। এই যেমন সালমানভক্তরা উত্তেজনায় ছিলেন বিগ বস সিজন ফিফটিন নিয়ে। কারণ সিজনটি উপস্থাপনা করবেন তিনি।

এবার এর চেয়েও বড় উত্তেজনা ধরা দিয়েছে সালমানভক্তদের কাছে। আর সেই বড় খবরটি হলো, সালমানের বলিউডের জার্নি এবার ফুটে উঠবে ডকু ফিচারে।

অর্থাৎ বলিউডে সালমানের শুরু, এগিয়ে যাওয়া, ফ্লপ-হিট এবং ভাইজান হয়ে ওঠার গল্প এবার পাওয়া যাবে ওটিটি প্ল্যাটফর্মে। বলিউডে ৩৩ বছর পার করেছেন সালমান খান।

সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ওটিটি প্ল্যাটফর্মের এই ডকু সিরিজে সালমানের ক্যারিয়ারের জার্নি, চড়াই-উতরাই, তার ছবির সাফল্য-ব্যর্থতা সব দিকই তুলে ধরা হবে।

ভাইজানের পরিবারের সদস্য থেকে শুরু করে যারা সালমানকে ভালোবাসেন এবং পরিচালক, প্রযোজক এবং অভিনেতাদেরও দেখা যাবে এই সিরিজে। সালমানের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা থেকে শুরু করে, তার বিপরীতে অভিষেক হয়েছে এমন অনেক অভিনয়শিল্পী এখন বিখ্যাত অভিনেতা, সেই সব গল্পই থাকবে এই ডকু ফিচারে।

সালমানের বলিউডজীবন নিয়ে ডকু সিরিজ
সিনেমায় বিভিন্ন চরিত্রে সালমান খানের লুক। ছবি: সংগৃহীত

সালমানের যেকোনো সিনেমা মানেই ১০০ কোটির ক্লাবের ব্লকবাস্টার হিট সিনেমা। ওয়েবে মুক্তি পেয়েছে তার সিনেমা রাধে, মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে অন্তিম-দ্য ফাইনাল ট্রুথ

অন্যদিকে বিগ বসের পরবর্তী সিজন শুরু হতে যাচ্ছে আগামী মাস থেকেই। গত ১১টি সিজন ধরে তিনিই এই দায়িত্ব পালন করেছেন। এবার সালমান তার পারিশ্রমিকের পরিমাণ বাড়িয়েছেন। এবার ১৪ সপ্তাহের জন্য তিনি ২৫ কোটি করে নেবেন, অর্থাৎ ৩৫০ কোটি রুপি।

আরও পড়ুন:
নতুন পথে যাত্রা শুরু করলাম: ন্যানসি
ন্যানসির কণ্ঠে প্রথম মৌলিক হিন্দি গান
পৈতৃক সম্পত্তি উদ্ধারে ন্যানসির মামলা
এবার হাবিবের সঙ্গে ন্যানসিকন্যা রোদেলা

শেয়ার করুন

ব্যক্তিস্বাধীনতায় বিশ্বাসী, তবে পরীমনি ‘উচ্ছৃঙ্খল’: সোহেল তাজ

ব্যক্তিস্বাধীনতায় বিশ্বাসী, তবে পরীমনি ‘উচ্ছৃঙ্খল’: সোহেল তাজ

সোহেল তাজের সোমবারের ফেসবুক পোস্ট (বাঁয়ে) এবং এর আগে পরীমনিকে নিয়ে দেয়া স্ট্যাটাস।

উচ্ছৃঙ্খল আচরণকে নারী বা ব্যক্তিস্বাধীনতার সঙ্গে মিলিয়ে ফেললে ‘সমস্যা’ তৈরি হয় বলে মনে করছেন রাজনীতিতে দীর্ঘদিন ধরে নিশ্চুপ সোহেল তাজ। পরীমনির নাম উল্লেখ না করে ‘কিছু সেলিব্রেটির উচ্ছৃঙ্খল আচরণ’ নিয়ে ফের প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

সিগারেট হাতে পরীমনির ছবিতে আপত্তি জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক আলোচিত-সমালোচিত সোহেল তাজ এবার নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন। নিজেকে ‘ব্যক্তিস্বাধীনতায় বিশ্বাসী’ দাবি করে তিনি বলেছেন, একজন মানুষের অধিকার আছে নিজের ইচ্ছা অনুযায়ী ব্যক্তিগত জীবনযাপনের।

তবে পরীমনির নাম উল্লেখ না করে ‘কিছু সেলিব্রেটির উচ্ছৃঙ্খল আচরণ’ নিয়ে ফের প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে সোমবার দুপুরে দেয়া এক স্ট্যাটাসে সোহেল তাজ লেখেন, ‘আমি বেক্তি (ব্যক্তি) স্বাধীনতায় বিশ্বাসী I (।) কে কি (কী) পোশাক পড়লো (পরল) বা ধূমপান করলো (করল) কি না (কিনা,) করলে এগুলো শুধু নারী স্বাধীনতাই না (,) বরং ব্যক্তিস্বাধীনতার কাতারে পরে (পড়ে,) আর তাই আমি মনে করি যে একজন মানুষের (নারী বা পুরুষ) অধিকার আছে তার নিজের পছন্দ মত (মতো) তার ব্যক্তিগত জীবন পরিচালনা করার I (।)’

তবে উচ্ছৃঙ্খল আচরণকে নারী বা ব্যক্তিস্বাধীনতার সঙ্গে মিলিয়ে ফেললে ‘সমস্যা’ তৈরি হয় বলে মনে করছেন রাজনীতিতে দীর্ঘদিন ধরে নিশ্চুপ সোহেল তাজ।

তিনি লিখেছেন, ‘সমস্যা হচ্ছে যখন আমরা উসৃঙ্খল (উচ্ছৃঙ্খল) আচরনকে (আচরণকে) নারী/ব্যক্তি স্বাধীনতার সাথে (সঙ্গে) মিলিয়ে ফেলি I (।) বাংলাদেশে যখন মাদক একটি বিরাট সমস্যা (,) যখন সোশ্যাল মিডিয়ার এডিকশন এর কারণে ছেলে মেয়েরা (ছেলে-মেয়েরা) মানুসিক ভাবে (মানসিকভাবে) আক্রান্ত হচ্ছে (ডিপ্রেশন) (,) তখন নতুন প্রজন্মের জন্য প্রয়োজন ইতিবাচক অনুপ্রেরণা (,) যা আমরা পাই অনুকরণীয় ব্যক্তিত্বদের জীবন থেকে- আর সেটা কখনোই সম্ভব হবে না যদি কিছু উসৃঙ্খল (উচ্ছৃঙ্খল) সেলিব্রিটিরা (সেলিব্রিটি) তাদের বেপরোয়া ব্যক্তি জীবনধারা তাদের সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমাদের নতুন প্রজন্মের উপর চাপিয়ে দেয় I (।)’

সোহেল তাজ মনে করেন, অনুপ্রেরণা আসে অনুকরণীয়দের কাছ থেকে। আর এ জন্যই পরীমনির ছবিটি নিয়ে তার আক্ষেপ।

আলোচিত অভিনেত্রীর নাম উল্লেখ না করে তিনি লিখেছেন, ‘আমাদের নতুন প্রজন্মের সামনে তুলে ধরতে হবে এমন ব্যক্তিত্বদের (,) যারা তাদের দৃঢ়ঢ়তা (দৃঢ়) মনোবল এবং আত্মবিশ্বাস কে (আত্মবিশ্বাসকে) কাজে লাগিয়ে সকল (সব) প্রতিকূলতা পার করে শুধু নারী অধিকারের লড়াই করেন নাই (করেননি,) বরং সকল (সব) মানুষের কল্যানে (কল্যাণে) কাজ করে গেছেন- (।) এনাদের (ওনাদের) ইতিবাচক কর্মের (কাজের) মধ্যে রেখে গেছেন নতুন প্রজন্মের জন্য অনুপ্রেরণা।’

(এখানে সোহেল তাজের ফেসবুক পোস্টের বানান হুবহু রেখে ও বাংলা একাডেমির বানান ব্র্যাকেটের ভেতর রাখা হয়েছে। এতে দেখা যায়, সোহেল তাজের পোস্টে বানান ও যতিচিহ্ন মিলিয়ে অন্তত ৩৬টি ভুল রয়েছে।)

ব্যক্তিস্বাধীনতায় বিশ্বাসী, তবে পরীমনি ‘উচ্ছৃঙ্খল’: সোহেল তাজ
সোহেল তাজের পোস্টে অসংখ্য ভুল বানান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে

এই পোস্ট দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে ফের সমালোচনার মুখে পড়েছেন সোহেল তাজ। তার স্ট্যাটাসের মূল বক্তব্য ছাপিয়ে, বানান ভুলের বিষয়টি নজরে এনেছেন নেটিজেনরা।

প্রীতিলতা গুপ্ত নামের একজন কমেন্ট করেছেন, ‘আপনিও নতুন প্রজন্মের অনুসরণীয়। বানানগুলো শুদ্ধ লিখলে শ্রদ্ধার জায়গাটুকু অটুট থাকে। বাংলা তো আমাদেরই।’

উত্তরে সোহেল তাজ লিখেছেন, ‘তাড়াহুড়া করে লেখা হয়েছে- ঠিক মতো চেক করা হয় নাই I (।) কোন বানানে ভুল আছে ইকটু (একটু) বলে দিলে ভাল (ভালো) হয়।’

সোহেল তাজের উত্তরেও দেখা যায় ভুল বানান রয়েছে।

ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনি বৃহস্পতিবার ফেসবুকে ধূমপানের ভঙ্গিমায় একটি ছবি পোস্ট করে লেখেন, সিগারেট স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

এর পরই বিষয়টির নিন্দা জানিয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন সোহেল তাজ।

তিনি লেখেন, ‘একজন সেলেব্রিটির কাছ থেকে এ রকম অশোভন আচরণ কাম্য নয়- আমাদের ছেলে মেয়েদের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে......’

এই স্ট্যাটাস নিয়ে ফেসবুকে সরব হয়ে ওঠেন নেটিজেনরা।

আরও পড়ুন:
নতুন পথে যাত্রা শুরু করলাম: ন্যানসি
ন্যানসির কণ্ঠে প্রথম মৌলিক হিন্দি গান
পৈতৃক সম্পত্তি উদ্ধারে ন্যানসির মামলা
এবার হাবিবের সঙ্গে ন্যানসিকন্যা রোদেলা

শেয়ার করুন

বোতাম খোলা প্যান্টে হাজির উরফি

বোতাম খোলা প্যান্টে হাজির উরফি

ভারতীয় মডেল-অভিনেত্রী উরফি জাভেদ। ছবি: সংগৃহীত

এবার তার নতুন ফ্যাশন আবারও আলোচনায়। রোববার একটি ভিডিও প্রকাশ হয়েছে ইনস্টাগ্রামে। এরই মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে ভিডিওটি। নেটিজেনরা বরাবরের মতো কটাক্ষ করেছেন উরফিকে।

অনেকে তাকে ভারতীয় গীতিকার জাভেদ আখতারের নাতনি ভেবেছিলেন। তখন বেশ আলোচনায় আসেন উরফি জাভেদ। পরে ভুল ধারণায় থাকা মানুষের ভুল ভাঙে।

এগুলো ছোট আলোচনা। উরফি প্রায় সব সময়ই আলোচনায় থাকেন তার ফ্যাশনের জন্য। তার নতুন ছবি মানেই নতুন চর্চা। স্বল্প বসনে আবেদনময়ী ছবি তাকে প্রায়ই টেনে তোলে অলোচনার শীর্ষে।

কিন্তু অভিনেত্রী-মডেল উরফি জাভেদ এসব নিয়ে চিন্তিত নন। সম্প্রতি ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথাই জানিয়েছেন তিনি।

পোশাক পরার ঢং নিয়ে বারবার আলোচনায় এসেছেন ‘বিগ বস ওটিটি’তে অংশ নেয়া উরফি। জড়িয়েছেন একাধিক বিতর্কে।

বোতাম খোলা প্যান্টে হাজির উরফি
বলিউড মডেল উরফি জাভেদ। ছবি: সংগৃহীত

এবার তার নতুন ফ্যাশন আবারও আলোচনায়। রোববার একটি ভিডিও প্রকাশ হয়েছে ইনস্টাগ্রামে। এরই মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে ভিডিওটি। নেটিজেনরা বরাবরের মতো কটাক্ষ করেছেন উরফিকে।

ভিডিওতে দেখা যায়, ক্রপ টপ এবং চেক প্যান্টে বিমানবন্দরে এসেছিলেন তিনি। তার সেই চেক প্যান্টের উপরের দুটি বোতাম খোলা। ভিডিও দেখে বোঝাই যাচ্ছে যে, বোতাম খুলে থাকাটা ভুল করে নয়। ফ্যাশন করতেই প্যান্টের বোতাম খুলে রেখেছেন তিনি। আর এতেই শুরু হয়েছে নতুন আলোচনা।

বোতাম খোলা প্যান্টে হাজির উরফি
জিনসের জ্যাকেটে বিমানবন্দরে উরফি (বাঁয়ে), একই রকম ফ্যাশনে অন্য ঢংয়ের ছবি। ছবি: সংগৃহীত

এর আগে বিমানবন্দরে তাকে জিনসের পোশাক পরে দেখা গিয়েছিল। সেই পোশাক নিয়েও হয় তুমুল আলোচনা। কারণ জিনসের জ্যাকেটটি এমনভাবে কাটা যে উরফির গোলাপি অন্তর্বাস স্পষ্টভাবে দেখতে পাওয়া গেছে।

সে সময় উরফি ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে বলেছিলেন, ‘বিমানবন্দরে যে পোশাক আমি পরেছিলাম, তা সাধারণ একটি স্পোর্টস ব্রা। তার উপরে জিনসের জ্যাকেট। কিন্তু সেই পোশাকের ছবি প্রকাশ্যে আসার পর এমন কথা শুরু হলো যেন আমি কাউকে খুন করেছি।’

আরও পড়ুন:
নতুন পথে যাত্রা শুরু করলাম: ন্যানসি
ন্যানসির কণ্ঠে প্রথম মৌলিক হিন্দি গান
পৈতৃক সম্পত্তি উদ্ধারে ন্যানসির মামলা
এবার হাবিবের সঙ্গে ন্যানসিকন্যা রোদেলা

শেয়ার করুন

নিজেকে গুছিয়ে নিচ্ছেন পরীমনি

নিজেকে গুছিয়ে নিচ্ছেন পরীমনি

নিজের বাসায় পরীমনি। ছবি: ফেসবুক

সোমবার সকালে অভিনেত্রী তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে কিছু ছবি শেয়ার করেছেন। ছবিগুলো তিনি পোস্ট করেছেন ‘মাই সুইট হোম’ নামের অ্যালবামে। ছবিতে ঘরের যে যে অংশ দেখা যাচ্ছে, সেগুলো সুন্দর করে গোছানো। পরীমনিকেও বেশ উচ্ছ্বসিত দেখাচ্ছে।

ঢাকাই সিনেমার আলোচিত অভিনেত্রী পরীমনি একটু একটু করে নিজেকে গুছিয়ে নিচ্ছেন। র‌্যাবের অভিযান, মাদক মামলা ও কারাভোগের পর মানসিকভাবে ভেঙে পড়া পরীমনি যেন ছন্দে ফিরছেন।

মাদক মামলায় জামিনে থাকা পরীমনি সম্প্রতি আদালতে হাজিরা দিতে গিয়ে জানিয়েছিলেন, ৪ আগস্ট তার বাসায় র‌্যাবের অভিযানের কারণে সবকিছু এলোমেলো হয়ে গেছে।

সোমবার সকালে অভিনেত্রী তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে কিছু ছবি শেয়ার করেছেন। ছবিগুলো তিনি পোস্ট করেছেন ‘মাই সুইট হোম’ নামের অ্যালবামে।

ছবিতে ঘরের যে যে অংশ দেখা যাচ্ছে, সেগুলো সুন্দর করে গোছানো। পরীমনিকেও বেশ উচ্ছ্বসিত দেখাচ্ছে।

চারটি ছবি পোস্ট করে পরীমনি সেই ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘যে জীবন যাপন করছ তাকে ভালোবাসো। যে জীবন ভালোবাসো সেই জীবন কাটাও।’

ইংরেজিতে লেখা, ‘love the life you live. live the life you love’। এই লাইনটি মূলত খ্যাতিমান জ্যামাইকান সংগীতশিল্পী বব মার্লের। পরীমনি অবশ্য ববের নাম উল্লেখ করেননি। এ বিষয়ে পরীমনির মন্তব্যও পাওয়া যায়নি।

নিজেকে গুছিয়ে নিচ্ছেন পরীমনি

পরীমনি শিগগিরই শিগগিরই লাইট-ক্যামেরার দুনিয়ায় ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ‘গুনিন’ ওয়েব সিনেমার মাধ্যমে ক্যামেরার সামনে দাঁড়াবেন তিনি। ১০ অক্টোবর থেকে শুটিং। এতে রাবেয়া চরিত্রে দেখা যাবে তাকে।

নিজেকে গুছিয়ে নিচ্ছেন পরীমনি

অক্টোবরে বায়োপিক নামে একটি সিনেমার দৃশ্যধারণের কথা আছে। অভিনয় করবেন প্রীতিলতা নামের সিনেমাতেও।

সব মিলিয়ে আগামী দিনগুলো কাজে ব্যস্ত থাকতে দেখা যাবে পরীমনিকে।

আরও পড়ুন:
নতুন পথে যাত্রা শুরু করলাম: ন্যানসি
ন্যানসির কণ্ঠে প্রথম মৌলিক হিন্দি গান
পৈতৃক সম্পত্তি উদ্ধারে ন্যানসির মামলা
এবার হাবিবের সঙ্গে ন্যানসিকন্যা রোদেলা

শেয়ার করুন

সালমানের সিনেমার গানেই তাকে স্মরণ করলেন পরীমনি

সালমানের সিনেমার গানেই তাকে স্মরণ করলেন পরীমনি

জন্মদিনে সালমান শাহকে স্মরণ পরীমনির। ছবি: সংগৃহীত

জন্মদিনে সালমান শাহকে স্মরণ করে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে একটি গানের ইউটিউব লিংক পোস্ট করেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমনি। ‘পৃথিবীতে সুখ বলে’ শিরোনামের সেই গানটি পোস্ট করে তিনি লেখেন, ‘শুভ জন্মদিন সালমান শাহ’।  

বেঁচে থাকলে আজ ৫০ বছরে পা রাখতেন বাংলা চলচ্চিত্রের ‘স্বপ্নের নায়ক’ সালমান শাহ। ১৯৭১ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর নানার বাড়ি সিলেট নগরের দাঁড়িয়াপাড়ায় তার জন্ম।

রোববার তার জন্মদিন। এ দিনে তাকে স্মরণ করে সামজিক যোগাযোগমাধ্যমে নানা রকম পোস্ট দিচ্ছেন তার ভক্ত-অনুরাগীরা। তেমনই এ তালিকা থেকে বাদ নেই তারকারাও।

সালমান শাহকে স্মরণ করে রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে একটি গানের ইউটিউব লিংক পোস্ট করেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমনি।

‘পৃথিবীতে সুখ বলে’ শিরোনামের এই গানটি ১৯৯৬ সালে মুক্তি পাওয়া সালমান শাহর সিনেমা জীবন সংসার-এর। এতে সালমানের সঙ্গে অভিনয় করেছিলেন শাবনূর।

তবে সেই গানটি নতুন করে ব্যবহার করা হয় ২০১৯ সালে মুক্তি পাওয়া পরীমনি অভিনীত আমার প্রেম আমার প্রিয়া সিনেমায়। এতে পরীমনির সঙ্গে অভিনয় করেন চিত্রনায়ক আরজু।

নিজের অভিনীত সিনেমার সেই গানটি পোস্ট করে পরীমনি লেখেন, ‘শুভ জন্মদিন সালমান শাহ।’

১৯৯৩ সালে ধুমকেতুর মতো বাংলা চলচ্চিত্রে আবির্ভাব সালমানের। প্রথম সিনেমা ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ দিয়ে জয় করে নেন দর্শকদের মন। এরপর আর পেছনে তাকাতে হয়নি তাকে। মাত্র ৪ বছরের ক্যারিয়ারে ২৭টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। তার প্রায় সব চলচ্চিত্রই সুপারহিট।

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর মারা যান সালমান শাহ। ২৫ বছর হলো নেই বাংলা চলচ্চিত্রের ক্ষণজন্মা এ তারকা। তবে আজও ভক্তদের মধ্যে বেঁচে আছেন ‘স্বপ্নের নায়ক’ হয়েই।

আরও পড়ুন:
নতুন পথে যাত্রা শুরু করলাম: ন্যানসি
ন্যানসির কণ্ঠে প্রথম মৌলিক হিন্দি গান
পৈতৃক সম্পত্তি উদ্ধারে ন্যানসির মামলা
এবার হাবিবের সঙ্গে ন্যানসিকন্যা রোদেলা

শেয়ার করুন

আজও তিনি বাংলা চলচ্চিত্রের নন্দিত মুখ

আজও তিনি বাংলা চলচ্চিত্রের নন্দিত মুখ

বেঁচে থাকলে আজ ৫০ পূর্ণ হতো সালমানের। একান্নতে পা দিতেন। কিন্তু ভক্তদের হৃদয়ের যে সালমান, তার তো মৃত্যু নেই। তিনি চিরসবুজ। অমর।

সিলেট নগরের দাঁড়িয়াপাড়া এলাকার একটি বাসার সামনে উঁকিঝুঁকি মারছেন এক তরুণ। বাসার মূল ফটক বন্ধ। ফটকের পাশেই দেয়ালে টানানো লেমিনেটিং করা কাগজে লেখা রয়েছে- ‘করোনার কারণে দর্শনার্থী প্রবেশ নিষেধ’।

এমন লেখা দেখেও তরুণটি দাঁড়িয়ে আছেন ফটকের সামনে। ফটকে শব্দ করে বাসার ভেতরের লোকদের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করছেন।

বাসাটির নাম- ‘সালমান শাহ ভবন’। যে তরুণ দাঁড়িয়ে আছেন ফটকের সামনে তার নাম আবিদুর রহমান। বাড়ি সিলেটের কানাইঘাটে। একটা কাজে সিলেট শহরে এসেছিলেন। কাজ শেষ করে প্রিয় নায়কের স্মৃতি লেগে থাকা এই বাড়িটি একবার দেখতে এসেছেন। প্রবেশ নিষিদ্ধ জেনেও ভেতরে ঢোকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

সালমান শাহ ভবনের সামনে গিয়ে রোববার দুপুরে দেখা মেলে আবিদুর রহমানের। এই দিনটি সালমান শাহর জন্মদিন।

১৯৭১ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর এই বাড়িতেই জন্ম নিয়েছিলেন বাংলা চলচ্চিত্রের চিরসবুজ নায়ক সামলান শাহ।

আবিদুর বলেন, ‘সালমান শাহ আমার প্রিয় নায়ক। তার সব ছবি আমি দেখছি। এখন পর্যন্ত তার মতো কুনু নায়ক বাংলাদেশো আইছে না। পরে যারা আইছইন সবে খালি সালমানরে নকল খরছইন। কিন্তু তার মতো অইতো পারছইন না। সালমান মারা যাওয়ার কারেণই আইজ বাংলাদেশোর সিনেমার অতো বাজে অবস্থা।’

কমর উদ্দিন চৌধুরী ও নীলা চৌধুরীর বড় ছেলের নাম ছিল শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন। চলচ্চিত্রে আসার পর তার নাম হয় সালমান শাহ।

১৯৯৩ সালে ধুমকেতুর মতো বাংলা চলচ্চিত্রে আবির্ভাব সালমানের। প্রথম ছবি সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’। প্রথম ছবিই সুপার হিট। এরপর আর পেছনে তাকাতে হয়নি তাকে। এগিয়ে চলেছেন দুর্দান্ত প্রতাপে। উপহার দিয়েছেন একের পর এক দর্শকনন্দিত ছবি। মৌসুমী ও শাবনূরের সঙ্গে জুটি গড়ে হয়েছেন বাংলার রোমান্টিক নায়ক।

তার আবির্ভাব যেমন ছিল আচমকা ও সবকিছুকে কাঁপিয়ে দিয়ে, তার প্রস্থানও তেমনই। অকস্মাৎ, অবিশ্বাস্য, সবকিছু তছনছ করে দিয়ে।

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর বিকেলে বিটিভির সংবাদের কল্যাণে দেশবাসী জানতে পারে, নিজের শোবার ঘর থেকেই উদ্ধার করা হয়েছে হার্টথ্রব এই নায়কের মরদেহ। মুহূর্তেই থমকে যায় চলচ্চিত্র প্রিয় সব মানুষ। থমকে দাঁড়ায় বাংলা চলচ্চিত্র।

কিন্তু যে নায়ক চিরকালের, যে নায়ক চিরযৌবন আর অনন্ত প্রেমের প্রতীক, তাকে কি মৃত্যু কেড়ে নিতে পারে? মৃত্যু তো তাকে বরং অমরত্ব এনে দিয়েছে। এমন আকস্মিক আর রহস্যময় মৃত্যুও বোধহয় তার অমরত্বকে পাকাপোক্ত করেছে। ফলে শারীরিক অনুপস্থিতি সত্ত্বেও তিনি ভক্তদের হৃদয়ে গভীরভাবে বেঁচে আছেন।

মৃত্যুর ২৫ বছর পেরিয়ে গেছে, অথচ এখনও সালমান শাহ এক ক্রেজের নাম। এখনও তিনি বাংলা চলচ্চিত্রের পোস্টার বয়। আর ফ্যাশন আইকন।

এখনও অনেক তরুণ, যাদের জন্ম সালমান শাহের মৃত্যুর পর তারাও এই নায়কের মতো করে মাথায় কাপড় বাঁধেন, উল্টো করে ক্যাপ পরেন, চুলে ঝুঁটি বাঁধেন আর সালমানের অনুকরণ করে কথা বলেন। সালমানের মৃত্যুরহস্য উদঘাটনের দাবিতে আজও রাস্তায় নামে অসংখ্য মানুষ।

আজও তিনি বাংলা চলচ্চিত্রের নন্দিত মুখ


মাত্র তিন বছরের চলচ্চিত্র জীবন। অভিনয় করেছেন ২৭টি ছবিতে। কিন্তু এই স্বল্প সময়েই অভিনয় দক্ষতা দিয়ে নিজেকে চিরকালের করে নিয়েছেন সালমান। জীবদ্দশায় পেয়েছেন উত্তুঙ্গস্পর্শী জনপ্রিয়তা। হয়ে উঠেছেন বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ট্রেডমার্ক।

যেমনটি বলছিলেন শাকিল আহমদ সোহাগ। রোববার দুপুরে সালমান শাহ ভবনের সামনে গিয়ে কথা হয় সোহাগের সঙ্গেও।

তিনি বলেন, ‘সালমান শাহর সময়ে কলকাতার সিনেমা থেকে বাংলাদেশের সিনেমা অনেক এগিয়ে ছিল। সেখানকার শিল্পীরা আমাদের এখানে অভিনয় করতে আসতেন। এখন তারা এগিয়ে গেছে। আমরা পিছিয়ে গেছি। কারণ সালমানের মৃত্যুর পর এমন কোনো নায়ক বাংলা চলচ্চিত্রে আসেননি যার নামে দর্শকরা সিনেমা হলে ছুটে যাবেন। যিনি হয়ে উঠবেন অসংখ্য তরুণ-তরুণীর স্বপ্নের নায়ক। সালমানের পর এ রকম কোনো স্বপ্নপুরুষ পায়নি বাংলা চলচ্চিত্র। পরবর্তী সময়ে অনেকে সালমানকে অনুকরণ করতে চেষ্টা করেছেন। কিন্তু তার মতো হতে পারেননি।’

যে বাড়িতে সালমান শাহ জন্মেছিলেন, জন্মদিনে নগরের দাঁড়িয়াপাড়া এলাকার এই বাড়িটিতে গিয়ে কথা হয় সালমানের মামা আলমগীর কুমকুমের সঙ্গে।

তিনি বলেন, ‘জন্মদিন মৃত্যুদিন ছাড়া অন্য দিনগুলোতেও এই বাড়িতে সালমানের ভক্তরা ভিড় করেন। বাড়িতে সালমানের বিভিন্ন সময়ের ছবি, তার স্মৃতিচিহ্ন, তার ব্যবহৃত জিনিসপত্র, সম্মাননা স্মারক সাজিয়ে রাখা হয়েছে। এগুলো দেখতে দূর-দূরান্ত থেকেও অনেক ভক্ত আসেন। মানুষজনের ভিড় লেগে থাকায় করোনা সংক্রমণের কারণে এখন দর্শনার্থী প্রবেশ বন্ধ রেখেছি আমরা।’

সালমানের জন্মস্থান নিয়ে অনেকে ভুল তথ্য প্রচার করছেন জানিয়ে তিনি বলেন, অনেকে প্রচার করেন সালমানের জন্ম সিলেটের জকিগঞ্জে। আসলে তা সত্য নয়। জকিগঞ্জে তাদের মূল বাড়ি। তবে সে জন্মেছে এখানে, দাঁড়িয়াপাড়ায়। মামার বাড়িতে।

চলচ্চিত্র পরিচালক আলমগীর কুমকুম বলেন, মৃত্যুর ২৫ বছর পরও যেভাবে মানুষ সালমান শাহকে ভালোবাসছে, তাকে বাঁচিয়ে রেখেছে, তাতে বোঝা যায় সালমান ছিলেন তার সময় থেকে এগিয়ে থাকা একজন মানুষ। তার অভিনয়, তার স্টাইল এখনও কেউ ছাড়িয়ে যেতে পারেনি। ফলে সালমানকে আজও সমসাময়িক মনে করেন ভক্তরা। এসবই একজন নায়ককে মহানায়ক করে তোলে। সালমান ছিলেন সত্যিকারের মহানায়ক।

বেঁচে থাকলে আজ ৫০ পূর্ণ হতো সালমানের। একান্নতে পা দিতেন। কিন্তু ভক্তদের হৃদয়ের যে সালমান, তার তো মৃত্যু নেই। তিনি চিরসবুজ। অমর।

জন্মের পঞ্চাশ আর মৃত্যুর ২৫ পেরিয়েও ভক্তদের হৃদয়ে সালমানের ২৫ বছর বয়সী ছবিই ফ্রিজশট হয়ে আছে। পঁচিশের পর আর বয়স বাড়ছে না তার।

তার নায়িকাদের বয়স বাড়ছে। তার সেই সময়ের তরুণ ভক্তরা যৌবন পেরোচ্ছে। তরুণী প্রেমিকারা মধ্যবয়সে এসে হয়তো সংসারের হিসাব মেলাতে ব্যস্ত। অথচ সালমান শাহ আটকে আছেন ২৫ বছরে। অক্ষয় যৌবন আর রোমান্টিক ইমেজ নিয়ে আজও তিনি আছেন অসংখ্য তরুণীর হৃদয়ের পুরুষ হয়ে।

আরও পড়ুন:
নতুন পথে যাত্রা শুরু করলাম: ন্যানসি
ন্যানসির কণ্ঠে প্রথম মৌলিক হিন্দি গান
পৈতৃক সম্পত্তি উদ্ধারে ন্যানসির মামলা
এবার হাবিবের সঙ্গে ন্যানসিকন্যা রোদেলা

শেয়ার করুন

ভালো থেকো সালমান: শাবনূর

ভালো থেকো সালমান: শাবনূর

৯০ দশকে ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় জুটি সালমান-শাবনূর। ছবি: সংগৃহীত

শাবনূর বলেন, ‘প্রতিবছর এই দিন কোটি ভক্তের হৃদয় আলোড়িত করে সালমান শাহ ফিরে আসেন ক্ষণিকের জন্য। অকাতর ভালোবাসার অঞ্জলি নিয়ে ফিরে যান অযুত নক্ষত্রের ভিড়ে। ভালো থেকো প্রতিদিন, সালমান শাহ, যেখানেই আছ।’

বেঁচে থাকলে আজ ৫০ বছরে পা রাখতেন বাংলা চলচ্চিত্রের ‘স্বপ্নের নায়ক’ সালমান শাহ। ১৯৭১ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর নানার বাড়ি সিলেট নগরের দাঁড়িয়া পাড়ায় তার জন্ম।

২৫ বছর হলো নেই বাংলা চলচ্চিত্রের ক্ষণজন্মা এ তারকা। তবে আজও ভক্তদের মধ্যে বেঁচে আছেন ‘স্বপ্নের নায়ক’ হয়েই।

মাত্র ৪ বছরের ক্যারিয়ারে ২৭টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন সালমান। তার মধ্যে ১৪টিতে তার নায়িকা ছিলেন শাবনূর। সেই চলচ্চিত্রের সবই সুপারহিট।

প্রিয় নায়কের জন্মবার্ষিকীতে তাকে স্মরণ করে রোববার নিজের ইউটিউব চ্যানেলে একটি ভিডিওবার্তা প্রকাশ করেন শাবনূর।

সেই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, একে একে ভেসে উঠছে সালমান আর শাবনূরের কিছু স্থিরচিত্র।

ভিডিওর ভয়েসওভারে শাবনূরকে বলতে শোনা যায়, ‘সালমান শাহ এমন একটি নাম, যার সাথে জড়িয়ে আছে একটি সোনালি সময়। অতি অল্প সময়ে নিজেকে বিলিয়ে দিয়ে, সে সময়টুকুকে অগণিত ভক্তের মাঝে বিলিয়ে দিয়ে গেছেন।

‘প্রতিবছর এই দিন কোটি ভক্তের হৃদয় আলোড়িত করে সালমান শাহ ফিরে আসেন ক্ষণিকের জন্য। অকাতর ভালোবাসার অঞ্জলি নিয়ে ফিরে যান অযুত নক্ষত্রের ভিড়ে। ভালো থেকো প্রতিদিন, সালমান শাহ, যেখানেই আছ। শাবনূর।’

ভালো থেকো সালমান: শাবনূর
১৪টি চলচ্চিত্রে জুটি ছিলেন সালমান-শাবনূর। ছবি: সংগৃহীত

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর মারা যান সালমান শাহ। ৯০ দশকে ঢাকাই চলচ্চিত্রে তুমুল জনপ্রিয়তা পেয়েছিল সালমান-শাবনূর জুটি।

আরও পড়ুন:
নতুন পথে যাত্রা শুরু করলাম: ন্যানসি
ন্যানসির কণ্ঠে প্রথম মৌলিক হিন্দি গান
পৈতৃক সম্পত্তি উদ্ধারে ন্যানসির মামলা
এবার হাবিবের সঙ্গে ন্যানসিকন্যা রোদেলা

শেয়ার করুন